কারাগারের আদালত ঘিরে নিরাপত্তা জোরদার
অনলাইন ডেস্ক: দুর্নীতির এক মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার বিচারকাজ সম্পন্ন করতে পুরাতন ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের বসছে আদালত। বুধবার সকাল ১১টার দিকে কারাগারেই বসবে বিশেষ আদালত, শুরু হবে মামলার শুনানি। খালেদার জিয়ার বিরুদ্ধে করা মামলার শুনানিকে কেন্দ্র করে কারাগারের আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। কারাগারের সামনের সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বন্ধ রাখা হয়েছে আশপাশের দোকানপাটও। মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। প্রস্তুত রাখা হয়েছে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি। গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসনকে ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়ার পর থেকে অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তিনি অন্য কোনো মামলায় আর হাজিরা দেননি। এমন পরিস্থিতিতে আদালতকেই কারাগারে নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে মঙ্গলবার গণমাধ্যম কর্মীদের জানান দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল। তিনি জানান, তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আইন মন্ত্রণালয় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পরে গতকাল সন্ধ্যায় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিভাগ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার বিচার সম্পন্ন করতে ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্থায়ী আদালত স্থাপন করে গেজেট প্রকাশ করে। মামলার কাজ পরিচালনার জন্য নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারের অফিসের একটি কক্ষ বিচারকাজ পরিচালনার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় যে আদালত দণ্ড দিয়েছে, সেখানে আরও একটি মামলা শেষ পর্যায়ে আছে। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় গত ১ ফেব্রুয়ারি আসামি জিয়াউল হক মুন্নার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শেষ হয়। আর পুরান ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক আখতারুজ্জামান ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী যুক্তি উপস্থাপনের দিন নির্ধারণ করেন। এই মামলায় এখন কেবল খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন বাকি আছে। কিন্তু সাত মাসেও আর এই যুক্তি উপস্থাপন হয়নি। ফলে এই মামলার শুনানি কবে শেষ হবে, সেটি নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। এর মধ্যে কারাগারে খালেদা জিয়া অসুস্থ বলে খবর ছড়ায় এবং তার চিকিৎসায় মেডিকেল বোর্ড গঠন করে সরকার। বিএনপি নেত্রীকে একবার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে এনে পরীক্ষা নিরীক্ষাও করা হয়। এরপর আরেক দফা তাকে এখানে আনার উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু তিনি বেসরকারি হাসপাতাল ইউনাইটেড ছাড়া অন্য কোথাও যাবেন না বলে জানিয়ে দেন। বিএনপি নেত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির আরও চারটি মামলা চলছে এবং তার অনুপস্থিতির জন্য সবগুলো মামলাতেই কার্যক্রম আটকে আছে।
বাস স্টপেজ ছাড়া নামতে পারবেন না যাত্রীরা: ডিএমপি কমিশনার
অনলাইন ডেস্ক: ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জানিয়েছেন, রাজধানীতে বাস থামানোর জন্য ১২১টি স্থান নির্ধারণ করেছি। এগুলোতে বোর্ড লাগানো হচ্ছে। এসব স্থানের বাইরে কেউ বাস থামাতে পারবে না। তিনি বলেন, নির্দিষ্ট বাস স্টপেজ ছাড়া কোনো জায়গায় বাসের দরজা খুলবে না, বন্ধ থাকবে এবং যাত্রীরাও বাস স্টপেজ ছাড়া অন্য কোথাও নামতে পারবেন না। মঙ্গলবার (৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে মাসব্যাপী ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার। আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, লেগুনার কারণে রাজধানীর সড়কগুলোতে সবচেয়ে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়। সড়কে দুর্ঘটনার অন্যতম কারণও এই লেগুনা। কাজেই রাজধানীতে আর লেগুনা চলবে না। তিনি বলেন, লেগুনার কোনো রুট পারমিট নেই। রাজধানীতে এতদিন যারা লেগুনা চালিয়েছে, তারা অবৈধভাবে তা চালিয়েছে। তাই রাজধানীতে তাদের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে। ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, আমরা ইতোমধ্যে পেট্রোল পাম্প মালিকদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা হেলমেট না থাকলে তেল না সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।
মটরসাইকেলে তেল নয় হেলমেট না থাকলে
অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীতে চলাচলকারী কোনো মটরসাইকেল চালকের হেলমেট না থাকলে তার গাড়িতে জ্বালানি সরবরাহ না করার অনুরোধ জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। মঙ্গলবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকালে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সেপ্টেম্বর জুড়ে ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে পেট্রোল পাম্পসংশ্লিষ্টদের প্রতি তিনি এ আহ্বান জানান। ডিএমপি কমিশনার বলেন, আমরা ইতোমধ্যে পেট্রোল পাম্প মালিকদের সাথে কথা বলেছি। তারা হেলমেট না থাকলে তেল না সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, আমরা বাস থামানোর জন্য ১২১টি স্থান নির্ধারণ করেছি। এগুলোতে বোর্ড লাগানো হচ্ছে। এসব স্থানের বাইরে কেউ বাস থামাতে পারবে না। পাশাপাশি বাস স্টপেজ ছাড়া কোথাও বাসের দরজা খুলবে না, বন্ধ থাকবে। যাত্রীরাও বাস স্টপেজ ছাড়া অন্য কোথাও নামতে পারবেন না।
শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আমদানি নিষিদ্ধ ওষুধ জব্দ
অনলাইন ডেস্ক: হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ আমদানি নিয়ন্ত্রিত ও নিষিদ্ধ বিদেশি ওষুধ জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। মঙ্গলবার (০৪ সেপ্টেম্বর) শুল্ক গোযেন্দা অধিদফতরের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সৌদি আরবের জেদ্দা থেকে ছেড়ে আসা হজযাত্রী বহনকারী একটি ফ্লাইট (এসভি-৮০৮) সোমবার (০৩ সেপ্টেম্বর) বিকেল পাঁচটার দিকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দারা জানতে পারেন এসভি-৮০৮ নম্বর ফ্লাইটে বিপুল পরিমাণ আমদানি নিয়ন্ত্রিত ও নিষিদ্ধ ওষুধ শাহজালালে এসেছে। ওষুধগুলো হজযাত্রীদের লাগেজ বেল্ট দিয়ে স্ক্যানিং না করেই গোপনে বের করে নেওয়া হবে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে গোপনে ৮ নম্বর লাগেজ বেল্টে অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দা দল। এসময় হজযাত্রীরা তাদের লাগেজ সংগ্রহ করে চলে গেলেও মালিকবিহীন অবস্থায় একটি ট্রলিতে দু’টি লাগেজ পড়ে থাকতে দেখে গোয়েন্দা সদস্যদের সন্দেহ হয়। পরে রাতেই ওই লাগেজ দু’টি ব্যাগেজ বেল্ট থেকে এনে সব সংস্থার উপস্থিতিতে খুলে মোট ১৬ আইটেমের আমদানি-নিয়ন্ত্রিত ও আমদানি-নিষিদ্ধ ওষুধ পাওয়া যায়। পণ্যের শুল্ককরসহ জব্দ করা ওষুধের মূল্য প্রায় ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা। জব্দ করা ওষুধের বিষয়ে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।
একুশে টিভির রিপোর্টার মামুনুর রশীদ আর নেই
অনলাইন ডেস্ক: একুশে টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার মামুনুর রশীদ আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার (০৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার পর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা যান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতা বিষয়ে পড়াশোনা করা মামুনুর রশীদ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ বিট কাভার করছিলেন। মামুনুর রশীদের স্বজনদের বরাত দিয়ে বৈশাখী টেলিভিশনের রিপোর্টার জয়দেব দাস জানান, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হওয়ার আগে তিনি অস্বস্তি অনুভব করছিলেন। দ্রুত তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তার মরদেহ বর্তমানে বারডেম হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। মামুনুর রশীদের মৃত্যুতে শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (০৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় একুশে টেলিভিশনে এবং বেলা ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মামুনুর রশীদের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। বাদ মাগরিব নড়াইলে গ্রামের বাড়িতে জানাজা শেষে তার দাফন করা হবে।
আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন শুনানি শুনতে বিব্রত হাইকোর্ট
অনলাইন ডেস্ক: তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন শুনানিতে বিব্রত প্রকাশ করেছেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ। আজ মঙ্গলবার বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ শুনানিককালে বিব্রত প্রকাশ করেন। এখন নিয়ম অনুসারে মামলাটি প্রধান বিচারপতির কাছে যাবে। তারপর প্রধান বিচারপতি আবেদনটির শুনানির জন্য বেঞ্চ নির্ধারণ করবেন। আদালতে শহিদুল আলমের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার সারা হোসেন। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। আর রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মহিউদ্দিন দেওয়ান।
হিন্দুদের ভয় দেখানোর অভিযোগ অ্যাটর্নি জেনারেলের বিরুদ্ধে
অনলাইন ডেস্ক: মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে মর্শদগাঁও কালি মন্দিরে জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের দুই মনোনয়ন প্রত্যাশী গ্রুপের মধ্যে হট্টগোলের পর সংবাদ সম্মেলন করেছে লৌহজং উপজেলা আওয়ামী লীগ। জন্মাষ্টমীর আলোচনা সভায় মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অ্যাটর্নি জেনারেল মাৃহবুবে আলম ঢাকার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেছেন - এমন অভিযোগ এনে সোমবার দুপুরে লৌহজং উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন লৌহজং উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ওসমান গণি তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য মো. জাকির হোসেন বেপারী। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ওসমাণ গণি তালুকদার বলেন, রোববার বিকেলে মসদগাঁও কালিমন্দিরে উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সিরাজুল ইসলাম ফুক্কুসহ বিএনপি-জামায়াতের ১০-১২ জন ঢাকার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠানে যোগদান করেন এবং শ্রীকৃষ্ণের ছবিসহ অনুষ্ঠানের ব্যানার সরিয়ে তার ছবি সম্বলিত ব্যানার টাঙান। এতে হিন্দু ধর্মাবলম্বীর লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। এ সময় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলে অ্যাটর্নি জেনারেলের লোকরা হট্টগোল সৃষ্টি করে জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠান পণ্ড করে দেন এবং হিন্দুদের ভয়ভীতি দেখায়। অ্যাটর্নি জেনারেলের উদ্দেশে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের ভেতরে কোনো বিএনপি-জামায়াতের অনুপ্রবেশ ঘটাবেন না, আমরা তা বরদাশত করবো না। আওয়ামী লীগের স্বার্থে, বঙ্গবন্ধুর স্বার্থে, শেখ হাসিনার স্বার্থে আপনি বিএনপি-জামায়াতের ওপর ভর করবেন না। শীর্ষনিউজ
বাংলাদেশ-মিয়ানমার সফর স্থগিত সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর
অনলাইন ডেস্ক: সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণানের বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সফর স্থগিত করা হয়েছে। মিয়ানমার সরকার ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণানের রাখাইন সফরের বিষয়ে রাজি না হওয়ায় তার এই সফর স্থগিত করা হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) ভিভিয়ানের ঢাকা সফরের কথা ছিল। সফরকালে তিনি কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করতে চেয়েছিলেন। এছাড়া, তিনি কক্সবাজার থেকে টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে রাখাইনে যেতে চেয়েছিলেন কিন্তু মিয়ানমার রাজি না হওয়ায় এই সফর তিনি স্থগিত করেন। সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাংলাদেশ-মিয়ানমার সফর স্থগিতের বিষয়ে সরকারের একজন কর্মকর্তা বলেন, তার সফর স্থগিতের বিষয়টি আমাদের জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে জোরালোভাবে কথা বলেন। এই সমস্যা সমাধানের বিষয়ে তিনি আগ্রহী।, প্রসঙ্গত, সিঙ্গাপুর ১০-সদস্য বিশিষ্ট আসিয়ানের সদস্য। মিয়ানমারের সঙ্গে দেশটির অর্থনৈতিক স্বার্থ রয়েছে। ওই কর্মকর্তা জানান, সিঙ্গাপুর আসিয়ানের চেয়ার হওয়ার পর থেকে প্রায় প্রতিটি বৈঠকে রোহিঙ্গা বিষয়টি আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিকভাবে আলোচিত হয়ে আসছে। গত ৪ আগস্ট আসিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী বৈঠকের পরে ভিভিয়ান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘রাখাইন ইস্যু নিয়ে আমরা অবশ্যই আলোচনা করেছি। সেখানে যে মানবিক বিপর্যয় ঘটেছে, সেটি নিয়ে আমরা অবশ্যই উদ্বিগ্ন। এর প্রকৃত বিষয়টি হচ্ছে, সেখানে অনেক মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে এবং হচ্ছে।
ইভিএম সম্পর্কে জানার আগ্রহ স্বাভাবিক: সিইসি
অনলাইন ডেস্ক: বিভিন্ন মহলে ইভিএম সম্পর্কে জানার আগ্রহ থাকা স্বাভাবিক বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। সোমবার রাজধানীর আগারগাঁয়ে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে ইভিএম ব্যবহার সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। নূরুল হুদা বলেন, রাজনৈতিক দলসহ বিভিন্ন মহলে ইভিএম নিয়ে উৎকণ্ঠা বা জানার আগ্রহ থাকা স্বাভাবিক। কারণ, আমরা এটির ব্যবহার, উপকারিতা সম্পর্কে এখনো তাদের জানাতে পারিনি। পর্যায়ক্রমে তারা সব জানতে পারবেন। তিনি বলেন, ইভিএম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যবহার হবে কি হবে না, সে চিন্তা আরো পরে করা হবে। যদি আইন হয়, কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া সম্ভব হয় এবং সব মহলে এর গ্রহণযোগ্যতা পাওয়া যায়, তার ওপর নির্ভর করবে। সিইসি বলেন, ইভিএম নিয়ে আমরা এখন প্রস্তুতিমূলক অবস্থানে রয়েছি। এখন এটা আইন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের ব্যাপার। ইভিএম ব্যবহার হবে কিনা সেটা আইন মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিসভার আলোচনা হবে। তিনি বলেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার শুরু হয়ে গেছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার নির্ভর করবে আইন কানুন, প্রশিক্ষণ ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সমর্থনের ওপর। নূরুল হুদা বলেন, প্রযুক্তি এখন আর বাক্সে বন্দি নেই। এটি এখন মানুষের হাতে হাতে। মোবাইলের মাধ্যমেই আমরা এখন সব তথ্য আদান-প্রদান করতে পারি। কর্মশালায় ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর