সংলাপে আছে মিয়ানমার - তবে কাজ করছে না
অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে তাঁর সরকার মিয়ানমারের সঙ্গে সংলাপ চালিয়ে যাচ্ছে, তবে নেপিডো এখন পর্যন্ত সম্পূর্ণভাবে অকার্যকর রয়েছে। তিনি বলেন,আমরা শান্তিপূর্ণভাবে এই সংকটের সমাধান চাই বলে মিয়ানমারের সঙ্গে সংলাপ চালাচ্ছি, কিন্তু মিয়ানমার সব কিছুতে রাজী থাকলেও দুর্ভাগ্যজনকভাবে তারা কোন কিছুই করছে না। রোববার প্রধানমন্ত্রীর তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে সফররত রবার্ট এফ কেনেডি হিউমান রাইটস অ্যাডভোকেসী অরগানাইজেশনের প্রেসিডেন্ট কেরি কেনেডি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকালে তিনি এ কথা বলেন। খবর বাসসর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, তারা মূলত রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়েই আলোচনা করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের জন্য বিরাট বোঝা। সাধারণ মানুষ তাদের চাষাবাদের জমি, গাছপালা, বনভূমি হারিয়ে ক্ষতির সন্মুখীন হলেও তারা স্বেচ্ছায় রোহিঙ্গাদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের জনগণও এমন দুর্ভোগের মুখোমুখি হয়েছিল। শেখ হাসিনা বলেন, রোহিঙ্গাদের বায়োমেট্রিক রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়েছে এবং তাদেরকে পরিচয়পত্র দেয়া হয়েছে। রোহিঙ্গারা যাতে আরো ভালো অবস্থায় বসবাস করতে পারে সেজন্য সরকার নতুন জায়গার ব্যবস্থা করছে। কেরি কেনেডি প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, রোহিঙ্গা জনগণের অবস্থা পর্যবেক্ষণ করাই হচ্ছে তার বাংলাদেশ সফরের উদ্দেশ্য। কেরি বলেন, তিনি মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যও পরিদর্শন করেছেন, কিন্তু সেখানে বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে কোন অবকাঠামো বা কোন আশ্রয়ের ব্যবস্থা দেখেননি। তিনি বলেন, মিয়ানমার প্রত্যাবর্তনে রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তিনি মনে করেন, তাদের নিরাপত্তা দেয়া এবং তাদের স্বাস্থ্য ও শিক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাজ করা উচিৎ। মিসেস কেরি বাংলাদেশের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী (এসএসএন) কর্মসূচি ও নারীর ক্ষমতায়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং বলেন, এসব উদ্যোগ ব্যতিক্রমধর্মী। প্রধানমন্ত্রীর কন্যা এবং বিশিষ্ট অটিজমকর্মী সায়মা ওয়াজেদ হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. সাজ্জাদুল হাসান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
মানবতাবিরোধী অপরাধের মৌলভীবাজারের ৪ রাজাকারের রায় মঙ্গলবার
অনলাইন ডেস্ক : একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মৌলভীবাজারের রাজনগরের আকমল আলী তালুকদারসহ চার রাজাকারের বিরুদ্ধে করা মামলার রায় মঙ্গলবার ঘোষণা করা হবে। বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সোমবার রায় ঘোষণার এ দিন ধার্য করেন। এর আগে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ২৭ মার্চ মামলাটি রায় ঘোষণার জন্য অপেক্ষমাণ রাখেন ট্রাইব্যুনাল। এই মামলার অপর তিন আসামি হলেন আব্দুর নুর তালুকদার ওরফে লাল মিয়া, মো. আনিছ মিয়া ও মো. আব্দুল মোছাব্বির মিয়া। চার আসামির মধ্যে আকমল আলী তালুকদার গ্রেপ্তারের পর কারাগারে আছেন। বাকি তিনজন পলাতক। তাদের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজনগর এলাকায় গণহত্যা, ধর্ষণ, অপহরণ, আটক, নির্যাতন, মরদেহ গুম, লুণ্ঠন ও অগ্নিসংযোগসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের দুটি অভিযোগ আনা হয়। এর মধ্যে ৬১ জনকে হত্যা-গণহত্যা, ৬ জনকে ধর্ষণ, ৭ জনকে অপহরণ, ১০২টি পরিবারের ১৩২টি ঘরবাড়িতে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগে আরও বলা হয়, আসামিরা ১৯৭১ সালের ৭ মে থেকে ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত রাজনগর উপজেলার পাঁচগাঁও ও পশ্চিমভাগ গ্রামে এসব মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত করে। গত বছরের ৭ মে এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেন ট্রাইব্যুনাল। ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর হায়দার আলী, ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন, আবুল কালাম, শেখ মুশফেক কবীর। আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী আব্দুস সোবহান তরফদার। পলাতকদের পক্ষে রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী ছিলেন আবুল হোসেন। ২০১৫ সালের ২৬ নভেম্বর এই চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ওইদিনই রাজনগর উপজেলার পাঁচগাঁও গ্রাম থেকে মাওলানা আকমল আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তিনি মৌলভীবাজার টাউন সিনিয়র কামিল মাদ্রাসার অবসরপ্রাপ্ত উপাধ্যক্ষ। ২০১৬ সালের ২৩ মার্চ চার আসামির বিরুদ্ধে চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা।
পানামা পেপার্স: হাসান রাজাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক
অনলাইন ডেস্ক: পানামা পেপার্সে নাম আসা ইউনাইটেড গ্রুপের চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ রাজাকে মুদ্রা পাচারের অভিযোগে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সোমবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে দুদকের সেগুনবাগিচা প্রধান কার্যালয়ে হাজির হন তিনি। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানান, সকাল ১০টা থেকে হাসান রাজাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন দুদকের উপ-পরিচালক আখতার হামিদ। এর আগে গত ৮ জুলাই দুদক চিঠি পাঠিয়ে চার ব্যবসায়ীকে তলব করেছিল। তারা হলেন পানামা পেপার্স কেলেঙ্কারির ঘটনায় নাম থাকা হাসান মাহমুদ রাজা, খন্দকার মঈনুল আহসান, আহমেদ ইসমাইল হোসেন ও আকতার মাহমুদ। কর ফাঁকি ও অর্থপাচার সংক্রান্ত আলোচিত পানামা পেপার্স কেলেঙ্কারিতে এ পর্যন্ত রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ীসহ ৩৪ বাংলাদেশি ব্যক্তি ও একটি প্রতিষ্ঠানের নাম এসেছে। অভিযোগ অনুসন্ধানে ২০১৬ সালের এপ্রিলে দুদকের উপ-পরিচালক এসএমএম আখতার হামিদ ভূঁঞাকে প্রধান করে তিন সদস্যের দল গঠন করে দুদক। দলের অন্যরা হলেন দুদকের সহকারী পরিচালক মজিবুর রহমান ও উপ-সহকারী পরিচালক রাফী মো. নাজমুস সাদাত। অন্যদিকে প্যারাডাইস পেপার্স কেলেঙ্কারির ঘটনায় গত ৮ জুলাই দুদক পৃথক এক চিঠিতে তিনজনকে আগামীকাল মঙ্গলবার হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছে। তারা হলেন উইং লিমিটেডের পরিচালক এরিক জনসন আনড্রেস উইলসন, ইন্ট্রিডিপ গ্রুপের ফারহান ইয়াকবুর রহমান ও ফেলকন শিপিংয়ের মাহতাবা রহমান।
দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা ছেড়েছেন হজ ফ্লাইট
অনলাইন ডেস্ক :পবিত্র হজ পালনে আজ দ্বিতীয় দিনের মতো সৌদি আরবের জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন মুসল্লিরা। রোববার (১৫ জুলাই) ভোরে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে দ্বিতীয় দিনের প্রথম হজ ফ্লাইট ছেড়ে যায়।সবশেষ সকাল ৮টা পর্যন্ত বাংলাদেশ ও সৌদি এয়ারলাইন্সের ৭টি বিমান ছেড়ে গেছে। তবে, যাত্রীদের কোনো ভোগান্তির চিত্র দেখা যায়নি। এদিকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মুসল্লিরা এসে জড়ো হচ্ছেন আশাকোনা হজ ক্যাম্পে। শনিবার হজযাত্রার প্রথম দিনে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়েছে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে ১০টি হজ ফ্লাইট। আগামী ১৫ আগস্ট হজ ফ্লাইট শেষ হবে। এবছর বাংলাদেশ থেকে প্রায় এক লাখ ২৭ হাজার মুসল্লি হজে যাবেন। আগামী ২৭ আগস্ট থেকে হজের ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে।
বয়স্ক ও মুক্তিযোদ্ধাদের ৫ বছরের ভিসা দেবে ভারত
অনলাইন ডেস্ক :বয়োজ্যেষ্ঠ ও মুক্তিযোদ্ধাদের ভিসা সহজ করার জন্য বাংলাদশের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ভারত। রোবরার সচিবালয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তি অনুযায়ী ভারত বাংলাদেশের ৬৫ বছর ও এর বেশি বয়সী এবং মুক্তিযোদ্ধাদের পাঁচ বছরের জন্য ভিসা দেবে।রিভাইস ট্রাভেল এগ্রিমেন্ট ২০১৮’-তে বাংলাদেশের পক্ষে সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী এবং ভারতের পক্ষে সেদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্পেশাল সেক্রেটারি বিরাজ রাজ শর্মা স্বাক্ষর করেন।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের নেতৃত্বে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়।বৈঠক শেষে আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভারতের ভিসা সহজীকরণের জন্য আজ একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। যারা নাকি বয়স্ক, যাদের বয়স ৬৫ বছর এবং এর ঊর্ধ্বে তারা ভিসা চাইলে পাঁচ বছরের মাল্টিপল ভিসা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমাদের বয়স্ক সিটিজেনরা যারা ভিসা চান তারা (ভারত) তাদের এই ভিসা দেবেন।তিনি বলেন, ‘সঙ্গে যারা দেশমাতৃকার জন্য যুদ্ধ করেছেন, সেই মুক্তিযোদ্ধারদের জন্য একই ধরনের ভিসাসুবিধা তারা প্রদান করেছেন সেই অনুযায়ী কাজ শুরু করেছেন, যেটার চুক্তি আজ স্বাক্ষর করা হয়েছে।রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভারত ও বাংলাদেশের ষষ্ঠ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের এই বৈঠক শুরু হয়। এর আগে সকাল ১০টা ২২ মিনিটে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সচিবালয়ে উপস্থিত হলে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। লালগালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয় ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রাঙ্গণে অস্থায়ী মঞ্চে দাঁড়িয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) একটি দলের সালাম গ্রহণ করেন রাজনাথ সিং। বৈঠকে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দল ও বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল অংশ নেন।ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং তিন দিনের সফরে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকায় এসেছেন। রোববার দুপুরে তার ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে।
উপহার ফিরিয়ে দিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী
অনলাইন ডেস্ক :চার সিনিয়র মন্ত্রীকে বিএমডব্লিউ গাড়ি উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যেরা গ্রহণ করলেও বিনয়ের সাথেই উপহার ফিরিয়ে দিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। এতে মহত্মের কিছু নেই। আমার নিজের পুরোনো গাড়িটিই ব্যবহার করতে সাচ্ছন্দ্য বোধ করছি, তাই বিনয়ের সাথে আমি প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া গাড়িটি ফিরিয়ে দিয়েছি। এভাবেই বললেন কৃষিমন্ত্রী, এক সময়ের অগ্নিকন্যা খ্যাত, বেগম মতিয়া চৌধুরী। মন্ত্রণালয় পরিচালনায় দক্ষতার পরিচয় দেওয়ার পুরস্কার হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া একটি বিএমডব্লিউ মডেলের গাড়ি না নিয়ে আলোচনায় এসেছেন এই মন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী তাকে সহ মোট পাঁচ জন সিনিয়র মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতাকে এই মডেলের একটি করে গাড়ি উপহার দিয়েছিলেন। অন্যরা হচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও পূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। প্রত্যেককেই নিজ নিজ মন্ত্রণালয় দক্ষতার সঙ্গে পরিচালনার জন্যই এই উপহার দেন প্রধানমন্ত্রী। বাকি চার মন্ত্রী সানন্দে প্রধানমন্ত্রীর উপহার গ্রহণ করেন, তবে বিনয়ের সঙ্গে তা ফেরত দেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। এই ফেরত দেওয়াতে মহত্মের কিছু নেই বলেই প্রতিক্রিয়ায় জানান তিনি। শনিবার রাতে টেলিফোনে তিনি আরও বলেন, এটি বেশ দামি গাড়ি, আমি অপেক্ষাকৃত কম দামের গাড়িতে চড়ে অভ্যস্ত এবং তাতেই ভালো আছি। তিনি এও বলেন, এত দামি গাড়ি পরিচালনা করার অর্থ তার কাছে নেই। উল্লেখ্য, ওআইসি সম্মেলনের সময়ে গাড়িগুলো আনা হয়েছিলো যা অব্যবহৃত পড়ে ছিলো। সিনিয়র মন্ত্রী ও নেতাদের কাজে খুশি হয়েই এগুলো তাদের উপহার হিসেবে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
যেকোনো সমস্যা দু'দেশের আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে
অনলাইন ডেস্ক :রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে সহযোগিতার আশ্বাসসহ বিভিন্ন দিক নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সব বিষয় বৈঠকে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে—জানিয়েছেন ভারতের সফররত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে এ কথা বলেন তিনি। রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। এছাড়াও বৈঠকে সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, অবৈধ চোরাচালান বন্ধ, ভ্রমণ ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে তারা আলোচনা করেন। বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের এ ষষ্ঠ বৈঠকে প্রবীণ নাগরিক ও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৫ বছরের ভিসা দিতে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। আর বাকি ভিসা আগের মতোই থাকবে বলে জানানো হয়। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ভারত অংশের মাদক কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আর যেকোনো সমস্যা দু'দেশের আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে। বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের ষষ্ঠ বৈঠকে যৌথভাবে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। বৈঠক শুরুর আগে রাজনাথ সিংকে ‘গার্ড অব অনার’ প্রদান করা হয়। সকালে রাজনাথ সিং ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি। এ সময় জাদুঘরের বিভিন্ন কক্ষ ঘুরে দেখেন রাজনাথ সিং। সেখানে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে রাখা পরিদর্শন বইয়ে সই করেন। বঙ্গবন্ধু জাদুঘর থেকে এরপর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে যান ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। সেখানে তিনি প্রার্থনায় অংশ নেন। গত শুক্রবার তিন দিনের সরকারি সফরে ঢাকায় আসেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। গত ২০১৬ সালের জুলাই মাসে নয়াদিল্লিতে সর্বশেষ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
আমাদের বহু চ্যালেঞ্জ নিয়েই এগিয়ে যেতে হচ্ছে
অনলাইন ডেস্ক :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দুই প্রতিবেশি দেশের সঙ্গে সম্পর্ক ঠিক রেখে বিশাল সমুদ্র সীমা জয় করেছি। আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করে আমরা জয়লাভ করেছি। সমুদ্রের বিশাল জলরাশিতে আজ আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা হয়েছে। আজ রোববার স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্সের (এসএসএফ) ৩২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতার শাহাদাতের পর ৭৬-৭৭ সাল থেকে পার্বত্য চট্টগ্রামে অশান্তি লেগে ছিল। ৯৩ তে আমরা ক্ষমতায় এসে পাহাড়ে শান্তি ফিরিয়ে এনেছি। পার্বত্য শান্তিচুক্তি করে পরিস্থিতি সামাল দিই। ভারত থেকে ৬৪ হাজার শরনার্থী ফেরত আনি। তাঁর সরকারের সাফল্য ‍তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু স্থল সীমান্ত চুক্তি করে দিয়ে গিয়েছিলেন। ৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে আমরা সেটি এগিয়ে নিয়ে যাই। পরে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এসে সেটি তো এগিয়ে নিতে পারেই নি বরং থামিয়ে দেয়। ভারতের সঙ্গে আলোচনার ভয়ে তারা পিছু হটে। ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর আমরা প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে দীর্ঘদিনের অমিমাংসিত বিষয়গুলো সুরাহা করি। আমরা ছিটবিনিময় চুক্তি করি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এতোকিছুর পরও আমাদের বহু চ্যালেঞ্জ নিয়েই এগিয়ে যেতে হচ্ছে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে এসএসএফের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাসহ তিন বাহিনীর প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর