কর্ণফুলী টানেলের খননকাজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
২৪ফেব্রুয়ারী,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল'-এর খননকাজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে প্রধানমন্ত্রী এই খনন কাজ উদ্বোধন করেন। এর আগে, রোববার সকাল ১১টা ১০মিনিটে তিনি চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরে পৌঁছান। এসময় স্থানীয় নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে রয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক প্রমুখ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেখানে পৌঁছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল' নির্মাণ প্রকল্পের বোরিং কার্যক্রম ও লালখানবাজার থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের পিলার পাইলিং প্রকল্পের নির্মাণকাজ উদ্বোধন করবেন। 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল' নির্মাণে ব্যয় হবে ৯ হাজার ৮৮০ কোটি টাকা, যার মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের অর্থ সহায়তা তিন হাজার ৯৬৭ কোটি টাকা এবং চীন সরকারের অর্থ সহায়তা পাঁচ হাজার ৯১৩ কোটি টাকা। দুই টিউবের মূল টানেলটির দৈর্ঘ্য ৩ দশমিক ৪ কিলোমিটার। এর সঙ্গে টানেলের পশ্চিম ও পূর্ব প্রান্তে ৫ দশমিক ৩৫ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক এবং ৭২৭ মিটার ওভারব্রিজ নির্মাণ করা হবে। সংশ্লিষ্টরা জানান, ওয়ান সিটি টু টাউন মডেলে দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে যোগাযোগব্যবস্থার উন্নয়ন ও এশিয়ান হাইওয়ে নেটওয়ার্কে সংযুক্তির উদ্দেশে এ টানেল নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম শহরকে বাইপাস করে সরাসরি কক্সবাজারের সঙ্গে সহজ যোগাযোগ স্থাপিত হবে। ফলে চট্টগ্রাম শহরের যানজট কমে আসবে। প্রকল্পটির সার্বিক অগ্রগতি ৩২ শতাংশ এবং ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।
নিয়ম ভেঙে মজুদ করা হচ্ছে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার
২৪ফেব্রুয়ারী,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: এলপি গ্যাস সিলিন্ডার মজুদে মানা হচ্ছে না নিরাপত্তার প্রয়োজনীয় নিয়ম। বেশিরভাগ গোডাউনেই বাতাস চলাচল ও আগুন নেভানোর ব্যবস্থা নেই। ফায়ার সার্ভিস বলছে, ঝুঁকিপূর্ণ সংরক্ষণের কারণে ভয়াবহ দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। বিস্ফোরক পরিদপ্তর জানায়, লোকবল সংকটের কারণে নিয়মিত তদারকি করতে পারছে না সংস্থাটি। স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় অনিরাপদ মজুদদারদের বিরুদ্ধে শিগগিরই অভিযান চালানোর আশ্বাস তাদের। এলপিজি সিলিন্ডারগুলো সংরক্ষণের জায়গায় পর্যাপ্ত বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা থাকা জরুরি। বৈদ্যুতিক সুইচ ও অন্যান্য উপকরণও থাকবে গোডাউনের বাইরের অংশে। স্থানটিও হতে হবে আগুনের ব্যবহার আছে এমন জায়গা থেকে দূরে। এমন শর্তে অনুমোদনের ছড়াছড়ি থাকলেও তদারকি না থাকায় শর্ত পালনের শিথিলতার সুযোগ নেন ব্যবসায়ীরা। নিজস্ব নিরাপত্তা নেই বললেই চলে অনেক প্রতিষ্ঠানে, যা আশপাশের জনজীবনের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। নিয়ম মেনে সংরক্ষণ না করায় যে কোন সময় ঘটতে পারে ভয়াবহ দুর্ঘটনা । ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রি. জে. (অব) আলী আহম্মেদ খান বলেন, একটা কিংবা দুইটা লেয়ার পর্যন্ত রাখা যায়। চার-পাঁচটা লেয়ার রাখা যায় না। এতে রেগুলেটরের উপর চাপ পড়ে। এরকম করলে সিলিন্ডার লিক হয়ে যেতে পারে এবং দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। একটা দুর্ঘটনা ঘটলে তখন বড় ধরনের অগ্নিকাণ্ড হতে পারে। মূলত ফায়ার সার্ভিস ও বিস্ফোরক পরিদপ্তরের অনুমোদন নিয়েই ডিলার পর্যায়ে সিলিন্ডার মজুদ করা হয়। সারাদেশে ১৭টি কোম্পানির ২ কোটিরও বেশি সিলিন্ডার ব্যবহার হচ্ছে। এ ব্যবসায়ের জন্য ৬ হাজার প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন থাকলেও অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে আরও অনেক মজুদকারী প্রতিষ্ঠান। বিস্ফোরক পরিদপ্তরের প্রধান পরিদর্শক এম. সামসুল আলম বলেন, এ সংক্রান্ত আইনের অধীনে পুলিশ এবং ম্যাজিস্ট্রেট লাইসেন্স চেক করতে পারেন এবং মামলা দায়ের করতে পারেন। এ ব্যবসায় যারা অনিয়ম করছেন তাদের বিরুদ্ধে আমরা শীঘ্রই ব্যবস্থা নেব। ১০টির বেশি গ্যাস সিলিন্ডার মজুদ করলে সনদ নেয়ার বিধান রয়েছে। গ্রাহকের কাছে সহজে পৌঁছাতে এক্ষেত্রে কিছুটা ছাড় দেয়া হয়। ডিলার পর্যায়ে মজুদকালীন নিরাপত্তা আরও জোরদারের জন্য সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা প্রয়োজন বলে মনে করে বিস্ফোরক পরিদপ্তর।
রোববার কর্ণফুলী টানেল প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: কর্ণফুলী টানেল প্রকল্পের খননকাজ উদ্বোধন করতে কাল চট্টগ্রাম যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে শনিবার (২৩ জানুয়ারি) প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। এসময় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান, সেতু বিভাগের সচিব ও জেলা প্রশাসকসহ প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। পরিদর্শন শেষে সিটি মেয়র জানান, কর্ণফুলী টানেলের বোরিং মেশিন চালুর মধ্য দিয়ে খনন কাজের পাশাপাশি লালখান বাজার থেকে এয়ারপোর্ট পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া সুধী সমাবেশে যোগ দেয়ার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। তার সফর ঘিরে ইতোমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে গোটা নগরজুড়ে। ৯৮৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মাণ করা হচ্ছে তিন দশমিক ৪ কিলোমিটারের টানেল।
গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত: সাঈদ খোকন
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত গ্যাস সিলিন্ডার থেকে হয়েছিল বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন। তিনি আরো জানান, ভিডিও ফুটেজে এমনটিই দেখা গেছে। শনিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ভবন ওয়াহেদ ম্যানশনের বেজমেন্টে কেমিক্যাল গোডাউন অপসারণে এসে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার সূত্রপাতের সময়ের ভিডিও ফুটেজ পাওয়া গেছে। পুলিশের একটি বিশ্বস্ত সূত্র আমাকে জানিয়েছে, একটি গাড়ির সিলিন্ডার থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। ওই গাড়ির সিলিন্ডার থেকে পাশের আরেকটি গাড়ির সিলিন্ডারে প্রথমে আগুন লাগে। এরপর মুহূর্তের মধ্যেই ভবনটিতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। পুরান ঢাকার চকবাজারের এ ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ৬৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। আহত রয়েছেন অনেকে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এ পর্যন্ত মোট ৪৭ জনের মৃতদেহ শনাক্ত হয়েছে। প্রত্যেকের মৃতদেহ তাদের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। অপরদিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও মিটফোর্ড হাসপাতালের মর্গে থাকা ২০ জনের মৃতদেহ এখনও শনাক্ত হয়নি।
প্রবাসীদের দক্ষতা কাজে লাগাতে চায় সরকার
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, দেশের উন্নয়নের জন্য সরকার প্রবাসীদের রেমিটেন্স ও দক্ষতা কাজে লাগাতে চায়। সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের মাধ্যমে এ দেশকে উন্নত দেশে রূপান্তর করার পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি। শুক্রবার রাতে সিলেট নগরীর হাউজিং এস্টেট আবাসিক এলাকার প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর এবং হাউজিং এস্টেট অ্যাসোসিয়েশনের সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, সরকার সিলেটসহ সারা দেশের উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক। তিনি সিলেটের উন্নযনে একটি দল হিসেবে কাজ করার আহ্বান জানান। এ ব্যাপারে তিনি সকলকে আন্তরিক হতে অনুরোধ করেন। হাউজিং এস্টেট এলাকায় আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে হাউজিং এস্টেটের সাবেক সভাপতি ও সিনিয়র সিটিজেনদের সম্মাননা প্রদান করা হয়। তাছাড়া এ অনুষ্ঠান উপলক্ষে প্রকাশিত স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। পঞ্চাশ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদীর সভাপতিত্বে ও আব্দুল করিম কিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এবং সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট লুৎফর রহমান। এর আগে সকালে সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব উপলক্ষে এলাকার পুরুষ-নারী-শিশুদের সমন্বয়ে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি হাউজিং এস্টেট এলাকা প্রদক্ষিণ করে।-ইউএনবি
আটঘাট বেঁধে নেমেছি,সব গোডাউন সরিয়ে ফেলব: ওবায়দুল কাদের
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: পুরান ঢাকার চকবাজারে যত ঝুঁকিপূর্ণ রাসায়নিক গোডাউন ও কারখানা রয়েছে সবগুলোকেই পর্যায়ক্রমে নিরাপদ স্থানে সরানো হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এ ব্যপারে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিয়েছেন। শনিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টার দিকে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত চকবাজারের ওয়াহেদ ম্যানশন ভবন পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি। তিনি বলেন, এর আগে একাধিকবার পুরান ঢাকার রাসায়নিক পদার্থের গোডাউন সরানোর কথা হয়েছিল। কিন্তু সম্বনয়হীনতার কারণে সম্ভব হয়নি। এবার সংশ্লিষ্ট সংস্থার সহায়তা এখানকার সব অবৈধ ঝুঁকিপূর্ণ রাসায়নিক গোডাউন নিরাপদ স্থানে সরানো হবে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। আটঘাট বেঁধে নেমেছি। সব গোডাউন নিরাপদ স্থানে সরিয়ে ফেলব। সেতুমন্ত্রী বলেন, আমরা তিনটি বিষয়ের প্রতি প্রাথমিকভাবে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছি। নিহতের স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর, আহতদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা এবং এখনো যারা নিখোঁজ রয়েছে তাদের স্বজনদের ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে লাশ হস্তান্তর। তিনি জানান, ঘটনা তদন্তে তিনটি কমিটি গঠন করে তাদের তিনদিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।
পুরান ঢাকা থেকে রাসায়নিক গুদাম সরাতে সহযোগিতার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: পুরান ঢাকা থেকে রাসায়নিকের গুদাম সরানোর জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সম্পূর্ণ সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বারবার অভিযান পরিচালনা করার পরেও এখনও সেখানে রাসায়নিকের গুদাম রয়েছে, যা দুঃখজনক। শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন পুরান ঢাকার চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধদের দেখতে যান তিনি। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। উল্লেখ্য, পুরান ঢাকার চকবাজারে চুড়িহাট্টা এলাকায় বুধবার রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অন্তত ৬৭ ব্যক্তি নিহত এবং প্রায় ৪১ জন গুরুতর দগ্ধ হন।-ইউএনবি
অগ্নিকাণ্ডে আহতদের খোঁজ-খবর নিতে ঢামেকে প্রধানমন্ত্রী
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চকবাজারের চুড়িহাট্টা মোড়ে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আহতদের খোঁজ-খবর নিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে গেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ শনিবার সকাল আজ সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে তিনি সেখানে পৌঁছেন। বুধবার রাত ১০টার পর রাজধানীর চকবাজার এলাকার নন্দকুমার দত্ত সড়কের চুরিহাট্টা মসজিদ গলির চৌরাস্তায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। পরে আগুন ভয়াবহ আকারে আশপাশের ৫টি বিল্ডিংয়ে ছড়িয়ে পড়ে। ফায়ার সার্ভিসের ৩৭টি ইউনিট ১৪ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনীর দুইটি হেলিকপ্টারও যোগ দিয়েছিল। অগ্নিকাণ্ডে ৬৭ জনের প্রাণহানি ঘটে। তবে নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে শনাক্ত হওয়া ৪৫ জনের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন দগ্ধ হন। তাদের মধ্যে ৯ জন ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের আইসিউতে ও পোস্ট অপারেটিভে ভর্তি রয়েছেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের প্রধান সমন্বয়কারী ডা. সামন্তলাল সেন জানান, আমাদের এখানে ১৪ জন এসেছিল। যার মধ্যে ৯ জনকে আইসিউতে ও পোস্ট অপারেটিভে রাখা হয়েছে। বাকিদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তবে ভর্তি থাকা ৯ জনকে আমরা ঝুঁকিমুক্ত বলবো না যতক্ষণ তারা হাসপাতালে থাকে। এ ৯ জনের সবার শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। যারা এসেছেন তারা প্রত্যেকেই পথচারী ও কেমিকেলের আগুনে দগ্ধ।
রাসায়নিকের কারণে প্রাণহানি বেড়েছে
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাসায়নিক ভর্তি একেকটি ড্রাম যেন একেকটি বোমা। আগুনের সংস্পর্শে এলেই ঘটতে পারে ভয়াবহ বিস্ফোরণ। এমন মন্তব্য বিশেষজ্ঞদের। পাশাপাশি রাসায়নিক থেকে সৃষ্ট গ্যাসে প্রাণহানি বহুগুণে বাড়ার আশঙ্কাও তাদের। দ্রুত আবাসিক এলাকা থেকে রাসায়নিক গুদাম সরানোর তাগিদ দেন তারা। ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাওয়া ওয়াহেদ ম্যানশনে কেমিক্যাল গোডাউনের কোন অস্তিত্ব নেই বলে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদের বক্তব্য ভুল প্রমাণিত হয়েছে। শিল্পমন্ত্রীর বক্তব্যের একদিন পর ঐ ভবনটির বেজমেন্টেই সন্ধান পাওয়া গেলো শত শত কনটেইনারে রাসায়নিক পদার্থের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কেমিক্যালের উপস্থিতি ছাড়া কখনোই আগুন এত দ্রুত ছড়াতে পারেনা। তবে বেজমেন্টে থাকা রাসায়নিকের কনটেইনার পর্যন্ত পৌঁছালে পুরো ভবন উড়ে যাবারও আশঙ্কা ছিল। বুয়েট কেমিকৌশল বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড.মো.ইয়াসির আরাফাত খান বলেন, এই কেমিক্যাল যখন কন্টেইনারের মধ্যে থাকে, তখন যদি হিট পায় এটা বোমার মতো কাজ করে। এখন এটা যদি প্রথম তলায় থাকে তাহলে পুরো ভবন উড়ে যেতে পারে। এছাড়াও সৃষ্ট গ্যাসে দীর্ঘ এলাকাজুড়ে মানুষের প্রাণহানি হতো পারতো বলেও ধারণা করছেন কেমিক্যাল বিশেষজ্ঞরা। বাংলাদেশ কেমিক্যাল সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. আফতাব আলী শেখ বলেন, রাসায়নিক কেমিক্যালে যদি আগুন ধরে, সেখানে কিন্ত গ্যাসও তৈরি হয়। আর এই গ্যাস মানুষের নাকে টুকলে সাথে সাথে মারা যাবে। এই গ্যাস অনেক ক্ষতিকর। তাই অতি দ্রুত কেমিক্যাল ও রাসায়নিকের গোডাউন দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরিয়ে আবাসিক এলাকাগুলোকে ঝুকিঁমুক্ত করবার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

জাতীয় পাতার আরো খবর