বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২০
চীনের সঙ্গে তীব্র উত্তেজনার মধ্যে বিরল সামরিক মহড়ায় যুক্তরাষ্ট্র
১৯,জুলাই,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যে বিতর্কিত আন্তর্জাতিক জলসীমা দক্ষিণ চীন সাগরে আবারও ‘বিরল’ যৌথ সামরিক মহড়া শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এতে অংশ নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহিনীর দুটি রণতরিসহ অন্যান্য সামরিক নৌযান। এক মাসের মধ্যে এটা দেশটির দ্বিতীয় সামরিক মহড়া। গতকাল শনিবার এই খবর দিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন। প্রশান্ত সাগরে নিয়োজিত মার্কিন নৌবাহিনীর প্যাসিফিক ফ্লিট (প্রশান্ত মহাসাগরীয় নৌবহর) গত শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেছে, রণতরি ইউএসএস রোনাল্ড রিগ্যান ও ইউএসএস মিনিটজ এবং তাদের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দ্রুতগামী যুদ্ধজাহাজ (ক্রুইজার) ও ডেস্ট্রয়ারগুলো শুক্রবার থেকে দক্ষিণ চীন সাগরে মহড়া শুরু করেছে। ওই দুটি রণতরিবাহী যুদ্ধজাহাজে ১২ হাজারের বেশি মার্কিন সামরিক সদস্য রয়েছে। এর আগে চলতি মাসের প্রথম দিকে চীনের সেনাবাহিনী দক্ষিণ চীন সাগরের বিরোধপূর্ণ প্যারাসেল আইসল্যান্ডের কাছে পাঁচ দিনের সামরিক মহড়া চালানো শুরু করলে বেইজিংকে টেক্কা দিতে পাল্টা সামরিক মহড়া করে মার্কিন বাহিনী। সেই মহড়াতেও ইউএসএস রোনাল্ড রিগ্যান ও ইউএসএস মিনিটজ অংশ নেয়। করোনাভাইরাসের উৎপত্তি, বাণিজ্য, হংকংয়ে জাতীয় নিরাপত্তা আইন কার্যকরসহ বিভিন্ন বিষয়ে ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে বর্তমানে উত্তেজনা চরমে। এমন সময়ে কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ দক্ষিণ চীন সাগরে উত্তেজনা সৃষ্টির জন্য একে অন্যকে দায়ী করে আসছে দেশ দুটি। নতুন করে সামরিক মহড়ার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী আরও বলেন, যুদ্ধকালীন সময় প্রস্তুতি ও দক্ষতা প্রদর্শন করতে কৌশলগত আকাশ প্রতিরক্ষা মহড়া পরিচালিত করছে ১২০টি যুদ্ধবিমানবাহী রণতরি দুটি। ক্ষেপণাস্ত্র বা রকেটের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের আকস্মিক আক্রমণের জবাব দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে উচ্চমাত্রার প্রস্তুতির প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে রণতরি দুটি। চলতি মাসের প্রথম থেকেই দক্ষিণ চীন সাগরে রয়েছে নিমিটজ ও রিগ্যান। দুটি রণতরি একসঙ্গে সামরিক মহড়ায় অংশ নেওয়ার ঘটনা বিরল। ২০১৪ সালের পর প্রথমবারের দুটি রণতরি একসঙ্গে মহড়ায় যোগ দিল। চলতি মাসে এর আগের মার্কিন মহড়া শুরু হয় ৪ জুলাই। রণতরি রিগ্যানে থাকা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার সেন ব্রোফি বলেন, ৮ জুলাই পর্যন্ত দুটি রণতরি নিজেদের আভিযানিক কার্যক্রম বজায়
আসামে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৯
১৯,জুলাই,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জুনের শেষের দিকে বন্যায় তেমন প্রাণহানী না হলেও জুলাইয়ের বানে কমপক্ষে ৭৯ জন মারা গেছেন আসামে। বাংলাদেশের উত্তরের সীমান্তবর্তী রাজ্যটিতে বন্যা দেখা দিলে দেশেও ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। কেননা, দেশের বন্যা প্রবণ বড় বড় নদ-নদীগুলো ফুলে ফেঁপে একাকার হয়ে যায় ভারতের ওই অঞ্চল ও আশাপাশে অঞ্চলের অতিবৃষ্টির কারণে। আসাম স্টেট ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটির (এএসডিএমএ) বরতা দিয়ে এএনআই তার খবরে জানিয়ে, শনিবার পর্যন্ত তীব্র বন্যায় কমপক্ষে ৭৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এএসডিএমএ জানিয়েছে পৃথিবীর অন্যতম বড় নদী ব্রহ্মপুত্রের পানি রাজ্যের বিভিন্ন পয়েন্টে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্লাবিত হয়েছে ২৬টি জেলার নিন্মাঞ্চল। এতে ২ হাজার ৬৭৮ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। ঘরছাড়া হয়েছে ২৭ লাখ ৬৩ হাজার ৭১৯ জন মানুষ। ক্ষতি হয়ে ১ লাখ ১৬ হাজার ৪০৪ হেক্টর জমির ফসল। রাজ্য সরকার ৬৪৯টি সহায়তা কেন্দ্র খুলেছে। ইতিমধ্যে ৪৭ হাজার ৪৬৫ জনকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। নৌযান নিয়োজিত করা হয়েছে ১৮১টি, এতে ৫১১ জনকে নিরাপদে সরিয়ে আনা হয়েছে। এদিকে কাজীরাঙ্গা জাতীয় উদ্যানও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বন্যায়। উদ্যানের ৯৬টির মতো প্রাণী মারা গেছে বন্যার পানিতে। বাংলাদেশেও ব্রহ্মপুত্রসহ উত্তরাঞ্চলের নদ-নদীর পানি বেড়ে অন্তত ২৬ জেলার নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এরমধ্যে ১০ জেলার বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে বর্ষণ বেড়ে গেলে আবারও পরিস্থিতি অবনতি হওয়ার আভাস রয়েছে।
ফাহিমের ব্যক্তিগত সহকারী গ্রেফতার, খুন টাকার জন্য
১৮,জুলাই,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশের রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ হত্যাকাণ্ডে সন্দেহভাজন হিসেবে তার ব্যক্তিগত সহকারীকে গ্রেফতার করেছে নিউ ইয়র্ক পুলিশ। প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে টাকার লেনদেন সংক্রান্ত কারণেই এ তরুণ প্রযুক্তিবিদকে খুন করা হয়। শুক্রবার (১৭ জুলাই) এ খবর জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন ও নিউ ইয়র্ক টাইমস। পুলিশের প্রেস ব্রিফিংয়ের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, ফাহিম সালেহর ২১ বছর বয়সী ব্যক্তিগত সহকারী টাইরেস ডেভন হাসপিল ১০ হাজার ডলার আত্মসাৎ করার পর ফাহিমকে হত্যা করেছেন বলে ধারণা করছে তদন্তের দায়িত্ব পাওয়া নিউ ইয়র্কের গোয়েন্দা পুলিশ। তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানা যায়। গোয়েন্দারা হত্যার মোটিভ দেখে ধারণা করছেন, ফাহিম এ অর্থচুরির বিষয়টি জেনে যান। কিন্তু তিনি পুলিশকে না জানিয়ে বরং সহকারী হাসপিলকে অর্থ ফেরত দেওয়ার জন্য চাপ দেন। এ সংক্রান্ত কথোপকথনের কিছু প্রমাণ মিলেছে। তদন্তকারীরা সংবাদ সম্মেলনে জানান, ফাহিমকে খুন করা হয়েছে সোমবার (১৩ জুলাই)। আর ম্যানহাটনে ২২ লাখ ডলারে কেনা তার বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টে মরদেহ পাওয়া যায় পরদিন মঙ্গলবার (১৪ জুলাই)। তারা আরো বলছেন, ফাহিমের ক্রেডিট কার্ড ব্যহার করেই হত্যাকারী হাসপিল হত্যার স্থান পরিষ্কার করার জন্য উপকরণ কেনেন। পরের দিন তিনি আবার অ্যাপার্টমেন্টে ফিরে মরদেহ ইলেকট্রিক করাত দিয়ে খণ্ড-বিখণ্ডে করেন এবং স্থানটি পরিষ্কার করেন। গোয়েন্দারা বলছেন, হত্যাকারী তিন পিসের কালো স্যুট পরেন। মুখেও ছিল কালো মাস্ক। বহন করছিলেন একটি ডুফেল ব্যাগ। লিফট ও তার বিল্ডিংয়েও তিনি ফাহিমকে অনুসরণ করেন। পরে ঘরে ঢুকে তাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন। লিফটের ভিতরে থাকা ক্যামেরায় দেখা গেছে হত্যাকারী তার অবস্থানের চিহ্ন মুছতে ব্যাটারিচালিত একটি পোর্টেবল ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ব্যবহার করেছেন। স্থানীয় পুলিশ এবং গোয়েন্দাদের বরাতে প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার বিকেলে ম্যানহাটনের নিজ ফ্ল্যাটে মরদেহ পাওয়া যায় ফাহিমের। খুনের আগে সোমবার (১৩ জুলাই) আনুমানিক পৌনে দুইটার দিকে দিকে ফাহিমকে একটি সিসিটিভি ক্যামেরাতে শেষবারের মতো দেখা যায়। এতে দেখা যায়, ভবনের লিফট দিয়ে সাততলায় নিজ ফ্ল্যাটের উদ্দেশ্যে যাচ্ছেন ফাহিম। একই ফুটেজে, ফাহিমের সন্দেহভাজন খুনিকেও দেখা যায়। হাতে একটি প্লাটিকের ব্যাগ নিয়ে ফাহিমের সঙ্গেই লিফটে ওঠেন আততায়ী। গণমাধ্যমকে দেওয়া বক্তব্য অনুযায়ী স্থানীয় পুলিশের মতে এটি একটি পরিকল্পিত খুনের ঘটনা। ফাহিমের ঘরে পাওয়া মরদেহটির মাথা, হাত এবং পা শরীর থেকে কেটে বিচ্ছিন্ন করা হয়। মরদেহের পাশেই একটি ইলেকট্রিক করাত মেশিন পাওয়া যায়। আর শরীরের কাটা অঙ্গগুলো মরদেহের পাশেই একটি প্লাস্টিক ব্যাগে পাওয়া যায়। পুলিশ এটিকে খুবই কুৎসিত হত্যাকাণ্ড বলে আখ্যায়িত করেছে। নিহত ফাহিম সালেহ বাংলাদেশের রাইড শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম পাঠাও ছাড়াও নাইজেরিয়াতে গোকান্ডা নামক আরেকটি রাইড শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম চালু করেন। পেশায় ওয়েবসাইট ডেভেলপার ফাহিম অ্যাডভেঞ্জার ক্যাপিটাল গ্লোবাল নামক একটি ভেঞ্চার ক্যাপিটাল প্রতিষ্ঠানেরও উদ্যোক্তা ছিলেন।
মার্কিন বিমানবাহী রণতরীর আগুন নিয়ন্ত্রণে
১৭,জুলাই,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চার দিনের চেষ্টায় মার্কিন বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস বনোহোম রিচার্ডের আগুন নেভানো সম্ভব হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির নৌবাহিনী। অগ্নি নির্বাপন বাহিনীর চার শতাধিক সদস্য রাত-দিন চেষ্টা করেও আগুন নেভাতে হিমশিম খাচ্ছে বলে এর আগে খবর এসেছিল। খবর টাইম, ফক্স নিউজ। আগুন নেভাতে বেশ কয়েকটি হেলিকপ্টার ও জাহাজ ব্যবহার করা হয়েছে। এই অগ্নিকাণ্ডে রণতরীর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কোনো কোনো সূত্র বলছে, চার দিন ধরে আগুনে জ্বলার কারণে এটিকে হয়তো আর মেরামতের মাধ্যমে ব্যবহার উপযোগী করে তোলা যাবে না। মেরামতের জন্য শিপইয়ার্ডে অবস্থান করার সময় এতে আগুন লাগে। মেরামত শেষে রণতরীটির এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান নিয়ে দক্ষিণ চীন সাগরে যাওয়ার কথা ছিল বলে বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে। গত রোববার সান ডিয়াগো শিপইয়ার্ডে ইউএসএস বনোহোম রিচার্ডে প্রথমে বিস্ফোরণ ঘটে, এরপর তাতে আগুন ধরে যায়। আগুন ধরার পর অন্তত ৬৩ জন আহত হয়েছে। আগুন দ্রুতগতিতে জাহাজের টাওয়ারসহ বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এসব তথ্য জানিয়েছেন মার্কিন নৌ কর্মকর্তা রিয়ার এডমিরাল ফিলিপ সোবেক। ইউএসএস বোনোহোম রিচার্ডে নৌবাহিনীর ১ হাজার সদস্য থাকার কথা কিন্তু মেরামতের জন্য শিপইয়ার্ডে অবস্থান করায় জাহাজটিতে মাত্র ১৬০ জন ক্রু ছিলেন। মার্কিন নৌবাহিনীর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জাহাজে আগুন লাগার পর গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।
সব রেকর্ড ভেঙে ভারতে শনাক্ত ১০ লাখ ছাড়াল
১৭,জুলাই,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আশঙ্কার বাস্তব প্রতিফলন দেখছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত। যেখানে গত একদিনে অতীতের সব সংক্রমণের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। এদিন করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩৫ হাজার মানুষের দেহে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। প্রাণ হারিয়েছেন সাড়ে ২৫ হাজারের বেশি ভারতীয়। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৪ হাজার ৯৫৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ১০ লাখ ৩ হাজার ৮৩২ জনে দাঁড়িয়েছে। যার ষাট শতাংশই তিন রাজ্যের (মহারাষ্ট্র, দিল্লি ও তামিলনাড়ু)। দেশটিতে প্রথম পাঁচ লাখে পৌঁছতে সময় লেগেছিল ১৪৯ দিন। অথচ, পরের পাঁচ লাখ হতে সময় নেয় মাত্র ২০ দিন। বিশেষ করে শেষ এক লাখে (৯ থেকে ১০) পৌঁছতে সময়ে লেগেছে মাত্র তিন দিন। এর আগের লাখ ছুঁতে সময় লেগেছিল চার দিন। কিন্তু প্রতিদিনের রেকর্ড শনাক্তে আক্রান্তের মিছিল তীব্র হতে থাকে। আগামীতে আরও ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন দেশটির চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞরা। অন্যদিকে গত একদিনে প্রাণহানি ঘটেছে ৬৮৭ জনের। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ২৫ হাজার ৬০২ জনের মৃত্যু হলো করোনায়। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এক কোটি পৌনে ৩০ লাখ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে সর্বাধিক সংক্রমণ ছড়িয়েছে মহারাষ্ট্রে। তারপরেই তামিলনাড়ু, দিল্লি, গুজরাট, উত্তরপ্রদেশ, কর্নাটক এবং তেলেঙ্গানা। এদিকে, বিশ্ব তালিকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রাজিলের পরে বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ করোনাক্রান্ত দেশ হলো ভারত। এদিকে বৃহস্পতিবার মহারাষ্ট্রে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে আট হাজারের বেশি মানুষ। এতে করে এ রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৮৪ হাজারে ২৮১ জনে দাঁড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার ১৯৪ জনের। গত সোমবার (১৩ জুলাই) থেকে এ রাজ্যে ১০ দিনের কড়া লকডাউন শুরু হয়েছে। তামিলনাড়ুতে এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৫৬ হাজার ৩৬৯ জনের শরীরে ভাইরাসটির সংক্রমণ পাওয়া গেছে। যেখানে প্রাণহানি ঘটেছে ২ হাজার ২৩৬ জনের। রাজধানী দিল্লিতে করোনার থাবায় প্রাণ গেছে ৩ হাজার ৫৪৫ জনের। আর ভুক্তভোগীর সংখ্যা বেড়ে ১ লাখ ১৮ হাজার ৬৪৫ জনে দাঁড়িয়েছে। সংক্রমণ ঠেকাতে ভারতে প্রথমদিকে সামাজিক দূরত্বের উপর জোর দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখন লকডাউনের কড়াকড়ি নেই। অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু হওয়ায় বাজার-হাট, গণপরিবহনে বেড়েছে লোকের ভিড়। বেড়েছে একে অপরের সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনাও। তাই, প্রতিদিনই আশঙ্কাজনকহারে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ২২ হাজার ৯৪১ জন ভুক্তভোগী সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত করোনা মুক্ত হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ৬ লাখ প্রায় ৩৬ হাজার ভুক্তভোগী। দেশটিতে বর্তমানে অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৪৮১ জন।
তিউনিশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ
১৬,জুলাই,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তিউনিশিয়ার প্রধানমন্ত্রী এলাইস ফাখফাখ দেশটির রাষ্ট্রপতি কাইস সাইয়েদের কাছে পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। (১৬ জুলাই) আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম মিডলইস্টআই এক প্রতিবেদনে এ কথা জানায়। সংবাদ মাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়, ১০৫ জন সংসদ সদস্যের একটি দল তার নেতৃত্বে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করার পরে তিনি এ পদত্যাগ পত্র দেন। দেশটির রাষ্ট্রপতি কাইস সাইয়েদকে এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন একজনকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মনোনয়ন করতে হবে যিনি নতুন সরকার গঠনের জন্য দুই মাস সময় পাবেন এবং সংসদের মাধ্যমে তা পাস করাতে হবে।
দক্ষিণ চীন সাগরে আমেরিকার নাক গলানোর অভিযোগ চীনের
১৫,জুলাই,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দক্ষিণ চিন সাগর বিরোধে যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি জড়িত না হলেও এ নিয়ে দেশটি নাক গলাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে চীন। এ ব্যাপারে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে চিন বলেছে আমেরিকা পেশি শক্তি প্রদর্শন করছে। চীন এটাকে একেবারেই অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করেছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, দক্ষিণ চিন সাগরে নিজের কর্তৃত্ব কায়েম করতে গিয়ে চিন অন্য কয়েকটি দেশের সার্বভৌমত্বে আঘাত করছে- এমনটাই অভিযোগ করা হয়েছিল মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের এক বিবৃতিতে। তার জবাবে মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) আমেরিকায় চিনা দূতাবাসের পক্ষ্য থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ চীন সাগর নিয়ে বিরোধে আমেরিকা কোনও ভাবেই সরাসরি জড়িত নয়। তা সত্ত্বেও এই বিষয়ে নাক গলিয়ে চলেছে। চীনা দূতাবাসের বিবৃতিতে দক্ষিণ চীন সাগরে দীর্ঘ দিন ধরে আমেরিকার পেশি শক্তি প্রদর্শনেরও কড়া সমালোচনা করা হয়েছে। ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ চীন সাগরে শান্তি স্থাপনের অজুহাতে আমেরিকা আদতে পেশি শক্তি প্রদর্শন করছে। করেও চলেছে। এতে দক্ষিণ চীন সাগর এলাকায় নতুন করে উত্তেজনার সৃষ্টি হচ্ছে। তা ওই এলাকার দেশগুলোর মধ্যে বিরোধকে আরও উস্কে দিচ্ছে। বাণিজ্য যুদ্ধের পর আমেরিকার সঙ্গে সাম্প্রতিক কালে চীনের কর্তৃত্বের দ্বন্দ্ব চলছে দক্ষিণ চীন সাগর নিয়ে। যেখানে আরও বেশি কর্তৃত্ব কায়েম করার চেষ্টা যেমন গত কয়েক বছর ধরেই চালিয়ে যাচ্ছে বেজিং। তেমনই ওয়াশিংটনও দক্ষিণ চীন সাগর এলাকায় তার সহযোগী দেশগুলোর স্বার্থ রক্ষায় মরিয়া চেষ্টা শুরু করেছে। কয়েক বছর আগে দক্ষিণ চীন সাগরে রণতরী পাঠিয়েছিল আমেরিকা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা পরিস্থিতিতে চীনকে আরও কোণঠাসা করতে আবার দক্ষিণ চীন সাগর ইস্যুটিকে সামনে আনল আমেরিকা।
পর্যটকদের জন্য খুললো ভূ-স্বর্গ কাশ্মীর
১৪,জুলাই,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দিল্লির কুতুব মিনার, লালকেল্লার পর পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে ভূ-স্বর্গ খ্যাত ভারতের হিমাচল প্রদেশের জম্মু ও কাশ্মীর। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটকরা সেখানে ভ্রমণে যেতে পারবেন বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস। গতবছরের আগস্ট মাসের পর থেকেই রাজনৈতিক কারণে পর্যটনে ব্যাপক মন্দা চলছিল কাশ্মীরে। সেখানকার অর্থনীতির অন্যতম ভিত্তি দাঁড়িয়েছে আছে এই খাতের উপর। এর মধ্যে চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে থাকায় সেই মন্দা আরো বাড়তে থাকে। এ অবস্থায় নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম মেনে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলো দেশটি। জম্মু-কাশ্মীর ভ্রমণে যেসব নিয়ম মানতে হবে: প্রথম পর্যায়ে শুধু প্লেনে আসা যাত্রীদের গাইডলাইন ও স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রোসিডিউর মেনে জম্মু-কাশ্মীরে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে। প্রত্যেক পর্যটককে আরোগ্য সেতু মোবাইল অ্যাপ ইনস্টল করে রেগুলার স্বাস্থ্য বিষয়ে আপডেট থাকতে হবে। ৬৫ বছরের বেশি বয়সী পর্যটকদের কাশ্মীরে ভ্রমণের ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করে এড়িয়ে চলতে বলা হয়েছে নির্দেশনায়। কাশ্মীরে ঢোকার আগে অনলাইনে হোটেল বুকিং, হাউসবোট বা গেস্টহাউজ বুকিং বাধ্যতামূলক। রিটার্ন টিকিট, ভ্রমণের সময়কাল- সব পূর্বনির্ধারিত থাকতে হবে। ট্যাক্সি বা ট্রান্সপোর্টের প্রি-বুকিং বিষয়ে হোটেল ম্যানেজমেন্ট বা ট্রাভেল এজেন্ট ট্যুরিজম বিভাগকে অবহিত করতে হবে। কাশ্মীরে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গেই আরটিপিসিআর মেশিনে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) টেস্ট করা হবে। আগে থেকে টেস্ট করা থাকলে হোটেলে উঠতে পারবেন কিন্তু বের হতে পারবেন না। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে টেস্টের ফল জানিয়ে দেওয়া হবে।
চীনের বিরুদ্ধে মার্কিন তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ
১৩,জুলাই,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দুই পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যকার সম্পর্ক উচ্চ ঝুঁকির সময় পার করছে। মহামারির শুরু থেকেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কোভিড-১৯ চীনের তৈরি এমন মন্তব্য করে আসছেন। জবাবে পাল্টা আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছে বেইজিং। দু দেশের চলমান বিরোধের পরিসর ক্রমে বাড়ছে। এবার যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ তুলেছে, করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত মার্কিন গবেষণা হাতিয়ে নিতে চীন নানাভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার (এফবিআই) হিসেব অনুযায়ী, বর্তমানে তারা যতো ঘটনা তদন্ত করছে, সেগুলোর প্রায় অর্ধেকই চীন সম্পর্কিত। সম্প্রতি এফবিআইয়ের পরিচালক ক্রিস্টোফার রে জানান, যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যসেবামূলক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, ওষুধ কোম্পানি, গবেষণাধর্মী এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দিকে নজর রয়েছে চীনের। তারা এসব প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত মার্কিন গবেষণা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। তিনি জানান, বর্তমানে এফবিআই প্রায় পাঁচ হাজার ঘটনা তদন্ত করছে। এর মধ্যে প্রায় আড়াই হাজার চীন সম্পর্কিত। আমরা এমন একটা পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছি যে, প্রতি ১০ ঘণ্টায় চীনের বিরুদ্ধে একটি করে ঘটনার তদন্তে নামতে হচ্ছে। চীন কী ধরনের কৌশল অবলম্বন করছে এমন প্রশ্নের জবাবে এফবিআই পরিচালক বলেন, মার্কিনিদের জানা দরকার যে, উদ্দেশ্য পূরণের জন্য চীন সাইবার হামলাসহ সম্ভাব্য সব ধরনের পন্থাই অবলম্বন করছে। এমনকি সশরীরে কাউকে পাঠিয়ে নথি চুরির চেষ্টাও করছে তারা। ক্রিস্টোফার বলেন, চীন শুধু তাদের গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্যদেরই ব্যবহার করছে না। রাষ্ট্রায়ত্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, তথাকথিত কিছু বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, স্নাতকোত্তর পর্যায়ের নির্দিষ্টসংখ্যক শিক্ষার্থী, গবেষকসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে তারা। এফবিআই পরিচালকের অভিযোগ, নিজেরা উদ্ভাবনের দিকে মনোযোগ না দিয়ে চীন প্রায়ই যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা তথ্য চুরি করে। এরপর এসব তথ্য তারা প্রয়োগ করে মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধেই। বলা যায়, তথ্য চুরির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দু বার প্রতারণা করছে চীন। ক্রিস্টোফার রে মনে করেন, চীন সরকার ও ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি আন্তর্জাতিক আইন ও শিষ্টাচার লঙ্ঘন করছে। তিনি বলেন, ২০১৪ সালে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ফক্স হান্ট নামে একটি প্রকল্প চালু করেন। বেইজিং বলছে, দুর্নীতি দমনের লক্ষ্যে তারা এ প্রকল্প হাতে নিয়েছে। কিন্তু বাস্তবতা হলো বিরোধীদের দমন করতেই প্রকল্পটি হাতে নিয়েছেন জিনপিং। ক্রিস্টোফার নিজ দেশের নাগরিকদের সতর্ক করে বলেন, আপনি যদি যুক্তরাষ্ট্রের প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক হন, তাহলে ধরেই নিতে পারেন আপনার ব্যক্তিগত অনেক তথ্য হয়তো চীনের হাতে চলে গেছে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর