বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত
ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ জালাল (৩৮) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) জুয়েল ও কনস্টেবল ফজলুল হক। পুলিশের দাবি, নিহত জালাল মাদকসম্রাট। তার বিরুদ্ধে মাদক, হত্যাসহ ৬টির বেশি মামলা রয়েছে। মঙ্গলবার দিনগত রাত সোয়া ২টার দিকে উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের খন্দকারপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ি এলাকায় কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপসহ এলোপাতাড়ি গুলি ছোঁড়ে মাদক ব্যবসায়ীরা। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। এক পর্যায়ে অন্য মাদকব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী জালালকে উদ্ধার করা হয়। পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে ২০০ পিস ইয়াবা, চারটি গুলির খোসা, একটি বড় রামদা এবং মাদক ব্যবসায়ীদের ফেলে যাওয়া একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।
জনশক্তি নিতে আরব আমিরাতের প্রতি স্পিকারের আহ্বান
বাংলাদেশ থেকে আরো জনশক্তি নেওয়ার জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে নিয়োজিত প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিয়োজিত বাংলাদেশের শ্রমিকরা দেশটির অর্থনীতির চাকাকে গতিশীল রাখছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত সাইদ মোহাম্মদ আল-মেহেরি বাংলাদেশ থেকে আরো জনশক্তি নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে মঙ্গলবার তার কার্যালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত সাইদ মোহাম্মদ আল-মেহেরি সৌজন্য সাক্ষাতের সময় এসব আলোচনা হয়। বৈঠকে তারা দুই দেশের সংসদীয় কার্যক্রম, ব্যবসা বাণিজ্য, জনশক্তি রফতানি ইত্যাদি বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বর্তমানে দুই দেশের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক বিরাজমান। ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ও ভিসা সহজীকরণের মাধ্যমে বিদ্যমান সম্পর্ক আরো জোরদার করা সম্ভব হবে। রাষ্ট্রদূত রোহিঙ্গা ইস্যুতে সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলেও স্পিকারকে আশ্বস্ত করেন।
সেরা তিন মন্ত্রণালয়
২০১৬-১৭ অর্থবছরের আর্থিক কর্মসম্পাদন চুক্তি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে তিন মন্ত্রণালয় সেরা স্থান অধিকার করেছে। এর মধ্যে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ প্রথম স্থান অধিকার করেছে। তাদের অর্জিত নম্বর ৯৯.০। দ্বিতীয় স্থান লাভ করেছে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়। তাদের অর্জিত নম্বর ৯৮.৫। তৃতীয় স্থান লাভ করেছে কৃষি মন্ত্রণালয়। তাদের নম্বর ৯৭.৭৭। মোট মন্ত্রণালয়ের মধ্যে ৪৭টি মন্ত্রণালয় ৮০ নম্বরের ওপরে অর্জন করেছে। আর ৮০ নম্বরের নিচে রয়েছে দুটি মন্ত্রণালয়। তবে আর্থিক কর্মসম্পাদান চুক্তি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে সব মন্ত্রণালয়ের গড় অর্জন ৯৯.৪০। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সংস্কার ও উন্নয়ন) এন এম জিয়াউল আলম এসব তথ্য জানান। তিনি জানান, আগামীকাল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন এবং সেরা তিন মন্ত্রণালয়কে পুরস্কার দেবেন।
আওয়ামী লীগের যৌথ সভা ৬ জুলাই
আগামী ৬ জুলাই শুক্রবার বিকেল ৫টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ এবং কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের এক যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগের নবনির্মিত দলীয় কার্যালয়ে এটিই প্রথম সভা। আওয়ামী লীগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়, আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা সভায় সভাপতিত্ব করবেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংশ্লিষ্ট সকলকে যথাসময়ে সভায় উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। এতে একই দিন বিকেল ৫টায় দলটির পূর্ব নির্ধারিত জাতীয় নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভা স্থগিত করা হয়েছে বলেও জানানো হয়।
শাহ মখদুম বিমানবন্দর হবে আন্তর্জাতিকমানের
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল বলেছেন, রাজশাহী শাহ মখদুম বিমান বন্দরকে শিগগিরই বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিকমানের বিমানবন্দর হিসেবে গড়ে তোলা হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন। তাই বর্তমান সরকার এ বিমানবন্দরের উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছে। মঙ্গলবার রাজশাহী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, চেয়ারম্যান সিএএবি এবং জেলা প্রশাসন রাজশাহীর সাথে শাহ মুখদুম বিমানবন্দরের সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন সম্পর্কিত পর্যালোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যুগান্তকারী পদক্ষেপের ফলে মানুষের জীবন-মানের উন্নয়ন হয়েছে এবং বিমানে মানুষের যাতায়াত বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে রাজশাহী বিমানবন্দরে প্রায় ১২ কোটি টাকার কাজ সম্পাদিত হয়েছে। শাহ মখদুম বিমান বন্দরের উন্নয়নের জন্য রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়কে পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে এবং তারা ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু করেছে। এখানে বাউন্ডারি ওয়াল, রানওয়ে, ট্যাক্সিওয়ে কাজের পাশাপাশি একটি পূর্ণাঙ্গ অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দর এবং আমদানি-রফতানি কার্গো বিমান চলাচলের উপযোগী করার জন্য প্রকল্প তৈরি করা হবে। মতবিনিময় সভায় রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, রাজশাহী-৪ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক, মহিলা সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য বেগম আখতার জাহান, নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নূরুল ইসলাম ঠান্ডু এবং সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান নাঈম ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। জেলা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।
শিক্ষার উন্নয়নে এমপিওভুক্তি কোনো ভূমিকা রাখে না
দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির বিরোধিতা করে এটিকে খারাপ কার্যক্রম বলে অভিহিত করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ মন্তব্য করেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে এ সংক্রান্ত প্রশ্নটি উত্থাপন করেন তরীকত ফেডারেশনের সদস্য নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী। জবাবে মন্ত্রী আরো বলেন, এমপিওভুক্তি একটি খারাপ কার্যক্রম। যা আমরা এখনো চালিয়ে যাচ্ছি। এমপিওভুক্তিতে যথেষ্ট জালিয়াতি ছিল। যা মন্ত্রী কমানোর চেষ্টা করছেন। তিনি বলেন, শিক্ষার উন্নয়নে এমপিওভুক্তি কোনো ভূমিকা রাখে না। বরং ছাত্রবৃত্তি, স্কুল ফিডিং কর্মসূচি বিশেষ ভূমিকা রাখে। কিন্তু আপনার সে বিষয়ে কোনো উদ্যোগ না নিয়ে বারবার এমপিওভুক্তির কথাই বলেন। চলতি অর্থবছরের বাজেটে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিভুক্তির জন্য অর্থ বরাদ্দ দেয়া আছে বলে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। যা আপনারা পাবেন। এর বেশি কিছু বলতে চাই না। অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, এমপিওভুক্তিতে যথেষ্ট জালিয়াতি ছিল। আমাদের শিক্ষামন্ত্রী অনেক কমাচ্ছেন। কিন্তু এটা খুব ভালো প্রোগ্রাম নয়। আমার এই অপিনিয়নটা আপনাদের কাছে উপস্থাপন করলাম। আপনারা এখন নিজেরা চিন্তা করে দেখুন।’ আওয়ামী লীগের সদস্য মিজানুর রহমান মিজানের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সরকারের নানামুখী পদক্ষেপের ফলে জনমনে করভীতি দূর হয়েছে। আগে জনমনে ধারণা ছিল, একবার কর দিলেই নানাভাবে হয়রানির শিকার হতে হয়। কিন্তু এখন সেই ধারণা বদলেছে। তিনি আরো বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে দেশে করদাতার সংখ্যা ছিল ৭ লাখ। সরকারের পদক্ষেপে তা ১৫ লাখে উন্নীত হয়।
সাংবাদিকদের আন্দোলনে একাত্মতা সম্পাদক ও পেশাজীবীদের
চট্টগ্রামে ভুল চিকিৎসা ও চিকিৎসকের অবহেলায় মৃত্যুর অভিযোগ উঠা সাংবাদিক রুবেল খানের মেয়ে রাইফা খান হত্যার বিচার দাবিতে সাংবাদিকদের চলমান আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন পেশাজীবী নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ এবং চট্টগ্রামের চারটি স্থানীয় পত্রিকার সম্পাদক। এর মাধ্যমে সাংবাদিকদের বিচার দাবির আন্দোলন-কর্মসূচি নতুন মাত্রা পায়। মঙ্গলবার বিকালে শহীদ মিনার চত্বরে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে তারা সংহতি প্রকাশ করতে আসেন। প্রতিবাদ সমাবেশ পরিণত হয় জনসমাবেশে। সমাবেশ শেষে শহীদ মিনার থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে এসে শেষ হয়। পক্ষান্তরে মঙ্গলবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে চট্টগ্রামের স্থানীয় চার পত্রিকার সম্পাদকের সঙ্গে সাংবাদিকদের এক মতবিনিময় সভায় চলমান আন্দোলনের প্রতি সংহতি প্রকাশ করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক পূর্বকোণের সম্পাদক ডা. ম রমিজ উদ্দিন চৌধুরী, দৈনিক আজাদীর পরিচালনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেক, সুপ্রভাত বাংলাদেশের সম্পাদক রুশো মাহমুদ এবং পূর্বদেশ সম্পাদক মজিবুর রহমান সিআইপি। চার পত্রিকার সম্পাদক চট্টগ্রামের চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং এর সিস্টেমের আমুল পরিবর্তন আনার কথা বলেন। তাছাড়া রাইফার মৃত্যুর ঘটনায় মেডিকেল মার্ডার কি না তাও খতিয়ে দেখার অনুরোধ জানান।এদিকে, মঙ্গলবার বিকালে শহীদ মিনার চত্বরে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করেন বিএফইউজের সাবেক মহাসচিব মোল্লা জালাল, নগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা খোরশেদ আলম, ওয়ার্কাস পার্টির নেতা শরীফ চৌহান, যুবলীগ নেতা এ এস এম সাঈদ সুমন, ছাত্রলীগ নেতা হাবিবুর রহমান তারেক, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিসহ বিভিন্ন ছাত্র, রাজনৈতিক, পেশাজীবী, সাংস্কৃতিক সংগঠন।এর আগে, দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত সভায় পূর্বকোণ সম্পাদক সম্পাদক ডা. ম রমিজ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘রুবেল খানের শোকাহত পরিবারের মতো আমরাও শোকাহত। হাসপাতাল থেকে শিশু রাইফার লাশ বের হয়ে আসলো, বাবার হাতে সন্তানের লাশের ছবি দেখে আমি পাথর, স্তব্ধ ও বাকরুদ্ধ হয়ে যাই। আশা করি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হবে। যারা ইচ্ছা-অনিচ্ছাকৃতভাবে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাদের বিচার চাই।’ আজাদীর পরিচালনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেক বলেন, রুবেল খানের কন্যার মৃত্যুতে আজাদী পরিবার শোকাহত। আমরা সকল সাংবাদিকদের সঙ্গে আছি। রুবেল খানের কন্যার মতো অভিযোগ উঠা সকল মৃত্যুর তদন্ত হউক। এ ঘটনায় দায়ীদের বিচার চাই।’ সুপ্রভাত বাংলাদেশের সম্পাদক রুশো মাহমুদ বলেন, যেসব তথ্য-উপাত্ত এখন পর্যন্ত পেয়েছি আমি নিশ্চিত ভুল চিকিৎসা ও অবহেলার কারণে রাইফার মৃত্যু হয়েছে। এটা মেডিকেল মার্ডারের পর্যায়ে পড়ে কি না তা তদন্ত কমিটিকে খতিয়ে দেখার অনুরোধ করছি। এখন পেশাজীবী সংগঠনের মধ্যে রাজনৈতিক প্রভাব থাকায় অযোগ্য ও বিতর্কিত মানুষজন নেতৃত্বে চলে আসছে। এসব বিতর্কিত ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে তাদের অতীত-বর্তমান সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরার পর্যায়ে চলে এসেছে।’ পূর্বদেশ সম্পাদক মজিবুর রহমান বলেন, ‘আমরা একজন মানুষ। নৈতিক মানুষ হিসেবে শিশু রাইফা অবহেলায় মৃত্যুর বিচার চাই। এ ঘটনায় পূর্বদেশ পরিবার সাংবাদিক সমাজের সঙ্গে রয়েছে।তাছাড়া সভায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল, সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি শহীদ উল আলম, সিইউজের সাবেক সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, সিইউজের যুগ্ম সম্পাদক সবুর শুভ প্রমুখ।একাত্মতা প্রকাশ করেছেন অনলাইন দৈনিক নিউজ একাত্তর ডট কম ও দৈনিক সংবাদের কাগজের সম্পাদক মো:নাছির উদ্দিন চৌধুরী ।
কোনো রাষ্ট্রদূত নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারে না
কোনো বিদেশি রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের নির্বাচন পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারেন না বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনের সচিব হেলালুদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেছেন, ‘মার্কিন রাষ্ট্রদূত গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন তার জবাব দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।’ বরিশাল সিটি নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহায়ক কর্মকর্তাদের সাথে মঙ্গলবার মতবিনিময় সভা শেষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশন সচিব বলেন, সব দলের প্রার্থী যাতে সমভাবে প্রচারের সুযোগ পায় সেভাবে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির জন্য নির্বাচন কমিশন সব সময় প্রস্তুত থাকে। বরিশাল সিটিসহ স্থানীয় সরকার নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের কোনো পরিকল্পনা নেই নির্বাচন কমিশনের। হেলালুদ্দিন আহমেদ জানান, বরিশাল সিটি নির্বাচনে ১২৩টি কেন্দ্রের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০টি কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের পরিকল্পনা রয়েছে। তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের পরিকল্পনা থাকলেও কয়টি কেন্দ্রে বসানো হবে তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি।’ এ সময় রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মুজিবুর রহমান ও সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. হেলাল উদ্দিনসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার সভাকক্ষে বরিশাল সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহায়ক কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসি সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ। প্রতীক বরাদ্দের আগে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারনার বিরুদ্ধে সজাগ থাকার জন্য সংশ্লিস্টদের প্রতি নির্দেশ দেন তিনি। এ ক্ষেত্রে আইনের ব্যাতয় হলে সংশ্লিস্ট এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের সহায়তায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন ইসি সচিব।
কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা ফারুকসহ তিনজন কারাগারে
কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম ‘সাধারণ ছাত্র পরিষদ’র যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হাসানসহ তিনজনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। বাকি দুই আসামি হলেন—তরিকুল ইসলাম ও জসিম উদ্দিন। মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক সুব্রত ঘোষ শুভ উভয়পক্ষের শুনানি শেষে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। আন্দোলন চলাকালে গত ৮ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে হামলার অভিযোগে শাহবাগ থানায় দায়ের করা দুই মামলায় গতকাল সোমবার তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। আজ দুপুরে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাহাউদ্দীন ফারুকী (পরিদর্শক, ডিবি পুলিশ) তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত আসামিদের কারাগারে রাখার আবেদন করে আদালতে হাজির করেন। গতকাল শহীদ মিনারে কোটা সংস্কার আন্দোলনের কর্মসূচি চলাকালে ফারুক হাসানসহ তিনজনকে বেধড়ক মারধর করা হয়। এরপর ছাত্রলীগ নেতাদের সহায়তায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মুহম্মদ মুহসীন হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সানি ফারুককে সেখান থেকে তুলে নিয়ে যায় এবং শাহবাগ থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। এরপর ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান সংবাদমাধ্যমকে জানান, ফারুক হাসান শাহবাগ থানায় আছে। তাকে গ্রেফতার দেখানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। এর আগে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন বলেন, আমরা তিনজন যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজ, ফারুক হাসান ও জসিম উদ্দিনের কোনও সন্ধান পাচ্ছি না। তিনি দাবি করেন, ফারুক হাসানকে মারধরের পর শহীদ মিনার থেকে ও জসিম উদ্দিনকে পাবলিক লাইব্রেরির ভেতর থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া মাহফুজ নামের আরেক যুগ্ম আহ্বায়ককে রাশেদ নামে এক কর্মীর বাসা থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু, পুলিশ কাউকে আটকের কথাই স্বীকার করছে না। আসামিদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ৮ এপ্রিল দিবাগত রাত ১টার দিকে সহস্রাধিক বিক্ষোভকারী ভিসির বাসভবনে প্রবেশ করে। তারা মূল গেট ভেঙে ও দেয়াল টপকে বাসায় ঢোকে। তাদের হাতে রড, হকিস্টিক, লাঠি ও বাঁশ ছিল। এছাড়া বাসভবনের আশপাশেও একাধিক মোটরসাইকেলে তরা আগুন ধরিয়ে দেয়। ওই ঘটনায় শাহবাগ থানায় (উপ-পরিদর্শক) রবিউল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর