কী হবে কারাবন্দী খালেদা জিয়ার
কী হবে কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার? তিনি কি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করতে পারবেন? তার শারীরিক অবস্থাই বা এখন কেমন? অসুস্থ থাকলে তার চিকিৎসা কোথায় হবে-দেশে না বিদেশে? এ নিয়ে হাজারো প্রশ্ন বিএনপি নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের। আগ্রহের শেষ নেই রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহলেও। বিএনপি চেয়ারপারসনের শারীরিক সুস্থতা নিয়ে পুরোটাই রহস্যে ঘেরা। এ নিয়ে রাজনৈতিক উত্তাপও বইছে। গত বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে নেওয়া হয়নি অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে কারাগারে সাক্ষাতের সুযোগও দেওয়া হয়নি একই কারণে। কারাকর্তৃপক্ষ অবশ্য বলছে, সুস্থ আছেন বেগম খালেদা জিয়া। তবে পারিবারিক সদস্যদের বাইরে দলীয় নেতাদের সাক্ষাতে বাধা নিয়েও নানা প্রশ্ন উঠছে। বেগম জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েছে প্রধান দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। গত বৃহস্পতিবার বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের পূর্ব নির্ধারিত সাক্ষাৎ অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে বাতিল করায় বিএনপিতে সন্দেহ আরও পাকাপোক্ত হয়েছে। দলটি দাবিই করে বসে, গোপনে বেগম জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর চেষ্টা করেছিল সরকার। তবে গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বেগম জিয়ার অসুস্থতার খবর নাকচ করে দিয়েছেন। সাতক্ষীরার দেবহাটা থানার নতুন ভবন উদ্বোধনকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার কোনো গুরুতর সমস্যার কথা আমরা শুনিনি, যার জন্য তাকে বিদেশে পাঠাতে হবে। তিনি (খালেদা জিয়া) জানিয়েছিলেন অসুস্থ বোধ করছেন। তার অনুরোধে ডাক্তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন। ডাক্তার জানিয়েছেন, তিনি আগের রোগে ভুগছেন। নতুন কোনো রোগ তার মধ্যে পাওয়া যায়নি। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের চিকিৎসক ডা. মাহমুদুল হাসান শুভ বলেন,বার্ধক্যজনিত কয়েকটি সমস্যা ছাড়া বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট স্বাভাবিক। তিনি নিয়মমতো খাবার খাচ্ছেন। একই বক্তব্য কারাগারের দুজন পদস্থ কর্মকর্তার। তাদের দাবি,খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বাইরে পাল্টাপাল্টি যেসব বক্তব্য দেওয়া হচ্ছে তার সঙ্গে বাস্তবতার কোনো মিল নেই। তিনি পুরোপুরি সুস্থ রয়েছেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ প্রশ্ন তুলে বলেন,এ নিয়ে সরকার সুস্পষ্ট কোনো ব্যাখ্যা দিচ্ছে না। এ কারণেই সন্দেহ আরও বেড়েছে। তা ছাড়া তাঁর অসুস্থতা যদি নাই থাকে, তাহলে বৃহস্পতিবার আদালতে কেন আনা হলো না। তখন তো অসুস্থতার কথাই বলা হয় আদালতকে। আমি মনে করি, এ ব্যাপারে সরকারের একটি আনুষ্ঠানিক বক্তব্য থাকা উচিত। গত শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে বেগম খালেদা জিয়ার প্রয়াত পুত্র আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমানসহ ছয়জন স্বজন তার সঙ্গে কারাগারে গিয়ে দেখা করেছেন। বাকিরা হলেন- নাতনি জাহিয়া রহমান, ভাই শামীম এস্কান্দার, ভাবী কানিজ ফাতেমা, শামীম এস্কান্দারের ছেলে অভিক এস্কান্দার ও ভাগ্নে ডা. মো. মামুন। এই প্রথম কোকোর স্ত্রী খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে গেলেন। প্রায় ৩০ মিনিটকাল অবস্থানের সময় তারা খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন ও কথা বলেন। পরিবারের এক সদস্য জানান, বেগম জিয়া শারীরিকভাবে মোটামুটি ভালোই আছেন। তবে হাঁটুতে একটু ব্যথা আছে। এটা আগেই ছিল। নাজিম উদ্দীন রোডের ১৭ একর জমির ওপর পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে গত ৫২ দিন ধরে বন্দী বেগম খালেদা জিয়া। তিনি সেখানে কীভাবে সময় পার করছেন এই নিয়ে আগ্রহের শেষ নেই দলের নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষের। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবীর বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের দেখভাল করার জন্য একজন ফার্মাসিস্ট এবং একজন চিকিৎসক সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি চাইলেই তাদের ডেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে নিচ্ছেন। এর বাইরে নিয়মমতো খাবার গ্রহণসহ সবকিছুই স্বাভাবিক তার। সূত্র জানায়, একাদশ জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া অংশ নিতে পারবেন কি না তা স্পষ্ট নয়। নির্বাচনের আগে তার মুক্তি মিলবে কি না তাও পরিষ্কার করে বলা যাচ্ছে না। বিএনপি নেতারা অবশ্য বলছেন, সরকার চাইছে, বেগম খালেদা জিয়াকে বাইরে রেখেই নির্বাচন। সেখানে তারা বিএনপির একটি অংশকেও চায়। এ জন্য তারা বিএনপির কারও কারও সঙ্গে যোগাযোগও করছেন। একইভাবে বিএনপি জোটের নেতাদেরও খালেদা জিয়া বিহীন নির্বাচনে অংশ নেওয়ার চেষ্টায় রয়েছে সরকার। এ ব্যাপারে জোটের ছোট বড় দলের নেতাদের সঙ্গেও নানাভাবে কথাবার্তা চলছে। এ নিয়ে নানা প্রলোভনের পাশাপাশি ভয়ভীতিও দেখানো হচ্ছে বলে জানান বিএনপি ও জোটের নেতারা। বিএনপি নেতারা অবশ্য বলছেন, সরকার যত চেষ্টাই করুক বিএনপি ভাঙবে না। এমনকি জোটও ভাঙবে না। এর আগেও সরকার একাধিকবার চেষ্টা করেছিল কিন্তু বিএনপির কেউই দল ত্যাগ করেনি। জোটও অটুট রয়েছে। এগুলো হচ্ছে একটি অপপ্রচার। তা ছাড়া বেগম জিয়ার কারাগারে যাওয়ার পর থেকে বিএনপি নেতা-কর্মীরা সবাই ঐক্যবদ্ধ। বিএনপি এখন আগের চেয়ে বেশি শক্তিশালী। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন,বিএনপির সামনে এখন তিনটি এজেন্ডা রয়েছে। প্রথম এজেন্ডা হচ্ছে- বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। এ জন্য আইনি লড়াইয়ের পাশাপাশি রাজপথে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সরকার যত কৌশল আর ষড়যন্ত্রই করুক না কেন-বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দী করে রাখতে পারবে না। খালেদা জিয়াকে ছাড়া বিএনপি নির্বাচনেও যাবে না। দ্বিতীয়ত, একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবি আদায় করতে হবে। তৃতীয়ত, দেশের মানুষের প্রতিনিধিত্ব করতে হবে সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক পন্থায়।
দলীয় কোন্দল-গ্রুপিং অনুসন্ধানে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন,আওয়ামী লীগের
সারাদেশে দলীয় কোন্দল-গ্রুপিং এবং কি কারণে নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীরা পরাজিত হচ্ছেন তা অনুসন্ধানে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। শনিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভায় আলোচনার পর এ কমিটি গঠন করা হয়। সভায় উপস্থিত একাধিক নেতা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরুল্লাহর নেতৃত্বে এ কমিটিতে রয়েছেন- যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক ও মো. আব্দুর রহমান। সভায় উপস্থিত একাধিক নেতা জানান, দলের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ দলীয় কোন্দলের প্রসঙ্গ টেনে সভায় বক্তব্য উত্থাপন করেন। এরপর পুরো বৈঠকে দলের বিভিন্ন স্তরে কোন্দল নিরসনের বিষয় নিয়েই আলোচনা করেন প্রায় সব কেন্দ্রীয় নেতারা। কেন্দ্রীয় নেতাদের বক্তব্যে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনেও কোন্দলের কারণে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের পরাজিত হয়েছে বলে দাবি করা হয়। একই সঙ্গে নেতাদের বক্তব্যে উঠে আসে স্থানীয় সরকার নির্বাচন, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের পরাজয়ের বিভিন্ন দিক। পরে অনুসন্ধান কমিটিকে সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনে পরাজয়ের কারণ অনুসন্ধান করে দলীয় প্রধানের নিকট প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেন দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা। নেতাদের বক্তব্য শুনে দলের ও নৌকার বিরুদ্ধে বিভিন্ন এলাকায় যেসব নেতা ও এমপি অবস্থান নিয়েছে তাদেরকে ভবিষ্যতে নৌকা প্রতীক দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সভায় দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরুল্লাহকে প্রধান করে চার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের সমন্বয়ে গঠিত কমিটিকে সারাদেশে দলের গ্রুপিংয়ে জড়িতদের চিহ্নিত ও তাদের বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরে দ্রুত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেন আওয়ামী লীগ প্রধান। একই সঙ্গে সারাদেশের এ সকল কোন্দল-গ্রুপিং নিরসনে কাজ করার পাশাপাশি মে মাসে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বার কাউন্সিল নির্বাচন তদারকি করার নির্দেশ দেয়া হয় কমিটিকে। অপর দিকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীদের পরাজয়ের কারণ অনুসন্ধানে সংশ্লিষ্ট সাংগঠনিক সম্পাদকদের দায়িত্ব দেয়া হয়। এদিকে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা লাভ করায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নাগরিক সংবর্ধনা প্রদানের বিষয়ে আলোচনার সূত্রপাত করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুর রহমান। পরে একে একে এ প্রসঙ্গে আলোচনায় যোগ দেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, এস এম কামাল হোসেনসহ সভায় উপস্থিত অধিকাংশ নেতারা। সভায় উপস্থিত ওই নেতারা জানান, কোন তারিখে সংবর্ধনা দেয়া হবে তা নির্ধারণ হয়নি। কারণ আগামী মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেশ কয়েকটি সরকারি সফরে লন্ডন, অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশে অবস্থান করবেন। তবে আগামী ১৭ মে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের দিন এ সংবর্ধনা আয়োজনা করা হতে পারে বলেও সভায় আলোচনা হয়। সূত্র: জাগো নিউজ
জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে মিথ্যাচার করছে বিএনপি নেতারা:কাদের
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে বিএনপি নেতারা মিথ্যাচার করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার দুপুরে বাইপাইল- আব্দুল্লাহপুর মহাসড়কের আশুলিয়ার জিরাবোতে মহাসড়কের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ইতোমধ্যে কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করেছে সিভিল সার্জন। খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হবে। তিনি বলেন, মেডিকেল বোর্ড যদি মনে করেন এদেশেই খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করা সম্ভব তাহলে দেশেই চিকিৎসা করা হবে। আর যদি মেডিকেল বোর্ড মনে করেন দেশে চিকিৎসা হবে না তাহলে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করা হবে। সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে দেশে নীল নকশার নির্বাচন করতে চেয়েছিলো, আওয়ামী লীগ কখনো দেশে নীল নকশা নির্বাচন করে না। আগামী রোজার ঈদের আগে টাঙ্গাইল-চন্দ্রা ও বাইপাইল-আব্দুল্লাহপুর মহাসড়কে যানজট হবে না বলে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমি এখানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আসেনি মন্ত্রী হিসেবে রাষ্ট্রীয় কাজে এসেছি। তাই আমি আসলে কোনো নেতাকর্মী যেন শোডাউন না করে। এসময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-১৯ আসনের সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিন, সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান মেহেদী হাসান মঞ্জু, আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার, আশুলিয়া থানা যুবলীগের সাবেক প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন খাঁনসহ সড়ক বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
বিএনপি গণতন্ত্র থেকে এক হাজার মাইল দূরে সরে গেছে:ইনু
বিএনপি গণতন্ত্র থেকে এক হাজার মাইল দূরে সরে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন,কখনো আগুন সন্ত্রাস করে, কখনো জঙ্গি সন্ত্রাস করে, কখনো সংসদ বয়কট করে তাঁরা গণতন্ত্রের ঘর থেকে বেরিয়ে গেছেন। তাঁরা গণতন্ত্র থেকে এখন এক হাজার মাইল দূরে। তারা কখনো পাকিস্তানের পক্ষে ওকালতি করে, কখনো রাজাকারকে নিয়ে জঙ্গি সন্ত্রাস করে, সেই বিএনপি এখন গণতন্ত্রের জন্য চিৎকার করছে। শনিবার কুষ্টিয়া শহরের একটি অবকাশ যাপন কেন্দ্রে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল বাংলাভিশনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী। ইনু বলেন,বিএনপির মুখে গণতন্ত্র, খালেদা জিয়ার মুখ গণতন্ত্র কিন্তু আচলে এবং পকেটে তাদের হচ্ছে রাজাকার, জঙ্গি এবং জামায়াত এবং আগুন সন্ত্রাসীরা। কার্যত তারা গণতন্ত্রের জন্য বিশ্বাসযোগ্য কোনো রাজনৈতিক দল নয়। বরঞ্চ বিএনপি বার বার প্রমাণ করেছে যে বিএনপি হচ্ছে খুনিদের আস্তানা এবং রাজাকার, জঙ্গি সন্ত্রাসীদের ঠিকানা। সেই বিএনপি বাংলাদেশের রাজনীতিতে একটা বিপজ্জনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে এখনো টিকে আছে কেবল আইনের জোরে। আমরা মনে করি যে প্রচলিত যে আইন আছে সেই আইনে বিএনপি দলগতভাবে নির্বাচন করতে পারে। সে ব্যাপারে কোনো আইন এখনো পরিবর্তন হয়নি। সুতরাং বিএনপিকে বাদ দিয়ে কোনো নির্বাচনের পরিকল্পনা সরকারের নেই। তথাকথিত সহায়ক সরকারের রূপরেখাহীন সহায়ক সরকারের প্রস্তাব, খালেদা জিয়ার মুক্তির প্রস্তাব- এসব অপরাধীদের ছাড় দেওয়ার প্রস্তাব, আগুন সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা না করার প্রস্তাব নির্বাচনে অংশগ্রহণের পূর্বশর্ত হিসেবে যদি বিএনপি দাঁড় করায় তাহলে আমরা বলব যে কোনো শর্ত দিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার বিষয়টার নিষ্পত্তি হতে পারে না। বিএনপি মূলত নির্বাচন বানচাল ও বর্জন করার চক্রান্ত করছে বলেও অভিযোগ করেন তথ্যমন্ত্রী। বাংলাভিশনেরর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সংক্ষিপ্ত আলোচনা শেষে কেক কেটে রযালিতে অংশ নেন তথ্যমন্ত্রী। পরে সেখানেই মন্ত্রীকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। এ সময় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা ছাড়াও জেলা জাসদের নেতাকর্মীরা ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।
গুঞ্জন সামাজিক পরিবেশ নষ্ট করে:রিজভী
গুঞ্জনে কান না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভীকে একজন সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে যে এমন সময় রিজভী আহমেদ তাকে থামিয়ে দিয়ে বলেন,কোনো গুঞ্জনে কান দেবেন না। গুঞ্জন সামাজিক পরিবেশ নষ্ট করে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন,মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে, গুমকে ফৌজদারী অপরাধ গণ্য করতে এবং বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গণহারে গ্রেফতার ও তাদের ওপর ধারাবাহিক নির্যাতন বন্ধ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সলিডারিটি গ্রুপ ফর বাংলাদেশ। এক বিবৃতিতে তারা গণগ্রেফতার করা বিরোধীদলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষকে মুক্তি দিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। পাশাপাশি তারা মৌলিক মানবাধিকারের প্রতি সম্মান দেখাতে জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানিয়েছে। রিজভী বলেন,অবাধ ও সুষ্ঠু জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠান করতে সরকারের প্রতি তারা সুপারিশ করেছে। আহ্বান জানানো হয়েছে, ফৌজদারি বিচার বিষয়ক প্রতিষ্ঠানগুলোর স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে। সুপারিশ করা হয়েছে, জোরপূর্বক গুমকে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য করতে। বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর ধারাবাহিকভাবে নির্যাতন চলছে। সেই সঙ্গে সরকারের সমালোচকদের ওপর ক্রমাগত আক্রমণ হচ্ছে এবং মত প্রকাশকে বাধাগ্রস্ত করতে আইন তৈরি হচ্ছে। এশিয়ান ফেডারেশন এগেইনস্ট ইনভলান্টারি ডিজঅ্যাপেয়ারেন্সেস (এএফএডি), এশিয়ান ফোরাম ফর হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (ফোরাম-এশিয়া), এশিয়ান লিগ্যাল রিসোর্স সেন্টার (এএলআরসি), সিভিকাস গ্লোবাল এলায়েন্স, ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন ফর হিউম্যান রাইটস (এফআইডিএইচ), অধিকার, রবার্ট এফ কেনেডি হিউম্যান রাইটস ও ওয়ার্ল্ড অর্গানাইজেশন এগেইনস্ট টর্চার (ওএমসিটি)-এর সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে সলিডারিটি গ্রুপ ফর বাংলাদেশ। এ গ্রুপে ২০১৮ সালে যোগ দিয়েছে এশিয়ান নেটওয়ার্ক ফর ফ্রি ইলেকশন নামে একটি গ্রুপ। সলিডারিটি গ্রুপ ফর বাংলাদেশ ২২ মার্চ এক যৌথ বিবৃতিতে বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতির ভয়াবহতা তুলে ধরেছে। কড়া নিন্দা জানিয়েছে গণগ্রেফতারের। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজতে বিরোধীদলের নেতা-কর্মীদের মৃত্যু ও নির্যাতনে গভীর উদ্বগ প্রকাশ করেছে। তিনি বলেন, এই যৌথ বিবৃতিতে বাংলাদেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সরকারের কাছে সুপারিশ করা হয়। রিজভী দাবি করেন, মানবধিকার সংগঠনগুলোর বিবৃতিতে বাংলাদেশের মানবধিকার পরিস্থিতির যে ভযাবহতা তুলে ধরা হয়েছে বাস্তবে ভয়াবহতা আরও ব্যাপক। শুধু রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ হওয়ায় আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি চেয়ারপারসন তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জাল নথি তৈরি করে মিথ্যা সাজানো মামলায় যেভাবে কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে, যেভাবে সরকারি নির্দেশে জামিন স্থগিত করে রাখা হয়েছে তা মানবধিকারের চূড়ান্ত লঙ্ঘন। শুধুমাত্র শেখ হাসিনার ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করতেই সরকারি সহিংসতার ব্যাপক রুপ ধারণ করেছে। বিএনপির এই নেতা বলেন,মত প্রকাশের স্বাধীনতা কেড়ে নিয়ে গণতন্ত্রকে লোহার শিকলে বন্দি করে বাংলাদেশকে অন্ধকার শ্বাসরোধী পরিবেশ থেকে মুক্ত করতে সরকারের রোষানলের শিকার জনগণের অধিকার আদায়ে অবিচল ও প্রত্যয়দৃঢ় নেত্রী কারাবন্দি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সারাদেশে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে। ক্ষমতাসীনরা তাদের ওপর হামলা করছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী আহমেদ। তিনি এসবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
খুলনা ও গাজীপুর সিটিতে ভোট গ্রহন ১৫ মে
গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনে ১৫ মে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই দুই সিটিতে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন ১২ এপ্রিল। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৩ এপ্রিল। আর যাচাই বাছাই ১৫-১৮ এপ্রিল। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা শনিবার নির্বাচন কমিশন ভবনে এই তফসিল ঘোষণা করেন। এর আগে বেলা ১১টায় এ সংক্রান্ত বৈঠকে বসে কমিশন। সিইসি বলেন, গাজীপুরে ভোটার ১১ লাখ ৬৪ হাজার ৪২৫ জন। আর খুলনায় ভোটার ৪ লাখ ৯৪ হাজার ৪৫৪ জন। সূত্র জানায়, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই গাজীপুর, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট এই পাঁচ সিটিতে ভোটগ্রহণ করতে হবে। তাই আসছে রমজানের আগে গাজীপুর ও খুলনা সিটি ভোট শেষ করে ঈদের পর অন্য তিন সিটিতে ভোট করবে ইসি। ইসির সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৫ বছর মেয়াদ পূর্ণ হবে ৪ সেপ্টেম্বর, সিলেটের ৮ অক্টোবর, খুলনার ২৫ সেপ্টেম্বর, রাজশাহীর ৫ অক্টোবর এবং বরিশালের ২৩ অক্টোবর। স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন অনুযায়ী করপোরেশনের প্রথম বৈঠক থেকে ৫ বছর মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার ১৮০ দিন আগে যেকোনো সময় নির্বাচন করতে হবে।
খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকায় সাক্ষাতের অনুমতি পেলেন না ফখরুল
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকায় কারাগারে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করার অনুমতি পাননি দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপি চেয়ারপারসনের গণমাধ্যম শাখার কর্মকর্তা শায়রুল কবীর খান জানান, বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে গিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের দেখা করার কথা ছিল।কিন্তু দুপুরে বিএনপি মহাসচিবকে জানিয়ে দেয়া হয়- বিএনপি চেয়ারপারসন অসুস্থ, তাই তিনি দেখা করার অনুমতি পাচ্ছেন না। এর আগে শায়রুল কবীর জানিয়েছিলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ও বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে করণীয় বিষয় নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন ও মহাসচিবের মধ্যে আজ আলোচনা হতে পারে। উল্লেখ্য, ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৫-এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামানের আদালত খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। একই আদালত খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয় আসামির প্রত্যেককে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা করে অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেন। রায়ের পর থেকে কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া।
আওয়ামী লীগের বিজয়ের হাতিয়ার নারী ও তরুণ ভোটাররাই:কাদের
নারী ও তরুণ ভোটাররাই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়ের হাতিয়ার বলে দাবি করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।কাদের বৃহস্পতিবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও জেলা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এমন দাবি করেন। বিএনপি দুর্দিনে জনগণের পাশে থাকে না অভিযোগ করে তিনি বলেন, মনে আছে শীতের সময়ে আমরা এসেছিলাম কম্বল নিয়ে, তখন কোথাও তাদের দেখা যায় নাই। আপনাদের বিপদের সময় কে আপনাদের পাশে থাকে? শেখ হাসিনার কম্বল নিয়ে ঠাকুরগাঁওয়ে আওয়ামী লীগ এসেছে। কাদের বলেন,বিএনপির পায়ের তলায় মাটি নাই। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করতে বলেন, আপনারা ঠাকুরগাঁওবাসী কী বলেন? এই প্রশ্ন করা হলে জনসভায় উপস্থিত সবাই সমস্বরে বলেন না, না, না। নৌকার পক্ষে ভোট চেয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এলে সারাদেশে খাওয়া ভবন হবে। দুর্নীতি, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ পেট্রলবোমা মারবে আপনারা কী তা চান? জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দবিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে জনসভায় আরও বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ এম মাহমুদ আলী, দলের যুগ্ম সাধারণ মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ প্রমুখ।
চাইলে অন্যদিন সমাবেশের অনুমতি পাবে বিএনপি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আশঙ্কাজনক কোনো তথ্য ছিল বলেই ২৯ মার্চ বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয়নি পুলিশ। তবে অন্য সময় চাইলে নিশ্চয় তারা অনুমতি পাবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে মানিকগঞ্জ জেলা আনসার একাডেমিতে নবগঠিত ৩৮ আনসার ব্যাটালিয়নের ফ্ল্যাগ রেইজিংয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পুলিশ প্রশাসনের কাছে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত থাকে। সেগুলো বিশ্লেষণ করে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়। ২৯ মার্চ হয়তো কোনো অসুবিধা ছিল যে কারণে পুলিশ বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয়নি। বিএনপি অন্য দিন চাইলে অবশ্যই অনুমতি দেয়া হবে। তিনি আরও বলেন, পুলিশ কমিশনারের দায়িত্ব হলো জনগণের জানমাল রক্ষা করা। যানজট যাতে না হয় সেগুলো দেখাশুনা করা। অনুমতি নিয়ে রাজনৈতিক কর্মসূচি করা হবে এই প্রসঙ্গ আসেই না। জাতীয় পার্টি ঢাকায় বিশাল সমাবেশ করেছে। অন্যান্য পার্টি সমাবেশ করছে। অনুষ্ঠানে আনসার ও ভিডিপির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল পাশা হাবীব উদ্দিন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগ্রেডিয়ার নুরুল আলম, মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. নাজমুছ সাদাত সেলিম, পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীন উপস্থিত ছিলেন।