এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজে মাসিক বেতন আদায় স্থগিত চেয়ে রিট
৮জুন,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে সারাদেশে এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মাসিক বেতন আদায় কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবকের পক্ষে এ রিট দায়ের করা হয়। আবেদনে শিক্ষা সচিব, শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি), দেশের সব শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান (মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক) ও আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষকে বিবাদী করা হয়েছে। সোমবার (৮ জুন) আবেদনের পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাইফুর রহমান জানান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বেতন আদায় স্থগিত রাখতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবকের পক্ষে গত ১৯ মে বিবাদীদের প্রতি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সংশ্লিষ্টরা কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় রিট আবেদন করা হয়েছে। আবেদনে বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাসের কারণে ব্যবসা-বাণিজ্যে স্থবিরতা নেমে এসেছে। কর্মহীন হয়ে পড়েছে অনেক পেশাজীবী ও চাকরিজীবী। বিদ্যুৎ বিলসহ বিভিন্ন বিলে বিলম্ব ফি মওকুফ করা হয়েছে। ব্যাংক ঋণের বিষয়ে বলা হয়েছে, একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বেনিফিট গ্রহণ করা যাবে না। সরকার বিভিন্ন সেক্টরে প্রণোদনা দিচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে নিম্নবিত্ত, নিম্ন-মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষদের জীবিকা নির্বাহ করাটা অত্যন্ত কষ্টকর হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সন্তানদের মাসিক বেতন পরিশোধে নোটিশ দেওয়া হচ্ছে। এসব কারণেই এমপিওভুক্ত স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের কাছে আদায়যোগ্য মাসিক বেতন স্থগিত রাখতে নির্দেশনা প্রয়োজন।
লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় আটক ৪
৮জুন,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। রোববার (৭ জুন) দিনগত রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ওই ৪ ব্যক্তিকে আটক করা হয়। ডিএমপির উপ-কমিশনার (ডিসি) ওয়ালিদ হোসেন জানান, লিবিয়া ট্র্যাজেডিতে স্থানীয় দালাল, দেশীয় পাচারকারী ও লিবিয়া ক্যাম্পের মালিকসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। সোমবার (৮ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিতব্য সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানান তিনি। এদিকে, রোববার লিবিয়া ট্রাজেডিতে তেজগাঁও থানায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার সুজন মিয়া নামে একজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
এখন থেকে নমুনা দিতে অনলাইনে নিবন্ধন করতে হবে
৭জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: এখন থেকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বুথগুলোতে কোভিড পরীক্ষার নমুনা দেয়ার আগে অনলাইনে নিবন্ধন করতে হবে। রোববার (৭ জুন) দুপুরে করোনা ভাইরাস নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে এ তথ্য জানান সংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। স্বাস্থ্য অধিদফতরের বুথগুলোতে করোনা টেষ্ট করতে কোনো টাকা লাগে না। তাই কোন ধরণের অর্থ লেনদেন না করতেও অনুরোধ করা হয়। ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও ব্র্যাক কর্তৃক পরিচালিত করোনা নমুনা সংগ্রহ বুথ থেকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সেবা প্রদান করা হয়। করোনাটেস্টডটব্র্যাকডটনেট (coronatest.brac.net) এই ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করে এলেই তার নমুনা সংগ্রহ করা হবে। করোনার থাবায় গোটা পৃথিবীর মতো দুর্বিসহ সময়ে আছে বাংলাদেশ। রোববার ৯২তম দিনে জানা গেলো, গত ২৪ ঘন্টায় এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন রেকর্ড ৪২ জন। এদিন প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার নমুনা পরীক্ষা করে ২ হাজার ৭৪৩ জনের দেহে পাওয়া গেছে অদৃশ্য এই ভাইরাস। এই পরিসংখ্যান বলছে, প্রতি একশ জনের পরীক্ষা করলে ভাইরাস পাওয়া যাচ্ছে ২০ থেকে ২১ জনের দেহে। মারা যাওয়া ৪২ জনের মধ্যে পুরুষ ৩৫ জন এবং নারী ৭ জন। মারা যাওয়া ৩৪ জনের বয়সই ৪০ এর উপরে। বাকি ৮ জনের বয়স ৪০ এর নিচে। ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তে ১২ হাজার ৮৪২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে ৫২টি ল্যাবে আগের নমুনা মিলে পরীক্ষা করা হয় ১৩ হাজার ১৩৬টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৯৮৭টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় আরও ২ হাজার ৭৪৩ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৬৫ হাজার ৭৬৯ জন। আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে রেকর্ড সংখ্যক ৪২ জনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮৮৮ জনে। নাসিমা সুলতানা আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫৭৮ জন সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ১৩ হাজার ৯০৩ জন। বুলেটিনে প্রতিদিনের মতো বলা হয়, সবাই সব কিছু জানেন এবং বোঝেন; তাই জীবন বাঁচাতে নিজের ও নিজের পরিবারের দিকে তাকিয়ে হলেও স্বাস্থ্যবিধিগুলো মানতেই হবে।
জাফরুল্লাহর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত
৭জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত রয়েছে। রোববার (৭ জুন) সকালে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গণসংযোগ কর্মকর্তা মো. ফরহাদ এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এখনো উনার অক্সিজেন সাপোর্ট চলছে। প্রয়োজনে দুই-চারটা কথা বলছেন। সকালে নিজেই নাশতা করেছেন। এর আগে শনিবার রাত ১০টার দিকে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে জানানো হয়, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। যদিও উনি এখনো পুরোপুরি ঝুঁকি মুক্ত নন। উনাকে শুক্রবার (৬ জুন) রাতে ডায়ালাইসিস দেয়া হয়েছে এবং প্লাজমা থেরাপি দেয়া হয়েছে। আজও আবারো ডায়ালাইসিস দেয়া হয়েছে। স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাসের জন্য অক্সিজেন থেরাপি লাগছে। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বর্তমানে নিজের স্থাপিত প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অধ্যাপক ডা. মামুন মুস্তাফি, অধ্যাপক ডা. নজীবের সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন। গত ২৫ মে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত কিট দিয়ে পরীক্ষাতেই তার করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এরপরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) পিসিআর পরীক্ষাতেও তার করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তিনি গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
মধ্যবাড্ডায় দোকানে অগ্নিকান্ড
৭জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর মধ্যবাড্ডায় আজ সকালে আগুন লেগে তিনটি দোকান পুড়ে গেছে। আগুন লাগার কিছুসময়ের মধ্যে নিয়ন্ত্রনে এসেছে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার লিমা খানম বাসসকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রোববার সকাল ১০টা ৪ মিনিটে রাজধানীর মধ্যবাড্ডার প্রাণ সেন্টারের বিপরীতে তিনটি দোকানে অগুন লাগে। বৈদ্যুতিক সর্টসার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়। এ ঘটনায় কেউ হতাহত হননি। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। বেলা ১১টার দিকে আগুন পুরোপুরি ভাবে নিভানো হয়। ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা আরও জানান, আগুনে এলাকায় প্রচুর ধোঁয়ার সৃষ্টি হয়। এসময় স্থানীয় লোকজন ও এলাকাবাসিরা ঘটনাস্থলে এসে ভীড় জমায় এবং দোকানের আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। লিমা খানম জানান, আগুনে মুদি দোকানসহ তিনটি দোকান পুড়ে গেছে। এতে প্রায় ৮ লাখ টাকার মালামাল ও আসবাবপত্র ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এসময় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রায় ২৫ লাখ টাকার মালামাল উদ্বার করছে।
মোহাম্মদ নাসিমের অবস্থা অপরিবর্তিত
৭জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের অবস্থা অপরিবর্তিত। তাকে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভেন্টিলেটরে ৭২ ঘণ্টার নজরদারিতে রেখেছে মেডিকেল বোর্ড। আগামীকাল সোমবার এই ৭২ ঘন্টার নজরদারি শেষ হবে। আজ রোববার বিকেলে বাসসকে এ তথ্য জানান মোহাম্মদ নাসিমের ব্যক্তিগত সহকারী আশরাফুল আলম মিন্টু। তিনি বলেন, স্যারের অবস্থা অপরিবর্তিত। আগে শনিবার মোহাম্মদ নাসিমের চিকিৎসায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াকে প্রধান করে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। মোহাম্মদ নাসিম অচেতন অবস্থায় আছেন জানিয়ে ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, তার জ্ঞান কখন ফেরে সেটি বোঝা যাচ্ছে না। এ অবস্থায়ই আরও অনেক সময় থাকতে পারেন। তিনি কোমায় আছেন। সিটিস্ক্যান করার মতো অবস্থায় তিনি নেই। সিটিস্ক্যান করতে গেলেও ঝুঁকি। অবস্থার উন্নতি হলে সিটিস্ক্যান করা হবে। তিনি জানান, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পাল্স গতকাল যে রকম ছিল এখনও সে রকম আছে। এখনও ভেন্টিলেশনে আছেন। শ্বাস-প্রশ্বাস আগে যে রকম ছিল এখনও সে রকমটাই আছে। নাসিমের ছেলে সাবেক সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় গণমাধ্যমকে জানান, বাবার অবস্থার উন্নতি-অবনতি নেই। অবস্থা আগের মতোই। করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১ জুন বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি হন মোহাম্মদ নাসিম। গত বৃহস্পতিবার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় শুক্রবার তাকে আইসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তরের কথা ছিল। কিন্তু শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫টায় স্ট্রোক করায় অবস্থার অবনতি ঘটে। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরোসার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. রাজিউল হকের নেতৃত্বে তার মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাধিকবার নাসিমের ছেলে তানভীর শাকিল জয় এবং অস্ত্রোপচারকারী চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. রাজিউল হককে ফোন করে সাবেক এই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সর্বশেষ শারীরিক অবস্থার বিষয়ে খোঁজ-খবর নেন।
সিআরপিকে প্রধানমন্ত্রীর ১০ কোটি টাকা অনুদান
৭জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পক্ষাঘাতগ্রস্থদের পুনর্বাসন কেন্দ্র (সিআরপি)-কে ১০ কোটি টাকা অনুদান প্রদান করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বাসসকে জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সিআরপিকে ১০ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন, যাতে এটি ভালভাবে পরিচালিত হতে পারে এবং জনগণকে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবাসহ অন্যান্য সেবা প্রদান করতে পারে। পক্ষাঘাতগ্রস্থ মানুষের চিকিৎসা, সহযোগিতা এবং পুনর্বাসনের জন্য দেশে ১৯৭৯ সালে সিআরপির যাত্রা শুরু হয়। সংস্থাটি পক্ষাঘাতগ্রস্থ মানুষের বিশেষ ধরণের চাহিদার কথা বিবেচনায় রেখে সামাজিক এবং অর্থনৈতিক দিকগুলোর প্রতি বিশেষ দৃষ্টি দিয়ে চিকিৎসা, পুনর্বাসন এবং শারীরিক, মানসিক, সহায়তা প্রদান করে। সিআরপি দেশে স্বাস্থ্যসেবা এবং পুনর্বাসনে দক্ষ কর্মী বিকাশে সহায়তা করছে। এটি অন্যান্য সংস্থার সহযোগিতায় প্রতিবন্ধীদের জন্য পরিষেবা সম্প্রসারণের লক্ষে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সেবা কেদ্র গড়ে তুলেছে।
স্বাধীনতার জন্য জাতির মনন তৈরির লক্ষ্যেই ৬ দফা ঘোষণা করেছিলেন বঙ্গবন্ধু : তথ্যমন্ত্রী
৭জুন,রোববার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, স্বাধীনতার জন্য জাতির মনন তৈরির লক্ষ্যেই ৬ দফা ঘোষণা করেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি আজ ৬ দফা দিবস উপলক্ষে সকালে রাজধানীতে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে দিবসটি উপলক্ষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন,আজ ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস। ১৯৬৬ সালের এই দিনে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঐতিহাসিক ৬ দফা প্রস্তাব পেশ করেছিলেন। প্রকৃতপক্ষে যার লক্ষ্য ছিল ধাপে ধাপে যাতে জাতি স্বাধীনতার দিকে যায়, সেজন্য জাতির মনন তৈরি করা। এই ৬ দফার পক্ষে বাংলাদেশ তথা তৎকালীন পূর্ব বাংলার মানুষ অকুণ্ঠ সমর্থন জানিয়েছেন এবং ৬ দফার ভিত্তিতেই ১৯৭০ সালে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, এদেশের মানুষের নিরঙ্কুশ সমর্থনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদের সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জয় লাভ করেছিলেন। কয়েকটি বাদে পূর্ব বাংলার প্রায় সব ক টি আসনেই তিনি জয়লাভ করেন। তির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৫৩তম জন্মদিনে ১৯৭২ সালে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রখ্যাত রাজনীতিক কমরেড মনি সিংহ বক্তব্য উদ্ধৃত করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ১৯৫১ সালেই বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতার পরিকল্পনা করেছিলেন। সেসময়ই বঙ্গবন্ধু তাঁর চিঠিতে মনি সিংহকে লিখেছিলেন যে, তিনি স্বাধীনতার পরিকল্পনা করছেন। এতে তার সমর্থন আছে কি না, তাও জানতে চেয়েছিলেন। ইতিহাসের দিকে তাকিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বহু আগে, পাকিস্তান সৃষ্টির পর থেকেই বঙ্গবন্ধু উপলব্ধি করেছিলেন যে, আসলে এই পাকিস্তানের মধ্যে বাঙালিদের অধিকার প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়। বাঙালিরা সবসময় নিষ্পেষিত হবে, নির্যাতিত হবে। সেজন্য বহু আগেই তিনি স্বাধীনতার পরিকল্পনা করেছিলেন। নানা আন্দোলন, সংগ্রাম পরিকল্পনার ধারাবাহিকতায় ১৯৬৬ সালে ৬ দফা ঘোষণা করেছিলেন জাতির মনন তৈরি করার লক্ষ্যে, স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে। কইসাথে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসময় আক্ষেপ করে বলেন, তবে স্বাধীনতার প্রায় ৫০ বছর পরও এটি দুঃখজনক যে, রাজনৈতিক দল বিএনপি এখনো স্বাধীনতাবিরোধীদের পৃষ্ঠপোষকতা করে, তাদের দলের মধ্যেও বহু স্বাধীনতাবিরোধী আছে এবং এখনো স্বাধীনতার পক্ষ-বিপক্ষের শক্তি নিয়ে আমাদের কথা বলতে হয়। স্বাধীনতার প্রায় ৫০ বছর পর এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।

জাতীয় পাতার আরো খবর