রেলের টিকিট সংগ্রহে দেখাতে হবে জাতীয় পরিচয়পত্র
১৬মে,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ রেলওয়ে আসন্ন ঈদ উপলক্ষে আগামী ২২ মে থেকে ঈদের অগ্রিম টিকিট দেওয়া হবে। তবে একজন যাত্রী একসঙ্গে সর্বোচ্চ ৪টি টিকিট কিনতে পারবেন। এজন্য অবশ্যই জাতীয় পরিচয়পত্র সঙ্গে নিতে হবে। এছাড়া কোন কাউন্টার থেকে কোন গন্তব্যের টিকিট কাটতে হবে তাও জেনে নিতে হবে রেলযাত্রীদের। এর মধ্যে ঢাকা কমলাপুর স্টেশন (সমগ্র পশ্চিমাঞ্চলগামী ট্রেন ভায়া যমুনা সেতু), বিমানবন্দর (চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী সব আন্তঃনগর ট্রেন), বনানী (নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওড় এক্সপ্রেস ট্রেন), তেজগাঁও স্টেশন (ময়মনসিংহ ও জামালপুরগামী সব আন্তঃনগর ট্রেন) এবং ফুলবাড়িয়া (সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী সব আন্তঃনগর ট্রেন) থেকে টিকিট বিক্রি করা হবে বলে রেল সূত্রে জানা গেছে। ২২ মে দেওয়া হবে ৩১ মে’র টিকিট, ২৩ মে দেওয়া হবে ১ জুনের টিকিট, ২৪ মে দেওয়া হবে ২ জুনের টিকিট, ২৫ মে দেওয়া হবে ৩ জুনের টিকিট এবং ২৬ মে দেওয়া হবে ৪ জুনের টিকিট। ফেরত যাত্রীদের জন্য ২৯ মে দেওয়া হবে ৭ জুনের টিকিট, একইভাবে ৩০ ও ৩১ মে এবং ১ ও ২ জুন দেওয়া হবে যথাক্রমে ৮, ৯, ১০ ও ১১ জুনের টিকিট। রেলওয়ে সূত্রে বলা হয়েছে, একজন যাত্রী একসঙ্গে সর্বোচ্চ ৪টি টিকিট কিনতে পারবেন। এ জন্য অবশ্যই জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে। কালোবাজারি রোধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আসন্ন ঈদুল ফিতরে প্রতিদিন ৭০ থেকে ৭২ হাজার টিকিট বিক্রি করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সেই হিসেবে ঈদের ৫ দিনে ৩ লাখ ৫০ হাজার যাত্রীকে সেবা দেবে রেলওয়ে। ৯৬টি আন্তঃনগর ট্রেনের পাশাপাশি ৮ জোড়া বিশেষ ট্রেন এসব ঘরমুখো যাত্রীদের বাড়ি পৌঁছে দেবে। গতকাল বুধবার দুপুরে রেল ভবনে রেলের ঈদযাত্রার প্রস্তুতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) মো. মিয়া জাহান এ তথ্য জানান। সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এমপিসহ রেলওয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ৫ জুন ধরা হয়েছে। সে অনুযায়ী অন্যান্য বিষয় ঠিক করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা রুটে দেওয়ানগঞ্জ ঈদ স্পেশাল (১ জোড়া), চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রুটে চাঁদপুর ঈদ স্পেশাল (২ জোড়া), খুলনা-ঢাকা-খুলনা রুটে মৈত্রীর রেক দিয়ে খুলনা ঈদ স্পেশাল, ঢাকা-ঈশ্বরদী-ঢাকা রুটে ঈশ্বরদী ঈদ স্পেশাল, লালমনিরহাট-ঢাকা-লালমনিরহাট রুটে লালমনি ঈদ স্পেশাল, ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার রুটে শোলাকিয়া স্পেশাল-১ এবং ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ রুটে শোলাকিয়া স্পেশাল-২ চলবে। এর মধ্যে শোলাকিয়া স্পেশালগুলো ঈদের দিন সেবা দেবে। কোথা থেকে পাবেন কোন গন্তব্যের টিকিট এবারই প্রথম অগ্রিম টিকিট ঢাকা কমলাপুর স্টেশন, বিমানবন্দর, বনানী, তেজগাঁও স্টেশন এবং ফুলবাড়িয়া থেকে বিক্রি করা হবে। এর মধ্যে ঢাকা (কমলাপুর) থেকে সমগ্র পশ্চিমাঞ্চলগামী ট্রেন ভায়া যমুনা সেতু, বিমানবন্দর স্টেশন থেকে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী সব আন্তঃনগর ট্রেন, তেজগাঁও স্টেশন থেকে ময়মনসিংহ ও জামালপুরগামী সব আন্তঃনগর ট্রেন, বনানী স্টেশন থেকে নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওড় এক্সপ্রেস ট্রেন এবং ফুলবাড়িয়া (পুরাতন রেলভবন) থেকে সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট দেওয়া হবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন রেল সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (রোলিং স্টক) মো. শাসছুজ্জামান প্রমুখ।
দেশে পৌঁছেছে বিমানের পঞ্চম বোয়িং
১৬মে,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হলো পঞ্চম বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ। একটি প্রতিষ্ঠান থেকে লিজে বিমানটি সংগ্রহ করার ফলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৪টিতে। আজ বৃহস্পতিবার ভোর পৌনে ৪টায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নতুন উড়োজাহাজটি অবতরণ করে। কুয়েতের উড়োজাহাজ লিজদাতা প্রতিষ্ঠান আলাফকো থেকে এই এয়ারক্র্যাফ্টটি সংগহ করা হয়েছে বলে বিমানের জনসংযোগ দপ্তর জানিয়েছে। বিমানের বহরে বর্তমানে ৪টি নিজস্ব নতুন বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, ২টি নিজস্ব বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার, ২টি নিজস্ব বোয়িং ৭৩৭-৮০০, লিজে সংগৃহীত ৩টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও ৩টি ড্যাশ-৮ কিউ৪০০ উড়োজাহাজ। জানা গেছে, আগামী মাসে বিমানের বহরে যুক্ত হবে ষষ্ঠ বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ। এছাড়া আগামী জুলাই ও সেপ্টেম্বর মাসে বিমান বহরে সংযোজিত হবে নিজেদের কেনা দুটি বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার।
রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিএসটিআইর অভিযান ,১১টি মামলা
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:মানহীন পণ্য বিক্রি ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরির অপরাধে ১১টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। আজ বুধবার জাতীয় মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই) রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এসব মামলা করে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পাউরুটি-বিস্কুট উৎপাদন করার অপরাধে রাজধানীর গেন্ডারিয়ায় তুর্য ব্রেড এন্ড বিস্কুট ফ্যাক্টরি ও লাইসেন্স না থাকায় যাত্রাবাড়ির বিক্রমপুর ভাগ্যকূল মিষ্টান্ন ভাণ্ডার, ধামরাইয়ের বেইজ পেপারস লিমিটেড, উত্তরার লা বামবা লিমিটেডের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এছাড়া অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন ও সংরক্ষণ করার অপরাধে ফকিরাপুল এলাকার আল ইমাম রেস্টুরেন্টকে ৩০ হাজার, এশিয়া গার্ডেন রেস্টুরেন্টকে ৫০ হাজার, গাউসিয়া হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টকে ৩০ হাজার, আব্দুল কুদ্দুস ভূইয়া স্টোরকে ২০ হাজার এবং আরামবাগের ঘরোয়া রেস্টুরেন্টকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভেরিফিকেশন সনদবিহীন ডিজিটাল স্কেলের ব্যবহার ও পণ্যের মোড়কে ওজন, মূল্য, উৎপাদন ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ এবং পণ্যের পরিচিতি উল্লেখ না করায় মিরপুরের মেসার্স রওজাত জেনারেল স্টোর এবং মেসার্স মুসলীম সুইটস এন্ড বেকারীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। ওজনযন্ত্রে ভেরিফিকেশন সনদ না থাকায় সিলেটের কালিঘাট রোডের আখি স্টোর ও আলী স্টোরের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এছাড়া মানহীন পণ্য বিক্রি ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরির অপরাধে সুবিদবাজার এলাকার মিতালী রেস্তোরাকে ১০ হাজার, মধুফুলকে ২ হাজার, মোহনা সুপার স্টোরকে ২ হাজার ও ডেইলি সপকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পচা খেজুর বিক্রির অপরাধে রাজশাহীর সাহেব বাজার এলাকায় রিপনের খেজুরের দোকানকে ১ হাজার ৫০০ টাকা ও অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে খাদ্যদ্রব্য সংরক্ষণের অপরাধে মেসার্স সেলিম হোটেল এন্ড রেস্টরেন্টকে ৩ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বিএসটিআইর লাইসেন্স গ্রহণ না করে দই বিক্রির অপরাধে কুমিল্লার কোটবাড়ি এলাকার মেসার্স সৌদিয়া হোটেল এবং ভেরিফিকেশন সনদ ছাড়াই ওজনযন্ত্রের বাণিজ্যিক ব্যবহার করার অপরাধে মেসার্স স্বর্ণালী সুইটস কনফেকশনারি এন্ড স্টেশনারি ও মেসার্স দেব জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। দইয়ের পাত্রে ওজন ও মূল্য উল্লেখ না ধাকায় বগুড়ার সোনাতলা এলাকার মেসার্স সবুজ এন্ড মামুন দধি ভান্ডারকে ২ হাজার ও সিএম লাইসেন্স না থাকায় মেসার্স অদিতি দধি ভাণ্ডারকে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
প্রেস শ্রমিকরা গণমাধ্যমের গুরুত্বপূর্ণ অংশ: তথ্যমন্ত্রী
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সংবাদপত্র কর্মচারী ও প্রেস শ্রমিকরা গণমাধ্যমের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। সংবাদপত্র প্রকাশ ও মানুষের কাছে তা পৌঁছানোতে তাদের ভূমিকা প্রশংসার দাবিদার। বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ সংবাদপত্র কর্মচারী ফেডারেশন ও বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব নিউজ পেপার প্রেস ওয়ার্কার্স এর সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। সংগঠন দুটির নেতারা এ সময় ১০টি দাবি সম্বলিত একটি যৌথ স্মারকলিপি মন্ত্রীকে হস্তান্তর করেন। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে-দ্রুত নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ, কর্মচারি ও প্রেস শ্রমিকদের জন্য কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন, নিউজ পেপার সার্ভিস অ্যাক্ট ১৯৭৪ ফিরিয়ে আনা, নিজস্ব অফিস ভবন ও আবাসনের ব্যবস্থা, সংবাদপত্র শিল্প নীতিমালা প্রণয়ন, সংবাদপত্র শিল্পের সুবিধা শ্রমিক কর্মচারীদেরকে সাংবাদিকদের সমান হারে দেওয়া, কর্মচারী-শ্রমিকদের বকেয়া দ্রুত পরিশোধ, ছাঁটাই বন্ধ ও অস্থায়ী শ্রমিক-কর্মচারীদের ছয় মাসের মধ্যে স্থায়ী করা, ট্রেড ইউনিয়নের পূর্ণ অধিকার দেওয়া ও ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়ন না করা পত্রিকায় সরকারি সুবিধা বন্ধ করা। মন্ত্রী দাবিগুলো সুবিবেচনার আশ্বাস দেন। বাংলাদেশ সংবাদপত্র কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি মো. মতিউর রহমান তালুকদার ও বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব নিউজ পেপার প্রেস ওয়ার্কার্স এর সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন খানের নেতৃত্বে কর্মচারীদের প্রতিনিধি মো. বজলুর রহমান মিলন, মো. খায়রুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম, মো. মাহবুব আলম, মো. সেকান্দার আলী, শ্রী দেবেন্দ্রনাথ মজুমদার, মো. সোহেল আহমদ এবং মো. আসাদুজ্জামান এবং শ্রমিক প্রতিনিধি মো. কামাল উদ্দিন, মো. শামীম চৌধুরী, মো. আহসান উল্লাহ, মো. আবু কাউসার, মো. তাজাম্মেল হক, মো. আব্দুল মান্নান, মো. রফিকুল ইসলাম এবং লিয়াকত আলী সভায় অংশ নেন।
আল্লাহর ইচ্ছায় ফিরে এসেছি :ওবায়দুল কাদের
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: দুই মাস ১০ দিন সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সন্ধ্যায় হযরত শাহজালাল রহ. বিমানবন্দরে পৌঁছে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, আজ থেকে দুই মাস ১১ দিন আগে আমার জীবন ছিল চরম অনিশ্চয়তায়। বাঁচব কি বাঁচব না এই সংশয় ছিল জনমনে। সেই জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণ থেকে পরম করুনাময় আল্লাহর ইচ্ছায় ফিরে এসেছি। অসুস্থতার সময় দেশবাসীর দোয়া ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক চেষ্টার বিষয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি দেশবাসী এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ। মা তার সন্তানের জন্য যা করেন আমাদের প্রিয় নেত্রী তা আমার জন্য করেছেন। তার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশের ভাষা আমার জানা নেই। তার প্রতি আমার ঋণের বোঝা আরও বেড়ে গেল। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানাও কোরআন পড়ে আমার জন্য দোয়া করেছেন। দলের নেতাকর্মীরা আমার জন্য দোয়া করেছেন। আমার অবর্তমানে দলের নেতাকর্মীরা দলের কাজকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। এজন্য সবার প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।
রাজধানী থেকে ৪ জন ভুয়া পুলিশ গ্রেপ্তার
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর পল্টন জিপিওর সামনে বুধবার ভোরে বাস থেকে নামেন ব্যবসায়ী করিম (ছদ্মনাম)। বাস থেকে নামার পর হঠাৎ গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে ৪ জন করিমকে ঘিরে ফেলেন এবং তল্লাশি করার কথা বলে একপাশে নিয়ে যান। তখন তাদের মধ্যে একজন কোমর থেকে চাকু বের করে তাকে ভয় দেখায় এবং তার প্যান্টের পকেট হতে নগদ ১২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে আরো ৫০ হাজার টাকা চায়। পরে ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রীকে ফোন করে ভয় দেখিয়ে বিকাশের মাধ্যমে আরো ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। ব্যবসায়ী করিমের থেকে মোট ৩২ হাজার টাকা নিয়ে সকাল সাড়ে সাতটার দিকে ছেড়ে দেয়া হয় তাকে। পরে ওই ব্যবসায়ী পল্টন মডেল থানায় গিয়ে অভিযোগ করলে ঢাকা মহানগর পুলিশের(ডিএমপি) মতিঝিল জোনের সহকারী মিশু বিশ্বাস ও পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদুল হকের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ওই ভুয়া ডিবি পুলিশ চক্রের সদস্য জাকির হোসেন, জুবায়ের হোসেন, মো. আল আমিন ও মো. দুলাল মোস্তফাকে গ্রেপ্তার করে। ব্যবসায়ীর কাছে হাতিয়ে নেয়া ৩২ হাজার টাকা উদ্ধার করে ফেরত দেয়া হয়। মতিঝিল জোনের সহকারী কমিশনার মিশু বিশ্বাস বলেন, ভুয়া ডিবি পরিচয়ে মানুষের সাথে প্রতারণা ও টাকা হাতিয়ে নেয়া চক্রের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
পয়সা দিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, এমনকি আদালতও কেনা যায়: নাসিম
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: এই দেশে পয়সা দিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও আইনজীবী, এমনকি আদালত পর্যন্ত কেনা যায় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। বুধবার (১৫ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। এসময় নাসিম বলেন- ধর্ষণের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনাল করে দ্রুত বিচার করুন। তাহলে দেখবেন, এসব অপরাধ কমে গেছে। বিএনপি-জামায়াতের চেয়েও ভয়ঙ্কর এসব অপরাধী। নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, শিশু হত্যা নিয়ে নাসিম বলেন, প্রতিদিন দেখছি নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, শিশু হত্যা এসব আমাদের গভীরভাবে উদ্বিগ্ন করে। সরকার যখন ক্ষমতায় থাকে, তখন কেন কী কারণে সিরিজের মতো করে এ ধরনের ঘটনা ঘটছে? এ ঘটনার ক্রিমিনালরা প্রকাশ্য ঘুরে বেড়াচ্ছে? বিএনপি এখন ছিন্নভিন্ন উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা আল্লাহর রহমতে জনগণের সমর্থনে দীর্ঘদিন ক্ষমতায় আছি। মনে রাখতে হবে, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে চক্রান্ত যখন ব্যর্থ হয়, তখন গভীর ষড়যন্ত্র চলে। আজ আমরা আশ্বস্ত হতাম যদি বিএনপি বিরোধী দল হিসেবে থাকতো। ভয় ওখানে, বিএনপি এখন ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে। তার জোট ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে। আলোচনা সভায় সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক অভিনেত্রী সাহারা কবরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ঈদে আট জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলবে
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম :আসন্ন ঈদুল ফিতরে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ৮ জোড়া বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে। ঈদের প্রায় ১০ দিন আগে আগামী ২২ মে থেকে ২৬ মে পর্যন্ত এসব ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। বুধবার (১৫ মে) রাজধানীর রেলভবনে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য দেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। এ সময় রেলসচিব মোফাজ্জেল হোসেন ও রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রী জানান, ঈদ পরবর্তী ট্রেনের ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ২৯ মে, চলবে ০২ জুন পর্যন্ত। এছাড়া ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যাত্রায় সংযুক্ত হবে আট জোড়া স্পেশাল ট্রেনও। পাশাপাশি অ্যাপসের মাধ্যমে ট্রেনের ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি করা হবে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, টিকিট কালোবাজারি রুখতে ন্যাশনাল আইডি কার্ড দেখিয়ে একজন সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন। ঈদের আগে ও পরে মালবাহী ট্রেন বন্ধ থাকবে। মন্ত্রী বলেন, ঈদের প্রায় পাঁচদিন আগে ৩১ মে থেকে রেলওয়েতে ট্রেনের কোনো ডে-অফ থাকবে না। ফলে ৪৮টি বিশেষ ট্রিপ পরিচালিত হবে। রেলমন্ত্রী বলেন, এবার প্রথমবারের মতো কমলাপুর রেল স্টেশন ছাড়াও চারটি স্থানে টিকিট বিক্রি করা হবে। কমলাপুর থেকে সমগ্র পশ্চিমাঞ্চলগামী ট্রেনের টিকিট, বিমানবন্দর স্টেশন থেকে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট, তেজগাঁও থেকে ময়মনসিংহ ও জামালপুরগামী ট্রেনের টিকিট, বনানী থেকে নেত্রকোণাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওড় এক্সপ্রেসের টিকিট ও ফুলবাড়িয়া (পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন) থেকে সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হবে। নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, ঈদ উপলক্ষে বিভিন্ন রুটে আট জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলবে। ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা রুটে এক জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলবে। চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রুটে দুই জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলবে। কলকাতা-খুলনার বন্ধন ট্রেন স্পেশাল হিসেবে চলবে খুলনা-ঢাকা-খুলনা রুটে। এছাড়া ঢাকা-ঈশ্বরদী-ঢাকা রুটে একটি, লালমনিরহাট-ঢাকা-লালমনিরহাট রুটে একটি, শোলাকিয়া স্পেশাল-১ ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার রুটে ঈদের দিন, শোলাকিয়া স্পেশাল-২ ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ রুটে ঈদের দিন স্পেশাল ট্রেন হিসেবে চলবে। তবে স্পেশাল ট্রেনের টিকিট অ্যাপসের মাধ্যমে কেনা যাবে না বলে জানান তিনি। মন্ত্রী আরও বলেন, ২২ মে ৩১ মে’র, ২৩ মে ১ জুনের, ২৪ মে ২ জুনের, ২৫ মে ৩ জুনের ও ২৬ মে ৪ জুনের টিকিট বিক্রি করা হবে। আর ২৯ মে ৭ জুনের, ৩০ মে ৮ জুনের, ৩১ মে ৯ জুনের, ১ জুন ১০ জুনের এবং ২ জুন ১১ জুনের ফিরতি টিকিট বিক্রি করা হবে। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি করা হবে। রেলমন্ত্রী এও বলেন, আগামী ২৫ মে ঢাকা-পঞ্চগড় রুটে পঞ্চগড় এক্সপ্রেস চালু করা হবে। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ট্রেনটির উদ্বোধন করবেন।
রাসেলকে ৪৫ লাখ টাকা দিতে এক মাস সময় দিয়েছেন হাইকোর্ট
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম :যাত্রাবাড়ী ফ্লাইওভারে গ্রিনলাইন পরিবহনের বাসচাপায় পা হারানো প্রাইভেটকার চালক রাসেল সরকারকে ক্ষতিপূরণ দিতে আগামী ২২ মে পর্যন্ত ফের সময় বেঁধে দিয়েছেন হাইকোর্ট। ঐদিন আবার শুনানি হবে। বুধবার (১৫ মে) দুপুরে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। গত বছর ২৮ এপ্রিল যাত্রাবাড়ীর মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে গ্রিন লাইন পরিবহনের একটি বাস তাকে চাপা দেয়। তাকে বাঁচাতে একটি পা কেটে ফেলতে বাধ্য হয়েছে চিকিৎসকরা। ক্ষতিপূরণ চেয়ে উম্মে কুলসুমের করা এক রিট আবেদনে রাসেলকে ৫০ লাখ টাকা দিতে নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। পরে আপিল বিভাগেও ওই আদেশ বহাল থাকে। ৪ এপ্রিল গ্রিন লাইনের মহাব্যবস্থাপক আবদুস সাত্তার আদালতে হাজির হয়ে বলেন, তাদের প্রতিষ্ঠানের মালিক চিকিৎসার জন্য ভারতে গেছেন, ফিরবেন ৯ এপ্রিল। এরপর হাইকোর্ট রাসেলকে ৫০ লাখ টাকা পরিশোধ করে ১০ এপ্রিলের মধ্যে আদালতে হলফনামা দাখিলের নির্দেশ দেন গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষকে। তা না হলে গ্রিন লাইনের সব বাস জব্দ করা হবে বলেও হুঁশিয়ার করে আদালত। বুধবার শুনানির শুরুতেই কিন্তু রিটকারী আইনজীবী উম্মে কুলসুম আদালতকে বলেন, গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষ কোনো ধরনের যোগাযোগই করেনি। গ্রিন লাইনের আইনজীবী অজি উল্লাহ তখন বলেন, টাকা দিতে তাদের এক মাস সময় প্রয়োজন। বিচারপতি তখন বলেন, উনি অসুস্থ, কিন্তু উনার ব্যবসা তো থেমে নেই, ব্যবসা তো চলছে। আজকে যদি একটা কিছু নিয়ে আসতেন তাহলে আমরা বুঝতাম একটা মানবিকতা আপনারা দেখিয়েছেন। কিন্তু কিছুই দেন নাই এখন পর্যন্ত। বিকালে আইনজীবী অজি উল্লাহ পাঁচ লাখ টাকার একটি চেক দেখিয়ে বলেন, এই চেক আমরা এখন হাতে হাতে দিতে চাচ্ছি। ১৫ তারিখ এটা ক্যাশ করা যাবে। এরপর রাসেল সরকারকে ডেকে বিচারপতি জানতে চান তার কোনো ব্যাংক অ্যাকাউন্ট আছে কি না। রাসেল অ্যাকাউন্ট আছে জানালে বিচারপতি তাকে চেক নিতে বলেন এবং ওই চেক বুঝে নেয়ার বিষয়ে বিবাদীপক্ষকে লিখিতভাবে জানাতে বলেন। তখন বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান তখন বলেন, ওসব আমরা শুনতে চাই না। এক মাস সময় দিলম। এর মধ্যে বাকি টাকা দিয়ে দিবেন। একইসঙ্গে রাসেলের অন্য পায়ের চিকিৎসার জন্য অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন আদালত। এ সময় গ্রিন লাইনের মালিককে সামনে ডাকে বিচারপতি বলেন, আপনি একটা ব্যবসা চালান, আপনার পরিবহনের সুমান আছে। আমরাও কখনও কখনও ওই পরিবহনে চড়েছি। ধরে নিলাম এই ঘটনায় তার দায় আছে, কিন্তু একটা দায় সবারই আছে। ওর চিকিৎসা করানোর একটা মানবিক দায়িত্ব আছে। হাজী আলাউদ্দিন তখন বলেন, রাসেল সরকারের ঘটনার পর আমিও পারিবারিকভাবে তিনটা অ্যাক্সিডেন্টের মুখোমুখি হয়েছি। আমার বড় ছেলের চোখ চিরতরে নষ্ট হয়ে গেছে। আমার স্ত্রীর কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে। আমিও এক মাস ধরে অসুস্থ। আমার যে ব্যবসা, তা এখন লসে আছে। আদালতের আদেশের পর রাসেল সরকার সাংবাদিকদের বলেন, টাকা বড় কথা না। সব থেকে বড় কথা হল মানুষের একটা অঙ্গ। যে অঙ্গ একমাত্র উপরওয়ালা ছাড়া আর কেউ দিতে পারে না। আমি যদি আজ পাঁচ কোটি টাকা দিয়েও পা লাগাই, তাহলেও আমি আগের জীবনে ফিরে যেতে পারব না।

জাতীয় পাতার আরো খবর