মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা
অনলাইন ডেস্ক: আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা হয়েছে। রোববার (২২ জুলাই) কুষ্টিয়ায় আদালত চত্বরে তার ওপর হামলা চালানো হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রীর ভাগনি টিউলিপ সিদ্দিক সম্পর্কে মানহানিকর বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়ায় মামলা হয়। ওই মামলায় জামিন পেতে কুষ্টিয়া আদালতে গিয়েছিলেন তিনি। সেই মামলায় আদালত আজ তাকে জামিন দিয়েছেন। আদালত এলাকা থেকে বের হওয়ার সময় তার ওপর হামলা চালানো হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আদালত মাহমুদুর রহমানের জামিন মঞ্জুর করার কিছুক্ষণের মধ্যেই তার ওপর হামলা চালানো হয়। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আগে থেকে আদালত চত্বরে অবস্থান নেন। জামিন মঞ্জুরের পর তারা মাহমুদুর রহমানকে আদালতের একটি কক্ষে অবরুদ্ধ করে ফেলেন। একপর্যায়ে সেখান থেকে বেরিয়ে তিনি নিজের গাড়িতে ওঠার চেষ্টা করেন। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে লক্ষ করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকেন। এতে একটি ইটের টুকরা লেগে রক্তাক্ত হন মাহমুদুর রহমান। পরে পুলিশ মাহমুদুর রহমানকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুলেন্সযোগে যশোর হাসপাতালে পাঠায়। আলোকিত বাংলাদেশ
চারদিনের সফরে ভারতে এরশাদ
অনলাইন ডেস্ক: ভারত সরকারের আমন্ত্রণে চারদিনের সফরে ভারত গেলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার দেলোয়ার জালালী জানান, রোববার (২২ জুলাই) সকাল ১০টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে জেট এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে করে দিল্লির উদ্দেশে তিনি ঢাকা ত্যাগ করেন। বিমানবন্দরে দলের নেতাকর্মীরা তাকে বিদায় জানান। সাবেক এ রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সফরসঙ্গী হিসেবে আছেন- পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু, সুনীল শুভ রায় ও মেজর (অব.) মো. খালেদ আখতার। আগামী ২৫ জুলাই বিকেল ৪টায় তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।
পদোন্নতিতে পেশাগত দক্ষতার ওপর প্রধানমন্ত্রীর গুরুত্বারোপ
অনলাইন ডেস্ক: সেনাবাহিনীর সদস্যদের পদোন্নতির ক্ষেত্রে অফিসারদের পেশাগত দক্ষতা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস, নেতৃত্বের গুণাবলী, শৃঙ্খলার মান, সততা, বিশ্বস্ততা, আনুগত্য ও সর্বোপরি নিযুক্তিগত উপযোগিতার ওপর গুরুত্ব দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার সকালে ঢাকা সেনানিবাসের সেনাসদর কনফারেন্স হলে ‘সেনাসদর নির্বাচনী পর্ষদ-২০১৮’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করে তিনি এ আহ্বান জানান। এর মাধ্যমে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের পদোন্নতির লক্ষ্যে পাঁচ দিনব্যাপী আয়োজিত এ পর্ষদের কার্যক্রম শুরু হলো। এ পর্ষদের মাধ্যমে লেফটেন্যান্ট কর্নেল থেকে কর্নেল এবং কর্নেল থেকে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদবিতে পদোন্নতির জন্য সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সেনাবাহিনীর সর্বোচ্চ নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দের সমন্বয়ে গঠিত এ পর্ষদের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর ভবিষ্যৎ জ্যেষ্ঠ নেতৃত্বের জন্য যোগ্য ও দক্ষ অফিসাররা সরকারের অনুমোদন সাপেক্ষে পদোন্নতি পাবেন। প্রধানমন্ত্রী সেনাসদরে পৌঁছলে তাকে স্বাগত জানান সেনাবাহনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ। এছাড়া অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তাবিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল তারিক আহমেদ সিদ্দিক (অব.), প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, প্রেসসচিব ইহসানুল করিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
মুচলেকা দিয়ে ক্ষমতায় যেতে চাই না : প্রধানমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: ২০০১ সালে গ্যাস বিক্রির মুচলেকা দিয়ে বিএনপি ক্ষমতায় এসেছিল বলে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,আমি মুচলেকা দিয়ে বাংলাদেশের সম্পদ বিক্রি করে ক্ষমতায় যেতে চাই না। শনিবার (২১ জুলাই) বিকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উত্তরণ, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ, অস্ট্রেলিয়া থেকে গ্লোবাল উইমেনস লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড অর্জন এবং ভারতের নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি-লিট ডিগ্রি পাওয়া, দেশের উন্নয়নে অনন্য ভূমিকার জন্যই প্রধানমন্ত্রীকে এ সংবর্ধনা দেয় তার দল আওয়ামী লীগ। এই সংবর্ধনা জনগণকে উৎসর্গ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ২০০৮ সালে জনগণের ভোটে ক্ষমতায় এসেছেন বলে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছি। কিন্তু ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে বিএনপি নির্বাচন ঠেকানোর আন্দোলন শুরু করে। কারণ নির্বাচন ঠেকাতে পারলে আবার অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীরা ক্ষমতায় আসবে। কিন্তু দেশের জনগণের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তারা বিএনপির জ্বালাও-পোড়াও ঠেকিয়ে আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় বসিয়েছে। দেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করেছে। আবার বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা এ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলাম। কিন্তু বিএনপি আবার মাঝপথে সেটিকে বন্ধ করে দেয়। কারণ তারা দ্বিতীয় দফায় আবার ক্ষমতায় আসে। যখনই ক্ষমতায় আসে তখনই আমাদের নেয়া উন্নয়ন প্রকল্পগুলো বন্ধ করে দেয়। শেখ হাসিনা বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে তাদের বিভিন্ন দেশের দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ১৯৭৫ সালের আগে বাঙালি ছিল বীরের জাতি। আর ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সেই বাঙালি হলো খুনি জাতি। কলকাতায় আমরা যে বাসায় ছিলাম সেখানে এক কাপড় বিক্রেতা আসতেন। তিনি আমাদের বললেন- আপনারা কীসের জাতি? যিনি আপনাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন তাকে হত্যা করল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে আমরা আমাদের সম্মান হারিয়েছি। তিনি বলেন, ১৯৭৯ সালে সুইডেনে আমার বোন রেহানা প্রথম জাতির পিতা হত্যার বিচার দাবি করে। ১৯৮০ সালে আমি লন্ডনে এক সভায় বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার দাবিসহ বাংলাদেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার দাবি জানাই। শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে জাতির পিতার হত্যার বিচার শুরু করেছি। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কাজ শুরু করেছি। কিন্তু জিয়াউর রহমান যুদ্ধাপরাধীদের ক্ষমা করে দিয়েছিল। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় সংসদের উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ গণসংবর্ধনায় দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা বক্তব্য দেন। এর আগে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে মানপত্র পাঠ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি: প্রধানমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: জাতির পিতার স্বপ্ন ছিল বাংলার জনগণ সুখে শান্তিতে থাকবে বলে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,আমার কোনো সংবর্ধনার দরকার নেই। আমি জনগণের সেবক, তাই জনগণ সুখে থাকলেই আমি খুশি। আমি জাতির পিতার স্বপ্নপূরণে কাজ করে যাচ্ছি। শনিবার (২১ জুলাই) বিকেলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ সব কথা বলেন। তাঁর জন্য আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে দেশের মানুষকে উৎসর্গ করেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার সৌভাগ্য আমি তার সন্তান হিসেবে জন্মগ্রহণ করতে পেরেছি। ভারতের আসানসোলের কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি-লিট ডিগ্রি অর্জন, মহাকাশে সফলভাবে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট পাঠানো, অস্ট্রেলিয়ার সিডনি থেকে গ্লোবাল উইমেন্স লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড অর্জন ও স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করা, চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থসহ বেশ কিছু আন্তর্জাতিক পুরস্কার পাওয়া এবং দেশের উন্নয়ন ও অর্জনে অনন্য সফলতার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এ গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার পর দেশের স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র, ভোট ও ভাতের অধিকারের জন্য লড়াই করে যারা জীবন দিয়েছেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। শেখ হাসিনা বলেন,জাতির পিতা ৯ মাসের মধ্যে জাতিকে যে সংবিধান দিয়েছিলেন সেই সংবিধানকে লঙ্ঘন করে মার্শাল ল জারি করে ক্ষমতাকে নেওয়া হয় সেই ক্যান্টনম্যান্টে। তারা ক্ষমতাকে উপভোগ করেছে। প্রতারণা করেছে জাতির সাথে। এসব অবৈধ ক্ষমতা দখলকারী উচ্ছিষ্টভোগীরা এলিট শ্রেণি হয়েছে। বিত্তশালী হয়েছে। এ দেশে বারবার ক্যু হয়েছে। স্বাধীনতার পর ১৯টা ক্যু হয়েছে এই দেশে। আর স্বাধীন বাঙালির জনগণের ক্ষমতাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে ক্যান্টনম্যান্টে।
প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনায় বন্ধ থাকবে যেসব সড়ক
অনলাইন ডেস্ক: আজ শনিবার বিকেল ৪টায় রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঐতিহাসিক গণসংবর্ধনা দেওয়া করা হবে। এ জন্য উদ্যানের আশেপাশের রাস্তায় যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে। শনিবার দুপুর ১টা থেকে অনুষ্ঠান শেষ না হওয়া পর্যন্ত শাহবাগ থেকে মৎস্য ভবন, টিএসসি থেকে দোয়েল চত্বরের রাস্তা বন্ধ থাকবে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গণসংবর্ধনা উপলক্ষে ঢাকা মহানগরী ও আশপাশের এলাকা থেকে বিভিন্ন পরিবহনযোগে ও পায়ে হেঁটে অসংখ্য নেতা-কর্মী, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, পেশাজীবী ও সাধারণ জনগণের আগমন ঘটবে। এ কারণে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আশেপাশের রাস্তায় যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে। বেলা ১টা থেকে অনুষ্ঠান শেষ না হওয়া পর্যন্ত শাহবাগ থেকে মৎস্য ভবন, টিএসসি থেকে দোয়েল চত্বরের রাস্তা বন্ধ থাকবে। তাছাড়া প্রয়োজনে বাংলামোটর, কাকরাইল চার্চ, ইউবিএল, জিরো পয়েন্ট, গোলাপশাহ মাজার, চাঁনখারপুল, বকশীবাজার, পলাশী, নীলক্ষেত, কাঁটাবন ক্রসিং দিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বিশ্ববিদ্যালয়মুখী সাধারণ গাড়িগুলোকে ডাইভারশান দেওয়া হতে পারে। ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, অনুষ্ঠান উপলক্ষে মিরপুর থেকে যে সব নেতা-কর্মী বাসে আসবেন তাদের গাড়ি মিরপুর রোড দিয়ে এসে নীলক্ষেত এলাকায় পার্ক করবে। উত্তরা, মহাখালীর দিক দিয়ে যারা আসবে তাদের গাড়ি মগবাজার-কাকরাইল চার্চ-নাইটিংগেল-ইউবিএল-জিরো পয়েন্ট-হাইকোর্ট হয়ে দোয়েল চত্বরে নামিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জিমনেশিয়ামে পার্ক করতে হবে। ফার্মগেট-সোনারগাঁও-শাহবাগ হয়ে যে সব নেতা-কর্মী বাসে আসবেন সে সকল গাড়ি টিএসসি রাইট টার্ন করে মল চত্বরে পার্ক করবে। যাত্রাবাড়ী, ওয়ারী, বংশাল দিয়ে যারা আসবেন তাদের গাড়ি জিরো পয়েন্ট, হাইকোর্ট হয়ে দোয়েল চত্বরে নামিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় জিমনেশিয়ামে পার্ক করতে হবে। লালবাগ, কামরাঙ্গীরচর থেকে আগতদের গাড়ি পলাশী-নীলক্ষেত এলাকায় পার্ক করতে বলা হয়েছে। আলোকিত বাংলাদেশ
আজ প্রধানমন্ত্রীর গণসংবর্ধনা
অনলাইন ডেস্ক: দেশের উন্নয়ন ও অর্জনে অনন্য সফলতার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আজ শনিবার বিকেল ৩টায় রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হবে। ভারতের আসানসোলের কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি-লিট ডিগ্রি অর্জন, মহাকাশে সফলভাবে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট পাঠানো, অস্ট্রেলিয়ার সিডনি থেকে গ্লোবাল উইমেন্স লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড অর্জন ও স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করায় এ গণসংবর্ধণা দেওয়া হচ্ছে। গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে সফল করতে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এ অনুষ্ঠানে তিন লক্ষাধিক লোকের সমাগম হবে বলে ধারণা করছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে রাজধানী ঢাকাসহ আশপাশের জেলার নেতা-কর্মীরা যেমন যোগদান করবেন তেমনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ যোগদান করবেন। দেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে এ গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে স্মরণীয় করে রাখতে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এজন্য সংবর্ধনাস্থলকে সাজানো হয়েছে নান্দনিকভাবে। ইংরেজি বর্ণ এল আকৃতিতে বিশাল প্যান্ডেল নির্মাণ করা হয়েছে। অনুষ্টানস্থলে ৩০ হাজার চেয়ার বসানো হয়েছে। দেশের বরেণ্য চিত্রশিল্পী হাশেম খানের তত্ত্বাবধানে আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১৬টি ছবি নিয়ে আয়োজন করা হবে চিত্র প্রদর্শনীর। এ প্রদর্শনীতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ছবিসহ থাকবে তার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে লেখা বইসমূহ। এছাড়াও প্রদর্শনীতিতে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও বঙ্গবন্ধুর কারাগারের রোজনামচা বই দুটিও স্থান পাবে। সংবর্ধনাস্থলের বাইরেও ব্যাপকভাবে সাজানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে সংবর্ধনাস্থলে যে সড়ক দিয়ে আসবেন সে সড়কগুলোতে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন ও অর্জনের ছবি সংবলিত পোস্টার-ফেস্টুন লাগানো হয়েছে। সরেজমিনে দেখা যায়, পুরো সোহরাওয়ার্দী উদ্যান আলোকসজ্জা করা হয়েছে। দলীয় নেতা-কর্মীদের পদভারে পুরো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এক উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। মৎস্য ভবনের সামনে গণসংবর্ধনাস্থলের প্রবেশমুখে বিশাল একটি তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ সভাপতিমন্ডলীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের জাতীয় নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন। মঞ্চে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র এবং প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। বিকেল ৩টা থেকে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠান আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। অনুষ্ঠানের শুরুতে বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্যসংবলিত ৩০ মিনিটের একটি পরিবেশনা থাকবে। আওয়ামী লীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল সংবাদ মাধ্যমকে জানান, বিকেল ৩টায় আওয়ামী লীগের গণসংবর্ধনা শুরু হলেও দুপুর বারোটা থেকে লোকজন আসা শুরু করবে। দুপুর ১২টা থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হবে। দেশের বরেণ্য শিল্পীরা এতে সংগীত পরিবেশন করবেন। তিনি জানান, গণসংবর্ধনায় আসার জন্য ইতোমধ্যে সব রাজনৈতিক দলের নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সব শ্রেণি-পেশার মানুষ এ গণসংবর্ধনায় যোগদান করবেন। এ সভায় আওয়ামী লীগের মন্ত্রীপরিষদের সদস্যরা নিজ নিজ মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন ও অর্জনের চিত্র তুলে ধরে বক্তব্য রাখবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। এ গণসংবর্ধনা আগামী জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি করবে বলে আশা প্রকাশ করছেন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।
পাঁচ জেলায় বন্দুকযুদ্ধ : নিহত ৪
অনলাইন ডেস্ক: কুষ্টিয়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, দিনাজপুর ও কক্সবাজারে বন্দুকযুদ্ধে ৪ জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা সবাই মাদক ব্যবসায়ী বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া লালমনিরহাটে মাদক পাচারের সময় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। কুষ্টিয়া কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শামসুদ্দিন শ্যাম (৩৮) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৫শ পিস ইয়াবা, একটি ওয়ান শুটার গান, ২ রাউন্ড গুলি ও ২টি গুলির খোসা উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় পুলিশের তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ভেড়ামারা বাকাপুলের কাছে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ভেড়ামারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, রাত ৩টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর আসে ভেড়ামারা বাঁকাপুল চরদামুকদিয়া এলাকায় একদল মাদক ব্যবসায়ী মাদক কেনাবেচা করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি টিম সেখানে অবস্থান নেয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের ওপর গুলি বর্ষণ করে। এতে পুলিশও পাল্টা জবাব দিলে উভয়ের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় শ্যাম নামে এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ভেড়ামারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি আরও জানান, রাতেই মরদেহ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসা হয়। নিহত মাদক ব্যবসায়ী শ্যাম ভেড়ামারা ক্ষেমিরদিয়াড় এলাকার মৃত তোবারক মিয়ার ছেলে। তার বিরুদ্ধে ভেড়ামারা থানায় ৮টি মাদকের মামলা রয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মোল্লান এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তি মাদক ব্যবসায়ী বলে দাবি করেছে র‌্যাব। র‌্যাব-৫ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের ডেপুটি কমান্ডার আবু খায়ের জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে মাদকবিরোধী অভিযানে যায় র্যাবের একটি দল। মোল্লান এলাকায় পৌঁছলে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে মাদক ব্যবসায়ীরা। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় কয়েকজন মাদকব্যবসায়ী পালিয়ে গেলেও একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। দিনাজপুর দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলিতে আব্দুল করিম নামে একজন নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। পার্বতীপুর থানার ওসি হাবিবুল হক প্রধান বলেন, শুক্রবার রাত ৩টার দিকে উপজেলার বেলাইচণ্ডী ইউনিয়নের বার্নিরহাট এলাকায় গোলাগুলির খবর আসে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আব্দুল করিম নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয়। আব্দুল করিমের কাছে থাকা এক রাউন্ড গুলিসহ একটি ওয়ান শুটারগান ও বেশ কিছু ইয়াবা ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। কক্সবাজার কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায় দু’দল মাদক ব্যবসায়ীর সংঘর্ষে একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিহত মোহাম্মদ ইসমাঈল (৩৮) চকরিয়া পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কোচপাড়ার আব্দুস সালামের ছেলে। চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, শনিবার ভোরের দিকে উপজেলার লামা-আলীকদম সড়কের পাহাড়ি এলাকায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় গুলিতে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী নিহত হন। তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে চকরিয়াসহ বিভিন্ন থানায় মামলা রয়েছে। লালমনিরহাট লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রবিউল ইসলাম (৪২) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এতে এক পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছেন। আহত মাদক ব্যবসায়ীকে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার সিংগিমারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার রবিউল বগুড়ার ধাওয়া ফিকশান সোনারপাড়া এলাকার বাসিন্দা। পুলিশ সূত্র জানায়, শুক্রবার রাতে মাদক ব্যবসায়ী রবিউলসহ একটি দল মাদকের চালান পার করছেন, এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার সিংগিমারী এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা গুলি চালালে আত্মরক্ষার্থে পুলিশও দুই রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এতে রবিউল দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ হন। ঘটনাস্থল থেকে ২৫ কেজি গাঁজা জব্দ করা হয়। হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, এ ঘটনায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে। ওয়ান নিউজ
কমেছে স্বর্ণের দাম
অনলাইন ডেস্ক: দেশের বাজারে এক মাসের ব্যবধানে সনাতন পদ্ধতির ছাড়া অন্য সব ধরনের স্বর্ণ দাম ভরিতে এক হাজার ১৬৬ টাকা কমেছে। বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। শুক্রবার থেকে স্বর্ণের নতুন এ দর কার্যকর হবে। আন্তর্জাতিক বাজারে স্বর্ণের দাম কমার কারণে দেশের বাজারে তা সমন্বয় করতে এ দাম কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা। নতুন দাম অনুযায়ী, ২২, ২১ ও ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ প্রতি ভরিতে কমেছে এক হাজার ১৬৬ টাকা। তবে অপরিবর্তী রয়েছে সনাতন পদ্ধতির দাম। বাজুস জানায়, নতুন দাম অনুযায়ী প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের স্বর্ণের দাম এক হাজার ১৬৬ টাকা কমিয়ে ৪৮ হাজার ৬৩৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া ২১ ও ১৮ ক্যারেটের দামও এক হাজার ১৬৬ টাকা কমানো হয়েছে। এর মধ্যে ২১ ক্যারেট ৪৬ হাজার ৩৬৪ টাকা এবং ১৮ ক্যারেট স্বর্ণের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৪১ হাজার ২৯০ টাকা। আর প্রতি ভরি সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ হাজার ৫৮৫ টাকা। প্রতি ভরি ২১ ক্যারেট রুপার (ক্যাডমিয়াম) দাম নির্ধারণ করা হয়েছে এক হাজার ৫০ টাকা। সারা দেশের স্বর্ণের দোকানগুলোতে বৃহস্পতিবার ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণ বিক্রি হয়েছে ৪৯ হাজার ৮০৫ টাকা, ২১ ক্যারেট ৪৭ হাজার ৫৩০ টাকা এবং ১৮ ক্যারেট স্বর্ণ ৪২ হাজার ৪৫৬ টাকায়। সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণের ভরি বিক্রি হয়েছে ২৭ হাজার ৫৮৫ টাকা। এর আগে চলতি বছরের ২০ জুন স্বর্ণের দাম কমেছিল। ওই সময় ২২, ২১ ও ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরিতে স্বর্ণের দাম এক হাজার ১৬৬ টাকা কমানো হয়েছিল।

জাতীয় পাতার আরো খবর