শনিবার সারাদেশে একযোগে আনন্দ শোভাযাত্রা
নভেম্বর শনিবার আনন্দ শোভাযাত্রায় সরকারি চাকরিজীবীদের অংশ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত নির্দেশনা মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠানো হয়েছে। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এ ভাষণ ইউনেস্কোর ‘ইন্টারন্যাশনাল মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার’ এ অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে ‘বিশ্বপ্র্রামাণ্য ঐতিহ্যের’ স্বীকৃতি লাভ করায় আগামী ২৫ নভেম্বর ঢাকা মহানগরীসহ সব জেলা ও উপজেলায় আনন্দ শোভাযাত্রা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এ কর্মসূচি একযোগে সারাদেশে উদযাপনের জন্য ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে বলে নির্দেশনায় জানানো হয়। কর্মসূচিটি যথাযথভাবে উদযাপনের জন্য মন্ত্রণালয়/বিভাগ ও এর আওতাধীন প্রতিষ্ঠানের ঢাকায় অবস্থানরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঢাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠেয় কর্মসূচিতে এবং জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আয়োজিত কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. সাজজাদুল হাসান স্বাক্ষরিত নির্দেশনাটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব, সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিব (সিনিয়র সচিব/ভারপাপ্ত সচিব), সকল বিভাগীয় কমিশনার এবং মাঠ পর্যায়ের জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিবকে (জেলা ও মাঠ প্রশাসন) দেয়া হয়েছে।
তনুর পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিআইডি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনু হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে আবারও তনুর পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিআইডি। গোয়েন্দাদের তলবে তনুর বাবা-মাসহ পরিবারের পাঁচ সদস্য আজ বুধবার সকালে সিআইডি কার্যালয়ে উপস্থিত হন। এ নিয়ে কয়েক দফায় তনুর পরিবারকে জিজ্ঞাসাবাদ করল সিআইডি। এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানান, এই হত্যার রহস্যের জট খুলতে কাজ করছে সিআইডি। ‘আমি আশা করি, তনু হত্যার মূল ঘটনা তারা উদঘাটন করবে। আজকে যে প্রশ্নটা আসছে, তনুর আত্মীয়স্বজনকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। এটা একটা তদন্তের অংশ। তদন্ত চলছে। কাজেই আমি মনে করি, তদন্তে সত্যিকারের ঘটনাটা উদঘাটিত হবে’, যোগ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। গত সোমবার কুমিল্লা সিআইডি কার্যালয় থেকে তনুর পরিবারকে চিঠি দিয়ে- তনুর মা-বাবা, দুই ভাই ও চাচাতো বোনকে নিয়ে ঢাকার সিআইডি কার্যালয়ে যেতে বলা হয়। গত বছরের ২০ মার্চ রাতে কুমিল্লা সেনানিবাসের ভেতর একটি জঙ্গল থেকে তনুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

জাতীয় পাতার আরো খবর