১০ বছরের ভিসা দেয়া শুরু আমিরাতে
৪ ফেব্রুয়ারী,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রবাসী বিনিয়োগকারী ও মেধাবীদের ১০ বছরের ভিসা দেয়া শুরু করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। দেশটির দ্য ফেডারেল অথরিটি ফর আইডেন্টিটি অ্যান্ড সিটিজেনশিপ (এফএআইসি)-এর অধীনে এ ভিসা দেয়া হচ্ছে। গত বছরের নভেম্বরে দেশটির মন্ত্রিসভা এ সিদ্ধান্ত নেয়ার পর চলতি বছর তা কার্যকর করা শুরু হয়েছে। আমিরাতভিত্তিক সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, প্রবাসী বিনিয়োগকারী, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, বিশেষজ্ঞ ও মেধাবী শিক্ষার্থীসহ তাদের পরিবারের জন্য ১০ বছরের ভিসা দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য শতভাগ মালিকানাধীন বিদেশি কোম্পানী, বিনিয়োগকারী, বিজ্ঞানী, চিকিৎসক, প্রকৌশলী ও উদ্যোক্তাদের জন্য ১০ বছরের ভিসা প্রদান করা হবে।
সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় শহর আলেপ্পোতে ভবন ধসে নিহত ১১
৪ ফেব্রুয়ারী,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় শহর আলেপ্পোতে যুদ্ধকালীন সময়ে ক্ষতিগ্রস্ত একটি ভবন ধসে চার শিশুসহ ১১ জন নিহত হয়েছে। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সানা জানায়, স্থানীয় সময় শনিবার পাঁচতলার ভবনটি ভেঙে পড়ে। এ সময় ভবনের ভেতরে থাকা বেশিরভাগ মানুষ মারা যায়। মাত্র একজনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়। বার্তা সংস্থা ইউএনবি জানিয়েছে, ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ভবনটি পূর্ব সালাহউদ্দিনের কাছে অবস্থিত, যা একসময় বিদ্রোহীদের দখলে ছিল। সিরিয়ার আলেপ্পো শহরটি চার বছর ধরে বিভক্ত ছিল। ২০১২ সালের গ্রীষ্মের শুরু থেকে পশ্চিমাংশ সরকারের নিয়ন্ত্রণে এবং পূর্বাংশ বিদ্রোহীদের দখলে ছিল। ২০১৬ সালে সিরিয়ার সেনাবাহিনী সেখানে মাসব্যাপী আক্রমণ চালিয়ে পুরো শহরটিকে সরকারের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। সিরিয়ায় প্রায় আট বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধে চার লাখেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে এবং দেশের বিস্তৃত অংশ ধ্বংস হয়ে গেছে।
ভয়াবহ শীত-তুষারপাতে যুক্তরাষ্ট্রে ৭ জনের মৃত্যু
৩১, জানুয়ারি,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মৌসুমের সবচেয়ে ভয়াবহ শীত ও তুষারপাতে একেবারেই বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য পশ্চিমাঞ্চল। বিভিন্ন নগরীতে অচল হয়ে পড়ছে জীবনযাত্রা। কয়েকটি রাজ্যে নতুন করে অন্তত ৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বহু মানুষ। তবে যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার কারণে চিকিৎসা সেবাও মিলছে না তাদের। শিকাগোতে তাপমাত্রা নেমে গেছে মাইনাস ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে, নর্থ ডেকোটায় তাপমাত্রা কমে দাঁড়িয়েছে মাইনাস ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। মধ্যপশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন রাজ্যে সপ্তাহজুড়েই তীব্র শীত ও ঠাণ্ডা বাতাসের ঝাপটা থাকার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ। বরফজমা আবহাওয়া বিরাজ করছে দেশটির অন্যান্য অঞ্চলেও। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন কোটি কোটি মানুষ। অবস্থা ততটা খারাপ না হলেও কানাডা, ইউরোপের দেশ বেলজিয়াম, সুইজারল্যান্ড, যুক্তরাজ্যসহ আশপাশের দেশগুলোতে তুষারপাত গত কয়েকদিনের মতোই অব্যাহত রয়েছে। পাহাড়ি এলাকাগুলোতে জারি করা আছে সতর্কতা।
ফিলিপিন্সের দক্ষিণাঞ্চলে মসজিদে গ্রেনেড হামলা, নিহত ২
৩০ জানুয়ারি,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফিলিপিন্সের দক্ষিণাঞ্চলে একটি মসজিদে গ্রেনেড হামলায় দুই জন নিহত হয়েছেন। দেশটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আজ বুধবার সকালের দিকে জামবোয়ানগা শহরে ওই হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর মাত্র দুদিন আগেই দেশটিতে একটি ক্যাথলিক ক্যাথেড্রালে বোমা হামলায় ২১ জন নিহত হয়েছিল। সেনবাহিনীর আঞ্চলিক মুখপাত্র লে. কর্নেল গ্যারি বেসানা বলেছেন, মসজিদের ভেতর দুটি গ্রেনেড ছোঁড়ে দুবৃত্তরা। এ ঘটনায় দুই জন নিহত এবং আরও চারজন আহত হয়। হামলার সময় ওই ব্যক্তিরা মসজিদের ভেতর ঘুমিয়ে ছিলেন বলে জানান এই সেনা কর্মকর্তা। জামবোয়ানগা শহরটি ফিলিপিন্সের সংঘাত কবলিত মিন্দানাও দ্বীপে অবস্থিত। এই শহরটিতে মুসলিমরা সংখ্যালঘু। এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ জোলো দ্বীপে সানডে মাসের সময় একটি ক্যাথেড্রালে বোমার বিস্ফোরণে ২১ জন নিহত হয়েছিল। ইসলামিক স্টেটের জঙ্গিরা ওই হামলার দায় স্বীকার করেছিল। ফিলিপিন্সের কর্তৃপক্ষ প্রাথমিকভাবে বলেছিল, এটা আত্মঘাতী হামলা ছিল না। কিন্তু মঙ্গলবার দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতের্তে জানান, একজন আত্মঘাতী হামলাকারী ক্যাথেড্রালের ভেতর বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। লে. কর্নেল বেসানা বলেন, ক্যাথেড্রালে হামলার জবাবে মসজিদে হামলা করা হয়েছে কিনা তা এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে পুলিশ জড়িতদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এমন এক সময় এই হামলার ঘটনা ঘটলো যখন এক গণভোটের মাধ্যমে ফিলিপিন্সের দক্ষিণাঞ্চলীয় মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় নিজেদের সিদ্ধান্ত নেয়ার ব্যাপারে আরও ক্ষমতা দেয়া হয়েছে মুসলমানদের।
সৌদি অভিবাসীদের পাসপোর্ট-ইকামা রাখতে পারবেন না নিয়োগকর্তা
২৯ জানুয়ারি,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সৌদি আরবে বসবাসরত প্রবাসী শ্রমিকদের এখন থেকে কাজের অনুমতিপত্র (ইকামা), আবাসন কার্ড, পাসপোর্ট অথবা মেডিকেল ইন্স্যুরেন্স কার্ড রাখতে পারবেন না দেশটির নিয়োগকর্তারা। দেশটির সংশোধিত নতুন শ্রম আইনে শ্রমিক নিয়োগের ব্যাপারে আগের নিয়ম শিথিল করে নতুন এই বিধান যুক্ত করা হয়েছে। সৌদি আরবের শ্রম ও সামাজিক উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রী আহমেদ সুলেইমান আল-রাজি এ তথ্য জানিয়েছেন। গালফ বিজনেসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোনো কোম্পানি অথবা নিয়োগকর্তা সংশোধিত আইন লঙ্ঘন করলে ৩০ দিনের পরিবর্তে ১০ দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান করতে হবে। এ ছাড়া কোনো ধরনের জরিমানা করা হলে ১৫ দিনের মধ্যে তা পরিশোধ করতে হবে। আগে এই জরিমানা দুই মাসের মধ্যে পরিশোধের বিধান ছিল। আইন লঙ্ঘনকারীরা জরিমানা পরিশোধ না করলে তাদের সব ধরনের কর্মকাণ্ড বন্ধ করে দেওয়া হবে বলেও সতর্ক করে দিয়েছে সৌদির শ্রম ও সামাজিক উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রণালয়। নতুন এ আইনে কখন একজন কর্মীকে কোনো ধরনের সুবিধা দেওয়া ছাড়াই চাকরিচ্যুত করা যাবে, সে বিষয়টিও পরিষ্কার করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বার্ষিক চুক্তি অনুযায়ী একজন শ্রমিক টানা ১৫ দিন অথবা বিরতি দিয়ে এক মাসের ছুটি কাটাতে পারবেন। এ ছাড়া কর্মচারী যদি কর্মস্থলে কোনো সহকর্মী অথবা উচ্চপদস্থ কোনো কর্মকর্তাকে শারীরিক কিংবা মৌখিক আক্রমণ করেন, তাহলেও চাকরি শেষের কোনো প্রণোদনা পাবেন না ওই কর্মচারী। শ্রমবান্ধব পরিবেশ তৈরির লক্ষ্যে সৌদি আরব বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। গত বছর দেশটিতে বিনিয়োগ আকর্ষণ ও শ্রমিকদের সুরক্ষায় সাতটি নতুন শ্রম আদালত চালু করা হয়। সম্পূর্ণ ডিজিটাল এসব শ্রম আদালত দেশটির বৃহৎ সাতটি শহর রিয়াদ, জেদ্দা, দাম্মাম, মক্কা, মদিনা, আভা ও বুরাইদাহতে অবস্থিত। গত বছরের জুলাইয়ের এক পরিসংখ্যান বলছে, সৌদি আরবে বর্তমানে এক কোটি ৩০ লাখ শ্রমিক রয়েছেন। এর মধ্যে এক কোটি বিদেশি এবং বাকি ৩০ লাখ সৌদির নাগরিক।
কমপক্ষে ১৫ জনের মৃত্যু, পেরুতে পাহাড় ধসে চাপা পড়ে
২৮ জানুয়ারি,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: পেরুর দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে পাহাড় ধসে চাপা পড়ে কমপক্ষে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। পাহাড়টির পাশের একটি হোটেলে বিবাহ অনুষ্ঠান চলাকালে এ ধসের ঘটনা ঘটে। রোববার কর্তৃপক্ষ একথা জানায়। খবর এএফপির। আবাসেই নগরীর মেয়র আরপিপি রেডিও কে বলেন, পাহাড় ধসে হোটেলটি মাটিতে চাপা পড়ায় এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। মেয়র ইভারিস্তো রামোস বলেন, হোটেলটিতে শনিবারের ওই বিবাহ অনুষ্ঠানে প্রায় ১শ অতিথিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। পাহাড় ধসে এটি চাপা পড়ায় ১৫ জনের মৃত্যু ও ৩৪ জন আহত হয়। দমকল কর্মী, পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা ধ্বংসস্তুপের ভিতর আটকা পড়া লোকদের উদ্ধারে রাতভর কাজ করে। কর্তৃপক্ষ জানায়, আলহামব্রা নামের এ হোটেলের অবস্থান ছিল একেবারে পাহাড়ের কাছে। পাহাড় ধসে হোটেলটির পাশের দেয়াল ভেঙ্গে যাওয়ায় এটি মাটিতে চাপা পড়ে। পরিবারের সদস্য ও বন্ধুবান্ধবকে খুঁজতে আসা লোকজনকে পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে তাদের প্রিয়জনকে চিহিৃত করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।
নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫৮ ব্রাজিলে খনির বাঁধ ধসে
২৮ জানুয়ারি,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ব্রাজিলের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে মিনাস জেরাইস প্রদেশে লৌহ-আকরিক খনির বাঁধ ভেঙে নিহতের সংখ্যা ৫৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত প্রায় ৩০০ জন নিখোঁজ রয়েছেন। ব্রাজিলের ফায়ারফাইটার কর্তৃপক্ষ এসব তথ্য জানিয়ে বলেছে, গতকাল রোববার উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ওই এলাকায় বি-৬ নামে পরিচিত আরেকটি বাঁধের পানিও বেড়ে আতঙ্ক তৈরি হয় বলে আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে বিশেষজ্ঞরা বাঁধটি পরিদর্শন করেছেন। পরে ব্রাজিলের সিভিল ডিফেন্স এজেন্সির মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফ্লাভিও গডিনহো বলেন, এখন আর ভয়ের কিছু নেই। বাঁধ থেকে পানি নিষ্কাশন করা হচ্ছে। গত শুক্রবার প্রদেশের ব্রুমাদিনহো শহরে ওই বাঁধ ধসের ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনাকবলিত খনিটির স্বত্বাধিকারী ব্রাজিলের সর্ববৃহৎ খনি কোম্পানি ভেল। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানায়, নিখোঁজ ব্যক্তিদের মধ্যে অনেকেই শ্রমিক। তাঁরা সে সময় বাঁধ-সংশ্লিষ্ট ক্যাফেটেরিয়ায় দুপুরের খাবার গ্রহণ করছিলেন। দুর্ঘটনার ফলে বিপুল কাদা নদীর মতো সংশ্লিষ্ট এলাকার ছড়িয়ে পড়ে। ডুবিয়ে দেয় ভবন, রাস্তাঘাট, যানবাহন সবকিছু। জরুরি বাহিনী অনেককে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে উদ্ধার করে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এরই মধ্যে নিম্নাঞ্চলে বসবাসরত অধিবাসীদের অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তিন বছর আগে মিনা জেরাইস প্রদেশে আরো একটি বাঁধ ধসের ঘটনা ঘটে। সে সময় ১৯ ব্যক্তি নিহত হন।
ফিলিপাইনে গির্জায় বোমা হামলায় নিহত ২১
২৭ জানুয়ারি,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফিলিপাইনের দক্ষিণে জোলো দ্বীপে একটি রোমান ক্যাথলিক গির্জা লক্ষ্য করে বোমা হামলায় অন্তত ২১ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৭১ জন। নিহতদের মধ্যে বেসামরিক ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য রয়েছেন বলে জানিয়েছেন নিরাপত্তা কর্মকর্তারা। স্থানীয় সময় রবিবার প্রার্থনা সমাবেশের সময় এ হামলা চালানো হয়। দেশটির নিরাপত্তা কর্মকর্তারা জানান, প্রার্থনা সভা চলাকালে ওই গির্জার কাছাকাছি প্রথম বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। নিরাপত্তাকর্মীরা তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ শুরু করলে কিছুক্ষণ পরেই গির্জা প্রাঙ্গণের বাইরে আরেকটি বোমা বিস্ফোরিত হয়। ফিলিপাইনের পুলিশ প্রধান জানান, হামলায় সেনা সদস্য ও বেসামরিক নাগরিকসহ অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আরও ৪৮ জন আহত হয়েছেন। নিরাপত্তা বাহিনী জানায়, জোলো দ্বীপে মুসলিম জঙ্গিরা সক্রিয় রয়েছে। আবু সায়াফ জঙ্গিদের বোমা হামলা, অপহরণ, শিরশ্ছেদসহ বিভিন্ন অপকর্মে দ্বীপটি দীর্ঘদিন ধরে অস্থির অবস্থায় রয়েছে। সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ফিলিপাইনের কালো তালিকাভুক্ত। এদিকে এ হামলার দায় স্বীকার করেনি কোনো সংগঠন।-এপি/ইউএনবি

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর