নিহত দুজন জঙ্গি দাবি বেনজীর আহমেদের
২৯এপ্রিল,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বছিলায় জঙ্গি আস্তানায় বিস্ফোরণে দুজন নিহত হয়েছে বলে ধারণা করছেন Rapid Acton Battalion (Rab) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। তবে ফরেনসিক পরীক্ষার পর মৃতের সংখ্যার ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে জানান। নিহত দুজন জঙ্গি বলেও নিশ্চিত করেছেন তিনি। গতকাল রোববার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটা থেকে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়। বাড়িটির ভেতর থেকে গুলি ও দুটি বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া গেছে বলে দাবি করে Rab। বাড়িটির আশপাশের লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বছিলার মেট্রো হাউজিং এলাকায় বাড়িটি অবস্থিত। মেট্রো হাউজিংয়ের দক্ষিণ-পূর্ব কোনার শেষ প্রান্তে একতলা টিনশেডের ভবনটির অবস্থান। জঙ্গি অবস্থানের তথ্য জানার পরিপ্রেক্ষিতেই বাড়িটি ঘিরে অভিযান শুরু করে Rab-2। রায়েরবাজার বধ্যভূমির ঠিক পেছনে Rab-2-এর নতুন সদর দপ্তর থেকে মাত্র আধা কিলোমিটার দূরে বাড়িটি অবস্থিত। বাড়িটির ঠিক পাশে একটি দোতলা ভবন রয়েছে। বেশির ভাগ প্লট ফাঁকা। কিছু বাড়ি নির্মাণাধীন। আজ সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে Rabর ডিজি বেনজীর আহমেদ জঙ্গি আস্তানা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে বেলা ১১ টার দিকে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, তিনটি পায়ের নমুনা পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, দুজন নিহত হয়েছেন। ফরেনসিক পরীক্ষায় বোঝা যাবে কয় জন মারা গেছেন। এর আগে আজ সকালেRabর পরিচালক (গণমাধ্যম) মুফতি মাহমুদ খান সাংবাদিকদের বলেন, বাড়িটির ভেতর দু-তিনজন জঙ্গি মারা গেছেন বলে ধারণা করা যাচ্ছে। তবে Rab-2-এর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, বাড়ির ভেতর দুজন জঙ্গির ছিন্নভিন্ন মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা গেছে। বেনজীর আহমেদ বলেন, এ ঘটনায় বাড়ির মালিক ও তত্ত্বাবধানকারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। বাড়ির মালিক জানিয়েছেন, বাসাটি চলতি মাসের ১ তারিখে ভাড়া নেন নিহত ব্যক্তিরা। তবে ভাড়া দেওয়ার সময় তাঁদের কাছ থেকে জাতীয় পরিচয়পত্রের কোনো কপি নেওয়া হয়নি। গতকাল রাতে বাড়ির তত্ত্বাবধানকারীকে Rab বাড়িটি থেকে বের করার সময় Rab কে লক্ষ্য করে বাড়ির ভেতর থেকে গুলি ছোড়া হয়। তিনি বলেন, নিহত ব্যক্তিরা জঙ্গি। তবে জঙ্গিরা কোন সংগঠনের সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
রাজধানীর বসিলার মেট্রো হাউজিংয়ে জঙ্গি আস্তানায় বিস্ফোরণ, উড়ে গেছে টিনের চাল, আটক ৩
২৯এপ্রিল,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর বসিলার মেট্রো হাউজিংয়ে একটি বাড়িতে জঙ্গি আস্তানায় বিস্ফোরণে উড়ে গেছে টিনের চাল। বাড়িটির ভিতরে গোলাগুলির শব্দ পাওয়া গেছে। Rab ধারণা করছে ভেতরে কেউ জীবিত নেই। এই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়ির কেয়ারটেকারসহ তিনজনকে আটক করেছে Rab। তবে তাৎক্ষণিক তাদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। সোমবার (২৯ এপ্রিল) ভোর ৫টার দিকে এ অভিযান শুরু হয়। তার আগেই আশপাশের বাড়ির বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বাড়িটির ভেতরে কয়জন অবস্থান করছে তা এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি Rab। বাড়িটিতে একাধিক জঙ্গি থাকার আশঙ্কা করা হচ্ছে। সোমবার সকালে ঘটনাস্থলে গণমাধ্যমকর্মীদের Rab সদর দপ্তরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং এর প্রধান মুফতি মাহমুদ খান বলেন, রাত ৩টা থেকে পৌনে ৫টা পর্যন্ত অপেক্ষা করা হয়। হ্যান্ড মাইকেও কথা বলার চেষ্টা করা হয়েছে। বাড়িটিতে একাধিক জঙ্গি থাকার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ভোর ৫টার দিকে বড় বিস্ফোরণ হয়েছে। এরপর আর কোনও আওয়াজ বা সাড়া-শব্দ পাওয়া যায়নি। আমরা আশপাশের বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়েছি। সকাল সোয়া ৮টার দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কমান্ডো টিম ও বোমা ডিস্পোজাল ইউনিট ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাড়িটিকে ঘিরে অভিযান চলছে।
পুরুষরাও নারীর দ্বারা নিপীড়নের শিকার হয়: সুলতানা কামাল
২৮এপ্রিল,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: শুধু নারী বা শিশু নয় পুরুষরাও যৌন নিপীড়নের শিকার হন বলে অভিযোগ করেছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল। বিশেষ করে জেলখানাসহ কিছু জায়গায় এমন ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ করেন তিনি। রবিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। তার আগে একই সংবাদ সম্মেলনে বেসরকারী চ্যানেল ডিবিসি নিউজের সম্পাদক নবনীতা চৌধুরী এ অভিযোগ আনেন। পরে সুলতানা কামাল তার বক্তব্যে এই কথার সমর্থন করেন। সুলতানা কামাল বলেন,আমরা অনেকে মনে করি শুধু নারী ও শিশুরা যৌন নিপীড়নের শিকার হয়। কিন্তু পুরুষ পুরুষের দ্বারা নিপীড়নের শিকার হয়ে থাকে। পুরুষ অনেক সময় নারীর দ্বারাও নিপীড়নের শিকার হয়ে থাকে। ব্যাপারটা শুধু পুরুষ ও নারীর নয় ব্যাপারটা ক্ষমতাশালী ও ক্ষমতাহীণের দ্বন্দ্ব। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি নামক একটি সংগঠনের ব্যানারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুলতানা কামাল। ফেনীতে আগুনে দগ্ধ নিহত নুসরাতকে নিয়ে আয়োজিত বিতর্ক প্রতিযোগিতা উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল বলেন, বাংলাদেশ অনেক ক্ষেত্রে এগিয়ে গেছে। বিশ্বের বিভিন্ন ফোরামে বাংলাদেশ আজ প্রশংসিত রাষ্ট্র। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেত্রী নারী। জাতীয় সংসদের স্পিকার নারী। কিন্তু তবু নারীর প্রতি সহিংসতা কমেনি। ক্ষোভের সঙ্গে সুলতানা কামাল বলেন, যারা নারী প্রতি সহিংশতায় জড়িত আমি মনে করি তারা অশিক্ষিত ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডবিহীন পরিবার থেকে আসে। পরিবারে যারা সুশিক্ষা পায় তারা কখনোই নিপীড়নের সঙ্গে জড়িত হবে না, হতে পারে না। মানবাধিকার নেত্রী সুলতানা কামাল এসময় অভিযোগ করে বলেন, আমাদের পোশাক শিল্পে আগে আশি ভাগ নারী কাজ করত। এখন তা তেষট্টি শতাংশে নেমে এসেছে। তার কারণ যৌন নিপীড়ন। গার্মেন্টসগুলোতে প্রতিনিয়ত নারীরা নানাভাবে যৌনহেনস্থার শিকার হয়ে থাকে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে তারা নানা সামাজিক কারণে মুখ বুঁজে থাকে ও পরে চাকরি ছেড়ে দেয়। এ অবস্থা চলতে থাকলে আমাদের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্থ হবে।-আলোকিত বাংলাদেশ
প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সিঙ্গাপুর নেয়া হচ্ছে সুবীর নন্দীকে
২৮এপ্রিল,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দীকে সিঙ্গাপুর নেয়া হচ্ছে। আগামীকাল সোমবার (২৯ এপ্রিল) এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরে নেয়া হবে এই শিল্পীকে। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। গেল ১৪ এপ্রিল শ্রীমঙ্গল থেকে ঢাকা ফেরার পথে হৃদরোগে আক্রান্ত হলে সুবীর নন্দীকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএএইচ) ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে নেয়ার কিছুক্ষণ পরে পুনরায় হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। ৩-৪ মিনিটের চেষ্টার পরে হৃদযন্ত্র সচল হলে নন্দিত এই সঙ্গীতশিল্পীকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। এরপর থেকে সুবীর নন্দী সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং সূত্রে আরও জানা গেছে, ১৯ এপ্রিল সন্ধ্যায় গণভবনে সুবীর নন্দীর চিকিৎসার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সঙ্গীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ, তপন চৌধুরী, রফিকুল আলম ও ডা. সামন্তলাল সেন। তারা সুবীর নন্দীর চিকিৎসা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন। এসময় প্রধানমন্ত্রী তাদের জানান, এর আগে ১৯৯৮ সালেও সুবীর নন্দীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সহযোগিতা করেছিলেন তিনি। আলোচনা শেষে প্রধানমন্ত্রী শিল্পীর মেডিকেলের সব কাগজপত্র সিঙ্গাপুরে পাঠানোর জন্য এবং সেখানকার বিশেষজ্ঞদের মতামত নেয়ার জন্য ডা. সামন্তলাল সেনকে নির্দেশ দেন। সে অনুযায়ী ব্যবস্থার অংশ হিসেবেই আগামীকাল সুবীর নন্দীকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হচ্ছে। একুশে পদকপ্রাপ্ত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী ৪০ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। বেতার থেকে টেলিভিশন, তারপর চলচ্চিত্রেও উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। ১৯৮১ সালে তার প্রথম একক অ্যালবাম সুবীর নন্দীর গান ডিসকো রেকর্ডিংয়ের ব্যানারে বাজারে আসে। তবে চলচ্চিত্রে তিনি প্রথম গান করেন ১৯৭৬ সালে আব্দুস সামাদ পরিচালিত সূর্যগ্রহণ চলচ্চিত্রে।
নুসরাত হত্যায় জড়িত ১৬ জনকে শনাক্ত করেছে ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)
২৮এপ্রিল,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত হত্যার সাথে জড়িত ১৬ জনকে সুনির্দিষ্টভাবে শনাক্ত করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। রোববার পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান। একইসঙ্গে তিনি জানান মে মাসেই চার্জশিট দেওয়া হবে। তিনি বলেন, ঘটনার পরিকল্পনা, হত্যা মিশন বাস্তবায়ন, খুনের মিশনে অর্থ ব্যয়সহ নানাভাবে এখন পর্যন্ত ১৬ জনের সংশ্নিষ্টতা পাওয়া গেছে। শিগগিরই দেশব্যাপী চাঞ্চল্য তৈরি করে মে মাসে এ মামলার চার্জশিট দাখিল করা হবে। নুসরাত হত্যার ঘটনায় এই মামলায় আটজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরও চার-পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলাসহ ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে এজাহারভুক্ত সাতজন আসামি রয়েছেন। প্রসঙ্গত, গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে মামলা করেন ওই ছাত্রীর মা। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ২৭ মার্চ সকাল ১০টার দিকে অধ্যক্ষ তার অফিসের পিয়ন নূরুল আমিনের মাধ্যমে ছাত্রীকে ডেকে নেন। পরীক্ষার আধাঘণ্টা আগে প্রশ্নপত্র দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন অধ্যক্ষ। পরে পরিবারের দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার হন অধ্যক্ষ। গত ৬ এপ্রিল সকালে আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় যান নুসরাত জাহান রাফি। সেখানে মাদ্রাসার এক ছাত্রী তাকে জানান, তার বান্ধবী নিশাতকে ছাদের ওপর কে বা কারা মারধর করেছে। এ কথা শুনে রাফি ওই ভবনের চারতলায় ছুটে যান। সেখানে মুখোশ পরা চার-পাঁচজন ছাত্রী তাকে অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে মামলা ও অভিযোগ তুলে নিতে চাপ দেয়। তিনি অস্বীকৃতি জানালে তারা গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আগুনে ঝলসে যাওয়া নুসরাতকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে এবং পরে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় না ফেরার দেশে চলে যান ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি। চিকিৎসকদের প্রাণপণ চেষ্টার পরও তাকে বাঁচানো যায়নি। টানা ১০৮ ঘণ্টা মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে অবশেষে হার মানেন এ ছাত্রী। পরদিন বৃহস্পতিবার স্থানীয় ছাবের সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে সন্ধ্যায় পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় নুসরাতের মরদেহ।
হাঁটাচলা করছেন ওবায়দুল কাদের (ভিডিও)
২৮এপ্রিল,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এখন প্রায় সুস্থ। রবিবার (২৮ এপ্রিল) সকালে তাকে মর্নিং ওয়াক (হাঁটাহাঁটি) করতে দেখা গেছে। মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগের তথ্য কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফয়েজ তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে এমন একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। সেই ভিডিওতে দেখা যায়, ওবায়দুল কাদের সুস্থ ও স্বাভাবিকভাবে হাঁটাচলা করছেন। উল্লেখ্য, গত ৩ মার্চ হঠাৎ অসুস্থ হলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ওবায়দুল কাদের ভর্তি হন। পরে তার হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এরপরে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত ৪ মার্চ তাকে ঢাকা থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। এক মাস চিকিৎসা শেষে গত ৫ এপ্রিল সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল থেকে তাকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়।-আলোকিত বাংলাদেশ
নিম্নচাপ রূপ নিচ্ছে ঘূর্ণিঝড়ে
২৭এপ্রিল,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারত মহাসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। আবহাওয়াবিদদের দেওয়া নাম অনুযায়ী এই ঝড়ের নাম ‘ফনি’। ঝড়টির বর্তমান গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার। আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, ঝড়টি এখন ভারতের অন্ধ্র ও তামিলনাড়ু উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এদিকে, বাংলাদেশ উপকূল থেকে এখনও অনেক দূরে অবস্থান করায় চার সমুদ্র বন্দরে দুই নম্বর সতর্ক সংকেত জারি করেছে আবহাওয়া অফিস। আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। এবারের ঝড়টির নাম ‘ফনি’। তবে বাংলাদেশের উপকূল থেকে এখনও অনেক দূরে রয়েছে। এটি এখন ভারতের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। তবে শেষ পর্যন্ত কোনদিকে যাবে তা এখনই নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। আবহাওয়া অধিদফতর এক সতর্কবার্তায় জানায়, ভারত মহাসাগর ও দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। এটি আরও ঘনীভূত অবস্থায় উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ভারতের অন্ধ্র-তামিলনাড়ু উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ঝড়টি বিকেলের দিকে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৯৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৮৫৫ কিলোমিটার দক্ষিণে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৯২৫ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ১ হাজার ৮৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার- যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঝড়ের কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে। এ কারণে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। এদিকে এক সতর্কবার্তায় বলা হয়, ঝড়ের প্রভাবে রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, পাবনা, বেড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, এবং সিলেট অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, ঝড়ের প্রভাবে ঢাকা, মাদারীপুর, রাঙ্গামাটি, নোয়াখালী, ফেনী, রাজশাহী, যশোর, বাগেরহাট ও পটুয়াখালী অঞ্চলসহ সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে যে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছিল তা কমে যেতে পারে। আজ দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল যশোরে ৩৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া ঢাকায় ৩৬ দশমিক ২, ময়মনসিংহে ৩৪ দশমিক ৮, চট্টগ্রামে ৩৪ দশমিক ২, সিলেট ৩৬ দশমিক ১, রাজশাহীতে ৩৬ দশমিক ২, রংপুরে ৩২ দশমিক ১, খুলনায় ৩৬ এবং বরিশালে ৩৫ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল।
বাংলাদেশ এক দিন বিশ্বকাপ জয় করবে: প্রধানমন্ত্রী
২৭এপ্রিল,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, খেলাধূলায় হারজিত থাকবেই। এতে মন খারাপ করার কিছু নেই। আজ হারলে কাল জিতব- এই কথা মনে রাখতে হবে। জাতির পিতা নিজেকে সেভাবেই গড়ে তুলেছিলেন, সবক্ষেত্রেই হার না মানা একটি মনোভাব ছিল তার। যে কারণে মহান মুক্তিযুদ্ধে আমরা বিজয় অর্জন করেছিলাম। শনিবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৯-এর পুরস্কার বিতরণী ও সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় সরকার প্রধান দেশের ক্রীড়াঙ্গনের প্রতিটি ক্ষেত্রে উৎকর্ষতা অর্জনে কাজ করে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন এবং প্রত্যাশা করেন এক দিন বাংলাদেশ বিশ্বকাপ জিতবে। টুর্নামেন্টে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত খেলোয়াড়, শিক্ষক, সংগঠক, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিসহ আয়োজক সংস্থা সবাইকে অভিনন্দন জানাই। এছাড়া ক্রীড়াঙ্গনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রত্যন্ত অঞ্চলের সবার প্রতি রইলো আন্তরিক শুভেচ্ছা। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ২০০৮ সালে নির্বাচিত হওয়ার পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও দারিদ্র দূর করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। পাশাপাশি ক্রীড়াক্ষেত্রে আমাদের ছেলেমেয়েরা যেন আরো বেশি দক্ষতা অর্জন করতে পারে সেই পদক্ষেপ নিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রতিযোগিতা শুরু করেছি। বঙ্গমাতা প্রাথমিক গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছি। ছেলেদের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজনও হয়েছে। গত ১০ বছরে এখান থেকে দক্ষ ফুটবলার গড়ে উঠেছে। অন্য ক্ষেত্রগুলোতেও আমরা প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা নিয়েছি। তারই অংশ হিসেবে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপ প্রতিযোগিতা আয়োজন। শেখ হাসিনা বলেন, খেলাধুলার সঙ্গে আমাদের পারিবারিক সম্পর্ক। দাদা ফুটবল খেলতেন। বাবাও ফুটবল খেলতেন। শেখ কামাল ও শেখ জামালের স্ত্রী দুজনেই স্পোর্টসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছিল। খেলাধুলার উন্নয়নে প্রত্যেকটা পদক্ষেপ শেখ কামাল নিয়েছিল। ফাইনাল খেলার নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে ড্র হওয়ায় টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জেতে গণবিশ্ববিদ্যালয়।
এখন সময় অনলাইন সংবাদপত্রের: প্রধানমন্ত্রী
২৭এপ্রিল,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: গণমাধ্যমের ক্ষেত্রে অনলাইন সংবাদমাধ্যমের সম্ভাবনার বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এখন চাহিদা হলো অনলাইন সংবাদপত্রের। ব্রুনাই সফর নিয়ে শুক্রবার বিকেলে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন। গণমাধ্যমের বিশেষ করে কাগুজে পত্রিকার খারাপ সময় নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখন যুগের চাহিদা বা প্রযুক্তির চাহিদা হলো অনলাইন সংবাদপত্রের। বিশ্বের অনেক দেশে বড় বড় পত্রিকা বন্ধ হয়ে গেছে। সেগুলো এখন কেবল অনলাইনে আছে। কাগুজে পত্রিকা বের করে না। গণমাধ্যমের খারাপ সময় যাচ্ছে এমন বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে শেখ হাসিনা বলেন, অনেকেই তো এখনো টেলিভিশনের জন্য আবেদন করছেন। আমি বলেছি দিয়ে দাও। এতে চাকরির বাজার বড় হবে। সাংবাদিকদের বেতন কাঠামো তথা ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়ন নিয়ে তিনি বলেন, আমরা ওয়েজবোর্ড করে দিয়েছি। এখন মালিকপক্ষ সেটা কতটা বাস্তবায়ন করবে সেটা তাদের বিষয়।

জাতীয় পাতার আরো খবর