শনিবার, এপ্রিল ১৭, ২০২১
বাবা-মায়ের কবরের পাশেই সমাহিত হবেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
১৪জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহকে বাবা-মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা হবে। ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর পরিবার সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। জানা যায়, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর মৃতদেহ গোপালগঞ্জে নিয়ে আসা হচ্ছে। রোববার (১৪ জুন) বাদ আসর তার গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার কেকানিয়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা হবে। এর আগে বাড়ির মসজিদ প্রাঙ্গণে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরিবারের সদস্যরা জানান, ইতোমধ্যে পারিবারিক কবরস্থানে কবর খোঁড়ার কাজ শুরু হয়েছে। দীর্ঘদিন শহরের কলেজ রোডের যে বাসায় থেকে তিনি রাজনীতি করেছেন সেই বাসায় তাকে আনা হবে না। সরাসরি ঢাকা থেকে লাশ নিয়ে গ্রামের বাড়ি কেকানিয়ায় পারিবারিক কবরস্থানে সমাহিত করা হবে। এদিকে, ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর মৃত্যুর খবরে জেলার সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিজ দলের নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের লোকজন শোক প্রকাশ করেছেন। উল্লেখ্য, শনিবার (১৩ জুন) রাত পৌনে ১২টায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ঢাকার একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। পরে রোববার সকালে তার করোনাভাইরাস পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।
দেশ একজন পরীক্ষিত রাজনীতিককে হারালো: রাষ্ট্রপতি
১৪জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহর আকস্মিক মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। তিনি রোববার এক শোক বার্তায় বলেন, শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহর মৃত্যু বাংলাদেশর রাজনীতির জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। তার মৃত্যুতে দেশ একজন পরীক্ষিত রাজনীতিককে হারালো। রাষ্ট্রপতি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ শনিবার রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
ধর্ম প্রতিমন্ত্রীকে গোপালগঞ্জে দাফন করতে চায় পরিবার
১৪জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর দাফন জন্মস্থান গোপালগঞ্জে করা হবে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। তবে বিষয়টি শেষ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করছে বলে জানানো হয় পরিবারের পক্ষ থেকে। এদিকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর সরকারি বাসভবন রাজধানীর বেইলী রোডে আত্মীয় স্বজন এবং তার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মীরা ভিড় করছেন। শনিবার (১৩ জুন) রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টায় হঠাৎই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন শেখ মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ। এরপর তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিকে রোববার সকালে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন জানান, মৃত্যুর পর তার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা নেয়া হয়। রোববার পিসিআর টেস্টে তার করোনা পজিটিভ আসে।
মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত নাসিম
১৪জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ এবং সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রোববার (১৪ জুন) বনানী কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এ সদস্য। এর আগে তার দুদফা জানাজা সম্পন্ন হয়। জানাজার পরে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা-গার্ড অব অনার দেয়া হয় মুক্তিযুদ্ধের এ সংগঠককে। পরে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং দলের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় এ লড়াকু রাজনীতিকের মরদেহে। বনানীতে দ্বিতীয় নামাজে জানাজায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের পাশাপাশি বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মরদেহ ধানমণ্ডির বাসা থেকে সোবহানবাগ জামে মসজিদে নেয়া হয়। সেখানেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত হয় তার প্রথম জানাজা। এতে পরিবারের সদস্য ছাড়াও স্থানীয় নেতা-কর্মীরা অংশ নেন। শনিবার সকাল ১১টা ১০ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন এ রাজনীতিবিদ। গত ১ জুন রক্তচাপজনিত সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তার দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। ৫ জুন ভোরে ব্রেইন স্ট্রোক করে কোমায় চলে যান সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এরই মধ্যে পরপর তিনটি কোভিড টেস্ট নেগেটিভ আসে তার। মোহাম্মদ নাসিম সিরাজগঞ্জের কাজীপুরে ১৯৪৮ সালের ২ এপ্রিল জন্ম। তরুণ বয়সেই বাবার হাত ধরে জড়িয়ে পড়েন রাজনীতিতে। ৫ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত এই নেতা আওয়ামী লীগ সরকারের স্বাস্থ্য, স্বরাষ্ট্র এবং টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ছিলেন আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারনী ফোরাম সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং ১৪ দলের মুখপাত্র।
ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
১৪জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযাদ্ধা অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন । আজ এক শোকবাণীতে তিনি বলেন, তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশের রাজনীতিতে অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছে। আওয়ামী লীগ হারালো তৃণমুল থেকে উঠে আসা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন পরীক্ষিত সৈনিককে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, শেখ মো. আব্দুল্লাহর আমৃত্যু জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশকে ধারণ করে দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ, গণতন্ত্র ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে তার অবদান চীর স্মরণীয় হয়ে থাকবে। শেখ হাসিনা তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ শনিবার রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নাল্লিাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন )।
মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শোক
১৩জুন,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র ও সাবেক মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আ স ম আবদুর রব, ড. আবদুল মঈন খান, মাহমুদুর রহমান মান্না, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ড. রেজা কিবরিয়া ও অধ্যাপক ড. নূরুল আমিন বেপারী। শনিবার (১৩ জুন) গণমাধ্যমে এক শোক বার্তায় তারা এ শোক প্রকাশ করেন। শোক বার্তায় তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধসহ বাংলাদেশের সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে মোহাম্মদ নাসিমের ভূমিকা স্মরনীয় হয়ে থাকবে। তার ইহলোক ত্যাগে আমরা গভীরভাবে শোকাভিভূত। আমরা মরহুম নাসিমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি ও শোকার্ত পরিবারবর্গ, গুণগ্রাহী এবং শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি জানাচ্ছি গভীর সমবেদনা।
নাসিমের মৃত্যুতে নওফেলের শোক
১৩জুন,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। শনিবার (১৩ জুন) শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অন্যতম রাজনৈতিক সহযোগী, জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ ক্যাপ্টেন মনসুর আলীর সুযোগ্য সন্তান, সাবেক মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রেসিডিয়াম সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক, খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির মাননীয় সভাপতি ছিলেন মোহাম্মদ নাসিম। মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান শিক্ষা উপমন্ত্রী।

জাতীয় পাতার আরো খবর