বৃহস্পতিবার, জুন ৪, ২০২০
করোনা দুর্যোগ যতদিন থাকবে, ততদিন সাধারণ মানুষদের সহায়তা করা হবে
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার, নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, দেশে মরনব্যাধী করোনা ভাইরাসের দুর্যোগ যতদিন থাকবে, ততদিন সাধারণ মেহনতী মানুষদের সহায়তা করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ব্যাপারে ব্যাপক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলা পরিষদ চত্তরে কর্মহীন সাধারণ মানুষের জন্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে টেলি কনফারেন্সে তিনি এসব কথা বলেন। প্রবীণ এই রাজনীতিকের নিজস্ব উদ্যেগে সদর উপজেলার প্রায় সাড়ে ৫ হাজার কর্মহীন পরিবারের জন্য চাল, ডাল, আলু, পেয়াঁজ ও সাবান বিতরণ করা হয়। তোফায়েল আহমেদ বলেন, সারা পৃথিবীতেই করোনা ভাইরাসের একটা মারাত্বক অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ ও গৃহিত পদক্ষেপে আমাদের দেশের মানুষ যতবান হয়েছে। নিজেদের নিরাপদে রাখার চেষ্টা করছে। সরকারিভাবে খেটে খাওয়া মানুষজনের জন্য নগত অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন, সরকারি ছুটি চলার কারণে গরীব মানুষদের (যারা দিন আনে দিন খায়) তাদের একটি কঠিন সময় পার করতে হচ্ছে। তাই, তাদের জন্য প্রত্যেক গ্রামে খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম যাতে সঠিকভাবে হয় এ ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। প্রত্যেককে সামাজিক নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে প্রবীণ এই রাজনীতিক বলেন, এক স্থানে অনেকে জমায়াত হবেন না। জনসাধারণরা বাজারে ভীড় করবেন না। সবকিছু বন্ধ থাকার মানে এই নয় যে এটা ঈদের ছুটির মত সবাই একসাথে আনন্দ-উৎসব করবে। এসময় করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রীর সকল নির্দেশনা পালন করার জন্য সকলের নিকট আহ্বান জানান। পরে প্রত্যেক ইউনিয়ন ও পৌরসভার ওয়ার্ড থেকে আগত জনপ্রতিনিধিদের কাছে খাদ্য সহায়তার প্যাকেট তুলে দেওয়া হয়। তারা নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে প্রত্যেক বাড়িতে বাড়িতে এসব বিতরণ করবেন। অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মমিন টুলু, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান মো: ইউনুছ মিয়া, জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম নকিবসহ বিভিন্ন স্তরের জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।বাসস
দরিদ্র মানুষের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার, নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি দেশের চলমান পরিস্থিতিতে দেশের দরিদ্র মানুষের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে বিত্তবানদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন । আজ বৃহস্পতিবার সকালে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের সভা কক্ষে আয়োজিত নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ ও আইনশৃংখলা বিষয়ক জরুরী সভায় যোগ দেয়ার আগে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জাতীয় কমিটি গঠন করতে হবে, বলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মন্তব্যের জবাবে হানিফ বলেন, জাতীয় কমিটি দিয়ে কি হবে, কমিটির এখানে কোন কাজ নেই। করোনা মোকাবেলা করা সরকারের বিষয়। তবে এ দু:সময়ে যে যার অবস্থান থেকে কিছু করতে পারেন। তিনি বলেন, এ ধরণের কথা বলা মানেই রাজনীতি খুঁজে বেড়ানো। তবে সব কিছুতেই রাজনীতি খোঁজার সময় এখন নয়। কেউ যদি মনে করেন করোনা ভাইরাসের কারণে তার কিছু দায়বদ্ধতা আছে তবে তিনি কিছু করতে পারেন। চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, চিকিৎসা পেশা একটি মহান পেশা। মানবতা নিয়ে চিকিৎসকদের এখন এগিয়ে আসতে হবে। কে করোনা রোগে আক্রান্ত, আর কে নয়, সেটিও সনাক্ত করার দায়িত্ব চিকিৎসকদের। এ সময় জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন, পুলিশ সুপার এস এম তানভির আরাফাত, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলীসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।বাসস
প্রজ্ঞাপনে সংশোধনী,জ্বালানি ও সংবাদপত্র জরুরি পরিষেবার আওতায় থাকবে
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,আহাম্মদ হোসেন ভুইয়া,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলা ও বিস্তার রোধে সরকার ঘোষিত ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপনে সংশোধনী এনে তাতে জ্বালানি ও সংবাদপত্র জরুরি পরিষেবার আওতায় আনা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সংশোধনীতে বলেছে, সাধারণ ছুটিকালীন জ্বালানি ও সংবাদপত্র জরুরি পরিষেবার আওতায় থাকবে। এর আগে বুধবার (০১ এপ্রিল) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করে আগামী ৫ থেকে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি বৃদ্ধি করে। ১০ ও ১১ এপ্রিলের সাপ্তাহিক ছুটিও এর সঙ্গে যুক্ত হবে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, জরুরি পরিষেবার (বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট ইত্যাদি) ক্ষেত্রে এ ব্যবস্থা (ছুটি) প্রযোজ্য হবে না। কৃষিপণ্য, সার, কীটনাশক, খাদ্য, শিল্প পণ্য, চিকিৎসা সরঞ্জমাদি, জরুরি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহন এবং কাঁচা বাজার, খাবার, ওষুধের দোকান ও হাসপাতাল, নতুন করে যুক্ত জ্বালানি ও সংবাদপত্র এ ছুটির আওতার বাইরে থাকবে।
ঢাকা ছাড়লেন ৩২৭ জাপানি
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে অবস্থানকারী ৩২৭ জাপানি নাগরিক ঢাকা ছেড়েছেন। বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) সকালে বিশেষ বিমানে ঢাকা ছেড়ে যান তারা। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোকাব্বির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বাংলাদেশে অবস্থানরত ৩২৭ জাপানি নাগরিক আজ সকালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি চাটার্ড ফ্লাইটে ঢাকা ছেড়েছেন। যাদের মধ্যে এক শিশু রয়েছে। বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) সোহেল কামরুজ্জামান জানান, সকাল ১০টা ১৯ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ফ্লাইটটি জাপানের উদ্দেশে বাংলাদেশ ছেড়ে গেছে। এর আগে,সোমবার সন্ধ্যায় ২৬৯ জন মার্কিন নাগরিক কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকা ত্যাগ করে।
প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার, নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাস শনাক্ত পরীক্ষার জন্য প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের পরিচালক ডা. মো. হাবিবুর রহমান অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচডি) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহিদুল্লাহ।বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ডা. হাবিবুর রহমান বলেন, আজকে আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে একটি নির্দেশনা পেয়েছি। ইতোমধ্যে আমাদের মহাপরিচালক ঢাকাসহ প্রত্যেকটা বিভাগের পরিচালক এবং সব সিভিল সার্জনকে নির্দেশনা দিয়েছেন, যেন আজকের মধ্যে প্রত্যেক উপজেলা থেকে কমপক্ষে দুইটি করে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। তাই আজকের মধ্যে আমরা অন্তত এক হাজার নমুনা সংগ্রহ করে আগামীকালের মধ্যে পরীক্ষা করতে পারি। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও দুইজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। তারা দুজনই পুরুষ। এ নিয়ে দেশে মোট ৫৬ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হলেন। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় কারও মৃত্যু হয়নি। এ পর্যন্ত ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে ভাইরাসটিতে।
দেশে আরও দুজন করোনা রোগী শনাক্ত,মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার, নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:দেশে নতুন করে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত আরও দুজন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৬ জনে। বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) করোনাভাইরাস নিয়ে নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। এর আগে গতকাল বুধবার আইইডিসিআর জানায়, দেশে করোনাভাইরাসে ৬ জন মারা গেছেন, ২৬ জন সুস্থ হয়েছেন এবং চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২২ জন। মহামারি করোনা ভাইরাসের ছোবলে হু হু করে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ৯ লাখ ৩৫ হাজার ৮৪০ জনের শরীরে। এরইমধ্যে ২০৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪৭ হাজার ২৭১ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়ার্ল্ডওমিটার বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত এ সংখ্যা নিশ্চিত করেছে। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ১ লাখ ৯৪ হাজার ২৮৬ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন ৬ লাখ ৯৪ হাজার ৩১৩ জন। এদের মধ্যে ৬ লাখ ৫৮ হাজার ৮৩৫ জনের অবস্থা স্থিতিশীল এবং ৩৫ হাজার ৪৭৮ জনের অবস্থা গুরুতর। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাস সবচেয়ে বেশি শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ২ লাখ ১৫ হাজার ১৭৫ জনের শরীরে। সেখানে মারা গেছেন ৫ হাজার ১১০ জন। আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকলেও মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি ইতালিতে। দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১০ হাজার ৫৭৪ জন। সেখানে মারা গেছেন ১৩ হাজার ১৫৫ জন।
কঠোর অবস্থানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার, নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ও হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে বৃহস্পতিবার থেকে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। বুধবার রাতে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। এতে বলা হয়, সেনাবাহিনী বৃহস্পতিবার থেকে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তার অংশ হিসেবে দেশের সকল স্থানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি কঠোরভাবে নিশ্চিত করবে। সামাজিক দূরত্ব ও হোম কোরেন্টাইনসহ সরকার প্রদত্ত নির্দেশাবলী অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে। আইএসপিআর পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুল্লাহ ইবনে জায়েদ বলেন, সারাদেশে সেনাবাহিনীর ৫২৫টি টিম স্থানীয় প্রশাসনকে বিভিন্নভাবে সহায়তা করছে। প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় গত ২৩ মার্চ সশস্ত্র বাহিনী (সেনাবাহিনী, নৌ-বাহিনী ও বিমান বাহিনী) মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। পরের দিন ২৪ মার্চ থেকে সারাদেশে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করা হয়। সরকার জানিয়েছে, বুধবার পর্যন্ত দেশে ৫৪জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যাদের মধ্যে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। সূত্র : ইউএনবি
পাবনা-৪ আসনের সংসদ শামসুর রহমান শরীফ আর নেই
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক ভূমিমন্ত্রী, পাবনা-৪ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফ আর নেই। বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ছাড়েন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ভোর পাঁচটায় শামসুর রহমান মারা যান। তিনি ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। মৃত্যুকালে শামসুর রহমানের বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। ব্যক্তিজীবনে তিনি ৫ ছেলে ও ৫ মেয়ের বাবা ছিলেন। তার স্ত্রী কামরুন্নাহার শরীফ ঈশ্বরদী উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি। ১৯৪০ সালের ২৬ ফাল্গুন তিনি জন্মগ্রহণ করেন। এবছরই তিনি ৮০ বছর পূর্ণ করে ৮১ তে পা দিয়েছিলেন। প্রায় ৭ মাস ধরে তিনি বার্ধক্য ও দুরারোগ্য রোগে ভুগছিলেন।
করোনা যেন ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করছে প্রতিনিয়ত,৪৭ হাজার ছাড়ালো মৃতের সংখ্যা
0২এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রাণঘাতি নভেল করোনা ভাইরাস যেন ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করছে প্রতিনিয়ত। বিশ্বজুড়ে দেশে দেশে হানা দিচ্ছে এই ভাইরাস। প্রতি মুহূর্তে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্য। সে সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুও। ২০৩ টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া এই করোনা ভাইরাসে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৪৭ হাজার ২৭১ জন। আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লাখ ৩৫ হাজার ৮৪০। করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়ার্ল্ডওমিটার বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত এ সংখ্যা নিশ্চিত করেছে। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৯৪ হাজার ২৮৬ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন ৬ লাখ ৯৪ হাজার ৩১৩ জন। এদের মধ্যে ৬ লাখ ৫৮ হাজার ৮৩৫ জনের অবস্থা স্থিতিশীল এবং ৩৫ হাজার ৪৭৮ জনের অবস্থা গুরুতর।এখন পর্যন্ত এ ভাইরাস সবচেয়ে বেশি শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।দেশটিতে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ২ লাখ ১৫ হাজার ১৭৫ জনের শরীরে। সেখানে মারা গেছেন ৫ হাজার ১১০ জন।

জাতীয় পাতার আরো খবর