আংশিক অচলাবস্থা বন্ধের ঘোষণা ট্রাম্পের
২৬ জানুয়ারি,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে দীর্ঘ সময়ব্যাপী চলা আংশিক অচলাবস্থা বা শাটডাউন বন্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এমন একটি চুক্তিতে পৌঁছানোর ঘোষণা দিয়েছেন, যেখানে তাঁর দাবি করা মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে জন্য অর্থ বরাদ্দের কথা উল্লেখ নেই। অচলাবস্থা চলার ৩৫তম দিনে শুক্রবার হোয়াইট হাউজের গোলাপ বাগানে এক বক্তব্যে ডোনাল্ড ট্রাম্প আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সরকারি কর্মচারীদের জন্য অর্থ ছাড়ের ঘোষণা দিয়েছেন। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এ কথাও বলেছেন, এই সময়ের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোর মধ্যে দেয়াল নির্মাণের জন্য কাঙ্ক্ষিত অর্থ বরাদ্দের জন্য একটি যথাযথ চুক্তি না হলে তিনি ফের শাটডাউনে যাবেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর ঘোষণায় বলেন, আমি খুবই গর্বের সঙ্গে আজ ঘোষণা করছি যে, শাটডাউন বন্ধে আমরা চুক্তিতে পৌঁছেছি এবং পুনরায় ফেডারেল সরকার খুলতে যাচ্ছি। তিন সপ্তাহের জন্য, ফেব্রুয়ারির ১৫ তারিখ পর্যন্ত সরকারের অর্থ বরাদ্দের জন্য আমি বিলে স্বাক্ষর করব। আমি এটাও নিশ্চিত করছি যে, কর্মচারীরা খুব দ্রুত বা যত দ্রুত সম্ভব তাদের বকেয়া পাওনাদি পেয়ে যাবেন।শাটডাউনের ফলে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, তাদের খাঁটি দেশপ্রেমিক বলে উল্লেখ করেন। দীর্ঘদিনের প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সীমান্ত দেয়ালের অর্থ বরাদ্দ নিয়ে ট্রাম্প ও সিনেটরদের মধ্যে সমঝোতা না হওয়ার ফলে ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে মার্কিন কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন বিভাগে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়। এতে আট লাখ কর্মচারী বেতনহীন হয়ে পড়েন। যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক নিয়মানুযায়ী, কোনো বিষয়ে সিনেটররা একমত হতে না পারলে অথবা স্বয়ং প্রেসিডেন্ট যখন কোনো বিলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সই করতে না পারেন তখনই শাটডাউন হয়। ২০১৬ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সময় যেকোনো মূল্যে যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার দুই বছর পরেও সেই দেয়াল নির্মিত হয়নি।
যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় ব্যাংকে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৫
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে একটি ব্যাংকে বন্দুকধারীর গুলিতে পাঁচ ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। আজ বিবিসির এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, স্থানীয় সময় দুপুরে অঙ্গরাজ্যের দক্ষিণের শহর সেবিংয়ে সান ট্রাস্ট ব্যাংকের শাখায় এই হামলার ঘটনায় বন্দুকধারীকে আটক করা হয়েছে। ২১ বছরের ওই যুবকের নাম জেফিন জাভার। সেবিং পুলিশের প্রধান কার্ল হোগল্যান্ড পরে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বন্দুকধারী ব্যাংকে ঢুকে সবাইকে মেঝেতে শুয়ে পড়তে বাধ্য করে। পরে তাদের গুলি করে হত্যা করে। আজকের এই দিনটি আমাদের কমিউনিটির জন্য খুবই বেদনাদায়ক একটি দিন। একজন কাণ্ডজ্ঞানহীন অপরাধীর কাণ্ডজ্ঞানহীন অপরাধের কারণে আমাদেরকে অমূল্য ক্ষতির শিকার হতে হয়েছে। কার্ল হোগল্যান্ড আরো বলেন, পুলিশের অভিযানের মুখে বন্দুকধারী আত্মসমর্পনে বাধ্য হয়। তবে কী কারণে ওই ব্যক্তি গুলি চালালেন তা এখনো পরিষ্কার না। হাইল্যান্ডস কাউন্টি শেরিফ কার্যালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, খবর পেয়ে যখন পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন, তখন তাঁরা ব্যাংকের বাইরে থেকে ভেতরে থাকা বন্দুকধারীর সঙ্গে সমঝোতার চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে এইচসিএসও সোয়াত দলের সদস্যরা ভেতরে ঢুকতে সক্ষম হন। ভেতরে প্রবেশ করেই পুলিশ পাঁচজনকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে বলে ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।
লিবিয়ার উপকূলে বাংলাদেশিসহ ৫০০ উদ্ধার
অনলাইন ডেস্ক :ইউরোপে প্রবেশের উদ্দেশ্যে ভূ-মধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন দুই অভিবাসী। লিবিয়া উপকূলে গত তিন দিন ধরে চলা উদ্ধার অভিযানে বাংলাদেশিসহ পাঁচশ' জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। লিবিয়া উপকূলে কোস্টগার্ডের এক মুখপাত্র সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানান, এই অভিবাসনপ্রত্যাশীদের মধ্যে ৪৭৩ জন আফ্রিকা, সিরিয়া ও বাংলাদেশের নাগরিক৷ চারটি ভিন্ন অভিযানে তাঁদের উদ্ধার করা হয়েছে৷ রবিবার দুইজনের মৃতদেহ পাওয়া যায় ভাসমান একটি নৌকায়৷ এরপর অভিযান চালিয়ে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় ১৪০ জনকে উদ্ধার করা হয়৷ লিবিয়ার নৌবাহিনীর অনুরোধে দু'টি মার্চেন্ট জাহাজ এই উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়৷ প্রথম দফায় উদ্ধার হওয়া ১৪০ জনের মধ্যে ২৫ জন নারী এবং দু’জন শিশু৷ ইটালির সরকার জানিয়েছে, তারা লিবীয় কর্তৃপক্ষের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে, যাতে উদ্ধার অভিযানে কোনো সহায়তা লাগলে তারা সাহায্য করতে পারে। রোমে মন্ত্রীদের কাউন্সিল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সমুদ্র কিছুদিন অশান্ত থাকার পর গত তিন-চারদিন বেশ শান্ত ছিল। আর সেই সুযোগটি নিয়েছে এই অভিবাসন প্রত্যাশীরা৷ জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর জানিয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে পানিতে ডুবে অন্তত ১৭০ জন অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে ভূমধ্যসাগরে। বেশিরভাগ অভিবাসনপ্রত্যাশীর লক্ষ্য থাকে লিবীয় উপকূল থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরের দেশ ইটালিতে পৌঁছানো৷ প্রতি বছর লাখো অভিবাসনপ্রত্যাশী এই পথেই ইটালিতে প্রবেশ করছে। সমুদ্র পাড়ি দিতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছে বহু মানুষ।
যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় ভারী তুষারপাত অব্যাহত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার পাশাপাশি ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ভারী তুষারপাত অব্যাহত রয়েছে। এতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। কানাডার রাজধানী অটোয়ায় তাপমাত্রা বেড়ে মাইনাস ২৪ থেকে মাইনাস ১৪ ডিগ্রিতে আসলেও তুষারপাত অব্যাহত রয়েছে। তীব্র তুষারপাতের কারণে কানাডার শীতকালীন উৎসব বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী কয়েকদিনে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা দেশটির আবহাওয়া বিভাগের। বৈরি আবহাওয়ার কারণে দেশটির জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র নায়াগ্রা জলপ্রপাতে এখন অনেকাংশেই পর্যটকশূন্য। সড়কে বরফ জমে যাওয়ায় বন্ধ রয়েছে যান চলাচল। এদিকে, প্রতিবেশী যুক্তরাষ্ট্রে ভারী তুষারপাতের অবস্থা আগের মতোই রয়েছে। এর মধ্যেই দেশটির মধ্য ও পশ্চিমাঞ্চলের অঙ্গরাজ্যগুলোতে নতুন করে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। কানেকটিকাট, মিসৌরীসহ অন্তত ১৫টি অঙ্গরাজ্যে তুষারঝড়ের শঙ্কায় নতুন করে জারি করা হয়েছে সতর্কতা। যুক্তরাষ্ট্রেও তীব্র তুষারপাত অব্যাহত থাকায় মধ্য ও পশ্চিমাঞ্চলে জারি করা হয়েছে সতর্কতা। বন্ধ হয়ে গেছে স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত। এর মধ্যেই দেশটির পূর্বাঞ্চলে তুষারে চাপা পড়ে গেলো দু'দিনে ৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ইউরোপের অবস্থা অপরিবর্তিত রয়েছে। এছাড়া ভারত, পাকিস্তান ও জাপানের বিভিন্নস্থানে তুষারপাতে দেখা দিয়েছে বিপর্যয়।
জঙ্গি হামলায় ১০ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী নিহত মালিতে
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জাতিসংঘ বলছে, উত্তর মালিতে সন্দেহভাজন ইসলামপন্থী জঙ্গিদের হামলায় তাদের শান্তিরক্ষী মিশনের ১০ কর্মী নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া বন্দুকধারীদের গুলিতে অন্তত ২৫ চাঁদ সেনা আহত হয়েছেন। রোববার সকালে আগুয়েলহকে অবস্থিত জাতিসংঘের ক্যাম্পে জঙ্গিরা হামলা চালালে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এটি তাদের সর্বশেষ আক্রমণ বলে দাবি করছে আল-কায়েদার উত্তর আফ্রিকান শাখা, ইসলামী মাঘরেব আল-কায়েদা। ইসলামী মিলিশিয়াদের বিপক্ষে লড়াইয়ের জন্য ২০১৩ সালে মালিতে জাতিসংঘ মিশন প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। তার পর থেকেই জঙ্গিরা জাতিসংঘ ও মালি সৈন্যদের ওপর হামলা চালিয়ে আসছে। বেসামরিক নাগরিকসহ ১৫ হাজারের বেশি কর্মীকে জাতিসংঘের মাল্টিডাইমেনশনাল ইন্টিগ্রেটেড স্ট্যাবিলাইজেশন মিশনের (এমআইএনইউএসএমএ) অংশ হিসেবে নিযুক্ত করা হয়। কিন্তু দেশটির কিছু অংশ এখনো সরকারের নিয়ন্ত্রণে নেই।
জাহাজডুবিতে ১৭০ জনের প্রাণহানির আশঙ্কা ভূমধ্যসাগরে
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লিবিয়ার উপকূলে দুটি পৃথক জাহাজডুবির ঘটনায় অন্তত ১৭০ জনের প্রাণহানির আশঙ্কা করা হচ্ছে। মরক্কো ও স্প্যানিশ কর্তৃপক্ষ পশ্চিম ভূমধ্যসাগরে হারিয়ে যাওয়া জাহাজ দুটি খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানায় ইতালীয় নৌবাহিনী। তবে এ জাহাজডুবিতে কতজনের প্রাণহানি ঘটেছে, তা নিশ্চিত হতে পারেনি জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর)। জানা যায়, ২০১৮ সালেই ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে দুই হাজার ২০০ জনের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপো গ্র্যান্ডি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, ইউরোপের কাছেই ঘটে যাওয়া এ ঘটনায় আমরা চোখ বন্ধ করে রাখতে পারি না। ভূমধ্যসাগরীয় পশ্চিমাঞ্চলে আল-বারন সাগরে ৫৩ যাত্রী নিয়ে প্রথম নৌকাটি অদৃশ্য হয়ে যায়। যাত্রীদের একজন ২৪ ঘণ্টা সমুদ্রে কাটানোর পর তাঁকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। মরক্কোতে তাঁর চিকিৎসা চলছে। এর মধ্যে কয়েক দিন ধরে নিখোঁজ ওই নৌকার খোঁজ করতে গিয়ে ব্যর্থ হতে হয়। এদিকে ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) অনুযায়ী, ডিংহি নামের দ্বিতীয় জাহাজটি গতকাল শনিবার লিবিয়া ছেড়ে যায়। মুখপাত্র ফ্ল্যাভিও ডি গিয়াকোমো বলেন, ওই জাহাজডুবিতে জীবিত বেঁচে ফিরে আসা যাত্রীদের তিনজন জানান, লিবিয়া ছেড়ে যাওয়ার সময় জাহাজটিতে ১২০ জন যাত্রী ছিল। এ দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া তিনজন তীব্র হাইপোথার্মিয়ায় ভুগছেন। ভুক্তভোগী ওই তিনজনকে হেলিকপ্টার দিয়ে সমুদ্র থেকে টেনে তোলা হয়। লম্পিডিউস দ্বীপে তাঁদের চিকিৎসা চলছে। আইওএম বলেছে, ২০১৯ সালের প্রথম ১৬ দিনে চার হাজার ২১৬ জন অভিবাসী সমুদ্র পাড়ি দিয়ে ইউরোপে আসার চেষ্টা করেছেন, যা কি না গত বছরের একই সময়ের মধ্যে দ্বিগুণ।
ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের নতুন বৈঠকের প্রস্তুতি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার এক শীর্ষ জেনারেল বিরল এক সফরে শুক্রবার ওয়াশিংটনে পৌঁছেছেন। এ সফর চলাকালে তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে আশা কার হচ্ছে। দেশ দুটি নিরস্ত্রীকরণ ও দশকের পর দশক ধরে চলা বৈরি সম্পর্ক নিরসনের লক্ষ্যে নতুন করে বৈঠক চূড়ান্ত করার চেষ্টা করছে। খবর এএফপির। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের ডান হাত হিসেবে পরিচিত কিম ইয়ং চল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মার্কিন রাজধানীতে পৌঁছান। এক সময়ের ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা কমে আসার এক বছর পর এটি হচ্ছে সর্বশেষ শান্তি মিশন। উত্তর কোরিয়ার এ আলোচক হঠাৎ করে যুক্তরাষ্ট্রে তার পরিকল্পিত সর্বশেষ আলোচনা বাতিল করেন এবং ওই সময় প্রশাসন সাবধানতা অবলম্বন করায় তার সফরের অগ্রগতির ব্যাপারে কোন ঘোষণা দেয়া হয়নি।। উল্লেখ্য, দুই মাস আগে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গে নিউইয়র্কে তার বৈঠক করার কথা ছিল। নাম প্রকাশ না করার শর্তে আমেরিকান এক সূত্র জানান, পম্পেও ওয়াশিংটনে এক ভোজসভায় শুক্রবার কিমকে স্বাগত জানাবেন এবং পরে তারা এক সঙ্গে হোয়াইট হাউসে যাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।
চাঁদের বুকে গাছের চারা গজিয়েছে চীন
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চীনের মহাকাশ সংস্থা বলেছে, চাঁদের বুকে তাদের পাঠানো যানে একটি পাত্রে বোনা তুলোর বীজ থেকে চারা গজিয়েছে। চাঁদের বুকে এই প্রথম কোনো জৈব পদার্থের জন্ম হলো। চাঁদের যে উল্টো পিঠ- যা পৃথিবী থেকে দেখা যায় না, সেখানেই রয়েছে চীনা যন্ত্রযান চ্যাংঅ-৪ থেকে পাঠানো এক ছবিতে দেখা গেছে এ দৃশ্য। চীনের মহাকাশ সংস্থা এ খবর দিয়েছে। মনে করা হচ্ছে, দীর্ঘমেয়াদি মহাকাশ অভিযানের প্রেক্ষাপটে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। গত ৩ জানুয়ারি চাঁদে অবতরণ করে চ্যাংঅ-৪ নামের চন্দ্রযান। চাঁদের উল্টো পিঠে এটাই প্রথম কোনো মহাকাশযানের অবতরণ। এই যানে ছিল চাঁদের ভূতাত্ত্বিক গঠন বিশ্লেষণ করার যন্ত্রপাতি। এছাড়া ছিল মাটি, তুলা এবং আলুর বীজ, ফ্রুট ফ্লাই নামে এক ধরণের মাছির ডিম এবং খামি বা ইস্ট নামের ছত্রাক- যা দিয়ে পাউরুটি তৈরি হয়। তুলোবীজ থেকে গজানো গাছের চারা রাখা হয়েছে চন্দ্রযানের ভেতর একটি বন্ধ কনটেইনারে। এখানে একটা বায়োস্ফিয়ার তৈরি করা হবে- যার মানে এমন এক কৃত্রিম পরিবেশ যেখানে একটি গাছ নিজেই নিজের খাদ্য গ্রহণ করে বেঁচে থাকতে পারবে। এর আগে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে গাছ গজানো হয়েছে। কিন্তু চাঁদের বুকে থাকা মহাকাশযানে কখনো করা হয়নি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চাঁদের বুকে তাপমাত্রা অত্যন্ত পরিবর্তনশীল- কখনো চরম ঠান্ডা কখনো তীব্র গরম। কখনো তাপমাত্রা নেমে যায় শূন্যের নিচে ১৭৩ ডিগ্রি পর্যন্ত, আবার কখনো তা উঠে যেতে পারে ১০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসেরও ওপরে। এই পরিবেশে একটা আবদ্ধ জায়গাতেও গাছপালা গজানোর মতো স্বাভাবিক তাপমাত্রা, আর্দ্রতা, এবং মাটির পুষ্টিগুণ ধরে রাখা অত্যন্ত কঠিন কাজ। চাঁদের বুকে গাছের চারা গজানোর বিষয়টা দীর্ঘমেয়াদি মহাকাশ অভিযান- যেমন মঙ্গলগ্রহে অভিযানের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ মঙ্গলগ্রহে যেতে সময় লাগবে প্রায় আড়াই বছর। চাঁদে যদি গাছপালা গজানো সম্ভব হয় তাহলে, নভোচারীরা হয়তো সেখানে তাদের নিজেদের খাদ্য নিজেরাই উৎপন্ন করতে পারবেন। তার রসদপত্র সংগ্রহের জন্য পৃথিবীতে ফিরে আসতে হবে না। জৈব পদার্থ নিয়ে এসব পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফলে কি চাঁদ দূষিত হয়ে পড়বে? বিজ্ঞানীরা বলছেন, তেমন সম্ভাবনা কম। তাছাড়া মনে করিয়ে দেয়া দরকার যে, এ্যাপোলোর নভোচারীদের ফেলে আসা মলমূত্র ভর্তি পাত্র এখনও চাঁদের বুকে রয়ে গেছে। সূত্র: বিবিসি অনলাইন

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর