বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২০
বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র: বাইডেন
২৫নভেম্বর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এই নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হারিয়ে জয় পেয়েছেন ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন। তিনি বলেছেন, বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র। আমরা এই থেকে পিছপা হবো না। যুক্তরাষ্ট্রের উইলমিংটনে মঙ্গলবার নিজের প্রশাসনের বেশ কয়েকজন কূটনীতিক এবং নীতি প্রণেতাদের নাম ঘোষণার সময় এমনটি বলেন বাইডেন। এদিকে জো বাইডেন তার সম্ভাব্য মন্ত্রিসভার ৬ সদস্যের নাম ঘোষণা করেছেন। নতুন মন্ত্রীসভায় সাবেক ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ও আরো শীর্ষ কর্মকর্তা রয়েছেন বলে জানা গেছে। আগামী ২০ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে ৪৬তম মার্কিন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন জো বাইডেন।
ক্ষমতা হস্তান্তরে রাজি হয়েছেন ট্রাম্প
২৪নভেম্বর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনে বিজয়ী জো বাইডেনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করতে রাজি হয়েছেন। তিনি বলেছেন, হস্তান্তর প্রক্রিয়া দেখভালের দায়িত্বে থাকা সংস্থার যা করার প্রয়োজন করুক। দি জেনারেল সার্ভিস এডমিনিস্ট্রেশন বা জিএসএ বলছে তারা বাইডেনকে আপাত বিজয়ী হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছে। মূলত মিশিগানে নির্বাচনের ফল আনুষ্ঠানিকভাবে সার্টিফায়েড হওয়ার পরপরই বাইডেনের জয় চূড়ান্ত স্বীকৃতি লাভ করে। বাইডেন টিম ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু করার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে। এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, মহামারি নিয়ন্ত্রণ ও অর্থনীতিতে গতি আনাসহ জাতির সামনে চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলায় আজকের এই সিদ্ধান্তটি ছিলো প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। এদিকে ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ক্ষমতা হস্তান্তরের আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়ায় থাকা জিএসএ বাইডেন শিবিরকে জানিয়েছেন যে তারা প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছে। প্রশাসক এমিলি মারফি বলেছেন, তিনি নতুন প্রেসিডেন্টের জন্য ৬৩ লাখ ডলার অবমুক্ত করেছেন। তবে ভালো লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, জাতির বৃহত্তর স্বার্থে এমিলি ও তার টিমের করণীয় কাজটাই করা উচিৎ এবং আমার টিমকেও তাই বলেছি। প্রসঙ্গত, মারফিকে ট্রাম্পই জিএসএ প্রধান হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছিলেন। তিনি নির্বাচনের ফল সার্টিফিকেশন ও আইনি চ্যালেঞ্জসহ সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহকে তার সিদ্ধান্তের ভিত্তি হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তবে হোয়াইট হাউজের দিক থেকে কোনো চাপের বিষয়টি তিনি প্রত্যাখ্যান করেছেন। বাইডেনকে দেয়া তার চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেনম আমি পরিষ্কার করতে চাই যে আমি প্রক্রিয়াটি বিলম্বিত করতে কোনো নির্দেশনা পাইনি। তবে আমি অনলাইনে, ফোনে এবং ই-মেইলে হুমকি পেয়েছি যাতে আমার নিরাপত্তা, আমার পরিবার, কর্মকর্তা এমনকি আমার পোষা প্রাণীটিকে জড়ানো হয়েছে। যাতে সময়ের আগেই আমি সিদ্ধান্ত নেই। এমনকি হাজার হাজার হুমকির মুখেও আমি আইনকে সর্বাগ্রে রাখতে অঙ্গীকারাবদ্ধ ছিলাম। নির্বাচনের পর রুটিন কাজ হিসেবে ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু করতে না পারায় যুক্তরাষ্ট্রের দুই রাজনৈতিক শিবির থেকেই এমিলি মারফির তুমুল সমালোচনা হচ্ছিলো। ডেমোক্র্যাটরা এটি শুরু করতে তাকে গত সোমবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিলো।
অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন ৭০ ভাগ কার্যকর
২৩নভেম্বর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি করোনার সম্ভাব্য ভ্যাকসিন ৭০ শতাংশ কার্যকর। একটি বিশাল আকারের ট্রায়াল থেকে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। এটি একই সঙ্গে অক্সফোর্ডের জন্য একটি বিজয় আবার হতাশারও। কারণ সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি ফাইজার এবং মডার্নার ভ্যাকসিনে ৯৫ ভাগ কার্যকারিতার প্রমাণ পাওয়া গেছে। ইতোমধ্যে তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালের প্রাথমিক ফলে দেখা গেছে, ফাইজার-বায়োএনটেক, রাশয়ার স্পুটনিক এবং মডার্নার তৈরি ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ৯০ শতাংশের বেশি। এর মধ্যে একটি অর্থাৎ ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি ভ্যাকসিনটি ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে ৯৪ শতাংশ কার্যকর বলে জানানো হয়েছে। সেই হিসেবে অক্সফোর্ডের কার্যকারিতা অন্যসব ভ্যাকসিনের চেয়ে কিছুটা পিছিয়ে পড়েছে। তবে অন্যান্য ভ্যাকসিনের চেয়ে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের দাম অনেকটাই সস্তা হবে এবং এটি বিশ্বের যে কোনো স্থানে সংরক্ষণ করাও বেশ সহজ। তাই এদিক দিয়ে বলা যায়, অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন নিয়ে তেমন একটা ঝক্কি-ঝামেলা পোহাতে হবে না। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদন পেলে মহামারি নিয়ন্ত্রণে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা। তাছাড়া সঠিকভাবে এই ভ্যাকসিনের ডোজ প্রদান করা গেলে তা শরীরে ৯০ শতাংশ পর্যন্ত কার্যকারিতা বৃদ্ধি করতে সক্ষম বলেও জানানো হয়েছে। এর মধ্যেই ভ্যাকসিনের ১০ কোটি ডোজ তৈরির জন্য অক্সফোর্ডকে পূর্ব-নির্দেশনা দিয়েছে ব্রিটিশ সরকার। ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক বলেন, আমরা হয়তো আগামী গ্রীষ্মের মধ্যেই স্বাভাবিক জীবন-যাত্রার অনেকটা কাছাকাছি চলে যেতে পারব। ভ্যাকসিন না পাওয়া পর্যন্ত আমাদের একে অপরকে দেখে রাখতে হবে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি মহামারি করোনার সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটি ৬০ থেকে ৭০ বছর বয়সীদের ক্ষেত্রে শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা তৈরি করছে। এতে করে এই আশা তৈরি হয়েছে যে, করোনায় সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা এসব মানুষ হয়তো এই ভ্যাকসিনের মাধ্যমে সুরক্ষা পাবেন।
২৫-৩৭ ডলারেই পাওয়া যাবে মডার্নার ভ্যাকসিন
২২নভেম্বর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা মহামারি থেকে বাঁচতে ভ্যাকসিনের দিকেই তাকিয়ে আছে সারাবিশ্ব। বিশেষজ্ঞরাও ভ্যাকসিন সহজলভ্য করতে প্রাণপন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এর মধ্যেই বেশ কিছু ভ্যাকসিন আশা জাগিয়েছে। এসব ভ্যাকসিনের কার্যকারিতার প্রমাণও হাতে এসেছে। বিশ্বে বিভিন্ন দেশের ভ্যাকসিনের মধ্যে যে কয়টি এগিয়ে আছে তার মধ্যে মডার্নার ভ্যাকসিন অন্যতম। করোনাভাইরাস নির্মূলে মার্কিন বায়োটেক ফার্ম মর্ডানার তৈরি ভ্যাকসিন অতিমাত্রায় আশাব্যঞ্জক বলে সম্প্রতি নিশ্চিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগের বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউসি। পরপর দুটি ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা প্রমাণের ফলে মেসেঞ্জার আরএনএ প্রযুক্তি নিয়ে বিদ্যমান সন্দেহও দূর হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। বার্তা সংস্থা এএফপি কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ডা. ফউসি জানান, তিনি ৭০ থেকে ৭৫ শতাংশ কার্যকর ভ্যাকসিনেই সন্তুষ্ট হয়ে যেতেন। কিন্তু ৯৪ দশমিক ৫ শতাংশ কার্যকর ভ্যাকসিন পাওয়া আশ্চর্যজনক আশাব্যঞ্জক। ভ্যাকসিনটি এতটা সফল হবে তা কেউই আশা করেননি। গত সোমবার মডার্না ও এনআইএআইডি ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবকের ওপর চালানো ট্রায়ালের প্রাথমিক ফলাফলের ভিত্তিতে তাদের ভ্যাকসিন ৯৪ দশমিক ৫ শতাংশ কার্যকর বলে ঘোষণা দেয়। স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে মাত্র ৯৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। এদের মধ্যে সাধারণ প্ল্যাসেবো গ্রুপে ছিলেন ৯০ জন। বাকি পাঁচজন ভ্যাকসিন নেয়ার পরে অসুস্থ হন। সেক্ষেত্রে, ভ্যাকসিনটির সফলতার হার দাঁড়ায় প্রায় ৯৫ শতাংশ। এদিকে, মডার্নার তৈরি এই ভ্যাকসিনের দাম কত হতে পারে তা নিয়ে আগ্রহের শেষ নেই। সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী স্টিফেন ব্যানসেল জার্মানির একটি দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাতকারে এই ভ্যাকসিনের দাম জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ২৫ থেকে ৩৭ মার্কিন ডলারের মধ্যেই এই ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে। স্টিফেন ব্যানসেল বলেন, যে কোনো ফ্লুর টিকার দাম যা সে অনুসারেই করোনার ভ্যাকসিনের মূল্য ধার্য করা হবে। ইউরোপীয় দেশগুলো এই ভ্যাকসিনের জন্য প্রস্তাব পাঠিয়েছে। ভ্যাকসিনের দাম নিয়ে ইউরোপীয় কমিশনের সঙ্গে আলোচনা চলছে। কমিশন এই ভ্যাকসিনের দাম তাদের পক্ষ থেকে ২৫ ডলার বা তার নিচে ধার্য করতে পারে। মডার্নার দাবি, তাদের এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে এমন স্বেচ্ছাসেবীদের শরীরে অ্যান্টিবডিও তৈরি হচ্ছে। বেশ কিছু ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে ভ্যাকসিন নেওয়া অল্প বয়সীদের চেয়ে বয়স্কদের শরীরে অ্যান্টিবডি বেশি তৈরি হয়েছে। যা ভ্যাকসিন প্রয়োগের ইতিবাচক দিক বলেই বিবেচিত হচ্ছে। এ বছরের ডিসেম্বরেই মডার্নার ভ্যাকসিন বাজারে আসতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এর আগে, গত সপ্তাহে আরেক মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট ফাইজার এবং জার্মান প্রতিষ্ঠান বায়োএনটেক তাদের করোনা ভ্যাকসিনকে ৯০ শতাংশ কার্যকর ঘোষণা দিয়েছিল।
বিক্ষোভ-সংঘর্ষে উত্তাল উগান্ডা, তিন দিনে ৩৭ জন নিহত
২১নভেম্বর,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পূর্ব আফ্রিকার দেশ উগান্ডায় সাধারণ নির্বাচনের আগে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ববি ওয়েইনকে গ্রেফতারের ঘটনায় চলছে ব্যাপক বিক্ষোভ-সহিংসতা। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো বলছে, গেলো তিন দিনের দাঙ্গা-সহিংসতায় মারা গেছে কমপক্ষে ৩৭ জন। আহত হয়েছে আরও বহু মানুষ। গেলো বুধবার নির্বাচনী প্রচারণায় করোনা শিষ্টাচার না মানায় গ্রেফতার করা হয় ৩৮ বছর বয়সী সাবেক এই পপ তারকা এবং রাজনীতিবিদকে। এর পরই প্রতিবাদে রাস্তায় নামে তার সমর্থকরা। শুরু হয় সহিংস বিক্ষোভ। পরে আদালত তাকে জামিন দিলেও পরিস্থিতি এখনও থমথমে। নিরাপত্তা নিশ্চিতে দেশটির রাজধানীতে মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনী।
ট্রাম্প মার্কিন ইতিহাসের সবচেয়ে দায়িত্বজ্ঞানহীন প্রেসিডেন্ট: বাইডেন
২০নভেম্বর,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে দায়িত্বজ্ঞানহীন প্রেসিডেন্ট বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির সদ্য জয়ী প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বৃহস্পতিবার রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট গভর্নরদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন। এদিকে, সদ্য সমাপ্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের বড় ব্যবধানে জয় এখন স্পষ্ট। তবে তা মানতে নারাজ রিপাবলিকান নেতা ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউজ দখলে রাখতে চালিয়ে যাচ্ছেন নানামুখী চেষ্টা। এমন প্রেক্ষাপটে নির্বাচনের বিষয়ে এদিন ওয়াশিংটন ডিসিতে সংবাদ সম্মেলন ডাকে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির। ট্রাম্পের অ্যাটর্নি রুডি গিউলিয়ানি বলেন, একটা-দুটো ভোট নয়; কয়েকটি রাজ্যে বড় ধরনের ভোট জালিয়াতি হয়েছে। আর কেন্দ্রীয়ভাবে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হয়। ট্রাম্পের আইনজীবী রুডি গিউলিয়ানি বলেন, শুধুমাত্র একটি রাজ্যের গুটি কয়েক ভোট জালিয়াতি করা হয়নি। একই পদ্ধতিতে বেশ কয়েকটি রাজ্যে জালিয়াতির আশ্রয় নেয়া হয়েছে। এই পরিকল্পনা কেন্দ্রীয়ভাবে বাস্তবায়ন করা হয়েছে। বিশেষ করে ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত বড় বড় রাজ্যগুলোতে সবচেয়ে বেশি ভোট কারচুপি হয়েছে। নির্বাচন নিয়ে রিপাবলিকান শিবির একের পর এক অভিযোগ তুললেও তা পাত্তা দিচ্ছেন না জো বাইডেন। নিজস্ব অফিস খুলে সরকার গঠনে নানা পরিকল্পনার পাশপাশি করোনা মোকাবিলায় করছেন আলোচনা। এদিন রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট গভর্নরদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন তিনি। পরে সংবাদ সম্মেলেন বাইডেন বলেন, করোনা মহামারি মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প অস্বীকৃতি জানিয়ে এলেও তার প্রশাসনের কর্মকর্তারা জো বাইডেনের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছেন। বলা হয়, হোয়াইট হাউজের বেশ কিছু বর্তমান ও সদ্য সাবেক হওয়া কর্মকর্তা, বাইডেনের টিমের সঙ্গে নীরব যোগাযোগ শুরু করেছেন।
ইরাক ও আফগানিস্তান থেকে সেনা কমানোর ঘোষণা ওয়াশিংটনের
১৯নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আফগানিস্তান ও ইরাকে মার্কিন সেনা উপস্থিতি গত ২০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্নে নিয়ে আসতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার এক ঘোষণায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছে পেন্টাগন। খবর এএফপি। ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী ক্রিস মিলার জানান, আগামী ১৫ জানুয়ারির মধ্যে আফগানিস্তান থেকে দুই হাজারের মতো সেনা প্রত্যাহার করা হবে। একই দিনে ইরাক থেকে ৫০০ সেনা ফিরিয়ে আনা হবে। এতে মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিতে মার্কিন সেনা সংখ্যা আড়াই হাজারে নেমে আসবে। ইরাক ও আফগানিস্তান যুদ্ধ বিরোধ শান্তিপূর্ণ ও সফল পরিণতিতে নিয়ে আসতে ট্রাম্প নীতি বাস্তবায়নে এ সেনা প্রত্যাহার হচ্ছে বলে জানায় পেন্টাগন। মিলার বলেন, ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে আল কায়েদার হামলার জবাবে শুরু হওয়া যুদ্ধের লক্ষ্য অর্জিত হয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের এ সিদ্ধান্তকে ভুল হিসেবে দেখছেন শীর্ষ রিপাবলিকানরা। এ বিষয়ে বেশ কয়েকজন রিপাবলিকান সদস্য ট্রাম্প প্রশাসনকে সতর্ক করে দিয়েছে। অনেক আগে থেকেই নিজের দেশের সেনাদের ফিরিয়ে আনার কথা বলে আসছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। অন্য দেশে যুক্তরাষ্ট্রের হস্তক্ষেপের বিষয়ে বরাবরই সমালোচনা করে আসছেন তিনি। এদিকে রিপাবলিকান নেতা মিচ ম্যাককনেল সব সময় ট্রাম্পকে সমর্থন করে এলেও সেনা প্রত্যাহারের পরিকল্পনাকে তিনিও সমর্থন করছেন না। তার মতে এটা একটি ?ভুল সিদ্ধান্ত। একই সঙ্গে হোয়াইট হাউজ ছাড়ার আগে প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র নীতিতে আমূল পরিবর্তন এনে কোনো নীতি গ্রহণের বিষয়েও বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সতর্ক করেছেন তিনি। আফগানিস্তানে বর্তমানে সাড়ে চার হাজার সৈন্য রয়েছে। আগামী জানুয়ারির মাঝামাঝিতে এ সংখ্যা কমিয়ে আড়াই হাজার করা হবে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। অপরদিকে ইরাকে বর্তমানে সেনা রয়েছে তিন হাজার। এ থেকে সেনা কমিয়ে আড়াই হাজারে নামিয়ে আনা হবে বলেও জানানো হয়েছে। এর আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছিলেন, তিনি প্রত্যাশা করেন ক্রিসমাসের আগেই সেনারা সবাই দেশে ফিরে আসুন। তবে নির্বাচনের পর ট্রাম্প প্রশাসনে কিছুটা অস্থিরতা বিরাজ করছে। ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বড় ব্যবধানে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের কাছে হেরে গেছেন ট্রাম্প। নির্বাচনে ৩০৬টি ইলেকটোরাল ভোট পেয়ে জয় নিশ্চিত করেছেন জো বাইডেন। অপরদিকে ট্রাম্প পেয়েছেন ২৩২টি ভোট। মার্কিন গণমাধ্যমগুলোতে এর মধ্যেই বাইডেনকে জয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু নিজের পরাজয় কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না ট্রাম্প। এমনকি ক্ষমতা হস্তান্তরেও তার প্রশাসনের কোনো তোড়জোড় দেখা যাচ্ছে না। এদিকে মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, আগামী ১৫ জানুয়ারির মধ্যেই সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। কারণ ২০ জানুয়ারি নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন জো বাইডেন। সমালোচকরা বলছেন, নির্বাচনে পরাজয়ের কারণে তড়িঘড়ি করে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন ট্রাম্প। সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপারকে বরখাস্তের ১০ দিনের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা এল। আফগান নিরাপত্তা বাহিনীকে সহায়তায় সেখানে মার্কিন সেনা উপস্থিতির পক্ষে অবস্থান করছিলেন এসপার। ইরাকে মার্কিন দূতাবাস ও সেনা ঘাঁটি লক্ষ্য করে বেশ কয়েকটি রকেট হামলার ঘটনা ঘটলেও সেনা প্রত্যাহারে অটল রয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। পেন্টাগনের এ সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে প্রমাদ গুনছেন ওয়াশিংটনের মিত্র ও খোদ মার্কিন রাজনীতিবিদরা। তারা ট্রাম্প প্রশাসনের এ সিদ্ধান্তকে বিপজ্জনক পদক্ষেপ হিসেবে দেখছেন।
জম্মু-কাশ্মীরে ৫০০ ক্রীড়া একাডেমিকে ভারতের আর্থিক সহায়তা
১৮নভেম্বর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতে খেলাধূলার আরও উন্নয়নের জন্য দেশটির জম্মু ও কাশ্মীরে ৫০০টি বেসরকারি একাডেমিকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির ক্রীড়া মন্ত্রী কিরেন রিজিজু। দেশটির ক্রীড়া মন্ত্রনালয় ২০২০-২১ অর্থবছর থেকে পরবর্তী চার বছরে খেলো ইন্ডিয়া স্কিমের মাধ্যমে এই সহায়তা প্রদান করবে একাডেমিগুলোকে। এই স্কিমের মাধ্যমে প্রশিক্ষিত খেলোয়াড়ের গুণগতমান উন্নয়ন, একাডেমিতে কোচের ব্যবস্থা, খেলার মাঠের মান উন্নয়ন, অবকাঠামো, ক্রীড়া বিজ্ঞানের সুবিধাগুলো নিয়ে কাজ করা হবে। এছাড়া ২০২৮ অলিম্পিকে ভারতের সেরা খেলোয়াড়দের দেওয়ার জন্য ১৪টি বিষয়ে অগ্রাধিকার দিয়ে সেই শাখাগুলোকে প্রথম পর্যায়ের সুবিধা দেওয়া হবে। এ বিষয়ে দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রী কিরেন রিজিজু বলেছেন, দেশের সবচেয়ে প্রত্যন্ত অঞ্চলেও যেন খেলাধুলার প্রতিভা গড়ে তোলা যায়, সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে এই প্রতিষ্ঠানগুলোকে সহায়তা করা জরুরি। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অনেক ছোট ছোট একাডেমি রয়েছে যারা অ্যাথলেটদের সনাক্ত এবং প্রশিক্ষণে খুব ভাল কাজ করছে। আমরা তাদের সহায্যের মাধ্যমে দেশের ক্রীড়ার উন্নয়ন করতে চাই। তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া ব্লুমস
দুঃসময়ে পাশে দাঁড়ানোয় ইরানের কাছে কৃতজ্ঞ কাতার
১৮নভেম্বর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দুঃসময়ে সহযোগিতা করার জন্য আবারও ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রশংসা করেছে কাতার। কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মো. বিন আব্দুর রহমান আলে সানি বলেছেন, সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো যখন কাতারের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ করে তখন নিজের আকাশসীমা উন্মুক্ত করে দিয়েছিল ইরান। কাতারের জনগণের জন্য ওষুধ এবং খাদ্য সংগ্রহের একমাত্র পথ ছিল ইরান। ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সহযোগিতার জন্য কাতার কৃতজ্ঞ বলে তিনি জানান। রিয়াদের দিক-নির্দেশনা অনুযায়ী পররাষ্ট্র নীতি নির্ধারণ না করার কারণে ২০১৭ সালের ৫ জুন সৌদি আরব তার কয়েকটি মিত্র দেশকে সঙ্গে নিয়ে কাতারের ওপর অবরোধ আরোপ করে এবং দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে। সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো কাতারের জন্য আকাশসীমাও বন্ধ করে দেয়। এ সময় নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী এবং ঔষধ সংগ্রহের ক্ষেত্রে তাদেরকে সহযোগিতা করে ইরান। ইরান নিজেও কাতারে খাদ্য সামগ্রী ও ওষুধ সরবরাহ করে। দুঃসময়ে সহযোগিতার জন্য এর আগে কাতারের আমিরও একাধিকবার ইরানের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর