ট্রাম্পের ইমপিচমেন্ট তদন্তের বিষয়ে বৃহস্পতিবার ভোটাভুটি
২৯অক্টোবর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইম্পিচমেন্ট করার জন্য তদন্ত শুরুর বিষয়ে আগামী বৃহস্পতিবার প্রতিনিধি পরিষদে ভোটাভুটি হবে। কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে বিরোধী ডেমোক্র্যাট দলের আধিপত্য রয়েছে। ইমপিচমেন্টের জন্য ডেমোক্র্যাট দল তদন্ত করতে চাইলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তার রিপাবলিকান দলের সহযোগীরা এ প্রচেষ্টাকে অবৈধ এবং বেআইনি বলে প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। এ কারণে ট্রাম্পের ব্যাপারে তদন্ত শুরু করা যায়নি। কিন্তু প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাটরা যদি ভোটের মাধ্যমে তদন্ত প্রক্রিয়া শুরুর বিষয়টি পাস করতে পারেন তাহলে ট্রাম্প এবং তার সহযোগীদের ওই দাবি প্রত্যাখ্যাত হবে এবং তদন্ত শুরু হবে। প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি চিঠিতে বলেছেন, চলতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবারে প্রতিনিধি পরিষদে ভোটাভুটি হবে এবং এর মাধ্যমে ঠিক করা হবে- কিভাবে ট্রাম্পের তদন্তের ব্যাপারে গণশুনানি হবে। তবে পেলোসি বলেছেন যে, ট্রাম্পকে আইনের সব ধরনের সুরক্ষা দেয়া হবে। ভোটাভুটির মাধ্যমে ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ তাদের হাতে আসা যাবতীয় তথ্য প্রমাণাদি প্রতিনিধি পরিষদের বিচার বিভাগ সংক্রান্ত কমিটির কাছে হস্তান্তর করবে। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি যাতে আবার নির্বাচিত হতে পারেন সেজন্য বিদেশি সাহায্য চেয়েছেন। এরই অংশ হিসেবে তিনি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমিরি জেলিনস্কির ওপর চাপ সৃষ্টি করেন যে, ডেমোক্র্যাট দলের সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন এবং তার ছেলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে তদন্ত করতে হবে। তা নাহলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তা দেয়া বন্ধ করে দেবেন।
ভয়াবহ দাবানলের কারণে ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা
২৮অক্টোবর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। রাজ্যটির গভর্নর গেভিন নিউসম এই জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। তীব্র বাতাসের কারণে আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ছে। ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। এতে ২০ লাখেরও বেশি মানুষের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। স্টেটটির ইতিহাসে একসঙ্গে এতো মানুষের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম বলে জানা যায়। অগ্নিকাণ্ডের আশঙ্কায় উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার ঘর ছাড়তে হয়েছে প্রায় ৯০ হাজার মানুষকে। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেটের এক কর্মকর্তা সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছেন, বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ৯ লাখ ৪০ হাজার বসতবাড়িসহ উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার ৩৬টি কাউন্টির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এদিকে নতুন করে যেন আগুন ছড়িয়ে পড়ে সেজন্য কাজ করে যাচ্ছে বিভিন্ন বিদ্যুৎ কোম্পানি। এছাড়া সান্তা রোজাসহ সোনোমা কাউন্টির বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজনকে সরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সোনোমা এলাকায় দাবানলে কমপক্ষে ৩০ হাজার একর জমি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
ট্রাম্পের নির্দেশে অভিযানে আইএস প্রধান বাগদাদি নিহত
২৭অক্টোবর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নেতা আবু বকর আল বাগদাদির গোপন আস্তানায় অভিযান চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আর এ অভিযানে বাগদাদি নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রায় এক সপ্তাহ আগে অভিযানটির অনুমতি দিয়েছিলেন বলে একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। মার্কিন এক শীর্ষ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় শনিবার সিরিয়ার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় এই অভিযান পরিচালিত হয়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় হোয়াইট হাউসকে জানিয়েছে, অভিযানে যে বাগদাদি নিহত হয়েছেন এ বিষয়ে তাদের প্রবল বিশ্বাস রয়েছে। কিন্তু ডিএনএ ও বায়োমেট্রিক পরীক্ষার করে আরও যাচাই করার পর বিষয়টি পুরোপুরি নিশ্চিত করা যাবে। এদিকে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের করা একটি টুইট বার্তাও সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে। ট্রাম্প তার টুইট বার্তায় বলেছেন,এইমাত্র বিশাল বড় কিছু একটা ঘটে গেছে। তিনি এ নিয়ে শিগগিরই ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আইএস নেতা বাগদাদির অবস্থান শনাক্তের কাজটি করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ। তারপর সেখানে অভিযান চালানো হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মার্কিন এক প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বাগদাদির গোপন আস্তানায় যখন মার্কিন বাহিনী অভিযান চালায় তখন তিনি তার শরীরের বিস্ফোরক ভর্তি বেল্ট পড়ে ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, সেটির বিস্ফোরণ ঘটানোর মাধ্যমে বাগদাদি আত্মহত্যা করেছেন। এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির স্থানীয় সময় রোববার সকাল ৯টায় গুরুত্বপূর্ণ এক ঘোষণা দেবেন বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্টের কার্যালয় হোয়াইট হাউসের সহকারী প্রেস সেক্রেটারি হোগান গিডলে। প্রশাসনিক এক কর্মকর্তা সিএনএনকে বলেছেন, ট্রাম্পের এ ঘোষণা হবে বৈদেশিক নীতি সম্পর্কিত। ইসলামিক স্টেটের নেতা আবু বকর আল বাগদাদি গত পাঁচ বছর ধরে আত্মগোপনে রয়েছেন। তিনি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটির এখন মূল নেতা। তবে এর আগেও একাধিকবা বাগদাদির নিহতের খবর ছড়ালেও তা ভুল প্রমাণিত হয়।
৪০ সেনা-পুলিশকে অপহরণ করেছে বিদ্রোহীরা, ফের উত্তপ্ত রাখাইন
২৭অক্টোবর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মিয়ানমারে একটি টহলরত নৌযানে হামলা চালিয়ে ৪০ পুলিশ ও সেনা সদস্যকে অপহরণ করেছে দেশটির জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির এক রিপোর্টে একথা বলা হয়েছে । নয়া দিগন্ত এ ঘটনায় মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের এই রাজ্যে নতুন করে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে সেখানে। জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা রাজ্যের অধিকতর স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে লড়াই করে আসছে।সেনাবাহিনী জানিয়েছে, অপহরণের ঘটনার পর সেনারা আরাকা আর্মির ঘাঁটি গুড়িয়ে দিতে অভিযান শুরু করেছ। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জ্য মিন তুন বলেন, শনিবার সকালের দিকে রাখাইনের রাজধানী সিত্তের উত্তরাঞ্চলে নৌযানে কর্তব্যরত পুলিশ ও সেনাসদস্যদের লক্ষ্য করে নদীর তীর থেকে গুলি ছোড়ে বিদ্রোহীরা। তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর ১০ জনের বেশি সদস্য, ৩০ জন পুলিশ ও কারা বিভাগের আরও দুই কর্মী ওই নৌযানে ছিলেন। পরে ৪০ জনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বিদ্রোহীরা। বিদ্রোহীদের অবস্থান শনাক্ত করতে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার থেকে অভিযান শুরু হয়েছে। নদীর তীরবর্তী এলাকার আশপাশে বিদ্রোহীদের বিশাল ঘাঁটি শনাক্ত করা হয়েছে। এর ফলে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে আরাকান আর্মি বিদ্রোহীদের দমন করতে হাজার হাজার সেনা সদস্যকে মোতায়েন করা হয়েছে। ফলে নতুন করে এক উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছে রাখাইনে। বার্তা সংস্থা এএফপির দেয়া এ খবর প্রকাশিত হয়েছে দ্য হিন্দু সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে। এতে বলা হয়েছে, রাখাইনে জাতিগত রাখাইন বিদ্রোহীরা রাখাইন বৌদ্ধদের জন্য অধিক স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে লড়াই করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার একটি ফেরিতে ঘেরাও করে তারা ওই পুলিশ ও সেনা সদস্যদের জিম্মি করেছে। এর ফলে মিয়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলীয় ওই রাজ্যে এক অশান্ত অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে হাজার হাজার সেনা দিয়ে ভরে ফেলা হয়েছে।
সর্বগ্রাসী আগুনে পুড়ে ছাই নর্থ-সাউথ ক্যালিফোর্নিয়া
২৬অক্টোবর,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ও সাউথ ক্যালিফোর্নিয়ায় সৃষ্ট দাবানল। সর্বগ্রাসী আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে বনাঞ্চল, বহু ঘর-বাড়ি। ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তবে দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় ৩৬টি কাউন্টির কয়েক লাখ মানুষ বিদ্যুৎহীন হওয়ার আশঙ্কা জানিয়ে সতর্ক করেছে কর্তৃপক্ষ। পরিস্থিতি সামাল দিতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন দমকল বাহিনীর কর্মীরা। ক্যালির্ফোনিয়ার লস অ্যাঞ্জেলসে ঘর-বাড়ি ও বনভূমি গ্রাস করে নিচ্ছে ভয়াবহ দাবানল। ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন মাইলের পর মাইল। একইভাবে আগুন ছড়িয়ে পড়ছে সান্তা ক্লারিটায়। আতঙ্কে এলাকা ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে ছুটছেন স্থানীয়রা। আগুনের কারণে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে ৫০ হাজারেরও বেশি বাসিন্দাকে। দমকা হাওয়ায় ক্যালিফোর্নিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে পরিস্থিতি আরো অবনতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে প্রায় ৩৬টি কাউন্টি বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছে সংশ্লিষ্টরা। এদিকে, স্থানীয় একটি বিদ্যুৎ সংস্থার মতে, ক্যালিফোর্নিয়ার উত্তরাঞ্চলের একটি বিদ্যুৎ লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর দাবানলের সূত্রপাত হয়। গত বছরের ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আবারও ভয়াবহ দাবানলের মুখে পড়লো ক্যালিফোর্নিয়াবাসী। এবারের আগুন দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনা না গেলে গত বছরের মত বহু মানুষের প্রাণহানির শঙ্কা রয়েছে।
বিশ্ব গণমাধ্যমে নুসরাত হত্যা মামলার রায়
২৪অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলা সহ ১৬ আসামিকেই ফাঁসির আদেশ দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টায় ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মামুনুর রশিদ এ রায় ঘোষণা করেন। এর পর পরই দেশের মিডিয়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রভাবশালী গণমাধ্যমেও বেশ গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করা হয়েছে নুসরাত হত্যা মামলার রায়ের খবর। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি রায় ঘোষণার পরপরই তাদের অনলাইন সংস্করণে প্রধান সংবাদ করেছে নুসরাত হত্যা মামলার রায়ের এই খবর। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় বাংলাদেশে ১৬ জনের ফাঁসি শিরোনামে তাদের দ্বিতীয় প্রধান সংবাদ প্রকাশ করেছে। ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপি নুসরাত হত্যা মামলার রায় ঘোষণার পর একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স যৌন হয়রানির মামলায় কিশোরীকে হত্যায় অভিযুক্ত ১৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে বাংলাদেশ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন করেছে। এছাড়াও ফেনীর মাদরাসা ছাত্রী নুসরাতের ঘাতকদের ফাঁসির এই আদেশের খবর গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি, ইন্ডিয়া টুডে, টাইমস অব ইন্ডিয়া, সিঙ্গাপুরের দৈনিক স্ট্রেইট টাইমস, কানাডার সংবাদমাধ্যম সিটিভি নিউজ, পাকিস্তানের এক্সপ্রেস ট্রিবিউন, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক টাইমস, ওয়াশিংটন পোস্টসহ বিশ্বের অনেক গণমাধ্যম।-somoynews.tv
যুক্তরাজ্যে একটি লরি থেকে ৩৯টি মৃতদেহ উদ্ধার
২৩অক্টোবর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাজ্যের এসেক্সে একটি লরির ভেতর ৩৯টি মৃতদেহ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার দিনগত রাত ১টা ৪০ মিনিটে এসেক্সের গ্রেসর ওয়াটারগ্লেড ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে একটি লরির ভেতর ওই মৃতদেহগুলো খুঁজে পায় জরুরি বাহিনী। খবর মিররের। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, মৃতদেহগুলোর মধ্যে ৩৮টি প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির ও একটি একজন কিশোরের। পুলিশ বলছে, তাদের ধারণা ওই গাড়িটি বুলগেরিয়া থেকে এসেছে এবং তিনদিন আগে ওয়েলসের হলিহেড দিয়ে যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করে। ওই ৩৯ ব্যক্তিকে হত্যার সন্দেহে ২৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে উত্তরাঞ্চলীয় আয়ারল্যান্ড থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। চিফ সুপারিন্ডেন্ট অ্যান্ড্রু মারিনার বলেছেন, এটা একটা মর্মান্তিক ঘটনা; যে ঘটনায় অনেক মানুষের প্রাণ গেছে। কী ঘটেছে তা জানতে আমরা তদন্ত শুরু করেছি। তিনি বলেন, আমরা ভিকটিমদের পরিচয় শনাক্ত করার চেষ্টা করছি; কিন্তু আমি ধারণা করছি এটা দীর্ঘ একটা প্রক্রিয়া হবে। অ্যান্ড্রু মারিনার বলেন, আমাদের ধারণা ওই লরিটি বুলগেরিয়া থেকে এসেছে এবং শনিবার (১৯ অক্টোবর) হলিহেড দিয়ে যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করেছে এবং আমরা তদন্তের স্বার্থে আমাদের পার্টনারদের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করছি। তিনি বলেন, ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকায় আমরা লরিটির চালককে আটক করেছি এবং সে পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। আমি জানি ঘটনাস্থল ঘিরে রাখার কারণে স্থানীয় ব্যবসাপাতি ব্যাহত হবে এবং এই ব্যাঘাত যতদ্রুত সমাধান করা যায় আমরা সেটির চেষ্টা করছি। উল্লেখ্য, লরির ভেতর ৩৯ জনের মৃতদেহ পাওয়ার ঘটনায় নয়টি পুলিশের গাড়ি ও ১৫ জন পুলিশ কর্মকর্তা ওই এলাকা ঘিরে রেখেছে। ওই এলাকাটি বিপনী কেন্দ্র লেকসাইডের পাশে অবস্থিত।
জনপ্রিয় নেতা ছিল না বলেই মোদি প্রধানমন্ত্রী: নোবেলজয়ী অভিজিৎ
২২অক্টোবর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, মানুষ নরেন্দ্র মোদিকে ভোট দিয়েছেন। কারণ আর কোনও জনপ্রিয় নেতা ছিলেন না। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার। তিনি দেশটির এক বেসরকারি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, আমার মনে হয় যেকোনো সরকারের কাজের প্রেক্ষিতেই মানুষ ভোট দেয়। মোদি ছাড়া ভোট পাওয়ার যোগ্য কেউ ছিল না মানুষের কাছে। সরকারি দল নীতির ফলে নির্বাচনে জয়ী হয়, এমন তত্ত্ব মানতে নারাজ অভিজিৎ। তিনি বলেন, মোদি জিতেছেন বলে তার নেয়া সব সিদ্ধান্ত সঠিক নয়। তবে মোদির জনপ্রিয়তার কৃতিত্ব স্বীকার করেন তিনি। কংগ্রেসের সমালোচনা করে এই নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন, দেশে এখন প্রধান বিরোধী দল হিসেবে কংগ্রেস বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দুর্বল। দেশে এই মুহূর্তে একটি শক্তিশালী বিরোধী দলের খুব প্রয়োজন। অমর্ত্য সেনের পর এই নোবেলজয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদকে নিয়েও নোংরা খেলায় মেতেছে বিজেপি। তবে এতে নিজের মনের মতামত প্রকাশ করতে একটু দ্বিধা বোধ করছেন না অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়।
গাদ্দাফি হত্যায় হাত ছিল ফ্রান্সের, ৩ হাজার ইমেইল ফাঁস
২১অক্টোবর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: লিবিয়ার সাবেক একনায়ক মুয়াম্মার গাদ্দাফি হত্যার ঘটনায় ফ্রান্সের হাত ছিল বলে জানা গেছে। আরবি দৈনিক রাই আল-ইয়াওম জানিয়েছে, সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের কাছে পাঠানো তিন হাজার গোপন ইমেইল থেকে এ বিষয়টি ফাঁস হয়। হিলারি ক্লিনটনের কাছে পাঠানো ইমেইলগুলোতে বলা হয়েছে, ফ্রান্সের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজি পাঁচটি লক্ষ্যকে সামনে রেখে ন্যাটোর মাধ্যমে লিবিয়ায় হামলা চালিয়েছিলেন। লক্ষ্যগুলো হচ্ছে- লিবিয়ার তেল সম্পদের ওপর আধিপত্য প্রতিষ্ঠা, উত্তর আফ্রিকার সাবেক উপনিবেশগুলোতে ফ্রান্সের প্রভাব ধরে রাখা, সারকোজির আঞ্চলিক সুনাম বাড়ানো, ফ্রান্সের সামরিক শক্তিমত্তা প্রদর্শন এবং পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলোতে গাদ্দাফির প্রভাব ক্ষুণ্ন করা। ওই তিন হাজার ইমেইল ২০১১ সালে তৎকালীন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনকে পাঠানো হয়েছিল। ২০১১ সালে মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে গণঅভ্যুত্থান হয় এবং এর জের ধরে কয়েকটি দেশের সরকারের পতন ঘটে। উত্তর আফ্রিকার দেশ লিবিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় শহর বেনগাজি থেকে গাদ্দাফি সরকারের বিরুদ্ধে সশস্ত্র আন্দোলন শুরু হয়। এ সময় গাদ্দাফি ওই আন্দোলন দমন করতে বেনগাজির দিকে যে বিশাল সামরিক বহর পাঠান বিমান হামলা চালিয়ে সে বহরকে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেয় ন্যাটো বাহিনী। এর ফলে গাদ্দাফি সরকারের ওপর যে আঘাত আসে তা সামলে ওঠা ত্রিপোলির পক্ষে সম্ভব হয়নি এবং এর জের ধরে সরকারের পতন ও গাদ্দাফি বিক্ষুব্ধ জনতার হাতে ধরা পড়ে নিহত হন। দৃশ্যত গণ অভ্যুত্থানে গাদ্দাফি সরকারের পতন হলেও এ ঘটনায় মূল অনুঘটকের কাজটি ন্যাটো জোট করে দেয় যে জোটের নামে মূল হামলাটি চালিয়েছিল ফ্রান্সের সেনাবাহিনী।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর