বুধবার, নভেম্বর ১৩, ২০১৯
মিন্নির জামিন বহাল
০২সেপ্টেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে হাইকোর্টের দেয়া জামিনের রায় বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত। এই আদেশের ফলে মিন্নির কারামুক্তিতে আর কোন বাধা নেই বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা। আজ সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর আদালত এ আদেশ দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারোয়ার হোসেন বাপ্পী। অন্যদিকে মিন্নির পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জেডআই খান পান্না ও সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি এএম আমিন উদ্দীন। গতকাল রোববার (১ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চের স্বাক্ষরের পর মিন্নির জামিনের রায় প্রকাশিত হয়। পরে ওই রায়ের বিরুদ্ধে মিন্নির জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল আবেদন জানায়। গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে মিন্নির স্বামী রিফাত শরীফকে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা সাতজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। বরগুনা পুলিশ লাইনন্সে এনে দিনভর জিজ্ঞাসাবাদের পর রিফাত হত্যায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় মিন্নিকে গত ১৭ জুলাই গ্রেফতার দেখায় বরগুনা জেলা পুলিশ। পরে আদালতে হাজির করে তাকে ৫ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। এরিমধ্যে মিন্নির কাছ থেকে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেয়া হয়েছে। এরপর কয়েক দফা আবেদন জানালেও নিম্ন আদালতে জামিন মেলেনি মিন্নির। পরে একই মামলায় গত ১৮ আগস্ট দ্বিতীয় দফায় জামিন চেয়ে মিন্নি হাইকোর্টে আবেদন করেন।
ঢেলে দেই বক্তা তাহেরীর বিরুদ্ধে মামলা
০১সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইসলামী জলসায় অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টার অভিযোগ এনে মুফতি মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন তাহেরীর বিরুদ্ধে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলার আবেদন করা হয়েছে। রোববার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৮ ও ৩১ ধারায় ঢাকার আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট মো. ইব্রাহিম খলিল এ মামলা আবেদন করেন। আজই সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস-সামছ জগলুল হোসেনের আদালতে মামলাটির শুনানি হবে। তাহেরীকে ভণ্ড ও প্রতারক উল্লেখ করে মামলায় বলা হয়, আসামি নিজেকে মুফতি দাবি করলেও তার ইসলামী জ্ঞান নিয়ে সন্দেহ হয়। তিনি ইসলামী ওয়াজ মাহফিলে ভক্তদের নিয়ে নেচে নেচে গান গাওয়া শুরু করেন। বিভিন্ন ইউটিউব লিংকের কথা উল্লেখ করে বলা হয়, ওয়াজে এক শ্রোতা বিড়ি খাওয়ার দোয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন,আল্লাহুম্মা বারেক লানা দে মা বিড়ি টানা অন্য একটি ওয়াজে -আমি তো বালা না বালা লইয়াই থাইকো আমি বারো মাস তোমার অপেক্ষায় থাকবো, এছাড়া ওয়াজে চা খাওয়ার সময় অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে ঢেলে দেইর মতো ফেতনা সৃষ্টিকারী বক্তব্য দিয়ে চলেছেন। বাদী অভিযোগ করেন, ওয়াজ মাহফিলের নামে আসামির এ সব ভন্ডামী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করে ইসলাম ধর্মের মধ্যে ঘৃণা, বিদ্বেষ, সৃষ্টি করে মানুষকে ধর্মীয় শিক্ষা না দিয়ে ভুল বুঝিয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করছেন। মামলায় আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন করা হয়েছে।
বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত হত্যায় মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট
০১সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দিয়েছে পুলিশ। রোববার (১ সেপ্টেম্বর) বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করা হয়। আর চার্জশিটে রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে। একই সঙ্গে রিফাত হত্যা মামলার ১নং আসামি নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এর আগে মিন্নির জামিনাদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। রোববার দুপুরে জামিন আবেদনের রায় প্রকাশিত হয়। রোববার (১ সেপ্টেম্বর) অ্যাডভোকেট অন রেকর্ড সুফিয়া খাতুন এই আবেদন করেন। গত ২৯ আগস্ট হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ দুই শর্তে মিন্নির জামিন মঞ্জুর করেন। এদিকে বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় হাইকোর্টে জামিন পাওয়া রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। রোববার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অন রেকর্ড সুফিয়া খাতুন এ আবেদন করেন। এর আগে গত ২৯ আগস্ট হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ দুই শর্তে মিন্নির জামিন মঞ্জুর করেন। জামিন-পরবর্তী প্রতিক্রিয়ায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পী বলেছিলেন, উই আর ভেরি শকড (আমরা মর্মাহত)। আমরা এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে নয়ন বন্ডের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রিফাত শরীফকে। তার স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও তাদের দমাতে পারেননি। গুরুতর আহত রিফাতকে ওইদিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। রিফাতকে কুপিয়ে হত্যার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ওই ভিডিওতে প্রাথমিকভাবে রিফাতের স্ত্রী মিন্নির সাহসী ভূমিকা দৃশ্যমান হলেও পরবর্তীতে নানা নাটকীয়তায় শেষ পর্যন্ত এই হত্যাকাণ্ডে আসামি হয়ে কারাগারে যেতে হয় মিন্নিকে। তবে মিন্নির বাবা শুরু থেকেই দাবি করে আসছেন, তার মেয়েকে ফাঁসানোর চেষ্টা চলছে।
একাত্তরের পর বাংলাদেশ থেকে কেউ ভারতে যায়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
০১সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: একাত্তরের পরে বাংলাদেশ থেকে কেউ অবৈধভাবে ভারতে যায়নি জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন,সুস্পষ্টভাবে বলতে চাই- একাত্তরের পরে আমাদের বাংলাদেশ থেকে কেউ ভারতে যায়নি। যারা গিয়েছেন তারা আগেই গিয়েছেন। ওই দেশ থেকে যেমন এখানে এসেছে এখান থেকেও ওখানে গিয়েছে। কাজেই আমাদের চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। আজ রোববার রোববার সকালে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে কারারক্ষীদের ৫৬তম ব্যাচের বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী কুচকাওয়াজ ও শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। বুনিয়াদি প্রশিক্ষণে সর্বমোট ৩১৯ জন কারারক্ষী প্রশিক্ষণার্থী অংশগ্রহণ করেন। ভারতের আসামে ঘোষিত নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) প্রকাশ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন,কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে আমরা মন্তব্য করছি না এবং করতেও চাই না। ভারত যদি আমাদের কিছু জিজ্ঞাসা করে তখন আমরা আমাদের প্রতিক্রিয়া জানাবো। তিনি বলেন, সরকারের আন্তরিকতায় রাজশাহীতে কারা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের কাজ চলমান রয়েছে। ঢাকার কেরানীগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কারা প্রশিক্ষণ একাডেমি নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।
বাংলাদেশে আইএস বলতে কিছু নেই: তথ্যমন্ত্রী
০১সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশে আইএস বলতে কিছু নেই। গাড়ির চাকা বার্স্ট হলেও বলে আইএস করেছে। আবার ককটেল বিস্ফোরণ হলেও বলে আইএস করেছে। কারা যে এগুলো ছড়ায় আমরা জানি না। বললেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। শনিবার রাতে সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে পুলিশের ওপর হামলায় দায় স্বীকার করে আইএসের দেওয়ার বিবৃতি নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। রোববার সচিবালয়ে নিজ কক্ষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করেন। গাড়িচাপায় পা হারানো কৃষ্ণা রানী সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, কৃষ্ণার ওপর গাড়ি তুলে দেয়া অত্যন্ত মর্মান্তিক। তিনি রাস্তার সাইডে থাকলেও এই ঘটনা ঘটেছে। আমি গাড়ির মালিকদের বলবো, যাতে তারা কোনও হেলপার দিয়ে গাড়ি না চালান। যারা এই দুর্ঘটনাটি ঘটিয়েছে তাদের বিচার হোক, সেটিই আমি চাই। তিনি আরও বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে সামাজিক গুজব ছড়ানো হয়। আমি চাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেই এর সমাধান হোক।
পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে শিল্পকারখানা স্থাপন করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
০১সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে শিল্পকারখানা স্থাপন এবং বিশ্বে নতুন রপ্তানি বাজার সৃষ্টি করতে হবে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ আয়োজনে রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রপ্তানিখাতে বিশেষ অবদানের জন্য জাতীয় রপ্তানি ট্রফি ২০১৬-২০১৭ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন,আগামী অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি হবে ৮ দশমিক ২ ভাগ। আর ২০২২-২৩ অর্থবছরে প্রবৃদ্ধির হার ডাবল ডিজিটে নিয়ে যাওয়া হবে। সরকারের ধারাবাহিকতা আছে বলেই জাতীয় অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধির হার ক্রমশ বাড়ছে। বাংলাদেশকে অর্থনৈতিকভাবে আরো শক্তিশালী করতে ব্যবসায়ীদের সর্বোচ্চ সুবিধা দেয়া হবে। শেখ হাসিনা আরো জানান, ২০২১ সাল নাগাদ ৬০ হাজার কোটি টাকা রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা সামনে রেখে বিভিন্ন মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে সরকার। পাশাপাশি সরকার মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ রেখেছে। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ব্যাংকের ঋণের হার ডাবল ডিজিট বলেই সুদের হার বেড়ে যায়। তাই বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ সহজ করা এবং সুদের হার কমানোর লক্ষ্যে ব্যাংক ঋণ সিঙ্গেল ডিজিটে আনার চেষ্টা করছে সরকার। সরকারি খাতকে বিনিয়োগ সুযোগ দেয়ায় অর্থনীতির চাকা সচল হয়েছে বেশি। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখা এবং সুদের হার কমাতে সিঙ্গেল ডিজিটের ঋণ দেয়ার চেষ্টা করবে সরকার। পরিবেশ রক্ষায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, জলাশয় ধ্বংস না করা এবং শিল্প কলকারখানার পাশে জলাধার রাখতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।
আগামী ১০ সেপ্টেম্বর উদযাপিত হবে পবিত্র আশুরা
০১সেপ্টেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ পয়লা মহররম। ১৪৪০ হিজরি সনকে বিদায় জানিয়ে শুরু হলো ১৪৪১ হিজরি বর্ষের পথচলা। স্বাগত হিজরি নববর্ষ ১৪৪১। ইসলামের বিধিবিধান হিজরি সন ও চান্দ্র তারিখের সঙ্গে সম্পর্কিত। ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান ও উৎসবসহ সব ক্ষেত্রেই মুসলিম উম্মাহ হিজরি সনের ওপর নির্ভরশীল। বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর সংস্কৃতিতে ও মুসলমানদের জীবনে হিজরি সনের গুরুত্ব অপরিসীম। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় দেশের আকাশে হিজরি ১৪৪১ সালের মহররম মাসের চাঁদ দেখা গেছে। তাই আজ রোববার থেকে পবিত্র এ মাসের গণনা শুরু হবে। সে হিসেবে আগামী ১০ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার উদযাপিত হবে পবিত্র আশুরা। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ও জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি শেখ মো. আব্দুল্লাহ। মহররম শব্দের অর্থ সম্মানিত। ইসলামের ইতিহাসে এই মাসটি এমন কতগুলো উল্লেখযোগ্য স্মৃতিবিজড়িত, যে স্মৃতিসমূহের সম্মানার্থেই এই মাসকে মহররম বা সম্মানিত বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। মহানবী হজরত মুহাম্মাদ (দ.)-এর হিজরতের বছরকে ইসলামি সন গণনার প্রথম বছর ধরা হয়েছে বলে এটি হিজরি সন নামে পরিচিত। দ্বিতীয় খলিফা হজরত উমর (রা.)-এর খেলাফতের সময় ভূখণ্ড ইসলামি খেলাফতের অন্তর্ভুক্ত হয়। আল্লামা শিবলি নোমানি (র.) সুপ্রসিদ্ধ আল ফারূক গ্রন্থে উল্লেখ করেন, হজরত উমর (রা.)-এর শাসনামলে ১৬ হিজরি সনের শাবান মাসে খলিফার কাছে একটি দাপ্তরিক পত্রের খসড়া পেশ করা হয়, পত্রটিতে সনের উল্লেখ ছিল না। দূরদৃষ্টিসম্পন্ন খলিফা বললেন, পরবর্তী কোনো সময়ে তা কীভাবে বোঝা যাবে যে এটি কোন সনে পেশ করা হয়েছিল? অতঃপর তিনি সাহাবায়ে কেরাম ও অন্যান্য শীর্ষ পর্যায়ের জ্ঞানী-গুণীদের পরামর্শে হিজরতের ১৬ বছর পর ১০ জুমাদাল উলা মুতাবিক ৬৩৮ খ্রিষ্টাব্দে হিজরি সন প্রবর্তনের এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। হিজরতের বছর থেকে সন গণনার পরামর্শ দেন হজরত আলী (রা.)। পবিত্র মহররম মাস থেকে ইসলামি বর্ষ শুরু করার পরামর্শ প্রদান করেন হজরত উসমান (রা.)। (বুখারি ও আবু দাউদ)। হিজরি বছরের শেষ মাস এবং শুরুর মাস অনেক মর্যাদা ও ফজিলতের মাস। তাই এ হিজরি বছরের শেষ এবং নতুন বছরের প্রথম রাত ও দিন বিগত দিনের গোনাহ মাফ এবং আগামী দিনের কল্যাণ লাভের এক মর্যাদপূর্ণ সময়। মহররম মাস শুধুমাত্র কারবালার ঘটনা স্মরণ করার মাসই নয়, এমাস গোনাহ থেকে বেঁচে থাকার, ত্যাগের, ভালো কাজ করার, খারাপ কাজ থেকে বেঁচে থাকার এবং মুসলিম বিশ্বকে নতুন করে গড়ার প্রতিজ্ঞা করার মাস। ইসলাম ও মুসলমানের জন্য এ মাসের রয়েছে অনেক শিক্ষণীয় ও পালনীয় বিষয়। এ মাসের ৯, ১০ ও ১১ তারিখে রোজা রাখা উত্তম বলে ইসলামী স্কলাররা মত দিয়েছেন।
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপকর্মে জড়িত থাকায় ৪১ এনজিও প্রত্যাহার: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
৩১আগস্ট,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রোহিঙ্গা সমস্যা সৃষ্টির পর ১৩৯টি এনজিও রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তাদের কার্যক্রম শুরু করেছিল। এদের মধ্যে অপকর্মে জড়িত থাকায় তালিকা করে ৪১টি এনজিওকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। শনিবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে দক্ষিণ সুরমায় সিলেট সিটি করপোরেশনের মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন। আব্দুল মোমেন বলেন, এখনও বিভিন্ন এনজিও একই কাজ করছে।সে ধরনের তথ্য প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিভিন্ন দেশি ও বিদেশি এনজিও নানাভাবে তদবির করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ার-এমনটাও জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা ও সিলেট জেলা এবং মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা।
বাদ পড়াদের বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে ঢাকা-দিল্লি সম্পর্ক খারাপ হবে
৩১আগস্ট,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারত শনিবার (৩১ আগস্ট) আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা প্রকাশ করেছে। এই তালিকায় ঠাঁই হয়নি ১৯ লাখ মানুষের। ফলে ভারতে অবস্থানরত এই নাগরিকদের জন্য অনিশ্চিত পরিস্থিতি তৈরি হলো। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহসহ কিছু রাজনীতিবিদ রাজনৈতিক খেলার অংশ হিসেবে এই লোকগুলোকে বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রবেশকারী বলে আখ্যায়িত করে থাকেন। এ অবস্থায় ভারত যদি তাদের এই লোকগুলোকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে তাহলে দুই দেশের বর্তমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক নষ্ট হবে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। এ বিষয়ে চীনে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত মুনশি ফায়েজ আহমেদ বলেন,বেশি উদ্বিগ্নতা দেখার মতো অবস্থা এখনও তৈরি হয়নি। তবে আমাদের সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে।তিনি বলেন, ভারত যদি মিয়ানমারের মতো তাদের লোকগুলোকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে তাহলে দেশটির সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। সাবেক এ রাষ্ট্রদূত বলেন, এই লোকগুলো অনেক আগে থেকে আসামে বসবাস করে আসছে। স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় তাদের নাগরিক হয়ে যাওয়ার কথা।কিন্তু বাংলাদেশের পাশের রাজ্যে বিজেপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলো বাংলাদেশ নিয়ে রাজনীতি করে ভোট বাড়ানোর চেষ্টা করে। এ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে এই লোকগুলোকে নাগরিক করা হয়নি। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেক ভালো এবং এখান থেকে মুসলিমদের ভারতের মতো প্রতিকূল জায়গায় যাওয়ার কোনও কারণ নেই বলে তিনি জানান। এ বিষয়ে তিনি বলেন, স্বাধীনতার পরে মুসলিমরা ভারতে গেছে এটি অবাস্তব কথা। সাবেক পররাষ্ট্র সচিব এম তৌহিদ হোসেন বলেন,ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শংকর বলেছেন এনআরসি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হয়ে থাকলে কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু শঙ্কার জায়গা তৈরি হয় যখন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ প্রকাশ্যে এ বিষয়ে কথা বলেন এবং বাদপড়া লোকগুলো বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রবেশকারী বলে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, আমাদের সজাগ থাকতে হবে। কারণ আমরা চাই না অমিত শাহ ও তাদের অভ্যন্তরীণ রাজনীতির কারণে এই লোকগুলো আমাদের ঘাড়ে চেপে বসুক। আমাদের পার্শ্ববর্তী রাজ্যগুলোতে বাংলাদেশ কার্ড যেন ব্যবহার করা না হয় সেজন্য আমাদের সজাগ থাকতে হবে বলে তিনি মনে করেন। তিনি বলেন,বাংলাদেশের এখন উচিত হবে ভারতে এখনও অনেক জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তি আছেন যারা বিষয়টি হাস্যকর মনে করেন। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ বৃদ্ধি করে এ বিষয়ে তাদের মাধ্যমে সোচ্চার হওয়া প্রয়োজন।-আলোকিত বাংলাদেশ

জাতীয় পাতার আরো খবর