সাংবাদিকদের আবাসনের জন্য ফ্ল্যাট নির্মাণ করার চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে : তথ্যমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক :তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে অংশ না নিলে ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচনে অংশ না নেয়ার মতই ভুল করবে। তিনি দেশের প্রধানতম বিরোধী দল বিএনপিকে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, তিনি মনে করেন, দলীয়ভাবে অংশগ্রহণ না করলেও বিএনপির অনেক নেতা-কর্মী এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন। বুধবার দুপুরে সচিবালয়ের গণমাধ্যম কেন্দ্রে সচিবালয়ে কর্মরত বিভিন্ন জাতীয় গন মাধ্যমের কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন ‘বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) আয়োজিত ‘বিএসআরএফ সংলাপ’ অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী এ আহবান ও মন্তব্য করেন। সংগঠনের সভাপতি শ্যামল সরকার সঞ্চালনায় সংলাপ অনুষ্ঠানে ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সজ্জন ব্যক্তি। তবে তিনি সুন্দর করে মিথ্যা কথা বলতে পারেন। তিনি দলের মহাসচিব হিসেবে ব্যর্থ হয়েছেন। দলীয় সাধারন সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গত মঙ্গলবার বিএনপির মহাসচিব সম্পর্কে বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সজ্জন। মানুষ হিসেবেও ভালো। ওবায়দুল কাদেরের ওই বক্তব্য উদ্ধৃতি দিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তাকে (মির্জা ফখরুল) সজ্জন ব্যক্তি আমিও বলব। তবে তিনি সুন্দর করে মিথ্য কথা বলতে পারেন। সদ্য সমাপ্ত জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ নিয়ে বিদেশি পর্যবেক্ষকদের অনুশোচনা বিষয়ে রয়টার্সের প্রকাশিত সংবাদের প্রতি তথ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, বিদেশী পর্যবেক্ষকরা তো জনসমক্ষে বলেছেন নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হয়েছে। এখন তারা কার কথা থেকে, বক্তব্য নিয়ে, কোনো পত্রিকা প্রতিবেদন ছাপিয়েছে, তা অনুসন্ধান করা উচিত। নির্বাচন নিয়ে বিএনপি মহাসচিবের সাম্প্রতিক এ মন্তব্যের প্রতি তথ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হলে জবাবে হাছান মাহমুদ চৌধুরী বলেন, এ নির্বাচন বিএনপির জন্যই মহাবিপর্যয়। তিনি আরও বলেন, যে নির্বাচনে তিনি(বিএনপির মহাসচিব) নির্বাচিত হয়েছেন, তাকে মহা বিপর্যয় বলা অন্ততঃ তার শোভা পায় না। তিনি নির্বাচিত হওয়ায় তাঁকে অভিনন্দন। কিন্তু দলের মহাসচিব হিসেবে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন, এটা বাস্তবতা। তথ্যমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, সাংবাদিকদের আবাসনের জন্য ফ্ল্যাট নির্মাণ করার চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। এ ছাড়া নবম ওয়েজবোর্ড দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য কাজ চলছে বলে তিনি জানান।
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিদায়ী নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ এর সাক্ষাত
অনলাইন ডেস্ক :বিদায়ী নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গণভবনে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেছেন। বৈঠকের পরে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে নৌবাহিনী প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ এর ভূমিকার প্রশংসা করেন। এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদও এ সময় তাঁর দায়িত্ব পালনকালে এবং নৌবাহিনীকে শক্তিশালীকরণে প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতার জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রধান হিসেবে ২০১৬ সালের ২৭ জানুয়ারি দায়িত্বভার গ্রহণ করেন এবং গত ২৬ জানুয়ারি ২০১৯ সালে তিনি অবসরে যাচ্ছেন।
ফেব্রুয়ারিতে ইজতেমা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক :তাবলিগ জামাতের প্রতিদ্বন্দ্বী দুই পক্ষের বিবাদ মিটে গেছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, আসছে ফেব্রুয়ারিতে দুই পক্ষ একসাথে বিশ্ব ইজতেমা করতে সম্মত হয়েছে। দুই পক্ষের ‘মুরুব্বিদের’ নিয়ে আজ বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে প্রায় আড়াই ঘণ্টা বৈঠক করার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘তাদের বিরোধ মীমাংসা হয়েছে, এখন আর কোনো বিরোধ নেই। ফেব্রুয়ারি মাসে একসাথে ইজতেমা হবে। আগামীকাল ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর সাথে দুই পক্ষের দুইজন প্রতিনিধি বসে ইজতেমার তারিখ নির্ধারণ করবেন।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বৈঠকে দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভির অনুসারীদের মধ্যে তাবলিগের শূরা সদস্য ইঞ্জিনিয়ার ওয়াসেকুল ইসলাম এবং দেওবন্দপন্থীদের মধ্যে শূরা সদস্য মাওলানা জুবায়ের আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া শোলাকিয়ার ইমাম মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, পুলিশের মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ ও ঢাকার পুলিশ কমিশনার মো: আছাদুজ্জামান মিয়াও উপস্থিত ছিলেন বৈঠকে। বিশ্ব ইজতেমাকে মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম সম্মিলন বলা হয়। প্রতিবছর জানুয়ারি মাসে টঙ্গীতে এ ইজতেমার আয়োজন হলেও তাবলিগ জামাতের নেতৃত্বের দ্বন্দ্বে এবার তা স্থগিত হয়ে যায়।
ঢাকা উত্তরে মেয়র পদে মনোনয়ন ২৬ জানুয়ারি: কাদের
অনলাইন ডেস্ক :ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে আগামী ২৬ জানুয়ারি দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বুধবার দুপুরে রাজধানীর বনানীতে বিআরটিএ কার্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ডিএনসিসিতে মেয়র পদে নতুন করে মনোনয়ন দেয়া হবে। আগের প্রার্থী ফের দলের টিকিট পাবেন কি-না, এটা সংশ্লিষ্ট মনোনয়ন বোর্ড ঠিক করবে। আশা করি সিটি নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। একই দিন সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের আসনে উপ-নির্বাচনে দলের প্রার্থী ঘোষণা করা হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ২৬ জানুয়ারি কিশোরগঞ্জে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের আসনেও উপনির্বাচনের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের আন্দোলনের ডাকে মানুষ সাড়া দেবে না বলে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ৩০ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর মানুষ বিএনপির আন্দোলনে সাড়া দেবে না। মির্জা ফখরুল দলীয় নেতাকর্মীদের আন্দোলনে নামতে বলেছেন। গত ১০ বছর ধরে তাদের আন্দোলনে জনগণ সাড়া দেয়নি। মির্জা ফখরুলের আন্দোলনে জনগণ সাড়া দেবে, এটা দুঃস্বপ্নের নাম। এ সময় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষকে (বিআরটিএ) যে কোনো মূল্যে দুর্নীতিমুক্ত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। বলেন, যারা দুর্নীতি করছেন, ব্যাড প্র্যাকটিস করছেন- দ্রুত সংশোধন হোন। এসব কোনোভাবেই সহ্য করা হবে না। দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সংশোধনের সুযোগ দিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, অনিয়ম-দুর্নীতি কোনোভাবেই সহ্য করা হবে না। বিআরটিএ কর্মকর্তারা যদি বাইরের দালালদের প্রশ্রয় দেন, তা হলে অনিয়ম-দুর্নীতি চলতেই থাকবে। যারা আগে ছিলেন, ব্যাড প্র্যাকটিস করেছেন- আমি তাদের শুধরে নেয়ার অনুরোধ করব। অনিয়ম-দুর্নীতি যে কোনো মূল্যে বন্ধ করতে হবে। এ সময় বিআরটিএকে জনবান্ধব ও হয়রানিমুক্ত একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেখতে চান বলেও জানান ওবায়দুল কাদের। বিআরটিএ নতুনভাবে যাত্রা করুক এমন আহবান জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, আমরা চেষ্টা করে অনেক হয়রানি কমিয়েছি। এটা আরও কমিয়ে আনতে হবে। কর্মকর্তারা যদি দালালদের পাত্তা না দেন, তাহলে কমে যাবে। জনবল সংকট ছিল, এটা অনেকটা বাড়ানো হয়েছে। বিআরটিএকে গতিশীল প্রতিষ্ঠান করতে যা প্রয়োজন, তা করবো।
শীর্ষ চিন্তাবিদদের তালিকায় শেখ হাসিনা
অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বের শীর্ষ ১০০ চিন্তাবিদের তালিকায় স্থান পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ১০ বছরে বিশ্বের সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ১০টি বিভাগে ১০ জন করে এই তালিকায় স্থান পেয়েছেন। প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বিভাগে ১০ জনের মধ্যে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের পরেই রয়েছেন শেখ হাসিনা। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সহযোগী ভ্লাদিস্লাভ সুরকভের অবস্থান অষ্টম আর শেখ হাসিনার অবস্থান নবম। যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত সাময়িকী দ্য ফরেন পলিসি এই তালিকা তৈরি করেছে। প্রতিষ্ঠানটি গত ১০ বছর ধরে বিশ্বের শীর্ষ চিন্তাবিদদের তালিকা প্রকাশ করে আসছে। প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বিভাগে সবার ওপর স্থান পেয়েছেন ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার কাসেম সুলাইমানি। এরপর যথাক্রমে জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী উর্সুলা ভন দের লেয়ান, মেক্সিকোর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ওলগা সানজেন করডিরো, ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ, স্পেসএকক্স-এর প্রেসিডেন্ট গুয়েনে শটওয়েল, প্যালানটায়ার-এর প্রতিষ্ঠাতা অ্যালেক্স কার্প, বেলিংক্যাট-এর প্রতিষ্ঠাতা ইলিয়ট হিগিংস, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সহযোগী ভ্লাদিস্লাভ সুরকভ, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ইন্দোনেশিয়ার সমুদ্র ও মৎস্য বিষয়ক মন্ত্রী সুশি পুদজিয়াৎসুরি। এছাড়া পাঠকের পছন্দের তালিকায় ১০ জনের মধ্যে স্থান পেয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ফরেন পলিসি শেখ হাসিনার সম্পর্কে বলছে, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ নিরাপত্তা খাতে বড় বড় ঝুঁকি মোকাবেলা করেছে। এছাড়া তিনি প্রায় ৭ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে নিজের মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। শীর্ষ ১০০ চিন্তাবিদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা, উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানসহ অনেকেই রয়েছেন।
আজ বসছে পদ্মাসেতুর ষষ্ঠ স্প্যান
অনলাইন ডেস্ক: দীর্ঘ ৬ মাস পর আজ বুধবার (২৩ জানুয়ারি) বসছে স্বপ্নের পদ্মাসেতুর ষষ্ঠ স্প্যান। আগের ৫টির সঙ্গেই জাজিরা প্রান্তে বসানো হবে এটি। স্প্যানটি মাওয়ার ইয়ার্ড থেকে মঙ্গলবার সকালে রওয়ানা হয়ে বিকেলে জাজিরা প্রান্তের নির্ধারিত পিলারের কাছে পৌঁছায়। এটি বসানো হলে একসঙ্গে দৃশ্যমান হবে প্রায় এক কিলোমিটার সেতু। এদিকে সব কিছু প্রস্তুত থাকলেও শুকনো মৌসুমে নদীর নাব্য সঙ্কটের কারণে স্প্যান বসাতে সময় লাগছে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প পরিচালক। নদীর জাজিরা প্রান্তে আগের ৫টি স্প্যান মিলে বর্তমানে দৃশ্যমান ৭৫০ মিটার পদ্মা সেতু। কাজ শুরুর পর ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর নদীতে ৩৭ এবং ৩৮ নম্বর পিলারে বসানো হয়েছিলো প্রথম স্প্যান। এরপর ক্রমান্বয়ে জাজিরা প্রান্তের দিকে এগিয়ে গত বছরের জুন মাসে সবশেষ ৪২ নম্বর পিলারে ৫ম স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে পাড়ের সাথে সংযোগ ঘটে পদ্মা সেতুর। ফলে ৬টি পিলার মিলে একটি মডিউলের কাজ পুরো শেষ হয়। প্রথম স্প্যানটির সাথে এখন ৩৬ ও ৩৭ নম্বর পিলারের মধ্যে বসানো হবে ৬ষ্ঠ স্প্যান। এ দুটো পিলারে যে স্প্যানটি বসবে মাসখানেক আগ থেকেই ধূসর রং করা শেষে সেটি অপেক্ষমাণ রাখা হয় মাওয়া ইয়ার্ডের বাইরে। মঙ্গলবার সকালে শুরু হয় এটিকে প্রায় ৫ কিলোমিটার দুরের জাজিরা প্রান্তে নির্ধারিত পিলারের কাছে নিয়ে যাওয়ার কাজ। প্রায় ৩ হাজার মেট্রিক টন ওজনের, ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের স্প্যানটি পরিবহন করছে ৩ হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ওজন বহনে সক্ষম বিশ্বের সর্বাধুনিক ক্রেন। নদীতে পলি জমে তলদেশের গভীরতা কমে যাওয়ায় ড্রেজিং করে নদীর গভীরতা বাড়াতে হয়েছে বলে স্প্যান বসানোর এ বিলম্ব বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। এখন পর্যন্ত মূল সেতুর কাজে অগ্রগতি হয়েছে ৬৩ ভাগ। সেতুতে ৬ষ্ঠ স্প্যান যোগ হলে সেখানে আরও একধাপ অগ্রগতি হবে।
২৮ ফেব্রুয়ারি মেয়র পদে উপ-নির্বাচন ঢাকা উত্তর সিটিতে
অনলাইন ডেস্ক: ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে মেয়র পদে উপ-নির্বাচন এবং দুই সিটির সম্প্রসারিত অংশের ৩৬টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ৩০ জানুয়ারি, বাছাই ২ ফেব্রুয়ারি ও প্রত্যাহার ৯ ফেব্রুয়ারি। একই দিনে কিশোরগঞ্জ-১ আসনে সাধারণ নির্বাচনের জন্য ভোটের তারিখ রেখে তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার বিকেলে নির্বাচন কমিশন সভা শেষে কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এ দুই নির্বাচনের বিস্তারিত সময়সূচি সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন। এ সময় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যুতে কিশোরগঞ্জ-১ আসনে ২৮ ফেব্রুয়ারি পুনর্নির্বাচন হবে। এবার ৫টি ধাপে উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে, প্রথম ধাপে ৮ অথবা ৯ মার্চ উপজেলা নির্বাচন শুরু হবে।
প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ গুণগত মান বজায় রেখে: প্রধানমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: নজরদারি বৃদ্ধির মাধ্যমে গুণগত মান বজায় রেখে বিভিন্ন প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর শের-ই-বাংলা নগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় স্বাগত বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের মাধ্যমে টানা তৃতীয় বারের মতো সরকার গঠন করার পর এটিই ছিল প্রধানমন্ত্রীর প্রথম একনেক সভা। শেখ হাসিনা বলেন, সরকারে ধারাবাহিকতা থাকায় এবং সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিকতা ও সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে আওয়ামী লীগের গত দু মেয়াদে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন ও অগ্রগতি হয়েছে। অনেকগুলো নতুন প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে বিশেষ করে গত মেয়াদের শেষের দিকে, যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী। এসব প্রকল্পগুলোর গুণগত মান বজায় রেখে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, দেশের সাধারণ মানুষের জীবনমান উন্নয়নে আপনাদের সবাইকে আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে। কেননা দেশের ওই সাধারণ মানুষগুলোই গত জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ওপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছে। এ প্রসঙ্গে তৃণমূল মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন ও দ্রুততার সাথে দারিদ্র্য দূর করার পরিকল্পনা গ্রহণের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন প্রধানমন্ত্রী। টানা তৃতীয়বার ও চতুর্থবার নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানান, আগামী পাঁচ বছরের জন্য নির্বাচিত হবার পরই তার মন্ত্রিসভাকে সরকারের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যগুলো সম্পর্কে অবহিত করেন। ইতিমধ্যে ৭.৮৬ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। আগামীতেও উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। এ লক্ষ্যে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ, যাচাই-বাছাই ও যথাযথভাবে বাস্তবায়নের জন্য সতর্কতা অবলম্বনের পাশাপাশি নজরদারির বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।-ইউএনবি
পৌনে ২ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প পাস প্রথম একনেকে
অনলাইন ডেস্ক: নতুন সরকারের প্রথম জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ৮টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে মোট ব্যয় হবে ১ হাজার ৮৯৩ কোটি ২২ লাখ টাকা। মঙ্গলবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় প্রকল্পগুলোর অনুমোদন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারে ধারাবাহিকতা থাকায় এবং সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিকতা ও সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে আওয়ামী লীগের গত দু মেয়াদে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন ও অগ্রগতি হয়েছে। এসব প্রকল্পের গুণগত মান বজায় রেখে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। একনেক সভা শেষে প্রকল্পগুলো নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, আজকের সভায় ৮ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১ হাজার ৮৯৩ কোটি ২২ লাখ টাকা। ব্যয়ের পুরোটাই সরকারি অর্থায়নে করা হবে। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, সাধারণ অর্থনৈতিক বিভাগের সদস্য ড. শামসুল ইসলাম প্রমুখ।

জাতীয় পাতার আরো খবর