সোমবার, জুলাই ৬, ২০২০
২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত ৭৯০, মারা গেছেন ৩ জন
০৬মে,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৯০ জন। বর্তমানে এ ভাইরাসে আক্রান্ত ১১ হাজার ৭১৯ জন। গত ২৪ ঘন্টায় কেউ সুস্থ হননি। এ পর্যন্ত করোনামুক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৪০৩ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় ৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১৮৬ জন। আজ দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন হেলথ বুলেটিনে অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান। গতকালের চেয়ে আজ আক্রান্ত ৪ জন বেশি। গতকাল আক্রান্ত হয়েছিলেন ৭৮৬ জন। ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৬ হাজার ৭৭১টি। আগের দিন নমুনা সংগ্রহ হয়েছিল ৬ হাজার ১৮২টি। নমুনা সংগ্রহ আগের দিনের তুলনায় ৫৮৯টি বেশি। গত ২৪ ঘন্টায় দেশের ৩৩টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬ হাজার ২৪১টি। আগের দিন পরীক্ষা হয়েছিল ৫ হাজার ৭১১টি। গতকালের চেয়ে নমুনা পরীক্ষা ৫৩৯টি অর্থ্যাৎ ৯ দশমিক ২৮ শতাংশ বেশি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৯৯ হাজার ৬৪৬টি।
দেশের সব মসজিদ খুলে দেয়া হচ্ছে
০৬মে,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শর্তসাপেক্ষে দেশের সব মসজিদ খুলে দেয়া হচ্ছে আগামীকাল বৃহস্পতিবার (৭ মে)। আজকের মধ্যেই প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে। সূত্রটি জানায়, বৃহস্পতিবার জোহর থেকে দেশের মসজিদগুলো খুলে দেয়া হচ্ছে। তবে মসজিদে জামায়াতের ক্ষেত্রে কিছু শর্ত মানতে হবে। সেগুলো হল- দুইজন মুসল্লির মধ্যে যথেষ্ট পরিমাণ দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। এছাড়া দুই কাতার পর এক কাতারের জায়গা ফাঁকা রাখতে হবে। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা জানান, এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনটি প্রস্তুত করা হচ্ছে। আজকের মধ্যে জারি করা হবে। এর আগে গত ২৩ এপ্রিল ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে জানানো হয়, পবিত্র রমজানে স্টাফ ছাড়া অর্থাৎ খতিব, ইমাম, মোয়াজ্জিন, খাদেমরা ছাড়া কেউ মসজিদে তারাবি নামাজ আদায় করতে পারবেন না। ঘরেই নামাজ আদায় করতে হবে। তার আগে ৬ এপ্রিল করোনায় সংক্রমিত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পেতে ঘরেই সব নামাজ আদায় করার নির্দেশনা দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। এতে পাঁচটি দফা দেওয়া হয়। এগুলো হলো- করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধকল্পে মসজিদের ক্ষেত্রে খতিব, ইমাম, মোয়াজ্জিন, খাদেম ব্যতীত অন্য সব মুসল্লিকে সরকারের পক্ষ থেকে নিজ নিজ বাসস্থানে নামাজ আদায় এবং জুমার জামাতে অংশগ্রহণের পরিবর্তে ঘরে জোহরের নামাজ আদায়। মসজিদে জামাত চালু রাখার প্রয়োজনে খতিব, ইমাম, মোয়াজ্জিন, খাদেম মিলে পাঁচ ওয়াক্তের নামাজে অনধিক পাঁচজন ও জুমার নামাজে অনধিক ১০ জন শরিক হতে পারবেন। জনস্বার্থে বাইরের মুসল্লি মসজিদের ভেতরে জামাতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। অন্য ধর্মাবলম্বীদেরও ধর্মীয় উপাসনালয়ের পরিবর্তে নিজ নিজ বাসস্থানে উপাসনা করতে হবে। এতদিন ওই নির্দেশনাটিই বলবত ছিল। তারাবির জন্যও একই নির্দেশনা মানা হচ্ছিল। তবে এবার মসজিদ উন্মুক্ত করে দেয়া হচ্ছে মুসল্লিদের জন্য। যদিও জামায়াতে মুসল্লিদের মাঝে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং দুই কাতারের মাঝে এক কাতারের জায়গা ফাঁকা রাখতে হবে।
২০ রজমানের আগেই সংবাদকর্মীদের বেতন-বোনাস পরিশোধের করুন
০৫মে,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহামারী করোনা ভাইরাসজনিত দুর্যোগের মধ্যে পবিত্র রমজান মাসেও ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে কর্মরত সংবাদকর্মীদের বেতন ভাতা পরিশোধ না করে নানান টালবাহানার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে ও এর ১২টি অঙ্গ ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ। অবিলম্বে রাজধানী ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে বিভাগীয়, জেলা ও থানা শহরে কর্মরত সাংবাদিকদের সমুদয় বকেয়া বেতন পরিশোধ ও ঈদ বোনাস প্রদানের দাবি জানান নেতারা। মঙ্গলবার এক যুক্ত বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, পবিত্র রমজান মাসে রাজধানী ঢাকা ও ঢাকার বাইরে কর্মরত হাজারো সাংবাদিক নিদারুন অর্থকষ্টে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। শীর্ষস্থানীয় দুএকটি সংবাদমাধ্যম ছাড়া অন্যসব সংবাদপত্র, টেলিভিশন, রেডিও ও অনলাইন নিউজপোর্টালে মাসের পর মাস বেতন-ভাতা বকেয়া পড়ে আছে। প্রথম সারির অনেক সংবাদমাধ্যম প্রতিষ্ঠানেও করোনা দুর্যোগের অজুহাতে গত কয়ক মাস ধরে বেতন পরিশোধ করছে না। সবচেয়ে বিপদে পড়েছেন ঢাকার বাইরে কর্মরত সংবাদকর্মীরা। শীর্ষস্থানীয় কয়েকটি সংবাদমাধ্যম ঢাকায় অফিসে কর্মরতদের বেতন দিলেও ২/৩ মাস ধরে ঢাকার বাইরের কর্মীদের বেতন বন্ধ রেখেছেন। অনেক প্রতিষ্ঠান বিভাগীয়, জেলা ও অন্যান্য শহর-বন্দর কেন্দ্রিক কর্মরত প্রতিনিধিদের স্বল্প ও নামমাত্র যে বেতন বা সম্মানি দেন তাও দিচ্ছেন না। বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন. মহামারীর কারণে লকডাউন পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালন করার পরও বেতন-ভাতা পরিশোধে এ ধরণের গড়িমসি ও টালবাহানা করা অন্যায়, অমানবিক ও নিন্দনীয়। সংবাদকর্মীরা পরিবার পরিজন নিয়ে অর্থকষ্টে দিশেহারা থাকলে তারা কিভাবে সুষ্ঠুভাবে পেশাগত দায়িত্ব পালন করবেন তা এক বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। নেতৃবৃন্দ ২০ রমজানের আগেই এপ্রিল মাস পর্যন্ত সকল বকেয়া পাওনা পরিশোধ এবং আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে উৎসব বোনাস পরিশোধ করার জন্য সংবাদমাধ্যম প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবি জানান। বিবৃতিদাতা নেতৃবৃন্দ হলেন- বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী ও মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিএমইউজে) সভাপতি শামসুল হক হায়দরী ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহনওয়াজ, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে) সভাপতি সরদার আবদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আবদুল আউয়াল, মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন, খুলনা (এমইউজে-খুলনা) সভাপতি আনিসুজ্জমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান হিমালয়, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোর (জেইউজে) সভাপতি শহীদ জয় ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জমান, সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়া (জেইউবি) সভাপতি মীর্জা সেলিম রেজা ও সাধারণ সম্পাদক গণেশ দাস, সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজার (জেইউসি) সভাপতি মমতাজ উদ্দিন বাহারী ও সাধারণ সম্পাদক আনসার হোসন, কুমিল্লা জেলা সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিজেইউজে) সভাপতি রমিজ খান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল জলিল ভূইয়া, কুষ্টিয়া সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে) সভাপতি আবদুর রাজ্জাক বাচ্চু, সাংবাদিক ইউনিয়ন দিনাজপুর (জেইউডি) সভাপতি মাহফিজুল ইসলাম রিপন ও সাধারণ সম্পাদক আতিউ্র রহমান, সাংবাদিক ইউনিয়ন ময়মনসিংহ (জেইউএম) সভাপতি আইয়ুব আলী ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এবং সাংবাদিক ইউনিয়ন গাজীপুর (জেইউজি) সভাপতি এইচ এম দেলোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ।
সবাই সরকারের প্রশংসা করলেও বিএনপি পারে না
০৫মে,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা দুর্যোগ মোকাবিলায় আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে সারাদেশে দলীয় ত্রাণ বিতরণ ও মনিটরিং অব্যাহত রাখছেন দলের নেতাকর্মীবৃন্দ। সময়ে সময়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তাদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনাও দিচ্ছেন। তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ আজ বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে সাংবাদিকদের একথা জানান। দলের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, অন্যতম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাছিমসহ দলের নেতাকর্মীবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন। তথ্যমন্ত্রী এসময় ত্রাণে অনিয়ম হচ্ছে মর্মে বিএনপির অভিযোগ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, এখন বিএনপি ত্রাণে অনিয়ম-দুর্নীতির কথা বলে। যারা ক্ষমতায় থাকতে পরপর পাঁচবার দেশকে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করেছে, যাদের চেয়ারপার্সন কালো টাকা সাদা করেছেন, যাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দুর্নীতির দায়ে ১০ বছর সাজাপ্রাপ্ত হয়েছেন এবং তার ভাইয়ের পাচার করা টাকা বিদেশ থেকে ফেরত আনা হয়েছে, সেই দুর্নীতিবাজরা যখন দুর্নীতি নিয়ে কথা বলে, তখন মানুষ হাসে। ড. হাছান মাহমুদ বলেন,প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো-টলারেন্স নীতি নিয়ে এগুচ্ছেন এবং যেখানেই ত্রাণের ব্যাপারে সামান্যতম বাত্যয় বা প্রশ্ন দেখা দিচ্ছে, সেখানে তিনি মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন এবং সেই নির্দেশ পালিত হচ্ছে । ইতোমধ্যেই কয়েকজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের জীবন ও জীবিকা রক্ষায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে সমস্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন, সেগুলো ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এমনকি বিশ্ববিখ্যাত ম্যাগাজিন ফোর্বস ও দি ইকনোমিস্ট কর্তৃক বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে, কিন্তু বিএনপি প্রশংসা করতে পারছে না, কারণ বিএনপি প্রশংসার সংস্কৃতি লালন করেনা বলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশে সারাদশে করোনা দুর্যোগ মোকাবিলায় ব্যাপক ত্রাণ তৎপরতা চালানো হচ্ছে। ইতোমধ্যে গ্রামপর্যায় পর্যন্ত লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে আমাদের ত্রাণ পৌঁছেছে। প্রধানমন্ত্রী প্রায়শই ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে আমাদের নির্দেশনা দিচ্ছেন। আর অপরদিকে বিএনপিনেতারা কিছু মানুষকে ত্রাণ দিতে গিয়ে ফটোসেশন করেন আর সেখানে আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি বিষোদগার করেন, এই কাজেই তারা ব্যস্ত, বলেন ড. হাছান। জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, আওয়ামী লীগ সব সময় শেখ হাসিনার নির্দেশে দেশের ক্রান্তিলগ্নে মানুষের পাশে থেকেছে। দলের নেতাকর্মীরা দেশের প্রতিটি জেলায় ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছে, জানান আবদুর রহমান। বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, দল দেখে নয়, প্রকৃতপক্ষে যাদের প্রয়োজন, তারা যেনো সাহায্য পায়, সেটা নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: রোকেয়া সুলতানা, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক এবং এস এম কামাল হোসেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তিদাস, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খান ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজী এসময় উপস্থিত ছিলেন।
গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩৯ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত,প্রাণ হারিয়েছেন ৫ পুলিশ সদস্য
০৫মে,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশে এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে ১১৫৩ পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছে। ৫ পুলিশ সদস্য করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন । গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৩৯ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। যা একদিনে সর্বোচ্চ। আক্রান্তদের মধ্যে ৫৭৬ জন ঢাকা মহানগর পুলিশে কর্মরত । আজ মঙ্গলবার পুলিশ সদর দপ্তর থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, ঢাকাসহ সারা দেশে সর্বশেষ ৫ই মে পর্যন্ত ১১৫৩ পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন । গত রোববার ও সোমবার আক্রান্তের সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ৮৫৪ ও ৯১৪। সারাদেশের পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের তথ্য-উপাত্ত থেকে জানা গেছে, পুলিশে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ৩১৫ জনকে আইসোলেশনে রয়েছেলের।আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা আরো ১২৫০ জন কর্মকর্তাকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ পর্যন্ত ৮৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫ পুলিশ সদস্যের। তাদের মধ্যে চারজন ডিএমপির ও একজন এসবির। তারা হলেন, ডিএমপির কনস্টেবল জসিম উদ্দিন (৪০), এএসআই মো. আব্দুল খালেক (৩৬), ট্রাফিক বিভাগের কনস্টেবল মো. আশেক মাহমুদ (৪৩), পিওএমের এসআই সুলতানুল আরেফিন এবং পুলিশের বিশেষ শাখার এসআই নাজির উদ্দীন (৫৫)।
পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডির দায়িত্ব নিলেন মাহবুবুর রহমান
০৫মে,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি প্রধানের দায়িত্ব বুঝে নিয়েছেন অতিরিক্ত আইজিপি ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান। মঙ্গলবার রাজধানীর মালিবাগে নতুন দপ্তরে তাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। মাহবুবুর রহমান RABএর ডিজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের স্থলাভিষিক্ত হলেন। রবিবার রাষ্ট্রপতির আদেশে মাহমুদুর রহমানকে সিআইডি প্রধানের দায়িত্ব দেয় সরকার। এর আগে তিনি হাইওয়ে পুলিশের প্রধানের দায়িত্বে ছিলেন। গতবছরের ১৬ মে হাইওয়ে পুলিশের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। কর্মজীবনে মেধাবী, কর্মঠ ও সৎ অফিসার হিসেবে পরিচিত মাহমুদুর রহমান রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরএমপি) কমিশনার ছিলেন। এছাড়া পুলিশ সদরদপ্তরের ডিআইজি (অপারেশনস) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর তিনি নৌ পুলিশের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছিলেন। এছাড়া ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)র যুগ্ম কমিশনার (ট্রাফিক) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে পুলিশের সর্বোচ্চ পদক বিপিএম এবং পিপিএম পেয়েছেন তিনি।
মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক বসছে আগামী বৃহস্পতিবার
০৫মে,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘ এক মাস বিরতি দিয়ে সীমিত পরিসরে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক বসছে আগামী বৃহস্পতিবার (৭ মে)। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ওইদিন বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে মন্ত্রিসভার এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আব্দুল বারিক গণমাধ্যমকে বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে সীমিত পরিসরে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আরেক কর্মকর্তা বলেন, প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও ওই বৈঠকে সংশ্লিষ্ট মাত্র তিনজন মন্ত্রী অংশ নেবেন। এরআগে সবশেষ গত ৬ এপ্রিল গণভবনে সীমিত পরিসরে মন্ত্রিসভার পূর্বনির্ধারিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে হাতে গোনা কয়েকজন মন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবরা অংশ নেন। করোনা ভাইরাসের কারণে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করেই বসার আসন নির্ধারিত করে ওইদিন মন্ত্রিসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।
কাল শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা
০৫মে,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান বুদ্ধ পূর্ণিমা কাল । গৌতম বুদ্ধের শুভজন্ম, বোধিজ্ঞান ও মহাপরিনির্বাণ লাভ এই তিন ঘটনার স্মৃতি বিজড়িত বৈশাখী পূর্ণিমা বিশ্বের সব স্থানে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের কাছেই বুদ্ধপূর্ণিমা নামে পরিচিত। বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে দিনটি সরকারি ছুটির দিন। এ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দেন। বাণীতে তাঁরা শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বাংলাদেশসহ বিশ্বের সব বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মৈত্রীময় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। বুদ্ধপূর্ণিমা বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব। বৈশাখ মাসের এই পূর্ণিমায় মহামানব বুদ্ধের জীবনের তিনটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা সংঘটিত হয়েছিল বলে দিনটি বুদ্ধপূর্ণিমা মহাপরিনির্বাণ লাভ করেন। সিদ্ধার্থের বুদ্ধত্বলাভের মধ্য দিয়েই জগতে বৌদ্ধধর্ম প্রবর্তিত হয়। বুদ্ধপূর্ণিমার দিনে বৌদ্ধরা বুদ্ধপূজা-সহ পঞ্চশীল, অষ্টশীল, সূত্রপাঠ, সূত্রশ্রবণ, সমবেত প্রার্থনা এবং নানাবিধ মাঙ্গলিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। তাঁরা বুদ্ধানুস্মৃতি ও সংঘানুস্মৃতি ভাবনা করে। বিবিধ পূজা ও আচার-অনুষ্ঠানের পাশাপাশি বিবিধ সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়। বৌদ্ধবিহারগুলিতে বুদ্ধের মহাজীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা-সহ ধর্মীয় সভার আয়োজন করা হয়। দিনভর বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা দিনটি পালন করে থাকলেও বর্তমান করোনাভঅইরাস পরিস্থিতির কারনে এবার এ উৎসবটি অনারম্বর ভাবে উদযাপন করা হবে। শুধু বুদ্ধপূজা, মহাসংঘদান এর মত আনুষ্ঠানিকতায় সীমাবদ্ধ খাকবে বলে এই ধর্মাবলম্বীরা জানিয়েছেন।
সরকারের সমালোচনা করার চিরায়ত ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপির রাজনীতি : ওবায়দুল কাদের
০৫মে,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রাজনৈতিক বিরোধিতার নামে সরকারের সমালোচনা করার চিরায়ত ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপির রাজনীতি। আজ মঙ্গলবার সকালে তার সরকারি বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত আনলাইন সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। করোনার এই সংকটকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সরকারের ব্যর্থতার নামে বিষোদগার করছেন দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক বিরোধিতার নামে সরকারের সমালোচনা করার চিরায়ত ভাইরাসে আক্রান্ত আজ বিএনপির রাজনীতি। তারা কখনো জনগণের কথা বলেনি, পাশেও থাকেনি। এই দুর্যোগের সময়ে তারা কথামালার চাতুরী ছাড়া জনগণকে কিছুই দিতে পারেনি। তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের সমালোচনা করছেন। কিন্তু আন্তর্জাতিক ভাবে ফোবর্স এবং ইকোনোমিস্টের মত প্রেস্টিজিয়াস সাময়িকী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রশংসা করেছে। তাঁর সাফল্যের বিষয়টি দেশে-বিদেশে সমাদৃত হয়েছে। করোনা সংকট মোকাবেলায় তাঁর নেতৃত্ব ও গৃহীত ব্যবস্থার প্রশংসা সর্বত্রই রয়েছে। ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনা সংকটকালেও বিএনপি কথায় কথায় সরকারের ব্যর্থতার কথা বলে বিষোদগার করছে। অথচ তারা কখনো জনগণের রাজনীতি করেনি। দুর্যোগের সময়ও তারা সত্যিকার অর্থে জনগণের পাশে দাঁড়াতে পারেনি বরং সরকারের সাফল্যকে বিভ্রান্তিকর অপপ্রচার চালিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমি মির্জা ফখরুল সাহেবের কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই এই দুর্যোগের সময় তারা কথামালার চাতুরি ছাড়া জনগণকে করোনা মোকাবেলায় কিছুই কি দিতে পেরেছেন? পার্শ্ববর্তী দেশে দেখুন কংগ্রেস তহবিল গঠন করে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে। সরকারি ছুটির মধ্যে কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান চালু রাখার কারণ ব্যাখ্যা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকারকে আজ জনগণের জীবনের পাশাপাশি জীবিকাটাও দেখতে হচ্ছে। মানুষকে বাঁচানোর পাশাপাশি অর্থনীতির চাকাও সচল রাখতে হবে। তাই, কিছু কিছু ক্ষেত্রে সাধারণ ছুটি শিথিল করা হয়েছে। বিএনপি জাতীয় ঐক্যের প্রস্তাব প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ২১০টি দেশে করোনার বিস্তার ঘটেছে। আমাদের প্রতিবেশী দেশসহ পৃথিবীর কোথাও রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ঐক্যেও কোন প্রয়োজন দেখা দেয় নি। এ সংকটে প্রয়োজন চিকিৎসা এবং প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলা। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান সমূহের মাঝে সমন্বয় গড়ে তোলা। চিকিৎসা বিষয়ক দক্ষ, যোগ্য ও অভিজ্ঞদের নিয়ে এবং বিভিন্ন পেশাজীবী, স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠনকে নিয়ে অভিন্ন শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াই করা। তিনি বলেন, করোনার অভিন্ন টার্গেট দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে আমরা সকলেই। টাস্কফোর্স বিভিন্ন দেশে হয়েছে এবং হচ্ছে। তবে, সেটা ভ্যাকসিন রিলেটেড কিংবা চিকিৎসা বিষয়ক। রাজনৈতিক দলের মধ্যে ঐক্য তথা জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না।

জাতীয় পাতার আরো খবর