খালেদা জিয়াকে নতুন কারাগারে নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:পুরনো ভবনের স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশ ছেড়ে কেরানীগঞ্জের নতুন কারাগারে নতুন ভবনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাখার খবরে বিএনপির অখুশি হওয়ার কোনো কারণ দেখছেন না আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারকে জাদুঘরে রূপান্তরিত করতে খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জের কারাগারে নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলেও জানান আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক। বুধবার (১৫ মে) সচিবালয়ে ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলীর সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ প্রশ্নের জবাবে একথা জানান। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়া দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে পুরনো কারাগারে বন্দি ছিলেন।
হাইকোর্ট বলেছেন দুধের উপরে প্রতিবেদন দিতে
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:হাইকোর্ট বলেছেন, কোন কোন কোম্পানির দুধে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর উপাদান রয়েছে সেটা আমাদেরকে জানতে হবে। কারণ যদি সেটা আমরা না জানতে পারি তাহলে জনগণকে সচেতন করা যাবে না। জনগণের অধিকার রয়েছে- তার স্বাস্থ্যর জন্য কোনটি ভাল সেটা বেছে নেয়ার। বুধবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন। এর আগে আদালতে বিএসটিআইএর আইনজীবী এম আর হাসান দুধ নিয়ে শাহলিনা ফেরদৌসের করা গবেষণা রিপোর্ট নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেন, এই গবেষণা রিপোর্টে বলা হয়েছে- দুধের ৯৬টি স্যাম্পলের মধ্যে ৯৩টিতে ক্ষতিকর উপাদান পাওয়া গেছে। যা নিয়ে সারাদেশে হইচই পড়ে যায়। কিন্তু এই রিপোর্ট কতটা সঠিক এবং ল্যাবরেটরির নিয়ম কানুন মেনে স্যাম্পলগুলো সংগহ করা হয়েছিল কিনা সেটা জানা দরকার। এর পরে আদালত আগামী ২১ মে শাহলিনা ফেরদৌসকে আদালতে হাজির হয়ে তার গবেষণার বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষকে দুধের উপরে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
ধর্ষণকারীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নিন :নাসিম
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আমরা সব বিষয়ে সফল হলেও একটি বিষয় নিয়ে উদ্বিগ্ন। দেশে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ বেড়ে গেছে। যা বিএনপির চেয়ে ভয়ঙ্কর। তাই আইনমন্ত্রীকে আমি অনুরোধ করছি, ট্রাইব্যুনাল করে এদের বিচার করুন। তিনি বলেন, ৭১র ঘাতকদের যদি ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে বিচার করা যেতে পারে, তাহলে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণকারীদের কেন ট্রাইব্যুনাল করে বিচার করা যাবে না। এরা বিএনপির-জামায়াতের চেয়েও ভয়ঙ্কর। আমি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে বলবো এরা ক্রিমিনাল। এদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নিন। বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিএনপি এখন ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে। যখন কোনো দল রাজনৈতিকভাবে ছিন্নভিন্ন হয়ে পড়ে, তখন ভয় হয়। কোনো দল রাজপথে সক্রিয় না থাকলে ষড়যন্ত্র করে। তাই ভয় পাই। তাদের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিএনপি হত্যা ও ক্যু এবং ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা এসেছে। শুধু তাই নয়, আওয়ামী লীগকেও হত্যা ও ক্যুর মাধ্যমে ক্ষমতা চ্যুত করেছে। তারা রাজপথের পরাজিত সৈনিক। তারা যেকোনো ষড়যন্ত্র করতে পারে। এ জন্য তদের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। সংগঠনের সভাপতি শাহারা বেগম কবরির সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ কামাল চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দিলীপ রায়, প্রচার সম্পাদক আক্তার হোসেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।
বৃহস্পতিবার থেকে লঞ্চের কেবিনের আগাম টিকিট বুকিং শুরু
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঈদে ঘরমুখো নৌ-যাত্রীদের লঞ্চের কেবিনের আগাম টিকিট বুকিং শুরু হচ্ছে আগামীকাল। টিকিট পাওয়া যাবে ১৮ থেকে ২০ রমজান পর্যন্ত। আর বিআইডব্লিউটিসির স্টিমারের টিকিট বুকিং শুরু হতে পারে ১৫ রমজান থেকে। টিকিট কালোবাজারে যাতে না যায় সে ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ। একদিকে তুলনামূলক ভাড়া কম আর অন্যদিকে আরামদায়ক । এসব কারণে বরিশালসহ উপকূলীয় এলাকার বেশিরভাগ মানুষের যাতায়াত নৌ-পথেই। তাই ঢাকা-বরিশাল নৌ-পথে লঞ্চের কেবিনের টিকিট পাওয়া কঠিন। তার ওপর ঈদে থাকে আবার বাড়তি চাহিদা। এ কারণে লঞ্চের কেবিন অগ্রিম বুকিং এ বেশি আগ্রহ থাকে যাত্রীদের। এবার ১০ রমজান থেকে লঞ্চের কেবিনের অগ্রিম টিকিট বুকিং শুরু হবে বলে জানান, এই লঞ্চ মালিক। লঞ্চ মালিক মঞ্জুরুল আহসান ফেরদৌস বলেন, এবার ঈদে আগে আসলে আগে কেবিন পাবে এই ভিত্তিতে স্টক থাকা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি শুরু করা হয়েছে। আর ২০ রমজানের মধ্যে শেষ হবে কেবিনের অগ্রিম টিকিট বুকিং। নিজাম শিপিং লাইনস ম্যানেজার মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন, কেবিনের টিকিট যেন কালোবাজারির হাতে না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখছি।' এদিকে স্টিমারের কেবিন বুকিং ১৫ রোজা থেকে শুরু হতে পারে বলে জানালেন বিআইডব্লিউটিসি'র কর্মকর্তা । বিআইডব্লিউটিসি সহ-মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ আবুল কালাম আজাদ বলেন, 'এবারও ঈদের এক সপ্তাহ পূর্বে বিআইডব্লিউটিসির স্টিমারের সার্ভিস চালু হওয়ার কথা রয়েছে। এবার ঈদে ঢাকা-বরিশাল রুটে মোট ২৪ থেকে ২৫টি লঞ্চ ও ৫টি স্টিমার চলার কথা রয়েছে।
আবারও বাংলাদেশি কর্মী নেবে মালয়েশিয়া
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: আবারও বাংলাদেশি কর্মী নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে মালয়েশিয়া সরকার। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও মানবসম্পদমন্ত্রীর সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীর বৈঠকে এ আশ্বাস পাওয়া গেছে। ৩০ ও ৩১ মে দুই দেশের ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকে বিষয়টি চূড়ান্ত হতে পারে। গতকাল মঙ্গলবার প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মালয়েশিয়ার প্রশাসনিক রাজধানী পুত্রাজায়ায় দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তানশ্রি দাতো সেরি উতামা মহিউদ্দিন ইয়াসিন এবং মানবসম্পদমন্ত্রী তান কুলাসেগারানের সঙ্গে তাদের কার্যালয়ে পৃথক বৈঠক করেন প্রবাসীকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ। বৈঠকে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের শ্রমবাজার শিগগিরই উন্মুক্ত হবে বলে উভয় পক্ষ আশাবাদ ব্যক্ত করে নীতিগতভাবে একমত পোষণ করে। এ সময় মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট নানা বিষয় নিয়েও অর্থবহ আলোচনা হয়। বর্তমানে স্থগিত শ্রমবাজার উন্মুক্তকরণ প্রসঙ্গে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী সফররত প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীকে বলেন, এ বিষয়ে তাদের সরকার সব সময়ই ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করে। শিগগিরই বিষয়টি মালয়েশিয়ার মন্ত্রিপরিষদে উত্থাপন করা হবে। প্রসঙ্গক্রমে মালয়েশিয়ার সরকারের পক্ষ থেকে আগামী ৩০ ও ৩১ মে দুদেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের একটি বৈঠকের প্রস্তাব করা হয়েছে। সেখানেই শ্রমবাজার বিষয়ে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ হবে। ঢাকার বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বৈঠকে উভয় পক্ষই মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অনিয়মিত বিদেশি কর্মীদের হয়রানি ও বঞ্চনাসহ নানা সমস্যার দ্রুত সমাধানে গুরুত্বারোপ করেন। প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের শ্রমবাজার উন্মুক্ত করার লক্ষ্যে দেশটির সঙ্গে আলোচনা করতে প্রবাসীকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ গত শনিবার মালয়েশিয়া সফরে যান। তিনি আগামীকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দেশটিতে অবস্থান করবেন। এ সময়কালে সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে বৈঠক চলবে তার। বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বৈদেশিক শ্রমবাজার মালয়েশিয়া। সেখানে আট মাসেরও বেশি সময় ধরে নতুন কর্মী প্রেরণ বন্ধ আছে।
স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য লন্ডন গেলেন প্রেসিডেন্ট
১৫মে,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:চোখের চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য যুক্তরাজ্য ও জার্মানির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ।সকাল ৯টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে রাষ্ট্রপতি লন্ডনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়েন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে মোমেন বিমানবন্দরে তাকে বিদায় জানান। কূটনৈতিক কোরের ডিন, যুক্তরাজ্য ও জার্মানির দূত, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, মুখ্য সচিব, তিন বাহিনীর প্রধান, আইজিপি ও স্বরাষ্ট্র সচিব এ সময় উপস্থিত ছিলেন। লন্ডনের মুরফিল্ড আই হসপিটালে চোখের চিকিৎসা এবং বুপা ক্রমওয়েল হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাবেন রাষ্ট্রপতি। পরে সেখান থেকে তিনি জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে যাবেন। এই সফর শেষে ২৬ মে রাষ্ট্রপতির দেশে ফেরার কথা রয়েছে বলে তার প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন জানান।
বদলীর তদবীর গ্রাহ্য করা হবে না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী
১৪মে,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকায় আসার জন্য চিকিৎসক-নার্সদের আর কোনো তদবীর গ্রাহ্য করা হবে না।মঙ্গলবার সচিবালয়ের মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সারাদেশের হাসপাতালগুলোর পরিচালকদের সাথে অনুষ্ঠিত সমন্বয় সভায় তিনি এ কথা বলেন।জাহিদ মালেক বলেন, ঢাকার বাইরে থাকা চিকিৎসক ও নার্সদের নানা অজুহাতে ঢাকায় পদায়নের ব্যাপারে নানাভাবে তদবীর করা হয়। এসব তদবীরের কারণে ঢাকার বাইরে থাকা হাসপাতালগুলোতে বর্তমানে চিকিৎসক ও নার্সদের সংকট দেখা যাচ্ছে, যা মোটেও কাম্য নয়।তিনি বলেন, ঢাকার মানুষদের যেমন স্বাস্থ্যসেবা পাওয়ার অধিকার আছে, তেমনি ঢাকার বাইরের মানুষেরও চিকিৎসা সেবা দরকার আছে। সব চিকিৎসক, নার্সরা ঢাকায় আসার জন্য তদবীর করে সফল হলে ঢাকার বাইরে স্বাস্থ্যসেবা ঝুঁকিপূর্ণ হবে। কাজেই ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকায় আসার জন্য চিকিৎসক-নার্সদের আর কোনো তদবীর গ্রাহ্য করা হবে না।স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদ এনডিসি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হবে খালেদাকে
১৪মে,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:বাংলাদেশে কারাবন্দী সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা শেষে হাসপাতাল থেকে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে সরিয়ে নেয়া হবে। কেরানীগঞ্জের কারাগারের ভেতরে স্থাপিত বিশেষ আদালতে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা মামলাগুলোর বিচার কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এর আগে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ নিয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে।এতে বলা হয়েছে, কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে একটি নবনির্মিত ভবনকে অস্থায়ী আদালত হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিট্যাবল ট্রাস্ট মামলায় দণ্ডাদেশ পাওয়া বিএনপি প্রধান এখন ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে স্থানান্তরের ব্যাপারে চিকিৎসকদের ছাড়পত্রের নির্ভর করা হবে।খালেদা জিয়াকে কবে নাগাদ কেরানীগঞ্জ কারাগারে স্থানান্তর করা হতে পারে?এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, তাঁর চিকিৎসা হচ্ছে। ডাক্তার যখন বলবে যে তাঁর চিকিৎসা সম্পন্ন হয়ে গেছে, তখন তাঁকে নিয়ে যাওয়া হবে।আইনমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার সবগুলি মামলা বিশেষ আদালতে ছিল। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশেই। খালেদা জিয়া দোষী সাব্যস্ত করার আগে থেকেই কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশে বিশেষ আদালত স্থানান্তর করে তাঁর বিচার কাজ চলছিল।ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যেহেতু কেরানীগঞ্জে চলে গেছে সেজন্য সেখানে বিচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু হাসপাতাল থেকে কারাগারে নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হলে খালেদা জিয়ার কি কোন স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি তৈরি হতে পারে?আইনমন্ত্রী বলেন, আমরা তো এমন কোন কথা বলি নাই যে কালকেই নিয়ে যাব, কালকেই বিচার শুরু হবে। ডাক্তাররা যতক্ষণ পর্যন্ত ছাড়পত্র না দেবে, ততক্ষণ পর্যন্ত তো আমরা বলি নাই যে তাকে জোর করে নিয়ে যাওয়া হবে।ডাক্তারদের ছাড়পত্রের উপর ভিত্তি করে খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে নিয়ে যাওয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।আইনমন্ত্রী বলেন, কেরানীগঞ্জ কারাগারের ভেতরে আদালত বসানো হয়েছে এবং সেখানেই খালেদা জিয়ার বিচার হবে। খালেদা জিয়াকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তার কি বিশেষ কোন ঝুঁকি তৈরি হয়েছে? এমন প্রশ্নের উত্তরে আইনমন্ত্রী বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ থাক আর না থাক, আমরা কোন ঝুঁকি নিতে চাইনা। ঝুঁকিপূর্ণ এমন কোন তথ্যাদি আমাদের কাছে নাই। কিন্তু আমরা সব ব্যাপারেই সিকিউরিটি কনসার্ন। তিনি বলেন, ঝুঁকি তৈরি হতে পারে এরকম কোন পরিস্থিতির সম্মুখীন সরকার হতে চায়না। আইনমন্ত্রী বলেন, বিচারের সুবিধার্থে এবং নিরাপত্তার বিবেচনায় কেরানীগঞ্জে ইতোমধ্যে একটি ভার্চুয়াল কোর্ট তৈরি করা হয়েছে। সরকার যে ই-জুডিশিয়ারি স্থাপন করছে সেখানে একটি বিধান রাখা হচ্ছে যাতে হাই সিকিউরিটি কারাবন্দীরা কারাগার থেকে সাক্ষ্য দিতে পারে। সে কারণে কেরানীগঞ্জে কারাগারের ভেতরে আদালত স্থাপন করা হয়েছে, বলছিলেন আইনমন্ত্রী। তিনি বলেন , ঢাকা শহরের ভেতরে বর্তমানে কোন কেন্দ্রীয় কারাগার নেই। যেহেতু কেন্দ্রীয় কারাগারটি কেরানীগঞ্জে স্থানান্তর করা হয়েছে সেজন্য খালেদা জিয়াকেও সেখানে স্থানান্তর করা হবে। খালেদা জিয়া একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। ওনাকে মুভ করার জন্য আগেও একটা স্পেশাল কোর্ট ছিল জেলখানার কাছে, বলছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। সূত্র : বিবিসি
মুক্তিযোদ্ধারা কখনো ভুয়া হতে পারে না :হাইকোর্ট
১৪মে,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: মুক্তিযোদ্ধা শব্দের আগে ভুয়া বলে সম্বোধন করা যাবে না বলে নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। যদি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও গণমাধ্যমের কেউ এটা করে তাহলে তাদের তলব করা হবে বলেও হুঁশিয়ার করেছেন আদালত।আজ মঙ্গলবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই সংক্রান্ত বিষয়ে শুনানিতে এই আদেশ দেন। আদালত বলেন, মুক্তিযোদ্ধা সনদ ভুয়া হতে পারে কিন্তু মুক্তিযোদ্ধারা কখনো ভুয়া হতে পারে না। তাই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান করে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা শব্দের ব্যবহার করা যাবে না। একজন ভুয়া সনদধারীর কারণে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের ভুয়া বলা যায় না।এ সময় আদালতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ বি এম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই সংক্রান্ত মামলার শুনানিকালে আদালত বলেছেন, কোনো মুক্তিযোদ্ধাকে ভুয়া বলে সম্বোধন করা যাবে না। যদি সরকারি-বেসরকারি কোনো প্রতিষ্ঠান ও গণমাধ্যম এটা করে তাহলে তলব করা হবে।

জাতীয় পাতার আরো খবর