ক্রীড়াজগত থেকে জাতীয় নির্বাচনে আছেন যারা
অনলাইন ডেস্ক: ভোটযুদ্ধ আসন্ন। দেশজুড়ে এখন নির্বাচনী হাওয়া। চারদিকে ভোটের আমেজ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আগামী ৩০ ডিসেম্বর। এবার ক্রীড়াজগতের বেশ কয়েকজন তারকা অংশ নিচ্ছেন নির্বাচনে। ক্রীড়া সংগঠকেরাই শুধু নন, কয়েকজন খেলোয়াড়ও মনোনয়ন পাওয়ার লড়াইয়ে নেমেছেন। এই তালিকায় সবচেয়ে বড় নাম বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের পতাকায় নির্বাচন করতে যাচ্ছেন নড়াইল এক্সপ্রেস। তার মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়টি একপ্রকার নিশ্চিত। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল হক বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) থেকে মনোনয়ন চেয়েছেন। এছাড়া সাবেক খ্যাতিমান ফুটবলার মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমে বীর বিক্রম, দেওয়ান শফিউল আরেফিন টুটুল, আব্দুস সালাম মুর্শেদী, খুরশিদ আলম বাবুল, আরিফ খান জয়, সাইদুর রহমান প্যাটেল, ক্রিকেটার নাঈমুর রহমান দুর্জয় ও সাবেক হকি তারকা আরিফুল হক প্রিন্সের মতো সুপরিচিত ক্রীড়াব্যক্তিত্বরা ভোটের মাঠে যোগ করেছেন বাড়তি উত্তাপ। ক্রিকেট দলকে একটা সময় নেতৃত্ব দেওয়া নাঈমুর রহমান দুর্জয় আর সাফজয়ী দলের সদস্য আরিফ খান জয় গত সংসদ নির্বাচনে নিজ নিজ এলাকায় জিতেছিলেন। তবে তাদের নিয়ে এখন খুব বেশি আলোচনা হচ্ছে না, যতটা হচ্ছে মাশরাফিকে নিয়ে। নড়াইল-২ আসন থেকে নির্বাচন করতে চান মাশরাফি। মাশরাফির সঙ্গে বিশ সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও রাজনীতিতে যোগ দিতে চেয়েছিলেন। তবে পরে এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন তিনি। বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসে আমিনুল হকের নামটি চিরভাস্বর হয়ে থাকবে। দীর্ঘদিন খেলেছেন লাল-সবুজ জার্সি গায়ে, দেশকে দিয়েছেন নেতৃত্ব। ফুটবলকে বিদায় জানানোর পর এখন তিনি পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদ। বিএনপি থেকে তিনি মনোনয়ন চাইছেন ঢাকা-১৪ ও ১৬ আসন থেকে। বিএনপির সহকারী ক্রীড়া সম্পাদক ও জাতীয় হকি দলের সাবেক খেলোয়াড় আরিফুল হক প্রিন্স টাঙ্গাইল-৫ আসন থেকে দলীয় প্রার্থী হওয়ার আশায় মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। বর্তমান যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার মাগুরা-২ আসনের সংসদ সদস্য। ওই আসনে তার মনোনয়ন পাওয়া অনেকটা নিশ্চিত। জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আরিফ খান জয় গত নির্বাচনে সংসদ সদস্য হয়েছিলেন নেত্রকোনা-৩ আসন থেকে। এবারও তিনি ওই আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। তবে তার মনোনয়ন পাওয়া নিয়ে কিছুটা শঙ্কা আছে। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক, বিসিবির পরিচালক নাঈমুর রহমান দুর্জয় গত নির্বাচনে সংসদ সদস্য হয়েছিলেন মানিকগঞ্জ-১ আসন থেকে। কিছুদিন আগে খুলনা-৪ আসনের উপনির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সিনিয়র সহসভাপতি ও সাবেক ফুটবলার আব্দুস সালাম মুর্শেদী। অনেকটা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়, আসন্ন নির্বাচনে তিনি ওই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবেন। গত নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-৬ আসন থেকে সংসদ সদস্য হন আবাহনীর পরিচালক ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি (বিসিবি) নাজমুল হাসান পাপন। এবারও তার ওপর আস্থা রাখবে আওয়ামী লীগ। বিসিবির সাবেক সভাপতি ও পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল গতবার কুমিল্লা-১০ আসন থেকে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন। এবারও এই আসনে মনোনয়ন চাইছেন তিনি। ঢাকা মোহামেডানের সাবেক সহসভাপতি শরিফুল আলম কিশোরগঞ্জ-৭ আসনে বিএনপির টিকিটে নির্বাচন করতে চাইছেন। বাফুফের সহসভাপতি ও আবাহনীর ভারপ্রাপ্ত ডিরেক্টর ইনচার্জ কাজী নাবিল আহমেদ যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য। এবারও তিনি একই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইছেন। সাবেক কৃতী ফুটবলার মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম ভোলা-৩ আসন থেকে প্রার্থী হতে চাইছেন।
অসুস্থ হয়ে সামরিক হাসপাতালের সিএমএইচে এরশাদ
অনলাইন ডেস্ক: নির্বাচনের আগে আবারো অসুস্থ হয়ে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি হয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। বৃহস্পতিবার রাত থেকে তিনি সিএমএইচে ভর্তি আছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাপা মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার শনিবার সকাল পৌনে ৯ টার দিকে শীর্ষনিউজকে বলেন, চেয়ারম্যান সারের বড় কোনো সমস্যা হয়নি। তিনি সুস্থ আছেন। নিয়মিত চেকআপের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। কিছুক্ষণ আগেও তার সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তিনি ভাল আছেন। উল্লেখ্য, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বার বার সিএমএইচে ভর্তি নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনসহ বিভিন্ন মহলে নানা গুঞ্জন রয়েছে। কিছু দিন আগেও নির্বাচন হবে কি না সন্দেহ আছে এমন বক্তব্য দেয়ার পর তিনি হঠাৎ করেই অসুস্থ হয়ে সিএমএইচে ভর্তি হন। এরপর হাসপাতাল থেকে বাসায় এসেই আবার বললেন নির্বাচন যথা সময়েই হবে কোনো সন্দেহ নেই।
ঐক্যফ্রন্ট একটি কমন প্রতীকে নির্বাচন করবে আর সেই প্রতীক হবে ধানের শীষ: মাহমুদুর রহমান
অনলাইন ডেস্ক: শরিক দল বিএনপির প্রতীক ধানের শীষ প্রতীকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক জোটের আরেক শরিক দল নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না সাংবাদিকদের এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। চলমান রাজনীতি ও নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে আলোচনা করতে রাজধানীর মতিঝিলে ঐক্যফ্রন্টের গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ঐক্যফ্রন্ট একটি কমন প্রতীকে নির্বাচন করবে। আর সেই প্রতীক হবে ধানের শীষ। গতকাল দুপুরে নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা প্রসঙ্গে মান্না বলেন, নির্বাচন কমিশনের অসতর্কতায় নয়া পল্টনে গতকালের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মান্না আরও বলেন, সরকার যেকোন উপায়ে নির্বাচনকে নিজেদের পক্ষে নেয়ার চেষ্টা করছে। আসন বন্টন নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে, সিদ্ধান্ত হয়নি। বৈঠকে ড. কামাল হোসেন, জোটের মুখপাত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতনসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।
দলের প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করতে আ.লীগের বৈঠক আজ
অনলাইন ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করতে আজ বৈঠকে বসবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আজ বুহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। বুধবার রাতে আওয়ামী লীগের দপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত বৈঠকের তথ্য জানানো হয়। তাদের পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠক হবে। এতে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা। জানা গেছে, এ বৈঠকে আওয়ামী লীগ তার দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করবে। জোটের আসনগুলো নিয়েও আলোচনা হবে এতে। এর আগে চারদিনে চার হাজারেরও বেশি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করে দলটি।
সরকারের সদিচ্ছা নেই,আমরা নির্বাচনে যেতে চাই: ২০ দল
অনলাইন ডেস্ক: বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চায় কিন্তু এতে সরকারের সদিচ্ছা নেই বলে অভিযোগ করেছেন জোটের সমন্বয়ক ও এরডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ। বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। অলি বলেন, আমরা নির্বাচন করতে চাই। কিন্তু ২০ দলের নির্বাচনে আসার বিষয়ে সরকারের সদিচ্ছা নেই। সরকার ও ক্ষমতাসীন দল চায় না ২০ দল নির্বাচনে আসুক। নির্বাচনে সব দলের জন্য সমান সুযোগ নেই। সরকারি দল ও তাদের শরিকরা বেশি সুবিধা পাচ্ছে। ২০-দলীয় জোটের নির্বাচনী কার্যক্রমে বাধা দেয়া হচ্ছে, এমন অভিযোগ করে অলি আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী আশ্বাস দেয়া সত্ত্বেও এখনও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধরপাকড় বন্ধ হয়নি। সারা দেশে ২০-দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। বুধবার বিএনপির কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের প্রতিবাদ জানিয়ে অলি আহমেদ বলেন, মনোনয়ন ফরম বিক্রির সময় একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশের হামলা ন্যক্কারজনক। জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে এ ধরনের হামলা নির্বাচনের স্বাভাবিক পরিবেশের বিঘœ ঘটাচ্ছে। অলি আহমেদ নির্বাচনে সব দলের জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টির দাবি জানিয়ে বলেন, সরকারি দল ও তাদের মিত্ররা বীরদর্পে নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছে। অন্যদিকে তিন বারের প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে। তিনি নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন না। সংবাদ সম্মেলনে ২০ দলের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
নেত্রকোনা-৪ এ ধানের শীষ চান মাসুদ রানা
অনলাইন ডেস্ক: নেত্রকোনা-৪ (মদন-মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী) আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থী হতে বিএনপির মনোনয়ন কিনেছেন নেত্রকোনা সরকারি কলেজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক (জিএস) মাসুদ রানা চৌধুরী। আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও অন্যান্য রাজনৈতিক দলের একাধিক মনোনয়নপ্রত্যাশী নির্বাচনী মাঠে তৎপর থাকলেও হাওরাঞ্চলের তরুণ প্রজন্মের এই নেতা নিজেকে যোগ্য মনে করছেন। এ লক্ষ্যে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন তিনি। নেত্রকোনার হাওরাঞ্চল অধ্যুষিত মদন-মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী উপজেলা নিয়ে গঠিত জাতীয় সংসদের ১৬৪ নম্বর আসন। এ আসনে তিন উপজেলায় ২১টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ৯২ হাজার ২৩৬ জন। এর মধ্যে মদন উপজেলায় এক লাখ নয় হাজার ১৩৯ জন, মোহনগঞ্জে এক লাখ ১৮ হাজার ৫৪৪ জন এবং খালিয়াজুরীতে ৬৪ হাজার ৬৫৩ জন ভোটার। নেত্রকোনা সরকারি কলেজের সাবেক জিএস মাসুদ রানা চৌধুরী জানান, বুধবার ঢাকার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে তিনি মনোনয়নপত্র কিনেছেন। ধানের শীষের প্রার্থিতার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। মাসুদ রানা আরো বলেন, নেত্রকোনার হাওরাঞ্চল অধ্যুষিত মদন-মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী উপজেলার মেহনতি মানুষের জীবনমানের উন্নয়নের লক্ষ্যে তৃণমূলকে সঙ্গে নিয়ে নিরলসভাবে কাজ করার ইচ্ছায় দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন বলে জানান তিনি।
নয়াপল্টনে সংঘর্ষ-অগ্নিসংযোগে তিন মামলা, গ্রেফতার ৬৫
অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, হামলা এবং গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) সকাল পর্যন্ত এসব মামলায় ৬৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে পল্টন মডেল থানা সূত্রে জানা গেছে। বুধবার (১৪ নভেম্বর) রাতে রাজধানীর পল্টন মডেল থানা পুলিশ বাদী হয়ে মামলা তিনটি দায়ের করেন। পল্টন মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদ হোসেন এসব নিশ্চিত করে জানায়, মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও তার স্ত্রী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসসহ দলটির অন্যান্য শীর্ষ নেতাকে আসামি করা হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক এমপি হেলালুজ্জামান তালুকদার লালুসহ এসব মামলায় এ পর্যন্ত ৬৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দলটির নেতাকর্মীরা পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে এসময় টিয়ারশেল, রাবার বুলেট ও লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশের দুটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা।
পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়েছে সরকার: রিজভী
অনলাইন ডেস্ক :বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, বিনা উস্কানিতে মনোনয়ন ফরম নিতে আসা নেতাকর্মীদের ওপর সরকার পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়েছে। বুধবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সাথে নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সংঘর্ষের পরই তাৎক্ষণিক এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন। রিজভী আরও বলেন, শেখ হাসিনার নির্দেশে নির্বাচন কমিশন পুলিশ দিয়ে এ হামলা চালাচ্ছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। তিনি বলেন, ‘আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আপনাদের শান্ত হতে বলেছেন। আপনারা রাস্তা ছেড়ে ফুটপাতে বসে পড়ুন। এটা তারেক রহমানের নির্দেশ।
নির্বাচন আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন :রিজভী
অনলাইন ডেস্ক :নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পরও প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানানো টেলিভিশন বিজ্ঞাপন প্রচারের বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। রিজভী বলেন, “টিভি খুললেই দেখছি, অনেক চ্যানেলে ‘থ্যাঙ্ক ইউ পিএম’ বিজ্ঞাপন চলছে। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর এ ধরনের বিজ্ঞাপন প্রচারে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘিত হচ্ছে কি না?”‌ আজ বুধবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ কথা বলেন। রিজভী বলেন, ‘কিছু বিজ্ঞাপনের পর বোঝাও যায় না, বিজ্ঞাপনদাতা কে? আবার কিছু বিজ্ঞাপনের পর বোঝা যায় বিজ্ঞাপনদাতা মন্ত্রণালয়।’ রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‌‘নির্বাচন সামনে রেখে এখন কেন সরকারি অর্থে এ ধরনের প্রচার চালু রাখা হচ্ছে? এ বিজ্ঞাপন তো দেশের মানুষের ট্যাক্সের টাকায় প্রচারিত হচ্ছে। আর বিজ্ঞাপন প্রচার করে আওয়ামী লীগ ভোটের সুবিধা নেবে। এটা নির্বাচন আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এ বিজ্ঞাপন প্রচারের মাধ্যমে সরকারি টাকায় আওয়ামী লীগের পক্ষে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। এটার মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারণায় সমান সুযোগের বিধান লঙ্ঘন করা হচ্ছে। নির্বাচন কমিশন এসব দেখেও না দেখার ভান করছে।’ নির্বাচন কমিশন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায় বলেও অভিযোগ করেন রিজভী। ‌‘এ জন্য ভোটকেন্দ্র থেকে সংবাদমাধ্যমগুলোকে সরাসরি সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রিটার্নিং অফিসারদের এ নির্দেশনা দেন নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম। নির্দেশনাগুলো হলো, প্রিসাইডিং অফিসারের অনুমতি ছাড়া কোনো ভোটকক্ষে প্রবেশ করা যাবে না। একসঙ্গে পাঁচজনের বেশি সাংবাদিক প্রবেশ করতে পারবে না। ১০ মিনিটের বেশি কেন্দ্রে অবস্থান করতে পারবে না। ভোটকক্ষে নির্বাচনী কর্মকর্তাসহ কারো সঙ্গে আলাপ করতে পারবে না। নির্বাচন-সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাজে হস্তক্ষেপ করতে পারবে না। কোনো প্রকার নির্বাচনী উপকরণ স্পর্শ বা অপসারণ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। প্রার্থী বা রাজনৈতিক দলের পক্ষে বা বিপক্ষে কোনো ধরনের কর্মকাণ্ড হতে বিরত থাকতে হবে। সংবিধান, নির্বাচনী আইন ও বিধিবিধান মেনে চলতে হবে।

রাজনীতি পাতার আরো খবর