রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২১
জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের মায়ের ইন্তেকাল
৪জুন,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিনের রত্নগর্ভা মা ও বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক ও নিউজ টোয়েন্টিফোরের সিইও নঈম নিজামের শাশুড়ি জাহানারা হোসেন (৭৬) আর নেই (ইন্নালিল্লাহি...রাজিউন)। বুধবার (৩ জুন) রাত ১২টা ৩০ মিনিটে রাজধানীর পপুলার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি ৫ মেয়ে, ৪ ছেলে, নাতি-নাতনি ও অসংখ্য আত্মীয়-স্বজনদের রেখে গেছেন। তিনি তার নয় ছেলেমেয়েকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করেছেন। তারা সবাই স্ব-স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। গত বছর রত্নগর্ভা মা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন। রত্নগর্ভা এই মায়ের মৃত্যুতে নিউজ একাত্তর পরিবারের পক্ষ থেকে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন সম্পাদক মো.নাছির উদ্দিন চৌধুরী। তিনি মরহুমার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেছেন।
বিজিবিতে অত্যাধুনিক দ্রুত গতিসম্পন ইন্টারস্পেটোর জলযান সংযোজিত
৩জুন,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)কে আধুনিকায়নের লক্ষ্যে এ বাহিনীতে ৪টি অত্যাধুনিক দ্রুত গতিসম্পন্ন ইন্টারস্পেটোর জলযান সংযোজন করা হয়েছে। এই জলযান সমূহ নিজস্ব অবস্থান হতে ৫০ কিলোমিটার দূরত্বে শত্রুর অবস্থান নিশ্চিত করতে পারে। এতে দুজন মুমূর্ষু রোগী পরিবহনেরও ব্যবস্থা রয়েছে। বিজিবির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ এ কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক ইচ্ছা ও প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় বিজিবিতে এসব জলযান সংযোজিত হয়েছে। দেশের জলসীমান্তে অপরাধ দমন, অবৈধ অনুপ্রবেশ, মানবপাচার, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক পাচার রোধ ও চোরাচালান বন্ধে এবং প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সাথে শক্তির ভারসাম্য বজায় রাখতে আগ্নেয়াস্ত্রে সজ্জিত, অধিক সৈন্য বহনে সক্ষম এসব জলযান বিজিবির সক্ষমতা বহুলাংশে বৃদ্ধি করবে। দেশের নৌ সীমান্তে বিশেষ করে মায়ানমার সীমান্তের সেন্টমার্টিন দ্বীপ, নাফ নদী এবং ভারত সীমান্তের নীলডুমুরে ও সুন্দরবনের গহীন অরণ্যের জলসীমান্তে আন্তরাষ্ট্রীয় অপরাধ দমন, অবৈধ অনুপ্রবেশ, মানবপাচার, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক পাচার রোধ ও চোরাচালান বন্ধে এসব জলযান কার্যকর ভূমিকা রাখবে। সিলভারক্রাফট ৪০ মডেলের রিইনফোর্সড পলিমারের তৈরি ৪০ ফুট দীর্ঘ ৭৫০ হর্সপাওয়ারের তিন ইঞ্জিনের প্রতিটি জলযান ৩৩ জন সৈন্য ধারণে সক্ষম এবং এর গতিবেগ ঘণ্টায় ৫৫ নটিকাল মাইল বা ১০১ কিলোমিটার। এই জলযান সমূহ যেকোন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় চলাচলে সক্ষম এবং এতে সংযোজিত আছে স্বয়ংক্রিয় মেশিনগান সংযুক্তির সুবিধাসহ উন্নত প্রযুক্তির স্যাটেলাইট ন্যাভিগেশন সিস্টেম, চতুর্থ প্রজম্মের জিপিএস, আধুনিক সোনার সিস্টেম এবং আরও অনেক অত্যাধুনিক সরঞ্জাম। বাংলাদেশের ৪ হাজার ১৮৪ কিলোমিটার স্থল সীমান্তের পাশাপাশি ভারতের সাথে ১৮০ কিলোমিটার নৌ সীমান্ত এবং মায়ানমারের সাথে ৬৩ কিলোমিটার নৌ সীমান্তে এই জলযানের মাধ্যমে টহল জোরদার করা হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।
উপজেলা পর্যায়ে টিসিবি পণ্য বিক্রির ব্যবস্থা গ্রহণে হাইকোর্টের নির্দেশ
৩জুন,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) পণ্য উপজেলা পর্যায়ে সাতদিনের মধ্যে বিক্রির ব্যবস্থা করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এ বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তা ১১ জুনের মধ্যে আদালতকে জানাতেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ সংক্রান্ত এক রিটের ওপর শুনানি নিয়ে বিচারপতি জে বি এম হাসানের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ এ আদেশ দেন। আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মো. হুমায়ুন কবির পল্লব । রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল সমরেন্দ্র নাথ বিশ্বাস। আইনজীবী হুমায়ুন কবির পল্লব বলেন, আদালত আজ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ও টিসিবির চেয়ারম্যানকে সাতদিনের মধ্যে টিসিবির পণ্য সামগ্রী, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী সাশ্রয়ী মূল্যে বাংলাদেশের সব উপজেলায় বিক্রির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে নির্দেশ দিয়েছেন। এ বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তা আগামী ১১ জুন আদালতকে জানাতে বলা হয়েছে। ডেপুটি এটর্নি জেনারেল সমরেন্দ্র নাথ বিশ্বাস বলেন, উপজেলা পর্যায়ে টিসিবি পণ্য বিক্রিতে পদক্ষেপ নিতে বলেছেন আদালত। টিসিবির পণ্য বিক্রির ক্ষেত্র শুধু সিটি কর্পোরেশন এবং পৌরসভার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে বাংলাদেশের প্রত্যেক উপজেলা পর্যায়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিক্রির ব্যবস্থা করার নির্দেশনা চেয়ে গত ১৬ মে ল অ্যান্ড লাইফ ফাউন্ডেশনের পক্ষে রিট দায়ের করেন এ আইনজীবী। আইনজীবী পল্লব বলেন, টিসিবি পণ্য বিক্রি শুধুমাত্র সিটি কর্পোরেশন এবং কিছু কিছু পৌরসভা এলাকায় সীমাবদ্ধ। যে কারণে এর সুফল সারাদেশের নিম্নবিত্ত এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত সাধারণ মানুষ ভোগ করতে পারছেন না। প্রান্তিক জনগোষ্ঠী এ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। কিন্তু কম দামে খাদ্যদ্রব্য কেনার অধিকার বাংলাদেশের শুধুমাত্র সিটি কর্পোরেশন এবং পৌরসভা এলাকার মানুষের নয় বরং বাংলাদেশের যে কোনো প্রান্তে বসবাসকারী একজন সাধারণ মানুষের অধিকার রয়েছে। এ কারণে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে রিটটি করা হয়েছে। এর আগে গত ৩০ এপ্রিল এ বিষয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। নোটিশের জবাব না পাওয়ায় হাইকোর্টে এ বিষয়ে রিটটি দায়ের করা হয়।
আরও ২৬৯৫ করোনা রোগী শনাক্ত, নতুন মৃত্যু ৩৭
৩জুন,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশে গত একদিনে অর্থাৎ শেষ ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৬৯৫ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনা ভাইরাস সংক্রমণে। একইসঙ্গে নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৩৭ জন। বুধবার (০৩ জুন) দুপুর আড়াইটার দিকে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য দেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (মহাপরিচালকের দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে সবাইকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লকডাউন পরবর্তী সংশ্লিষ্ট দিকনির্দেশনা বিশেষ করে মাস্ক ব্যবহার এবং শারীরিক দূরত্ব মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।
শুক্রবার থেকে বিশেষ ট্রেনে আম আসবে ঢাকায়
৩জুন,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ এলাকার বাগানগুলোতে আম উৎপাদিত হলেও তা রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছানো একটি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠেছে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে। তাই এবার ব্যবস্থা করা হয়েছে আম পরিবহনের জন্য বিশেষ ট্রেনের। আমবাহী বিশেষ ট্রেনটি রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকা যাতায়াত করবে। শুক্রবার (৫ জুন) শুরু হচ্ছে এ বিশেষ ট্রেনের যাত্রা। রহনপুর থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহী হয়ে আম নিয়ে দুটি পার্সেল ট্রেন ঢাকার পথে চলাচল করবে। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) ফুয়াদ হোসেন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আমবাহী বিশেষ পার্সেল ট্রেনের নাম দেওয়া হয়েছে- ম্যাঙ্গো স্পেশাল ১, ২। ট্রেন দুটি সপ্তাহের প্রতিদিন চলাচল করবে। আর আমের পাশাপাশি সব ধরনের শাক-সবজি, ফলমূল, ডিমসহ উত্তরের বিভিন্ন কৃষিজাত দ্রব্যও এতে পরিবহন করা হবে। জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকায় আম নিতে কেজিপ্রতি ভাড়া লাগবে এক টাকা ৩০ পয়সা। আর রাজশাহী থেকে ভাড়া এক টাকা ১৭ পয়সা।
দ্বিতীয় দফায় আরও ১১ জোড়া ট্রেন চালু
৩জুন,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাসের কারণে প্রায় দুই মাস বন্ধ থাকার পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে দ্বিতীয় দফায় বুধবার (০৩ জুন) থেকে আরও ১১ জোড়া আন্তঃনগর ট্রেন চালু হয়েছে। রেলের পূর্বঘোষিত ঘোষণা অনুযায়ী, ট্রেনগুলো চলাচল শুরু করেছে। দ্বিতীয় দফায় যুক্ত হওয়া ট্রেনগুলো হচ্ছে, ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার রুটের তিস্তা এক্সপ্রেস, ঢাকা-বেনাপোল রুটের বেনাপোল এক্সপ্রেস, ঢাকা- চিলাহাটি রুটের নীলসাগর এক্সপ্রেস, ঢাকা-কিশোরগঞ্জ রুটের কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস, ঢাকা-নোয়াখালী রুটের উপকূল এক্সপ্রেস, ঢাকা-কুড়িগ্রাম রুটের কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস, ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস, খুলনা-চিলাহাটি রুটের রূপসা এক্সপ্রেস, খুলনা-রাজশাহী রুটের কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, রাজশাহী-গোয়ালন্দঘাট রুটের মধুমতি এক্সপ্রেস ও চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটের মেঘনা এক্সপ্রেস। করোনা পরিস্থিতিতে বন্ধ হওয়ার দীর্ঘ দুই মাস ছয় দিন পর গত ৩১ মে থেকে প্রথম দফায় দেশে আট জোড়া ট্রেন চলাচল শুরু হয়। এ নিয়ে চলাচল শুরু করা ট্রেনের সংখ্যা দাঁড়াল মোট ১৯ জোড়া। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার মোহাম্মদ আমিনুল হক বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেনের যাত্রা নিশ্চিত করতে আমরা সব চেষ্টা করছি। এক্ষেত্রে যাত্রীদেরও সচেতন ও সহযোগিতা প্রয়োজন।
সাদ এরশাদকে প্রথমে গালাগাল, এরপর হামলা
৩জুন,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছেলে ও রংপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাদ এরশাদের ওপর হামলা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জাতীয় পার্টির এক নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। সাদ এরশাদের অভিযোগ, মঙ্গলবার (৩ জুন) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে পল্লী নিবাসে মূল ভবনের সামনে বসে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলছিলেন তিনি। এসময় ২৭ নম্বর ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক টিপু সুলতান উপস্থিত হয়ে তাকে গালাগাল শুরু করে। এক পর্যায়ে হামলা চালালে, অন্যরা বাধা দেন। খবর পেয়ে তাজহাট থানার পুলিশ গিয়ে তাকে আটক করে। অবশ্য, হামলার জন্য নগর কমিটির সভাপতি ও রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফাকে দায়ী করেছেন সাদ এরশাদ।
আরও ১ হাজার ২৫৬ জনকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়ে গেজেট প্রকাশ
২জুন,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নতুন করে আরও ১ হাজার ২৫৬ জনকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়ে গেজেট প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন ২০০২-এর ৭(ঝ) ধারা অনুযায়ী জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল এর ৬৬তম সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক মঙ্গলবার এই গেজেট প্রকাশ করা হয়। প্রায় দেড় লাখ আবেদন থেকে তিন ধাপে দীর্ঘ প্রক্রিয়ায় যাচাই-বাছাই শেষে এ গেজেট প্রকাশ করা হলো। মুক্তিযোদ্ধাদের এ গেজেট বাংলাদেশ সরকারি মুদ্রণালয় (বিজি প্রেস) এর ওয়েবসাইটে (www. bgpress.gov.bd) পাওয়া যাবে। উপজেলা যাচাই-বাছাই কমিটি ও বিভাগীয় কমিটির যাচাই-বাছাই শেষে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল এর সভায় এ তালিকা অনুমোদন হয়। নতুন তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধাগণ রাষ্ট্রের প্রদত্ত সকল সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্য হবেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর