সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত
যথাযোগ্য মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্যদিয়ে আজ শনিবার রাজধানীসহ সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। পবিত্র রমজান মাসে সিয়াম সাধনার পর দেশের মুসলিম সম্প্রদায় তাদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপন করছে। আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় রাজধানী ঢাকাসহ দেশের ধর্মপ্রাণ লাখো কোটি মানুষ ঈদগাহ, মসজিদ ও খোলা মাঠে আজ ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল সাড়ে আটটায় সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণস্থ জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে। দ্বিতীয় বৃহত্তর জামাত অনুষ্ঠিত হয় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে সকাল সাতটায়। এছাড়া সকাল ৮টা, ৯টা, ১০টা ও পৌনে ১১টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে আরো ৪টি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় ঈদগাহে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুুল হামিদ, মন্ত্রিপরিষদের সদস্যগণ, সংসদ সদস্যরা, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পেরেশনের মেয়র, উর্ধ্বতন রাজনৈতিক নেতারা, সরকারি ও সামরিক বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং বিভিন্ন মুসলিম দেশের কূটনীতিকরা জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় করেন। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান ঈদের প্রধান জামাতে ইমামতি করেন। ঈদের নামাজ শেষে দেশের শান্তি ও অগ্রগতি, জনগণের কল্যাণ এবং মুসলিম উম্মাহর বৃহত্তর ঐক্য কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। ঈদের নামাজ আদায়ের পর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ মুসল্লীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হয় ঈদুল ফিতরের জামাত। সেখানে জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ.স.ম ফিরোজ এমপি, স্বাস্থ্য মন্ত্রী মো. নাসিম এমপি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পার্লামেন্টারি পার্টির সেক্রেটারি নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপি, মন্ত্রীপরিষদের সদস্যরা, হুইপরা, জাতীয় সংসদের স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সংসদ সদস্যরা, জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. মো. আবদুর রব হাওলাদার, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা ও এলাকার জনগণ ঈদের জামাতে শরীক হন। নামাজ শেষে দেশ ও জাতির কল্যাণ, সুখ-শান্তি, সমৃদ্ধি ও জাতীয় অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। পরে জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি মুসল্লীদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে অনুষ্ঠিত ৫টি ঈদ জামাতের প্রথমটিতে ইমামতি করেন বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী, দ্বিতীয় জামায়াতে বায়তুল মুকাররম মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম, তৃতীয় জামায়াতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস মুফতি মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান, চতুর্থ জামায়াতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক মাওলানা জুবাইর আহাম্মদ আল আযহারী এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামায়াতে তেজগাঁও রেলওয়ে জামে মসজিদের খতিব ড. মাওলানা মুশতাক আহমাদ ইমামতি করেন। এদিকে ঢাকা দক্ষিণ ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে মহানগরীর মোট ৪০৯টি ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র কার্যালয়ের কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায় জানান, ডিএসসিসি’র ৫৭টি ওয়ার্ডের প্রত্যেকটিতে ৪টি করে এবং জাতীয় ঈদগাহ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মাঠসহ মোট ২৩০টি স্থানে ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা এসএম মামুন জানান, এই সিটি কর্পোরেশনের ৩৬টি ওয়ার্ডের মোট ১৭৯টি ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ মসজিদুল জামিআয় ঈদের দু’টি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল ৮টায় এবং দ্বিতীয় জামাত হয় সকাল ৯টায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম হল মেইন গেইট সংলগ্ন মাঠে ও শহীদুল্লাহ হল লনে সকাল ৮টায় পৃথক দু’টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সকাল ৮টায় ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়। মিরপুর ১১ নম্বর সেকশনের ‘সি’ ব্লকের মসজিদ বায়তুল ফালাহ কমপ্লেক্সে ঈদুল ফিতরের দু’টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। প্রথমটি সকাল সাড়ে সাতটায় ও দ্বিতীয়টি সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হয়। প্রতি বছরের মতো এবারও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় দেশের সর্ববৃহৎ ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল ১০টায়। দুই বছর আগে ঈদুল ফিতরে এ জামাতকে লক্ষ্য করে জঙ্গি হামলা হওয়ার পরও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়েছিল, দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত। তাই এবার ঈদ জামাতে নজিরবিহীন নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এবার ১৯১তম ঈদুল ফিতরের জামাতে ইমামতি করেন ইসলাহুল মুসলিমিন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরিদউদ্দিন মাসউদ। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদ পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। ধর্মীয় বৃহত্তম এ উৎসব উপলক্ষে আজ বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথকভাবে বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক, আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহের প্রতিনিধি এবং সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ঈদ উপলক্ষে আজ সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে বনানী-ঢাকা গেট হতে বঙ্গভবন পর্যন্ত প্রধান সড়ক এবং সড়ক দ্বীপসমূহে জাতীয় পতাকা এবং বাংলা ও আরবিতে ‘ঈদ মোবারক’ খচিত ব্যানার লাগানো হয়েছে। নির্দিষ্ট সরকারি ভবনসমূহে আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলগুলো ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচার করছে। জাতীয় দৈনিক পত্রিকাগুলো ইতোমধ্যে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে। ঈদ উপলক্ষে আজ দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, ছোটমণি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রসমূহে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে। এ ছাড়া মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে রাষ্ট্রীয়নীতির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ চলচ্চিত্র প্রদর্শন, সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিনা টিকেটে সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন সকল শিশুপার্কে প্রবেশের ব্যবস্থা এবং বিনোদন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। দেশের সব বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ জাতীয় কর্মসূচির আলোকে ঈদুল ফিতর উদ্যাপন করছে। বিভাগীয় শহরগুলোতে, যেমন- চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট ও বরিশালে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। এ ছাড়া জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নসহ সারাদেশে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসসমূহে যথাযথ মর্যাদায় ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। ঈদে ঢাকা মহানগরবাসীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে মহানগরীতে র‌্যাব ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। এদিকে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে শুক্রবার থেকে ৩ দিনের সরকারি ছুটি শুরু হয়েছে। আগামীকাল রবিবার এ ছুটি শেষ হবে। ঈদ উপলক্ষে ‘আমরা ঢাকাবাসী’র উদ্যোগে আগামীকাল নগরীর শিশু একাডেমী প্রাঙ্গণ থেকে বিকাল ৩টায় ঈদ আনন্দ র‌্যালি বের করা হবে। বাসস
সাজানো হয়েছে বিনোদন কেন্দ্রগুলোকে
ঈদের সাজে এবারও সাজানো হয়েছে রাজধানীর বিনোদন কেন্দ্রগুলোকে। নগরীর দুই তৃতীয়াংশ মানুষ ঢাকা ছেড়েছেন। যারা ঢাকায় আছেন, তারাও ঈদের সকালে সেমাই খেয়ে বেরিয়ে পড়বেন। ব্যস্ত নগরীর রাস্তাগুলো অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে ঈদে থাকে নীরব। সেই নীরবতায় নতুন পোশাক পরে ঘুরে বেড়ান সবাই। আর এই ঘুরে বেড়ানোর তালিকায় স্থান পায় ঢাকা ও এর আশপাশের বিনোদনকেন্দ্রগুলো। ঈদের এক সপ্তাহ চলে বেড়ানোর ধুম। পরিবার নিয়ে সারাদিন কাটে এইখানে সেখানে। আর এ উপলক্ষে ঈদ শিশু কিশোরদের টানতে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে রাখা হয় বিশেষ আয়োজন। সাজানো হয় জমকালোভাবে। এবার বিনোদন কেন্দ্রগুলোর জন্য আবহাওয়া অফিস দিয়েছে নতুন বার্তা, এবার ঈদে ঢাকায় চমতকার আবহাওয়া থাকবে। বর্ষার দ্বিতীয়দিন হলেও আজ বৃষ্টি খুব একটা হবেনা। তবে মেঘলা থাকতে পারে আকাশ। জানা গেছে, ঈদের সময় ঢাকা চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীর সংখ্যা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। প্রতিদিনের মতোই সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকবে চিড়িয়াখানা। প্রবেশমূল্য ৩০ টাকা। ঈদের পরদিন জাতীয় জাদুঘর ও এর আওতাধীন স্বাধীনতা জাদুঘর বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে এগুলো। এ দিন শিক্ষার্থী, শিশু-কিশোর, প্রতিবন্ধী ও সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য কোনো টিকিট লাগবে না। গ্যালারি প্রদর্শন ছাড়া জাদুঘরের বিনা টিকিটে শিশুতোষ চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। শাহবাগে অবস্থিত কেন্দ্রীয় শিশু পার্কটিকে ঈদ উপলক্ষে সাজানো হয়েছে নতুন করে। রং নষ্ট হয়ে যাওয়া রাইডগুলোতে লাগানো হয়েছে নতুন রং। রাইডগুলোর ছোটখাটো যান্ত্রিক ত্রæটিগুলো মেরামত করা হয়েছে। এবারও আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করেছে শিশু পার্ক কর্তৃপক্ষ। ঈদের প্রথম চার দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে পার্ক। প্রবেশমূল্য ১৫ টাকা। তবে ঈদে সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা বিনা টিকিটে প্রবেশ ও রাইডগুলো চড়ার সুযোগ পাবে। এবারের ঈদে স্টার সিনেপ্লেক্সে বিদেশি চারটি মুভি এবং একটি বাংলা মুভি প্রদর্শিত হবে। মুভিগুলো হলো স্বপ্নজাল, ডেডপুল-২, রেনেগাডস, সলো : এ স্টার ওয়ার্স স্টোরি ও অ্যাভেঞ্জার্স : ইনফিনিটি ওয়ার্স। শ্যামলীর শিশু মেলায় আছে ৪০টির মতো রাইড। পরিবারের সবার চড়ার মতো আছে ১২টি রাইড। ঈদের প্রথম সাত দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এটি খোলা থাকবে। প্রবেশমূল্য জনপ্রতি ৫০ টাকা। বিশ্বমানের বিনোদনসেবা, চমৎকার ল্যান্ডস্কেপিং ও উত্তেজনাকর সব রাইডস নিয়ে তৈরি ফ্যান্টাসি কিংডম, ঈদের প্রথম সাত দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। সাঁতার কাটা যাবে ওয়াটার কিংডমে। সাভারের নবীনগরের নন্দন পার্ক ঈদের পরদিন থেকে চার দিন পর্যন্ত নানা আয়োজন রয়েছে। ঈদ উপলক্ষে মডার্ন ডান্স, ডিজে এবং ফায়ার ডান্সের ব্যবস্থা থাকছে। পার্কটি খোলা থাকবে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত। ঈদ উপহার থাকবে সবার জন্য। হাতিরঝিল ঘুরে দেখার জন্য রয়েছে চক্রাকার বাস সার্ভিসও। তা ছাড়া লেকে ঘুরে বেড়ানোর জন্য রয়েছে ওয়াটার বাস। আশপাশে বেশ কিছু রেস্টুরেন্টও রয়েছে খাওয়া-দাওয়ার জন্য। লালবাগের কেল্লা খোলা থাকবে সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। টিকিটের মূল্য ৩০ টাকা। শ্যামপুরে প্রায় সাত একর জায়গার ওপর গড়ে উঠেছে বুড়িগঙ্গা ইকো পার্ক। পুরান ঢাকার ইসলামপুরে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে মোগল আমলের ঐতিহ্য নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে আহসান মঞ্জিল। খোলা থাকবে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত। ঢাকার উত্তরায় অবস্থিত দিয়াবাড়ী এখন ভ্রমণপিপাসুদের কাছে প্রিয় একটি নাম। তা ছাড়া চিড়িয়াখানা, জাতীয় জাদুঘর, শিশু পার্ক, শিশু মেলা, ফ্যান্টাসি কিংডম, নন্দন পার্ক, বুড়িগঙ্গা ইকো পার্ক, যমুনা ফিউচার পার্ক, ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্ক, লালবাগ কেল্লা, আহসান মঞ্জিল, হাতিরঝিল ও ৩০০ ফুটসংলগ্ন পূর্বাচল বাজার এখন প্রধান বিনোদনকেন্দ্র ঢাকাবাসীর কাছে।আমাদের সময়
নির্বাচনের বছরে হেভিওয়েট নেতাদের ঈদে হেভি আয়োজন
ঈদকে সামনে রেখে চট্টগ্রামের শীর্ষ রাজনীতিকরা নিজ নিজ কর্মী-সমর্থকদের জন্যে প্রতিবছর বিশেষ আয়োজন করেন। তবে নির্বাচনের বছর হওয়ায় এবার সেই আয়োজনে লেগেছে বাড়তি হাওয়া। আওয়ামী লীগ কিংবা বিএনপি- প্রতিটি দলের ‘হেভিওয়েট’নেতাদের বাসায় এবার ঈদে কর্মী-সমর্থকদের জন্য থাকছে ‘হেভি’ আয়োজন। আওয়ামী রাজনীতিকদের মধ্যে দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, নগর সহ-সভাপতি এবং প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, নগর সাধারণ সম্পাদক এবং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সাবেক মন্ত্রী এবং সংসদ সদস্য ডা. আফছারুল আমীন, সাবেক মন্ত্রী এবং সংসদ সদস্য ড. হাছান মাহমুদ, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল সবাই নিজ নিজ এলাকায় ঈদ করবেন। এর মধ্যে মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি নগরের খুলশি’র নিজ বাসভবনে বাহারি পদের খাবারের আয়োজন করেছেন। সেখানেই দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় এবং তাদের আপ্যায়িত করবেন তিনি। আন্দরকিল্লায় নিজ বাসভবনে নেতাকর্মীদের জন্য বিশেষ খাবারের ব্যবস্থাসহ নানা আয়োজন করছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। নিজ বাসভবনেই দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় এবং তাদের আপ্যায়িত করবেন তিনি। প্রয়াত মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর চশমা হিলের বাসায় নেতাকর্মীদের জন্য ঈদের দিন মেজবানির আয়োজন করেছেন তার ছেলে সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। ঈদের পরদিন সেমাই দিয়েও তাদের আপ্যায়ন করা হবে বলে জানান তিনি। গ্রামের বাড়ি আনোয়ারার পাশাপাশি নগরের সার্সন রোডের বাসায় নেতাকর্মীদের জন্য আয়োজন করছেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। প্রতি বছরের মতো ডা.আফসারুল আমীনের বাসায়ও থাকছে বিশেষ আয়োজন। অন্যদিকে, বিএনপি রাজনীতিকদের মধ্যে সাবেক মন্ত্রী এবং দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সাবেক মন্ত্রী এবং ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সাবেক মন্ত্রী এবং ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম, নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান সবাই নিজ নিজ এলাকায় ঈদ করবেন। নির্বাচনকে সামনে রেখে এলাকায় ঈদ উদযাপন করবেন আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। ফলে অন্যান্য বছরের চেয়ে এবার আয়োজনের পরিধি বাড়ছে বলে জানা গেছে। প্রায় ১০ হাজার নেতাকর্মী আপ্যায়নের ব্যবস্থা করছেন তিনি। নগর সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন আয়োজন করছেন রীমা কমিউনিটি সেন্টারে। প্রতিবছর ঈদের পরদিন নেতাকর্মীদের জন্য মেজবানির আয়োজন করলেও বিএনপি চেয়ারপরসন বেগম খালেদা জিয়া কারাবন্দি থাকায় এবার কোনো আয়োজন করছেন না বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান। তবে নগরের চান্দগাঁও এলাকায় নিজ বাসায় নেতাকর্মীদের জন্য বিশেষ আয়োজন করেছেন নগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান। বাংলানিউজ
রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ
মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন চৌধুরী : রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ/আপনাকে তুই বিলিয়ে দে, শোন আসমানি তাগিদ/তোর সোনা-দানা, বালাখানা সব রাহে লিলস্নাহ দে জাকাত/মুর্দা মুসলিমের আজ ভাঙাইতে নিদ/ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ/আজ পড়বি ঈদের নামাজ রে মন সেই সে ঈদগাহে/যে ময়দানে সব গাজী মুসলিম হয়েছে শহীদ/রমযানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ ...।' কাল ঈদ। শনিবার সারাদেশে যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। পবিত্র কোরআন নাজিলের মাস রমজান শেষে ঈদের চাঁদ দেখামাত্র ছোট-বড়, ধনী-গরিব প্রত্যেক মুসলমানের হৃদয়ে বইবে আনন্দের ঝরণাধারা। ধ্বনিত হবে 'ঈদ মোবারক' আর কাজী নজরম্নল ইসলামের জনপ্রিয় ঈদের গান- 'ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ'। ঈদের দিন সকালে ধনী-গরিব নির্বিশেষে সব মুসলমান এক কাতারে ঈদের নামাজ আদায় শেষে কোলাকুলি ও শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। প্রিয় নবী হজরত মোহাম্মদ (সা.)-এর মদিনায় হিজরতের অব্যবহিত পরই সংযম আর আনন্দের প্রতীক পবিত্র মাহে রমজান ও ঈদুল ফিতর উৎসব শুরম্ন হয়। সৃষ্টি হয় সংযম আর সম্প্রীতির বৈষম্যমুক্ত এক নতুন মূল্যবোধের। প্রিয় নবী হজরত মোহাম্মদ (সা.) বলেছেন, 'চাঁদ দেখে রোজা পালন এবং চাঁদ দেখে ঈদ উদযাপন করবে। চন্দ্র মাস ২৯ দিনে হয়, আবার ৩০ দিনেও হয়। রাসুল করিমের সে নির্দেশনা অনুযায়ীই চলে আসছে রোজা ও ঈদের সুমহান ঐতিহ্য পালন। ঈদের আনন্দে শামিল সারাদেশ এখন উৎসুক। সব প্রস্তুতিও সম্পন্ন। আলাদা আলাদা বাণীতে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। ঈদ উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন-বেতারসহ বেসরকারি টেলিভিশন ও রেডিও স্টেশনগুলো ৫ থেকে ৭ দিনের বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচার করবে। দেশের জাতীয় দৈনিক ও সাময়িক পত্রিকাগুলো ইতিমধ্যে ঈদ সংখ্যা প্রকাশ করেছে। নগরীর প্রধান প্রধান সড়কদ্বীপে শোভা পাচ্ছে বাংলা ও আরবিতে 'ঈদ মোবারক' খচিত পতাকা। সরকারি ও গুরম্নত্বপূর্ণ ভবনগুলো আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হবে। এতিমখানা, ভবঘুরে কেন্দ্র্র, হাসপাতাল ও কারাগারে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে। রাষ্ট্রপতির বঙ্গভবনে ও প্রধানমন্ত্রীর গণভবনে সকাল থেকেই গণ্যমান্য ব্যক্তি, বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। সাপ্তাহিক সংবাদের কাগজ , নিউজ একাত্তর ডট কম এর পক্ষ থেকে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন উক্ত পত্রিকার সম্পাদক / প্রকাশক মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন চৌধুরী ।
চট্টগ্রামে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা,জমিয়তুল ফালাহ ময়দানে প্রধান ঈদের জামাত সকাল ৮ টায়
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) তত্ত্বাবধানে পবিত্র ঈদুল ফিতরের প্রথম ও প্রধান জামাত সকাল ৮ টায় জাতীয় মসজিদ জমিয়তুল ফালাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে। একই স্থানে দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৯ টায়। এছাড়াও নগরের ৪১ ওয়ার্ডের ১৬৬টি স্থানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে, শুক্রবার (১৫ জুন) সকালে জমিয়তুল ফালাহ ময়দান পরিদর্শন করেছেন চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। এসময় সিটি মেয়র বলেন, পবিত্র ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় মসজিদ জমিয়তুল ফালাহ ময়দানে। ইতিমধ্যে চসিকের পক্ষ থেকে সকল ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। মুসল্লীরা যাতে স্বাচ্ছন্দে ও নিরাপদে জামাতে অংশ নিতে পারেন সেই লক্ষে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। মাঠের পাশাপাশি বাইরের রাস্তায় ব্যাপকভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঈদের জামাতে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। চসিকের অধীনে ৪১ ওয়ার্ডের ১৬৬টি স্থানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান তিনি। চসিক সূত্রে জানা যায়, জমিয়তুল ফালাহ ময়দানে প্রথম ও প্রধান জামাতে ইমামতি করবেন জামেয়া আহমদিয়া ছুন্নীয়া আলেয়া মাদ্রাসা চট্টগ্রামের মুহাদ্দিছ আল্লামা সৈয়দ আবু তালেব মোহাম্মদ আলাউদ্দিন আল কাদেরী এবং দ্বিতীয় জামাতে ইমামতি করবেন জাতীয় মসজিদ জমিয়তুল ফালাহ্’র হাফেজ মাওলানা আহমদুল হক। বাকলিয়ার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন স্টেডিয়ামে প্রথম ঈদ জামাত হবে সকাল ৮টায়, লালদীঘি সিটি কর্পোরেশন শাহী জামে মসজিদে ঈদ জামাত হবে সকাল সাড়ে ৮টায়। জালালাবাদ আরেফিন নগর সিটি কর্পোরেশন কেন্দ্রীয় কবরস্থান জামে মসজিদের ঈদ জামাত হবে সকাল সোয়া ৮টায়। এছাড়াও নগরের চসিকের তত্ত্বাবধানে-হযরত শেখ ফরিদ (র.) চশমা ঈদগাহ ময়দান, চকবাজার সিটি কর্পোরেশন জামে মসজিদ, মা আয়েশা সিদ্দিকী চসিক জামে মসজিদ (সাগরিকা জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়াম সংলগ্ন)। এছাড়া নগরের ৪১টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলরগণের তত্ত্বাবধানে ১টি করে প্রধান ঈদ জামাত অনুষ্টিত হবে।
আজ জুমাতুল বিদা ,মসজিদে মুসল্লিদের ঢল
আজ পালিত হয়েছে পবিত্র রমজানের শেষ শুক্রবার বা ‘জুমাতুল বিদা’। দিনটির ধর্মীয় গুরুত্ব থাকায় এ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের মসজিদগুলো ঢল নেমেছে মুসল্লিদের। রমজানের অন্যান্য শুক্রবারের চেয়ে আজ মসজিদগুলো মুসল্লির সংখ্যা বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আজ পালিত হচ্ছে ২৯ রমজান। সন্ধ্যায় পবিত্র শাওয়ালের চাঁদ দেখার সম্ভাবনা রয়েছে। আজ চাঁদ দেখা গেলে আগামীকাল পালিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। রমজানের শেষ দিন হিসেবেও মসজিদগুলো ভিন্ন আমেজ লক্ষ্য করা গেছে। জুমাতুল বিদার স্বতন্ত্র মর্যাদা ও তাৎপর্য সম্পর্কে হাদিসে তেমন কিছু উল্লেখ নেই। তবে এ দিনটি রোজাদারকে স্মরণ করিয়ে দেয়, রমজানের শেষলগ্নে এবার এর চেয়ে ভালো কোনোদিন আর পাওয়া যাবে না। তবে জুমার দিনের স্বতন্ত্র ফজিলত অনেক বেশি। শুক্রবারকে মুসলমানদের সাপ্তাহিক ঈদ হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। রমজানের প্রতিটি জুমা ফজিলত ও তাৎপর্যের দিক থেকে অনন্য। আর বিদায়ী জুমা হিসেবে এর মর্যাদা ও ফজিলত আরও বেশি। জুমাতুল বিদা উপলক্ষে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ রাজধানীর প্রায় সব মসজিদেই মুসল্লিদের বাড়তি চাপ রয়েছে। প্রতিটি মসজিদে এই দিনের তাৎপর্য, রমজানের শিক্ষা এবং ঈদুল ফিতরের ফজিলত সম্পর্কে আজ খুতবা দেয়া হবে।
কোথাও কোনো যানজট হয়নি,মানুষ খুশি
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আজ মানুষ খুশি। স্বস্তিতে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই অনেকে বাড়ি ফিরে গেছে। উল্লেখযোগ্য কোনো যানজট, প্রলম্বিত কোনো যানজট কোথাও হয়নি।’ আজ শুক্রবার ফেনীর ফতেপুরে রেলওয়ে ওভারপাস নির্মাণকাজ পরিদর্শনের সময় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এবারের ঈদযাত্রা নিয়ে যে আশঙ্কা একেবারেই অমূলক বলে প্রমাণিত হয়েছে। আল্লাহর রহমতে আমরা সফল হয়েছি। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বক্ষণিকভাবে মনিটরিং করেছেন, খোঁজ-খবর নিয়েছেন। তৃণমূলে আমরা সমন্বিত কয়েকটি বৈঠক করেছিলাম, বৈঠকগুলোর সুফল আমরা পেয়েছি।’ তিনি আরো বলেন, ‘এজন্য আমি সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’ সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, ‘ঝড় বৃষ্টির মতো এত দুর্যোগের মধ্যে যখন যাওয়াটা স্বস্তিতে হয়েছে, ফিরবেও খুব ভালো ভাবে। কষ্ট হচ্ছে সিলেটসহ পার্বত্য চট্টগ্রামে বহু মানুষ পানিবন্দি। পাহাড়ে যেসব সড়ক করা হয়েছিল তা নষ্ট হয়ে গেছে। সেখানে যোগাযোগ বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। ফেনীতেও বহুমানুষ বন্যাকবলিত।’ নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সেনাবাহিনী মোতায়েনের বিরুদ্ধে আমরা নই। সেনাবাহিনী মোতায়েন হবে সংবিধান অনুযায়ী। যদি প্রয়োজন হয়। প্রয়োজন না হলে সেনাবাহিনী কেন মোতায়েন হবে? কেন সেনাবাহিনীকে আমরা বিতর্কিত করব। সেনাবাহিনী মোতায়েন প্রয়োজন হলে নির্বাচন কমিশন সরকারকে বলবে। সেনা মোতায়েন কিন্তু নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ারে নেই।’ ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সেনাবাহিনী একটা স্বতন্ত্র আলাদা বিষয়।’ তিনি আরো বলেন, ‘সেনা মোতায়েনের বিষয়টি পরিস্থিতি বলে দেবে।’ সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন যদি অনুরোধ করে তার যৌক্তিকতা বাস্তবতা সেটা বুঝেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সেনাবাহিনীর ৩৪ ইসিবির পরিচালক কর্নেল জাকারিয়া হোসাইন, জেলা প্রসাশক মনোজ কুমার রায়, পুলিশ সুপার এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার, ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী।
শোলাকিয়া ঈদ জামাতের নিরাপত্তা সম্পন্ন
কিশোরগঞ্জের শহরের উপকণ্ঠে নরসুন্ধা নদীর তীরে অবস্থিত উপমহাদেশের প্রাচীন ও সর্ববৃহৎ শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ১০টায়। জামাতে ঈমামতি করবেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ। পুলিশ প্রশাসন জানিয়েছে, ২০১৬ সালে জঙ্গি হামলার ঘটনাটিকে মাথায় রেখে মাঠ ও মাঠের আশপাশের এলাকাজুড়ে গড়ে তোলা হচ্ছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তাবলয়। আর এ নিরাপত্তাব্যবস্থার গভীর পর্যবেক্ষণে এবার থাকছে ড্রোন ক্যামেরা। মুসল্লিরা স্বস্তি প্রকাশ করেছেন এ নিরাপত্তা ব্যবস্থায়। এ ছাড়া দূরের মুসল্লিদের জন্য থাকছে শোলাকিয়া স্পেশাল নামে দুটি বিশেষ ট্রেন সার্ভিস। দীর্ঘ এক মাসের সিয়াম সাধনা শেষে মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা তাদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উৎযাপন করে থাকেন। এরই ধারাবাহিকতায় প্রতি বছরের মতো এবারও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১৯১তম ঈদুল ফিতরের জামাত। লাখো মুসল্লিদের সঙ্গে নামাজ আদায়ে অধিক সওয়াবের আশায় এ মাঠে অনুষ্ঠিত ঈদুল ফিতরের জামাতে প্রতি বছর দেশ-বিদেশের তিন লাখেরও বেশি মুসল্লির সমাগম ঘটে থাকে। এবারের ১৯১তম ঈদুল ফিতরের জামাত উপলক্ষে মাঠের চারপাশের দেয়ালে পরেছে নতুন রঙের প্রলেপ। মাঠের ভেতরের খানাখন্দ বালি দিয়ে ভরাট করে ইতিমধ্যে লাইনকাটা সম্পন্ন হয়েছে। মুসল্লিদের নিরাপত্তায় সিসি ক্যামেরা বসানো, ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ, আলোকসজ্জা, ভূগর্ভস্থ মাইক্রোফোন সংযোগ পরীক্ষাকরণ ইত্যাদির কাজ চলছে। জামাত উপলক্ষে ঢাকা ও ময়মনসিংহ থেকে দুটি বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে।

জাতীয় পাতার আরো খবর