সোমবার, জুলাই ৬, ২০২০
মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন
২২ মে,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে টেলিফোন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফোনালাপে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে খোঁজখবর নেয়ার পাশাপাশি সহমর্মিতা জানান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এই তথ্য জানান। বঙ্গোপসাগর থেকে সৃষ্ট অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবনসহ উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার বিশাল এলাকা। এসব এলাকার উপর দিয়ে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৮৫ কিমি বেগে বয়ে যায় ঝড়। ঝড়ে বহু বাড়ি, গাছ ও বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে যায়। আম্পানে ভারতে পশ্চিমবঙ্গে ৮০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। ঘূর্ণিঝড়ে রাজ্যেটির সাতটি জেলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
ঈদ সামনে রেখে বাড়ি ফিরতে চেষ্টার কমতি নেই মানুষের
২২ মে,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা সংক্রমণ রোধে রাজধানীতে আসা-যাওয়ায় আছে নিষেধাজ্ঞা। বন্ধ বাস চলাচল। কিছুটা শৈথিল্যে ঈদ সামনে রেখে নামে বাড়িমুখী মানুষের ঢল। তা ঠেকাতে আবার কড়াকড়ি, বন্ধ করা হয় ফেরি চলাচলও। তবুও বাড়ি ফিরতে চেষ্টার কমতি নেই। নজর এড়াতে হাঁটছেন কিছুদূর। তবে পুলিশ বলছে, যেকোনো মূল্যে নিয়ন্ত্রণ করা হবে মানুষের চলাচল। কাউকেই ঢাকা ছাড়তে দেয়া হবে না। ঢাকা ছাড়ার অন্যতম পয়েন্ট গাবতলী। গণপরিবহন, বাস না থাকলেও আছে মোটরসাইকেল, ব্যক্তিগত গাড়ি, মাইক্রোবাস, পিকআপ ভ্যান ও ট্রাকের চলাচল। গাবতলীতে বসানো হয়েছে পুলিশের চেকপোস্ট। যানবাহন থামিয়ে জানতে চাওয়া হচ্ছে, গন্তব্য। তবে বেশিরভাগ মানুষই হেঁটে চলেছেন আমিনবাজার সেতু দিয়ে। উদ্দেশ্য বাড়ি ফেরা। তবে সেতুর অপর পাড়েও আছে পুলিশের চেকপোস্ট। সেখান থেকে ঘুরিয়ে দেয়া হচ্ছে দুই পাশ থেকে আসা প্রতিটি গাড়ি। তারপরও বাড়ি ফেরার আশায় রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন অনেকেই। ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার জানিয়েছেন, ঢাকা ছাড়া বা প্রবেশের প্রতিটি পথেই রয়েছে পুলিশের কড়াকড়ি। কাউকেই কোনোভাবে ঢাকায় ঢুকতে বা ঢাকা থেকে বাইরে যেতে দেয়া হবে না। শুক্র ও শনিবার মানুষের চলাচল আরও বাড়বে বলে ধারণা করছে পুলিশ। তখন নজরদারি আরও বাড়ানো হবে বলেও জানানো হয়।
আজ থেকে আখাউড়া স্থলবন্দর বন্ধ থাকবে
২২ মে,শুক্রবার,আখাউড়া প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পবিত্র ঈদুল ফিতর ও সাপ্তাহিক ছুটির কারণে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে শুক্রবার (২২ মে) থেকে ২৯ মে পর্যন্ত টানা আট দিন বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। আখাউড়া স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে বিষয়টি ভারতীয় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের আগেই জানিয়ে দিয়েছেন। আগামী ৩০ মে থেকে এ স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য কার্যক্রম ফের শুরু হবে। তবে লকডাউনের কারণে ভারতে আটকে পড়া বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রীরা ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে আসতে পারলেও স্বাভাবিক যাত্রী পারাপার কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বলে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। এদিকে সরকারি ছুটির দিন ছাড়া আখাউড়া স্থল শুল্কস্টেশন ও বন্দরের কার্যক্রম খোলা থাকবে বলে জানিয়েছেন কাস্টমস ও বন্দর কর্তৃপক্ষ।
করোনা উপসর্গ নিয়ে বগুড়ার সাবেক এমপি কামরুন্নাহার পুতুলের মৃত্যু
২২ মে,শুক্রবার,বগুড়া প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বগুড়ার সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক নারী বিষয়ক সম্পাদক কামরুন্নাহার পুতুল (৬৫) করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বৃহস্পতিবার (২১ মে) রাত সাড়ে ১১টায় তিনি মারা যান। তিনি আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য মোস্তাফিজার রহমান পটলের স্ত্রী। তিনি এক ছেলে ও দুই মেয়ের জননী। বগুড়া সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সামির হোসেন মিশু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কামরুন্নাহার পুতুল গত তিন দিন ধরে করোনা উপসর্গ নিয়ে বগুড়া শহরের শিববাটি এলাকায় বাসায় অসুস্থ ছিলেন। মঙ্গলবার (১৯ মে) করোনা পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করা হলেও বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তার ফলাফল পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার (২১ মে) রাতে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই তিনি মারা গেছেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর কামরুন্নাহার পুতুল বগুড়া-জয়পুরহাট জেলার সংরক্ষিত নারী আসনে সংসদ সদস্য মনোনীত হন। তার স্বামী মোস্তাফিজার রহমান পটল ১৯৭৩ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে বগুড়ার গাবতলী আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। কামরুন্নাহার পুতুল এমপি নির্বাচিত হওয়ার আগে রূপালী ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন।
আজ পবিত্র জুমাতুল বিদা
২২ মে,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ পবিত্র জুমাতুল বিদা। অর্থাৎ রমজান মাসের শেষ শুক্রবার। দিনটি মুসলিম উম্মাহর কাছে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। এই দিনে জুমার নামাজ আদায়ের জন্য ব্যাকুল থাকেন মুমিন-মুসলমানরা। দয়াময় রবের দরবারে হাজিরা দিয়ে বিগলিত চিত্তে মাগফিরাত কামনা করেন। হাদিসে আছে, হজরত আবু হুরায়রা (রা:) বলেছেন রাসূল (সা.) এরশাদ করেছেন, যখন রমজান মাস আসে আসমানের দরজাগুলো খুলে দেয়া হয় এবং দোজখের দরজাগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়, আর শয়তানকে শৃঙ্খলিত করা হয়। (বুখারী, মুসলীম)। তাই সারা বছরের মাঝে মুমিনের কাছে রমজান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জুমাতুল বিদার মাধ্যমে কার্যত রোজাকে বিদায় জানানো হয়। ইসলামের সূচনাকালে মদিনায় যখন রমজানে রোজার বিধান নাজিল হয়, তখন থেকেই প্রতিবছর রমজানের শেষ জুমাকে বিশেষ গুরুত্বসহকারে আদায় করে আসছে মুসলিম উম্মাহ। বিশ্ব মুসলিমের কাছে সপ্তাহের অন্য দিনের চেয়ে শুক্রবারের মর্যাদা অধিক। রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের সওগাত নিয়ে আসা রমজান মাসের শুক্রবারগুলোর মর্যাদা আরও অধিকতর। শেষ শুক্রবার জুমাতুল বিদার মধ্য দিয়ে পবিত্র মাহে রমজানকে এক বছরের জন্য বিদায় সম্ভাষণ জানানো হয়। আজ মুসল্লিরা আগে আগে মসজিদে যাবেন। জুমার নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাতে অংশগ্রহণ করবেন। মাসব্যাপী সিয়াম সাধনায় যত ভুলত্রুটি হয়েছে তার জন্য ক্ষমা যাবেন, আল্লাহর রহমত ও মাগফিরাতের কামনায় চোখের পানি ঝরাবেন। দোজখের আগুন থেকে বাঁচার আকুতি জানাবেন। জীবনের পথ যেন কল্যাণময় হয় তার জন্য হাত তুলবেন। তবে এবার করেনা মহামারীর কারণে স্বল্প পরিসরে জুমার নামাজে অংশ নেবেন মুসল্লিরা। যারা মসজিদে জুমার জামাতে যাবেন তারা অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মানবেন।
করোনা ভাইরাস আমাদের অর্থনীতিতেও আঘাত হেনেছে
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা মহামারির বাস্তবতায় বিশ্বে প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহারসহ জলবায়ু পরিবর্তনে সমন্বিত নতুন পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, এ প্রকোপ সামলে আবার ঘুরে দাঁড়াতে সব দেশকে ঐকমত্যের ভিত্তিতে কাজ করতে হবে। বৃহস্পতিবার (২১ মে) থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কাউন্সিল- এসকাপ এর ৭৬তম ভার্চুয়াল সেশনের ভিডিও বার্তায় এ কথা বলেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যার সাথে সাথে কোভিড -১৯ মহামারির কারণে বিশ্ব শতাব্দীর এক অভূতপূর্ব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। এ ভাইরাস আমাদের অর্থনীতিতেও আঘাত হেনেছে। এ মহামারি আরও দেখিয়েছে জলবায়ু পরিবর্তনের উপায় এবং প্রাকৃতিক সম্পদের জন্য ক্রমবর্ধমান প্রতিযোগিতা মোকাবিলার বিশ্বব্যাপী প্রচেষ্টার পরিবর্তনের শিক্ষা। এ মহামারির সমাধান আমাদের একত্র হয়েই করতে হবে।
আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা প্রদানে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের আজ থেকেই ঘর নির্মাণ, অর্থ ও ত্রাণ সহায়তা দিতে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দিয়েছেন। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব ও পরিচালকরা ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণের জন্য জেলা প্রশাসকদের সাথে সমন্বয় করে কাজ শুরু করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ঈদের ছুটির সময়ও সক্রিয় থাকবেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তারা। আজ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের (পিএমও) প্রেস উইং এর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশের কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়, লকডাউন পরিস্থিতে সরকারি ছুটির দিনেও সবসময় খোলা ছিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। অনলাইন ও অফলাইনে নিয়মিত ফাইল দেখেছেন প্রধানমন্ত্রী এবং সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় নির্দেশনাও দিচ্ছেন। এছাড়াও মন্ত্রিসভা, একনেক, বাজেট, ৬৪ জেলার সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নিয়মিত সভা, সর্বশেষ গতকাল জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। কার্যালয়ের সচিব মোঃ তোফাজ্জল হোসেন মিয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রতি মুহূর্তে তথ্য নিচ্ছেন। তাঁর নির্দেশে ঈদের ছুটির মধ্যেও অফিসের সকলে সক্রিয় থাকবেন। আজ সকাল থেকেই করোনা এবং ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি একই সাথে পর্যবেক্ষণ ও কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সব জেলা উপজেলা কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে সকল মন্ত্রণালয় ও সংস্থার সাথে সমন্বয় করে কাজ করার জন্য। তিনি আরো বলেন, আজ সকাল থেকেই সচিব ও পরিচালকরা বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সংস্থা ও জেলা প্রশাসকদের সাথে সমন্বয় করে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণের কাজ শুরু করেছেন। বিশেষ করে গত দুইদিন ধরেই উপকূলীয় এলাকার লোকজনদের নিরাপদে আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া, তাদের খাবার ব্যবস্থা করা, নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখা, চিকিৎসা কার্যক্রম চালু রাখার জন্য ব্যস্ত সময় পার করেছেন। ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণের কাজ করে ত্রাণ বিতরণের কাজ শুরু হয়েছে আজ সকাল থেকেই। একই সাথে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ, বিদ্যুৎ লাইন মেরামত কৃষি ও গবাদি পশুর ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ, সড়ক বাঁধ ও ঘরবাড়ির ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণের কাজও চলছে।বাসস
করোনা: আরো এক পুলিশ সদস্যের মৃত্যু,আজ পুলিশের দুই সদস্যের মৃত্যু ঘটেছে
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ দিলেন আরো এক পুলিশ সদস্য। তিনি নায়েক মো. আল মামুন অর রশীদ। আজ দুপুরে মারা যান তিনি। এ নিয়ে করোনায় আজ পুলিশের দুই সদস্যের মৃত্যু ঘটেছে। প্রাণঘাতি করোনায় এ পর্যন্ত পুলিশের মোট ১১ সদস্য প্রাণ হারালেন। পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি সোহেল রানা জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুলিশের নায়েক আল মামুন অর রশীদের মৃত্যু ঘটে। আল মামুন অর রশীদ ঢাকা মেট্টোপলিন পুলিশে কর্মরত ছিলেন।মানবজমিন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে তার আগে আজ সকালে মারা গেছেন কনস্টেবল মো. মোখলেছুর রহমান। তিনি চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অধীন সদর কোর্টে কর্মরত ছিলেন। এ পর্যন্ত প্রায় ৩৩০০ পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়েছেন প্রায় ৫০০ পুলিশ সদস্য।

জাতীয় পাতার আরো খবর