দেশের উত্তরাঞ্চলে হটাৎ শীতের প্রকোপ,
এবার একটু দেরিতে হলেও তীব্র শীত জেঁকে বসছে গাইবান্ধা ও পঞ্চগড়সহ দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে। সন্ধ্যা থেকে শুরু হয় কুয়াশা; সঙ্গে বাড়তে থাকে শীতের প্রকোপ। আর শেষ রাতে হিমেল বাতাস। সারাদিন সূর্যের দেখা মেলেনা। শীতের প্রকোপে শিশু ও বৃদ্ধদের দুর্ভোগ বেড়েছে। এদিকে গরম কাপড়ের অভাবে কষ্টে আছেন নিম্ন আয়ের মানুষ। পঞ্চগড়: শনিবার থেকে হঠাৎ করেই শীত বাড়তে শুরু করেছে পঞ্চগড়ে। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মতো ঝরছে কুয়াশা। আর ঘন কুয়াশায় দুর্ঘটনা এড়াতে সকালেও হেড লাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে। এদিকে তীব্র শীতে গরম কাপড়ের অভাবে চরম বিপাকে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষ। খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন অনেকে। কুড়িগ্রাম: উত্তরের হিমেল হাওয়ায় শীত পড়তে শুরু করেছে কুড়িগ্রামেও। কুয়াশার কারণে গত শনিবার থেকে সূর্যের দেখা মিলছে না এ জেলায়। সোমবার সকাল ৯টায় জেলায় ১৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করে স্থানীয় আবহাওয়া অফিস। গাইবান্ধা পৌষের শুরুতেই শীতের তীব্রতা বেড়েছে উত্তরের জনপদ গাইবান্ধায়। সূর্যের দেখা মেলে নি গত দু'দিনে। ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে পথ ঘাট ও ক্ষেত খামার। এদিকে শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোগান্তি বেড়েছে খেটে খাওয়া মানুষের। তীব্র শীত আর কুয়াশার কারণে কাজে যেতে পারছেন না তারা। এছাড়া নওগাঁ ও বগুড়াসহ দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলো পৌষের শুরুতেই তীব্র শীতের কবলে পড়েছে।
ঘন কুয়াশায় ব্যাহত জান চলাচল
ভোর থেকেই কুয়াশার ফিনফিনে চাদরে ঢাকা পড়েছিল রাজধানী ঢাকার অনেক এলাকা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রমনা পার্ক, ধানমন্ডি লেক, হাতিরঝিল, ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় গতকাল রোববার যেন সত্যিকারের শীতের সকাল ধরা দিয়েছিল। তবে আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, রাজধানীতে জাঁকালো শীতের দেখা পেতে জানুয়ারি নাগাদ অপেক্ষা করতে হবে। গতকাল সারা দিনই ক্ষণে ক্ষণে মেঘের আড়ালে ঢাকা পড়ছিল সূর্য। ধোঁয়াটে কুয়াশার ভাব ছিল শহরজুড়েই। কুয়াশার কারণে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান ওঠা-নামার সময় আর পরিকল্পনাতেও বদল আনতে হয়। বিমানবন্দর সূত্রে জানাযায় কুয়াশার কারণে সকালে চারটি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ঢাকায় নামতে পারেনি। সিঙ্গাপুর আর শারজাহ থেকে ছেড়ে আসা দুটি ফ্লাইট গন্তব্য বদলে কলকাতায় নামে। কুয়ালালামপুর আর মাস্কট থেকে আসা দুটি ফ্লাইট ঢাকার বদলে চট্টগ্রামে অবতরণ করে। এ ছাড়া ঢাকা থেকে প্রতিটি ফ্লাইটই নির্ধারিত সময়ের পর ছেড়ে গেছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায় কয়েক দিনের বৃষ্টির পর এখন তাপমাত্রা কমেছে। তাই কুয়াশা পড়তে শুরু করেছে। নদী অববাহিকায় এ সপ্তাহ থেকেই ঘন কুয়াশা থাকবে। আর জানুয়ারির ৯ থেকে ১০ তারিখ নাগাদ তীব্র শীত পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সড়কপথ কুয়াশার কারণে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কেও প্রায় ১২ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। গত শনিবার রাত ১১টা থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে থেমে থেমে যানবাহন চলে। একপর্যায়ে রাত সাড়ে ১২টার দিকে মির্জাপুর উপজেলার কুর্ণী থেকে গোড়াই শিল্পাঞ্চলের স্কয়ার এলাকা পর্যন্ত প্রায় ১২ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। গতকাল ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। নৌপথের চিত্র কুয়াশার কারণে কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া রুটে গতকাল ভোর পাঁচটা থেকে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেয় ঘাট কর্তৃপক্ষ। পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর চলাচল স্বাভাবিক হয়। রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া এবং মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া নৌপথেও চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।
ছায়েদুল হকের প্রথম জানাজা আজ রোববার সকালে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত
সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় মন্ত্রী ছায়েদুল হকের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মোনাজাত করছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মন্ত্রী-সাংসদেরা। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের প্রথম জানাজা আজ রোববার সকালে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগরে আরেক দফা জানাজা শেষে তাঁকে দাফন করা হবে। এদিকে সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে ছায়েদুল হকের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। তাঁরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় প্রধান হিসেবে দলের নেতাদের নিয়ে ছায়েদুল হকের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এরপর মুক্তিযোদ্ধা এই মন্ত্রীকে সেখানে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা জানায় ঢাকা জেলা প্রশাসন। পাঁচবার নির্বাচিত এই সাংসদের জানাজায় মন্ত্রী, সাংসদ ও দলীয় নেতাকর্মীরা অংশ নেন। ছায়েদুল হকের একমাত্র ছেলে এস এম রায়হানুল হক সেখানে উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রী ছায়েদুল হক গতকাল শনিবার সকালে ঢাকার বিএসএমএমইউতে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃর্ত্যু তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর।
শিক্ষাসংক্রান্ত নানা অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধে পদক্ষেপ নেয়ার বিষয়ে সচিবালয়ে এক যৌথ বৈঠক অনুষ্ঠিত
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, শিক্ষকেরাই আসল প্রশ্নফাঁসকারী। আজ রোববার সচিবালয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যৌথ সভায় মন্ত্রী এ কথা বলেন। শিক্ষাসংক্রান্ত নানা অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে সচিবালয়ে এই যৌথ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রশ্নফাঁস বন্ধে বহু ধরনের সাজেশন এসেছে। প্রতিটি কেন্দ্রে পরীক্ষার দিন আধঘণ্টা আগে প্রশ্ন ছাপিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার কথা হয়েছে। কিন্তু আমরা যখন বুঝলাম, আসল প্রশ্নফাঁসকারী তো শিক্ষক, তখন আধাঘণ্টা আগে দিয়েই লাভ কী। মন্ত্রী আরও বলেন,;আমি যখন আমার শিক্ষকের হাতে প্রশ্ন তুলে দেব, তখন তো নিরাপদ হয়ে ঘুমাতে যাওয়া উচিত। কিন্তু কিছু শিক্ষক সে সময় প্রশ্ন ফাঁস করে দেন। প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে আধঘণ্টা আগেই শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রে ঢোকার পর প্রশ্নপত্রের খাম খোলা হবে। মন্ত্রী বলেন, কিছু শিক্ষক ক্লাসে না পড়িয়ে বাড়িতে বা কোচিংয়ে পড়ান। যত বড় ভালো শিক্ষক, তত ক্লাসে কম পড়ান। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে দুদকের সঙ্গে তারা একসঙ্গে কাজ করবে। সভায় দুদকের কমিশনার নাসির উদ্দিন আহমেদ পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসসহ শিক্ষায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনিয়ম ও সমস্যার কথা তুলে ধরেন। এ সময় তিনি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালকের কাছে জানতে চান, বছরের পর বছর যেসব শিক্ষক ঢাকায় আছেন, তাঁদের বদলি করা হয় না কেন? একই সঙ্গে পাঠ্যপুস্তক ছাপানোয় দরপত্রসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনিয়মের অভিযোগ সম্পর্কে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিভি) চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চান দুদক কমিশনার।
ডিএনসিসি মেয়র পদে উপনির্বাচন আগামী ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে
আগামী ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। একই সঙ্গে নতুন যুক্ত হওয়া ১৮টি ওয়ার্ড ও ছয়টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) যুক্ত হওয়া নতুন ১৮টি ওয়ার্ড ও ছয়টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডেও নির্বাচন হবে। জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে এসব নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। আজ নির্বাচন কমিশনের সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ এ কথা জানান। হেলালুদ্দিন আহমদ জানান, নতুন যুক্ত হওয়া ওয়ার্ডগুলোতে যাঁরা নির্বাচিত হবেন, তাঁদের মেয়াদ হবে এই সিটি করপোরেশনে বাকি মেয়াদ পর্যন্ত। তিনি দাবি করেন, নির্বাচন কমিশন আইনি দিক পর্যালোচনা করেছে। এই নির্বাচন নিয়ে আইনি কোনো জটিলতা নেই। এক প্রশ্নের জবাবে হেলালুদ্দিন আহমদ বলেন, আগামী ৩১ জানুয়ারি নতুন ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। যাঁরা এবার ভোটার হয়েছেন, তাঁরা নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন, তবে প্রার্থী হতে পারবেন না।
মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শোক প্রকাশ
মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী- এর মৃত্যুতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। চট্টগ্রামের মাটি ও মানুষের এই নেতার মৃত্যুতে এক শোক বিবৃতিতে শেখ হাসিনা বলেন, মহিউদ্দিন চৌধুরী দেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রগণ্য ভূমিকা রাখেন। তিনি বহুবার কারাবরণ করেছেন ও নির্যাতন সহ্য করেছেন কিন্তু কখনও মাথানত করেননি। চট্টগ্রামের মানুষের উন্নয়ন ও কল্যাণে তাঁর অবদান অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তিনি আরো বলেন, গণমানুষের অন্তরে এই বর্ষীয়ান জননেতা চিরদিন বেঁচে থাকবেন। প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শুক্রবার সকালে এক শোকবার্তায় মন্ত্রী মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান এবং আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। শুক্রবার ভোরে চট্টগ্রামের ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন মহিউদ্দিন চৌধুরী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যায় রোগে ভুগছিলেন তিনি। তার মৃত্যুর খবর শুনে শোকের ছায়া নামে চট্টগ্রামে। বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ তার বাসার সামনে ভিড় করেন। প্রিয় নেতাকে হারিয়ে অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন।
চট্টগ্রামে শোকের ছায়া, মহিউদ্দিন চৌধুরী আর নেই,শুক্রবার বাদ আসর জানাজা
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী জানাজা আজ বিকেলে চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাক্স হাসপাতাল থেকে তার মরদেহ চশমা হিলের বাসায় নেয়া হয়েছে। মহিউদ্দিন চৌধুরীর বড় ছেলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল জানান, শুক্রবার বাদ আসর লালদীঘি ময়দানে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার ভোরে চট্টগ্রামের ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন মহিউদ্দিন চৌধুরী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। দীর্ঘদিন ধরে কিডনি সমস্যায় রোগে ভুগছিলেন তিনি। তার মৃত্যুর খবর শুনে শোকের ছায়া নামে চট্টগ্রামে। বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ তার বাসার সামনে ভিড় করেন। প্রিয় নেতাকে হারিয়ে অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। এর আগে, গত মঙ্গলবার মহিউদ্দিন চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে তাকে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতাল থেকে চট্টগ্রামে নিজ বাসায় নেয়া হয়। গত ১১ নভেম্বর হার্টের সমস্যা ও কিডনিজনিত রোগে গুরুতর অসুস্থ হয়ে চট্টগামের ম্যাক্স হাসাপাতালে ভর্তি হন তিনি। পরের দিন উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত ১৬ নভেম্বর অসুস্থ মহিউদ্দিনকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়। সেখানে এনজিওগ্রাম সম্পন্নের পর তিনি ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠেন। প্রায় ১০ দিন পর গত ২৬ নভেম্বর তিনি দেশে ফিরে পুনরায় স্কয়ার হাসাপাতালে ভর্তি হন। সিঙ্গাপুরের গ্ল্যানিগ্লেস হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শে তার কিড
শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে ঢাকার মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। বৃহস্পতিবার সকালে সেখানে শ্রদ্ধা জানান তিনি। শ্রদ্ধা জানানো হয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকেও। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তার সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। রাষ্ট্রপতির শ্রদ্ধা জানানোর পর মন্ত্রীসভার সদস্য, বিভিন্ন রাজনৈতিক, পেশাজীবী, শ্রমিক সংগঠন, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধের বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। আওয়ামীলীগের পক্ষে শ্রদ্ধা জানান দলের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এসময় তার সঙ্গে দলের সিনিয়র নেতারা শ্রদ্ধা জানান। ১৯৭১ সালের এ দিনে দখলদার পাকহানাদার বাহিনী ও তার দোসর রাজাকার আল-বদর, আল-শামস মিলিতভাবে বেছে বেছে দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, চিকিৎসক, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, দার্শনিক ও সংস্কৃতিক্ষেত্রের অগ্রগণ্য মানুষকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে গিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে নিজেদের পরাজয় নিশ্চিত জেনেই পাকিস্তানি বাহিনী ওই নিধনযজ্ঞ চালায়। তাদের উদ্দেশ্য ছিল স্বাধীনতার পর যেন বাংলাদেশ মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে না পারে- তা নিশ্চিত করা। বিজয়ের পর রায়েরবাজারের পরিত্যক্ত ইটখোলা, মিরপুরসহ বিভিন্ন বধ্যভূমিতে হাত-পা-চোখ বাঁধা বুদ্ধিজীবীদের ক্ষতবিক্ষত মৃত পাওয়া যায়। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পৃথক বাণী দিয়েছেন। বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও বধ্যভূমিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাসদ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, বাংলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘর, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, উদীচী, জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি, খেলাঘরসহ বিভিন্ন দল ও সংগঠন পৃথক কর্মসূচি নিয়েছে।
জঙ্গি সামাদ আটক
রাজধানীর মহাখালী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার সন্দেহভাজন তিন জঙ্গির একজন আবদুস সামাদ নব্য জেএমবির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা তামিম চৌধুরীর সেকেন্ড ইন কমান্ডছিল বলে জানিয়েছেন কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। বৃহস্পতিবার পুলিশের গণমাধ্যম কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সিটিটিসি বলছে, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে বিভিন্ন সময় নব্য জেএমবির উচ্চ পর্যায়ের নেতারা গ্রেপ্তার ও নিহত হলে এই সামাদের নেতৃত্বেই জঙ্গি সংগঠনটি সংগঠিত হয়। বুধবার সন্ধ্যায় মহাখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে আব্দুস সামাদ ওরফে আরিফ মামু ওরফে আশিক, তার শ্বশুর জিয়াদুল ইসলাম এবং মো. আজিজুল ইসলাম ওরফে মেহেদী হাসান ওরফে শিশিরকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। ব্রিফিংয়ে মনিরুল ইসলাম বলেন, তামিম চৌধুরী ও সামাদ কল্যাণপুর ও মিরপুর এলাকায় প্রায় ডজনখানেক জঙ্গি প্রশিক্ষণ ক্যাম্প খুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন। হলি আর্টিজান হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী সোহেল মাহফুজ ওরফে হাতকাটা মাহফুজ গ্রেপ্তার হওয়ার পর সামাদই সংগঠনের যাবতীয় কার্যক্রম চালিয়ে আসছিলেন। তিনি বলেন, আজিজুল ইসলাম মেহেদী পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে দুই বছর ধরে জঙ্গি কার্যক্রমে যুক্ত রয়েছে। জিহাদি প্রশিক্ষণও সে নিয়েছে। আর সামাদের শ্বশুর জিয়াদুল ইসলাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে নব্য জেএমবির জন্য অস্ত্র-বিস্ফোরক ও ডেটোনেটর সংগ্রহের পাশাপাশি সংরক্ষণ ও বিতরণের দায়িত্ব পালন করতেন। মনিরুল ইসলাম বলেন, দিনাজপুরের সামাদ ২০০২ সালে দাওরাহ হাদিস এবং ২০১১ সালে ফাজিল পর্যন্ত পড়াশুনা করেন। তার মধ্যেই ২০১০ সালে তিনি জেএমবিতে যোগ দেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তার দেওয়া তথ্যের বরাতে মনিরুল বলেন, ২০১৪ সালে তামিম চৌধুরীর সঙ্গে মিলে জুনদ আল তাওহীদ আল খিলাফাই নামে একটি সংগঠন গড়েন সামাদ। তামিম ছিলেন সংগঠনটির প্রধান, আর সামাদ সেকেন্ড ইন কমান্ড। বোমা তৈরিসহ বিভিন্ন কাজে পারদর্শী সামাদ সংগঠনের জন্য সদস্য ও অর্থ সংগ্রহের পাশাপাশি নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রেও ভূমিকা রাখতেন বলে মনিরুলের দাবি। তিনি বলেন, অস্ত্র চালনা ও গ্রেনেড ব্যবহারের বিষয়ে সংগঠনের নবীন সদস্যদের প্রশিক্ষণ দিতেন সামাদ। নব্য জেএমবির উচ্চ পর্যায়ের নেতারা বিভিন্ন সময় গ্রেপ্তার ও নিহত হওয়ার পর তার নেতৃত্বে সংগঠনটির কার্যক্রমে নতুন মাত্রা যোগ হয়। উল্লেখ্য, বুধবারের গ্রেপ্তার-অভিযানে তিনজনের কাছ থেকে একটি ৯ এমএম পিস্তল, পাঁচ রাউন্ড গুলি ও ২০০ ডেটোনেটর উদ্ধার করা হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলন থেকে জানানো হয়।