রবিবার, জুলাই ১৫, ২০১৮
দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা ছেড়েছেন হজ ফ্লাইট
অনলাইন ডেস্ক :পবিত্র হজ পালনে আজ দ্বিতীয় দিনের মতো সৌদি আরবের জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন মুসল্লিরা। রোববার (১৫ জুলাই) ভোরে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে দ্বিতীয় দিনের প্রথম হজ ফ্লাইট ছেড়ে যায়।সবশেষ সকাল ৮টা পর্যন্ত বাংলাদেশ ও সৌদি এয়ারলাইন্সের ৭টি বিমান ছেড়ে গেছে। তবে, যাত্রীদের কোনো ভোগান্তির চিত্র দেখা যায়নি। এদিকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মুসল্লিরা এসে জড়ো হচ্ছেন আশাকোনা হজ ক্যাম্পে। শনিবার হজযাত্রার প্রথম দিনে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়েছে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে ১০টি হজ ফ্লাইট। আগামী ১৫ আগস্ট হজ ফ্লাইট শেষ হবে। এবছর বাংলাদেশ থেকে প্রায় এক লাখ ২৭ হাজার মুসল্লি হজে যাবেন। আগামী ২৭ আগস্ট থেকে হজের ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে।
বয়স্ক ও মুক্তিযোদ্ধাদের ৫ বছরের ভিসা দেবে ভারত
অনলাইন ডেস্ক :বয়োজ্যেষ্ঠ ও মুক্তিযোদ্ধাদের ভিসা সহজ করার জন্য বাংলাদশের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ভারত। রোবরার সচিবালয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তি অনুযায়ী ভারত বাংলাদেশের ৬৫ বছর ও এর বেশি বয়সী এবং মুক্তিযোদ্ধাদের পাঁচ বছরের জন্য ভিসা দেবে।রিভাইস ট্রাভেল এগ্রিমেন্ট ২০১৮’-তে বাংলাদেশের পক্ষে সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী এবং ভারতের পক্ষে সেদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্পেশাল সেক্রেটারি বিরাজ রাজ শর্মা স্বাক্ষর করেন।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের নেতৃত্বে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়।বৈঠক শেষে আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভারতের ভিসা সহজীকরণের জন্য আজ একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। যারা নাকি বয়স্ক, যাদের বয়স ৬৫ বছর এবং এর ঊর্ধ্বে তারা ভিসা চাইলে পাঁচ বছরের মাল্টিপল ভিসা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমাদের বয়স্ক সিটিজেনরা যারা ভিসা চান তারা (ভারত) তাদের এই ভিসা দেবেন।তিনি বলেন, ‘সঙ্গে যারা দেশমাতৃকার জন্য যুদ্ধ করেছেন, সেই মুক্তিযোদ্ধারদের জন্য একই ধরনের ভিসাসুবিধা তারা প্রদান করেছেন সেই অনুযায়ী কাজ শুরু করেছেন, যেটার চুক্তি আজ স্বাক্ষর করা হয়েছে।রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভারত ও বাংলাদেশের ষষ্ঠ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের এই বৈঠক শুরু হয়। এর আগে সকাল ১০টা ২২ মিনিটে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সচিবালয়ে উপস্থিত হলে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। লালগালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয় ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রাঙ্গণে অস্থায়ী মঞ্চে দাঁড়িয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) একটি দলের সালাম গ্রহণ করেন রাজনাথ সিং। বৈঠকে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দল ও বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল অংশ নেন।ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং তিন দিনের সফরে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকায় এসেছেন। রোববার দুপুরে তার ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে।
উপহার ফিরিয়ে দিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী
অনলাইন ডেস্ক :চার সিনিয়র মন্ত্রীকে বিএমডব্লিউ গাড়ি উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যেরা গ্রহণ করলেও বিনয়ের সাথেই উপহার ফিরিয়ে দিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। এতে মহত্মের কিছু নেই। আমার নিজের পুরোনো গাড়িটিই ব্যবহার করতে সাচ্ছন্দ্য বোধ করছি, তাই বিনয়ের সাথে আমি প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া গাড়িটি ফিরিয়ে দিয়েছি। এভাবেই বললেন কৃষিমন্ত্রী, এক সময়ের অগ্নিকন্যা খ্যাত, বেগম মতিয়া চৌধুরী। মন্ত্রণালয় পরিচালনায় দক্ষতার পরিচয় দেওয়ার পুরস্কার হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া একটি বিএমডব্লিউ মডেলের গাড়ি না নিয়ে আলোচনায় এসেছেন এই মন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী তাকে সহ মোট পাঁচ জন সিনিয়র মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতাকে এই মডেলের একটি করে গাড়ি উপহার দিয়েছিলেন। অন্যরা হচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও পূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। প্রত্যেককেই নিজ নিজ মন্ত্রণালয় দক্ষতার সঙ্গে পরিচালনার জন্যই এই উপহার দেন প্রধানমন্ত্রী। বাকি চার মন্ত্রী সানন্দে প্রধানমন্ত্রীর উপহার গ্রহণ করেন, তবে বিনয়ের সঙ্গে তা ফেরত দেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। এই ফেরত দেওয়াতে মহত্মের কিছু নেই বলেই প্রতিক্রিয়ায় জানান তিনি। শনিবার রাতে টেলিফোনে তিনি আরও বলেন, এটি বেশ দামি গাড়ি, আমি অপেক্ষাকৃত কম দামের গাড়িতে চড়ে অভ্যস্ত এবং তাতেই ভালো আছি। তিনি এও বলেন, এত দামি গাড়ি পরিচালনা করার অর্থ তার কাছে নেই। উল্লেখ্য, ওআইসি সম্মেলনের সময়ে গাড়িগুলো আনা হয়েছিলো যা অব্যবহৃত পড়ে ছিলো। সিনিয়র মন্ত্রী ও নেতাদের কাজে খুশি হয়েই এগুলো তাদের উপহার হিসেবে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
যেকোনো সমস্যা দু'দেশের আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে
অনলাইন ডেস্ক :রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে সহযোগিতার আশ্বাসসহ বিভিন্ন দিক নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সব বিষয় বৈঠকে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে—জানিয়েছেন ভারতের সফররত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে এ কথা বলেন তিনি। রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। এছাড়াও বৈঠকে সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, অবৈধ চোরাচালান বন্ধ, ভ্রমণ ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে তারা আলোচনা করেন। বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের এ ষষ্ঠ বৈঠকে প্রবীণ নাগরিক ও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৫ বছরের ভিসা দিতে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। আর বাকি ভিসা আগের মতোই থাকবে বলে জানানো হয়। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ভারত অংশের মাদক কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আর যেকোনো সমস্যা দু'দেশের আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে। বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের ষষ্ঠ বৈঠকে যৌথভাবে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। বৈঠক শুরুর আগে রাজনাথ সিংকে ‘গার্ড অব অনার’ প্রদান করা হয়। সকালে রাজনাথ সিং ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি। এ সময় জাদুঘরের বিভিন্ন কক্ষ ঘুরে দেখেন রাজনাথ সিং। সেখানে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে রাখা পরিদর্শন বইয়ে সই করেন। বঙ্গবন্ধু জাদুঘর থেকে এরপর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে যান ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। সেখানে তিনি প্রার্থনায় অংশ নেন। গত শুক্রবার তিন দিনের সরকারি সফরে ঢাকায় আসেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। গত ২০১৬ সালের জুলাই মাসে নয়াদিল্লিতে সর্বশেষ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
আমাদের বহু চ্যালেঞ্জ নিয়েই এগিয়ে যেতে হচ্ছে
অনলাইন ডেস্ক :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দুই প্রতিবেশি দেশের সঙ্গে সম্পর্ক ঠিক রেখে বিশাল সমুদ্র সীমা জয় করেছি। আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করে আমরা জয়লাভ করেছি। সমুদ্রের বিশাল জলরাশিতে আজ আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা হয়েছে। আজ রোববার স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্সের (এসএসএফ) ৩২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতার শাহাদাতের পর ৭৬-৭৭ সাল থেকে পার্বত্য চট্টগ্রামে অশান্তি লেগে ছিল। ৯৩ তে আমরা ক্ষমতায় এসে পাহাড়ে শান্তি ফিরিয়ে এনেছি। পার্বত্য শান্তিচুক্তি করে পরিস্থিতি সামাল দিই। ভারত থেকে ৬৪ হাজার শরনার্থী ফেরত আনি। তাঁর সরকারের সাফল্য ‍তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু স্থল সীমান্ত চুক্তি করে দিয়ে গিয়েছিলেন। ৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে আমরা সেটি এগিয়ে নিয়ে যাই। পরে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এসে সেটি তো এগিয়ে নিতে পারেই নি বরং থামিয়ে দেয়। ভারতের সঙ্গে আলোচনার ভয়ে তারা পিছু হটে। ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর আমরা প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে দীর্ঘদিনের অমিমাংসিত বিষয়গুলো সুরাহা করি। আমরা ছিটবিনিময় চুক্তি করি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এতোকিছুর পরও আমাদের বহু চ্যালেঞ্জ নিয়েই এগিয়ে যেতে হচ্ছে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে এসএসএফের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাসহ তিন বাহিনীর প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।
ভারত ও বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক
অনলাইন ডেস্ক :দ্বিপাক্ষিক নানা বিষয় নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক চলছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় এ বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে নয় সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। আর বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে আছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, বৈঠকে নিরাপত্তা সহযোগিতা, সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, কনস্যুলার সেবা সংক্রান্ত বিষয় এবং জাল মুদ্রা, মাদক ও মানবপাচারের মতো অপরাধমূলক কর্মকান্ড কীভাবে দমন করা যায় সেসব বিষয় নিয়েও আলোচনা হবে। দুই দেশের ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করতে দুই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠকে সংশোধিত ট্র্যাভেল এগ্রিমেন্ট ২০১৮ সই হওয়ার কথা রয়েছে। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রোববার সকালে সচিবালয়ে পৌঁছালে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। পুলিশ প্রধান, কোস্টগার্ড প্রধান, র‌্যাব প্রধান, ডিএমপি কমিশনারসহ বিভিন্ন আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তারাও উপস্থিত রয়েছেন এ বৈঠকে ।
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন
অনলাইন ডেস্ক :ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ঢাকা সফররত ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। সেখানে তিনি জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে তিনি বঙ্গবন্ধু জাদুঘর ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং পরিদর্শন বইতে স্বাক্ষর করেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রোববার (১৫ জুলাই) সকাল ৯ টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে যান রাজনাথ সিং। এরপর সকাল ১০ টায় বিশেষ প্রার্থণা অনুষ্ঠানে যোগদিতে রাজধানীর ঢাকেশ্বরি মন্দিরের উদ্দেশ্য যান তিনি। প্রার্থনা শেষে সকাল সাড়ে ১০ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত দুই দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এবং রাজনাথ সিং সচিবালয়ে আনুষ্ঠানিক বৈঠকে মিলিত হবেন। বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে ২০১৭ সালের মোটর গাড়ি (যাত্রী) চলাচলের চুক্তিটি নবায়ন করা হবে। আশা করা হচ্ছে এদিন দুপুর ৩ টায় নয়াদিল্লির উদেশ্য ঢাকা ত্যাগ করবেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের আমন্ত্রণে তিনদিনের সরকারি সফরে শুক্রবার সন্ধ্যায় একটি বিশেষ বিমানে ঢাকা আসেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। বাংলাদেশ-ভারতের মধ্য সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সহযোগিতা জোরদারেই মূলত তিনি ঢাকা আসেন। রাজনাথের সফরসঙ্গী হিসেবে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিশেষ সেক্রেটারি (বিএম) বারজ রাজ শর্মা, অতিরিক্ত সচিব এ কে মিসরা, যুগ্মসচিব সাতিনদিয়া গর্গসহ ১২ সদস্যর একটি প্রতিনিধি দল ঢাকা আসেন।
আইনমন্ত্রীর বড় বোনের ইন্তেকাল
অনলাইন ডেস্ক :আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হকের বড় বোন মিস সায়মা ইসলাম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শনিবার (১৪ জুলাই) দিবাগত রাত ১টার দিনে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধী অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। সায়মা ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে কিডনি রোগে ভুগছিলেন। রোববার (১৫ জুলাই) সকালে আইন মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, রোববার বিকেল ৫টার দিকে রাজধানীর গুলশান আজাদ মসজিদে তার নামাজে জানাযা শেষে বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে। জানাযায় তার সব আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও শুভানুধ্যায়ীদের উপস্থিত থাকার জন্য আইনমন্ত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।