রবিবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৮
ভবিষ্যতে বিদ্যুতে ভর্তুকি তুলে দেয়ার ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর
অনলাইন ডেস্ক: ভবিষ্যতে বিদ্যুৎ খাতে ভর্তুকি তুলে দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, বর্তমানে প্রতি কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে গড়ে খরচ হচ্ছে ৬ টাকা ২০ পয়সা করে, বিক্রি হচ্ছে ৪ টাকা ৮২ পয়সা করে। দেশের ৯০ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সেবা পাচ্ছেন। সবাইকে এ সেবার আওতায় আনতে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে। ভবিষ্যতে এ সুযোগ আর থাকবে না। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সপ্তাহের উদ্বোধনের সময় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বর্তমানে বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে ২০ হাজার মেগাওয়াট। ২০২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট, ২০৩০ সালের মধ্যে ৪০ হাজার মেগাওয়াট আর ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছি আমরা। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে বিদ্যৎ উৎপাদন কমে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদন যেখানে রেখে গেছি ২০০৯ সাল পরযন্ত যারা ক্ষমতায় ছিল তারা সেটি কমিয়ে ফেলল। ২০০৯ সালে আমরা যখন ক্ষমতায় আসি তখন বিদ্যুৎ উৎপাদন ছিল মাত্র ৪ হাজার মেগাওয়াট। কারযত তা ছিল মাত্র ৩২শ মেগাওয়াট ‘২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা হাতে নিই। প্রতি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়ার উদ্যোগ নিই। দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা হিসেবে আমরা ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পরযন্ত ৯ বছরে ২৪৩৫১ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন উন্নীত করার জন্য ১৩৫টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ নিই। ইতোমধ্যে ১০১ টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে উৎপাদিত বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হয়েছে। ২০০৯ সালের পূর্ববর্তী একশ বছরে হয়েছিল মাত্র ২৭টি বিদ্যৎ উৎপাদন কেন্দ্র। প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিদ্যুতের সরবরাহ বাড়ায় উন্নয়ন ত্বরান্বিত হচ্ছে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য উন্নত সমৃদ্ধ জীবন নিশ্চিতে সরকার কাজ করছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী সবাইকে বিদ্যুৎ অপচয় রোধে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে ভারত, নেপাল-ভুটান থেকে বিদ্যুৎ আমদানির প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়ে গ্রাহকদের বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।
ক্যান্টনমেন্ট রেলক্রসিং এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে এক সেনা সদস্যের মৃত্যু
অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট রেলক্রসিং এলাকায় ট্রেন কাটা পড়ে এক সেনা সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম আব্দুর রাজ্জাক। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) মর্গে নিয়েছে পুলিশ। কমলাপুর জিআরপি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রবিউল ইসলাম ঢাকাটাইমসকে জানান, ‘জামালপুর থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ক্যান্টনমেন্ট রেলক্রসিং পার হচ্ছিল। এ সময় কর্পোরাল আব্দুর রাজ্জাক ট্রেনের নিচে কাটা পড়লে তার শরীর ছিন্নবিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। পরে তার মরদেহ উদ্ধার করে ঢামেকে নেওয়া হয়। এসআই রবিউল আরও জানান, ‘নিহত আব্দুর রাজ্জাক ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের সেনা সদস্য বলে জানতে পেরেছি। কয়েকদিন আগে তিনি বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট থেকে ঢাকা ক্যান্টনমেন্টে বদলি হয়ে এসেছেন। ডিউটি করতে তিনি সেখান থেকে আর্মি স্টেডিয়ামের দিকে যাচ্ছিলেন।
যাত্রীকল্যাণ সমিতির মহাসচিব গ্রেপ্তার
অনলাইন ডেস্ক: চাঁদাবাজির এক মামলায় বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হককে গ্রেপ্তার করেছে মিরপুর থানা পুলিশ। বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকার নিজ বাসা থেকে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। মিরপুর মডেল থানার ডিউটি অফিসার এসআই রোকনউদ্দিন গ্রেপ্তারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, দুলাল নামে এক ব্যক্তি মোজাম্মেল হকের বিরুদ্ধে গতকাল থানায় চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে একটি মামলা করেছেন। ওই মামলায় মোজাম্মেল হককে গ্রেপ্তার করে থানায় আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে আদালতে হাজির করা হবে বলে জানান তিনি।
আকাশবীণা-উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার আকাশবীণার উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার সকালে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিমানটির উদ্বোধন করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর বিকেলে প্রথম বাণিজ্যিক ফ্লাইট ঢাকা থেকে মালয়েশিয়ার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে এই ড্রিমলাইনার। ড্রিমলাইনার আকাশবীণা যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমানবহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫টিতে। গত ১৯ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্র থেকে ঢাকায় আসে ড্রিমলাইনার। প্রধানমন্ত্রীর পছন্দে নামকরণ করা হয় আকাশবীণা। ড্রিমলাইনার দিয়ে প্রাথমিকভাবে ঢাকা-সিঙ্গাপুর ও ঢাকা-কুয়ালালামপুর রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।
গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আশা করে যুক্তরাষ্ট্র: বার্নিকাট
অনলাইন ডেস্ক: জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের আলোচনায় রোহিঙ্গা সংকটকে গুরুত্ব দেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়াও বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু, অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য হওয়ার প্রত্যাশা করছে দেশটি। বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট এসব কথা বলেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্রসচিব এম শহীদুল হকের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি মার্শা বার্নিকাট বলেন, জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন ও নিরাপত্তা পরিষদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতির পদে দায়িত্ব গ্রহণের বিষয়ে পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বিভিন্ন বিষয়ের পাশাপাশি রোহিঙ্গা সংকটকে যুক্তরাষ্ট্র গুরুত্ব দিচ্ছে। বার্নিকাট বলেন, বাংলাদেশের জনগণের প্রত্যাশা অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্র সুষ্ঠু, অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আশা করে। বাংলাদেশ সরকারও এমন নির্বাচন চায় বলেও মনে করেন তিনি।
সংবিধান অনুযায়ী সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে কমিশন প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: সিইসি
অনলাইন ডেস্ক: সংবিধান অনুযায়ী অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশন প্রতিজ্ঞাবদ্ধ বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা। বুধবার ফোরাম অব ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট বডিস অব সাউথ এশিয়া (ফেম্বোসা) এর নবম সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। সম্মলনের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী বলেন, সামনে একাদশ জাতীয় নির্বাচন। শক্তিশালী গণতন্ত্র চর্চায় আরপিও ও সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন আয়োজন করতে বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন দায়বদ্ধ। দুই দিনব্যাপী এ সম্মেলনে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, আফগানিস্তান, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ নির্বাচন কমিশন হতে মোট ২১ জন প্রতিনিধি অংশ নিয়েছেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর ১ম সাধারণ অধিবেশনে ফেম্বোসার বর্তমান চেয়ারম্যান স্বাগতিক বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নিকট ফেম্বোসার চেয়ারম্যানশিপ হস্তান্তর করবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর তিনটি সাধারণ ও ৮টি টেকনিক্যাল সেশন অনুষ্ঠিত হবে। এসব সেশনে অংশগ্রহণকারীগণ নির্বাচনের বিভন্ন বিষয়ে আলোচনা করবেন। বাংলাদেশ হতে ২০১০ সালে ফেম্বোসার যাত্রা শুরু হয়। পর্যায়ক্রমে ২০১১ সালে পাকিস্তান, ২০১২ সালে ভারত, ২০১৩ সালে ভুটান, ২০১৪ সালে নেপাল, ২০১৫ সালে শ্রীলংকা, ২০১৬ সালে মালদ্বীপ ও ২০১৭ সালে আফগানিস্তানে সংস্থাটির বাৎসরিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। দেশের নামের বর্ণনাক্রমে ঘুরে এসে ২০১৮ সালে বাংলাদেশে নবম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এছাড়াও সম্মেলনে বাংলাদেশের সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশনারসহ নির্বাচন কর্মকর্তারা উপস্থিত আছেন।
নবনির্বাচিত দুই মেয়র শপথ গ্রহণ করবেন আজ
অনলাইন ডেস্ক: রাজশাহী ও সিলেট সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত দুই মেয়র শপথ গ্রহণ করবেন আজ। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে তাদের শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই দিন শপথ পড়বেন দুই সিটির নির্বাচিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলররাও। তাদের শপথ পড়াবেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। উল্লেখ্য, গত ৩০ জুলাই রাজশাহী এবং সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহী সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন এক লাখ ৬৫ হাজার ৩৩২ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হন। এর আগে ২০০৮ সালে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন লিটন। অন্যদিকে গত ৩০ জুলাই সিলেট সিটি নির্বাচনে ১৩৪ কেন্দ্রের মধ্যে অনিয়মের কারণে দুটির ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছিল নির্বাচন কমিশন। সেদিন ১৩২ কেন্দ্রে আরিফুল হক চৌধুরী ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট পান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট পান। কিন্তু ভোটে কামরানের চেয়ে এগিয়ে থাকলেও স্থগিত কেন্দ্র দু’টির ভোটের চেয়ে ১৬১ ভোটে পিছিয়ে ছিলেন আরিফ। গত ১১ আগস্ট স্থগিত দু’টি কেন্দ্রের পুনরায় নির্বাচন শেষে আরিফুল ৬ হাজার ১৯৬ ভোটে কামরানকে পেছনে ফেলে বিজয়ী হন। ১৩৪টি কেন্দ্রের ফলাফলে ৯২ হাজার ৫৯৮ ভোট পান আরিফুল। আর কামরান পান ৮৬ হাজার ৩৯৭ ভোট। ২০১৩ সালের ২১ জুলাই গণভবনে শেখ হাসিনার কাছে শপথ নিয়েছিলেন আরিফুল হক চৌধুরী।
কারাগারের আদালত ঘিরে নিরাপত্তা জোরদার
অনলাইন ডেস্ক: দুর্নীতির এক মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার বিচারকাজ সম্পন্ন করতে পুরাতন ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের বসছে আদালত। বুধবার সকাল ১১টার দিকে কারাগারেই বসবে বিশেষ আদালত, শুরু হবে মামলার শুনানি। খালেদার জিয়ার বিরুদ্ধে করা মামলার শুনানিকে কেন্দ্র করে কারাগারের আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। কারাগারের সামনের সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বন্ধ রাখা হয়েছে আশপাশের দোকানপাটও। মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। প্রস্তুত রাখা হয়েছে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি। গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসনকে ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়ার পর থেকে অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তিনি অন্য কোনো মামলায় আর হাজিরা দেননি। এমন পরিস্থিতিতে আদালতকেই কারাগারে নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে মঙ্গলবার গণমাধ্যম কর্মীদের জানান দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল। তিনি জানান, তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আইন মন্ত্রণালয় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পরে গতকাল সন্ধ্যায় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিভাগ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার বিচার সম্পন্ন করতে ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্থায়ী আদালত স্থাপন করে গেজেট প্রকাশ করে। মামলার কাজ পরিচালনার জন্য নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারের অফিসের একটি কক্ষ বিচারকাজ পরিচালনার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় যে আদালত দণ্ড দিয়েছে, সেখানে আরও একটি মামলা শেষ পর্যায়ে আছে। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় গত ১ ফেব্রুয়ারি আসামি জিয়াউল হক মুন্নার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শেষ হয়। আর পুরান ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক আখতারুজ্জামান ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী যুক্তি উপস্থাপনের দিন নির্ধারণ করেন। এই মামলায় এখন কেবল খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন বাকি আছে। কিন্তু সাত মাসেও আর এই যুক্তি উপস্থাপন হয়নি। ফলে এই মামলার শুনানি কবে শেষ হবে, সেটি নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। এর মধ্যে কারাগারে খালেদা জিয়া অসুস্থ বলে খবর ছড়ায় এবং তার চিকিৎসায় মেডিকেল বোর্ড গঠন করে সরকার। বিএনপি নেত্রীকে একবার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে এনে পরীক্ষা নিরীক্ষাও করা হয়। এরপর আরেক দফা তাকে এখানে আনার উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু তিনি বেসরকারি হাসপাতাল ইউনাইটেড ছাড়া অন্য কোথাও যাবেন না বলে জানিয়ে দেন। বিএনপি নেত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির আরও চারটি মামলা চলছে এবং তার অনুপস্থিতির জন্য সবগুলো মামলাতেই কার্যক্রম আটকে আছে।

জাতীয় পাতার আরো খবর