সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের দুই শতাধিক গ্রামে আজ ঈদ
নিজস্ব প্রতিবেদক : সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের সাত জেলার দুই শতাধিক গ্রামে আজ ঈদুল ফিতর পালিত হবে। চট্টগ্রামের ছয় উপজেলা, শরীয়তপুরের চার উপজেলা, চাঁদপুরের চার উপজেলা, মাদারীপুরের চার উপজেলা, পটুয়াখালীর দুই উপজেলা, পিরোজপুর ও বরিশালের কয়েকটি স্থানে সকালে ঈদের নামাজ আদায় করা হবে। সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম) : দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া, চন্দনাইশ, পটিয়া, লোহাগাড়া, বাঁশখালী, আনোয়ারা উপজেলার ৪০টি গ্রামের মির্জাখিল দরবার শরিফের অনুসারীরা আজ ঈদ উদযাপন করবে। সাতকানিয়া উপজেলার মির্জাখিল, সোনাকানিয়া, গারাঙ্গিয়া, বাজালিয়া, কাঞ্চনা, আমিলাইশ, খাগরিয়া ও গাটিয়াডাঙ্গা, লোহাগাড়া উপজেলার কলাউজান, বড়হাতিয়া, পুটিবিলা, চুনতি ও চরম্বা, বাঁশখালী উপজেলার জালিয়াপাড়া, ছনুয়া, মক্ষিরচর, চাম্বল, শেখেরখিল, ডোংরা, তৈলারদ্বীপ ও কালিপুর, পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও, বাহুলী ও ভেলাপাড়াসহ ৪০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ ঈদ উদযাপন করবেন। এ ব্যাপারে মির্জাখিল দরবার শরিফের পরিচালনা কমিটির সচিব মাস্টার বজলুর রহমান জানান, সৌদি আরবের দিনক্ষণ আমরা অনুসরণ করি, সে অনুযায়ী রোজা ও ঈদ একই নিয়মে পালন করে আসছি। শরীয়তপুর : সুরেশ্বর পীরের অনুসারীরা আজ চার উপজেলার ৩০টি গ্রামে ঈদ পালন করবেন। শত বছর ধরে বাংলাদেশের একদিন আগে চাঁদ দেখার দিন সুরেশ্বর পীরের সব ভক্ত ও তাদের মুরিদানেরা একই নিয়মে ঈদ উৎসব পালন করে আসছেন। নড়িয়া উপজেলার সুরেশ্বর, চণ্ডিপুর, ইছাপাশা, থিরাপাড়া, ঘড়িষার, কদমতলী, নিথিরা, মানাখানা, নশাসন, ভুমখারা, ভোজেশ্বর, জাজিরা উপজেলার কালাইখার কান্দি, মাদবর কান্দি, শরীয়তপুর সদর উপজেলার বাঘিয়া, কোটাপাড়া, বালাখানা, প্রেমতলা, ডোমসার, শৌলপাড়া, ভেদরগঞ্জ উপজেলার লাকার্তা, প্রেমতলা, পাপরাইল ও চরাঞ্চলের ১০টি গ্রামসহ প্রায় ৩০টি গ্রামের ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ ঈদের নামাজ আদায় করবেন। সকাল সাড়ে ১০টায় ঈদুল ফিতরের প্রধান ঈদের জামাত সুরেশ্বর দরবার শরিফে অনুষ্ঠিত হবে। ঈদ জামাতে ইমামতি করবেন সুরেশ্বর দরবার শরিফের গদিনীশীন মোতাওয়াল্লি সৈয়দ মো. বেলাল নূরী। চাঁদপুর ও ফরিদগঞ্জ : চাঁদপুরের মতলব উত্তর, ফরিদগঞ্জ, হাজীগঞ্জ ও কচুয়া উপজেলার প্রায় ৪০টি গ্রামে ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হবে। হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা দরবার শরিফের অনুসারীরা ৮৯ বছর ধরে একদিন আগে ঈদ পালন করে আসছেন। জেলার যেসব গ্রামে একদিন আগে ঈদ উদযাপিত হবে সেগুলো হল- হাজীগঞ্জ উপজেলার বলাখাল, শ্রীপুর, মনিহার, বরকুল, অলীপুর, বেলচোঁ, রাজারগাঁও, জাকনি, কালচোঁ, মেনাপুর, ফরিদগঞ্জ উপজেলার শাচনমেঘ, খিলা, উভারামপুর, পাইকপাড়া, বিঘা, উটতলী, বালিথুবা, শোল্লা, রূপসা, গোবিন্দপুর, লক্ষ্মীপুর, মূলপাড়া, বদরপুর, কড়ৈতলী, নয়ারহাট, মতলবের মহনপুর, এখলাসপুর, দশানী, নায়েরগাঁও, বেলতলীসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম। টেকেরহাট ও কালকিনি (মাদারীপুর) : ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সুরেশ্বরীর ভক্ত-অনুসারীরা মাদারীপুরের ৫০ গ্রামের অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ আজ ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন। সুরেশ্বর দায়রা শরিফের প্রধান গদিনশিন পীর খাজা শাহ সুফি সৈয়দ নূরে আক্তার হোসাইন জানান, বৃহস্পতিবার মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শাওয়াল মাসের নতুন চাঁদ দেখা যাওয়ায় আজ সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ ঈদুল ফিতর উদযাপন করছে। মাদারীপুর সদর উপজেলার পাঁচখোলা, জাজিরা, মহিষেরচর, জাফরাবাদ, চরকালিকাপুর, তাল্লুক, বাহেরচরকাতলা, চরগোবিন্দপুর, আউলিয়াপুর, ছিলারচর, কুনিয়া, মস্তফাপুর, কালকিনির সাহেবরামপুর, আন্ডারচর, আলীনগর, বাঁশগাড়ী, খাসেরহাট, আউলিয়াপুর, রামারপোল, ছবিপুর, ছিলিমপুর, ক্রোকিরচর, সিডিখান, কয়ারিয়া, রমজানপুর, বাটামারা, রাজারচর, শিবচরের পাচ্চর, স্বর্ণকারপট্টিসহ মাদারীপুর জেলার চারটি উপজেলার ৫০ গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক ধর্মপ্রাণ মুসলমান উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে আজ ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন। মাদারীপুর সদর উপজেলার পাঁচখোলা ইউনিয়নের চরকালিকাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ ও কালকিনির আন্ডারচর খানকায় শরিফ মাঠে সকাল ১০টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। চরকালিকাপুর ঈদের জামাতে ইমামতি করবেন মৌলভি আবুল হাসেম মাস্টার ও আন্ডারচর খানকা শরিফ মাঠের ঈদের জামাতে ইমামতি করবেন হাফেজ মাওলানা দেলোয়ার হোসেন। এসব গ্রামের মানুষের মধ্যে বিরাজ করছে ঈদের আনন্দ। রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) : রাঙ্গাবালী উপজেলার ৬ গ্রামে ঈদুল ফিতর উৎসব উদযাপন করা হবে। প্রতিবছরের মতো এবারও কাদেরিয়া-চিশতিয়া তরিকার নির্দিষ্ট সংখ্যক অনুসারীরা ওইসব গ্রামে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। স্থানীয়রা জানান, উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে রাঙ্গাবালী ইউনিয়নের পশুরবুনিয়া, নিজ হাওলা, সেনের হাওলা, চর যমুনা, ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ফুলখালী ও কোড়ালিয়া গ্রামের পাঁচ হাজার মানুষ ঈদের নামাজ আদায় করবেন। তারা কাদেরিয়া-চিশতিয়া তরিকার চট্টগ্রাম চন্দনাইশ জাগিরিয়া শাহ সুফি মমতাজিয়া দরবার শরিফের অনুসারী। কাদেরিয়া-চিশতিয়া তরিকার অনুসারী রাঙ্গাবালী জাগিরিয়া শাহ সুফি মমতাজিয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার (ভারপ্রাপ্ত) আনোয়ার হোসেন শাহিন বলেন, বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে চাঁদ দেখা গেলেই আমরা ওইদিন ঈদ উদযাপন করি। সকাল ৮-৯টার মধ্যে উপজেলার নির্ধারিত স্থানগুলোয় ঈদের নামাজ আদায় করা হবে। কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের পাঁচজুনিয়া ও চালিতাবুনিয়া, লালুয়া ইউনিয়নের উত্তর লালুয়া, মাঝিবাড়ি ও নিশানবাড়িয়া, মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নের তেগাছিয়া, আরামগঞ্জ ও সাফাখালী, টিয়াখালী ইউনিয়নের ইটবাড়িয়া গ্রামের এবং কলাপাড়া পৌর শহরের নাইয়াপট্রি, স্লুইজ ঘাট ও বাদুরতলী এলাকার ১০ হাজার মানুষ ঈদ উদযাপন করবে। স্থানীয়ভাবে তারা ‘চানটুপির’ লোক হিসেবে পরিচিত। কলাপাড়া শহরের নাইয়াপট্রি এলাকার বাসিন্দা মো. রুস্তুম আলী জানান, কাদেরিয়া তরিকার অনুসারীরা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে প্রতিবছর রোজা ও ঈদ পালন করেন। অন্য মুসলমানদের চেয়ে আমরা একদিন আগে রোজা রেখেছি। সে হিসেবে একদিন আগে ঈদ উদযাপন করব। উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের উত্তর নিশানবাড়িয়া জাহাগিরিয়া শাহসুফি মমতাজিয়া দরবার প্রাঙ্গণে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ঈদের জামাতে ইমামতি করবেন মাওলানা মো. হাফেজ আরিফুর রহমান। এছাড়া তেগাছিয়া, লালুয়া ইউনিয়নের উত্তর লালুয়া গ্রামের মাঝিবাড়ি খানকা, কলাপাড়া পৌর শহরের নাইয়াপট্টি জামে মসজিদ ও ধানখালী ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) : উপজেলার সাপলেজা ইউনিয়নের ভাইজোড়া, কচুবাড়িয়া, সাপলেজা, ঝাটিবুনিয়া ও খেতাছিড়া গ্রামে সুরেশ্বর পীরের অনুসারী ছয় শতাধিক পরিবারের সদস্যরা শুক্রবার ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করবে। ভাইজোড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য মো. ফরহাদ হোসেন জানান, সুরেশ্বর পীরের অনুসারীরা প্রতিবছর সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রমজান ও দুই ঈদ পালন করে থাকে। বরিশাল : বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকায় আজ তিনটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ২৩নং ওয়ার্ডে ‘তাজকাঠি জাহাগিরিয়া শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ’ প্রাঙ্গণে সকাল সাড়ে ৯টায় প্রধান ও বৃহত্তম জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এতে ইমামতি করবেন মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল আলীম। এছাড়া পৌর এলাকার ২৩নং ওয়ার্ডের উত্তর সাগরদী মৃধাবাড়ি শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ, ২৬নং ওয়ার্ডে হরিনাফুলিয়া চৌধুরী বাড়ি শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ এবং ২২নং ওয়ার্ডে জিয়া সড়ক শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। এসব জামাতে কয়েক হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমান ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করবেন। এছাড়াও বরিশাল সদর উপজেলার চরকিউট্টা গ্রামে হাফেজ লোকমান শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ, বন্দর থানা সাহেবের হাটের পতাং গ্রামে পতাং শাহ্সুফি মমতাজিয়া মসজিদ প্রাঙ্গণ, মেহেন্দিগঞ্জের তালুকদারচর গ্রামে তালুকদারচর শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৯টায় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুর ইউনিয়নের ওলানকাঠি গ্রামের সরোয়ার খলিফা বাড়ি, খানপুরা জাহাঙ্গীর শিকদারের বাড়ি, মাধবপাশা ইউনিয়নের সাদেক দুয়ারী বাড়ি, কেদারপুর ইউনিয়নে আবদুল মন্নান হাওলাদারের বাড়িতে ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর ও ভোলা জেলার কয়েকটি স্থানে একদিন আগে ঈদ উদযাপন করা হবে। যুগান্তর
প্রধানমন্ত্রী ঈদের দিন সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ওইদিন তাঁর সরকারি বাসভবনে গণভবনে দলীয় নেতা-কর্মী এবং বিচারক ও কূটনীতিকসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বাসস’কে বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা প্রথমে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত গণভবনে দলীয় নেতা-কর্মীসহ সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। প্রেস সচিব জানান, প্রধানমন্ত্রী পরে সকাল ১১টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত একই স্থানে বিচারক ও বিদেশী কূটনীতিকদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।বাসস
শেষ মুহূর্তে ঘরমুখী মানুষের ঢল
আজ শুক্রবার (১৫ জুন) চাঁদ দেখা গেলে আগামীকাল মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। আর ঈদের আগের দিন ঘরমুখী মানুষের ঢল নেমেছে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে। প্রতিটি প্লাটফর্মেই নির্দিষ্ট ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছেন হাজার হাজার মানুষ। যেসব ট্রেন স্টেশনে দাঁড়িয়ে আছে সেসব ট্রেনের ছাদেও রয়েছে হাজারো মানুষ। যেনো ঈদের আগে যুদ্ধ করে বাড়ি ফেরা। শুক্রবার সকাল থেকেই বাড়তে থাকে জনতার ঢল। কেউ কেউ আগেই স্টেশনে এসে একটু ঘুমিয়ে নিচ্ছেন। কেউবা বসে বসেই ঝিমাচ্ছেন। শরিফুল নামে এক ট্রেন যাত্রী বলেন, আমাদের ট্রেন অাসবে আরও পরে। সিট পেতে বেগ পাওয়ার ভয়ে আগেই স্টেশনে এসেছি। যেহেতু ট্রেন ছাড়তে এখনও দেরি আছে তাই একটু ঝিমিয়ে নিচ্ছি। সাব্বির নামে আরেক যাত্রী বলেন, গতকাল আমাদের কার্যালয় ছুটি হলেও কিছু কেনাকাটা করার কারণে আজ বাড়ি ফিরতে হচ্ছে। বাড়ি যাবো এই ভেবে খুব ভালো লাগছে, তবে ট্রেন ঠিকঠাক ছাড়লে হয়। রেলওয়ের স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী জানান, শুক্রবার দেশের বিভিন্ন রুটে ৬৯টি ট্রেন ছেড়ে যাবে। এর মধ্যে ৩২টি আন্তঃনগর, ৫টি স্পেশাল বাকিগুলো মেইল ট্রেন। তিনি আরও জানান, আজ যেহেতু যাত্রীদের চাপ বেশি তাই আজ আমাদেরও নানা উদ্যোগ আছে। তাদের নিরাপত্তার জন্য রেল পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা, আনসার সদস্যরা নিয়োজিত আছেন। আমরা চাই সবাই নিরাপদে ঘরে ফিরুক।
রাজধানীর ঈদ জামাত
চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৬ জুন শনিবার সারাদেশে যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যময় পরিবেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে দেশের প্রধান ঈদ জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। নামাজে ইমামতি করবেন বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিকল্প ইমাম হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মিরপুর জামেয়া আরাবিয়ার মুহতামিম শায়খুল হাদীস মাওলানা সৈয়দ ওয়াহিদুয্যামান। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে ৫টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৭টা, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টা, তৃতীয় জামাত সকাল ৯টা, চতুর্থ জামাত সকাল ১০টা এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত পৌনে ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে। দেশের রাষ্ট্রপতি, বিচারপতি, মন্ত্রী, এমপিসহ বিশিষ্টজনেরা জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করে থাকেন। প্রথম জামাতে বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী ইমামতি করবেন, দ্বিতীয় জামাতে বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম, তৃতীয় জামাতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস মুফতি মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান, চতুর্থ জামাতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক মাওলানা জুবাইর আহাম্মদ আল আযহারী এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাতে তেজগাঁও রেলওয়ে জামে মসজিদের খতিব ড. মাওলানা মুশতাক আহমাদ ইমামতি করবেন। ঢাকার মসজিদগুলোতে ঈদ জামায়াতের সময়সূচি রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে ৪০৯টি স্থানে এবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের প্রধান জামাতসহ ঈদুল ফিতরের ২শ ২৯টি এবং উত্তর সিটি করপোরেশনে ১শ ৮০টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বিভিন্ন মসজিদে স্থানীয়দের সুবিধা অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে। এসব ঈদ জামাতের সময়সূচি দেওয়া হলো— ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে ঈদের দুইটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথমটি সকাল ৮টা ও পরেরটি ৯টায়। এছাড়া সকাল ৮টায় সলিমুল্লাহ মুসলিম হল মেইন গেট সংলগ্ন মাঠ ও শহীদুল্লাহ হল লনে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মাঠে সকাল সাড়ে ৭টায় অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া অনুকূলে না থাকলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জামে মসজিদে পৌনে আটটায় অনুষ্ঠিত হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের জামে মসজিদে সকাল পৌনে ৮টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী হাই স্কুল জামে মসজিদে ঈদের জামাত সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে প্রথম জামাত হবে ৭টায়, দ্বিতীয় ৮টা ৪৫ মিনিটে, তৃতীয়টি ৮টা ১৫ মিনিটে। কামরাঙ্গীরচর কেন্দ্রীয় ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৭টা ও সাড়ে ৮টায় দুইটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ধানমন্ডি ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ধানমন্ডি কলাবাগান বশিরউদ্দিন সড়ক জামে মসজিদে ঈদের জামাত সকাল সাড়ে ৮টায়। দেওয়ানবাগ শরীফে ঈদের তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে, প্রথম জামাত সকাল ৮টায়, দ্বিতীয় জামাত সকাল সাড়ে ৯টায়, তৃতীয় জামাত সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। মিরপুর ফুরফুরা দরবারের মারকাজে ইশাআতে ইসলাম মসজিদ কমপ্লেক্সে জামাত ৮টা ৩০ মিনিটে। চিশতীয়া সাইদিয়া দরবার শরীফ জামে মসজিদে জামাত সকাল ৮টায়। পুরান ঢাকার লক্ষ্মী বাজার ঐতিহ্যবাহী মিয়া সাহেবের ময়দান খানকা শরীফ জামে মসজিদে জামাত সকাল ৭টা ১৫ মিনিটে। সোনারগাঁও রোড হাতিরপুলের ৩টি জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে। বসুন্ধরা সিটির দক্ষিণ পার্শ্বে এবং সোনারগাঁও হোটেলের পশ্চিম পার্শ্বে সামারাই কনভেনশন সেন্টারে (পান্থপথ)। প্রথম জামাত সকাল সাড়ে ৭টায়, দ্বিতীয় জামাত সকাল সাড়ে ৮টায়, তৃতীয় জামাত সকাল সাড়ে ৯টায়। পুরান ঢাকার লক্ষ্মী বাজার নূরানী জামে মসজিদে জামাত সকাল সাড়ে ৮টায়। আম্বর শাহ শাহী মসজিদে ২টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৮টায়, দ্বিতীয় জামাত ৯টায়। মোহাম্মদপুর জয়েন্ট কোয়ার্টার মসজিদ এ তৈয়্যেবিয়ায় দুইটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত ৮টায়, দ্বিতীয় জামাত ৯টায়। পল্লীমা সংসদ ময়দানে জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে। নারী ও পুরুষদের পৃথক ব্যবস্থায়। পশ্চিম আগারগাঁও দরুল ঈমান জামে মসজিদে জামাত সকাল ৮টায়। এলিফেন্ট রোডের এরোপ্লেন মসজিদে জামাত সকাল ৮টায়। মালিবাগ আবুজর গিফারী কলেজ মাঠে জামাত সকাল ৮টায়, মহিলাদের পৃথক ব্যবস্থা আছে। যাত্রাবাড়ী, ধলপুর নারিকেল বাগান বড় জামে মসজিদে প্রথম জামাত সকাল ৭টায়, দ্বিতীয় জামাত ৮টায়। মিরপুর ১২ নম্বরে হারুণ মোল্লা ঈদগাহ পার্ক ও খেলার মাঠে জামাত সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে। রশিদ বেপারী বাজার জামে মসজিদে জামাত সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে। কল্যাণপুর হাউজিং এস্টেট জামে মসজিদে জামাত ৮টায়। মিরপুর, মীরবাড়ি (মাদবর বাড়ী) আদি জামে মসজিদে জামাত ৭টা ৩০ মিনিটে। সোবহানবাগ জামে মসজিদে জামাত ৮টা ৩০ মিনিটে। মগবাজার বিটিসিএল (টিএনটি) জামে মসজিদে জামাত ৮টায়। ডেমরা, উত্তর কুতুবখালী জামে মসজিদে প্রথম জামাত ৭টা ৩০ মিনিটে, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে।
ঈদকে সামনে রেখে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা
ঈদে খুবই স্বল্প সময়ের মধ্যে প্রায় কোটি মানুষ ঢাকা ত্যাগ করবে। প্রায় জনশূন্য হয়েপড়া রাজধানীতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই র্যাব আর পুলিশের প্রধান লক্ষ্য। র্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করে র্যাব সুসংহত নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নিয়েছে। চেকপোস্টের পাশাপাশি সিভিল টিম মাঠে থাকবে। আর ঈদকে সামনে রেখে মানুষের চলাচল নির্বিঘ্ন করা এবং রাজধানীকে নিরাপদ রাখতে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ঈদের সময় রাজধানীর কয়েক লাখ বাড়ি খালি হবে। বেশিরভাগ দোকান বন্ধ থাকবে। ফাঁকা হয়ে যাওয়া রাজধানীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই তাদের প্রধান লক্ষ্য। বর্তমানে মানুষের মধ্যে আরো সচেতনতা বেড়েছে উল্লে­খ করে র্যাবের একজন কর্মকর্তা বলেন, র্যাবের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে সুসংহত করতে অন্যান্য বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করা হবে। বিশেষ দিবস নয় বরং ৩৬৫ দিনই আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা প্রতিদিনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা চিন্তা করি, প্রতিটি জীবনই মূল্যবান। র্যাবের ওই কর্মকর্তা বলেন, ঈদ যাত্রায় রেলের প্লাটফর্ম কেন্দ্রিক সমস্যাগুলো গত ৫-৬ বছরে কমে এসেছে। এখন চোরাকারবারী, পকেটমার, অজ্ঞানপার্টির দৌরাত্ম্য নেই। অগ্রিম টিকিট বিক্রি নিয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। ঈদকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে নগরীর বিপণিবিতানগুলোর নিরাপত্তার দিকে নজর দেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন স্টেশন, ফেরিঘাট, লঞ্চঘাটে র্যাবের ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। নগরীজুড়ে পেট্রোল টিম, মোটরসাইকেল পেট্রোল, সাদা পোশাকে পেট্রোল টিম বাড়ানো হয়েছে। সবাই ২৪ ঘণ্টা দায়িত্ব পালন করছেন। পুলিশ কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, যাত্রীদের নিরাপদে বাড়ি ফেরা নিশ্চিত করতে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ডিএমপি, শিল্প পুলিশ, থানা পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশসহ সব মিলে সমন্বিত নেটওয়ার্ক তৈরি করা হয়েছে। এ নেটওয়ার্কের অধীনে থানা পুলিশ দেখবে অপরাধ অর্থাত্ টিকিট কালোবাজারি, চাঁদাবাজি ইত্যাদি হচ্ছে কিনা। থানার বাইরে যারা আছেন তাদের দায়িত্ব থাকবে হাইওয়ে তদারকি করা। যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য প্রতিটি বাস স্টেশন, লঞ্চ টার্মিনাল ও রেলস্টেশনে সাদা পোশাকের পুলিশ মোতায়েন থাকবে বলে জানান তিনি। ঢাকা থেকে বাইরে বেরোনোর এক্সিট রুট আছে ১৩টি। এর মধ্যে গাবতলী সায়েদাবাদ ও আব্দুল­াহপুরে আমরা বিশেষ মনোযোগ দিচ্ছি। ঈদে মানুষের কেনাকাটা নির্বিঘ্ন করার বিষয়টিও পুলিশের বিবেচনায় রয়েছে বলে জানান ডিএমপি কমিশনার। ব্যাংকপাড়া ও বিপণি বিতানগুলোতে ইতোমধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। নারী ক্রেতাদের নিরাপত্তায় নারী পুলিশও রয়েছে। আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ঈদ উপলক্ষে ৫০ লাখ মানুষ ঢাকা ত্যাগ করেন, শহর অনেকটাই ফাঁকা হয়ে যায়। বেড়ে যায় চুরি-ডাকাতির প্রবণতা। তাই এ সময় টহল ও গোয়েন্দা পুলিশ থাকবে। এসময় তিনি নিরাপত্তা নিশ্চিতে স্থানীয় মানুষকে সহযোগিতার আহ্বান জানান।
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নতুন বিমান বাহিনী প্রধানের সাক্ষাৎ
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বিভিন্ন দেশের বিমান বাহিনীর মতো বিশ্বমানের যোগ্যতা অর্জনে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীকে (বিএএফ) সক্ষম করে গড়ে তুলতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে নতুন বিমান বাহিনী প্রধানের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। নতুন বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল মসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত আজ বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ আহ্বান জানান। রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদিন বাসসকে জানান, বৈঠকে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সদস্যগণ সর্বোচ্চ দক্ষতার সাথে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, বিমান বাহিনীর সদস্যরা সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও সততার সাথে দেশে বিদেশে দায়িত্ব পালন করে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে। রাষ্ট্রপতি আগামী দিনগুলোতে নতুন বিমান বাহিনীর নেতৃত্বে বিএএফ এগিয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন। নতুন বিমান বাহিনী প্রধান তাঁর দায়িত্ব পালনকালে রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন। রাষ্ট্রপতি তার দায়িত্ব পালনকালে প্রয়োজনীয় সবধরনের সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন। রাষ্ট্রপতির সংশ্লিষ্ট সচিবগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।বাসস
শতভাগ শ্রমিক বেতন-ভাতা পেয়েছে : বিজিএমইএ
শতভাগ পোশাক কারখানার শ্রমিকরা মে মাসের বেতন ও ঈদ বোনাস (উৎসব ভাতা) পেয়েছেন বলে দাবি করেছে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। তাদের বক্তব্য বেতন-ভাতা পরিশোধের পাশাপাশি ইতোমধ্যে ৯০ শতাংশ কারখানায় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। বাকী ১০ শতাংশ কারখানা আজকের মধ্যে ছুটি ঘোষণা করবে। ঈদ সামনে রেখে বেতন-ভাতা পরিশোধের সর্বশেষ তথ্য এবং শ্রম পরিস্থিতির বিষয়ে জানাতে বৃহস্পতিবার বিজিএমইএ ঢাকায় নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। তিনি বলেন, ‘আমাদের জানামতে শতভাগ পোশাক কারখানায় শ্রমিকদের গত মাসের বেতন ও ঈদের বোনাস দেয়া হয়েছে।এর মধ্যে ৯০ শতাংশ কারখানায় ছুটি দেয়া হয়েছে। আজকের মধ্যে বাকি কারখানাগুলোতেও ছুটি ঘোষণা করা হবে।শ্রমিকরা অনেকেই বাড়ির পথে রওয়ানা হয়েছেন।’ সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ঈদের আগে বেতন ভাতা নিয়ে সমস্যা হতে পারে এমন কিছু কারখানার তালিকা বিজিএমইএ বিভিন্ন উৎস থেকে পেয়েছিল।এজন্য বিভিন্ন সংস্থা থেকে প্রাপ্ত এবং বিজিএমইএ এর ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট সেলের তথ্য মোতাবেক মোট ১২০০ কারখানাকে নজরদারির মধ্যে আনা হয়। সিদ্দিকুর রহমান জানান,বিজিএমইএর পক্ষ থেকে এসব কারখানা পরিদর্শন করা হয়।সংগঠনের সরাসরি হস্তক্ষেপে সমস্যাপূর্ণ ৩৫ টি কারখানার শ্রমিকদের বেতনভাতাদি নিশ্চিত করা হয়। তিনি বলেন, ‘এ মুহূর্তে আমাদের হাতে বেতন ভাতা পরিশোধ বিষয়ে সমাধান করা হয়নি, এ রকম একটি কারখানাও নেই।’ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে বিজিএমইএ সভাপতি জানান, কিছু কারখানায় বেতন-ভাতা ও ছুটি দেয়ার পরও অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা করা হয়েছে। এজন্য মে মাসের পুরো বেতন দেয়ার পরও কোন কোন কারখানায় জুনের ১০ দিনের বেতনও দেয়া হয়েছে, যাতে কোন অস্থিরতা তৈরি না হয়।বাসস
৬টি প্রকল্পে ১৫ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে জাপান
জাপান সরকার তাদের ৩৯তম সরকারি উন্নয়ন সহযোগিতার (ওডিএ) ঋণ প্যাকেজের আওতায় বাংলাদেশে বাস্তবায়নাধীন ৬টি বড় প্রকল্পে প্রায় ১৫ হাজার ৩২৬ কোটি টাকা অর্থ সহযোগিতা প্রদান করবে। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব কাজী শফিকুল আজম ও ঢাকায় নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত হিরোইয়াসু ইজুমি বাস্তবায়নাধীন ৬টি প্রকল্পে সহযোগিতা সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর করেন। বাংলাদেশের পক্ষে ইআরডি’র সচিব ও ঢাকায় জাপানের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থার (জাইকা) প্রধান নির্বাহী তাকাতোশি নিশিকাতা এই ঋণতে চুক্তি সই করেন। প্রকল্পগুলোর মধ্যে মাতারবাড়ি বন্দর উন্নয়ন প্রকল্পে ২০৩ কোটি টাকা, যমুনা রেল সেতু নির্মাণ প্রকল্পে ২ হাজার ৮৪৬ কোটি টাকা, ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পে (লাইন ৫) ৫৬২ কোটি টাকা, ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প (৩য় পর্যায়) ৬ হাজার ৬৩ কোটি টাকা, মাতারবাড়ি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্প (৪র্থ পর্যায়) ৫ হাজার ১৪৮ কোটি টাকা এবং স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়ন প্রকল্পে ৫০১ কোটি টাকা অর্থ সহযোগিতা রয়েছে। প্রকল্পগুলোর মধ্যে জাপান নির্মাণ কাজে বছরে শতকরা ১ শতাংশ, স্বাস্থ্যসেবা খাতের উন্নয়নে বছরে শতকরা ০ দশমিক ৯ শতাংশ এবং প্রকৌশল সহযোগিতা প্রদানের ক্ষেত্রে বছরে শতকরা ০ দশমিক ০১ শতাংশ হারে সুদ নিবে। ঋণ প্রাপ্তির প্রাথমিক ফি নির্ধারণ করা হয়েছে শতকরা ০ দশমিক ২ শতাংশ। এতে ১০ বছর গ্রেস পিরিয়ড ধরে ঋণ পরিশোধের সময়কাল ৩০ বছর নির্ধারণ করা হয়েছে। ইআরডি কর্মকর্তারা জানান, মাতারবাড়ি বন্দর উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্দেশ্য হলো কক্সবাজারের মাতারবাড়িতে একটি নতুন বাণিজ্য বন্দর স্থাপন করা। মোট ৩ হাজার ৫১১ মিলিয়ন ইয়েন ব্যয়ের এই প্রকল্পটিতে জাইকা ২ হাজার ৬৫৫ মিলিয়ন ইয়েন অর্থ মূল্যের প্রকৌশল সহযোগিতা প্রদান করবে, যা মোট প্রকল্প ব্যয়ের ৭৫ শতাংশ।বাসস

জাতীয় পাতার আরো খবর