আরও ৩ হাজার রোহিঙ্গা ভাসানচরের পথে
১৫,ফেব্রুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের বিভিন্ন শিবির থেকে চতুর্থ দফায় সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) আরও প্রায় ৮শ রোহিঙ্গাকে নোয়াখালীর ভাসানচরে উদ্দেশ্যে চট্টগ্রামে স্থানান্তর করা হচ্ছে। একই প্রক্রিয়ায় রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ৪শ ৭৭টি পরিবারের ২ হাজার ১৪ জন রোহিঙ্গাকে চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। এদের মধ্যে সোমবার চট্টগ্রাম নৌবাহিনীর জেটি ঘাট থেকে ৮শ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার শামসুদ্দৌজা নয়ন। তিনি জানান, চতুর্থ দফায় স্বেচ্ছায় যেতে আগ্রহী এমন প্রায় তিন হাজার রোহিঙ্গাকে সোমবার চট্টগ্রাম থেকে নোয়াখালীর ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বিষয়টি দেখভাল করছে নৌবাহিনী। ইতোমধ্যে ২ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা চট্টগ্রাম পৌঁছেছে। সোমবার পৌঁছাবে আরও প্রায় ৮শ রোহিঙ্গা। জানা গেছে, উখিয়ার বালুখালীর ৮,৯, ১০, ১১, ১২, ও ১৮ নম্বর ক্যাম্প কুতুপালং-১ ইস্ট, ২ ইস্ট, এবং ২ ওয়েস্ট ক্যাম্প থেকে দুই দিনে প্রায় তিন হাজার রোহিঙ্গা ভাসানচরের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এর আগে তিন দফায় প্রায় ১১ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হয়েছে। এছাড়াও সমুদ্রপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় সাগর থেকে উদ্ধার করে ৩শ ৬ জন রোহিঙ্গা শরণার্থীও ভাসানচরে অবস্থান করছে। স্বরাষ্ট্র, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুযায়ী, বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত হয়ে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গার সংখ্যা এখন ১১ লাখ ১৮ হাজার ৫শ ৭৬ জন। এই হিসাব ২০২০ সালের ৫ আগস্ট পর্যন্ত। ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর থেকে বাংলাদেশে ৭ লাখ ৪১ হাজার ৮শ ৪১ জন মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছে। এদের মধ্যে থেকে সরকার ১ লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তরের পরিকল্পনা নিয়েছে।
কোস্টগার্ডকে আরো শক্তিশালী করছে সরকার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
১৪,ফেব্রুয়ারী,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: উপকূল অঞ্চলের নিরাপত্তায় নিয়োজিত কোস্টগার্ডকে সরকার আরো শক্তিশালী করছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) শেরেবাংলা নগরের এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। কোস্টগার্ডের ২৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, নতুন সরঞ্জামাদি ও কোস্টগার্ডের জনবল বাড়ানো হয়েছে। একইভাবে আরও কীভাবে জনগণের উপকারে আসে এবং বাহিনীকে শক্তিশালী করা যায় সে বিষয়ে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানে বাহিনীর প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম আশরাফুল হক বলেন, বর্তমানে এ বাহিনীকে সুসংহত ও সংগঠিত করতে সরকার যে ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে তা অত্যন্ত প্রশংসার দাবিদার। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিভিন্ন বাহিনীর প্রধানসহ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী কাজের সফলতা স্বীকৃতিস্বরূপ পুরস্কার তুলে দেন কোস্টগার্ড সদস্যদের হাতে।
বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবায় কুমুদিনীর ভূমিকা সবচেয়ে বেশি: প্রধানমন্ত্রী
১৪,ফেব্রুয়ারী,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবায় কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। এ পর্যন্ত তাদের সবগুলো উদ্যোগ সফল হয়েছে। রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের কুমুদিনী ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস অ্যান্ড ক্যান্সার রিসার্চ'র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। নারায়ণগঞ্জে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, কুমুদিনী ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস অ্যান্ড ক্যান্সার রিসার্চ সেন্টার চালু হলে মানুষ আরও ভালোভাবে ক্যান্সারের চিকিৎসা পাবে। আমরা সব মানুষের সহজে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে চাই। এজন্য বেসরকারি উদ্যোক্তাদেরও এ খাতে নজর দেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, রক্ত দিয়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি, ভালো থাকার জন্য। স্বাধীনতা পাওয়ার পর মানুষ ভাগ্যহারা থাকবে, এটা হতে পারে না। এদেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। তিনি আরও বলেন, আমরা অনেক কিছুতেই পিছিয়ে পড়েছিলাম। ৭৫র ট্র্যাজেডি-পরবর্তী ২১ বছর যারা ক্ষমতায় ছিল, তারা ক্ষমতাকে ভোগের বস্তু বানিয়ে ফেলেছিল। নিজেদের স্বার্থ ও কল্যাণ ছাড়া মানুষের জন্য কিছু করেনি। আমরা এসে মানুষের সেবার জন্য সবই করেছি। সব জেলায় মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল এবং বিভাগে বিভাগে বিশ্ববিদ্যালয় করেছি। সময়োপযোগী আইন প্রণয়নে মনোনিবেশ করেছি৷ শেখ হাসিনা বলেন, আমি বেশ আনন্দিত যে, আজকে একটা ক্যান্সার হাসপাতাল ও রিসার্চ সেন্টার উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। তাও আবার নারায়ণগঞ্জ জেলা সদরে। আমরা গবেষণায় বেশি গুরুত্ব দেই। এজন্য চারটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করে দিচ্ছি, যাতে সেখানে রিসার্চ হয়। টিকা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা করোনা মোকাবিলায় টিকা নিয়ে এসেছি। প্রথম দিকে এটা নিয়ে নানা ভীতি ও গুজব ছড়ানো হয়েছিল। এই কুমুদিনী হাসপাতালের একজন নার্স সবার আগে টিকা নিয়ে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে। তারপর এখন সবাই নিচ্ছে। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, দেশে প্রতি বছর এক লাখ মানুষ কান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। নতুন করে আক্রান্ত হন আরও দেড় লাখ। ক্রমেই এ হার বাড়ছে। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের শ্রীমতি সাহা, রাজিব প্রসাদ সাহা, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভি, সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, সেলিম ওসমান, নজরুল ইসলাম বাবু, লিয়াকত হোসেন খোকা প্রমুখ।
বসন্ত এসে গেছে
১৪,ফেব্রুয়ারী,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ (১৪ ফেব্রুয়ারি) ফাল্গুনের প্রথম দিন, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। করোনা মহামারীর প্রভাব খানিকটা তাল কাটলেও সংস্কৃতিমনা নানা বয়সী শ্রেণি-পেশার মানুষ মেতে উঠবে উৎসবে। বাঙালীর মনে চলছে বসন্ত আর ভালোবাসা নিয়ে উৎসব-উদ্দীপনা। করোনাকালে অনেক সংগঠন আগের ঐতিহ্য মেনে বসন্ত উৎসবের আয়োজন করলেও একাধিক সংগঠন এই মহামারীর কারণে জনস্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে আয়োজন থেকে বিরত থাকছে। ভিন্ন চিত্র রয়েছে অনেক সংগঠনেও। বসন্ত বরণকে কেন্দ্র করে সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করছে। জাতীয় বসন্ত উৎসব উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে আজ- বসন্ত উৎসব ১৪২৭ এর আয়োজন করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এদিন সকাল সাতটা থেকে দশটা পর্যন্ত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের উন্মুক্ত মঞ্চে এবং বিকেল সাড়ে তিনটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত বসন্তবরণ অনুষ্ঠান হবে। প্রতিবছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ প্রাঙ্গণে- বসন্ত বরণ উৎসব অনুষ্ঠিত হলেও এবার করোনা ভাইরাসের কারণে চলতি বছর এই উৎসব না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এছাড়া বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে আজ বিকাল ৪টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নন্দনমঞ্চে সংগঠনটি আয়োজন করেছে- বসন্ত উৎসব ২০২১। অনুষ্ঠানে একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী’র সভাপতিত্বে আলোচনা পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি সচিব মো. বদরুল আরেফীন। আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় বাংলাদেশ ওয়ার্ল্ড পারফরমিং আর্টস, স্পন্দন নৃত্যদল, নৃত্যালোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, বাংলাদেশ একাডেমি অফ ফাইন আর্টস, নৃত্যম, নন্দন কলা কেন্দ্র এবং মারমা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী সম্প্রদায়, ধৃতি নৃত্যালয় এর শিল্পীরা সমবেত নৃত্য পরিবেশন করবে। দ্বৈত সঙ্গীত পরিবেশন করবেন শিল্পী সাজেদ আকবর ও সালমা আকবর, ইবরার টিপু-বিন্দু কনা এবং খাইরুল আনাম শাকিল-কল্পনা আনাম। একক সঙ্গীত পরিবেশন করবেন শিল্পী অপু আমান, সাব্বির, বিউটি এবং দিতি সরকার। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ভাওয়াইয়া, সরকারি সঙ্গীত কলেজ এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পীরা দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করবে। এদিকে, নাটকের অংশবিশেষ পাঠ করবেন শহীদুজ্জামান সেলিম ও রোজী সিদ্দিকী এবং অনন্ত হীরা ও নূনা আফরোজ। সবশেষে ব্যান্ডদল স্পন্দন এর পরিবেশনায় পরিবেশিত হবে ব্যান্ড সঙ্গীত। এছাড়া টেলিভিশন চ্যানেলগুলো বসন্ত বরণ উপলক্ষ্যে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। এদিন বাংলা পঞ্জিকার একাদশতম মাস ফাল্গুনের প্রথম দিন ও বসন্তের প্রথম দিন। গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি অনুসারে ১৪ ফেব্রুয়ারি পহেলা ফাল্গুন পালিত হয়। ইংরেজি বর্ষপঞ্জির ১৪ ফেব্রুয়ারি দিনটিকে ভালোবাসা দিবস হিসেবে পালন করা হয় সারা বিশ্বে। বাংলাদেশ জাতীয় বসন্ত উৎসব উদযাপন পরিষদ এই দিনকে বরণ করতে জাতীয় বসন্ত উৎসবের আয়োজন করে।
দেশে ফিরেছেন সেনাপ্রধান
১৩,ফেব্রুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় দেশে ফিরেছেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ। মার্কিন সেনাপ্রধানের আমন্ত্রণে গত ২৯ জানুয়ারি তিনি যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেছিলেন। সফরকালে তিনি মার্কিন সেনাপ্রধানসহ উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং মার্কিন সেনাবাহিনীর বিভিন্ন সামরিক স্থাপনা ও প্রশিক্ষণ সুবিধাদি পরিদর্শন করেন। এছাড়া তিনি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের সাথে সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২ ফেব্রুয়ারি সেনাবাহিনী প্রধান যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি, অফিস অব সেক্রেটারি অব ডিফেন্স ফর পলিসি সাউথ অ্যান্ড সাউথইস্ট এশিয়া এবং ডিফেন্স সিকিউরিটি কো-অপারেশনের প্রতিনিধির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাতে দুই দেশের পারস্পরিক সহযোগিতামূলক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের পাশে থেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে সেনাবাহিনী প্রধান আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি রাশেদ চৌধুরীকে দ্রুত বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর ব্যাপারে জেনারেল আজিজ বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করেন। ৪ ফেব্রুয়ারি মার্কিন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ম্যাকনভিলের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধানকে পূর্ণ সামরিক মর্যাদায় ১৯ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে সর্বোচ্চ সম্মান প্রদর্শনসহ গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। এছাড়া আর্লিংটন ন্যাশনাল সেমেটারিতে গার্ড অব অনার প্রদানকালে বাংলাদেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত বাজানো হয়। পরে তিনি মার্কিন সেনাপ্রধানের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত সপ্তাহে সেনাপ্রধান জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের মিলিটারি অ্যাডভাইজার, আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল এবং জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধির সঙ্গে মতবিনিময় করেন। আলোচনার আগে জাতিসংঘের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের পেশাগত দক্ষতার ভূয়সী প্রশংসা করেন। আলোচনায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নতুন একটি হেলিকপ্টার ইউনিট মিশন এলাকায় মোতায়েনের জন্য এবং ডিআর কঙ্গোতে ১৩ সদস্যের একটি মিলিটারি পুলিশ ডিটাচমেন্ট প্রদানের জন্য আহ্বান জানান। সেনাপ্রধান জাতিসংঘের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিশ্ব শান্তি রক্ষায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর জোরালো ভূমিকা বৃদ্ধির ব্যাপারে প্রতিশ্রুতি দেন। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের অংশগ্রহণ বাড়ানো এবং নীতিনির্ধারণী ও ফোর্স কমান্ড পর্যায়ে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব বাড়াতে সেনাবাহিনী প্রধানের এ সফর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।
শাহীন রেজা নূরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
১৩,ফেব্রুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শহীদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেনের ছেলে বিশিষ্ট সাংবাদিক প্রজন্ম ৭১ এর সাবেক সভাপতি শাহীন রেজা নূরের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে এ তথ্য জানানো হয়। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং জানায়, শোক বার্তায় শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে গণআন্দোলনে শাহীন রেজা নূরের ভূমিকা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। ক্যান্সারে আক্রান্ত শাহীন রেজা নূর কানাডার ভ্যাংকুভারের একটি হাসপাতালে বাংলাদেশ সময় শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে মারা যান।
রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশকে ইইউর সমর্থনের আশ্বাস পুনর্ব্যক্ত
১৩,ফেব্রুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল রোহিঙ্গা মানবিক সংকটের একটি স্থায়ী ও শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য বাংলাদেশের প্রতি ইইউ-এর অব্যাহত সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছেন। ব্রাসেলসে ইইউ রাষ্ট্রদূত হিসেবে নবনিযুক্ত বাংলাদেশ মিশন প্রধান মাহবুব হাসান সালেহ আজ লেটারস অফ ক্রেডেন্স উপস্থাপন কালে তিনি এ কথা বলেন। আজ ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। মিশেল বৈঠককালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত তার আগের সাক্ষাতের কথা স্মরণ করেন। রাষ্ট্রদূত সালেহ রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, মর্যাদাপূর্ণ এবং টেকসই প্রত্যাবর্তনের জন্য জোর পূর্বক বাস্তুুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মধ্যে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আস্থা সৃষ্টির জন্য বিশ্বাসযোগ্য ব্যবস্থা গ্রহণের উপর জোর দেন। তিনি ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্টের কাছে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর উষ্ণ শুভেচ্ছা পৌঁছে দেন। ইইউ প্রেসিডেন্ট জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে বাংলাদেশের অগ্রাধিকারের কথা স্বীকার করেন এবং ক্লাইমেট ভালনেরাবল ফোরামের (সিভিএফ) বর্তমান সভাপতিত্বের কথা উল্লেখ করেন। রাষ্ট্রদূত সালেহ মতবিনিময় এবং জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আরো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার জন্য বাংলাদেশ ও ইইউ-এর মধ্যে একটি নিবেদিত দ্বিপাক্ষিক প্ল্যাটফর্ম প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান। বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট প্রচলিত ক্ষেত্রগুলোর বাইরে বাংলাদেশ-ইইউ অংশীদারিত্বের পরিধি সম্প্রসারণের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন। প্রেসিডেন্ট মিশেল জলবায়ু পরিবর্তন, মাইগ্রেশন এবং মানবাধিকারসহ বিভিন্ন বিষয়ে আরও সম্পৃক্ত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন।- বাসস
বসন্তের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইতো নাওকি
১৩,ফেব্রুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকায় নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি বসন্তের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) এক বার্তায় তিনি শুভেচ্ছা জানান। জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেন, আমি বসন্তের প্রথম দিনটি ১লা ফাল্গুন বাংলাদেশে উদযাপন করতে পেরে খুশি। শীত, শুকনো শীতের পরে এখন সবকিছু আবারও জীবন্ত বলে মনে হচ্ছে এবং আমরা বাতাসে বসন্তের মনোরম উষ্ণতা এবং আদ্রতা অনুভব করতে পারছি। যদিও আমরা এখনও কোভিড-১৯ এর জন্য কঠিন পরিস্থিতিতে, তবুও আমি আশা করি প্রত্যেকে নানা রকম ফুটন্ত ফুলের ও সবুজের উজ্জ্বল রংগুলো উপভোগ করবেন। সবাইকে বসন্তের শুভেচ্ছা।
পদ্মা সেতুতে খরচ হচ্ছে না ২৯০১ কোটি, সফলতা মেট্রোরেলে
১২,ফেব্রুয়ারী,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পরিকল্পনা কমিশনে চাহিদাপত্র অনুযায়ী সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (আরএডিপি) পদ্মা বহুমূখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পে মাত্র ২ হাজার ৯৯ কোটি টাকা চেয়েছে সেতু বিভাগ, যেখানে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বরাদ্দ ছিল ৫ হাজার কোটি টাকা। ফলে পদ্মা সেতু প্রকল্পের আওতায় ২ হাজার ৯০১ কোটি টাকা খরচই হচ্ছে না। পদ্মাসেতু ও মেট্রোরেলসহ মেগা প্রকল্পকে গুরুত্ব দিয়ে ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বরাদ্দ রাখা হয় ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকা। উন্নয়ন বাজেটে পদ্মাসেতু প্রকল্পে ৫ হাজার এবং চলমান মেট্রোরেল প্রকল্পে ৫ হাজার ৫৪২ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়। করোনা সঙ্কট কেটে সবকিছু স্বভাবিক অবস্থায় আসবে, এই আশা নিয়েই এডিপি অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু করোনা মহামারি দীর্ঘদিন থাকায় পদ্মা সেতু প্রকল্পে খরচ হচ্ছে না ২ হাজার ৯০১ কোটি টাকা। বরাদ্দ কমছে কর্ণফুলি টানেল প্রকল্পেও। তবে এডিপির অর্থ খরচে সফলতা দেখিয়েছে মেট্রোরেল প্রকল্প। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, বর্তমানে সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (আরএডিপি) নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে পরিকল্পনা কমিশন। চলতি বছরের মার্চের শেষের দিকে চূড়ান্ত হবে আরএডিপি। অনেক মন্ত্রণালয় ও বিভাগ তাদের বাস্তবায়িত প্রকল্পে চাহিদার কথা পরিকল্পনা কমিশনে জানিয়েছে। প্রতিবছরের মতো এবারও চলতি অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বড় ধরনের কাটছাঁট হবে। মূলত বাস্তবায়ন না হওয়ায় এই কাটছাঁটে যাচ্ছে সরকার। তবে বাস্তবায়ন পরিস্থিতি সন্তোষজনক না হলেও নতুন প্রকল্প সংশোধিত এডিপিতে ঢুকিয়ে দেওয়ার পুরনো প্রয়াস আবারও দেখা গেছে। আর রাজনৈতিক চাপেই সংশোধিত এডিপিতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য প্রস্তাবনা পরিকল্পনা কমিশনে জমা পড়েছে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন ও কৃষিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হবে। স্বাস্থ্য খাতে আসতে পারে একগুচ্ছ নতুন প্রকল্প। এদিকে সংশোধিত এডিপিতে আট হাজার কোটি টাকা কাটছাঁট করছে সরকার। পরিকল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগ সংশোধিত এডিপি নিয়ে মূলত ব্যস্ত সময় পার করছে। পরিকল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগের যুগ্ম প্রধান (কৃষি, শিল্প ও সমন্বয় উইং) মো. ছায়েদুজ্জামান বলেন, অনেক আগে থেকেই আমরা আরএডিপি নিয়ে কাজ করছি। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগ তাদের চাহিদার কথা আমাদের কাছে উল্লেখ করছে। অনেক প্রকল্পে বরাদ্দ বেশি চাওয়া হচ্ছে আবার করোনার কারণে কিছু প্রকল্পে টাকা খরচ হচ্ছে না। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ব্যয় বৃদ্ধি ছাড়াই আবারও পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের সময় বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রকল্পটি শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০২১ সালের জুন মাসে। প্রস্তাব অনুযায়ী সময় বাড়ানো হলে প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হবে ২০২৩ সালের ৩০ জুন। এ পর্যন্ত প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হয়েছে ৮৩ শতাংশ। প্রকল্পের ব্যয় ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি ৩৮ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। বঙ্গবন্ধু টানেল: দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির দ্বার চট্টগ্রাম বন্দরের লাইফলাইন খ্যাত কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু টানেলের দ্বিতীয় টিউবের নির্মাণকাজ শুরু হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় এডিপি বরাদ্দ ছিল ১ হাজার ৫৫০ কোটি টাকা। তবে সংশোধিত এডিপিতে কমে দাঁড়াচ্ছে ১ হাজার ৪২৫ কোটি টাকা। ফলে চলতি অর্থবছরে খরচ হচ্ছে না ১২৫ কোটি টাকা। প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৬২ শতাংশ। পদ্মাসেতু রেল লিংক ও বঙ্গবন্ধু রেল সেতু প্রকল্পেও সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছিল নতুন এডিপিতে। এ খাতে রয়েছে সড়ক পরিবহন, সেতু বিভাগ এবং রেলপথ, নৌ, বেসামরিক বিমান পরিবহন। পদ্মা সেতু ও রেলসংযোগ, মেট্রোরেলসহ মেগা প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের মাধ্যমে সার্বিক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে সরকার। মেট্রোরেল-৬ প্রকল্পের অগ্রগতি ভালো ছিল। তবে কোভিড-১৯ প্রকল্পের গতিরোধ করেছে। এরপর সব প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন বর্ষ ২০২১ সালের বিজয় দিবসে বাংলাদেশের প্রথম উড়াল মেট্রোরেলের সম্পূর্ণ অংশ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। এজন্য নতুন অর্থবছরে ৫ হাজার ৫৪২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। সংশোধিত এডিপিতেও খরচে সফলতা দেখিয়েছে প্রকল্পটি। আরএডিপিতে ৫ হাজার ৫৪২ কোটি টাকা খরচ করতে পারবে বলে পরিকল্পনা কমিশনকে অবহিত করেছে মেট্রোরেল প্রকল্পের রাষ্ট্রায়ত্ত বাস্তবায়ন প্রতিষ্ঠান ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন বর্ষ ২০২১ সালের ১৬ ডিসেম্বর মেট্রোরেল প্রকল্পের উদ্বোধন করা হবে। ঢাকার যানজট নিরসন ও নগরবাসীর যাতায়াত আরামদায়ক, দ্রুততর ও নির্বিঘ্ন করতে ২০১২ সালে গৃহীত হয় মেট্রোরেল প্রকল্প। ২৪ সেট ট্রেন চলাচল করবে। প্রত্যেকটি ট্রেনে থাকবে ৬টি করে কার। যাত্রী নিয়ে ঘণ্টায় ১শ কিলোমিটার বেগে ছুটবে এ ট্রেন। উভয়দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ হাজার যাত্রী বহনে সক্ষমতা থাকবে মেট্রোরেলের। প্রকল্পের মোট ব্যয় ২১ হাজার ৯৮৫ কোটি টাকার মধ্যে প্রকল্প সাহায্য হিসেবে ১৬ হাজার ৫৯৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ঋণ দিচ্ছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা)। মেট্রোরেল প্রকল্পের সার্বিক গড় অগ্রগতি ৫৬ দশমিক ৯৪ শতাংশ। সূত্র: বাংলা নিউজ

জাতীয় পাতার আরো খবর