ব্রিটিশ হোম অফিসে চিঠি তারেক রহমানকে দেশে ফেরত আনতে
তারেক রহমানকে দেশে ফেরত আনতে ব্রিটিশ হোম অফিসে চিঠি পাঠিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ব্রিটিশ সরকারের উত্তরের প্রেক্ষিতে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী। সকালে, পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে আসন্ন ওআইসি পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের ৪৫ তম সম্মেলন উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, টেকশই শান্তি সম্প্রীতি ও উন্নয়নের স্লোগান নিয়ে আগামী ৫-৬ মে ঢাকায় এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনে যোগ দিতে আসা বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার প্রতিনিধিদের নিয়ে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি দেখাতে আগামীকাল কক্সবাজার যাবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
আজ বিশ্ব গনমাধ্যম দিবস
দেশে গণমাধ্যমের বিপুল বিকাশ ঘটলেও এখনো সাংবাদিকদের নানা ধরনের হয়রানি ও হুমকির মুখোমুখি হতে হয়। সম্পাদক ও সিনিয়র সাংবাদিকরা বলছেন- সন্ত্রাসী জঙ্গি ও প্রভাবশালী মহলের হুমকির পাশাপাশি গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্বেগের নতুন কারণ প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কিছু ধারা। মুক্ত গণমাধ্যম নিশ্চিত করতে সাংবাদিক নেতাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া এবং নিরাপদ পরিবেশ সৃষ্টির জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান। গণমাধ্যম ও গণতন্ত্র পরস্পরের পরিপূরক। মুক্ত গণমাধ্যম নিশ্চিত করা না গেলে ব্যহত হয় গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রাও। দেশে গণমাধ্যমের সংখ্যা যেমন বাড়ছে তেমনি বাড়ছে সাংবাদিকতা পেশার মানুষও। তবে হুমকি হয়রানি নির্যাতন ও উদ্বেগের জায়গাও কম নয়। আইন ও সালিশ কেন্দ্রের তথ্য মতে, গত দুই দশকে ২৩ সাংবাদিক হত্যা ও প্রায় সাড়ে ৩ হাজার সাংবাদিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এ পরিস্থিতি স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য বড় হুমকি বলে মনে করেন সম্পাদক ও সিনিয়র সাংবাদিকরা। নতুন উদ্বেগের বিষয় প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কিছু ধারা। প্রতিষ্ঠানের গোপনীয় তথ্য-উপাত্ত কোনো ইলেকট্রনিক মাধ্যমে ধারণ, প্রেরণ, সংরক্ষণ এবং পরোয়ানা ছাড়া আটক ও তল্লাসির ক্ষমতা’সহ এই আইনের ছয়টি ধারা নিয়ে উদ্বেগ ও আপত্তি জানিয়েছেন, গণমাধ্যমের সম্পাদকরা। তারা মনে করেন, গণমাধ্যমকে স্বাধীন করতে সবচে জরুরি রাজনৈতিক বিভক্তির উর্ধ্বে উঠে সাংবাদিক নেতাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া। সেইসাথে সরকারকে আরো ধৈর্যশীল হওয়ার পরামর্শ তাদের।
ডিআইজি মিজান দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে
ক্ষমতার অপব্যবহার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ডিআইজি মিজানুর রহমান মিজানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুদকের সেগুনবাগিচা কার্যালয়ে অভিযোগ অনুসন্ধানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাকে দুদকের উপপরিচালক ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী জিজ্ঞাসাবাদ করছে। গত ২৫ এপ্রিল দুদকের তলবি নোটিশে সাড়া দিয়ে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে দুদক কার্যালয়ে হাজির হন মিজান। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের বিষয়ে অনুসন্ধান করবে দুদক। এই অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে তাকে তলব করা হয়েছে। দুদক সূত্রে জানা যায়, ডিআইজি মিজান পুলিশের উচ্চ পদে থেকে তদ্বির, নিয়োগ, বদলিসহ নানা অনিয়ম-দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েন বলে অভিযোগ আছে। চাকরি জীবনে তিনি ক্ষমতার অপব্যবহার করে নানা উপায়ে শত কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। তার নামে-বেনামে বিলাসবহুল বাড়ি, গাড়ি, ফ্ল্যাট ও জমি রয়েছে। একাধিক ব্যাংক হিসাবে রয়েছে বিপুল অর্থ ও ফিক্সড ডিপোজিট। এমনকি দেশের বাইরে অর্থ পাচারেরও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। উল্লেখ্য, বেসরকারি একটি টেলিভিশনের জনৈক সংবাদ পাঠিকাকে হত্যার হুমকি দেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিআইজি) মিজানুর রহমান। এর আগে এক নারী ব্যাংক কর্মকর্তাকে জোর করে তুলে নিয়ে বিয়ে এবং নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছিল তার বিরুদ্ধে। মরিয়ম আক্তার ইকো নামের ওই নারী দাবি করেছিলেন, ঘরে বউ-সন্তান রেখে তাকে জোর করে বিয়ে করার পর ৪ মাস সংসার করেছিলেন ডিআইজি মিজান। ওই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর তাকে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত করা হয় এবং অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ওই তদন্ত প্রতিবেদন পুলিশ প্রধানের কাছে জমা দিয়েছে কমিটি। ওই সময় এ সম্পর্কিত বিভিন্ন অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশের কারণে তিনি হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকদের।
সাজাপ্রাপ্ত আসামি তারেককে ফিরিয়ে নিয়ে আসবো: প্রধানমন্ত্রী
একাধিক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে যুক্তরাজ্যের লন্ডন থেকে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার বিকেল চারটায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এমনটি জানান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা অনেক দেশ থেকে এ ধরনের আসামি নিয়ে আসি। সাজাপ্রাপ্ত আসামি তারেকের বিষয়েও আমরা ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা করছি। নিশ্চয়ই আমরা তাকে ফিরিয়ে নিয়ে আসবো। তারেককে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন করায় বিএনপির সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ ধরনের একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে তারা চেয়ারপারসন করলো। বিএনপি নাকি সবচেয়ে বড়, জনপ্রিয় দল, তাদের দলে কি একজন যোগ্য লোকও নেই? এ ধরনের সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে তারা চেয়ারপারসন করে? এ ধরনের রাজনৈতিক দেউলিয়া দল আর নেই।
বিশ্ব সম্প্রদায় বাংলাদেশের প্রশংসা করেছে রোহিঙ্গা ইস্যুতে
রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিশ্ব সম্প্রদায় বাংলাদেশের পদক্ষেপের প্রশংসা করেছে বলে জায়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ বিষয়ে বাংলাদেশের পক্ষে বিশ্ব সম্প্রদায়ের সমর্থন রয়েছে বলেও জানান তিনি। সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া সফর নিয়ে বুধবার (২ মে) বিকালে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে কমনওয়েলথ সম্মেলনে অংশ নেয়ার বিষয়টি তুলে ধরেন শেখ হাসিনা। সম্মেলনে দুটি গুরুত্বপূর্ণ প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে বলে এ সময় জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন,সেখানে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়ন এবং প্রত্যাবর্তনের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। এই সফরকে আমার সরকারের কূটনৈতিক সাফল্য বলে মনে করি। সফরে নরেন্দ্র মোদি, জাস্টিন ট্রুডোসহ বিভিন্ন দেশের সরকারপ্রধানের সঙ্গে বৈঠকেও বিষয়টি নিয়ে আলোচনার কথা বলেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পদক্ষেপের প্রশংসা করেছে বিশ্ব সম্প্রদায়। এছাড়া বিশ্বদরবারে অর্থনীতিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা তুলে ধরা হয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা আমাদের দেশে এসেছেন, তাদের মনোভাব অত্যন্ত ইতিবাচক, তারাও চান মিয়ানমার থেকে যে ১১ লাখ মানুষ এসেছে, তারা সেখানে ফিরে যাক। চাকরীতে কোটা সংস্কার বাতিল করার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো ধরনের ক্ষোভ থেকে সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। কোটা নিয়ে কোনো আলোচনা বা নতুন করে বিবেচনার সুযোগ নেই। ছাত্রলীগের আসন্ন সম্মেলনে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব গঠনে নির্বাচনের নিয়ম আছে। সেজন্য প্রার্থীদের আবেদন নেওয়া হয়েছে। প্রথমে সমঝোতার চেষ্টা করা হয়, সেটা না হলে নির্বাচন হয়। সমঝোতা হয়ে গেলে প্রেস রিলিজের মাধ্যমে তা ঘোষণা করা হবে। উল্লেখ্য, সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে চলতি মাসের ১৫ তারিখে দুদিনের সফরে সৌদি আরব যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে গালফ শিল্ড-১ নামে একটি যৌথ সামরিক মহড়ার কুচকাওয়াজ ও সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। এরপর সেখান থেকে কমনওয়েলথ সরকারপ্রধানদের বৈঠকে (সিএইচওজিএম) যোগ দিতে যুক্তরাজ্য যান প্রধানমন্ত্রী। যুক্তরাজ্য ও সৌদি আরবে আট দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে ২৩ এপ্রিল দেশে ফিরেন তিনি। এর তিন দিন পর ২৭ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গ্লোবাল সামিট অন ওমেন সম্মেলনে যোগ দিতে অস্ট্রেলিয়া যান। এই সম্মেলনে নারী নেতৃত্বে সফলতার স্বীকৃতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীকে গ্লোবাল উইমেনস লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। তিন দিনের অস্ট্রেলিয়া সফর শেষে রোববার মধ্যরাতে দেশে ফিরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
ঝুঁকিপূর্ণ ধারাগুলো বাতিলের আহ্বান ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের:টিআইবি
প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণীত হলে শুধু মতপ্রকাশের ক্ষেত্রেই নয়, গণমাধ্যমকর্মীদের পাশাপাশি সব নাগরিকের মৌলিক মানবাধিকার চর্চার ক্ষেত্রে অধিকতর নিরাপত্তাহীনতার ঝুঁকি সৃষ্টি করবে। তাই এ আইনের ঝুঁকিপূর্ণ ধারাগুলো বাতিলের আহ্বান জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। বুধবার এক বিবৃতিতে সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান এ আহ্বান জানান।তিনি বলেন, মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সব নাগরিকের বাকস্বাধীনতা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিতের সাংবিধানিক অঙ্গীকার ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী। দেশের গণমাধ্যমকর্মীরা যাতে মুক্ত পরিবেশে স্বাধীনভাবে বাকস্বাধীনতা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার সাংবিধানিক অধিকার চর্চা অব্যাহত রাখতে পারে, সে জন্য প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮-এর ৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩২, ৪৩ ও ৫৮ ধারা পুনর্বিবেচনা ও তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা বাতিলের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান ইফতেখারুজ্জামান। খসড়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীসহ সংশ্লিষ্ট অংশীজনের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে অগ্রসর হওয়ার জন্য সংসদীয় কমিটির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি। ইফতেখারুজ্জামান বলেন, যৌক্তিক বিধিনিষেধ সাপেক্ষে সংবিধান মতপ্রকাশের যে স্বাধীনতা দিয়েছে, তা তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার কাছে অসহায়। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীসহ মূলধারার গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে ইতিমধ্যেই একদিকে অভূতপূর্ব ভীতি ও অন্যদিকে ভীতিপ্রসূত স্ব-আরোপিত সেন্সরশিপ চাপিয়ে দিয়েছে, যা বাক্স্বাধীনতা ও গণমাধ্যমের স্বাধীন দায়িত্ব পালনের প্রধান অন্তরায় বলে বিবেচিত হচ্ছে। আইনের ৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩২, ৪৩ ও ৫৮ ধারাসমূহ প্রয়োজনীয় সংশোধন ছাড়া প্রণীত হলে সার্বিকভাবে দেশে গণতান্ত্রিক অধিকার চর্চা ও গণতন্ত্রের প্রাতিষ্ঠানিকীকরণের সম্ভাবনা ধূলিসাৎ হওয়ার ঝুঁকি সৃষ্টি করবে। খসড়াটি সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট অংশীজনের পক্ষ থেকে ব্যাপক উদ্বেগ প্রকাশ সত্ত্বেও ধারাগুলো সংশোধন না করেই সংসদে উত্থাপিত হওয়াকে হতাশাজনক উল্লেখ করে ইফতেখারুজ্জামান বলেন, এ আইনের ফলে বিভিন্ন প্রকার অনিয়ম-দুর্নীতিসহ ক্ষমতার অপব্যবহারের তথ্য প্রকাশ যেমন অসম্ভব হয়ে পড়বে, তেমনি এসব অপরাধের সুরক্ষার মাধ্যমে অধিকতর বিস্তৃতি ঘটাবে। সরকার-ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশে তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে দুর্নীতি প্রতিরোধ ও সুশাসন নিশ্চিতের যে সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে, প্রস্তাবিত আইনটি সে ক্ষেত্রে বাধা হিসেবে কাজ করবে বলে মনে করেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক। তিনি বলেন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্টসমূহ অর্জনে সরকারের পাশাপাশি জনগণ, সুশীল সমাজ ও গণমাধ্যমের ভূমিকা অপরিসীম। এ ক্ষেত্রে গণমাধ্যমসহ সব নাগরিক যাতে সব ধরনের ভয়ভীতির ঊর্ধ্বে থেকে সরকারের সহায়ক শক্তি হিসেবে স্বাধীনভাবে তাদের দায়িত্ব পালন ও বাধাহীন মতামত প্রকাশ করতে পারে, তার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। এ পর্যায়ে খসড়া আইনটির সংশোধনের দায়ভার সংসদীয় কমিটির ওপর ন্যস্ত হওয়ার কারণে কমিটিকে অবশ্যই ইতিবাচক ও সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে।
পরিতোষ কুমার সোনালী ব্যাংকের নতুন ডিএমডি
রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংকে নতুন উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) হলেন পরিতোষ কুমার তরুয়া। তিনি সোনালী ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। পদোন্নতি পেয়ে ডিএমডি হলেন। সোনালী ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এর আগে পরিতোষ কুমার জেনারেল ম্যানেজার অফিস ঢাকা-২ এর জিএম হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধীন সরকারি বি এম কলেজ, বরিশাল থেকে ১৯৮১ সালে রসায়ন শাস্ত্রে স্নাতক সম্মান ও ১৯৮৩ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। ১৯৮৪ সালে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট পরীক্ষার মাধ্যমে সিনিয়র অফিসার হিসাবে সোনালী ব্যাংকে যোগদান করেন। এছাড়া পরিতোষ কুমার আইবিবির একজন ডিপ্লোমেড অ্যাসোসিয়েট। সুদীর্ঘ ৩৪ বছরের চাকরি জীবনে তিনি বিভিন্ন-শাখা প্রধান, প্রিন্সিপাল অফিস প্রধান, জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে খুলনা জিএম অফিস এবং প্রধান কার্যালয়ের জিএম হিসেবেও সফলতা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, প্রধান কার্যালয়ের সাধারণ ঋণ বিভাগ, কর্মচারী ঋণ বিভাগ, কৃষি ভিত্তিক প্রকল্প অর্থায়ন বিভাগ এবং শিল্প প্রকল্প অর্থায়ন বিভাগে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন শেষে ২০১৫ সালের ৬ সেপ্টেম্বর জেনারেল ম্যানেজার পদে পদোন্নতি লাভ করেন পরিতোষ কুমার তরুয়া। কর্মক্ষেত্রে দৈনন্দিন দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে তিনি বিশেষ কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখতে সক্ষম হয়েছেন। দেশে-বিদেশে ব্যাংকিং বিষয়ে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন তিনি। পরিতোষ কুমার তরুয়া পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর থানার অন্তর্গত বড় আমতলা গ্রামে ১৯৬০ সালের ৭ মার্চ জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি দুই সন্তানের জনক।
আজ বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন
সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া সফরের বিষয়ে জানাতে আজ সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার বিকেল ৪টায় গণভবনে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানিয়েছেন। সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে চলতি মাসের ১৫ এপ্রিল দুদিনের সফরে সৌদি আরব যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে গালফ শিল্ড-১ নামে একটি যৌথ সামরিক মহড়ার কুচকাওয়াজ ও সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। এরপর সেখান থেকে কমনওয়েলথ সরকারপ্রধানদের বৈঠকে (সিএইচওজিএম) যোগ দিতে যুক্তরাজ্য যান প্রধানমন্ত্রী। যুক্তরাজ্য ও সৌদি আরবে আট দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে ২৩ এপ্রিল দেশে ফিরেন তিনি। এর তিন দিন পর ২৭ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গ্লোবাল সামিট অন ওমেন সম্মেলনে যোগ দিতে অস্ট্রেলিয়া যান। এই সম্মেলনে নারী নেতৃত্বে সফলতার স্বীকৃতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীকে গ্লোবাল উইমেনস লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। তিন দিনের অস্ট্রেলিয়া সফর শেষে গত রোববার মধ্যরাতে দেশে ফিরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সাংবাদিকদের জন্য পৃথক শ্রম আদালত প্রয়োজন
সাংবাদিক সমাজের জন্য একটি পৃথক শ্রম আদালত প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যবিষয়ক উপদেষ্টা ও সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী।তিনি বলেন, শ্রম আইন অমান্য করে সাংবাদিকদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের (পত্রিকায়) মালিক কর্তৃপক্ষ। বেতন বোর্ড রোয়েদাদ (বেতন কাঠামো) অনুযায়ী সাংবাদিকদের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা না দিয়ে বঞ্চিত করছে। বেতন বোর্ড রোয়েদাদ বাস্তবায়ন, অধিকার প্রতিষ্ঠা, যখন-তখন ছাঁটাই বন্ধ করা এবং চাকরিচ্যুত করার পরে আইন অনুযায়ী পাওনা আদায়ের জন্য পৃথক শ্রম আদালত প্রতিষ্ঠা এখন সময়ের দাবি। মঙ্গলবার মহান মে দিবস উপলক্ষে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের উদ্যোগে জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। ডিইউজের একাংশের সভাপতি আবু জাফর সূর্যের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরীর সঞ্চালনায় আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএফইউজের (একাংশের) মহাসচিব ওমর ফারুক, সাবেক মহাসচিব আবদুল জলিল ভূঁইয়া, সাবেক কোষাধ্যক্ষ আতাউর রহমান, ডিইউজের (একাংশের) সাবেক সভাপতি শাবান মাহমুদ, ডিইউজের (একাংশের) সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল, নির্বাহী সদস্য গোলাম মোস্তফা ধ্রুব, শাকিলা পারভীন, ডিইউজের আলোকিত বাংলাদেশের ইউনিট চিফ মতলু মল্লিক, সদস্য সচিব সিরাজুজ্জামান, নিউনেশন ইউনিট চিফ হেমায়েত হোসেন, প্রবীণ সদস্য মৃণাল কান্তি প্রমুখ। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে ডিইউজের (একাংশের) দফতর সম্পাদক এম জিহাদুর রহমান জিহাদ, জাহিদা পারভীন ছন্দাসহ সাধারণ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিক ও মিডিয়াবান্ধব। সাংবাদিকদের কল্যাণে তিনি নানা সুযোগ-সুবিধা প্রদান করেছেন। সাংবাদিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সাংবাদিক নেতা ও সদস্যের ঐক্যবদ্ধ থাকা পূর্বশর্ত উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইউনিয়নের প্রতিটি সদস্যকে তার অধিকার সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। নেতাদেরও সদস্যদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে তাদের দাবি আদায়ে একজোট হয়ে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) একাংশের মহাসচিব ওমর ফারুক বলেন, যে সব প্রতিষ্ঠানে সাংবাদিকরা ওয়েজ বোর্ডে বেতন ভাতা ও সুবিধাদি পান না, মৌখিক কিংবা লিখিতভাবে জানালে তারা (নেতারা) ব্যবস্থা নেবেন। সভাপতির বক্তৃতায় আবু জাফর সূর্য বলেন, যেসব পত্রিকার মালিক সাংবাদিক শ্রমিক-কর্মচারীদের দেখিয়ে রেট কার্ডসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পান, তারা ওয়েজ বোর্ড অনুযায়ী বেতন ভাতা না দিলে রেট কার্ড স্থগিত বা বাতিলের জোর দাবি জানাচ্ছি।

জাতীয় পাতার আরো খবর