অগ্নিদুর্ঘটনায় ক্ষতি এড়াতে প্রধানমন্ত্রীর ১৫ নির্দেশনা
১ এপ্রিল ,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৮ মার্চ (বৃহস্পতিবার) রাজধানীর বনানীতে ২৩তলা এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ। অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের জন্য শোক প্রকাশ করে তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছে মন্ত্রিসভা। পাশাপাশি অগ্নিদুর্ঘটনা প্রতিরোধ ও অগ্নিদুর্ঘটনায় ক্ষতি এড়াতে ১৫ নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক শেষে এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ঢাকার ভবনগুলো পরিদর্শনের জন্য গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ২৪টি দল গঠন করেছে। এই দলগুলো ভবন পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দিলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর ১৫ নির্দেশনা হলো- ১. ফায়ার সার্ভিসের ক্লিয়ারেন্স নিয়ে হাইরাইজ বিল্ডিং নির্মাণ এবং অগ্নিনিরাপত্তার বিষয়টি নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা। ২. ভবনগুলোর অগ্নিনিরোধক সিস্টেম বা ক্লিয়ারেন্স প্রতি বছর নবায়ন করা। ৩. বিল্ডিং কোড অনুসরণ করা। ৩. এক থেকে তিন মাসের মধ্যে অগ্নিনির্বাপণ মহড়া করা। ৪. অগ্নিকাণ্ডের সময় ধোঁয়ায় শ্বাস বন্ধ হয়ে মৃত্যু এড়াতে ভবনে ধোঁয়া নিয়ন্ত্রণের পদ্ধতি অবলম্বন। ৫. পানির অভাবে অনেক সময় ফায়ার সার্ভিস কাজ করতে পারে না; তাই যেখানে যেখানে সম্ভব জলাশয় বা জলাধার তৈরি করা। ৬. রাজধানীর আশপাশের লেকগুলো সংরক্ষণ করা। ৭. অগ্নিকাণ্ড বা অন্যান্য দুর্ঘটনায় ২৩তলা পর্যন্ত পৌঁছানোর উপযোগী তিনটি লম্বা সিঁড়ি আছে ফায়ার সার্ভিসের। এর সংখ্যা বাড়াতে হবে। ৮. প্রকৌশলীরা যেন পরিবেশ ও বাস্তবতার নিরেখে অবকাঠামোর নকশা করেন, তা নিশ্চিত করা। ৯. প্রতিটি ভবনের চারপাশে দরজা-জানালাসহ শতভাগ ফায়ার এক্সিট নিশ্চিত করা। ১০. অনেক জায়গায় ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে দরজা নিয়ন্ত্রণ করা হয়। ফায়ার এক্সিট যেন সবসময় ওপেন থাকে, অর্থাৎ ম্যানুয়ালি যেন তা খোলা যায়। ১১. জরুরি প্রয়োজনে মানুষ যেন বহুতল ভবন থেকে তারপুলিনের মাধ্যমে ঝুলে নামতে পারে, সেই পদ্ধতি চালু করা। ১২. হাসপাতাল ও স্কুলে অবশ্যই বারান্দা রাখতে হবে। ১৩. ইন্টেরিয়র ডিজাইনাররা জায়গা বাঁচাতে ভবনের ভেতর সব জায়গা বন্ধ করে ডিজাইন করেন। এ রকম কোনো ডিজাইন করা যাবে না। ১৪. দুর্ঘটনার সময় মানুষ যাতে লিফট ব্যবহার না করে সে জন্য সচেতনতা বাড়াতে হবে। ১৫. প্রতিটি ভবনে কমপক্ষে দুটি এক্সিটওয়ে রাখা। উল্লেখ্য, গত ২৮ মার্চ (বৃহস্পতিবার) কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউয়ের ২৩তলা এফআর ভবনে আগুন লেগে ২৬ জনের মৃত্যু হয়, আহত হন অর্ধশতাধিক মানুষ। ওই ভবনটি ১৮তলার অনুমোদন নেয়া হয়েছিল এবং অগ্নিনিরাপত্তার যথাযথ ব্যবস্থা সেখানে ছিল না বলে অভিযোগ করা হয়েছে।
চতুর্থ ধাপে উপজেলা নির্বাচনে বিজয়ী যারা
১ এপ্রিল ,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চতুর্থ দফায় ১০৭টি উপজেলার বেশির ভাগ কেন্দ্রেই ছিল ভোটারদের আকাল। দিনের বেশির ভাগ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ও নির্বাচনী কর্মকর্তাদের অলস সময় পার করতে দেখা গেছে। সকালের দিকে বেশির ভাগ ভোটকেন্দ্র ছিল প্রায় ফাঁকা। কঠোর নিরাপত্তা ও ভোটারের আকালের মধ্যেও বিচ্ছিন্নভাবে কেন্দ্র দখল, সংঘর্ষ, জাল ভোট, গোলাগুলির মধ্য দিয়ে বিকাল ৪টায় ভোটগ্রহণ শেষ হয়। নানা অনিয়মের অভিযোগে বিভিন্ন স্থানে প্রিসাইডিং অফিসারসহ ২৭ জনকে আটক করা হয়েছে। মিথ্যা তথ্য দিয়ে ধামরাইয়ে প্রিসাইডিং অফিসারের দায়িত্ব নেয়া ও জাল ভোট দেয়ার অভিযোগে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ার নবনির্বাচিত উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবুল বাশার মাস্টারকে আটক করা হয়েছে। অনিয়ম ও গোলযোগের অভিযোগের পর কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় নির্বাচন স্থগিত করেছে কমিশন। টাঙ্গাইলের সখীপুরে দুটি ভোটকেন্দ্রে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে আনসার সদস্যসহ দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন- নৌকার এজেন্ট আজহারুল ইসলাম রাজা (৪০) ও আনসার সদস্য মজিবুর রহমান (৫০)। মুন্সীগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতার গুলিতে আহত হয়েছেন দুজন। এদিকে নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতসহ আওয়ামী লীগ ৮৩টি ও দলটির বিদ্রোহীরা ২৭টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে জয়ী হয়েছে। বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর বর্জনের ফলে গত তিন দফার মতো চতুর্থ দফা নির্বাচনও প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন ছিল। ভোটারদের আগ্রহও ছিল বেশ কম। প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ১৫টি উপজেলায় সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হওয়ায় সেখানে ভোট হয়নি। ৩৯টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ নেতারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন। এর আগে প্রথম ধাপে ১৪ জন, দ্বিতীয় ধাপে ২৩ জন ও তৃতীয় ধাপে ৩১ জন চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হন। পটুয়াখালী সদর, কক্সবাজার সদর, বাগেরহাট সদর, ময়মনসিংহ সদর, মুন্সীগঞ্জ সদর ও ফেনী সদরে ভোট হয় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। চতুর্থ ধাপে ১২২ উপজেলায় তফসিল ঘোষণা করা হলেও তৃতীয় ধাপের ছয়টি উপজেলার ভোট পিছিয়ে চতুর্থ ধাপে আনা হয়। আগেই আইনি জটিলায় চারটি এবং ইসির নির্দেশনায় দুটি উপজেলার ভোট স্থগিত হয়ে যায়। চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সবাই পাস করেছে এমন ১৫টি উপজেলা হচ্ছে- ভোলা সদর, মনপুরা ও চরফ্যাশন, যশোরের শার্শা, ময়মনসিংহের গফরগাঁও, ঢাকার সাভার ও কেরানীগঞ্জ, কুমিল্লার লাকসাম, নাঙ্গলকোট, মনোহরগঞ্জ, দেবীদ্বার ও চৌদ্দগ্রাম, নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা ও ফেনীর পরশুরাম। ভোট স্থগিত করা হয়েছে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া, খুলনার ডুমুরিয়া, ময়মনসিংহের ত্রিশাল, কুমিল্লার বড়ুরা, নাঙ্গলকোট, নোয়াখালীর কবিরহাট ও ফেনীর ছালগনাইয়া। পটুয়াখালী : কলাপাড়ায় আওয়ামী লীগের এসএম রাকিবুল আহসান, গলাচিপায় আওয়ামী লীগের শাহিন শাহ, সদরে আওয়ামী লীগের গোলাম সরোয়ার, দুমকিতে আওয়ামী লীগের হারুন অর রশীদ হাওলাদার, মির্জাগঞ্জে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী খান মো. আবু বকর সিদ্দিক, দশমিনায় আওয়ামী লীগের মো. আবদুল আজীজ, বাউফলে আওয়ামী লীগের আ. মোতালেব হাওলাদার চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন। ভোলা : সদরে আওয়ামী লীগের মোশাররফ হোসেন, চরফ্যাশনে আওয়ামী লীগের জয়নাল আবদীন আকন্দ, দৌলতখানে আওয়ামী লীগের মনজুরুল আলম খান, মনপুরায় আওয়ামী লীগের সেলিনা আক্তার চৌধুরী চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। এছাড়া তজুমুদ্দিনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মোশাররফ হোসেন দুলাল এবং লালমোহনে আওয়ামী লীগের গিয়াস উদ্দিন আহমেদ বিজয়ী হয়েছেন। বরগুনা : বেতাগীতে আওয়ামী লীগের মাকসুদুর রহমান ফোরকান চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। এছাড়া বামনায় আওয়ামী লীগের সাইতুল ইসলাম লিটু, আমতলীতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী গোলাম ছরোয়ার ফোরকান, সদরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মনিরুল ইসলাম, পাথরঘাটায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মোস্তফা গোলাম কবির বিজয়ী হয়েছেন। নেসারাবাদে আবদুল হক (স্বতন্ত্র)। পিরোজপুর : ভান্ডারিয়ায় আওয়ামী লীগের মিরাজুল ইসলাম চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া কাউখালীতে জেপির (মঞ্জু) আবু সাঈদ মিয়া, ইন্দুরকানীতে আওয়ামী লীগের এম মতিউর রহমান, নাজিরপুরে আওয়ামী লীগের অমূল্য রঞ্জন হালদার, সদরে আওয়ামী লীগের মজিবুর রহমান খালেক বিজয়ী হয়েছেন। দিনাজপুর : সদরে আওয়ামী লীগের এমদাদ সরকার বিজয়ী হয়েছেন। কুড়িগ্রাম : ফুলবাড়ীতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী গোলাম রব্বানী বিজয়ী হয়েছেন। খুলনা : বটিয়াঘাটায় আলীগের আশরাফুল আলম খান, ফুলতলায় আলীগের শেখ আকরাম হোসেন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। এছাড়া কয়রায় আ:লীগের বিদ্রোহী এসএম শফিকুল ইসলাম, দাকোপে আ:লীগের বিদ্রোহী মুনসুর আলী খান, পাইকগাছায় আ:লীগের গাজী মোহাম্মদ আলী, রূপসায় আ:লীগের কামাল উদ্দিন বাদশা, তেরখাদায় আ:লীগের বিদ্রোহী শেখ শহিদুল ইসলাম, দিঘলিয়ায় আ:লীগের বিদ্রোহী শেখ মারুফুল ইসলাম। যশোর : সদরে আওয়ামী লীগের শাহীন চাকলাদার ও শার্শায় আওয়ামী লীগের সিরাজুল হক মঞ্জু চেয়ারম্যান পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া চৌগাছায় আওয়ামী লীগের ড. মোস্তানিচুর রহমান, ঝিকরগাছায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মনিরুল ইসলাম, বাঘারপাড়ায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী নাজমুল ইসলাম কাজল, মণিরামপুরে আওয়ামী লীগের নাজমা খানম, অভয়নগরে আওয়ামী লীগের শাহ ফরিদ জাহাঙ্গীর ও কেশবপুরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাজী রফিকুল ইসলাম জয়ী। বাগেরহাট : সদরে আওয়ামী লীগের সরদার নাসির উদ্দিন, কচুয়ায় আওয়ামী লীগের এসএম মাহফুজুর রহমান, চিতলমারীতে আওয়ামী লীগের আশোক বড়াল, শরণখোলায় আওয়ামী লীগের মো. কামাল উদ্দিন আকন, মোংলায় আবু তাহের হাওলাদার ও রামপালে শেখ মোয়াজ্জেম হোসেন বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া ফকিরহাটে আওয়ামী লীগের স্বপন দাস, মোল্লাহাটে আওয়ামী লীগের শাহিনুল আলম ছানা, মোরেলগঞ্জে আওয়ামী লীগের শাহ ই আলম বাচ্চু জয়ী। মুন্সীগঞ্জ : সদরে আওয়ামী লীগের আনিস উজ্জামান আনিস, টঙ্গীবাড়িতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী জগলুল হালদার ভুতু, শ্রীনগরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মসিউর রহমান মামুন, গজারিয়ায় আওয়ামী লীগের আমিরুল ইসলাম, লৌহজংয়ে আওয়ামী লীগের ওসমান গনী তালুকদার, সিরাজদিখানে আওয়ামী লীগের মহিউদ্দিন আহমেদ জয়ী। ময়মনসিংহ : সদরে আওয়ামী লীগের মো. আশরাফ হোসাইন, গফরগাঁওয়ে আওয়ামী লীগের আশরাফ উদ্দিন বাদল ও ফুলবাড়ীতে আওয়ামী লীগের আবদুল মালেক সরকার চেয়ারম্যান পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন। এ ছাড়া হালুয়াঘাটে আওয়ামী লীগের মাহমুদুল হক সায়েম, ধোবাউড়ায় আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী ডেভিট রানা চিসিম, ফুলপুরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আতাউল করিম রাসেল, ঈশ্বরগঞ্জে আওয়ামী লীগের মাহমুদুল হাসান সুমন, গৌরীপুরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মোফাজ্জল হোসেন খান, নান্দাইলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী হাসান মাহমুদ জুয়েল, মুক্তাগাছায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আবদুল হাই আকন্দ, ভালুকায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আবুল কালাম আজাদ জয়ী। ঢাকা : সাভারে আওয়ামী লীগের মঞ্জুরুল আলম রাজিব, কেরানীগঞ্জে শাহিন আহমেদ বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন। এ ছাড়া দোহারে আওয়ামী লীগের আলমগীর হোসেন জয়ী হয়েছেন। টাঙ্গাইল : গোপালপুরে আ:লীগের ইউনুছ ইসলাম তালুকদার ঠান্ডু, ধনবাড়ীতে আ:লীগের হারুনার রশিদ, মধুপুরে আ:লীগের ছরোয়ার আলম খান আবু বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া সদরে আ:লীগের শাহজাহান আনসারী, মির্জাপুরে আ:লীগের মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, দেলদুয়ারে আ:লীগের বিদ্রোহী মাহমুদুল হাসান মারুফ, নাগরপুরে বিএনপির (স্বতন্ত্র) আবদুছ ছামাদ দুলাল, ঘাটাইলে আ:লীগের শহিদুল ইসলাম লেবু, ভূঞাপুরে আ:লীগের আবদুল হালিম, কালিহাতীতে আ:লীগের বিদ্রোহী আনছার আলী, বাসাইলে আ:লীগের বিদ্রোহী কাজী অলিদ ইসলাম ও সখীপুরে আ:লীগের জুলফিকার হায়দার কামাল লেবু চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। কুমিল্লা : লাকসামে আ:লীগের মো. ইউনুস ভূঁইয়া, মনোহরগঞ্জে আ:লীগের মো. জাকির হোসেন, দেবিদ্বারে আ:লীগের জয়নাল আবেদিন, চৌদ্দগ্রামে আ:লীগের মো. আবদুস সোবহান ভূঁইয়া হাসান চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন। এ ছাড়া মুরাদনগরে আ:লীগের আহসানুল আলম কিশোর, বুড়িচংয়ে আ:লীগের বিদ্রোহী আখলাক হায়দার, ব্রাহ্মণপাড়ায় আ:লীগের বিদ্রোহী মুহাম্মদ আবু তাহের, মেঘনায় আ:লীগের সাইফুল্লাহ মিয়া রতন শিকদার, হোমনায় আ:লীগের রেহানা বেগম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। নোয়াখালী : কোম্পানীগঞ্জে আ:লীগের মোহাম্মদ সাহাব উদ্দীন, সেনবাগে আ:লীগের জাফর আহাম্মদ চৌধুরী, সুবর্ণচরে আ:লীগের খায়রুল আনম সেলিম, সোনাইমুড়ীতে খন্দকার রুহুল আমীন চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হন। এ ছাড়া চাটখিলে আ:লীগের জাহাঙ্গীর কবির ও বেগমগঞ্জে আ:লীগের ওমর ফারুক বাদশা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া : কসবায় আ:লীগের রাশেদুল কায়ছার ভূঁইয়া, আখাউড়ায় আ:লীগের আবুল কাশেম ভূঁইয়া জীবন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া সদরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ফিরোজুর রহমান, নাসিরনগরে আ:লীগের রাফি উদ্দিন আহমেদ, আশুগঞ্জে আ:লীগের মো. হানিফ মুন্সি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ফেনী : পরশুরামে আ:লীগের কামাল আহম্মদ মজুমদার, দাঁগনভূঞায় আ:লীগের দিদারুল কবির রতন, সোনাগাজীতে আ:লীগের জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, ফুলগাজীতে আ:লীগের আবদুল আলীম এবং সদরে আ:লীগের আবদুর রহমান বিকম চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন। নারায়ণগঞ্জ : সোনারগাঁয়ে আ:লীগের মোশারফ হোসেন, রূপগঞ্জে আ:লীগের শাহ্ জাহান ভূঁইয়া, আড়াইহাজারে আ:লীগের মোজাহিদুর রহমান হেলু সরকার জয়ী। গাইবান্ধা : গোবিন্দগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের আবদুল লতিফ প্রধান। কক্সবাজার : সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের কায়সারুল হক জুয়েল চেয়ারম্যান নির্বাচিত। সোনারগাঁয়ে ভোট শেষে ফেরার পথে ট্রলারডুবি, প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিখোঁজ তিন : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় ভোট শেষে ফেরার পথে মেঘনা নদীতে ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। ট্রলারে প্রিসাইডিং অফিসার, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা ছিলেন। পরে ১৭ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তবে রাত সোয়া ১টার দিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত প্রিসাইডিং অফিসার ও এসআইসহ তিনজন নিখোঁজ ছিলেন। তখনও উদ্ধার তৎপরতা চলছিল। রোববার রাতে উপজেলার চরকিশোরগঞ্জ-চরহোগলা গ্রাম এলাকার মেঘনা নদীতে ঝড়ের কবলে পড়ে তাদের বহনকারী ট্রলার। নিখোঁজ তিনজন হলেন- চরহোগলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ও ইউসিবি ব্যাংক মেঘনাঘাট শাখার ম্যানেজার বোরহান উদ্দীন, নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের পিএসআই সেলিম মিয়া ও মহিলা আনসার সদস্য রিতা আক্তার। আহতদের মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান মনির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ঘটনায় ভোটের ব্যালট বাক্সসহ অন্য সরঞ্জাম এবং পুলিশ ও আনসার সদস্যদের অস্ত্র পানিতে তলিয়ে গেছে কিনা তা তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেননি। বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনের চিত্র- সখীপুর (টাঙ্গাইল) : ভোটকেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নৌকার এজেন্ট আজহারুল ইসলাম রাজা (৪০) ও আনসার সদস্য মো. মজিবুর রহমানের (৫০) মৃত্যু হয়েছে। রোববার সখীপুর উপজেলার যোগিরকোপা পূর্ব পাড়া এবতেদায়ি মাদ্রাসা ও দাড়িয়াপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। যোগিরকোপা পূর্বপাড়া কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা পার্থ সারথী গোস্বামী বলেন, ভোট শুরুর ঘণ্টাখানেক পরই নৌকার এজেন্ট আজহারুল অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাকে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত রাজা উপজেলার বহেরাতৈল ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য। তিনি ওই ইউনিয়নের ঘাটেশ্বরী গ্রামের মৃত ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে। অপরদিকে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সবুজ কান্ত বর্মণ জানান, দাড়িয়াপুর আকন্দপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল ৬টার দিকে কতর্ব্যরত আনসার সদস্য মো. মজিবুর রহমান অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে প্রথমে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) : সাটুরিয়ার সদ্য নির্বাচিত উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. আবুল বাশার মাস্টার ধামরাইয়ের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তথ্য গোপন করে প্রিসাইডিং অফিসারের দায়িত্ব নেয়া এবং রোববার ধামরাইয়ের একটি কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকালে এক প্রার্থীর পক্ষে জাল ভোটের অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে। ধামরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম বলেন, তার বিরুদ্ধে বেশ কিছু অনিয়মের অভিযোগ উঠায় তাকে আটক করা হয়েছে। মুন্সীগঞ্জ : বিকালে ভোটগণনা শেষে পঞ্চসার ইউনিয়নের দেওয়ান বাজার এলাকায় প্রতিপক্ষের গুলিতে এক রিকশাচালকসহ দুজন আহত হয়েছেন। তাদের প্রথমে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসাইন বলেন, হরগঙ্গা কলেজ শাখা ছাত্রলীগ নেতা রিয়াদ গুলি করলে স্থানীয় ফয়সাল ও রিকশাচালক রুহুল আমীন আহত হন। হোমনা (কুমিল্লা) : ব্যালট পেপারে সিল, কেন্দ্র দখলের চেষ্টা এবং দুটি পক্ষের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার কারণে উপজেলার আসাদপুর দড়িকান্দি ও হোমনা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) : জাল ভোট দেয়াসহ বিভিন্ন কারণে চারটি কেন্দ্র থেকে ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ। তারা হলেন- আমির হোসেন, মেহেদী হাসান, রায়হান মিয়া, মাহবুবর রহমান, রুহুল আমিন, আতিকুর রহমান, শিমুল মিয়া ও সাজ্জাদুল ইসলাম। চট্টগ্রাম : লোহাগাড়ায় ভোটার উপস্থিতি ছিল একেবারে কম। অনেক কেন্দ্রে সকাল ৮টায় ভোটার না যাওয়ায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে আরও পরে। জাল ভোট দেয়ার অভিযোগে ৪ নারীকে আটক করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তারা হলেন- খুরশিদা বেগম, খুরশিদা আক্তার, রেখা আক্তার ও আনোয়ারা বেগম। ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ কেন্দ্রে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বেলা ১১টার দিকে কেন্দ্রের মাঠে এ ঘটনা ঘটে। বিকট শব্দে ভোটাররা দিগিদিক ছুটতে থাকেন। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। টাঙ্গাইল : বাসাইলে নৌকা মার্কায় জাল ভোট দেয়ার সময় সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাসাইল দক্ষিণপাড়া কেন্দ্র থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন- রাশেদ হৃদয় ও সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সৈদামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পারভীন সুলতানা। গাইবান্ধা : দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্থগিত হওয়া গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন রোববার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিভিন্ন কেন্দ্রে জাল ভোট দেয়া ও কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টার অভিযোগে ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। ফুলপুর (ময়মনসিংহ) : সিংহেশ্বর ইউনিয়নে নৌকার সমর্থকরা একটি ব্যালট বাক্স ছিনতাই করে নেয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের ধাওয়া করে উদ্ধার করে। সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ): ভোট কেন্দ্র দখলের চেষ্টাকালে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বাবু ওমর ওরফে বাবুল হোসেনের ২ সমর্থককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- সুমন ও খোকন মিয়া। এদিকে কয়েকটি কেন্দ্রে বাক্সে ব্যালট না ফেলে পকেটে নিয়ে বের হয়ে যান বিএনপি সমর্থকরা। পরে তারা ওই ব্যালট পেপারে খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই ও আমার মা জেলে কেন শেখ হাসিনা জবাব চাই লেখা সংবলিত সিল মেরে তা ফেসবুকে পোস্ট করে। দাউদকান্দি (কুমিল্লা) : তিতাস উপজেলায় নির্বাচন স্থগিত করেছে কমিশন। কেন্দ্র দখল ও ভোর রাত থেকে নানা অনিয়মের কারণে নির্বাচন কমিশনের এক চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করা হয়। নির্বাচন পরিচালনা-২ এর উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান ও নির্বাচন ব্যবস্থাপনা ও সমন্বয়-শাখা ২ এর সহকারী সচিব মোহাম্মদ আশফাকুর রহমান স্বাক্ষরিত চিঠির অনুলিপি প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে পাঠানো হয়। নোয়াখালী : চাটখিলে ফয়জুন নেছা দাখিল মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্রে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রোজিনা আক্তার রোজির বিরুদ্ধে কেন্দ্রে পোলিং অফিসার হুমায়ুন কবির দোলনকে চড়, কিল-ঘুষি মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হুমায়ুন কবির দোলন মুঠোফোনে বলেন, জাল ভোটে বাধা দেয়ায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে কিল-ঘুষি মারেন। তবে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রোজিনার মোবাইলে একাধিকবার কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি। আমতলী (বরগুনা) : গুলিশাখালী কেন্দ্রে স্বতন্দ্র প্রার্থী আলহাজ গোলাম ছরোয়ার ফোরকানের জিপ গাড়িতে অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজুর সমর্থকরা হামলা করে। এতে জিপ গাড়ির সামনের কাচ ভেঙে গেছে। এ ঘটনায় লিটন জোমাদ্দার ও সোহেল ফকির নামে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নারায়ণগঞ্জ : রোববার দুপুর ১২টা পর্যন্ত রূপগঞ্জের মুশুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩নং বুথে ভোট পড়েনি একটিও। সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত কাঞ্চন ভারত চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ভোট পড়ে ৮টি ও কালাদী সাহাজদ্দিন দাখিল মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্রে ভোট পড়ে ৬টি। ভোটার না থাকায় আনসার, পুলিশ সদস্যরা পার করছিলেন অলস সময়। খুলনা : শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ হয়েছে। তবে ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার রহিমনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রূপসা গাজী মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও গাজী মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের অদূরে স্থাপিত আনারস প্রতীকের প্রার্থী আকবর শেখের নির্বাচনী কার্যালয়ে ভাংচুর করা হয়। খবর- যুগান্তর
কালবৈশাখী ঝড়ে ঢাকায় নিহত ৬
১ এপ্রিল ,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: মধ্য চৈত্রে কালবৈশাখী ঝড়ে ঢাকায় ভবন থেকে ইট পড়ে দুজন, দেয়াল ধসে একজন এবং গাছ ভেঙে পড়ে এক নারী নিহত হয়েছেন। এছাড়া বুড়িগঙ্গায় নৌকা ডুবে মারা গেছেন দুজন। রোববার (৩১ মার্চ) সন্ধ্যার সময় ঢাকার আকাশ কালো করে নামে ঝড়, যা কয়েক মিনিট স্থায়ী ছিল। এতে বিভিন্ন স্থানে গাছ, বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়ে। সংসদ ভবন এলাকায় গাছ ভেঙে পড়ে এক নারী মারা যান বলে জানিয়েছেন শেরে বাংলা নগর থানার ওসি জানে আলম। ওই নারীর নাম মিলি ডি কস্তা (৬০)। তিনি পাশের মনিপুরি পাড়ায় থাকতেন। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি সন্ধ্যায় হাঁটতে বেরিয়েছিলেন। পল্টন থানার ওসি মাহমুদুল হক বলেন, ঝড়ের সময় পুরানা পল্টন মোড়ে চায়ের গলিতে উঁচু ভবন থেকে ইট পড়ে নিহত হন মো. হানিফ (৪৫) নামে এক চা দোকানি। হানিফকে আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওসি মাহমুদুল হক বলেন, আশেপাশে বহুতল অনেক ভবন রয়েছে। তবে কোন ভবন থেকে ইট পড়েছে, তা বোঝা যায়নি। ঢাকার আকাশ কালো করে রোববার সন্ধ্যায় শুরু হওয়া কয়েক মিনিটের কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে বিভিন্ন স্থানে গাছপালা ভেঙে পড়ে রাস্তায় থাকা যানবাহনের উপর। ছবিটি হাই কোর্ট মাজার গেইটের সামনে থেকে তোলা। পশ্চিম শেওড়াপাড়ায় ইট পড়ে দুলাল মিয়া (৪০) নামে এক ব্যক্তি মারা যান বলে মিরপুর থানার ওসি দাদন ফকির জানিয়েছেন। দুলাল বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের গাড়িচালক। পশ্চিম শেওড়াপাড়ায় একটি টিনশেড ঘরে থাকতেন তিনি। সেখানে নির্মাণাধীন বাড়ির দেওয়াল থেকে ইট পড়ে তিনি আহত হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে ওসি জানান। কদমতলী থানা এলাকার পলাশপুরে দেয়ালচাপা পড়ে নিহত হন হাসান (৪০) নামে এক রিকশাচালক। কদমতলী থানার ওসি জামালউদ্দীন মীর বলেন, পলাশপুর ৫নম্বর সড়কে একটি বাড়ির সামনে দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় দেওয়াল পড়ে মারা যান হাসান। ঝড়ে কাকরাইলেও গাছের ডাল ভেঙে একটি প্রাইভেটকার ও একটি অটোরিকশার উপর পড়ে। এতে অটোরিকশা চালক সামান্য আহত হন বলে পুলিশ জানিয়েছে। ধানমন্ডি তিন নম্বর সড়কেও গাছের ডাল ভেঙে সড়কে পড়েছে। ঝড়ে শাহবাগ থানার সাইনবোর্ড উড়ে গেছে। মিন্টো রোডে পুলিশের ভবনের সামনে বৈদ্যুতিক তার ছিঁড়ে পড়ে। ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের তথ্য অনুযায়ী, ঝড়ে অন্তত ২৫টি স্থানে গাছ পড়ার ঘটনা ঘটেছে। ঢাকার আকাশ কালো করে রোববার সন্ধ্যায় শুরু হওয়া কয়েক মিনিটের কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে বিভিন্ন স্থানে গাছপালা ভেঙে পড়ে রাস্তায় থাকা যানবাহনের উপর। ছবিটি রাজধানীর হেয়ার রোড থেকে তোলা। ঝড়ের মধ্যে বুড়িগঙ্গা নদীতে নৌকা ডুবে এক নারী ও তার ছেলের মৃত্যু হয়েছে। নিহত মা ও পাঁচ বছর বয়সী ছেলের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি পুলিশ। কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ জুবায়ের বলেন, কেরানীগঞ্জের মাদারীপুর ঘাট দিয়ে কামরাঙ্গীরচরে যাওয়ার সময় ঝড়ের কবলে পড়ে নৌকাটি। মাদারীপুর গ্রামের বাসিন্দা মো. এরফান বলেন, নৌকাটি ডুবে গেলে স্থানীয়রা এগিয়ে যায়। প্রথমে শিশুটিকে খুঁজে পেয়ে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পরে মায়ের মৃতদেহ খুঁজে পাওয়া যায়।
তাসভির-ফারুক সাত দিনের রিমান্ডে
৩১মার্চ,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর বনানীতে এফ আর টাওয়ারে আগুনের ঘটনার মামলায় আসামি তাসভির উল ইসলাম ও এস এম এইচ আই ফারুককে সাত দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। রোববার (৩১ মার্চ) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাব্বির ইয়াসির আহসান চৌধুরী এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে সকালে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে বনানীর এফ আর টাওয়ারে ভয়াবহ আগুন লাগে। এ ঘটনায় শনিবার বনানী থানায় অবহেলা, অনিয়মের মাধ্যমে ভবন নির্মাণ করে অগ্নিকাণ্ড ঘটানোসহ বিভিন্ন অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করা হয়। এতে এফ আর টাওয়ারের জমি ও স্থাপনার একাংশের মালিক, প্রকৌশলী এস এম এইচ আই ফারুক এবং ভবনের বর্ধিত অংশের মালিক তাসভির উল ইসলামসহ তিনজনকে আসামি করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল রাতেই ফারুক ও বারিধারার বাসা থেকে তাসভিরুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একটি দল।
আগুনের ঘটনায় এফ আর টাওয়ারের দুই মালিক গ্রেফতার
৩১মার্চ,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বনানীর এফআর টাওয়ারে আগুনে হতাহতের ঘটনায় ওই ভবনের দুই মালিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন বিএনপি নেতা তাসভীর উল ইসলাম ও প্রকৌশলী এস এম এইচ আই ফারুক। এদের মধ্যে ফারুক ওই ভবনের জমির মালিক। আর কুড়িগ্রাম জেলা বিএনপির সভাপতি ও দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তাসভীর ওই ভবন পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন। তাসভীর প্রযুক্তি খাতের কোম্পানি কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। এফআর টাওয়ারের ২১ থেকে ২৩তলা পর্যন্ত এই প্রতিষ্ঠানের অফিস। শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বারিধারার বাসা থেকে তাসভীরকে গ্রেফতার করা হয় বলে গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার সাজাহান সাজু জানান। অপরদিকে মধ্যরাতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে ফারুককে গ্রেফতার করা হয় বলে গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার মশিউর রহমান জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার এফআর টাওয়ারে আগুন লেগে ২৬ জনের মৃত্যু এবং অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হন। ওই ভবনে যথাযথ অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা নেই বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। এটি ভবন নির্মাণ নীতিমালা অনসুরণ করে তৈরি করা হয়নি বলেও অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বনানী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে শনিবার দুপুরেই জানিয়েছিলেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি মামলার বাদী ও আসামিদের সম্পর্কে কোনো তথ্য দেননি। এরপর রাতেই এই দুজনকে গ্রেপ্তার করা হল।
বিল্ডিং কোড না মেনে ভবন নির্মাণের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
৩০মার্চ,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বহুতল ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে বিল্ডিং কোড যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে। বিল্ডিং কোড না মেনে ভবন নির্মাণের বিরুদ্ধে কঠোর নজরদারি চলবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার (২৯ মার্চ) বিকেলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এক সভায় প্রধানমন্ত্রী এমনটা জানান। সভায় সাম্প্রতিক উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের মদদ দেওয়ায় বেশ কয়েকজন মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যের প্রতি অসন্তোষ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। সভায় উপস্থিত আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, সভায় বনানীর অগ্নিকাণ্ড, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুক হামলা, সাম্প্রতিক উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপনসহ নানা বিষয়ে আলোচনা হয়। আগামী শুক্রবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক করার সিদ্ধান্ত হয়। সূত্র থেকে জানা গেছে, বনানীর অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি যে ভবনটিতে ঘটেছে সেটি বিল্ডিং কোড মেনে হয়নি বলে সভায় আলোচনা তোলা হয়। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ভবনটি বিল্ডিং কোড না মেনে করা হয়েছে। এসব বিষয়ে কড়া নজরদারি বাড়ানো হবে। ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে যথাযথ নিয়ম মেনে চলার ব্যবস্থা করা হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, অগ্নিদুর্ঘটনাসহ সার্বিক নিরাপত্তা বিষয়ে ভবন মালিক ও ব্যবহারকারীদের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এবং এ ক্ষেত্রে সরকারি সংস্থাসমূহের কঠোর নজরদারি বাড়ানোসহ জনসচেতনতা সৃষ্টির ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসের ভূমিকার প্রশংসা করেন শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সাধারণ মানুষ যারা অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধারকাজে সহযোগিতা করেছে তাদের ধন্যবাদ জানান। তবে আগুনের ঘটনাস্থলের কাছে বিপুলসংখ্যক উত্সুক মানুষের উপস্থিতির ঘটনাকে উদ্বেগজনক বলে মন্তব্য করেন শেখ হাসিনাসহ বেশ কয়েকজন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য। সভায় শেখ হাসিনা বলেন, বনানীতে আগুন নির্বাপণে যেসব যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলো আওয়ামী লীগ সরকারের সময়েই কেনা। এসব যন্ত্রপাতি ব্যবহারের ফলে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক কম হয়েছে। এসব না থাকলে বড় সর্বনাশ হতো। তবে আগামীতে এ ধরনের ঘটনা মোকাবেলায় আরো আধুনিক যন্ত্রপাতি কেনা হবে। গতকাল বিকেল ৫টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম, মোহাম্মদ নাসিম এমপি, কাজী জাফর উল্যাহ, সাহারা খাতুন, নুরুল ইসলাম নাহিদ, ড. আব্দুর রাজ্জাক, মুহাম্মদ ফারুক খান প্রমুখ। বৈঠকে এ বছরের শেষ দিকে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন সফলভাবে সম্পন্ন করতে আট বিভাগে আটটি টিম গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যদের নেতৃত্বে এসব টিমে দলটির কেন্দ্রীয় নেতাদেরও রাখা হবে। এই টিমগুলো তৃণমূল পর্যায়ে সম্মেলন সম্পন্ন করবে। বিশেষ করে যেসব জেলা, উপজেলায় মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি বা আহ্বায়ক কমিটি আছে সেগুলোতে সম্মেলন সম্পন্ন করতে তৎপর থাকবে এসব টিম। এ ছাড়া ওই টিমগুলো আগামীতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন তৃণমূল পর্যন্ত ছড়িয়ে দিতে কাজ করবে।
বিদেশি চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন দেখলে ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী
৩০মার্চ,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ডাউন লিংক করে দেখানো বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে না সাফ জানিয়ে দিলেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, আগামী ১ এপ্রিল থেকে কেউ যদি তা করে, তাহলে আইন প্রয়োগ করা হবে। মন্ত্রী আজ শনিবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে এক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সতর্ক করে দেন। সংকটে বেসরকারি টেলিভিশন শীর্ষক এই গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে সম্প্রচার সাংবাদিক কেন্দ্র। তথ্যমন্ত্রী কেবল অপারেটরদের উদ্দেশে বলেন, ডাউন লিংক করে বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন দেখানো দণ্ডনীয় অপরাধ। শুধু এ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে মানা হলে বছরে দেশে ৫০০ কোটি টাকা বাড়বে। তিনি টেলিভিশনে বিদ্যমান সমস্যার কথা ইঙ্গিত করে বলেন, টিভিশিল্পকে সুরক্ষা দিতে আসুন সবাই একযোগে কাজ করি। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিটিভির প্রধান সম্পাদক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা। তিনি তার প্রবন্ধে বর্তমানে বেসরকারি টেলিভিশনগুলো নানা সংকটে রয়েছে বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, প্রায় প্রতিদিনই অপ্রত্যাশিতভাবে কর্মহীন হয়ে যাচ্ছেন অনেকে। কোনো কোনো টেলিভিশন চ্যানেল আর্থিক ক্ষতির দোহাই দিয়ে লাইসেন্সের শর্ত ভঙ্গ করে শুধু একটি নোটিশ দিয়ে বার্তাকক্ষ গুটিয়ে ফেলছে। কোনো আগাম ঘোষণা ছাড়াই সাংবাদিক ও কর্মী ছাঁটাই করছে। আবার ছদ্মবেকারও আছে অনেক। যেমন: চাকরি আছে, বেতন নেই। কোনো কোনো চ্যানেল কর্তৃপক্ষ মাসের পর মাস সাংবাদিক ও অন্য কর্মীদের বেতন দিচ্ছে না। কোনো কোনো চ্যানেল আবার বেতন কমিয়ে দিচ্ছে। চ্যানেলের সংখ্যা বাড়ছে, কিন্তু বিজ্ঞাপনের দরপতন হচ্ছে। বড় বড় কোম্পানির বিজ্ঞাপন চলে যাচ্ছে দেশের বাইরে। এর ফলে দেশীয় চ্যানেলগুলো আর্থিক ক্ষতির মধ্যে পড়ছে। ইশতিয়াক রেজা বলেন, সামগ্রিকভাবে চতুর্থ স্তম্ভ হিসেবে পরিচিত গণমাধ্যম সংকটে রয়েছে। গণতন্ত্রকে সংহত করতে গণমাধ্যমকে বাঁচিয়ে রাখতে সরকারের উদ্যোগ চাই। তিনি নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে সাংবাদিক ইউনিয়ন করার তাগিদ দেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সম্প্রচার সাংবাদিক কেন্দ্রের চেয়ারম্যান রেজোয়ানুল হক। সংগঠনটির সদস্যসচিব শাকিল আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তৃতা দেন ডিবিসি টেলিভিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল সোবহান চৌধুরী, চ্যানেল ২৪ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সমকালের প্রকাশক এ কে আজাদ, বেঙ্গল গ্রুপ লিমিটেডের ভাইস চেয়ারম্যান আকবার খায়ের প্রমুখ।
বনানীর আগুনের ঘটনায় মামলা
৩০মার্চ,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের দুদিন পর এ তথ্য জানালেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান মিয়া। শনিবার দুপুরে পুরান ঢাকার চকবাজারে মাদকবিরোধী ও ট্রাফিক সচেতনতা তৈরি বিয়য়ক এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নে কমিশনার বলেন, বনানী থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। তবে মামলার বাদী কে হয়েছেন এবং কী অভিযোগ আনা হয়েছে, সে বিষয়ে কিছু বলেননি তিনি। আসাদুজ্জামান মিয়া বলেন, একটি নিয়মিত মামলা হয়েছে, এটা আমরা তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপির গুলশান বিভাগের উপকমিশনার মোস্তাক আহমেদ বলেন,এ বিষয়ে বিস্তারিত আমরা পরে জানাব। ওই ভবনের জমির মূল মালিক এস এম এইচ আই ফারুক নামের একজন প্রকৌশলী। আর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ভবনের অর্ধেকের মালিকানা ছিল রূপায়ন হাউজিং এস্টেট লিমিটেডের হাতে। এ কারণে নাম সংক্ষেপে ভবনের এফআর টাওয়ার। মূল মালিকরা বিভিন্ন ফ্লোর পরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। এখন এফআর টাওয়ার পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্বে আছেন প্রযুক্তি খাতের কোম্পানি কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের এমডি তাসভীর উল ইসলাম।

জাতীয় পাতার আরো খবর