রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী অত্যাধুনিক-রাজহংস,উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
১৭সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের চতুর্থ ড্রিমলাইনার রাজহংস উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মাধ্যমে বিমানের বহরে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির চতুর্থ ও শেষ ড্রিমলাইনারটি সংযুক্ত হলো। মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল সোয়া ৪টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিআইপি টার্মিনালে ফিতা কেটে রাজহংসের উদ্বোধন করেন তিনি। এর আগে ১৪ সেপ্টেম্বর বিকাল পৌনে ৪টায় বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার- রাজহংস (বিজি-৫০০৪) উড়োজাহাজটি দেশে পৌঁছায়। এটি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ১৬তম উড়োজাহাজ। এর আগে গত বছরের আগস্ট ও ডিসেম্বর মাসে- আকাশবীণা ও হংসবলাকা নামের প্রথম ও দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার বোয়িং ৭৮৭-৮ বাংলাদেশে আনা হয়। গত জুলাই মাসে তৃতীয় বিমান- গাংচিল আনা হয়। প্রধানমন্ত্রী নিজেই বিমানগুলোর নামকরণ করেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ২০০৮ সালে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। ইতিমধ্যে চারটি নতুন বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দুটি নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও তিনটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ বিমানবহরে যুক্ত হয়েছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বহরে যুক্ত হতে যাওয়া চারটি ড্রিমলাইনারের নাম পছন্দ ও বাছাই করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এগুলো হল- আকাশবীণা, হংসবলাকা, গাঙচিল ও রাজহংস। এর আগে ৪টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, ২টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ইআরের নামও প্রধানমন্ত্রীর দেয়া যথা- পালকী, অরুণ আলো, আকাশ প্রদীপ, রাঙা প্রভাত, মেঘদূত ও ময়ূরপঙ্খী।
বাংলাদেশ থেকে আরো জনশক্তি নিতে চায় সৌদি
১৭সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সৌদি আরবের বিভিন্ন কোম্পানি বাংলাদেশ থেকে দক্ষ ও আধাদক্ষ জনশক্তি নিয়োগের আগ্রহ ব্যক্ত করেছে। সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সৌদির রাজধানী রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে অংশগ্রহণকালে দেশটির বিভিন্ন জনশক্তি নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা এ আগ্রহ ব্যক্ত করেন। বাংলাদেশ-এ হাব ফর এফোর্ডেবল অ্যান্ড কোয়ালিটি হিউম্যান রিসোর্সেস শীর্ষক এই সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। দূতাবাসের শ্রম কল্যাণ উইং আয়োজিত এ সেমিনারে উপ-মিশন প্রধান ড. নজরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। ইমরান আহমদ বলেন, বর্তমান সরকার সৌদি আরবে বাংলাদেশের জনশক্তি নিয়োগের প্রক্রিয়া সহজ করার পাশাপাশি অভিবাসন ব্যয় কমানোর লক্ষ্যে কাজ করছে। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের দীর্ঘ দিনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। আমরা চাই আগামী দিনে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার মাধ্যমে এ সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে। বিদেশে দক্ষ জনশক্তি রপ্তানির জন্য বাংলাদেশে আধুনিক ও উন্নতমানের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়েছে। সোমবার ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী সৌদি নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে জনশক্তি সংক্রান্ত তাদের চাহিদা জানানোর জন্য অনুরোধ করেন, যাতে বাংলাদেশ থেকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদানপূর্বক জনশক্তি রপ্তানি করা সম্ভব হয়। ইমরান আহমদ বলেন, জনশক্তি রপ্তানি প্রক্রিয়া আরও সহজ ও দ্রুত করার লক্ষ্যে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কোনো রিক্রুটিং এজেন্সি প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ছাড়া যদি জনশক্তি রফতানি করে তবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। সেমিনারের শুরুতে বাংলাদেশের বিভিন্ন সেক্টরে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত জনশক্তির বিষয়ে বিস্তারিত উপস্থাপনা করেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জাহিদ হোসেন ও সারওয়ার আলম। দূতাবাসের কর্মকর্তারা সেমিনারে যোগ দেন। সেমিনারে সৌদি আরবে বাংলাদেশের জনশক্তি নিয়োগকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৪০ জন প্রতিনিধি অংশ নেয়। উল্লেখযোগ্য নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে আল বাওয়ানী কোম্পানি, হারফি ফুড সার্ভিস লিমিটেড, সামাসকো, আরকো, তেজারত কোম্পানি, আল জাযিরা কোম্পানি, হামেদ সাউদ আল উতাইবী, সিডার কোম্পানি ও আলফাহাদ শাফরজি পালনজি কোম্পানির প্রতিনিধিরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। সূত্র-বাসস
দেশে এই প্রথমবারের মতো মেট্রোরেল প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে
১৬সেপ্টেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম:প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা সোমবার মেট্রোরেলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পৃথক বিশেষ পুলিশ ইউনিট গঠনের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। আজ সকালে গণভবনে ম্যাস RAPIED ট্রানজিট (এমআরটি)র অগ্রগতির ওপর একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের সময় প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন। ঢাকা ম্যাস RAPIED ট্রানজিট কোম্পানির (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে ঢাকা মহানগরী ও এর আশপাশের এলাকায় এমআরটি লাইন নির্মাণের জন্য টাইম বাউন্ড অ্যাকশন প্ল্যান ২০৩০ এর বাস্তবায়নের সার্বিক অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরেন। পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তিনি ৬ লাইন এমআরটির পাশাপাশি ১, ২, ৩, ৪, ৫ লাইন এমআরটির অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরেন। দেশে এই প্রথমবারের মতো মেট্রোরেল প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা)র সহযোগিতায় রাষ্ট্র মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ডিএমটিসিএল প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এই মেগা প্রকল্পের দ্রুত ও যথাযথ বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে কিছু নির্দেশনা দেন। সভায় জানানো হয়, আগস্ট নাগাদ ৬ লাইন প্রকল্পটির (উত্তরা-আগারগাঁও-মতিঝিল) ৩০ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়াও সভায়, আরো জানানো হয়, এখন পর্যন্ত ৬ লাইনের এমআরটির উত্তরা আগারগাঁও অংশের প্রায় ৪৬ শতাংশ কাজ এবং আগারগাঁও-মতিঝিলের ২৪ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।
বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন ব্রিটিশ এমপিরা
১৬সেপ্টেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম:রোহিঙ্গাদের ফেরাতে ব্রিটিশ এমপিদের সহায়তা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। এদিকে ব্রিটিশ এমপিরা জানিয়েছেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে তারা পাশে থাকবেন। আজ সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বাংলাদেশে সফররত ব্রিটিশ পার্লামেন্টের একটি প্রতিনিধি দল পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠক করেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত এ বৈঠকে ড. মোমেন রোহিঙ্গা পরিস্থিতি তুলে ধরেন। এসময় রোহিঙ্গাদের নিরাপদে ফেরাতে ব্রিটিশ এমপিদের সহায়তা চান তিনি। বৈঠকে ব্রিটিশ এমপিরা বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন। তারা বাংলাদেশের আরও উন্নয়নে পাশে থাকবেন বলেও জানান।
কোনও রোহিঙ্গাই এনআইডি কার্ড পাননি
১৬সেপ্টেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কোন রোহিঙ্গাই বাংলাদেশের ভোটার হতে পারেননি বলে দাবি করেছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনু-বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম। তিনি বলেন, কোনও রোহিঙ্গাই ন্যাশনাল আইডি (এনআইডি) কার্ড পাননি। বাংলাদেশে আসা প্রায় ১১ লাখ ২০ হাজার রোহিঙ্গার আঙ্গুলের ছাপ ও পরিচিতি সংবলিত সার্ভার কমিশনের কাছে রয়েছে। ফলে তাদের কেউ চাইলেই ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন না। আজ সোমবার বিকালে নির্বাচন ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই দাবি করেন। এনআইডির ডিজি বলেন, রোহিঙ্গাদের ভোটার হওয়ার যে তথ্য এসেছে, সেটি মূলত তারা চেষ্টা করেছেন। কিন্তু, কেউই ভোটার হতে পারেননি। কারণ ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় বিশেষ কার্যক্রম শেষ করে সার্ভারে তথ্য আপলোড করা হয়। এরপর ফিঙ্গার প্রিন্ট ম্যাচিং করে যারা ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হওয়ার যোগ্য, কেবল তাদেরই অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ ক্ষেত্রে কারও তথ্য অসম্পূর্ণ থাকলে সেটি লক করে দেওয়া হয়। তিনি আরও বলেন, লাকী বেগম নামের একজন স্মার্টকার্ড আনতে গেলে মূল সার্ভার থেকে ধরা পড়ে যে, তার এনআইডি সঠিক নয়। জিজ্ঞাসাবাদে চিহ্নিত হয়েছে, তাকে বৈধ এনআইডি দেওয়া হয়নি। তাই, তাকে পুলিশে দেয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
চার সচিবকে সিনিয়র সচিব পদে পদোন্নতি
১৬সেপ্টেম্বর,সোমবার,বিশেষ সংবাদদাতা,নিউজ একাত্তর ডট কম:নির্বাচন কমিশন, জননিরাপত্তা বিভাগ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের চার সচিবকে সিনিয়র সচিব পদে পদোন্নতি দিয়েছে সরকার। একই সাথে তাদের আগের কর্মস্থলেই সিনিয়র সচিব হিসেবে পদায়ন করে সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের সচিব আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব মো. আলমগীর এবং জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীনকে সিনিয়র সচিব হিসেবে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে সরকারে এখন সিনিয়র সচিবের সংখ্যা দাড়ালো ১২ জনে। সিনিয়র সচিবদের পদমর্যাদা মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও সচিবদের মাঝামাঝি।
এ পি জে আব্দুল কালাম স্মৃতি পুরস্কারে ভূষিত শেখ হাসিনা
১৫সেপ্টেম্বর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এবং পরমাণুবিজ্ঞানী এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতির উদ্দেশ্যে প্রবর্তিত ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৯ এর জন্য মনোনীত হয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল সোমবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এ পুরস্কার হস্তান্তর করা হবে। বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ঐতিহাসিক সুসম্পর্ক স্থাপন করা, দেশের জনকল্যাণে নিজেকে নিবেদিত করা বিশেষত নারী ও শিশুদের এক্ষেত্রে প্রাধান্য দেয়া এবং আন্তর্জাতিক শান্তি ও সহযোগিতায় অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রধানমন্ত্রীকে এ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে। ৮৪ বছর বয়সে ২০১৫ সালের ২৭ জুলাই মারা যান ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এ পি জে কালাম। এরপর তার স্মৃতির উদ্দেশ্যে প্রবর্তিত হয় ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড। পুরস্কার প্রবর্তনের পর ২০১৬ সালে প্রথম এই অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয় মালদ্বীপের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিনকে। পরের দুবছর এ অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয় ঘানা ও মরিশাসের প্রেসিডেন্টের হাতে।
ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া নজিরবিহীন
১৫সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম:আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশে এই প্রথম শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হলো। তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে এবং বাধ্যতামূলক পদত্যাগ করানো হয়েছে। বাংলাদেশের অন্য কোনো ছাত্রসংগঠনে এ ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের নজির নেই। আজ দুপুরে নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জের ভূলতা ফ্লাইওভার নির্মাণকাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। ওবাদুল কাদের বলেন, অনিয়ম-দুর্নীতির সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা নিচ্ছে। সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। যে অন্যায় করবে, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই ছাত্রলীগের বর্তমান পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও দেখভাল করছেন। ছাত্রলীগের পরবর্তী সম্মেলন সম্পন্ন করতে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে তিনি দায়িত্ব দিয়েছেন। তারা ভবিষ্যতে একটি সুষ্ঠু ও সুন্দর সম্মেলন করার জন্য প্রস্তুতি নেবেন। কাদের আরও বলেন, আমাদের কিছু জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নের সম্মেলন বাকি আছে। এই সময়ের মধ্যে এসব সম্মেলন সম্পন্ন করা হবে। আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। অচিরেই ঢাকা-সিলেট মহাসড়ককে চার লেনে রূপান্তরের কাজ শুরু হবে বলে তিনি জানান। এসময় ভূলতা ফ্লাইওভারের প্রকল্প পরিচালক গোলাম হায়দার রিয়াজ, নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ, রুপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম প্রমুখ।
অর্থনৈতিক উন্নয়নে বস্ত্রশিল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে
১৫সেপ্টেম্বর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:অর্থনৈতিক উন্নয়নে বস্ত্রশিল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী। মন্ত্রী বলেন, প্রতিযোগিতা সক্ষম একটি বস্ত্র ও পাটখাত গড়ে তোলার ভিশন এবং বস্ত্র ও পাট খাতের অপার সম্ভাবনাকে পূর্ণরূপে কাজে লাগিয়ে উৎপাদনশীলতা, কর্মসংস্থান ও রপ্তানি বৃদ্ধির মিশন নিয়ে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের শিল্পায়ন, কর্মসংস্থান ও রপ্তানি বৃদ্ধিসহ সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে বস্ত্র গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। রবিবার ( বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় বস্ত্র দিবস-২০১৯ প্রথমবারের মত সফলভাবে উদযাপনের উদ্দেশ্যে আয়োজিত প্রস্তুতিমূলক সভায় তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী আরও বলেন, বস্ত্রশিল্প বাংলাদেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের একটি গুরুত্বপূর্ণ খাত। এজন্য বস্ত্রশিল্পের সফলতা অর্জন ও এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য এ শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সহযোগিতা দেওয়া ও উদ্বুদ্ধ করাসহ উৎসাহিত করা হবে। বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ভিশন -২০২১, অনুযায়ী ২০২১ সালের মধ্যে বস্ত্রখাতের রপ্তানি ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের কাজ করছে। এ ধারাবাহিকতায় বস্ত্রখাতের সঠিক বিকাশ ও সুরক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট সবার করণীয় নির্ধারণ করে বিভিন্ন বিষয় সুনির্দিষ্ট করে বস্ত্রনীতি-২০১৭ এবং বস্ত্র আইন-২০১৮ প্রণয়ন করেছে। একটি আনুষ্ঠানিক দিবসের উদযাপন এখাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার লক্ষ্য অর্জনে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।