নির্বাচনী ইশতেহারে পরিবর্তনের অঙ্গীকার বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের
অনলাইন ডেস্ক: পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে চূড়ান্ত হচ্ছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহার। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বরের পর যে কোনদিন জোটের নির্বাচনী প্রতিশ্রতি জাতির সামনে তুলে ধরার কথা জানিয়েছেন ফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা। বিএনপির ভিশন টুয়েন্টি থার্টির আলোকেই চূড়ান্ত হয়েছে ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারে। নতুন ভোটার আকর্ষণের পাশাপাশি শিক্ষিত বয়স্কদের জন্য ইশতেহারে নানা উদ্যোগের কথা থাকবে বলে জানা গেছে। একাদশ সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলকে নিয়ে জোট গঠনের চমকের পর এবার নির্বাচনী ইশতেহারেও চমক দিতে চায় বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। নতুন বাংলাদেশ বিনির্মাণের ঘোষণার পাশাপাশি ভোটারদের আকৃষ্ট করতে ইশতেহারে নতুন ভাবনা ও নানা উদ্যোগের প্রতিশ্রতি দিয়ে খসড়া তৈরি শেষ হয়েছে। বিষয়বস্তু চূড়ান্ত করতে এখন চলছে ফ্রন্টের শরিকদলগুলোর মধ্যে আলোচনা। মূলত বিএনপির ভিশন টুয়েন্টি থার্টির আলোকেই তৈরি হচ্ছে ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার। দেশের মালিক জনগণ, জনগণ চায় পরিবর্তন এমন স্লোগানকে সামনে রেখে নিজেদের ভবিষ্যত কর্মপন্থা তুলে ধরতে যাচ্ছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা। ইশতেহারে কৃষির উন্নয়ন, দ্রব্যমূল্য ও মজুরি নির্ধারণ, বিচার ব্যবস্থার সংস্কার, আইনশৃংখলা বাহিনীর জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা, বেকার সমস্যা দূর, স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নকে দেয়া হয়েছে বিশেষ গুরুত্ব। থাকছে সকল ক্ষেত্রে মহিলাদের প্রনিধিত্ব বাড়ানো, প্রবাসী শ্রমিকদের ইন্সুরেন্স সুবিধা, সংবিধান সংস্কারের প্রতিশ্রতি। নতুন ভোটারদের আকর্ষণ করতে প্রস্তাবনায় চমক হিসেবে চাকরিতে প্রবেশে বয়সসীমা তুলে দেয়ার প্রতিশ্রতি থাকবে বলে জানান ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার প্রণয়ন কমিটির প্রধান। শীর্ষ নেতারা জানান, দুর্নীতি বন্ধে কঠোর হুশিয়ারি থাকবে ইশতেহারে। তবে, বড় কোন প্রকল্প বন্ধ করার বিপক্ষে তারা। ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণের পক্ষে ফ্রন্টের অনেক নেতা। পুরো দেশকে ১০ থেকে ১৭টি রাজ্যে ভাগ, পরপর দুই মেয়াদে দায়িত্বের পর আর প্রধানমন্ত্রী পদে না থাকার বিধানও চালুর পক্ষে ফ্রন্টের কেউ কেউ। নির্বাচনী ভাবনা নিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে যাওয়ারও চিন্তা করছেন ফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা।
শক্ত ভীতের ওপর দাঁড়িয়েছে অর্থনীতি: প্রধানমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক: সমাজকে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতিমুক্ত করে গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশাসন ক্যাডারের নবীন কর্মকর্তাদের সততা, নিষ্ঠা এবং আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন। শেখ হাসিনা বলেন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির হাত থেকে সমাজকে মুক্ত রাখতে হবে। যে যখন যেখানে দায়িত্ব পালন করবেন এই বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। এগুলো একটি সমাজ ও পরিবারকে ধ্বংস করে দেয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা এটুকু বলতে পারি বাংলাদেশ যথেষ্ট দক্ষতার সাথে তা নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছে। কিন্তু এই অভিযান অব্যাহত রেখে দেশকে সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সকালে রাজধানীর শাহবাগস্থ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমিতে ১০৭, ১০৮ ও ১০৯তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে একথা বলেন। তিনি বলেন, আমি এমন জায়গায় দেশকে রেখে যাচ্ছি যেন বাংলাদেশকে আর পেছন ফিরে তাকাতে না হয়। সামনের দিকে যে অগ্রযাত্রা শুরু হয়েছে সে অগ্রযাত্রা যেন অব্যাহত থাকে। কর্মপরিবেশ সৃষ্টি করাই তাঁর সরকারের লক্ষ্য উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বর্তমান সরকারের মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ার প্রসঙ্গ টেনে বলেন,এই যে দিক নির্দেশনাগুলো দিয়ে গেলাম সেগুলো অন্তত যদি অনুসরণ করা হয় তাহলে যারা দায়িত্ব পালন করবেন তাদের জন্য যেমন সুযোগ সৃষ্টি হবে তেমনি দেশের মানুষের আরো উন্নত জীবন নিশ্চিত হবে। প্রধানমন্ত্রী এ সময় সরকারি কর্মচারিদের বেতন-ভাতা এবং সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, এটা আমরা এজন্যই করেছি যেন দেশের সেবাটা আপনারা ভালোভাবে করতে পারেন। তিনি এই বেতন-ভাতা বৃদ্ধিকে পৃথিবীতে নজীরবিহীন উল্লেখ করে বলেন, তাঁর দেশের অর্থনীতিটা একটা শক্ত ভীতের ওপর দাঁড়িয়েছে বলেই এগুলো করা সম্ভব হয়েছে। তিনি হলুদ সাংবাদিকতার সমালোচনা করে বলেন, পত্রিকায় এটা ওটা লেখা হয়, আর আমাদের অনেকেই সেটা নিয়ে ঘাবড়িয়ে যায়। আমি অন্তত এটুকু বলতে পারি রাষ্ট্র পরিচলনায় পত্রিকার লেখা পড়ে গাইড লাইন গ্রহণ করি না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি গ্রহণ করি আমাদের নিজস্ব চিন্তা-ভাবনা এবং নিজস্ব পরিকল্পনা। কে কি বললো সেটা শুনে রিঅ্যাক্ট করার চিন্তাতেই আমি বিশ্বাস করি না। তবে, পত্রিকা থেকে তিনি খবর এবং তথ্য সংগ্রহ করে থাকেন বলেও ইঙ্গিত দেন। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, দেশটা আমার, আমার দেশকে আমি চিনি, আমি জানি দেশের জন্য কোনটা ভালো হবে। আর যেহেতু রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বে আছি তখন অবশ্যই জানবো কোথায় কি সমস্যা আছে, কোথায় কি করতে হবে। জন প্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক এবং জন প্রশাসন সচিব ফয়েজ আহমেদ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন। সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমির রেক্টর মোশাররফ হোসেন অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দেন। ১০৭, ১০৮ও ১০৯তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের রেক্টর পদক বিজয়ী শ.ম. আজহারুল ইসলাম সনেট, শরিফ আসিফ রহমান এবং মো. মোশাররফ হোসেন অনুষ্ঠানে নিজস্ব অনুভূতি ব্যক্ত করেন। প্রধানমন্ত্রী কোর্স সম্পন্নকারীদের মধ্যে সনদ বিতরণ ছাড়াও তাঁদের সঙ্গে ফটো সেশনে অংশগ্রহণ করেন এবং তিনটি ব্যাচের স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচন করেন। প্রধানমন্ত্রী পরে সিভিল প্রশাসনের নবীন কর্মকর্তাদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন এবং বিসিএস প্রশিক্ষণ একাডেমির নবনির্মিত প্রশাসনিক ভবনের উদ্বোধন করেন।
ভিকারুননিসায় ছাত্রী-অভিভাবকদের আন্দোলন স্থগিত
অনলাইন ডেস্ক: ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় ছাত্রী-অভিভাবকদের আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। আগামীকাল শুক্রবার থেকে পরীক্ষা দেবে এবং ক্লাসে ফিরে যাবে তারা। বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) বিকেল পৌনে ৫টার দিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেয়। এর আগে প্রায় দুই ঘণ্টা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষকরা আলোচনা করেন। তবে দীর্ঘক্ষণ স্কুলের ভেতর থেকে বের না হওয়ায় বাইরে অপেক্ষমাণ অভিভাবকরা ক্ষেপে গিয়ে জোর করে গেটের ভেতর ঢুকে পড়েন। পরে শিক্ষার্থীরা বের হয়ে জানায়, তাদেরকে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে নিষেধ করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা জানায়, তাদের ছয় দফা দাবির মধ্যে স্কুল কর্তৃপক্ষের আয়ত্তের মধ্যে যেগুলো তা বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন শিক্ষকেরা। আর অন্যান্য দাবি যেগুলো আইনি প্রক্রিয়ায় চলছে তা নিয়ে শিক্ষার্থীদের বলার কিছু নেই। দাবি মেনে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়ার কারণেই শিক্ষার্থীরা শুক্রবার থেকে পরীক্ষা দেবে। এর আগে আজ দুপুরের দিকে গণমাধ্যমের কাছে অরিত্রীর মা-বাবার কাছে পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার ক্ষমা চান। তিনি বলেন, ‘আমরা মর্মাহত। আমরা এ ঘটনায় জন্য অরিত্রীর বাবা-মায়ের কাছে ক্ষমা চাই। অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় আজ তৃতীয় দিনের মতো ছাত্রীরা বেইলি রোডের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মূল ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে। ছাত্রীরা জানায়, তারা যে ছয় দফা দাবি জানিয়েছে, তার মধ্যে কিছু বিষয়ে অগ্রগতি হয়েছে। এতে তারা সন্তুষ্ট। বাকি দাবিগুলোরও বাস্তবায়ন চায় তারা।
গ্রেফতার শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনা কারাগারে
অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রী অধিকারীকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় গ্রেফতার শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গতকাল বুধবার (৫ ডিসেম্বর) রাতে উত্তরা থেকে গ্রেফতারের পর বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে তাকে ঢাকা মুখ্য নগর হাকিম আদালতে হাজির করা হলে শুনানি শেষে বিচারক হাসনা হেনাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের পূর্ব বিভাগের ডিসি খন্দকার নুরুন নবী গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। গত মঙ্গলবার রাতে শিক্ষার্থী অরিত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় পল্টন থানায় মামলা করেন তার বাবা। আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে হওয়া মামলায় ভিকারুননিসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতি শাখার প্রধান জিনাত আরা এবং শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনাকে আসামি করা হয়। পরে বুধবার সন্ধ্যায় ভিকারুননিসা স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির এক জরুরি সভায় ওই তিনজনকে স্কুল থেকে বরখাস্ত করা হয়।
বিশ্বের ২৬তম প্রভাবশালী নারী শেখ হাসিনা
অনলাইন ডেস্ক: ফোর্বস ম্যাগাজিনের ২০১৮র তালিকায় বিশ্বের ১শ জন প্রভাবশালী নারীর মধ্যে চারধাপ এগিয়ে ২৬তম স্থানে উঠে এসেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার প্রকাশিত এই তালিকায় অষ্টমবারের মতো শীর্ষে রয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর এঞ্জেলা মার্কেল। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিসা মে এবং আইএমএফ প্রধান ক্রিস্টন লগার্দ যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছেন। ম্যাগাজিনের এক প্রতিবেদনে শেখ হাসিনার সম্পর্কে বলা হয়, ২০১৭ সালে শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের সহযোগিতা এবং তাদের জন্য ২ হাজার একর ভূমি বরাদ্দ দেন। তিনি এখন রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে নিরাপদ পুনর্বাসনে কাজ করে যাচ্ছেন। এর আগে শেখ হাসিনা ২০১৭ সালে ৩০তম, ২০১৬ সালে ৩৬তম এবং ২০১৫ সালে ৫৯তম অবস্থানে ছিলেন। ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকায় চতুর্থ স্থানে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জেনারেল মটরসের সিইও মারি বাররা, পঞ্চম স্থানে ফিডেলিটি ইনভেস্টমেন্টের সিইও আবিগেইল জনসন, সপ্তম স্থানে ইউ টিউব সিইও সুজান ওজস্কি এবং বানকো সানটানডার সভাপতি ও নির্বাহী পরিচালক আনা পেট্রিসিয়া বোটিন রয়েছেন অষ্টম স্থানে। এরপর লকহিড মার্টিন সিইও ম্যারিলাইন হিউসন নবম এবং আইবিএম সিইও গিননি রোমেট্টি দশম স্থানে রয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কন্যা ইভানকা ট্রাম্পের স্থান হচ্ছে ২৪তম। তবে গত ৩৩ বছরে এই প্রথম মিয়ানমারের অং সান সুচি ফোর্বস তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন।
পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেছেন ভিকারুননিসা স্কুলের শিক্ষকরা
অনলাইন ডেস্ক: নিজের সামনে বাবা-মাকে অপমানের ধকল সইতে না পেরে নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীর (১৫) আত্মহত্যার ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেছেন ভিকারুননিসা স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষকরা। এদিকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলার পর মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনাকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। বেইলি রোডে প্রতিষ্ঠানটির মূল ক্যাম্পাসে এ বৈঠক চলছে। আজিমপুর, বসুন্ধরা ও ধানমন্ডি শাখার শিক্ষকরাও বৈঠকে যোগ দিয়েছেন। বিভিন্ন শাখা মিলে এ প্রতিষ্ঠানে ৮ শতাধিক শিক্ষক রয়েছেন। দুই শতাধিক শিক্ষক বৈঠকে উপস্থিত আছেন বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবারের এ বৈঠকে গ্রেপ্তার শিক্ষক হাসনা হেনার মুক্তি, নতুন করে কাউকে গ্রেপ্তার না করার বিষয়ে আলোচনা হতে পারে বলে জানা গেছে। খুরশিদ জাহান মালা নামে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক শিক্ষক এ বৈঠকের বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি বলছেন, আমরা নানাভাবে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দ্বারা লাঞ্ছিত হচ্ছি। আমরা শিক্ষার্থীদের মানুষ করি অথচ আমাদের হত্যাকারী বলে ধিক্কার দেওয়া হচ্ছে। ঘর-সংসার রেখে আমরা শিক্ষার্থীদের মানুষ করার দায়িত্ব পালন করি। এদিকে আজ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি আগের দিনের চেয়ে কম। তবে আর আন্দোলনে নামার পক্ষে নন অনেক অভিভাবক। তারা বলছেন, আমাদের দাবি পূরণ হয়েছে। নতুন করে এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সুনাম নষ্ট করতে চাই না। আমরা সবাই মিলে প্রতিষ্ঠানটি গুছিয়ে নিতে চাই। প্রসঙ্গত, অরিত্রীর বিরুদ্ধে স্কুল কর্তৃপক্ষ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নকলের অভিযোগ এনেছিল। এজন্য অরিত্রীর মা-বাবাকে ডেকে নেন ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ। এই ঘটনার জেরে বাসায় এসে অরিত্রী আত্মহত্যা করে। পুলিশ ও পরিবারের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজধানীর শান্তিনগরে সাত তলা ভবনের সপ্তম তলায় নিজেদের ফ্ল্যাটে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় অরিত্রীকে পাওয়া যায়। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হলে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে চিকিৎসকরা অরিত্রীকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার পর মঙ্গলবার রাত ১০টায় রাজধানীর পল্টন থানায় ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতী শাখার প্রধান জিনাত আক্তার ও শ্রেণি শিক্ষিকা হাসনা হেনার বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচণার মামলা দায়ের করেন অরিত্রির বাবা। এরপর শিক্ষামন্ত্রণালয় ওই তিন শিক্ষককে বরখাস্তোর নির্দেশ দেয়। গতকাল রাতে গ্রেপ্তার হন হাসনা হেনা।
যুদ্ধকালীন বাংলাদেশ সরকারকে স্বীকৃতি দিলভারত
অনলাইন ডেস্ক: ১৯৭১ সালের আজকের দিনে বাংলাদেশের রণাঙ্গনের অবস্থা আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। মিত্রবাহিনীর আক্রমণে দিশেহারা হানাদার বাহিনী সূর্য ওঠার আগেই বিভিন্ন সীমান্ত ঘাঁটি থেকে পালাতে শুরু করে। আর ভারত স্বাধীন বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়। এদিকে বাংলাদেশের স্বীকৃতি নিয়ে কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকায় ৭ ডিসেম্বর প্রকাশিত সম্পাদকীয়তে লেখা হয় স্বীকৃতির তিলক বাংলাদেশের ললাটে। বাংলাদেশের আজ বিচলিত হওয়ার কিছু নাই। সূর্যোদয়কে যাহারা অস্বীকার করে, তাহারা অন্ধ মাত্র, অস্বীকৃতির দৃষ্টিহীনতা সকালের রশ্মিজলকে মিথ্যা করিয়া দিতে পারে না। এদিনে মিত্রবাহিনী আকাশ থেকে অবাধ গতিতে বিমান আক্রমণ চালায়। বঙ্গোপসাগরে ভারতের নৌবাহিনী সৃষ্টি করে নৌ-অবরোধ। আজকের এ দিনে ফেনী মুক্ত হয়। দশম ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট ও সাবসেক্টরের মুক্তিযোদ্ধারা কর্নেল জাফর ইমামের নেতৃত্বে ফেনী মুক্ত করেন। মেজর জলিলের নেতৃত্বাধীন মুক্তিযোদ্ধারা সাতক্ষীরা মুক্ত করে খুলনার দিকে অগ্রসর হতে থাকে। ঝিনাইগাতীর আহম্মদ নগর হানাদার বাহিনীর ঘাঁটি আক্রমণ করেন কোম্পানি কমান্ডার মো. রহমতুল্লাহ। পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও মুক্ত করে সেদিন বীরগঞ্জ ও খানসামার পাক অবস্থানের দিকে এগিয়ে চলছিল মুক্তিবাহিনী ও মিত্রবাহিনী। এদিকে লাকসাম, আখাউড়া, চৌদ্দগ্রাম, হিলিতে মুক্তিবাহিনী দৃঢ় অবস্থান নেয়। রাতে আখাউড়া ও সিলেটের শমসেরনগর যৌথবাহিনীর অধিকারে আসে। আর যৌথবাহিনী পায়ে হেঁটে ঝিনাইদহ পৌঁছে এবং শহরটি মুক্ত করে। এদিকে স্বীকৃতি পেয়ে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে জাতির উদ্দেশে এক বেতার ভাষণে অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম মিত্ররাষ্ট্র ভারতের জওয়ানদের অভিনন্দন জানান। অন্যদিকে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়ায় ভারতের সঙ্গে তাৎক্ষণিক কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে পাকিস্তান। আর ভারতে মার্কিন অর্থনৈতিক সাহায্য বন্ধ হয়ে যায়। মুক্তিযুদ্ধের এই দিনে হানাদার মুক্ত হয় যশোর ও কুড়িগ্রাম। প্রথম কোনো জেলা শহর হিসেবে যশোরই প্রথম হানাদার মুক্ত হয়। মুক্তিযোদ্ধা আর ভারতীয় বাহিনীর যৌথ আক্রমণে যশোর ক্যান্টনমেন্ট ছেড়ে পালিয়ে যায় পাকিস্তান বাহিনী। ক্যান্টনমেন্ট ত্যাগ করে তারা খুলনার শিরোমনিতে অবস্থান নেয়। পাক হানাদার বাহিনী যশোর ক্যান্টনমেন্ট ছেড়ে যাওয়ার ফলে এই দিন যশোর শত্রুমুক্ত হয়। এই দিনে শত্রুমুক্ত হয় কুড়িগ্রাম জেলা। এই অঞ্চলে মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদান রাখার জন্য শহীদ লেফটেন্যান্ট আশফাকুস সামাদ বীরউত্তম (মরণোত্তর) খেতাব পান। বীরবিক্রম খেতাব অর্জন করেন- শওকত আলী এবং সৈয়দ মনসুর আলী টুংকু। বীরপ্রতীক খেতাব পান বদরুজ্জামান, আব্দুল হাই সরকার, আবদুল আজীজ এবং তারামন বিবি। ঢাকা টাইমস
বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের দ্বিতীয় বোয়িং ড্রিমলাইনার পরিদর্শন প্রধানমন্ত্রীর
অনলাইন ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের দ্বিতীয় বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার পরিদর্শন করেন। প্রধানমন্ত্রী বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টারমাকে হংসবলাকা নামের এই বিমান পরিদর্শন ও এতে আরোহণ করেন। তিনি ককপিটসহ বিমানটির বিভিন্ন অংশ ঘুরে ঘুরে দেখেন ও কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় জাতির অব্যাহত সুখ, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ কামনা করে মোনাজাত করা হয়। বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল, মন্ত্রণালয়টির জাতীয় সংসদে স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান মুহাম্মাদ ফারুক খান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও বিমানের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। নতুন এই বিমান ১ ডিসেম্বর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে এবং প্রধানমন্ত্রী এর নাম দেন হংসবলাকা। যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটেলের বোয়িং ফ্যাক্টরি থেকে টানা ১৫ ঘণ্টা উড্ডয়নের পর বিমানটি ১ ডিসেম্বর রাত ১১টা ৪০ মিনিটে শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছে। এর আগে ২৯ নভেম্বর সিয়াটলে বোয়িং কর্তৃপক্ষ বিমানের পরিচালক (ফ্লাইট অপারেশন) ক্যাপ্টেন ফারহাত হাসান জামিলের কাছে নতুন এই বোয়িং ড্রিমলাইনারের স্বত্ব হস্তান্তর করে। এই নতুন বিমান ১০ ডিসেম্বর ঢাকা-লন্ডন রুটে প্রথম যাত্রা করবে। এর আগে আকাশবীণা নামে প্রথম ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার ১৯ আগস্ট বাংলাদেশে পৌঁছে। আধুনিক মডেলের এই বিমানের মাধ্যমে বিমান পরিবহনে নতুন যুগের সূচনা হয়। ১ সেপ্টেম্বর বিমানটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। বিমান কর্মকর্তারা জানান, ১০ ডিসেম্বর থেকে এই দুই ড্রিমলাইনার সপ্তাহে ঢাকা-লন্ডন রুটে ৬টি, ঢাকা-দাম্মাম রুটে ৪টি এবং ঢাকা-ব্যাংকক রুটে ৩টি ফ্লাইট পরিচালনা করবে। অন্যান্য বিমানের চেয়ে ২০ শতাংশ জ্বালানি সাশ্রয়ী ২৭১ আসনের এই বোয়িং ঘণ্টায় ৬৫০ মাইল গতিতে একটানা ১৬ ঘণ্টা উড্ডয়ন করতে পারে। এতে ৪৩ হাজার ফুট উঁচুতেও ওয়াইফাইয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। ২০০৮ সালে বাংলাদেশ ও বোয়িংয়ের মধ্যে ২.১ বিলিয়ন ডলারে ১০টি নতুন ড্রিমলাইনার কেনার চুক্তি হয়। এর মধ্যে ৭৭৭-৩০০ইআর-এর ৪টি, ৭৩৭-৮০০-এর দুটি হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া আরো দুটি ড্রিমলাইনার রাজহংস ও শঙ্খচিল আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিমানবহরে যুক্ত হবে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান।
প্রার্থিতা ফিরে পেতে তিনদিনে ৫৪৩ জন আপিল করেছেন: ইসি সচিব
অনলাইন ডেস্ক: মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে প্রার্থিতা ফিরে পেতে তিনদিনে ৫৪৩ জন আপিল করেছেন। প্রথম দিনে ৮৪, দ্বিতীয় দিনে ২৩৭ ও তৃতীয় দিনে ২২২ টি আবেদন নির্বাচন কমিশনে (ইসি) জমা পড়ে। আজ বুধবার সন্ধ্যায় নির্বাচন ভবনে এসব তথ্য দেন ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। ইসি সচিব বলেন, ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বর প্রার্থীদের আপিল গ্রহণের ওপর শুনানি চলবে। নির্বাচন ভবনের লিফটের ১০ তলায় এ জন্য এজলাস তৈরি করা হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ অন্য কমিশনাররা সেখানে উপস্থিত থেকে আপিল শুনানি গ্রহণ করবেন। হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আগামীকাল ৬ তারিখ ১ থেকে ১৬০ পর্যন্ত ক্রমিক নম্বরের আবেদন শুনানি হবে। ৭ ডিসেম্বর ১৬১ থেকে ৩১০ পর্যন্ত এবং ৮ ডিসেম্বর ৩১১ ক্রমিক নম্বর থেকে ৫৪৩ পর্যন্ত আবেদনের আপিল শুনানি গ্রহণ করবে কমিশন। ইসি সচিব বলেন,প্রতিটি আবেদনের আপিল শুনানি শেষে সাথে সাথেই রায় জানিয়ে দেওয়া হবে। সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি যদি উচ্চ আদালতে কমিশনের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে চান, তাহলে তাঁকে রায়ের নকল কপি দিয়ে দেওয়া হবে।

জাতীয় পাতার আরো খবর