বুধবার, নভেম্বর ১৩, ২০১৯
রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেবে মিয়ানমার
০২অক্টোবর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া সব রোহিঙ্গাকেই ন্যাশনাল কার্ড (জাতীয় পরিচয়পত্র) দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে মিয়ানমার বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। বুধবার (২ অক্টোবর) দুপুর পৌনে ১২টায় রাজধানীর হোটেল লেক ক্যাসেলে আয়োজিত সহিংসতা ও উগ্রবাদ প্রতিরোধে যুব সমাজের ভূমিকা: উত্তরবঙ্গ থেকে অভিজ্ঞতা শীর্ষক জাতীয় গোলটেবিল বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, জাতিসংঘে বাংলাদেশ, চীন ও মিয়ানমারের মধ্যে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক হয়েছে। ওইখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে, এ তিন দেশ মিলে একটি কমিটি করে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। ওই বৈঠকে মিয়ানমার বলেছে, সব রোহিঙ্গাকে ন্যাশনাল কার্ড দেবে। চীনও এতে সম্মত হয়েছে। যেটা আমাদের জন্য অত্যন্ত খুশির খবর। তিনি আরও বলেন, মিয়ানমার স্বীকার করেছে, তাদের ফরমে ভুল আছে। এটা সংশোধন করবে। যাচাই বাছাইয়ের পর তারা রোহিঙ্গাদের নাগরিক পরিচয়পত্র দিতেও রাজি হয়েছে। এটা একটা বড় অর্জন।
ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সরকারি বেতন দিতে Rab মহাপরিচালকের প্রস্তাব
০২অক্টোবর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: Rapid Action Battalion (Rab) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছেন, আমার বিশ্বাস দেশের মসজিদগুলোয় নিয়োজিত ঈমাম ও মুয়াজ্জিনদের চাকরি সরকারি করা হলে সরকারের পক্ষে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করা সহজ হবে। আজ বুধবার রাজধানীর হোটেল লেক ক্যাসলে সহিংসতা ও উগ্রবাদ প্রতিরোধে যুবসমাজের ভূমিকা : উত্তরবঙ্গ থেকে অভিজ্ঞতা শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। বেনজীর আহমেদ বলেন, অনেক চেষ্টার পরও সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থার বিরুদ্ধে সাধারণ বিবৃতি দিতে বাংলাদেশের ইসলামী নেতাদেরকে এক জায়গায় আনা যায়নি। আমি ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করি, সব ইমামকে সরকারি চাকরির আওতায় আনা উচিত। তাহলে এটা সহজ হবে। তাহলে আমরা অনেক কিছুই করতে পারব। তিনি বলেন, ইসলামে নিষিদ্ধ সন্ত্রাসবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে জুমআর খুতবায় ইমামরা কিছু বলেন না। আমরা দেখি তারা রাজনৈতিক বক্তব্য দেন। ইমামরা রাজনীতি করতে চাইলে করেন, কিন্তু মসজিদকে ব্যবহার করবেন না। জাতীয় বাজেটের আকারের কথা তুলে ধরে Rab মহাপরিচালক বলেন, আমার মনে হয় মসজিদের সংখ্যা ৭ লাখের বেশি হবে না। তাদের বেতন দেওয়ার ক্ষমতা বাংলাদেশ সরকারের আছে। এছাড়া জঙ্গিবাদ নির্মূলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে উল্লেখ করে Rabর মহাপরিচালক বলেন, জঙ্গিবাদ ও চরমপন্থাকে উৎসাহিত করতে ফেইসবুক, টুইটার ও ব্লগে লাখ লাখ বিষয়বস্তু ঘুরে বেড়াচ্ছে। এক্ষেত্রে ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে হাজির হয়েছে।
ডিএমপির ৮ থানার ওসি রদবদল
০১অক্টোবর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) এক অফিস আদেশে এই রদবদল করা হয়। ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আদেশে ভাটারা থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. আবু বকরকে পল্টন মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ, কলাবাগান থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মোহাম্মদ ইয়াসির আরাফাত খানকে মতিঝিল থানার অফিসার ইনচার্জ, খিলক্ষেত থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. মোস্তাজিরুর রহমানকে মিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ, শ্যামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. মিজানুর রহমানকে কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ, উত্তরা-পূর্ব থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) পরিতোষ চন্দ্রকে কলাবাগান থানার অফিসার ইনচার্জ, বিমানবন্দর থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোক্তারুজ্জামানকে ভাটারা থানার অফিসার ইনচার্জ, সবুজবাগ থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মফিজুল আলমকে শ্যামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ, বনানী থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিনকে খিলক্ষেত থানার অফিসার ইনচার্জ হিসেবে বদলি করা হয়েছে। একই আদেশে মতিঝিল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ওমর ফারুককে গোয়েন্দা উত্তর বিভাগ, মিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. দাদন ফকিরকে গোয়েন্দা দক্ষিণ ও কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সাহিদুর রহমানকে গোয়েন্দা পশ্চিম বিভাগে বদলি করা হয়েছে।
বাবার অস্ত্রে রমনা ডিসির ছেলের- আত্মহত্যা
৩০সেপ্টেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমানের লাইসেন্স করা অস্ত্র দিয়ে তার ছেলে সাদিক আত্মহত্যা করেছেন বলে অভেযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে আজিমপুরের সরকারি কোয়ার্টারের ৬৭ নম্বর বাসায় এ ঘটনা ঘটে। সাদিক ঢাকা সিটি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। জানা গেছে, সকালে সবাই যখন ঘুমে ছিলেন তখন নিজের শয়নকক্ষে বাবার লাইসেন্স করা পিস্তল দিয়ে আত্মহত্যা করেন সাদিক। তার কক্ষ ভেতর থেকে আটকানো ছিল। ডিএমপির ডিসি ও এডিসি পদমর্যাদার দুইজন কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। লালবাগ জোনের ইন্সপেক্টর (অপারেশন) আসলামুদ্দিন বলেন, একটা লাইসেন্স করা অস্ত্র দিয়ে রমনা জোনের ডিসির ছেলে সাদিক আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনার পর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গেছেন। সম্প্রতি ডিএমপির রমনা বিভাগের নতুন উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) হিসেবে যোগদার করেন সাজ্জাদুর রহমান। সাজ্জাদুর রহমান ২০০৩ সালে বাংলাদেশ পুলিশে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে যোগদান করেন। এরপর তিনি সিলেট, নীলফামারী ও ময়মনসিংহ জেলায় সার্কেল এএসপি হিসেবে কাজ করেন। ২০১০ সালে জাতিসংঘ মিশনে ইউএনপিওএল লাইব্রেরিয়ায় যান। সেখানে তিনি লজিস্ট্রিক সেকশনের টিম লিডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মিশন শেষে ২০১২ সালে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন সাজ্জাদুর রহমান। ২০১৫ সালে তিনি পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের ডিসি (পশ্চিম) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর সাতক্ষীরার এসপির দায়িত্ব পালন করেন তিনি।
এবার নিষিদ্ধ হলো রেনিটিডিনের ভারতীয় কাঁচামাল আমদানি
২৯সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রেনিটিডিনের ভারতীয় কাঁচামাল আমদানি, উৎপাদন ও বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। ২৯ সেপ্টেম্বর রবিবার ওষুধ শিল্প সমিতির নেতাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, রেনিটিডিনের বেশ কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। বিদেশে একাধিক গবেষণায় এর প্রমাণ মিলেছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে ওধুষ প্রশাসন রেনিটিডিনের ওপর এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ঔষধ প্রশাসন (এফডিএ) এবং ইউরোপিয়ান মেডিসিনস এজেন্সি (ইএমএ) ১৩ সেপ্টেম্বর একটি গবেষণা পত্র প্রকাশ করে। সেখানে দাবি করা হয়, রেনিটিডিন ওষুধে এন-নাইট্রোসোডিয়ামেথাইলামাইনের (এনডিএমএ) উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এনডিএমএ প্রাণিদেহে ক্যানসারের কারণ হতে পারে। ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান বলেছেন, ওষুধ খাতের নেতৃস্থানীয়দের সঙ্গে বৈঠক করে সার্বিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে সারাকা ল্যাবরেটরিজের কাঁচামাল আমদানিতে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ওই কাঁচামালে তৈরি ট্যাবলেটও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সাময়িক এই নিষেধাজ্ঞা কেবল ভারতের সারাকা ল্যাবরেটরিজের কাঁচামালের উপর। অন্য উৎস থেকে আনা কাঁচামাল আমদানিতে কোনো বাধা নেই।
নেতাপুত্রদের বিরুদ্ধে অভিযোগ: তদন্তের নির্দেশ
২৬সেপ্টেম্বর,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগে চলমান শুদ্ধি অভিযানে শুধু আওয়ামী লীগ বা তার অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা নন, আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মীর পুত্রদের বিরুদ্ধেও অনেক অভিযোগ উঠেছে। এই পুত্রদের বিরুদ্ধেও একই রকমভাবে টেন্ডারবাজি, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, দলীয় প্রভাব খাটিয়ে অন্যের সম্পত্তি দখলসহ নানারকম অভিযোগ এসেছে। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এ সমস্ত অভিযোগের সারসংক্ষেপ দিয়েছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। জানা গেছে যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদেশ সফরে যাওয়ার আগেই এই অভিযোগগুলো আরও খতিয়ে দেখে সুর্নির্দিষ্টভাবে তদন্তের নির্দেশ দিয়ে গেছেন। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সূত্রে জানা গেছে যে এইসব অভিযোগগুলো তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্তের পর যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগগুলোর প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া যাবে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আওয়ামী লীগের একজন দায়িত্বশীল নেতা বলেছেন যে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর আগে আওয়ামী লীগকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের আওয়ামী লীগ, দুর্নীতিমুক্ত, কলুষমুক্ত আওয়ামী লীগ হিসেবে গড়ে তুলতে চান। এজন্যই তিনি এই শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন। এখানে কারো প্রতি কোনো ক্ষোভ বা আক্রোশ নয়, বরং যারা দলের পরিচয় বহন করে অনিয়ম এবং বিশৃঙ্খলা করেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়াই এই শুদ্ধি অভিযানের মূল লক্ষ্য। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সেতুমন্ত্রী বলেছেন, দলের পরিচয় ব্যবহার করে যারা অনৈতিক কর্মকাণ্ড করবে তাদের সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে- এটাই হলো নির্দেশনা। সে যেই হোক, সেটা দেখার বিষয় নয়। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা সূত্রে জানা গেছে, সাত নেতার পুত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্ত করছে তারা। এদের মধ্যে একজন সাবেক মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট নেতা। তার প্রবাসী পুত্রের বিরুদ্ধে টেন্ডারে প্রভাব বিস্তার করা, মন্ত্রণালয়ের ক্রয়কাজে হস্তক্ষেপ করে বিপুল অর্থগ্রহণের অভিযোগ রয়েছে। ২০০৯ সালে একজন মন্ত্রী, যার পুত্র ছাত্রলীগ করতো, তার বিরুদ্ধে একটি হোটেল দখলের চেষ্টাসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। ২০১৪ সালের মন্ত্রিসভায় দুজন মন্ত্রীর পুত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। উত্তরাঞ্চলের একজন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী তৎপরতায় জড়িত থাকা, চাঁদাবাজির সুর্নির্দিষ্ট অভিযোগ উঠেছে। অন্য একজন মন্ত্রীপুত্রের বিরুদ্ধে টেন্ডারে হস্তক্ষেপ এবং প্রভাব খাটিয়ে অন্যের জমি দখলের অভিযোগ রয়েছে। বর্তমানে এদের একজনের পুত্রের বিরুদ্ধে ১৯৯৬ সালেও একাধিক অভিযোগ উঠেছিল। বর্তমানে এমপি, এরকম ৩ জনের পুত্রের বিরুদ্ধে সুর্নির্দিষ্ট কিছু অভিযোগ উঠেছে। এদের মধ্যে এরকম একজন এমপির পুত্রের বিরুদ্ধে অন্যের জায়গা দখলের অভিযোগ রয়েছে। একজনের এমপির পুত্রের বিরুদ্ধে রয়েছে সরকারি কাজে বাধাদানের অভিযোগ। আর সন্ত্রাসী তৎপরতা চালানোর অভিযোগ রয়েছে তিনজনের বিরুদ্ধেই। আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র বলছে যে, শুদ্ধি অভিযান ধাপে ধাপে পরিচালিত হবে। একসঙ্গে সবাইকে গ্রেপ্তার করা বা একসঙ্গে বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে জনমনে যেন আতঙ্ক সৃষ্টি না হয়, সে ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখা হচ্ছে। এই অভিযানের মাধ্যমে একটি সুস্পষ্ট বার্তা দেওয়া হবে যে, যারা ভালো তাদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই, তাদেরকে কোনোরকম হয়রানিও করা হবে না। সেজন্য জরুরি অবস্থায় বা অনির্বাচিত সরকাররা যেভাবে অভিযান পরিচালনা করেছিল, সেই অভিযানগুলোর সঙ্গে এই অভিযানের একটি মৌলিক পার্থক্য রয়েছে। এই অভিযানগুলো গ্রহণ করা হবে ধীরে ধীরে এবং পর্যায়ক্রমে। তবে যে রোডম্যাপ তৈরি করা হয়েছে সেই রোডম্যাপ অনুযায়ীই কাজ এগোবে।
রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে মিয়ানমারকে বৈষম্য ত্যাগ করে রাজনৈতিক সদিচ্ছা দেখানোর আহবান হাসিনার
২৫সেপ্টেম্বর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রোহিঙ্গা বিষয়ক এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে নতুন প্রস্তাব দেয়ার কথা জানিয়ে বলেন, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে আমি চারটি প্রস্তাব দিয়েছিলাম। যেখানে কফি আনান কমিশনের সুপারিশগুলোর সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন, রাখাইন রাজ্যে আলাদা বেসামরিক পর্যবেক্ষিত সেইফ জোন প্রতিষ্ঠার কথা অন্তর্ভুক্ত ছিলো। মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় বিকেলে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ওআইসি সেক্রেটারিয়েট ও জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন আয়োজিত রোহিঙ্গা সংকট: উত্তরণের উপায় শীর্ষক উচ্চ পর্যায়ের এক সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমি নিম্নলিখিত বিষয়গুলো জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে (ইউএনজিএ) উপস্থাপন করব। সময় টিভি ১. রোহিঙ্গাদের টেকসই প্রত্যাবর্তন বিষয়ে মিয়ানমারকে অবশ্যই তাদের রাজনৈতিক ইচ্ছে পরিষ্কার করতে হবে। এজন্য রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ কী করছে সেটাও সুস্পষ্টভাবে বলতে হবে। ২. বৈষম্যমূলক আইন ও চর্চা পরিত্যাগ করতে হবে এবং রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদের উত্তর রাখাইন রাজ্যে যাও এবং দেখ এই নীতিতে পরিদর্শনের অনুমতি দিয়ে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই তাদের মধ্যে আস্থা তৈরি করতে হবে। ৩. রাখাইন রাজ্যে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বেসামরিক পর্যবেক্ষক মোতায়েন করে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই রোহিঙ্গাসহ সবার নিরাপত্তা ও সুরক্ষার নিশ্চয়তা (গ্যারান্টি) দিতে হবে। ৪. আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই রোহিঙ্গা সংকটের মূল কারণগুলো বিবেচনায় নিতে হবে এবং রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত নৃশংসতার জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। দুই বছরেও রোহিঙ্গা সংকটের সমাধান না হওয়ায় আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমারের বিচার দাবি করেছে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা-ওআইসি। দ্রুততম সময়ে নাগরিকত্ব দিয়ে তাদের ফেরানোর তাগিদ দিয়েছেন মুসলিম বিশ্বের নেতারা। আলোচনায় অংশ নিয়ে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহথির মোহাম্মদ সঙ্কট সমাধানে মিয়ানমারের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেন, তারা যে অপরাধ করেছে তা কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য নয়। তারা বার বার ওয়াদার বরখেলাপ করেছে। তাই তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে। তাদের বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে। রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যাকাণ্ডের তীব্র সমালোচনা করে ওআইসি মহাসচিব ড. ইউসুফ বিন আহমেদ আল ওথাইমিন দোষীদের বিচারের তাগিদ দেন। তিনি বলেন, এটা আমাদের আছে স্পষ্ট যে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মিয়ানমার কোনো উদ্যোগই নেয়নি। তারা বিশ্ব নেতাদের চাওয়াকে অবজ্ঞা করেছে। জাতিসংঘ কিছু উদ্যোগ নিলেও তা এখনো সফল হয়নি। অনুষ্ঠানে সৌদি আরব ও তুরস্কসহ মুসলিম দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রিটেন ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশের প্রতিনিধিরা সংকটের টেকসই সমাধানে মিয়ানমারকে তাগিদ দেন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে উচ্চপর্যায়ের এ সভার আগে জাতিসংঘ মহাসচিবের দেয়া মধ্যাহ্ন ভোজে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে অ্যান্তোনিও গুতেরেস, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও শেখ হাসিনা একই টেবিলে বসেন। এ সময় তাদের মধ্যে কুশল বিনিময় ছাড়াও ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। পরে সন্ধ্যায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেয়া নৈশভোজেও অংশ নেন শেখ হাসিনা।
ভ্যাকসিন হিরো পুরস্কার পেলেন শেখ হাসিনা
২৪সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: টিকাদান কর্মসূচিতে বাংলাদেশের সফলতার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভ্যাকসিন হিরো পুরস্কার দিয়েছে গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিনেশন এবং ইমিউনাইজেশন (জিএভিআই)। এক প্রতিক্রিয়ায় প্রধানমন্ত্রী এই পুরস্কার দেশবাসীর প্রতি উৎসর্গ করেছেন। স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদরদপ্তরে ইমিউনাইজেশনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের রাজনৈতিক নেতৃত্বের স্বীকৃতি শীর্ষক অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনাকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন জিএভিআই বোর্ড সভাপতি ড. এনগোজি অকোনজো ইবিলা এবং সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেথ ফ্রাংকলিন বার্ক্লে। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। উল্লেখ্য, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে যোগদানের জন্য আটদিনের সফরে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর ইউএনজিএ ৭৪তম বার্ষিক অধিবেশনে তিনি ভাষণ দেবেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর