বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২০
মাঝ আকাশে মুখোমুখি সংঘর্ষ, আমেরিকার লেকে ভেঙে পড়ল দুটি প্লেন
০৬জুলাই,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আমেরিকায় মাঝ আকাশে প্লেনের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে দেশটির ইডাহো এলাকায় একটি লেকের পানিতে ভেঙে পড়ে প্লেন দুটি। এ ঘটনায় দু’জনের মরদেহ ইতিমধ্যেই উদ্ধার হয়েছে। ৬ জন নিখোঁজ রয়েছে। লেকের পানিতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। তবে যেভাবে দুর্ঘটনা ঘটেছে, তাতে স্থানীয় প্রশাসনের আশঙ্কা, দুই বিমানের কেউই বেঁচে নেই। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার স্থানীয় সময় দুপুর আড়াইটা নাগাদ এই দুর্ঘটনা ঘটে। মাটি থেকে তখন প্রায় ৮০০ ফুট ওপরে বেশ গতিতেই উড়ছিল বিমান দুটি। তারা যে মুখোমুখি হতে চলেছে, সেই আন্দাজ করা যাচ্ছিল। হলও তাই। শেষ মুহূর্তে পাইলটরা চেষ্টা করলেও গতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি। ফলে দুর্ঘটনা এড়ানো গেল না। প্রত্যক্ষদর্শীদের মধ্যে একজন নিজে বিমানচালক। তার বয়ান অনুযায়ী, একটি বিমানের কেবিনের ভিতরে ঢুকে গিয়েছিল আরেকটির ডানা। ধাক্কা খেয়ে বিমান দুটি সোজা লেকের পানিতে ডুবে যায়। জানা গেছে, বিমানযাত্রীদের মধ্যে শিশুও ছিল। সেসময় লেকের পানিতে বোটিং করছিলেন কয়েকজন। তারা এই দুর্ঘটনার সাক্ষী। বিমান দুটিকে প্রায় খণ্ডবিখণ্ড হয়ে পানিতে পড়তে দেখেছেন বলে জানান তারা। মৃতদেহও পানিতে ভাসতে দেখা যায়। দুর্ঘটনার পরপরই উদ্ধারকাজে নামে মার্কিন উপকূলরক্ষী বাহিনী। কীভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটল, চালকদের গাফিলতি নাকি যান্ত্রিক ত্রুটি, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে তারও আগে উদ্ধারকাজ শেষ করা বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে প্রশাসন। সূত্র: সিএনএন, নিউ ইয়র্ক টাইমস, ইন্ডিয়া টুডে
এবার হজে কাবা স্পর্শ করা নিষিদ্ধ
০৬জুলাই,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহামারি করোনা ভাইরাসে বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব। এই পরিস্থিতিতে অসহায় হয়ে পড়েছে বিশ্বের আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা। অন্যান্য দেশের মতো সৌদি আরবেও হানা দিয়েছে এই ভাইরাস। এর বিষাক্ত ছোবলে ইতোমধ্যে দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ৯ হাজার ৫ শতাধিক মানুষ। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৯১৬ জনের। করোনার এই পরিস্থিতিতে এবারের হজ বাতিলের শঙ্কা জেগেছিল। শেষ পর্যন্ত হজ হচ্ছে, তবে সৌদি আরবের বাইরের কেউ হজ করতে পারবেন না। প্রাণঘাতী ভাইরাসের সংক্রমণ নতুন করে বেড়ে যাওয়ার পর হজের জন্য কিছু স্বাস্থ্যবিধি ঘোষণা করেছে সৌদি সরকার। সোমবার (৬ জুলাই) রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সি জানায়, এবারের হজ পালনের সময় কাবা স্পর্শ করতে পারবেন না হাজীরা। এছাড়া সব ধরনের সমাবেশ ও সভা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে এবারের হজে এক হাজার জনকে সুযোগ দেওয়ার কথা গত জুনে জানিয়েছিলো সৌদি সরকার। আধুনিক যুগে প্রথমবার বিদেশি মুসলিমদের জন্য হজ নিষিদ্ধ করে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এবার নতুন করে কিছু স্বাস্থ্যবিধি যুক্ত করলো দেশটির সরকার। ইসলামের পবিত্র নির্দশন কাবা স্পর্শ করা যাবে না এবারের হজে। নামাজের সময় তো বটেই, কাবা শরীফ তাওয়াফের সময়ও দেড় মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে হাজীদের মধ্যে। রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র (সিডিসি) এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানায়। সীমিত সংখ্যক হাজী মিনা, মুজদালিফা ও আরাফাতে যাওয়ার অনুমতি পাবেন। ১৯ জুলাই থেকে শুরু হয়ে ২ আগস্ট পর্যন্ত চলবে এবারের হজ, এই সময়ে হাজী ও আয়োজকদের প্রত্যেকের জন্য সর্বদা মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
উত্তর প্রদেশে বজ্রাঘাতে একদিনেই ২৩ জনের মৃত্যু
০৫জুলাই,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের উত্তর প্রদেশের বিভিন্ন জেলার গতকাল শনিবার বজ্রপাতে অন্তত ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে অন্তত ২৯ জন আহত হয়েছেন। খবর এনডিটিভি ও ইন্ডিয়া টুডের। রাজ্য সরকারের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আলাহবাদে ৮ জন, মির্জাপুরে ৬ জন কাউশাম্বিতে ২ জন এবং জৈনপুরে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। বজ্রপাতে প্রয়াগরাজে ৯ জন, মির্জাপুরে ১০ জন এবং কাউশাম্বিতে ৪ জন গুরুতর দগ্ধ হয়েছেন বলে রাজ্যের এছাড়া ত্রাণ কমিশন কার্যালয়ের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। এদিকে এসব মৃত্যুর ঘটনায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি নিহতদের পরিবার প্রতি ৪ লাখ রুপি করে দেয়ার নির্দেশও দেন।
বিশ্বব্যাপী করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১ কোটি ১০ লাখ ছাড়ালো
০৪জুলাই,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিশ্বব্যাপী করোনা শনাক্ত মানুষের সংখ্যা ১ কোটি ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে মার্কিন গবেষণা সংস্থা ও বিশ্ববিদ্যালয় জনস হপকিন্স এবং সংবাদ সংস্থা রয়টার্স। শনিবার (৪ জুলাই) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়। খবরে বলা হয়, আবির্ভাবের পর ৭ মাসে বিশ্বে করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১ কোটি ১০ লাখ ছাড়িয়েছে। এর মধ্য থেকে এখন পর্যন্ত সোয়া ৫ লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) মতে, প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী যতো মানুষ গুরুতর ইনফ্লুয়েঞ্জায় ভোগেন, এরই মধ্যে করোনা শনাক্ত মানুষের সংখ্যা তার দ্বিগুণেরও বেশি। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্বে এই মুহূর্তে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বিগত দিনগুলোর চেয়ে বেশি। প্রতিদিনই বিশ্বব্যাপী গড়ে ১ লাখ ৬০ হাজারেরও বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হচ্ছে। এদিকে করোনার সংক্রমণ যখন বেড়েই চলেছে তখন বিশ্বের অনেক দেশই এর ভয়াবহতা উপেক্ষা করে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি ও লকডাউন শিথিল করছে। অনেক দেশেই আবারও নানা মাত্রায় করোনার পুনরুত্থান হচ্ছে। কোনো কোনো দেশ মোকাবিলা করছে এ ভাইরাসের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তরঙ্গ। এ পরিরপেক্ষিতে অনেক অঞ্চলেই লকডাউন পুনর্বহাল করা হচ্ছে।
পাকিস্তানে রেল দুর্ঘটনায় নিহত ২০
০৪জুলাই,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তানে পাঞ্জাবের শেখুপুরায় ট্রেন বাসের সংঘর্ষে ২০ জন নিহত হয়েছেন। এতে আরও অনেকে আহত হয়েছেন। নিহতদের অধিকাংশই শিখ ধর্মাবলম্বী। শুক্রবার শেখুপুরার কাছে একটি রেল ক্রসিংয়ে শিখ তীর্থযাত্রীবাহী একটি বাসে চলন্ত ট্রেনের ধাক্কায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর দ্যা ডন ও এএফপির। জানা যায়, ফারুকাবাদ রেল স্টেশনের কাছাকাছি থাকা ওই ক্রসিং পেরোনোর সময় দুর্ঘটনা ঘটে। শিখ ধর্মাবলম্বীরা করাচি থেকে বাস যোগে লাহোরে ফিরছিলেন। এ সময় হুসেন এক্সপ্রেসের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই ১৫ জন মারা যান। আহতদের হাসপাতালে নেওয়ার পথে চার জন এবং চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ১ জন নিহত হন। পাকিস্তান রেলওয়ের মুখপাত্রী কুরাতুল আইন বরেন, ওই রেলওয়ে ক্রসিংয়ে গেট ছিল না। এমনকী কোনও প্রহরীও ছিল না। বাস চালক কোন দিকে না দেখেই রেলওয়ে ক্রসিং পার হওয়ার চেষ্টা করেন। সেই সময় প্রচণ্ড গতিতে ছুটে আসছিল হুসেন এক্সপ্রেস। এদিকে পাকিস্তান রেলওয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা দোস্ত আলি লাহোরী জানান, এ ঘটনায় রেলের তিনজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শোক জ্ঞাপন করেছেন।
সন্ত্রাসী ধরতে গিয়ে উল্টো খুন ভারতের ৮ পুলিশ
০৩,জুলাই,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের উত্তর প্রদেশের কুখ্যাত এক সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করতে অভিযান পরিচালনার সময় উল্টো ৮ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (০৩ জুলাই) এ ঘটনা ঘটে বলে জানায় ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। খবরে বলা হয়, কুখ্যাত এক আসামিকে ধরতে অভিযানে যায় উত্তর প্রদেশের পুলিশের সদস্যরা। এসময় ওই সন্ত্রাসী এবং তার সহযোগীরা গুলি ছোড়ে। এতে ৮ পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে একজন ডেপুটি সুপারিন্টেন্ডেন্ট দেবেন্দ্র কুমার মিশ্রা। নিহত বাকি সাতজনের মধ্যে তিনজন সাব ইনস্পেক্টর এবং চারজন কনস্টেবল। এদিকে পুলিশের গুলিতে ওই সন্ত্রাসী দলের দুই সদস্যও নিহত হয়েছে। যেখানে পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে সেটি উত্তর প্রদেশের রাজধানী লখনৌ থেকে ১৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। বিকাশ দুবে নামে ওই সন্ত্রাসীকে গ্রেফতারে তিনটি পুলিশ স্টেশন থেকে পুলিশ সদস্যরা অভিযানে যান। রাজনৈতিক মদদপুষ্ট এ সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে ৬০টির মতো অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি একটি হত্যাকাণ্ডে তার নাম আসার পর এ অভিযান চালানো হয়। কানপুর পুলিশ প্রধান দিনেশ কুমার বলেন, আমাদের অভিযানের লক্ষ্য ছিল ওই সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করা। কিন্তু অভিযানে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ সদস্যরা হামলার শিকার হন। তিনদিক থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হয়। এটা ছিল সম্পূর্ণ পরিকল্পিত। সন্ত্রাসী হিসেবে বিকাশ দুবের ইতিহাস বেশ পুরোনো। তার বিরুদ্ধে হত্যা, অপহরণসহ অসংখ্যা অভিযোগ রয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রে এই প্রথম একদিনে শনাক্ত ছাড়ালো ৫০ হাজার
০২,জুলাই,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্রে করোনার তাণ্ডব কমার কোনো লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না। উল্টো দিন দিন সেখানে আরও ব্যাপক পরিসরে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। এরই মাঝে এই প্রথমবারের মতো একদিনের ব্যবধানে দেশটিতে নতুন করে ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। দেশটির জ্যেষ্ঠ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ অ্যান্টনি ফাউসি গভীর উদ্বেগ জানিয়ে বলেছেন, আগামীতে যুক্তরাষ্ট্রে দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা ১ লাখও ছাড়িয়ে যেতে পারে। স্থানীয় সময় বুধবার (১ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টায় মার্কিন গবেষণা সংস্থা ও বিশ্ববিদ্যালয় জনস হপকিন্স জানায়, শেষ ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে ৫২ হাজার ৯৮২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) জনস হপকিন্সের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনা শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬ লাখ ৮২ হাজার ২৭০ জনে। এর মধ্যে ১ লাখ ২৮ হাজার ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সার্বিক প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক অঙ্গরাজ্যই লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, তার বিশ্বাস কোনো একটা পর্যায়ে হুট করে করোনা ভাইরাস নির্মুল হয়ে যাবে। এদিকে বিশ্বব্যাপী করোনা সংক্রমণ বিগত দিনগুলর চেয়ে বেড়ে আরও চূড়ার দিকে চলেছে বলে হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানোম গেব্রেয়েসুস। গত সপ্তাহে প্রতিদিনই বিশ্ব জুড়ে গড়ে ১ লাখ ৬০ হাজারেরও বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে বলে জানান তিনি।
হংকংয়ের ৩০ লাখ বাসিন্দার ব্রিটেনে বসবাসের সুযোগ
০২,জুলাই,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কঠোর সমালোচনাকে উপেক্ষা করে হংকংয়ের জন্য বিতর্কিত নিরাপত্তা আইন পাস করেছে চীনা সরকার। যাতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে হংকংয়ের ৩০ লাখের বেশি মানুষ। যাদের স্থায়ী বসবাসের সুযোগ দিচ্ছে ব্রিটেন। স্থানীয় সময় বুধবার (১ জুলাই) দেশটির পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে বিট্রিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন, নতুন নিরাপত্তা আইন হংকংয়ের স্বাধীনতা ক্ষুন্ন করেছে। যারা এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন তাদেরকে ব্রিটেনে আসার সুযোগ দেয়া হবে। তিনি বলেন, প্রায় সাড়ে ৩ লাখ ব্রিটিশ ন্যাশনাল পাসপোর্টধারীসহ বাকি ২ দশমিক ৬ মিলিয়ন হংকংয়ের নাগরিক পর্যায়ক্রমে ব্রিটেনে এসে ৫ বছরের জন্য বসবাস করতে পারবেন। স্থায়ী বসবাসের জন্য বা ব্রিটিশ নাগরিকত্ব লাভের জন্য পরবর্তীতে আবেদন করতে পারবেন। মূলত ১৯৮০ সাল থেকে হংকংয়ের নাগরিকদের জন্য ব্রিটিশ ন্যাশন্যাল ওভারসিজ পাসপোর্ট ইস্যু করেছিল সরকার। যাতে ভিসা ছাড়াই ৬ মাসের জন্য যুক্তরাজ্যে সফর করতে পারেন হংকংয়ের নাগরিকরা। যদিও তা পরবর্তীতে কিছু কাটছাঁট করা হয়। নতুন করে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, ব্রিটিশ ন্যাশনাল ওভারসিজ পাসপোর্টধারী এবং তাদের ওপর নির্ভরশীলরা তাৎক্ষণিকভাবে কাজ এবং পড়ালেখার সুযোগসহ পাঁচ বছরের জন্যে ব্রিটেনে বসবাসের সুযোগ পাচ্ছেন। তবে, ব্রিটেনের এমন সিদ্ধান্তে নাখোশ চীন। দেশটির পক্ষ থেকে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে। এর আগে মঙ্গলার বেইজিংয়ের সর্বোচ্চ আইন পরিষদ ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেস স্ট্যান্ডিং কমিটি (এনপিসিএসসি) সর্বসম্মতিক্রমে হংকংয়ের জন্য বিতর্কিত আইনটি পাস করে। পরে তাতে স্বাক্ষর করেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এই আইনের মধ্যদিয়ে স্বায়ত্তশাসিত হংকংয়ের ওপর চীনের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা এবং ওই নগরীর স্বাধীনতা হুমকির মুখে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে, আইন পাস হওয়ার সঙ্গেই বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠে হংকং। যেখানে পুলিশের সঙ্গে কয়েক দফা ধরপাকড়ও হয়েছে। একজনকে গ্রেফতারেরও খবর দিয়েছে বিবিসি। এই অবস্থায় হংকং নাগরিকদের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। ফলে স্বাভাবিকভাবেই হংকং ইস্যুতে বেশ চাপে পড়ল চীন। জানা যায়, নতুন এ আইনে বিচ্ছিন্নতাবাদ, কর্তৃপক্ষকে অবমাননা, সন্ত্রাসবাদ এবং জাতীয় নিরাপত্তা বিপন্ন করতে বিদেশি বাহিনীর সঙ্গে আঁতাঁত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে এসব অপরাধ কেউ করলে তার সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে। তবে, আইন পাসের আগে থেকেই সমালোচকরা বলে আসছিলেন, নতুন এই আইন হংকংয়ের পরিচয়কে আরও বড় হুমকির সম্মুখীন করলো। তবে চীন বলছে, হংকংয়ে অশান্তি ও অস্থিতিশীলতা মোকাবিলার জন্য এই আইন প্রয়োজন। সেইসঙ্গে এই বিষয়ে সমালোচকদের হস্তক্ষেপ প্রত্যাখ্যান করেছে দেশটি।
চীনে নতুন ফ্লু ভাইরাস শনাক্ত, বিশ্বজুড়ে মহামারির শঙ্কা
৩০জুন,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে করোনাভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। চীনে প্রথম দফার সংক্রমণ মোটামুটি নিয়ন্ত্রণের আসার পর ফের সংক্রমণ শুরু হয়েছে। দ্বিতীয় দফার সংক্রমণ এড়াতে কঠোর লকডাউন করা হয়েছে অনেক এলাকা। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই চীনের বিজ্ঞানীরা নতুন এক ধরনের ফ্লু ভাইরাস চিহ্নিত করেছেন। এই ভাইরাসটির বিশ্বজুড়ে মহামারি হয়ে ওঠার আশঙ্কা রয়েছে বলে মনে করছেন তারা। চীনের বিজ্ঞানীরা বলছেন, নতুন ফ্লু ভাইরাসটি শূকরবাহিত। তবে এটির মানুষকে আক্রান্ত করার মতো সব ধরনের লক্ষণ রয়েছে। খবর বিবিসির গবেষকরা আশঙ্কা, ভাইরাসটি মানুষ থেকে মানুষে সহজে ছড়িয়ে পড়তে পারে। এতে করে বিশ্বজুড়ে নতুন মহামারি শুরু হতে পারে। নতুন ভাইরাস হওয়ায় এটি থেকে মানুষের সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকবে বলেও মনে করেন তারা। তবে এখনই ভাইরাসটি নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার মতো কিছু না থাকলেও এটি নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা দরকার বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারিতে বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় এক কোটি ৪ লাখ ৮ হাজার ছাড়িয়েছে। আর এ মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫ লাখ ৮ হাজার। সর্বশেষ ২০০৯ সালে মেক্সিকো থেকে ছড়িয়ে পড়া সোয়াইন ফ্লু বিশ্বে মহামারির রূপ নেয়। ভাইরাসটি যে রকম প্রাণঘাতী হবে বলে প্রথমে ধারণা করা হয়েছিল শেষ পর্যন্ত সেটি ততটা মারাত্মক হতে পারেনি। এর বড় কারণ বহু বয়স্ক মানুষ আগে থেকেই এটি প্রতিরোধ করার সক্ষমতা ধারণ করতে পেরেছিলেন। সম্ভবত এর কারণ ছিল বেশ কয়েক বছর আগে থেকে ছড়িয়ে পড়া অন্য ফ্লু ভাইরাসের সঙ্গে এটির অনেক মিল ছিল। চীনে নতুন যে ফ্লু ভাইরাস পাওয়া গেছে তার সঙ্গে ২০০৯ সালের সোয়াইন ফ্লুর মিল রয়েছে। তবে এর সঙ্গে নতুন কিছু পরিবর্তন যুক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত নতুন ভাইরাসটি বড় কোনো হুমকি তৈরি করেনি। নতুন এই ফ্লু ভাইরাসটিকে গবেষকেরা জি৪ইএএইচ১এন১ নামে অভিহিত করছেন। এটি মানুষের শ্বাসযন্ত্রের মধ্যে বেড়ে উঠতে এবং বিস্তার ঘটাতে পারে। গবেষকেরা প্রমাণ পেয়েছেন, যারা চীনের শূকর এবং কসাইখানা ইন্ড্রাস্টিতে কাজ করছেন ভাইরাসটি সম্প্রতি সেসব মানুষকে আক্রান্ত করা শুরু করেছে। বর্তমানের ফ্লু ভ্যাকসিন ব্যবহার করে নতুন ভাইরাস থেকে সুরক্ষা পাওয়া যাচ্ছে না। ভাইরাসটির ওপর নজর রাখার প্রয়োজন বলে মনে করছেন যুক্তরাজ্যের নটিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত প্রফেসর কিন-চো চ্যাং ও তার সহকর্মীরা। প্রফেসর কিন-চো চ্যাং বলেন, এই মুহূর্তে আমরা করোনাভাইরাস নিয়ে ব্যস্ত রয়েছি। কিন্তু আমাদের অবশ্যই নতুন ভাইরাসের সম্ভাব্য বিপদের ওপর থেকে চোখ সরানো চলবে না। যদিও তিনি বলেছেন, নতুন এই ভাইরাসটি এখনই সমস্যা তৈরি করছে না। তবে আমাদের এটি কোনোভাবেই অবহেলা করা উচিত হবে না। সূত্র: সমকাল

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর