বিচার বিভাগ সম্পূর্ণ স্বাধীন: আইনমন্ত্রী
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: যে কেউ অপরাধ করলে বিচার হবে, এটাই হচ্ছে আইনের শাসন উল্লেখ করে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বিগত যে কোন সরকারের আমলের চেয়ে বর্তমানে বিচার বিভাগ স্বাধীন ও দেশে আইনের শাসন রয়েছে। বুধবার (৩ জুলাই) দুপুরে ময়মনসিংহের নান্দাইল সাব-রেজিস্টার অফিসের নবনির্মিত দ্বিতল ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বিএনপির আমলে দেশে আইনের কোন শাসন ছিল না। সে সময় বিচার বিভাগ স্বাধীন ছিল না। খালেদা জিয়া এতিমদের টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলেই আদালত সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে তাকে সাজা দিয়েছেন। তারা ইচ্ছাকৃতভাবে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার হত্যার বিচার করেননি। তিনি বলেন,দেশের সকল সাব-রেজিস্টার অফিসগুলোকে পর্যায়ক্রমে আধুনিক ও যুগোপযোগী করে গড়ে তোলা হচ্ছে। এতে নিবন্ধন কাজে গতিশীলতা ও সেবার মান আরও বাড়বে। আইনমন্ত্রী বলেন, ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করার পর জিয়াউর রহমান আইন করেছিলেন যাতে হত্যাকারীদের বিচার না হয়। বরং বিচার না করে হত্যাকারীদের পুনর্বাসন ও বিদেশি দূতাবাসে চাকরির ব্যবস্থা করেছিলেন। শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, জাতীয় চার নেতার হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধীর বিচার ও একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার করেছে। দেশে বিচার বিভাগ স্বাধীন এবং আইনের শাসন আছে বলেই এগুলো সম্ভব হয়েছে। মহাপরিদর্শক (নিবন্ধন) আব্দুল মান্নান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল হক, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন তুহিন ও কাজিম উদ্দিন আহম্মদ, ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, নান্দাইল উপজেলা চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ, নান্দাইল পৌর মেয়র রফিক উদ্দিন ভূইয়া প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
রাজধানীর তিন সড়কে ৭ জুলাই থেকে রিকশা বন্ধ
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর কুড়িল-সায়েদাবাদ, গাবতলী-আজিমপুর ও সায়েন্সল্যাব-শাহবাগ রুটে ৭ জুলাই থেকে রিকশা চলাচল বন্ধ থাকবে বলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন জানিয়েছেন। যানজট নিরসনে গাবতলী থেকে আসাদগেট হয়ে একদিকে আজিমপুর, অন্যদিকে সায়েন্সল্যাব থেকে শাহবাগ পর্যন্ত রিকশা চলাচল বন্ধ হতে যাচ্ছে। আগামী ৭ জুলাই থেকে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। এ ছাড়া কুড়িল বিশ্ব রোড থেকে রামপুরা হয়ে খিলগাঁও-সায়েদাবাদ পর্যন্ত রিকশাসহ অন্যান্য অবৈধ ও অননুমোদিত যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বুধবার (৩ জুলাই) নগর ভবনে মেয়রের সভাপতিত্বে ঢাকা মহানগরীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনয়নে গঠিত কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ডিএসসিসি মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। মেয়র বলেন, ঢাকা শহরের সড়কে যানবাহনের শৃঙ্খলা ফেরাতে ডিটিসিএ'র একটি কমিটি গঠিত হয় যার প্রথম বৈঠক ছিলো বুধবার। এ বৈঠকে আমরা ঢাকা শহরের বিভিন্ন সড়ক থেকে রিকশা, লেগুনা ও হিউম্যান হলারসহ বিভিন্ন অবৈধ এবং অ-অনুমোদিত যানবাহন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেই। তারই অংশ হিসেবে প্রাথমিকভাবে রাজধানীর দুইটি রুটে- কুড়িল থেকে খিলগাঁও রামপুরা হয়ে সায়দাবাদ এবং গাবতলী থেকে আসাদগেট মিরপুর রোড হয়ে আজিমপুর ও সাইন্সল্যাব থেকে শাহবাগ পর্যন্ত সড়কে রিকশার পাশাপাশি অন্য সব অবৈধ যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্ত নেই। আগামী ৭ জুলাই থেকে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। একই সঙ্গে এসব সড়কের দুই পাশে ফুটপাত দখল করে স্থাপনা এবং অবৈধভাবে নির্মিত ভবন এবং অন্যান্য স্থাপনা উচ্ছেদে কাজ করা হবে বলেও জানান ডিএসসিসি মেয়র। এ সময় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ ভূঁইয়া, ঢাকা পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ, ডিটিসিএ’র নির্বাহী পরিচালক রকিবুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
গৃহবধূর প্রাণ কেড়ে নিলো ফেসবুক
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের আলোচিত গৃহবধূ সাহেরা আক্তার মিতু হত্যার রহস্য উন্মোচন হয়েছে। ঘটনার চারমাস পর হত্যার রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ। ফেসবুকে প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে লাশ হতে হয় তাকে। কথিত প্রেমিক নারায়নগঞ্জ থেকে ময়মনসিংহে ডেকে নিয়ে গণধর্ষনের পর নির্মমভাবে খুন করে মিতুকে। ঘটনার চারমাস পর মিতু হত্যার রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআই। মিতুর কথিত প্রেমিক ত্রিশালের বালিপাড়ার আবুল কালামের ছেলে মোখলেছ ময়মনসিংহ আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে মিতু হত্যার কথা স্বীকার করেছে। আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে মোখলেস জানায়, মোখলেস রেলওয়েতে হকারের কাজ করে। ফেসবুকের মাধ্যমে মিতুর সাথে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে তার। ২৪ ফেব্রুয়ারীর মিতুকে বিয়ের প্রলোভনে ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশনে নিয়ে আসে মোখলেস। এরপর মোখলেস তার সহযোগীদের নিয়ে সেভেন-আপ ট্রেনে করে মিতুকে ময়মনসিংহ নিয়ে যায়। রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে তারা ত্রিশালের ধলা স্টেশনে পৌঁছে। তারপর আনুমানিক ১ কিঃমিঃ দূরে রেল লাইনের পাশে নির্জন স্থানে নিয়ে সকলে মিলে মিতুর হাত ও মুখ বেধে গণধর্ষণ করে। মেয়েটিকে পুনরায় অন্যত্র নিয়ে যাবার সময় মেয়েটি জীবন রক্ষার্থে দৌড় দিলে আসামিরা পিছন থেকে রেল লাইনের পাথর দিয়ে মিতুর মাথার পিছনে আঘাত করে। এতে মিতু পড়ে যায়। তখন পরে আহতবস্থায় আসামিরা তাকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে রেল ব্রিজের নিচে ডোবার কাঁদা পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে গত ২৫ ফেব্রুয়ারী ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশালের কামারিয়াপুল নামক স্থানে রেল লাইনের পাশে অজ্ঞাত হিসেবে মিতুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ব্যাপারে ত্রিশাল থানা অজ্ঞাতনামা আসামি করে ত্রিশাল থানায় মামলা (মামলা নং-৩৫, ২৫ ধারা-৩০২/৩৪) দায়ের করা হয়। এরপর পিবিআই এর নিজস্ব উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে তার পরিচয় শনাক্ত করে মামলার তদন্ত শুরু করে। গত শনিবার রাতে হত্যায় জড়িত মোখলেসুর রহমানকে আটক করে পিবিআই। দুই সন্তানের জননী সাহেরা আক্তার মিতু সোনারগাঁয়ের লাহাপাড়া গ্রামের ব্যবসায়ী বেলায়েত হোসেনের স্ত্রী। বারসাত নামের ৭ বছরের একটি মেয়ে ও রাতুল নামের ১৫ মাসের একটি ছেলে রয়েছে। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি চৌরাস্তার কথা বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফিরে আসেননি। পরে উভয় পরিবারের সদস্যরা অনেক খোঁজাখুঁজির পর মিতুকে না পেয়ে ২৪ ফেব্রুয়ারি রাতেই তার স্বামী বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন- নিউজগার্ডেন
শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলার মামলায় ৯ জনের ফাঁসি
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাবনার ঈশ্বরদীতে ১৯৯৪ সালে তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে বোমা হামলার মামলায় ৯ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ২৫ জনের যাবজ্জীবন এবং বাকিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার পাবনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রুস্তম আলী এ রায় ঘোষণা করেন। এর আগে গত সোমবার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছিলেন আদালত। ওইদিন জেলহাজতে থাকা বিএনপির ৩০ নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে উভয়পক্ষের আইনজীবীরা তাদের যুক্তি তুলে ধরেন। মামলার ৫২ জন আসামির মধ্যে সাতজন মারা গেছেন। গত রোববার ৩০ জন আসামি জামিন আবেদন করলে বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন এবং বাকি আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা সাংগঠনিক সফরে খুলনা থেকে রাজশাহী অভিমুখে ট্রেনযোগে রওনা হন। পথে ঈশ্বরদী স্টেশনে তার একটি নির্ধারিত পথসভা ছিল। তাকে বহনকারী ট্রেনটি পাকশী স্টেশনে পৌঁছার পরপরই ওই ট্রেনে ব্যাপক গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা চালানো হয়।
বেইজিংয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লালগালিচা সংবর্ধনা
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনের নেতাদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অংশ নিতে বেইজিংয়ে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার সকালে বেইজিংয়ে পৌঁছানোর পর শেখ হাসিনাকে লালগালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সময় সকাল ১১টা ৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিশেষ বিমানটি বেইজিং বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সেখানে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান চীনের ভাইস ফরেন মিনিস্টার কিং গ্যাং। বিমানবন্দরে একটি ছোট শিশু প্রধানমন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়। এ সময় চীনের সামরিক বাহিনীর একটি সুসজ্জিত দল প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করে। পরে প্রধানমন্ত্রীকে মোটর শোভাযাত্রা করে দিয়াওয়ুতাই রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবনে নিয়ে যাওয়া হয়। বেইজিং সফরকালে প্রধানমন্ত্রী এখানেই অবস্থান করবেন। এর আগে স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় দিকে চীন সরকারের দেওয়া একটি বিশেষ চার্টার্ড ফ্লাইটযোগে বেইজিংয়ের উদ্দেশে দালিয়ান ত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী। আজ বিকালে বেইজিংয়ের লিজেনদালি হোটেলে প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেওয়া এক নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ও নৈশভোজে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল ৪ জুলাই সকালে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠান এবং গ্রেট হল অব দ্য পিপলে হিরোস মেমোরিয়ালে বীরদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন তিনি। পরে তিনি চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন এবং গ্রেট হল অব দ্য পিপলে এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। প্রধানমন্ত্রী একই জায়গায় চীনা প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত এক নৈশভোজেও যোগ দেবেন। একই দিন বিকেলে প্রধানমন্ত্রী সিসিপিআইটিতে চীনা ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে বাণিজ্যবিষয়ক এক গোল টেবিল বৈঠকে অংশ নেবেন। ৫ জুলাই সকালে চীনা গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্যানগোল ইনিস্টিটিউশন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে বিভিন্ন চীনা কোম্পানির সিইও শেখ হাসিনার সঙ্গে তার আবাসস্থলে সাক্ষাৎ করবেন বলে জানা গেছে। এছাড়া এনপিসি চেয়ারম্যান লি ঝাংশুর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেদিন বিকেলে প্রধানমন্ত্রী দিয়াওয়ুতাই রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবনে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করবেন এবং রাতে একই জায়গায় চীনা প্রেসিডেন্টের দেওয়া নৈশভোজে যোগ দেবেন। প্রধানমন্ত্রী তার চীন সফর শেষ করে ৬ জুলাই স্থানীয় সময় সকাল ১১টায় বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন। ফ্লাইটটি একই দিন বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। গত সোমবার পাঁচদিনের সফরে চীন সফরে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
রিফাত হত্যার ২ নম্বর আসামি গ্রেপ্তার
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরগুনায় স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে স্বামী রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি রিফাত ফরাজীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে কোথা থেকে কখন গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা জানা যায়নি। আজ বুধবার সকাল ৯টায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন। তিনি বলেন, পরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে। এর আগে গতকাল মঙ্গলবার ভোরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন নয়ন বন্ড। তিনি রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছাড়াও একাধিক মামলার আসামি ছিলেন। গত ২৬ জুন (বুধবার) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে নয়ন ও তার সহযোগীরা। পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রিফাত শরীফকে কোপানোর ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ওই ভিডিওতে নয়ন ও রিফাত ফরাজীকে রামদা দিয়ে রিফাত শরীফকে কোপাতে দেখা যায়। ঘটনার পরদিন ২৭ জুন ১২ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন রিফাতের বাবা মো. আ. হালিম দুলাল শরীফ। আসামিরা হলেন সাব্বির আহমেদ নয়ন (নয়ন বন্ড) (২৫), মো. রিফাত ফরাজী (২৩), মো. রিশান ফরাজী (২০), চন্দন (২১), মো. মুসা, মো. রাব্বি আকন (১৯), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রায়হান (১৯), মো. হাসান (১৯), রিফাত (২০), অলি (২২) ও টিকটক হৃদয় (২১)। বাকি পাঁচ থেকে ছয়জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়। এ মামলায় এজাহারভুক্ত ১২ আসামির মধ্যে রিফাত ফরাজীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অপর দুই আসামি হলো চন্দন ও মো. হাসান। এ ছাড়া সন্দেহভাজন আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলো তানভীর, মো. সাগর, কামরুল হাসান সাইমুন ও মো. নাজমুল হাসান। আর বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় প্রধান আসামি নয়ন বন্ড।
হাইকোর্টে লতিফ সিদ্দিকী, আদেশ আগামীকাল
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:বগুড়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর হাইকোর্টে জামিন চেয়ে করা আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিচারপতি মো: নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কেএম হাফিজুল আলমের বেঞ্চ শুনানি শেষে আদেশের জন্য আগামীকাল বুধবার দিন ধার্য করেছেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। দুদকের পক্ষে ছিলেন ওমর ফারুক। আদালতের আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর রাতে দুদকের বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে আদমদীঘি থানায় পাটকলের প্রায় আড়াই একর জমি দরপত্র ছাড়াই বিক্রির মাধ্যমে সরকারের প্রায় ৪০ লাখ ৭০ হাজার টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ এনে সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীসহ দুজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলার অপর আসামি হলেন- ওই জমির ক্রেতা বগুড়া শহরের কাটনারপাড়া এলাকার মৃত হারুন-অর-রশিদের স্ত্রী জাহানারা রশিদ। গত ২০ জুন এ মামলায় বগুড়ার আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদনের পর তা নামঞ্জুর করেন আদালত।
শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলা মামলার রায় আগামী বুধবার
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:চব্বিশ বছরের বেশি সময় পর পাবনার ঈশ্বরদীতে শেখ হাসিনা বিরোধী দলের নেত্রী থাকার সময় তাঁর ট্রেনবহরে গুলিবর্ষণ ও হামলা মামলার রায় আগামী বুধবার। রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেছেন পাবনার অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক রুস্তম আলী। সোমবার দুপুরে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শোনার পর বিচারক রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন। এ মামলার আসামিরা হচ্ছে স্থানীয় বিএনপির নেতা-কর্মীরা।সূত্র: আমাদের সময় ডট কম।জানা গেছে, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উত্তরাঞ্চলে দলীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহনের জন্য ট্রেনে করে খুলনা থেকে সৈয়দপুর যাচ্ছিলেন। ট্রেনটি পাবনার ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে প্রবেশের সময় ট্রেনবহরকে লক্ষ্য করে স্থানীয় বিএনপির নেতা-কর্মীরা অতর্কিত গুলি, বোমাবর্ষণ ও হামলা চালায়। ওই সময় পুলিশ স্থানীয় বিএনপির নেতা-কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে গেলে বিএনপির নেতা-কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করেও বোমা নিক্ষেপ করে। বোমার আঘাতে তৎকালীন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনসহ পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হন। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশ বাদী হয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীদের নামে মামলা করে। পরে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়।দীর্ঘ তদন্তে শেষে এ মামলায় ৫২ জনকে আসামি করে আদালতে চূড়ান্ত অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২৪ বছর ৯ মাস ৯ দিন পর আগামী বুধবার এ মামলার রায় হতে যাচ্ছে। এ মামলার আসামির মধ্যে ৫জন মারা যায়। গত রোববার দুপুরে এ মামলার ৩০ জন আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। বিচারক রুস্তম আলী তাঁদের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠান। বাকি আসামিরা আদালতে হাজির না হওয়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।
যৌক্তিক কিছু কারণে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির পিছনে যৌক্তিক কারণ আছে বলে জানালেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) অভিনেতাএটি এম শামসুজ্জানকে দেখতে এসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। কাদের বলেন, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির পেছনে বেশ কিছু যৌক্তিক কারণ রয়েছে। এ নিয়ে যদি বিরোধী দল হরতাল বিক্ষোভের ডাক দেন তাহলে আমার ধারণা তাতে জনগণের সাড়া তারা পাবেন না। কারণ দেশের মানুষ বাস্তবতা বুঝেন। যৌক্তিক কিছু কারণে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিষয়টি দেশের মানুষ সহজ ভাবে নিবেন। হরতালে জনগণের ভোগান্তি যাতে না হয় সে বিষয়ে আমরা সতর্ক থাকবো। যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সদস্য বা জামায়াত- শিবিরের লোকজন আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ বিষয়ে নতুন কোনো সিদ্ধান্ত আমাদের নাই। আমাদের অবস্থান পরিষ্কার, আমরা কোন সময় তাদের সাথে আপোষ করে নিয়ে আমাদের পূর্বের সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে।

জাতীয় পাতার আরো খবর