শুক্রবার সকালে নগরীর দর্শনার এরশাদের বাসায় যান রসিকের নতুন মেয়র মোস্তাফিজুর
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনের প্রভাব আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পড়বে। কিন্তু কিভাবে ওই নির্বাচনে তার দল অংশগ্রহণ করবে, এখনো সময় হয়নি তা বলার বলে জানানা তিনি। শুক্রবার সকালে নগরীর দর্শনার এরশাদের বাসায় যান রসিকের নতুন মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা। এসময় মেয়রকে জড়িয়ে ধরে আবেগ আপ্লুত হয়ে এসব কথা বলেন। এরশাদ বলেন, জাতীয় পার্টি মরেনি আর মরবেও না। রংপুর বাসী তাদের যোগ্য নেতাকে মেয়র হিসেবে বেছে নিয়েছে। এর মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে জাতীয় পার্টি মানুষের হৃদয়ে আছে এবং থাকবে। জাতীয় পার্টির সক্ষমতা এখানেই প্রমাণিত হয়েছে। তিনি বলেন, জাতীয় পার্টিকে ভবিষ্যতেও আর কেউ ঘাটাতে সাহস পাবে না। সমীহ করে কথা বলবে। তিনি বলেন, লাঙ্গল মাটি ও মানুষের প্রতীক। লাঙ্গল সমগ্র রংপুরবাসীর প্রতীক। নবনির্বাচিত মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা বলেন, রসিক নির্বাচনের আগে নগরবাসীকে যে কথা দিয়েছিলাম তা অবশ্যই পূরণ করবো। রংপুরের মানুষ আমার প্রতি ও লাঙ্গলের প্রতি আস্থা রেখেছে আমি এর প্রতিদান অবশ্যই দিব। তিনি বলেন, রংপুর হচ্ছে জাতীয় পার্টির ঘাঁটি। এখানে জাতীয় পার্টির অবস্থান খুবই সুদৃঢ়। তাই আগেই বলেছিলাম লাঙলই জয়ী হবে। জনগণের দেওয়া রায়ে আমি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন (ইসি) কথা দিয়েছিল, একটি সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন করবে। কমিশন সেই কথা রেখেছে। এ কারণে জনগণ সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পেরেছে। তবে এই অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য শুধু নির্বাচন কমিশন কিংবা সরকার নয়, নির্বাচনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আমি ধন্যবাদ জানাই। এসময় তিনি রংপুর সিটি করপোরেশনকে একটি আধুনিক সিটি করপোরেশন হিসেবে গড়ে তোলার আশাবাদ জানান।
নির্বাচন কমিশন যখন যে দলের সঙ্গে কথা বলেছেন, তখন তাকেই সন্তুষ্ট করেছেন-মির্জা ফখরুল
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্বাচন কমিশনের গঠন প্রণালীই হচ্ছে ভুল। দেশের বরেণ্য ব্যক্তিত্বদের নিয়ে, যাদের প্রতি সকলের আস্থা আছে তাদের নিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রস্তাব করেছিলাম। নির্বাচন কমিশন একটি সাংবিধানিক সংগঠন, কাউকে তুষ্ট করার তার প্রয়োজন নেই। কারণ তারা যখন যে দলের সঙ্গে কথা বলেছেন, তখন তাকেই সন্তুষ্ট করেছেন। আজ শুক্রবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও কালিবাড়ি নিজ বাস ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে তিনি এসব কথা বলেন। ফখরুল বলেন, দেশের রাজনৈতিক সংকট মোকাবেলায় নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের বিকল্প নাই। রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। কিন্তু এই নির্বাচন কমিশনের ওপর আস্থা আনার মত তেমন কিছু হয়েছে বলে বিএনপি মনে করে না। এ সময় সংগঠনিক সম্পাদক রাজশাহী বিভাগ রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, আবুল কালাম আজাদসহ স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ব্যক্তির জনপ্রিয়তা ও আঞ্চলিকতা কাজ করে-আওয়ামীলীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ফলাফলের কোন প্রভাব জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পড়বে না। তিনি বলেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ব্যক্তির জনপ্রিয়তা ও আঞ্চলিকতা কাজ করে। কিন্তু জাতীয় নির্বাচনে একটি দলের উন্নয়ন কর্মকান্ড ও জনপ্রিয়তা ফলাফলে কাজ করে। এ কারণে রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পরাজয় হয়েছে। তাই এই নির্বাচনের ফলাফলের কোন প্রভাব জাতীয় নির্বাচনে পড়বে না। শুক্রবার দুপুরে কুষ্টিয়া সুগার মিলের ২০১৭-১৮ আখ মাড়াই মৌসুমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপির এমন অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে উল্লেখ করে মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পরাজয় হলেও গণতন্ত্রের জয় হয়েছে। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণ স্বাধীন। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার গুম-খুনে বিশ্বাস করে না। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ৭৫ সালের পরে এ দেশে গুম খুনের রাজনীতি শুরু করেছিলেন। তার ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছিল তার দল বিএনপি। পরে মাহবুব উল আলম হানিফ কুষ্টিয়া সুগার মিলের ২০১৭-১৮ মাড়াই মৌসুমের উদ্বোধন করেন। চলতি মৌসুমে এ মিলে ৫৫ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে ৩৮৫০ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কুষ্টিয়া সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল কাদেরের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদরউদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রবিউল ইসলামসহ মিলের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি কুষ্টিয়া হরিপুরে এক উঠান বৈঠকে যোগদান করেন।
নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব
রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। সকালে বিএনপির নয়া পল্টন কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। এসময় সরকারি দলের প্রার্থী প্রতিনিয়ত আচরণবিধি লঙ্ঘন করলেও নির্বাচন কমিশনার নির্বিকার বলেও দলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করেন তিনি। এ সময় তিনি আরো বলেন, 'বিএনপি ও বিএনপি সমর্থিত ভোটারদের ভয় দেখানো হচ্ছে যাতে তারা ভোট দিতে না যেতে পারে এবং এজেন্টদেরও নানাভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আজ সকালেও কয়েক জায়গায় প্রশাসন ব্যক্তিদের সহায়তায় ভোটারদের ভয় দেখানোর খবর আমরা পেয়েছি। সুতরাং রংপুর নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি না তা একটা বড় সন্দেহের সৃষ্টি করেছে।'
অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে এই আইনি নোটিশ প্রত্যাহার করতে হবে সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ৩০ দিনের মধ্যে ক্ষমা চাইতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পাঠানো উকিল নোটিশ প্রত্যাহার না করা হলে এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে আওয়ামী লীগ। বুধবার বিকাল ৫টায় দলের ধানমন্ডিস্থ নির্বাচন পরিচালনা কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এবং দলের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ও দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ বক্তব্য রাখেন। সংবাদ সম্মেলনে মতিয়া চৌধুরী বলেন, খালেদা জিয়া আইনি নোটিশ দিয়েছে। আমরা আইনিভাবেই বিষয়টি মোকাবিলা করব। হাছান মাহমুদ বলেন, যে সময় খালেদা জিয়া ও তার পরিবারের সদস্যদের দুর্নীতি দেশে-বিদেশে ফলাও করে প্রচার হচ্ছে, দুর্নীতির মামলায় তাদের শুনানি চলছে, ঠিক এই সময়ে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতেই খালেদা জিয়া আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। তিনি শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা করছেন। খালেদা জিয়াকে আমরা বলতে চাই, অবিলম্বে এই আইনি নোটিশ প্রত্যাহার করতে হবে। তা না হলে, এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সংবাদ সম্মেলনে হাছান মাহমুদ জানান, ১২টি দেশে খালেদা জিয়া ও তার পরিবারের এক হাজার দুইশ কোটি মার্কিন ডলার পাচারের অভিযোগ এসেছে। এসময় তিনি ২০০১ সাল পরবর্তী বিভিন্ন সময়ে খালেদা জিয়া ও তার পরিবারের দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন। খালেদা জিয়া জরিমানা দিয়ে কালো টাকা সাদা করেছেন বলেও তিনি উল্লেখ করেন। এসময় দুর্নীতি ও অর্থপাচারের জন্য খালেদা জিয়াকে জনগণের ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন, মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশে খালেদা জিয়া ও তার পরিবারের সদস্যদের অর্থ বিনিয়োগের যে অভিযোগ উঠেছে, এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের কাছে কোনও তথ্যপ্রমাণ আছে কিনা। এ প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, আমাদের কাছে অবশ্যই তথ্যপ্রমাণ আছে। তাছাড়া বিভিন্ন অনলাইনে এই বিষয়টি প্রকাশিত হয়েছে। এসময় মতিয়া চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ তথ্যপ্রমাণ ছাড়া ভিত্তিহীন কোনও তথ্য প্রচার করে না। আওয়ামী লীগ কোনোদিন কোনও বানোয়াট কথা বলে না, ভিত্তিহীন তথ্য দেয় না। এক প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন,উকিল নোটিশ এখনও আমাদের কাছে আসেনি। গণমাধ্যম থেকে আমরা নোটিশের বিষয়টি জেনেছি। নোটিশ পেলে এ বিষয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) ৩০ দিনের মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আইনি নোটিশ পাঠান। রেজিস্ট্রার্ড ডাকযোগে (উইথ এ/ডি) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ঠিকানায় নোটিশটি পাঠানো হয়। নোটিশে বলা হয়, গত ৭ ডিসেম্বর গণভবনে মিডিয়া ব্রিফিংকালে আপনি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কিছু মানহানিকর বিবৃতি দিয়েছেন, যা ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সম্প্রচারিত হয়েছে। এছাড়া, দৈনিক পত্রিকা, অনলাইন ও অনেক সামাজিক মিডিয়া আউটলেটে প্রচার হয়েছে। ব্রিফিংয়ে আপনি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কিছু মিথ্যা ও বিদ্বেষমূলক বিবৃতি দিয়েছেন। আপনি বলেছেন, যে সৌদি আরবে খালেদা জিয়া একটি শপিং মলের মালিক এবং সেখানে তার বিপুল সম্পদ রয়েছে। তিনি মানি লন্ডারিংয়ের সঙ্গে জড়িত। আপনি তার ছেলেদের সম্পর্কেও কিছু মিথ্যা কথা বলেছেন। আপনি খালেদা জিয়া এবং তার ছেলেদের সম্পর্কে যে অভিযোগ এনেছেন তা সাজানো,বানোয়াট, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং বিদ্বেষমূলক। নোটিশের বিষয়ে বুধবার (২০ ডিসেম্বর) সকালে সংবাদ সম্মেলন করে জানান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ৩০ দিনের মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরণ আদায়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে নোটিশে।
জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী যেসব অভিযোগ এনেছেন তা সাজানো- বিএনপিমহাসচিব
জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি সংক্রান্ত মন্তব্য করার পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীকে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বুধবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সংবাদ সম্মেলনে উকিল নোটিশের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী যেসব অভিযোগ এনেছেন- তা সাজানো বানোয়াট, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও বিদ্বেষমূলক। খালেদা জিয়ার সুনাম নষ্টে পরিকল্পিতভাবে এসব অভিযোগ আনা হয়েছে। এদিকে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন স্বাক্ষরিত নোটিশে প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমা প্রার্থনার আহ্বান জানিয়ে, নোটিশ প্রাপ্তির ৩০ দিনের মধ্যে তা গণমাধ্যমে প্রচার করতে বলা হয়। অন্যথায় মানহানির অভিযোগে ক্ষতিপূরণ আদায়ের উদ্যোগ নেয়া হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।
রংপুর সিটি করর্পোরেশন নির্বাচনের মাধ্যমেই প্রমাণিত হবে জনগণ এই সরকারের সঙ্গে নেই
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামীলীগ চোরের দল। ভোট চোরের দল। ভোটের দিন আপনারা ভোট কেন্দ্র পাহারা দিবেন। যাতে তারা ভোট চুরি করতে না পারে। আওয়ামী লীগের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে ধানের শীষ প্রতীককে বিজয়ী করতে প্রস্তুত রংপুরবাসী। বাংলাদেশের রাজনীতিতে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন। এই নির্বাচন দিয়ে হয়তো সরকার পরিবর্তন হবে না। কিন্তু এই নির্বাচন ফ্যাসিস্ট আওয়ামীলীগ সরকারকে একটি বাণী দিতে পারবে যে জনগণ আওয়ামী দু:শাসনের বিরুদ্ধে। সোমবার দুপুরে রংপুর মহানগরীর সিও বাজারে বিএনপির মেয়র প্রার্থী কাওসার জামান বাবলার পক্ষে প্রচারণায় সভায় এসব কথা বলেন তিনি।ফখরুল ইসলাম বলেন, রংপুরের মানুষ সারা জীবন আন্দোলন করেছে। নুরুল দিন করেছে, কৃষক আন্দোলন হয়েছে। এবারের সিটি নির্বাচনের মাধ্যমে এবার রংপুরের মানুষ গণতন্ত্র পুণরুদ্ধারের আন্দোলনে বিজয়ী হবে। রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মাধ্যমেই প্রমাণিত হবে জনগণ এই সরকারের সঙ্গে নেই। তিনি আরও বলেন, আজকে এই সরকার দুর্নীতির চূড়ান্ত করেছে। মেগা প্রজেক্টের নামে মেগা লুট করছে। আজকের এই নির্বাচন শুধু বাবলা ভাইয়ের নির্বাচন নয়, আজকের এই নির্বাচন আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার নির্বাচন।এ সময় তার সাথে ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসেনর উপদেষ্টা জয়নাল আবদীন ফারুক, ভাইস চেয়ারম্যান ও নির্বাচন পরিচালনা কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্ববায়ক ইকবাল মাহমুদ টুকু, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদস্য সচিব আসাদুল হাবিব দুলু, রংপুর মহানগরী সভাপতি মোজাফফর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মিজু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান শামু, জেলা সভাপতি সাইফুল ইসলাম এবং সেক্রেটারি রইস আহমেদ। পথসভার পর মির্জা ফখরুল পায়ে হেঁটে মেডিকেল মোড় থেকে স্টেশন পর্যন্ত জনসংযোগ করেন। তিনি বলেন, মাঠে লড়াই করার জন্যই আমরা আছি। নির্বাচন কমিশন সঠিক আচরণ করছেন না। তবুও আমরা মাঠে আছি। মাঠে থেকেই আমরা বাবলাকে বিজয়ী করবো।জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, আপনাদের ছাওয়াল কিছুই করেন নাই। তিনি বিরোধী দলে থাকার কথা বলে আওয়ামীলীগের সাথে গাটছড়া বেঁধেছেন। জোট করেছে। তিনি আর আমি আজ একসাথে একই বিমানে এসেছি। তিনি এই সরকারের পতাকা নিয়ে এসেছেন। যারা গুম, খুনের নায়কদের সাথে আঁতাত করে তাদের সাথে আমাদের কোন সম্পর্ক নেই। দেশের মানুষ আর বাকশালে ফিরে যেতে চান না উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন শুধু বাবলার নির্বাচন নয়, এটি হচ্ছে আমাদের অধিকার আদায়ের নির্বাচন। এই সরকার সব কিছু কেড়ে নিয়েছে। ঘুষ না দিলে এই দেশে আর কিছুই হয় না। রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মানুষ ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দিয়ে বাবলাকে নির্বাচিত করে অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে আরও একধাপ এগিয়ে যাবে। সরকারের কঠোর সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকার দেশের কোমড় ভেঙ্গে দিয়েছে। মানুষের জীবন দুর্বিসহ করে তুলেছে। যেখানেই যাবেন শুধু ঘুষ আর দুর্নীতি। ১০ টাকা কেজির প্রতিশ্রুতির চাল এখন ৬০ টাকা। পেয়াজের দাম ১০০ টাকার উপরে। বিদ্যুৎ তেল, ডিজেল, কেরোসিন সব কিছুর দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। সারের দাম তিনগুন চারগুন হয়েছে। গ্যাসের দাম বেড়েছে। প্রতিদিন কলকারখানা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। কলকারখানায় বিদ্যুৎ গ্যাসের লাইন দেয়া হচ্ছে না। এই সরকার মানুষের ওপর অবৈধভাবে জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসে আছে।খুন খুন, গুম, হত্যা, ধর্ষন ছাড়া এই সরকার জাতীকে আর কিছুই দিতে পারে নাই দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, রাষ্ট্রীয়ভাবে খুন করা হচ্ছে। গুম করা হচ্ছে। আজ দেশে অন্যায়ের প্রতিবাদ করলে গুম করা হয়। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় ফরহাদ মজহারের মতো পন্ডিতকে গুম করা হয়েছিল। সাবেক রাষ্ট্রদুতকে গুম করা হয়েছে। আসিফ নজরুলের নামে ২৬ টি মামলা, ডেইলি স্টারের সম্পাদকের নামে ১২৫ টিরও বেশী মামলা দেয়া হয়েছে। মাহমুদুর রহমানের মতো একজন সম্পাদকে অন্যায়ভাবে ৫ বছর জেলে রাখা হয়েছে। এরা সবাই অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছিল। এটাই হলো আওয়ামীলীগ।তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর বাজেট বাড়িয়ে করা হয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকা। এখন বলা হচ্ছে পানির নিচে থৈ পাওয়া যাচ্ছে না। তাই কাজ করা যাচ্ছে না। সব কিছু করা হয়েছে লুটপাটের জন্য। এই সরকার শুধুই শোষন করছে। নির্যাতন করছে। প্রধান বিচারপতি ভিন্নমত অবলম্বন করায়, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা রক্ষার কথা বলেছিলেন। সেকারণে তাকে জোর করে বিদেশে পাঠিয়ে দিয়ে তাকে কিভাবে অপসরাণ করা হয়েছে এটা আপনারা জানেন। আমরা এই বিচার বিভাগের স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন করেছিলাম। কিন্তু তারা বিচার বিভাগের স্বাধীনতাকে খর্ব করেছে।মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকারের কাছে কোন ধর্মের লোক নিরাপদ নয়। আমাদের মুসলমানদের ইসলাম ধর্ম নিরাপদ নয়। ইমান আকিদা নষ্ট করে দেয়া হচ্ছে। হিন্দুদের ধর্ম নিরাপদ নয়। নিরাপদ নয় খৃষ্টানরা। আমরা সবাই নিরাপত্বাহীনতায়। এই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্যই রংপুরের মানুষ ধানের শীষকে বিজয়ী করবে।আগামী ২১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে রসিক নির্বাচন। এখানে মেয়র পদে ৭ জন, সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬৫ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২১১ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১৯৩ টি ভোট কেন্দ্রের ১ হাজার ১২২ টি বুথে সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত বিরতীহিনভাবে চলবে ভোট গ্রহন।
সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে দলের কোনো সংশয় নেই- হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ
জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ রসিক নির্বাচন সম্পর্কে বলেছেন, এবারের ভোটে কারচুপির কোনো সুযোগ নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে তার বা দলের কোনো সংশয় নেই। এখন পর্যন্ত নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ রয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে রংপুরের পল্লী নিবাসের বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। এরশাদ নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে বলেন, নির্বাচন কমিশনের ব্যাপার তবে আমি নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে কথা বলে বুঝতে পারছি তিনি ভালো মানুষ। তিনি সুষ্ঠু, অবাধ নির্বাচন আমাদের উপহার দিবেন। তার প্রার্থী মোস্তফা এবার বিপুল ভোটে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে নির্বাচিত হবেন বলে মন্তব্য করেন তিনি। এ সময় এরশাদের ছোট ভাই ও দলের কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদেরসহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।