তিন সিটি নির্বাচন শেষ পরীক্ষা: ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ
রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশনের নির্বাচন সরকার ও বর্তমান নির্বাচন কমিশনের (ইসি) জন্য শেষ পরীক্ষা হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন আয়োজিত এক সমাবেশে মওদুদ আহমদ এ মন্তব্য করেন। মুক্তি বারতা তোমার হাতে দেশমাতা খালেদা জিয়াগানের সিডি উদ্বোধন এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রীর মুক্তির দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। দলীয় সরকারের অধীনে কখনও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় মন্তব্য করে মওদুদ বলেন, খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিয়ে প্রমাণ করেছে, নির্বাচন হতে হবে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে। কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নয়। তিনি বলেন, আসন্ন তিন সিটিতেও অংশ নেবে বিএনপি। এ তিন সিটি নির্বাচনের পর দলটি নতুন করে চিন্তা করবে যে, আর কোনো সাধারণ নির্বাচন দলীয় সরকারের অধীনে করবে কিনা। কারণ এরই মধ্যে খুলনা ও গাজীপুর সিটিতে অংশ নিয়ে আমরা প্রমাণ করেছি, দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। গাজীপুরে কোনো নির্বাচন হয়নি মন্তব্য করে বিএনপির এ নেতা বলেন, সরকার শত প্রোপাগান্ডা ছড়ানোর পরেও যারা পত্রিকা পড়েছেন, তারা দেখেছেন যে, গাজীপুরে কোনো নির্বাচন হয়নি। খুলনার পরে আমরা গাজীপুর নির্বাচনে গিয়েছিলাম দেশের মানুষকে জানাতে যে, কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন কমিশন স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারে না এবং সুষ্ঠু এবং অবাধ হতে পারে না। এটা আমরা প্রমাণ করতে পেরেছি। ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, সিলেট, রাজশাহী ও বরিশাল সিটি নির্বাচনে অংশ নিয়ে আমরা বারবার প্রমাণ করতে চাই এবং এটাই হবে শেষ পরীক্ষা, সরকার এবং নির্বাচন কমিশনের জন্য। এ সিটিগুলোর নির্বাচন যদি খুলনা ও গাজীপুরের মতো হয়, তাহলে প্রথমত আমরা প্রমাণ করতে পারলাম যে, একটা দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন কোনো দিন নিরপেক্ষ হয় না। দ্বিতীয়ত, আমাদের তখন নতুন করে চিন্তা করতে হবে যে, সাধারণ নির্বাচন কোনো দলীয় সরকারের অধীনে কোনো অবস্থাতেই আমরা নির্বাচন করব কি করব না। এ তিনটি সিটি করপোরেশন নির্বাচন আমাদের সেই পথ দেখিয়ে দেবে। সাবেক এ আইনমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ একটি অগ্নিপরীক্ষার মধ্যে আছে। ১৬ কোটি মানুষের ভাগ্য নির্ধারিত হতে যাচ্ছে। এর চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ আমাদের ভাগ্যে স্বাধীনতার পর আর আসেনি। চ্যালেঞ্জটা হলো বাংলাদেশের গণতন্ত্র, ভোটের অধিকার, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ফিরিয়ে আনার চ্যালেঞ্জ। কেননা এগুলো সবকিছু আমরা হারিয়েছি। আওয়ামী লীগ খালেদা জিয়ার জামিন বিলম্ব করার চেষ্টা করছে অভিযোগ করে মওদুদ আহমদ বলেন, বিলম্বিত হলেও খালেদা জিয়া আমাদের মধ্যে খুব শিগগিরই ফিরে আসবেন। তিনি মুক্তি পাবেন, এ মুক্তি কেউ আটকাতে পারবেন না। জামিন একটা মৌলিক অধিকার। জামিন তো মামলা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য নয়। আইনে যে কোনো মানুষের জামিন পাওয়ার অধিকার আছে। কিন্তু এ আইনের অপপ্রয়োগ করে তার জামিন বিলম্ব করছেন তারা (সরকার)। সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহ-সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক ও কণ্ঠ শিল্পী মনির খান, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ ও আয়োজক সংগঠনের চেয়ারম্যান আবুল হাসেম রানা।
খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকায় যুক্তি উপস্থাপন পেছাল
কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকায় তাকে আজও আদালতে হাজির না করায় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় যুক্তি উপস্থাপন ফের পিছিয়ে আগামী ১০ জুলাই ধার্য করেছে আদালত। বৃহস্পতিবার পুরান ঢাকার বকশিবাজারের অস্থায়ী আদালতে ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামান এ তারিখ ধার্য করেন। একই সঙ্গে ওইদিন পর্যন্ত সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর জামিনের মেয়াদও বৃদ্ধি করেছেন আদালত। এর আগে আজও কারাকর্তৃপক্ষ খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হওয়ার মতো শারীরিকভাবে সুস্থ নন মর্মে আদালতে একটি প্রতিবেদন পাঠায়। অন্যদিকে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা তার জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য আবেদন করে শুনানি করেন।
গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান বিএনপির
গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি। একই সঙ্গে ফল বাতিল করে পুনরায় নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানিয়েছে দলটি।বুধবার সকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গাজীপুর সিটি নির্বাচনে সরকার আবারও প্রমাণ করল তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতা কুক্ষিগত করার জন্য স্থানীয় সরকার নির্বাচনেও নির্লজ্জভাবে একের পর এক ভোট ডাকাতি করে সব নির্বাচনীব্যবস্থাকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করছে। খুলনায় নতুন কৌশলে ভোট ডাকাতি করে তারই ধারাবাহিকতায় গাজীপুরে নির্বাচনের ফল নিজেদের পক্ষ নিয়েছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপি মহাসিচব।মির্জা ফখরুল আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় গাজীপুরের নির্বাচনে আরও একটি কলঙ্কময় অধ্যায় সংযোজন হল। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ প্রমাণ করেছে, সংবিধানের ১৫তম সংশোধনীর মাধ্যমে দলীয় সরকারের অধীনে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না। বারবার স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে নিজ দলের প্রার্থীর পক্ষে রায় ছিনিয়ে নিচ্ছে। আওয়ামী লীগের অধীনে কখনও সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না। গাজীপুরের নির্বাচনের মাধ্যমে তারা আবার সেটি প্রমাণ করেছে।এ অবস্থার মধ্যেও আসছে সিলেট, বরিশাল, রাজশাহী সিটি নির্বাচনেও বিএনপি অংশ নেবে বলে জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, আর সেটি আমাদের চলমান আন্দোলনের অংশ। যার মাধ্যমে জনগণের সামনে বর্তমান গণবিরোধী সরকারের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে। কারণ এটি আমাদের আন্দোলনের অংশ। এর মাধ্যমে জনগণের সামনে সরকার ও ইসির চরিত্র বের হয়ে আসবে। নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশে বিএনপির এ নেতা বলেন, আমরা ইসিকে বলব- আপনাদের সঠিক সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করুন। একই সঙ্গে জনগণকে তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে দিন।এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা আবারও বলছি- বিএনপি বর্তমান নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ ও পুনর্গঠন চায়। কারণ তারা তাদের দায়িত্ব পালনে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। তাই নতুন করে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, যুগ্ম মহাসিচব খায়রুল কবির খোকন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হয়। এ সিটির ৪২৫টির মধ্যে ৪১৬টি কেন্দ্রের ফল নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিবউদ্দীন মণ্ডল আজ সকালে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন। জাহাঙ্গীর আলম নৌকা প্রতীক নিয়ে চার লাখ ১০ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির হাসান উদ্দিন সরকার ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন এক লাখ ৯৭ হাজার ৬১১ ভোট। ‘আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি’ হওয়ায় নয়টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। এ নির্বাচনের কয়েক ঘণ্টা পর থেকেই বিএনপি জালভোট, কারচুপি আর অনিয়মের অভিযোগ আনলেও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হওয়ার দাবি করা হয়েছে।
সবই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখতে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) একত্রে কাজ করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। খালেদা জিয়ার এ আইনজীবী বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক উদ্দেশে কারাগারে রাখতে (সরকার) রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদক একাকার হয়ে গেছে।’ বুধবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিচারিক আদালতে দেওয়া পাঁচ বছরের সাজার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে করা আপিল শুনানির জন্য ৩ জুলাই দিন ঠিক করার পর সুপ্রিম কোর্টের সামনে দাঁড়িয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন আইনজীবী। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির এ সভাপতি আরো বলেন, সুপ্রিম কোর্টে ডেথ রেফারেন্সের কত মামলা পড়ে রয়েছে ওইসব মামলার শুনানি করছেন না। শুধু খালেদা জিয়ার মামলা দ্রুত শুনানির চেষ্টা করা হচ্ছে রাজনৈতিক উদ্দেশে। জয়নুল আবেদীন বলেন, তারা (দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ) ঐক্যবদ্ধভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে তাঁরা জামিন আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন। খালেদা জিয়াকে কারাবাস দীর্ঘ করার অন্তরালে জামিনের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত চাওয়া, মামলার দ্রুত শুনানির চেষ্টা করা তার সবই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। জয়নুল আবেদীন আরো বলেন, খালেদা জিয়াকে দীর্ঘদিন কারাগারে আটকে রাখতে নানা কূটকৌশল করছে সরকার ও দুদকের আইনজীবীরা। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজার রায়ের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার করা আপিল শুনানির জন্য আগামী ৩ জুলাই দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট। বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন। এ মামলায় খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া চার মাসের জামিন বহাল রেখে আপিল বিভাগ ১৬ মে রায় ঘোষণা দেন। রায়ে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে পাঁচ বছরের দণ্ডের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে করা খালেদা জিয়ার আপিল নিষ্পত্তি করতে বলা হয়েছে। গত ১৬ মে খালেদাকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বাতিলে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের করা আপিল খারিজ করে দিয়ে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ রায় দেন। আপিল বিভাগের রায়ে অনুযায়ী হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বিভাগ মামলা শুনানির জন্য আজ এই দিন ঠিক করেন। বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে আজ শুনানিতে অংশ নেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, অ্যাডভোকেট এজে মোহাম্মদ আলী, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। সঙ্গে ছিলেন, ব্যারিস্টার বদরোদ্দোজা বাদল, কায়সার কামাল, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম সজল, ব্যারিস্টার মো. ফজলুল রহমান জুয়েল,এ কে এম এহসানুর রহমান, এম আতিকুর রহমান, অ্যাডভোকেট মাসুদ রানা প্রমুখ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফরহাদ আহমেদ ও দুদকের পক্ষে অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিচারক ড. আখতারুজ্জামান। এরপর ওই দিন থেকেই পুরান ঢাকার পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা দিয়ে বেগম খালেদা জিয়া বন্দি আছেন।
সিলেট সিটিতে বিএনপির প্রার্থী আরিফ
সব জল্পনা-কল্পনার অবসার ঘটিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন পেলেন দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। বুধবার ঢাকায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় ও সিলেটের নেতৃবৃন্দের বৈঠক শেষে আরিফুল হকের নাম ঘোষণা করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সভায় উপস্থিত থাকা সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সভায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থানীয় কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ড. মঈন খান প্রমুখ। এছাড়া মেয়র পদে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী অপর চার নেতাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। এবার সিলেট সিটি নির্বাচনে বিএনপি থেকে মেয়র পদে নির্বাচন করতে আগ্রহী ছিলেন ছয়জন। তারা হলেন- বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল কাইয়ুম জালালী পংকী, সহ-সভাপতি রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম ও সাবেক ছাত্রদল নেতা সালাহ উদ্দিন রিমন। এর আগে রোববার বিকালে রাজশাহীতে বর্তমান মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল আর বরিশালে দলের যুগ্ম-মহাসচিব মজিবুর রহমান সরোয়ারকে দলের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দেয়। তবে দলীয় কোন্দল থাকায় সিলেট সিটিতে প্রার্থী ঘোষণা বিলম্বিত হয়।
শতাধিক কেন্দ্র দখল, নৌকায় সিল মারছে পুলিশ: রিজভী
গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রায় শতাধিক কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দিয়ে নৌকা মার্কায় সিল মারার অভিযোগ করেছে বিএনপি। ভোটে গোলযোগ ঠেকানোর দায়িত্বে থাকা পুলিশই ভোট দিচ্ছে বলে অভিযোগ দলটির। মঙ্গলবার (২৬জুন) সকাল আটটায় গাজীপুরে ভোট শুরুর তিন ঘণ্টারও বেশি সময় পর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে দলের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানান বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এসময় তিনি এসব অভিযোগ করেন। নির্বাচন কমিশন ছাড়াও আওয়ামী লীগের ‘সন্ত্রাসীরাও’ ব্যালট পেপার ছাপিয়েছে বলেও অভিযোগ রিজভীর। তিনি বলেন, ‘মুন্সিপাড়া ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেসে সারারাত ব্যালট পেপার ছাপিয়ে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা সেগুলো নিয়ে বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে গেছে।’ ‘পুলিশ আওয়ামী ক্যাডারের ভূমিকা অবতীর্ণ হয়েছে। তাদের উপস্থিতিতে বিএনপির এজেন্ট বের করে দিয়ে সরকারি দলের প্রার্থীর পক্ষে নৌকা প্রতীকে সিল মারছে। ভোটার উপস্থিতি থাকলেও বলা হচ্ছে ভোট হয়ে গেছে।’ বিএনপি কোনো আলোচিত ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলে সচরাচর সকাল আটটা থেকেই বিএনপি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন রিজভী। তবে রিজভী আজ ঘুমিয়েছেন বেলা করে। সকাল নয়টায় প্রথম ব্রিফিং করার কথা থাকলেও তিনি সাংবাদিকদের সামনে আসেননি। সকালে টঙ্গীর নিজ কেন্দ্রে ভোট দিয়ে বিএনপির প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার ১০ কেন্দ্র থেকে তার এজেন্ট বের করে দেয়ার অভিযোগ করেছিলেন। এরপর তিনি আর কোনো অভিযোগ করেননি। তবে রিজভী বলেন, ‘গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে এ পর্যন্ত যে খবর পাচ্ছি তা উদ্বেগজনক। আমরা আগে যে সন্দেহ করেছিলাম গাজীপুরে তারই প্রতিফলন পাচ্ছি। নির্বাচন কমিশন এবার তাদের কথা রাখলেন না। তারা আরব্য উপন্যাসের একচোখা দৈত্যের মতো করছে।’ ‘বিএনপির এজেন্টদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। ঢুকলেও তাদের বের করে দেয়া হচ্ছে। এছাড়া গতকাল থেকে শুরু করে আজ সকাল পর্যন্ত অনেক নেতাকর্মী গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’ রিজভী বলেন, ‘স্থানীয় এমপি জাহিদ রাসেলের এলাকায় এজেন্ট ও ভোটারদের ঢুকতে দেয়নি। কালিয়াকৈরৈর কয়েকটি কেন্দ্র থেকে বিএনপি প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দিয়েছে পুলিশ। পরে নিজেরাই সিল মারে। মুন্নু টেক্সটাইল কেন্দ্রে বাইরে ভোটার থাকলেও ভেতরে ফাঁকা।’‘৮ নং ধানের শীষের এজেন্ট বের করে দেয়া হয়েছে। ওই কেন্দ্রে কাউন্সিলরদের ব্যালট দেয়া হয়, মেয়রের ব্যালটে তারা নিজেরাই সিল মারে।’ ’৪১, ৫৫ নং ওয়ার্ড পুবাইলে সব এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। কাশিমপুরে পুলিশ নির্দেশ দিচ্ছে নৌকায় সিল মারতে।’ নির্বাচন কমিশনের বক্তব্যের সঙ্গে কাজের মিল নেই দাবি করে রিজভী বলেন, ‘মানুষ কার উপর আস্থা রাখবে? এ নির্বাচন কমিশন ভাঙা হাড়ি। ভাঙা হাড়ি কখনও জোড়া লাগে না।’ বিভিন্ন কেন্দ্রে এজেন্ট বের করার অভিযোগ বিএনপিপ্রার্থীর: গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরুতেই বিএনপির পোলিং এজেন্টদের বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের মেয়রপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। মঙ্গলবার (২৬জুন) সকালে বশির উদ্দিন উদয়ন অ্যাকাডেমি ভোটকেন্দ্রে ভোটদান শেষে সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেন তিনি। এসব অভিযোগ জানানোর জন্য রিটার্নিং অফিসারের খোঁজ করেও পাননি বলেও দাবি করে হাসান সরকার। তিনি বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৮টায় ভোট শুরু হওয়ার পর থেকে আধঘণ্টার মধ্যেই অন্তত ১০টি কেন্দ্র থেকে বিএনপির পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। বেশকিছু জায়গায় তাদের মারধর করার ঘটনা ঘটেছে। এমনকি অনেক এজেন্টকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপির এ প্রার্থী। এ ব্যাপারে হাইকোর্ট ও নির্বাচন কমিশনের কোনো নির্দেশনা সরকার মানছে না বলেও তিনি মন্তব্য করেন। হাসান সরকার বলেন, ‘আমি রাতে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে মুখে বলেছি যে, আপনাদের নির্দেশ থাকার পরও কেন আমাদেরকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে? উনি বলেছেন ‘আমি দেখছি’।’ তবে জনগণ ভোট মেনে নিলে তিনিও মেনে নেবেন জানিয়ে বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হলে আমি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ নিশ্চিত। নির্বাচনী এলাকায় বহিরাগত থাকার বিষয়টি নিয়েও কিছু বলতে চান না বিএনপি প্রার্থী। তিনি বলেন, ‘এখানে ভোটার ১১ লাখ। কিন্তু অধিবাসী হবে ২০-২৫ লাখ। এখানে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ চাকরি করে। আমি কাকে বহিরাগত বলব?’ প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার সকাল আটটায় গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। চলবে বিকাল চারটা পর্যন্ত। প্রতিষ্ঠাকালের দিক থেকে কনিষ্ঠতম এবং আয়তনের দিক থেকে সবচেয়ে বড় এই সিটিতে এবারই প্রথম দলীয় প্রতীকে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিচ্ছেন গাজীপুর নগরবাসী।
কুমিল্লার মামলায় খালেদার জামিন আপিলে বহাল
নাশকতার অভিযোগে বিশেষ ক্ষমতা আইনে কুমিল্লায় দায়ের এক মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে আদেশে এই মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে দেয়া রুল এক সপ্তাহের মধ্যে নিষ্পতি করতে হাইকোর্টকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। আর খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন খন্দকার মাহবুব হোসেন ও এ জে মোহাম্মদ আলী। এর আগে গত ২৮ মে বিচারপতি একেএম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি জেবিএম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ নাশকতাসহ কুমিল্লার দুই মামলায় খালেদা জিয়াকে জামিন দিয়েছিলেন। পরে এ জামিনাদেশ স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করে। ২৯ মে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত জামিন স্থগিত রেখে ৩১ মে পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির আদেশ দেন। সেই অনুসারে ৩১ মে শুনানির পর আপিল বিভাগ খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন স্থগিত রেখে রাষ্ট্রপক্ষকে লিভ টু আপিল করতে আদেশ দেন। এ ছাড়া ২৪ জুন এ বিষয়ে শুনানির জন্য দিনও ধার্য করেন আদালত। পরে রাষ্ট্রপক্ষ লিভ টু আপিল দায়ের করেন। গত ২০ মে হাইকোর্টে ওই দুই মামলায় জামিন আবেদন করেন খালেদা জিয়া। ২৭ মে কুমিল্লায় ওই দুই মামলার ওপর শুনানি শেষে ২৮ মে খালেদাকে জামিন দেন হাইকোর্ট। ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে ২০ দলীয় জোটের অবরোধ চলাকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রামে দুষ্কৃতকারীদের ছোড়া পেট্রলবোমায় আইকন পরিবহনের একটি বাসের ৬ যাত্রী অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান।
পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ বিএনপি প্রার্থীর
নিজের দলের পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মেয়র পদপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। এ নির্বাচনে তিনি ভোট গ্রহণ সুষ্ঠু হওয়া নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেন। মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে এ সিটি করপোরেশনের ভোট শুরু হয়। ভোট চলবে একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত। সকাল সোয়া ৮টার দিকে নগরীর বশিরউদ্দিন উদয়ন একাডেমি স্কুল কেন্দ্রে আসেন হাসান উদ্দিন সরকার। এ সময় তাঁর সঙ্গে দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি সেখানে ভোট দিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন। অন্যদিকে বিএনপির প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সকালে নগরীর কানাইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন। পরে তিনি বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে দেখেন। ভোট দিয়ে বিএনপি মেয়র প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, সুষ্ঠু ভোট হবে না। এরই মথ্যে ১০ থেকে ১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সকালবেলা। এজেন্টদের পুলিশ মাইরা মাইরা বের করে দিচ্ছে।’ তবে কোন কোন কেন্দ্রে এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছে বা কাদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে, এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিএনপির প্রার্থী বলেন, ‘নামগুলো আমার কাছে নেই। রেকর্ড রাখা হচ্ছে।’ এ সময় হাসান উদ্দিন সরকার আরো বলেন, ‘আমি শুধু বলব, আমি নির্বাচনে আছি, থাকব। সর্বশেষ পর্যন্ত নির্বাচনে আমি ফলাফল দেখে মন্তব্য করব।’ তবে বিএনপির প্রার্থীর অভিযোগের ব্যাপারে কোনো লিখিত পাননি বলে জানিয়েছেন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মণ্ডল। আরো প্রার্থী থাকলেও গাজীপুর সিটির মেয়র পদে প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হলেন আওয়ামী লীগের (নৌকা) মনোনীত জাহাঙ্গীর আলম ও বিএনপির (ধানের শীষ) মনোনীত হাসান উদ্দিন সরকার। হাসান উদ্দিন সরকারও সকাল সোয়া ৮টার দিকে নগরীর বশিরউদ্দিন উদয়ন একাডেমি স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেন। এদিকে, নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে পুরো সিটি করপোরেশন এলাকা। নির্বাচনী এলাকায় টহল দিচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। আজ নির্বাচনী এলাকার সব অফিস, কল-কারখানা, স্কুল-কলেজসহ প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। মহানগরীর ৫৭টি ওয়ার্ডে ৪২৫ কেন্দ্রের দুই হাজার ৭৬১টি বুথে পাঁচ সহস্রাধিক পোলিং এজেন্ট কাজ করছেন। গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে চাপুলিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (ভোটার-২৪৮০), চাপুলিয়া মফিজউদ্দিন খান উচ্চ বিদ্যালয় (ভোটার-২৫৫২), পশ্চিম জয়দেবপুরের মারিয়ালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র-১ (ভোটার-২৫৬২), মারিয়ালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র-২ (ভোটার-২৮২৭), রানী বিলাসমনি সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র-১ (ভোটার-১৯২৭) ও রানী বিলাসমনি সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্র-২ (ভোটার-২০৭৭) এ ছয়টি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হচ্ছে। সিটি মেয়র ও কাউন্সিলর পদে জনপ্রতিনিধি বাছাইয়ে ভোট দিচ্ছে গাজীপুরবাসী। এই নির্বাচনে ৪২৫টি কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন। মোট সাত মেয়র প্রার্থীর পাশাপাশি ২৫৪ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৮৪ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর আগে ২০১৩ সালে এ সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে মেয়র পদে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক এম এ মান্নান নির্বাচিত হন। অধ্যাপক মান্নান মেয়র পদে নির্বাচিত হলেও সরকারের রোষানলে পড়ে গত পাঁচ বছরের অধিকাংশ সময় তিনি কারাগারে বন্দি ছিলেন। দ্বিতীয়বারের মতো এ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে মোট ৪২৫টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।