শনিবার, এপ্রিল ১৭, ২০২১
বড় জাহাজগুলোকে আইসোলেশন সেন্টার করার অনুরোধ নৌ প্রতিমন্ত্রীর
0৪এপ্রিল,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা পরিস্থিতিতে বড় বড় জাহাজগুলোকে আইসোলেশন সেন্টার করার অনুরোধ করেছেন নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।দুপুরে নৌ মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি জাহার মালিকদের এই অনুরোধ জানান। তারাও এই প্রতিমন্ত্রীর প্রস্তাবে সম্মতি জানিয়েছেন। এতে উপকূলের মানুষ করোনা পরিস্থিতিতে সুবিধা পাবে বলে জানান খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।নৌ মালিক ও শ্রমিকদের ক্ষতির বিষয়টি সরকার বিবেচনা করছে বলেও জানান তিনি। পরে, কিছু মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন নৌ প্রতিমন্ত্রী।
বাংলাদেশে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিশ্ব মিডিয়ার খবর অতিরঞ্জিত
0৪এপ্রিল,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) বাংলাদেশে ২০ লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে- আন্তর্জাতিক কয়েকটি গণমাধ্যমের এমন প্রতিবেদনকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও অতিরঞ্জিত খবর বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।শনিবার দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক কয়েকটি গণমাধ্যমে বাংলাদেশে ২০ থেকে ৫০ লাখ মানুষ মারা যাওয়ার আশঙ্কা করে যে খবর প্রকাশ করা হয়েছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং অতিরঞ্জিত খবর।জাতিসংঘের ফাঁস হওয়া গোপন প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে গত সপ্তাহে অনলাইনভিত্তিক সংবাদমাধ্যম নেত্রা নিউজ জানায়, জনসংখ্যার অধিক ঘনত্বের কারণে করোনায় দেশটিতে পাঁচ লাখ থেকে ২০ লাখ মানুষ মারা যেতে পারে।২৬ মার্চ তৈরি কান্ট্রি প্রিপেয়ার্ডনেস অ্যান্ড রেসপন্স প্ল্যান শীর্ষক জাতিসংঘের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- জাতীয় পর্যায়ে কিছু সুযোগ-সুবিধার উন্নতি হলেও সন্দেহভাজন রোগী ও করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা ও চিকিৎসাসামগ্রীর ব্যাপারে বাংলাদেশের প্রস্তুতি অপ্রতুল। পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য সুরক্ষা ব্যবস্থার অভাবে করোনাভাইরাসের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা দেশটির পক্ষে কঠিন হয়ে পড়বে।জাতিসংঘের ফাঁস হওয়া প্রতিবেদন সম্পর্কে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বাংলাদেশ কার্যালয় জানায়, করোনাভাইরাস শনাক্তে বিশ্বব্যাপী গৃহীত কৌশলই দেশটি অবলম্বন করছে এবং করোনার বিস্তার নিয়ে দেশ কোনো লুকোচুরি করছে না।
আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত
0৪এপ্রিল,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশব্যাপী চলমান গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করেছে সরকার।শনিবার (০৪ এপ্রিল) সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপপ্রধান তথ্য অফিসার মো. আবু নাছের এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পণ্য পরিবহন, জরুরি সেবা, জ্বালানি, ওষুধ, পচনশীল ও ত্রাণবাহী পরিবহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে। পণ্যবাহী যানবাহনে যাত্রী পরিবহন করা যাবে না।করোনা ভাইরাসের কারণে সাধারণ ছুটির মধ্যে এর আগে আগামী ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।
দেশে করোনা ভাইরাস,আরো ২ মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৯ জন
0৪এপ্রিল,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশে করোনা ভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭০ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও দুজন। ফলে মৃতের সংখ্যাও বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ এ। শনিবার (৪ এপ্রিল) দুপুর ১২টায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানানো হয়। এতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৫৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। যার মধ্যে ৪৪৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে নতুন করে ৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে আইইডিসিআরে ৮ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। আরেকজন ঢাকার বাইরের। গত ২৪ ঘণ্টায় ২ জন মারা গেছেন। একজনের বয়স ৯০ ও আরেকজনের বয়স ৬০ বছর। এ দুজনের বিভিন্ন রোগ ছিল। আইইডিসিআর পরিচালক সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় চার জন সুস্থ হয়েছেন। মোট ৩০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩২ জন। নতুন ৯ জনের মধ্যে সংক্রমণ আছে এমন লোকের সংস্পর্শে এসে ৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। বাকি ২ জন বিদেশ থেকে দেশে এসেছেন। অপর দুজন কীভাবে সংক্রমিত হয়েছেন সে ব্যাপারে তথ্য পাওয়া যায়নি।
চট্টগ্রামে ৩ চিকিৎসক,নার্সসহ ১৮ জন কোয়ারেন্টিনে
0৪এপ্রিল,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালের ৩ চিকিৎসকসহ ১৮ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।আজ শনিবার সকালে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।তিনি বলেন, করোনা পজিটিভ হওয়া রোগী এর আগে ন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছিল। তাই সেখানকার তিনজন চিকিৎসক, নার্সসহ মোট ১৮ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। তবে পুরো হাসপাতাল লকডাউনের কোন প্রয়োজন নেই।এর আগে শুক্রবার ৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয় চট্টগ্রাম বিআইটিআইডিতে। এতে একজনের শরীরে করোনা পজেটিভ রয়েছে বলে শনাক্ত হয়। এরপরই দামপাড়া এলাকায় বাড়ি লকডাউন করা হয়।
চট্টগ্রামে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত
0৩এপ্রিল,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত একজন শনাক্ত হয়েছে। আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি। তিনি বলেন, ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) নমুনা পরীক্ষায় একজনের শরীরে করোনাভাইরাসের জীবাণু শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্ত রোগী একজন পুরুষ। তার বয়স ৬২ বছর। তিনি পরিবার নিয়ে চট্টগ্রামের দামপাড়া এলাকায় বসবাস করতেন। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে আইসোলোশনে রয়েছেন। আজ চট্টগ্রামে ৩৩ জন রোগীর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিলো সেখানেই এই একজনের করোনাভাইরাস পজেটিভ এসেছে। এখন পর্যন্ত চট্টগ্রামে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৮৮ জনের।- যমুনা টিভি ।
ডাক্তারদের চেম্বার বন্ধ থাকলে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর
0৩এপ্রিল,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহামারি করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে দেশে ডাক্তারদের প্রাইভেট চেম্বারগুলো বন্ধ থাকলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আজ শুক্রবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে যোগ দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ হুঁশিয়ারি দেন। জাহিদ মালেক বলেন, নার্স এবং ডাক্তার ভাইদের বলি আপনারা অনেক কাজ করেছেন, আপনারাই সৈনিক, আপনারাই এই সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছেন। কিন্তু আমরা লক্ষ্য করছি যে আমাদের কিছু প্রাইভেট হাসপাতালে কাজ কম হচ্ছে। চেম্বারগুলো অনেকাংশে বন্ধ আছে, আমরা সামাজিক মাধ্যমে জানতে পারছি। আমরা নিজেরাও দেখতে পারছি। এই সময়ে আপনাদের পিছপা হওয়াটা যুক্তিসংগত নয় জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মানুষের পাশে দাঁড়ান, মানুষকে সেবা দিন। এটাই সময়। আমরা কিন্তু এটা লক্ষ্য করছি। পরবর্তী সময়ে এই বিষয়ে আমরা অবশ্যই যা যা ব্যবস্থা নেওয়ার, আমরা কিন্তু সেই ব্যবস্থা নিতে পিছপা হবো না। তিনি আরও বলেন, পরীক্ষার মাধ্যমে আমরা এই করোনাভাইরাস চিহ্নিত করে আস্তে আস্তে এটাকে নির্মূল করতে পারব। আমাদের কিটসের আপাতত কোনো সংকট নাই। কাজেই পরীক্ষা আপনারা চালিয়ে যাবেন।
দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩১ দফা মেনে চলার আহ্বান
0৩এপ্রিল,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের শুক্রবার করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দলীয় নেতা-কর্মীসহ দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩১ দফা মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন। নিজ বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।এসময় সামাজিক দূরত্ব মেনে নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে আহ্বান জানান কাদের।করোনা প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার স্বাস্থ্যসেবায় নবতর ব্যবস্থার উন্নতি করে চলেছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, মানবিক এই সংকটে ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা নিজেদের উজাড় করে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছে।এসময় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের গুজব সম্পর্কে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।
সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর উদ্যোগে মুক্তাগাছা দরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ
0৩এপ্রিল,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাসজনিত রোগ (কোভিড-১৯) এর প্রাদুর্ভাব রোধ করার লক্ষ্যে দেশব্যাপী চলমান লকডাউন পরিস্থিতিতে দরিদ্র, অসহায়, দুস্থ, দিনমজুর, শ্রমিক শ্রেণির মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ায় সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি'র ব্যক্তিগত উদ্যোগে আজ তাঁর নির্বাচনী এলাকা ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার মুক্তাগাছা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ১৩৫০টি পরিবারের মাঝে খাদ্যদ্রব্য ও নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর পক্ষে অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন মুক্তাগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন সরকার এবং মুক্তাগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও মুক্তাগাছা পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক আরব আলী। তাঁদের সঙ্গে সহযোগিতায় ছিলেন সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এসময় প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি তেল, ১ কেজি লবণ সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি বিতরণ করা হয়। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ জানান, ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের কার্যক্রম চলমান থাকবে, ধারাবাহিক ভাবে সকল অসহায় পরিবারের মাঝেই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হবে।

জাতীয় পাতার আরো খবর