মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ২০ হাজার ৭৬৭ জন
চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে ১৫ হাজার ৩৩৩টি মামলায় ২০ হাজার ৭৬৭ জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ সংসদে সরকারি দলের সদস্য ওয়ারেসাত হোসেন বেলালের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, মাদক বিরোধী অভিযানে ২৬ লাখ ৫৯ হাজার ৮০৭ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ সময়ে ১ হাজার ২৮৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। তিনি জানান, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত ২৭ হাজার ৩৪০টি মামলায় ৩৫ হাজার ১১২ জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই সময়ে ৩ কোটি ২৮ লাখ ২৫ হাজার ৬১১ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, দেশব্যাপী ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তালিকা হালনাগাদ করে সর্বাত্মক নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। মাদকের গডফাদার ও পৃষ্ঠপোষকদের আইনের আওতায় আনতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ এ খসড়া প্রণয়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। এ নীতি বাস্তবায়নে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাবসহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আসাদুজ্জামান খান বলেন, ভারত ও মিয়ানমার সীমান্ত এলাকায় উভয় দেশের সহযোগিতায় তাৎক্ষণিকভাবে মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনার জন্য বর্ডার লিয়াঁজো অফিস স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, মাদক সমস্যা নিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে এ পর্যন্ত মহাপরিচালক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও মহাপরিচালক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো, ভারতের সাথে ৫টি ফলপ্রসূ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। পাশাপাশি ইয়াবা পাচার রোধকল্পে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে এ পর্যন্ত ৩টি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি বৈঠকে মিয়ানমার ও ভারতে অবস্থিত মাদক ব্যবসায়ীদের এবং মাদক তৈরির গোপন কারখানার তালিকা উভয় দেশের প্রতিনিধিদের কাছে দিয়ে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। মিয়ানমারকে ইয়াবার উৎপাদন ও প্রবাহ বন্ধ করার জন্য এবং মিয়ানমার সীমান্তে অবস্থিত ইয়াবা তৈরির কারখানা সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করা হয়েছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরকে শক্তিশালী ও ঢেলে সাজানোর জন্য অধিদপ্তরের জনবল ১ হাজার ৭০৬ জন থেকে ৮ হাজার ৫০৫ জনে উন্নীত করা হয়েছে বলে তিনি জানান।বাসস
নির্বাচন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে :রিটানিং কর্মকর্তা
রিটানিং কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মন্ডল বলেছেন, গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে কয়েকটি কেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়ার নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান। রকিব উদ্দিন মন্ডল বলেন, ‘আমি ১৪ টি কেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। এর মধ্যে সব গুলো কেন্দ্রে নির্বাচন সুষ্ঠ ও শান্তি পূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।’ ‘শতাধিক কেন্দ্রে ভোটে অনিয়োম হয়েছে’ বিএনপি প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকারের এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, আমরা আইন ও বিধি অনুযায়ি এই সকল কেন্দ্রের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তবে মোট ৪২৫টি কেন্দ্রের অধিকাংশ কেন্দ্রে নির্বাচন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলেও জানান তিনি।বাসস
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত বিচারপতিদের সাক্ষাৎ
সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত ১৮ বিচারপতি আজ বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। বঙ্গভবনের দরবার হলে বিচারপতিদের সঙ্গে এ সাক্ষাৎ শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন বাসসকে বলেন, ‘এটি একটি সৌজন্য সাক্ষাৎ। রাষ্ট্রপতি নতুন বিচারপতিদের অভিনন্দন জানান।’ বিচার বিভাগকে ন্যায়বিচার প্রার্থীদের শেষ আশ্রয়স্থল উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি আশা প্রকাশ করেন যে, নতুন বিচারপতিদের নিয়োগদানের ফলে দেশের বিচার বিভাগের কার্যক্রম গতিশীল হবে। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সচিবগণ সাক্ষাতে উপস্থিত ছিলেন। হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগদানের পর প্রধান বিচাপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন গত ৩১ মে সুপ্রিম কোর্টের জাজেস’ লাউঞ্জে তাদের শপথবাক্য পাঠ করান। রাষ্ট্রপতি সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে এই ১৮ জনকে অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেন। এর ফলে হাইকোর্টের বিচারপতির সংখ্যা ৯৮ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন বিচাপতিরা হলেনÑ আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সদস্য এম আবু আহমেদ জমাদার, আইন মন্ত্রণালয়ের অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব এম মোস্তাফিজুর রহমান, নরসিংদী জেলা ও দায়রা জজ ফাতেমা নাজিব, ঢাকা মেট্রোপলিটান দায়রা জজ এস এম কুদ্দুস জামাল, ঢাকা বিভাগীয় বিশেষ জজ এম আতাউর রহমান, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এস এম আবদুল মবিন, মোহাম্মদ আলী, মহিউদ্দিন শামীম, মো. রিয়াজ উদ্দিন খান, এম খায়রুল আলম, আহমেদ সোহেল ও এ এম হাফিজুল আলম, ডেপুটি এটর্নি জেনারেল খায়রুল হায়াত, শশাঙ্ক শেখর সরকার, এস এম মুনিরুজ্জামন, সরদার মোহাম্মদ রাশেদ জাহাঙ্গীর ও খন্দকার দিলিরুজ্জামান।বাসস
একনেকে ৩৬০২ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন
বাংলাদেশ রেলওয়ের পণ্য পরিবহন ও যাত্রীসেবার মান্নোয়নে আধুনিক, নিরাপদ এবং গুণগত মানসম্মত রোলিং বহরে স্টক যুক্ত করার লক্ষ্যে ৩ হাজার ৬০২ কোটি ৭ লাখ টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের রোলিং স্টক অপারেশন উন্নয়ন প্রকল্পের (রোলিং স্টক সংগ্রহ) অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগর এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় রোলিং স্টক সংগ্রহ প্রকল্পসহ মোট ১৪ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬ হাজার ১৪৭ কোটি ৭ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ১৩ হাজার ২৮৩ কোটি ৬৪ লাখ টাকা, বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ২৩ কোটি ৮৯ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ২ হাজার ৮৩৯ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে। একনেক সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল প্রকল্প সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণে নতুন যাত্রী ও পণ্য পরিবহনের জন্য ট্রেন পরিচালনা সহজ করতে রোলিং স্টক সংগ্রহ প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় পুরাতন ও জরাজীর্ণ রোলিং স্টক প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে রোলিং স্টকের স্বল্পতা পূরণ করা হবে। তিনি জানান, মোট প্রকল্প ব্যয়ের ৩ হাজার ৬০২ কোটি ৭ লাখ টাকার মধ্যে বাংলাদেশ সরকার ব্যয় করবে ৭৬৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য হিসেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) ২ হাজার ৮৩৯ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ঋণ প্রদান করবে। বাংলাদেশ রেলওয়ে প্রকল্পটি জুলাই, ২০১৭ হতে জুন,২০২১ মেয়াদকালে বাস্তবায়ন করবে। মুস্তাফা কামাল আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একক কোন বিশ^বিদ্যালয়ে অধিক সংখ্যক শিক্ষার্থী না রেখে প্রয়োজনে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিশ^বিদ্যালয় তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন। কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ^বিদ্যালয় উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশনা দেন। একনেক সভায় সারাদেশের ৫৬০ উপজেলায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের লক্ষে ‘প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় ১টি করে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা। এর পুরোটাই সরকার তার নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় করবে। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। প্রকল্পের আওতায় জেলা ও উপজেলা ভিত্তিক ১টি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ কাম ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। একনেকে অনুমোদিত অন্য প্রকল্পসমূহ হলো-চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে সিজিএস কলোনিতে জরাজীর্ণ ১১টি ভবনের স্থলে ৯টি বহুতল আবাসিক ভবনে সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিদের জন্য ৬৮৪টি ফ্ল্যাট নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৪৮২ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ভবনের বর্তমান জায়গায় ১৫ তলা ভবন নির্মাণ প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ১১৭ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্প, এর বাস্তবায়ন ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৯৭ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ভাষা প্রশিক্ষণ ল্যাব স্থাপন প্রকল্পের বাস্তবায়ন ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৯৭ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) অফিস ভবন এবং অবকাঠামোসমূহ সংস্কার আধুনিকীকরণ ও নির্মাণ প্রকল্প, এটি বাস্তবায়নে খরচ হবে ১৯৪ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক, গাজীপুর এর অ্যাপ্রোচ সড়ক প্রশস্তকরণ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন ব্যয় হবে ১৬০ কোটি ৬১ লাখ টাকা। ৪টি টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট স্থাপন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৩১১ কোটি ২৮ লাখ টাকা। বাংলাদেশ পাটকল কর্পোরেশনের আওতাধীন ৩টি মিল সুষমকরণ, আধুনিকায়ন, পুনর্বাসন এবং বর্ধিতকরণ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৭৩ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। পাবর্ত্য চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় সোলার প্যানেল স্থাপনের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ প্রকল্প, এতে ব্যয় হবে ৭৬ কোটি টাকা। জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প, প্রাক্কলিত ব্যয় ৫৬৮ কোটি ৪২ লাখ টাকা। জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততা উন্নীতকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৪৮৮ কোটি ৮১ লাখ টাকা। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভুলতায় ৪ লেন বিশিষ্ট ফ্লাইওভার নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৩৫৩ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।বাসস
আওয়ামী লীগ এগিয়ে ৮২ কেন্দ্রের ফলাফলে
গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৮২টি কেন্দ্রের বেসরকারিভাবে ফলাফল পাওয়া গেছে। এতে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের নৌকা প্রতীক এগিয়ে রয়েছে। রিটার্নিং কর্মকর্তার ফল ঘোষণার আগেই বিভিন্ন উৎস থেকে এ ফল পাওয়া যায়। আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের নৌকা প্রতীকে ভোট পান ৬১,৭৮৮ এবং বিএনপি প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকারের ধানের শীষে ভোট পান ৩৫,৭৬৪ ভোট। এছাড়া নির্বাচনে দুই ইভিএম কেন্দ্রের ফলাফলে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের নৌকা পান ১২৬৫ এবং বিএনপি প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকারের ধানের শীষে ভোট পান ৫০৮। কেন্দ্র দুটি হলো- বিলাসমনি বালক উচ্চবিদ্যালয় উত্তর পাশের এক নম্বর ভবন, (১৯১ নম্বর, পুরষ কেন্দ্র) ও রানী বিলাসমনি বালক উচ্চবিদ্যালয় দুই নম্বর ভবন (১৯২ নম্বর মহিলা কেন্দ্র)। এরআগে নানা অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার অভিযোগের মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। নির্বাচনে জালভোট ও ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের অভিযোগে সাত কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। তবে দুপুরেই এক সংবাদ সম্মেলনে এসে অনিয়মের ভোটগ্রহণ বন্ধের দাবি জানান বিএনপির প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। তিনি অভিযোগ করেন, নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যর্থ হয়েছে। তিনি বলেন, কমিশনের উচিত স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করা। তবে পাঁচ-ছয়টি কেন্দ্রে অনিয়মের কথা স্বীকার করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিবউদ্দীন মণ্ডল। তিনি বলেন, কয়েকটি কেন্দ্রে ব্যালটে জোরপূর্বক সিল মারা ও জালভোট দেয়ার মতো ঘটনা ঘটেছে। এ ছাড়া পাঁচ-ছয়টি কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টকে বের করে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে জানান তিনি। এ নির্বাচনে ৪২৫ কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন। সাত মেয়রপ্রার্থীর পাশাপাশি ২৫৪ সাধারণ কাউন্সিলর ও ৮৪ সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে গাজীপুর সিটির মেয়র পদে প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী হলেন- আওয়ামী লীগের (নৌকা) মনোনীত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম ও বিএনপির (ধানের শীষ) হাসান উদ্দিন সরকার।
জুলাইয়ের মধ্যেই ব্যাংক খাতের সমাধান
দেশের ব্যাংক খাতে যে খারাপ অবস্থা বিরাজ করছে, আগামী জুলাইয়ের মধ্যেই সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে একটি সমাধান করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন, ‘আগামী জুলাইয়ের মধ্যে বিভিন্ন ব্যাংক পরিচালক, মন্ত্রিসভা ও সংসদ সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে এর একটি বিহিত করতে হবে।’ মঙ্গলবার (২৬ জুন) সচিবালয়ের নিজ দফতরে জাতীয় বাজেট ও অর্থবিল পাস বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে একথা বলেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘ব্যাংক খাতের খারাপ অবস্থার জন্য খেলাপি ঋণ বেড়ে গেছে, এটি একটি বড় সমস্যা। বিভিন্ন ব্যাংকের পরিচালকরা পরস্পর সমঝোতার মাধ্যমে যে ঋণ নেন, সে বিষয়েও একটি সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’ মুহিত বলেন, ‘বাজেট পূর্ব আলোচনায় জাতীয় সংসদে ব্যাংকখাতের যে সমালোচনা হচ্ছে, তা নিয়ে আমি আগামী অর্থ বিল পাসের আগেই সংসদে জবাব দেব। তবে ব্যাংকখাত নিয়ে যেসব অভিযোগ করা হচ্ছে, তার সঙ্গে আমি সম্পূর্ণভাবে একমত নই।’ তিনি বলেন, ‘আগামীকাল বুধবার অর্থবিল ও পরের দিন বৃহস্পতিবার ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট পাস হবে। এ উপলক্ষ্যে আগামী পরশু একটি নৈশভোজের আয়োজন করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।’ জাতীয় পার্টির সমালোচনায় অর্থমন্ত্রী আক্ষেপ করে বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে, বিরোধীদল সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্য হয়ে বাজেট নিয়ে যে ধরনের মন্তব্য করেছেন, তা যথার্থ হয়নি। তারা বিরোধীদল হলেও আমরা কোয়লিশন সরকার করেছি।’ ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘সরকারের অংশ হয়েও বাজেট বিষয়ে বিরোধীদলের সংসদ সদস্যদের বক্তব্য উগ্র এবং অযৌক্তিক।’ মুহিত বলেন, ‘গেল ১৯ দিনে বাজেট নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যম যে সমালোচনা করেছে এবং বিভিন্ন সংসদ সদস্য যেসব সমালোচনা করেছেন তার ভিত্তিতে অবশ্যই কিছুটা পরিবর্তন হবে। তা আমি আগামীকাল বুধবার বিস্তারিত প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের আগে বলব।’ তিনি আইসিটি ওপর কর আরোপের বিষয় উল্লেখ করে বলেন, ‘তাদের সঙ্গে আমাদের একটি বৈঠক হয়েছে। আমরা এ বিষয়ে কিছু ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেব। আমার মনে হয়, জব্বার সাহেব (ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার) অনেক খুশি হবেন।
দেশের প্রথম নারী সলিসিটর জেসমিন আরা বেগম
দেশের প্রথম নারী সলিসিটর হিসেবে যোগ দিয়েছেন জুডিশিয়াল সার্ভিসের সিনিয়র জেলা জজ ও শহীদ বুদ্ধিজীবীর কন্যা জেসমিন আরা বেগম। এর আগে তিনি কুমিল্লার জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সুনামগঞ্জ বারের প্রথম মহিলা আইনজীবী জেসমিন আরা বেগম তৎকালীন সুনামগঞ্জ মহকুমা (বর্তমানে) শহরের শহীদ বুদ্ধিজীবী অ্যাডভোকেট সুনাওর আলীর কন্যা ও বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান কবি ড. মোহাম্মদ সাদিকের সহধর্মিণী। জেসমিন আরা বেগম প্রায় ৩১ বছর বিচার বিভাগে দায়িত্ব পালন করেছেন। একাধারে তিনি ঢাকা, কুমিল্লা, মুন্সীগঞ্জ ও সিলেটে বিচার বিভাগে দায়িত্ব পালনসহ প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনালেও দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ও সুইডেনের স্টকহোম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তিনি বিসিএস ১৯৮৫ ব্যাচে বিচার বিভাগে যোগদান করেছিলেন।
গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ভোট গণনা চলছে
বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ। এখন চলছে ভোট গণনা। পূর্ণাঙ্গ ফলাফল পাওয়ার পর বলা যাবে কত শতাংশ ভোট পড়েছে। মঙ্গলবার(২৬জুন) সকাল আটটায় শুরু হয়ে বিকেল চারটা পর্যন্ত একটানা এ ভোটগ্রহণ চলে। রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের সমন্বয়ক তারেক আহম্মদ বলেন, চারটা থেকে গণনা শুরু হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রেই ফলাফল ঘোষণা হবে। আর কেন্দ্রীয়ভাবে ঘোষণা করা হবে রিটার্নিং কর্মকর্তার অস্থায়ী কার্যালয় থেকে। গাজীপুর সিটির দ্বিতীয় নগরপিতা হতে মূল প্রতিদ্বন্দ্বী দুই প্রার্থী হলেন- আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো. জাহাঙ্গীর আলম (নৌকা মার্কা) আর বিএনপি সমর্থিত মো. হাসান উদ্দিন সরকার (ধানের শীষ)।
নতুন সেনাপ্রধানকে জেনারেল ব্যাজ প্রদান
বাংলাদেশের নতুন সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদকে জেনারেলের র‌্যাঙ্ক ব্যাজ পরিয়ে দিয়েছেন নৌ বাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন ও বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত। মঙ্গলবার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে নবনিযুক্ত সেনাপ্রধানকে এই র‌্যাংক ব্যাজ পরানো হয়। এর আগে সোমবার দুপুরে ঢাকা সেনানিবাসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নতুন প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। দেশের ১৫তম সেনাপ্রধান হিসেবে আগামী ৩ বছর এ দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, জেনারেল র‌্যাংক ব্যাজ পরানোর পর্ব শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নবনিযুক্ত সেনা প্রধানকে ফুলের তোড়া উপহার দিয়ে অভিনন্দন জানান। সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদও এ সময় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষে ফুলের তোড়া উপহার দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানান। প্রধানমন্ত্রী বলেন, যথনই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছে তখনই তার দল সশস্ত্রবাহিনীর উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, আমাদের সরকার সেনাবাহিনীকে উন্নত এবং আধুনিক একটি বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার পাশাপাশি সেনাবাহিনীর সুইপার, ক্লিনার ও বারবার-এর মতো নিম্নতম পদগুলো যুগোপযোগী করতে এসব পদের পদবী পরিবর্তন করেছে। প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, সশস্ত্রবাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. মাহফুজুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মাদ জয়নুল আবেদীন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর