ঢাকায় ফেরেনি বিমানে দুর্ঘটনাকবলিত যাত্রীরা
৯মে,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: মিয়ানমারের ইয়াংগুন থেকে ১৭ যাত্রী নিয়ে ঢাকায় পৌঁছেছে বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ উড়োজাহাজ। উড়োজাহাজটিতে আসা সবাই মিয়ানমার থেকে ঢাকায় আসা সাধারণ যাত্রী। তাদের কেউ ইয়াংগুন বিমানবন্দরে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়া বাংলাদেশ বিমানের (বিজি ০৬০) কোনো যাত্রী নন। আজ বৃহস্পতিবার ভোর ৫টা ৩ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছেছে উড়োজাহাজটি। বাংলাদেশ বিমান কর্তৃপক্ষের অপারেশন অফিসার জয়নাল আবেদিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে বাংলাদেশ বিমানের এক বার্তায় জানানো হয়, দুর্ঘটনার পর ইয়াংগুন বিমানবন্দরে আটকা পড়া যাত্রীদের আনতে গতকাল বুধবার রাত ১১টা ২৫ মিনিটে বিমান বাংলাদেশের বিশেষ ওই উড়োজাহাজটি ইয়াংগুন যায় ও বৃহস্পতিবার মধ্যরাত ২টা ৩৩ মিনিটে বিশেষ উড়োজাহাজটি ইয়াংগুন থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয়। পরবর্তীতে জানা যায়, উড়োজাহাজটিতে ফেরত আসা যাত্রীরা দুর্ঘটনাকবলিত বিমানের নন। প্রসঙ্গত, বুধবার সন্ধ্যা ৬টা ২২ মিনিটে বিমান বাংলাদেশের (বিজি-০৬০) একটি উড়োজাহাজ (ড্যাশ-৮) অবতরণের সময় ইয়াংগুনের রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে। এতে পাইলটসহ ৩৩ যাত্রী আহত হয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে খবর মিলেছে। উড়োজাহাজটি গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরে অবতরণকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে গতকাল রাত পর্যন্ত ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ ওঠানামা বন্ধ ছিল। মিয়ানমারের বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছে, আহতদের ইয়াঙ্গুনের নর্থ ও কলাপা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দেশটিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মঞ্জুরুল খান চৌধুরী জানান, ইফতারের আগে এই দুর্ঘটনা ঘটে। অনেকে সামান্য আহত হয়েছেন। তবে গুরুতর আহত কেউ নেই। দূতাবাস কর্মকর্তারা ইতিমধ্যে হাসপাতালে আহতদের খোঁজ নিয়েছেন। বাংলাদেশ বিমানের মহাব্যবস্থাপক (গণসংযোগ) শাকিল মেরাজ জানান, ঢাকা থেকে ইয়াঙ্গুনগামী ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজের বিজি০৬০ ফ্লাইটটি গতকাল বিকেল ৩টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা ত্যাগ করে। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা ২২ মিনিটে ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরে অবতরণের সময় এটি বৈরী আবহাওয়ার কারণে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে। আহত ২৯ যাত্রীর মধ্যে একটি শিশুও রয়েছে। এ ছাড়া দুই জন পাইলট ও দুই জন কেবিন ক্রু আহত হয়েছেন। আহত পাইলটদের একজন ক্যাপ্টেন শামীম নজরুল ও অন্যজন ফার্স্ট অফিসার আনোয়ার বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা পাচ্ছেন কোটি টাকার গাড়ি
৮মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রায় কোটি টাকা দামের পাজেরো স্পোর্টস কিউ এক্স মডেলের জিপ পাচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা (ইউএনও)। সুপরিসর, শক্তিধর ও পর্যাপ্ত গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্সের ফোর হুইল ড্রাইভের যে গাড়ি ব্যবহার করেন সরকারের অতিরিক্ত সচিব ও সমমানের কর্মকর্তারা, সেই গাড়ি কেনা হচ্ছে মাঠ প্রশাসনের জুনিয়র কর্মকর্তাদের জন্য। কোনো দরপত্র আহ্বান না করে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে আপাতত ১০০টি গাড়ি কেনা হবে। দীর্ঘ সময় লাগার অজুহাতে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে কেনার পথে না হাঁটার পক্ষে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটি। বুধবার সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে কমিটির বৈঠকে এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবের অনুমোদন দেয়া হয়। কমিটির আহ্বায়ক অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এতে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, বিভিন্ন ইউএনওর জন্য গাড়ি কিনতে হয়। এরই ধারাবাহিকতায় আজকে ১০০টি গাড়ি কেনার প্রস্তাবে নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে এসব গাড়ি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান প্রগতি ইন্ডাস্ট্রিজ থেকে কেনা হবে। প্রতিটিতে কত খরচ হবে- এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী কিছু না বললেও বৈঠকে উপস্থাপিত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব অনুযায়ী প্রতিটি গাড়ির দাম পড়বে ৯১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। এত দামি গাড়ি কেনা নিয়ে অর্থ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের মধ্যে মতভেদ দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। অর্থ মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা ছিল ইউএনওদের জন্য ৫৬ লাখ ৮৭ হাজার টাকা দামের গাড়ি কেনার।
দুধের ৯৬ নমুনার মধ্যে ৯৩টিতে ক্ষতিকর উপাদান
৮মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাজারে প্রচলিত তরল দুধের ৯৬টির মধ্যে ৯৩টির নমুনায় মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান পাওয়া গেছে। হাইকোর্টে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের দাখিলকৃত একটি প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। তবে কোন কোন কোম্পানির দুধে এসব ক্ষতিকর উপাদান রয়েছে তা সুনির্দিষ্ট না করায় ওইসব কোম্পানির নাম আদালতে উপস্থাপন করতে বলা হয়েছে। দুধ ও দইয়ে ভেজাল রয়েছে এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের পর আজ বুধবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে কারা এর সঙ্গে জড়িত তাদের নাম-ঠিকানাও দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী ১৫ মে’র মধ্যে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষকে এই তালিকা দাখিল করতে বলা হয়েছে। আদালতে আজ রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। আদালতে দাখিল করা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাজার থেকে সংগৃহীত কাঁচা তরল দুধে ৯৬টি নমুনার মধ্যে ৯৩টিতেই সিসা ও অ্যান্টিবায়োটিক অণুজীব পাওয়া গেছে। প্যাকেটজাত দুধে ৩১টি নমুনার মধ্যে ১৮টিতেই ভেজাল পাওয়া গেছে। এ ছাড়া দুধে ও দইয়ে উচ্চমাত্রার বিভিন্ন রাসায়নিক পাওয়া গেছে। কোন কোন কোম্পানি দুধে এই ভেজাল বা রাসায়নিক দ্রব্য মেশানোর সঙ্গে জড়িত, প্রতিবেদনে তাদের নাম-ঠিকানা না দেওয়ায় আদালত ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরে আদালত তাদের নাম-ঠিকানা আগামী ১৫ মের মধ্যে দাখিলের নির্দেশ দেন। এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি ঢাকাসহ সারা দেশে গরুর দুধ, দই ও গো-খাদ্যে কী পরিমাণ ব্যাকটেরিয়া, কীটনাশক, সিসা রয়েছে তা নিরূপণের জন্য একটি জরিপ পরিচালনার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। ১৫ দিনের মধ্যে খাদ্য সচিব, মৎস্য ও প্রাণি সচিব, কৃষি সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, নিরাপত্তার খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানসহ সব সদস্য, কেন্দ্রীয় নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা সমন্বয় কমিটি এবং বিএসটিআইর চেয়ারম্যানকে জরিপের প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করতে বলা হয়। উল্লেখ্য, জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের একটি গবেষণা প্রতিবেদন নিয়ে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে খবর প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনের আলোকে আদালত স্বপ্রণোদিত হয়ে ওই দিন আদেশ দেন।
কিশোরগঞ্জে নার্সকে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় মামলা
৮মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: কিশোরগঞ্জে চলন্ত বাসে ইবনে সিনা হাসপাতালের নার্সকে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। আটক ৫ জনের মধ্যে ৩ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার (০৭ মে) রাতে নিহতের বাবা বাদী হয়ে বাসের চালক ও হেলপারসহ ৪ জনের নাম উল্লেখসহ বেশ কয়েকজনকে আসামি করে বাজিতপুর থানায় মামলা করেন। এরইমধ্যে এ ঘটনায় অভিযুক্ত বাসের চালক নুরু মিয়া ও সহকারী লালনসহ ৫ জনকে গাজীপুরের কাপাসিয়া থেকে আটক করে। এদের মধ্যে ৩ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়। সোমবার( ৬ মে) বিকেলে ঢাকার বিমানবন্দর এলাকা থেকে স্বর্ণলতা পরিবহনের একটি বাসে করে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদিতে যাচ্ছিলেন ইবনে সিনা হাসপাতালের সিনিয়র নার্স তানিয়া। পথে কটিয়াদি-বাজিতপুর সড়কের গজারিয়ার জামতলি এলাকায় তাকে গণধর্ষণের পর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করা হয়।
২২ শতাংশ নারী শ্রমিক যৌন হয়রানির শিকার
৮মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের তৈরি পোশাক কারখানাগুলোতে ২২.৪ শতাংশ নারী শ্রমিক যৌন হয়রানির শিকার হয় বলে এক গবেষণা প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি হয়রানির শিকার হয় কারখানার হেলপার এবং কাজে আসা নতুন শ্রমিকরা। বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন (এমজেএফ), নারী পক্ষ ও আওয়াজ ফাউন্ডেশন গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে তৈরি পোশাক শিল্প কারখানায় নারী শ্রমিকদের যৌন হয়রানি : সংগ্রাম ও উত্তরণের উপায় শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এই তথ্য প্রকাশ করে। আয়োজকরা জানায়, গবেষণাটি ঢাকার মিরপুর এবং চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ ও বায়েজিদ বোস্তামি রোডে অবস্থিত ২২টি পোশাক কারখানায় পরিচালিত হয়েছে। যৌন হয়রানি প্রতিরোধে বিদ্যমান যেসব আইন ও প্রবিধান আছে সেগুলোও পর্যালোচনা করা হয়েছে। নারী শ্রমিকরা কেন যৌন নির্যাতনের শিকার হয় সে প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ নেয় না। হয়রানির বিষয়ে কর্তৃপক্ষ থেকে কোনো নজরদারি কমিটি হয় না। অপরাধীদের কোনো রকম শাস্তি হয় না। কারখানা কর্তৃপক্ষও যৌন হয়রানিকে কোনো অপরাধ বলে মনে করে না। কেন নারী শ্রমিকরা যৌন হয়রানি সম্পর্কে অভিযোগ করে না, তার কারণ হিসেবে গবেষণায় উঠে এসেছে যে যৌন হয়রানির সমাধান সময়সাপেক্ষ, নারীদের সংসারে ও কর্মক্ষেত্রে থাকে ব্যাপক কাজের চাপ। এ ছাড়া যৌন হয়রানির ঘটনা প্রকাশের ভয় থাকে এবং হয়রানির শিকার মেয়েটির পোশাক ও আচরণ নিয়েও অপমানজনক কথা বলা হয়। এসবকে এড়িয়ে চলার জন্যই তারা অভিযোগ করে না। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এমনকি যৌন হয়রানি বিষয়ে হাইকোর্টের যে নির্দেশনা আছে সে সম্পর্কেও শ্রমিকরা খুবই কম জানে। দেখা গেছে, ৭৯ শতাংশ নারী শ্রমিক এবং ৭৯ শতাংশ পুরুষ শ্রমিক এ সম্পর্কে জানেই না। যারা জানে, তাদেরও ধারণা খুব একটা স্বচ্ছ নয়।- আলোকিত বাংলাদেশ
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সুবীর নন্দীরকে শেষ শ্রদ্ধা
৮মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দীর মরদেহে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হচ্ছে। সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য আজ বুধবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে তার মরদেহ সেখানে নেওয়া হয়। এর আগে সকাল পৌনে সাতটার দিকে রিজেন্ট এয়ারের একটি ফ্লাইটে সিঙ্গাপুর থেকে তার মরদেহ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। পরে সেখান থেকে তার মরদেহ নেওয়া হয় গ্রীন রোডের বাসায়। পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বেলা ১১টায় সকল শ্রেণির মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য সুবীর নন্দীর মরদেহ রাখা হবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। এর পর শেষবারের মতো তাকে নিয়ে যাওয়া হবে এফডিসিতে। সেখান থেকে তাকে নিয়ে যাওয়া হবে রামকৃষ্ণ মিশনে এবং দুপুরে সবুজবাগে বরদেশ্বরী কালীমন্দির ও শ্মশানে একুশে পদক পাওয়া সঙ্গীত শিল্পী সুবীর নন্দীর শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হবে। প্রসঙ্গত, গত ১৪ এপ্রিল রাতে পরিবারসহ সিলেট থেকে ফিরছিলেন সুবীর নন্দী। উত্তরার কাছাকাছি আসতেই হঠাৎ তার শারীরিক অবস্থা খুব খারাপ হয়ে যায়। বাধ্য হয়ে তাকে ট্রেন থেকে নামিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে করে সিএমএইচে নেওয়া হয়। সেখানে তাকে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়। এক পর্যায়ে লাইফ সাপোর্টও দেওয়া হয়। ১৮ দিন ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ৩০ এপ্রিল সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয় সুবীর নন্দীকে। সেদিন বিকেলেই সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে তার চিকিৎসা শুরু হয়। সেখানে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের এমআইসিইউ-তে চিকিৎসাধীন ছিলেন বরেণ্য এই সংগীতশিল্পী। গতকাল মঙ্গলবার ভোর সাড়ে চারটায় সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সুবীর নন্দী। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও হার্টের অসুখে ভুগছিলেন।
ঢাকায় সুবীর নন্দীর মরদেহ
৮মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলা গানের ভুবনে বহু জনপ্রিয় গান উপহার দেওয়া কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরেছেন কফিনবন্দি হয়ে। ভক্ত, শ্রোতা আর সহকর্মীরা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শেষবারের মত এই শিল্পীর প্রতি জানাবেন তাদের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা; শেষকৃত্য হবে সবুজবাগের বরদেশ্বরী কালী মন্দিরে। সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে মারা যান সুবীর নন্দী। তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ জানান, বুধবার সকাল সাড়ে ৬টায় সুবীর নন্দীর মরদেহ সিঙ্গাপুর থেকে ঢাকায় পৌঁছায়। তার কফিন প্রথমে নেওয়া হয় তার গ্রিন রোডের বাসায়। সেখান থেকে সকাল ৯টায় এ শিল্পীর মরদেহ নেওয়া হয় ঢাকেশ্বরী মন্দিরে। সেখানে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। বেলা ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষ সুবীর নন্দীকে শেষ বিদায় জানাবে। পরে তার কফিন রামকৃষ্ণ মিশন হয়ে বেলা ১টায় নেওয়া হবে সবুজবাগের বরদেশ্বরী কালী মন্দিরের শ্মশানে। সেখানেই হবে তার শেষকৃত্য।-বিডিনিউজ সুবীর নন্দী দীর্ঘদিন ধরে কিডনি জটিলতায় ভুগছিলেন। নিয়মিতভাবে তার ডায়ালাইসিস করতে হত। এর মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হলে গত ১৪ এপ্রিল তাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে) ভর্তি করা হয়। ১৮ দিন পর তাকে নেওয়া হয় সিঙ্গাপুরে। সেখানেই মঙ্গলবার তার মৃত্যু হয়। এই শিল্পীর মৃত্যুর খবর পৌঁছানোর পর দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নেমে আসে শোকের ছায়া। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দেন। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে আড়াই হাজারের বেশি গানে কণ্ঠ দেওয়া সুবীর নন্দী চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও চারবার বাচসাস পুরস্কার পেয়েছেন। সংগীতে অবদানের জন্য এ বছরই তাকে একুশে পদকে ভূষিত করে সরকার।
গুলিস্তানে হকারদের বিক্ষোভ
৭ মে,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম : সকাল থেকে গুলিস্তানে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করছে হকাররা। হলিডে মার্কেট নয়, ফুটপাতে বসার দাবিতে গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজার এলাকার তারা এ বিক্ষোভ করছে। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে গুলিস্তান ও এর আশেপাশের এলাকা।পল্টন-সচিবালয় মোড় থেকে গোলাপশাহ মাজার পর্যন্ত এলাকায় আটকা পড়েছে শত শত যানবাহন। চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ওই এলাকায় অবস্থান নিয়েছে পুলিশ। হকারদের দাবি, পুনর্বাসনের আগ পর্যন্ত তারা ফুটপাতে ব্যবসা চালিয়ে যেতে চায়। এ দাবি নিয়ে দুপুরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়রের সঙ্গে দেখা করতে যায় বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের একটি দল। কিন্তু ঘন্টাব্যাপী সেখানে অপেক্ষা করেও মেয়রের সাক্ষাৎ না পেয়ে প্রতিনিধি দল ফিরে এসে আবারও গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজারের চারপাশের রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে।

জাতীয় পাতার আরো খবর