গুলশানে হলি আর্টিজান হামলায় আট জঙ্গির বিচার শুরু
অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় হামলা মামলায় আট জঙ্গির বিরুদ্ধে বিচার শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আজ রোববার ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান এ আদেশ দেন। বিচার শুরু হওয়া আট আসামি হলেন- জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী, রাকিবুল হাসান রিগ্যান, রাশেদুল ইসলাম ওরফে র;্যাশ, সোহেল মাহফুজ, মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, হাদিসুর রহমান সাগর, শহীদুল ইসলাম খালেদ ও মামুনুর রশিদ রিপন। এর মধ্যে প্রথম ছয়জন কারাগারে ও শেষের দুইজন পলাতক রয়েছেন। আজ আদালতে অভিযোগ গঠনের জন্য দিন ধার্য ছিলো। আসামিদের বিরুদ্ধে বিচারক এ মামলায় অভিযোগ গঠন করার সময় দোষী কিংবা নির্দোষ জিজ্ঞাসা করলে আসামিরা নিজেদের নির্দেশ বলে ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন। এর পরে বিচারক সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য দিন নির্ধারণ করেন। গত ২৩ জুলাই ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক হুমায়ুন কবীর গুলশান হামলার মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এতে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক হাসনাত করিমকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করা হয়। পরে অবশ্য হাসনাত করিমকে অব্যাহতি দেয় ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ। এ মামলায় অভিযোগপত্রে ২১ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে আটজন আসামি বিভিন্ন অভিযানে ও পাঁচজন হলি আর্টিজানে অভিযানের সময় নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া জীবিত আটজনের মধ্যে ছয়জন কারাগারে ও বাকি দুজন পলাতক রয়েছেন। অভিযানে নিহত পাঁচ জঙ্গি হলেন রোহান ইবনে ইমতিয়াজ, মীর সামেহ মোবাশ্বের, নিবরাস ইসলাম, শফিকুল ইসলাম ওরফে উজ্জ্বল ও খায়রুল ইসলাম ওরফে পায়েল। এ ছাড়া বিভিন্ন জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে নিহত আটজন হলেন- তামীম আহমেদ চৌধুরী, নুরুল ইসলাম মারজান, তানভীর কাদেরী, মেজর (অব.) জাহিদুল ইসলাম ওরফে মুরাদ, রায়হান কবির তারেক, সারোয়ান জাহান মানিক, বাশারুজ্জামান ওরফে চকলেট ও মিজানুর রহমান ওরফে ছোট মিজান। কারাগারে থাকা ছয় আসামি হলেন- জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী, রাকিবুল হাসান রিগ্যান, রাশেদুল ইসলাম ওরফে র;্যাশ, সোহেল মাহফুজ, মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান এবং হাদিসুর রহমান সাগর। এ ছাড়া পলাতক দুই আসামি হলেন শহীদুল ইসলাম খালেদ ও মামুনুর রশিদ রিপন। তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা। মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাত পৌনে ৯টার দিকে হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় বন্দুকধারীরা। হামলার পর রাতেই তারা ২০ জনকে হত্যা করে। সেদিনই উদ্ধার অভিযানের সময় বন্দুকধারীদের বোমার আঘাতে নিহত হন পুলিশের দুই কর্মকর্তা। পরের দিন সকালে সেনা কমান্ডোদের অভিযানে নিহত হয় পাঁচ হামলাকারী। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরেকজনের মৃত্যু হয়। জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এ হামলার দায় স্বীকার করে। সংগঠনটির মুখপাত্র আমাক হামলাকারীদের ছবি প্রকাশ করে বলে জানায় জঙ্গি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স। এ ঘটনায় গুলশান থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করে পুলিশ। মামলার পর নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির সাবেক শিক্ষক হাসনাত করিমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাঁকে দুই দফা রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়। অন্যদিকে, এ মামলায় কল্যাণপুরের জঙ্গি আস্তানা থেকে আটক রাকিবুল হাসান রিগ্যানকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। তিনি এ মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
বিজয়ের মাসেই আসছে বিমানের দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার হংসবলাকা
অনলাইন ডেস্ক: বিজয়ের মাসেই দেশে আসছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার হংসবলাকা। বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তিসংবলিত বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজটি আগামী ১ ডিসেম্বর বিকেল সাড়ে ৪টায় ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে। এর মধ্য দিয়ে বিমানবহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়াবে ১৫টি। এর আগে চলতি বছরের ১৯ আগস্ট বিমানের প্রথম ড্রিমলাইনার আকাশবীণা ঢাকায় আসে। বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ বলেন, উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং আগামী ২৯ নভেম্বর মালিকানা হস্তান্তর করবে। ৩০ নভেম্বর দুপুরে ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করবে হংস বলাকা। বিজি-২১১২ ফ্লাইটটি যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল শহরের পেনফিল্ড এয়ারপোর্ট থেকে টানা সাড়ে ১৫ ঘণ্টা উড়ে ঢাকায় আসবে। বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এ এম মোসাদ্দিক আহমেদ বলেন, ড্রিমলাইনার যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে নতুন মাইলফলক স্পর্শ করেছে বিমান। দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার যুক্ত হওয়ার পর লন্ডন, দাম্মাম ও ব্যাংকক রুটে এ উড়োজাহাজ দিয়ে ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। আগামী ১০ ডিসেম্বর থেকে ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ দিয়ে ঢাকা-লন্ডন রুটে সপ্তাহে ৬টি, ঢাকা-দাম্মাম রুটে সপ্তাহে ৪টি এবং ঢাকা-ব্যাংকক রুটে সপ্তাহে ৩টি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। তিনি বলেন, যাত্রীদের নিরাপদ ও আরামদায়ক সেবা দিতে বিমান সচেষ্ট। অন্য এয়ারলাইনসগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নতুন উড়োজাহাজ বিমানকে সহায়তা করবে। ২০০৮ সালে মার্কিন বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির ১০টি নতুন বিমান কেনার জন্য ২ দশমিক ১ বিলিয়ন ইউএস ডলারের চুক্তি করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। ইতোমধ্যে বহরে যুক্ত হয়েছে ৬টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, ২টি ৭৩৭-৮০০ এবং ১টি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার। বাকি তিনটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার এর মধ্যে দ্বিতীয়টি বিমান বহরে যুক্ত হবে আগামী ১ ডিসেম্বর। চারটি ড্রিমলাইনারসহ সবগুলো উড়োজাহাজের নাম পছন্দ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। হংস বলাকায় যা রয়েছে : ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ ঘণ্টায় ৬৫০ কিলোমিটার বেগে উড়তে সক্ষম। শব্দ কমাতে ইঞ্জিনের সঙ্গে শেভরন প্রযুক্তি যুক্ত রয়েছে। বিমানটি নিয়ন্ত্রণ হবে ইলেকট্রিক ফ্লাইট সিস্টেমে। কম্পোজিট ম্যাটেরিয়াল দিয়ে তৈরি হওয়ায় এই বিমান ওজনে হালকা। ভূমি থেকে বিমানটির উচ্চতা ৫৬ ফুট। এর ওজন ১ লাখ ১৭ হাজার ৬১৭ কিলোগ্রাম, যা ২৯টি হাতির সমান! ককপিট থেকে টেল (লেজ) পর্যন্ত ২৩ লাখ যন্ত্রাংশ রয়েছে। ড্রিমলাইনারে আসন সংখ্যা ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ২৪টি আর ২৪৭টি ইকোনমি ক্লাস।
একুশে টেলিভিশন ভবন (জাহাঙ্গীর টাওয়ারে) আগুন
অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বেসরকারি একুশে টেলিভিশন ভবনে (জাহাঙ্গীর টাওয়ার) আগুন লেগেছে। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিট দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে এই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্মকর্তা আতিকুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, জাহাঙ্গীর টাওয়ারের পেছনের গলিতে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের পর ইটিভি ভবনের নিচতলা ও দ্বিতীয় তলায় আগুন লাগে। খবর পেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৭টি ইউনিট কাজ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। দ্রত ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছায় আগুনে ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে। কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। জাহাঙ্গীর টাওয়ার নামে এ ভবনটির ৬ থেকে ৯ তলা পর্যন্ত ইটিভি কার্যালয়। বাকি ফ্লোরগুলোতে বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কার্যালয় রয়েছে।
আগামী বছরের এপ্রিল থেকে সারাদেশে কৃষি শুমারি কার্যক্রম শুরু হবে
অনলাইন ডেস্ক: আগামী বছরের এপ্রিল থেকে সারাদেশে কৃষি শুমারি কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানিয়েছে, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো। এ-লক্ষ্যে গতকাল রাজধানীর শেরেবাংলা-নগরে পরিসংখ্যান ব্যুরো মিলনায়তনে, বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে দুইদিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মসূচি আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কৃষি শুমারির মাধ্যমে শস্য, মৎস্য ও পানিসম্পদ খাতে বড় পরিসরে পর্যায়ক্রমিক পরিসংখ্যান তৈরি করা হবে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর নাগাদ কৃষি শুমারি কার্যক্রম শেষ হবে বলে জানান, পরিসংখ্যান ব্যুরোর কর্মকর্তারা।
সময় ও পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রার্থী বদলাতেও হতে পারে: ওবায়দুল কাদের
অনলাইন ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কোনো কোনো আসনে মনোনয়নের চিঠি দুটিও দেওয়া হয়েছে। এটি টেকনিক্যাল কারণে। সময় ও পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রার্থী বদলাতেও হতে পারে। অন্য প্রার্থী বেশি শক্তিশালী হলে দলের প্রার্থী বিবেচনা করা হবে। রোববার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, আজ রোববার সকাল থেকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থীদের অনানুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দেওয়া হচ্ছে। আনুষ্ঠানিকভাবে আগামীকাল বিকেল সাড়ে তিনটায় জোটগত প্রার্থী ঘোষণা করা হবে। জোটের শরিকদের জন্য ৬০-৭০টি আসন ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ঠিক কতটি আসন শরিকদের দেওয়া হয়েছে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি জানি কতটি আসন, কিন্তু বলব না। কাল আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হবে। তবে, জোটের আসন ৭০ টির বেশি হবে না। বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করে ঘোলা পানিতে মাছ ধরতে চাইছে বলেই পুলিশ প্রশাসন নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ করে যাচ্ছে। বিএনপির পরাজয়ের শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি। নির্বাচনে হেরে যাবে বলে পুলিশ, প্রশাসন, ইসি সবাইকে টার্গেট করছে।
আপনাদের জুলিশিয়াল মাইন্ড অ্যাপ্লাই করতে হবে: ইসি শাহাদাত
অনলাইন ডেস্ক: নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের বলেছেন,আপনাদের আদেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে গুলি চালানো বা এই ধরনের কোনো কাজের ক্ষেত্রে আপনাদের জুলিশিয়াল মাইন্ড অ্যাপ্লাই করতে হবে। পরিবেশ পরিস্থিতি দেখে গুলি করার আদেশ দেবেন। রোবাবার আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের দ্বিতীয় দিনের ব্রিফিংয়ের এসব কথা বলেন তিনি। শাহাদাত হোসেন বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা যারা নিয়োজিত থাকবেন- তারা আপনাদের আদেশেই যদি গুলি চালানোর প্রয়োজন হয়, সেটি করবেন। সুতরাং আপনারা পরিস্থিতি বিবেচনা করে মতামত দেবেন বা যারা আপনাদের আদেশে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ আনতে গুলি চালানো বা এই ধরনের কোনো কাজ করবেন সেক্ষেত্রে আপনাদের জুলিশিয়াল মাইন্ড অ্যাপ্লাই করতে হবে। তিনি বলেন, আমরা চাই প্রতিটি ভোটার যেন নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে যেতে পারেন এবং ভোট দিয়ে নিরাপদে বাড়িতে ফিরতে পারেন। এ নির্বাচন কমিশনার বলেন, এমন এক মুহূর্তে আমরা এখানে একত্রিত হয়েছি যখন সারাদেশ, জাতি আসন্ন এই নির্বাচনটির দিকে তাকিয়ে আছে। শুধু জাতি নয়, সারাবিশ্ব আমাদের এই নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে আছে। এই নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তন হয়। সেই অর্থে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন চায়- আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেনো একটি সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ এবং আইনানুগ একটা নির্বাচন যেন আমরা অনুষ্ঠান করতে পারি। এরকম নির্বাচন অনুষ্ঠান করার ক্ষেত্রে আপনাদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনাদের পেশাগত যোগ্যতার মাধ্যমে প্রমাণ করতে হবে যে, আপনারা নিরপেক্ষ এবং অত্যন্ত যোগ্য আপনাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে । তিনি বলেন, আচরণবিধি যেন যথাযথভাবে পালিত হয়, সকল প্রার্থী যেন সমান সুযোগ পায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এই নির্বাচন কর্মকাণ্ড পরিচালনায় আপনাদের একদমই নিরপেক্ষ থাকতে হবে। নির্বাচনটা হতে হবে আইনানুগ। তিনি আরও বলেন, আপনারা জানেন যে, এই নির্বাচনে সকল দল অংশগ্রহণ করছে। যেহেতু সকল দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, আমার দৃঢ় বিশ্বাস এই নির্বাচন অত্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ একটা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আমাদেরকে লক্ষ্য রাখতে হবে যাতে এখানে কোনো রকম প্রতিহিংসার কোনো রকম সুযোগ না থাকে। আপনারা আপনাদের ওপর অর্পিত যে দায়িত্ব, কর্তব্য- সেটা পালনের ক্ষেত্রে এই প্রতিহিংসাটাকে বন্ধ করতে হবে। আপনারা আপনাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব সাহসিকতার সাথে পালন করতে হবে। কর্তব্য পালনে সবসময় আমরা আপনাদের পাশে আছি। আমরা পাশে থাকবো। সুতরাং নির্ভিকভাবেই আপনাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে যোগ করেন তিনি। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ৩০ ডিসেম্বর ভোট হবে। এর আগে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা, ২ ডিসেম্বর বাছাই ও ৯ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় রয়েছে।
২৬ নভেম্বর জোটগতভাবে মনোনীতদের তালিকা ঘোষণা করা হবে: ওবায়দুল কাদের
অনলাইন ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নপ্রাপ্তদের চিঠি দিতে শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। রোববার(২৫ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে শুরু হওয়া এই কার্যক্রমে দেওয়া হচ্ছে ২৩০টি আসনের প্রার্থীদের চিঠি। কাল সোমবার(২৬ নভেম্বর) জোটগতভাবে মনোনীতদের তালিকা ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এছাড়া, প্রয়োজনে মনোনীত প্রার্থীদের পরিবর্তন আসতে পারে বলেও জানান তিনি। নির্বাচনে দলীয় টিকিট হাতে পেয়ে এভাবেই আনন্দ আর উচ্ছ্বাসে মাতেন নেতাকর্মীরা। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে সৃষ্টি হয় উৎসবমুখর পরিবেশ। এর আগে রোববার সকাল সাড়ে দশটা থেকে শুরু হয় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রাপ্তদের চিঠি দেয়া। চিঠি নিয়ে হাসিমুখে একে একে বেরিয়ে আসেন মনোনয়ন প্রাপ্তরা। বাইরে অপেক্ষারত নেতাকর্মীদের মাঝে তখন উচ্ছ্বাস আর স্লোগান। এবার গোপালগঞ্জ ৩ ও রংপুর ৬ আসন থেকে নির্বাচনে লড়বেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের মনোনয়ন পেয়েছেন নোয়াখালী ৫ আসনের। এছাড়া, ঢাকা ২ আসন থেকে অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, নড়াইল ২ থেকে ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা, কুষ্টিয়া ৩ থেকে মাহবুব উল আলম হানিফ। মনোনয়নের এই চিঠিকে দলের জন্য দীর্ঘদিনের ত্যাগ আর শ্রমের পুরস্কার হিসেবেই দেখছেন মনোনয়নের দৌড়ে উত্তীর্ণরা। মনোনয়নের চিঠি নিয়ে নিজ আসনে ফিরে গিয়ে নির্বাচনী কাজে নেমে পড়ার কথাও জানান অনেকে। এদিকে, রাজধানীর ধানমন্ডিতে দলীয় সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান, সোমবার জোটের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হবে। গত ৯ নভেম্বর থেকে শুরু হয় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি। এবার মনোনয়ন ফরম কিনেন প্রায় সাড়ে চার হাজার প্রার্থী।