পরবর্তী শুনানি ৮ মে,খালেদার জামিন স্থগিত
দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) আবেদনের অনুমতি দিয়েছেন আপিল বিভাগ। আগামী দু’ সপ্তাহের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদক এবং আসামিপক্ষকে আপিলের সারসংক্ষেপ জমা দেওয়ার জন্যও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ আপিলের শুনানির জন্য ৮ মে দিন ধার্য করা হয়েছে। (১৯ মার্চ) প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ সোমবার এ আদেশ দেন। আইনজীবীরা জানিয়েছেন, এ আদেশের ফলে খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত থাকবে। গত ১২ মার্চ খালেদা জিয়াকে চার মাসের জামিন দেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের দেওয়া চার মাসের জামিন স্থগিত চেয়ে পর দিন মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদক। আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর আদালত এ দুই আবেদনের শুনানির জন্য ১৪ মার্চ দিন ধার্য করেন। বুধবার আপিল বিভাগ রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদককে জামিনের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল দায়ের করতে বলেন চার মাসের জামিন রোববার পর্যন্ত স্থগিত করেন। এ আদেশ অনুসারে পরের দিন ১৫ মার্চ রাষ্ট্র ও দুদক লিভ টু আপিল দায়ের করেন। রোববার (১৮ মার্চ) এ আপিলের ওপর শুনানি হয়। শুনানি শেষে আবেদনের ওপর আদেশের জন্য সোমবার দিন ধার্য করেন আদালত।
পেট্রলবোমা আর হত্যার গণতন্ত্র চলবে না : নৌমন্ত্রী
নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, বিএনপির অর্জন ছিল দুর্নীতি। সেই দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা হয়েছে। বিএনপির অর্জন জঙ্গিবাদ, দেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আওয়ামী লীগ জঙ্গিবাদ প্রতিহত করেছে। তিনি বলেন, বিএনপি আজ নিজেদের দিকে তাকিয়ে দেখুক তারা কোন গণতন্ত্র চায়। বাংলাদেশে হত্যা আর পেট্রলবোমার গণতন্ত্র চলবে না। এ দেশে চলবে জনগণের অধিকার, জনগণের চাহিদার ভিত্তিতে দেশের কল্যাণের জন্য রাজনীতি চলবে। রোববার দুপুরে জামালপুরের বাহাদুরাবাদ-বালাশী নৌ-ফেরিঘাট সংস্কার করে ফেরি চলাচল কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন নৌমন্ত্রী। বিআইডব্লিউটি এর চেয়ারম্যান কমোডর মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, স্থানীয় সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ, ফরিদুল হক খান দুলাল ও জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর প্রমুখ।
লজ্জায় ভোট কেন্দ্রে আসবে না বিএনপি-জামায়াত:গণপূর্তমন্ত্রী
গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেছেন, বিএনপি দেশের কোনো উন্নয়ন করেনি। তারা শুধু লুটপাট করেছে। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসলে উন্নয়ন হয়। তিনি বলেন- লুটের দল বিএনপি-জামায়াত লজ্জায় ভোট কেন্দ্রে আসতে পারবে না। আওয়ামীলীগ যে সব উন্নয়ন করছে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসলে তা বন্ধ করে দেবে। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামীলীগ সরকারকে আবারো ক্ষমতায় আনতে হবে। তিনি শনিবার সকালে উপজেলা করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদ আয়োজিত সুবিধাভোগী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। জয়পুর পূর্বজোয়ার আংকুরের নেছা ওবায়দুল হক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত সুবিধাভোগী সমাবেশে সভাপতিত্বে করেন করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন। ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শহীদ উল্ল্যাহ সঞ্চালনায় এতে অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, সদস্য ডা: মোস্তফা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান, বিশিষ্ট সমাজসেবক স্বপন চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আবুল হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা আবু সাঈদ, করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম, সহ-সভাপতি কালা চাঁন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শেখ সেলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: জামাল উদ্দিন, চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর সভাপতি আলী আহছান, ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মহিউদ্দিন, আজাদ, শফিউল্ল্যাহ, পেয়ার আহম্মদ মিন্টু, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হেদায়েত উল্ল্যা, উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন ভূইয়া প্রমুখ। মন্ত্রী আরো বলেন, শেখ হাসিনার অবদানে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। কেউ বিদ্যুৎ ছাড়া থাকবে না। তাই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে হবে। এসময় করেরহাট ইউনিয়নের ২ হাজার ৩৩ জন সুবিধাভোগীসহ করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় গণপূর্তমন্ত্রীসহ অতিথিরা কেক কেটে বঙ্গবন্ধুর ৯৮তম জন্মদিন পালন করেন।
অন্যকে কষ্ট দিয়ে নিজে আনন্দ লাভ করেন অ্যাটর্নি জেনারেল: রিজভী
অ্যাটর্নি জেনারেল অন্যকে কষ্ট দিয়ে নিজে আনন্দ লাভ করেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। শুক্রবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। রিজভী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন ঠেকাতে আপিল বিভাগে লিভ টু আপিল করেছে দুদক। বৃহস্পতিবার দুদকের পক্ষ থেকে লিভ টু আপিল করা হয়েছে। এর আগে অ্যাটর্নি জেনারেলের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আগে উচ্চআদালত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন রোববার পর্যন্ত স্থগিত রেখেছেন। অ্যাটর্নি জেনারেল অন্যকে কষ্ট দিয়ে নিজে আনন্দ লাভ করেন। তিনি বলেন, যেভাবে প্রধান বিচারপতিকে বন্দুকের জোরে জিম্মি করে পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে, সেভাবে নিম্ন আদালতে সরকারের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। সেখানে ন্যায়বিচার পাওয়ার আশা খুবই ক্ষীণ। খালেদা জিয়ার মামলায় সেটিরই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর জামিন বিষয়ে সরকারি চক্রান্ত লক্ষ্য করছে বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষ, উল্লেখ করে রিজভী বলেন, শুধু ব্যক্তিগতভাবে দেশনেত্রী খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়া হয়েছে। সরকারপ্রধান অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে সম্পূর্ণ নির্দোষ বেগম জিয়াকে কারাবন্দি করেছে। দুদকের সমালোচনা করে তিনি বলেন, দুদক এখন বিরোধী দল দমনের প্রধান হাতিয়ার। বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল করে তারা আবারও প্রমাণ করল তারা সরকারের প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার হাতিয়ার। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক লুট হল, সরকারি ব্যাংক লুট হয়ে ব্যাংকিংব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে গেল অথচ দুদক এক্ষেত্রে উটপাখীর মতো বালিতে মাথা গুঁজে রেখেছে। মামলা করা তো দূরে থাক এদের বিরুদ্ধে একটি শব্দও মুখ থেকে বের হয় না। রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর মূলধন পর্যন্ত খেয়ে ফেলা হয়েছে। আজও পত্রিকার হেডলাইন রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর মূলধন ঘাটতির পরিমাণ ২০ হাজার ৩৯৮ কোটি টাকা। নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে খেলাপি ঋণ। এর উল্লম্ফন গতির লাগাম কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না। রিজভী আরও বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যানুযায়ী, এক বছরের ব্যবধানে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১২ হাজার কোটি টাকা। সব মিলিয়ে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৭৪ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা। প্রকৃত টাকার অংক আরও অনেক বেশি। এই খেলাপি ঋণের টাকা সব ক্ষমতাসীনের পকেটে ঢুকেছে। লুট করে শেয়ারবাজার শেষ করে দেওয়া হয়েছে। এসব লুটপাটকারীর বিরুদ্ধে দুদক ব্যবস্থা নিয়েছে এমন কথা তো শুনিনি। কারণ তারা সরকারি দলের লোকদের আত্মীয়স্বজন, সরকারের শীর্ষ ব্যক্তিদেরও আত্মীয়স্বজন। এই লুটপাটের বিরুদ্ধে যাতে কোনো আওয়াজ না ওঠে, সে জন্য গণতন্ত্রকে আইসিইউতে পাঠিয়ে গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করা হয়েছে এবং সোচ্চার বিরোধী দলকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
বিচার বিভাগ হচ্ছে তিনটি স্তম্ভের একটি এই স্তম্ভকে শ্রদ্ধা করতে শিখুন:আইন মন্ত্রী
বিএনপি বিচার বিভাগকে সম্মান করতে জানেন না। বিচার বিভাগ হচ্ছে তিনটি স্তম্ভের একটি। এই স্তম্ভকে শ্রদ্ধা করতে শিখুন। আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের ধাতুরপহেলা-কুসুমবাড়ি ব্রিজের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন শেষে ধাতুরপহেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক পথসভায় শুক্রবার (১৬ মার্চ) দুপুরে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, যারা ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী, আল বদর, রাজাকারদের অত্যাচার নির্যাতন দেখেছেন তারা সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট দেবে। এসময় বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারো শেখ হাসিনাকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান তিনি। মন্ত্রীর সঙ্গে এসময় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. জয়নাল আবেদীন, যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাসেম ভূইয়া, সেলিম ভূইয়া, পৌর মেয়র তাকজিল খলিফা, ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ তানজিল শাহ সহ প্রমুখ।
ছাত্রদল নেতা মিলনের মৃত্যুতে:শুক্রবার দোয়া মাহফিল, রোববার বিক্ষোভ
কারাগারে নিহত ছাত্রদল নেতা জাকির হোসেন মিলনের মাগফেরাত কামনায় আগামীকাল বাদ জুম্মা ঢাকাসহ সারাদেশের মসজিদে দোয়া মাহফিলের কর্মসূচি ঘোষনা করেছে দলটি। একই দাবিতে আগামী রোববার ঢাকা মহানগরীর থানায় থানায় ও সারাদেশের জেলায় জেলায় বিক্ষোভ এবং কালো ব্যাজ ধারণ কর্মসূচি পালন করবে দলটির নেতারা। বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ ব্রিফিংয়ে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কর্মসূচির ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, আ লীগ নেতা ওবায়দুল কাদেরের দায়িত্ব ছিল আমরা আন্দোলনে গেলে তার নির্দেশে নাশকতা চালিয়ে আমাদের উপর দায় চাপানো। কিন্তু আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ায় তার পরিকল্পনা ব্যর্থ হওয়া ও মন্ত্রিত্ব এবং পদ হারানোর ভয়ে এখন তিনি ভুল বকছেন। যাদের পায়ের নিচে মাটি থাকেনা তারাই এমন কথা বলতে পারে। সংবাদ ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভুইয়া, সাংগঠনিন সম্পাদক অ্যাড. রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ, মো. মনির হোসেন প্রমুখ।
আন্দোলন মানে বঙ্গভবনের অক্সিজেন বন্ধ করে দেওয়া নয়:নজরুল ইসলাম খান
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ওবায়দুল কাদের সাহেবের ভাষায় নয় বছর কয় দিনে হয়,তা আমার জানা নেই। তারা যদি আন্দোলন মানে বঙ্গভবনের অক্সিজেন বন্ধ করে দেওয়া বোঝান, তাহলে বলে রাখি আমাদের সে ক্ষমতা নেই। বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব খন্দকার দেলোয়ার হোসেনের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ঘুরে দাঁড়াও বাংলাদেশ আয়োজিত স্মরণসভায় নজরুল ইসলাম খান এসব কথা বলেন। দেখতে দেখতে নয় বছর, আন্দোলন হবে কোন বছর বিএনপির উদ্দেশে এ প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে গত ৯ জানুয়ারি ঠাকুরগাঁওয়ের এক সভায় সেতুমন্ত্রী বলেছিলেন, গত নয় বছরে ৯ মিনিটও আন্দোলনে নামতে পারেনি বিএনপি। তার এই বক্তব্যের জবাবে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেবের ভাষায় নয় বছর কয় দিনে হয়, তা আমার জানা নেই। আপনারা যদি আন্দোলন মানে বঙ্গভবনের অক্সিজেন বন্ধ করে দেওয়াকে বোঝান, তাহলে বলে রাখি আমাদের সে ক্ষমতা নেই। তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে মামলা দিয়ে জেলখানায় পাঠানো একটি উসকানি ছিল। বিএনপি সেই উসকানিতে পা দেয় নাই। তিনি আরও বলেন,বিনাভোটে আবারও নির্বাচন কেবল জয় লাভের জন্য, দেশের বাইরে বিএনপির ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আটকে রাখার অনেক চেষ্টা হবে উল্লেখ করে নজরুল ইসলাম খান বলেন, খালেদা জিয়াকে আটকে রাখার চেষ্টা সফল হবে না। ইনশাল্লাহ তিনি বের হয়ে আসবেন। আর তার নেতৃত্বে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আমরা জনগণের সরকার গঠন করবো। খালেদা জিয়াকে জেলে রেখেও ভরসা পায় না সরকার উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার বিএনপিকে শান্তিপূর্ণ কোনও কর্মসূচি পালন করতে দিচ্ছে না। খালেদা জিয়া জনসভায় উপস্থিত থাকলে তো গণজোয়ার হবেই। খালেদা জিয়া ছাড়াই যদি বিএনপির জনসভায় আওয়ামী লীগের চেয়ে বেশি লোক হয়, তাহলে তো তারা লজ্জা পাবে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ;আওয়ামী লীগ ও তাদের প্রিয়ভাজনরা ঠিকই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও রাস্তা বন্ধ করে যেখানে ইচ্ছা সভা-সমাবেশ করতে পারবে। আমরা ফুটপাথে দাঁড়াতে চাইলেও আমাদের দাঁড়াতে দেওয়া হয় না। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সভা-সমাবেশ করতে চাইলে বলবে, আমরা নাকি বিশৃঙ্খলা করবো। বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই নেতা বলেন,এক-এগারোর সময় বিএনপি ও ২০ দল ভাঙার চেষ্টা হয়েছে। খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেওয়ার পর মনে করেছিল, বিএনপি ও জোট ভেঙে যাবে। ৫ জানুয়ারির আগে অনেককে লোভ দেখিয়ে ভোটে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু কোনও ষড়যন্ত্র সফল হয়নি। বিএনপি ও ২০ দল ভাঙা যাবে না।
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে চট্টগ্রামে বিএনপির মহাসমাবেশ
জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে চট্টগ্রামে চলছে মহাসমাবেশ। বৃহস্পতিবার নগরীর কোতোয়ালী থানার দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনের সামনে এ মহাসমাবেশ শুরু হয়েছে। সমাবেশ শুরুর আগেই নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ফ্লাইট বিধ্বস্ত হয়ে নিহতদের প্রতি শোক জানানো হয়েছে। এতে উপস্থিত আছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, মির্জা আব্বাস, ড. মঈনু খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় শীর্ষ নেতাসহ জেলার নেতারাও বক্তব্য রাখছেন বলে জানান নগর বিএনপির উপ-দপ্তর সম্পাদক ইদ্রিস আলী। জানা যায়, এ মহাসমাবেশ লালদীঘরি মাঠে হওয়ার কথা থাকলেও প্রশাসনিকভাবে মাঠের অনুমতি না পাওয়ায় দলীয় কার্যালয়ের সামনেই করা হচ্ছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।
বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ স্বাধীন,খালেদা জিয়ার জামিনে তা প্রমাণিত
আদালত বিএনপির প্রতি সবসময়ই সদয় বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। সোমবার আওয়ামী লীগের সভাপতির ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার জামিনের আদেশের প্রতিক্রিয়ায় তিনি এমন অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ স্বাধীন। খালেদা জিয়ার জামিনে তা প্রমাণিত। তার রায় নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করেছিল। আমরা আগেও বহুবার দেখেছি। হানিফ বলেন, এছাড়া, আমরা বারবার বলেছি সরকার এ বিষয়ে কোনো হস্তক্ষেপ করেনি। আমরা চাই আদালত এগিয়ে যাবে। তার মতো করে কাজ করবেন। চার মাসের জামিন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কারো চাপ নেই। আদালত তাকে জামিন দিয়েছে। তিনি দুর্নীতির দায়ে কারাবরণ করেছিলেন। এটা প্রমাণিত। বিএনপির সঙ্গে কোনো সমঝোতা হচ্ছে কি-না এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটা সরকার বা আওয়ামী লীগের কোনো বিষয় না। খালেদা জিয়ার রায় আদালত দিয়েছেন। অপরাধীর সঙ্গে কোনো সমঝোতার প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না। জাতি হতাশ হয়েছে কারাগারে তাদের (বিএনপি নেতাদের সঙ্গে খালেদা জিয়ার) মিটিং দেখে।