উত্তর সাগরে যুক্তরাজ্যের জলসীমায় রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ প্রবেশ করায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে
যুক্তরাজ্যের রয়্যাল নেভি জানিয়েছে, রুশ যুদ্ধজাহাজগুলোর পাহারায় একটি ব্রিটিশ ফ্রিগেট মোতায়েন করা হয়েছে। তারা আরো জানিয়েছে, রুশ যুদ্ধবিমান অ্যাডমিরাল গোরশকোভের ওপর নজর রাখছে তাদের এইচএমএস সেন্ট আলবানস নামে ফ্রিগেট। তবে এ ইস্যুতে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি রাশিয়া। রয়্যাল নেভি বলেছে, সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের জলসীমায় রাশিয়ান ইউনিটের আনাগোনা বেড়ে গেছে। সাগরতলে ইন্টারনেট-তারের নিরাপত্তা নিয়ে রাশিয়ার হুমকির বিষয়ে সম্প্রতি সতর্ক করা হয়েছে যুক্তরাজ্যকে। দি চিফ অব দি ডিফেন্স স্টাফ বিমানবাহিনীর প্রধান মার্শাল স্যার স্টুয়ার্ট পিচ এ মাসের প্রথম দিকে বলেছিলেন, যোগাযোগের লাইনগুলো রক্ষায় ব্রিটেন ও ন্যাটোকে গুরুত্ব দিতে হবে। তিনি সতর্ক করে বলেছিলেন, লাইনগুলো যদি বিচ্ছিন্ন করা হয় বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাহলে অর্থনীতিতে তার তাৎক্ষণিক আঘাত আসবে এবং সম্ভাব্য বিপর্যয়ের মুখে অর্থনীতি। সাগরতলে কুশাকারে বিছানো রয়েছে ইন্টারনেট সংযোগের অসংখ্য তার। এই তারের মাধ্যমে দেশ ও মহাদেশ ইন্টারনেট লাইনে যুক্ত হয়েছে। এক বিবৃতিতে রয়্যাল নেভি বলেছে, রাশিয়ার যুদ্ধবিমান অ্যাডমিরাল গোরশকভের ওপর নজর রাখতে ২৩ ডিসেম্বর এইচএমএস সেন্ট আলবানস ফ্রিগেটকে বলা হয়। তখন রুশ যুদ্ধজাহাজটি ব্রিটিশ জলসীমার পাশ ধরে এগোচ্ছিল। বড়দিনেও ব্রিটিশ ফ্রিগেট রুশ যুদ্ধজাহাজের ওপর নজর রাখতে ব্যস্ত ছিল। যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষামন্ত্রী গাভিন উইলিয়ামসন বলেছেন, আমাদের জলসীমা রক্ষায় অথবা যেকোনো ধরনের আগ্রাসন প্রতিহতে আমি কোনো দ্বিধা করব না। তিনি আরো বলেন,আমাদের দেশ, আমাদের জনগণ ও জাতীয় স্বার্থ রক্ষার প্রশ্নে ব্রিটেন কখনো আতঙ্কিত হবে না।
উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক পরীক্ষা বন্ধের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তাবে অংশ নেয় ১৫০ টি দে
জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে উত্তর কোরিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের খসড়া প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক পরীক্ষা বন্ধে তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তাবে অংশ নেয় ১৫০ টি দেশের প্রতিনিধি। খবরটি জানায় আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এপি নিউজ। পিয়ংইয়ংয়ের তেল সরবরাহের ওপর নতুন করে এই নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তাব গৃহীত হতে ১৫ টি ভোটের মধ্যে অন্তত ৯ টা ভোট থাকতে হত। এই প্রস্তাবের পক্ষে যায় ১৫টি ভোট। গত ২৮ নভেম্বর চালানো উত্তর কোরিয়ার আন্ত:মহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) পরীক্ষা চালানোর জবাবে পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে নতুন করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে তাদের মিত্র দেশ চীনের সাথে আলোচনার পর যুক্তরাষ্ট্র বৃহস্পতিবার এ খসড়া প্রস্তাব জমা দেয়। এ বছর এটি হচ্ছে উত্তর কোরিয়ার ওপর তৃতীয় দফা অবরোধ আরোপ। খসড়ায় বলা হয়, প্রতি বছর উত্তর কোরিয়ার ৫ হাজার ব্যারেল তেল রফতানি বন্ধ করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া দেশের বাইরে কাজ করা উত্তর কোরীয় নাগরিকদের বিরুদ্ধেও নিষেধাজ্ঞা জারি হতে পারে। পূর্বে ১২ মাসের মধ্যে সকল উত্তর কোরীয় শ্রমিকদেরকে নিজ দেশে ফিরে যেতে বলা হলেও তা পরিবর্তন করে এখন ২৪ মাসের মধ্যে প্রত্যাবর্তন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
শনিবার দুপুরে পাকিস্তানি সেনাদের হামলায় এক ভারতীয় মেজর ও দুই সেনাসদস্য নিহত
জম্মু ও কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখার (অমীমাংসিত সীমান্ত) বিভিন্ন স্থানে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে সম্প্রতি প্রায় প্রতিদিনই গোলাগুলির ধারাবাহিকতায় শনিবার দুপুরে পাকিস্তানি সেনাদের হামলায় এক ভারতীয় মেজর ও দুই সেনাসদস্য নিহত হয়েছেন। ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১২০তম ইনফ্যান্ট্রি বিগ্রেডের অধীনে জম্মু ও কাশ্মীরের কেরি সেক্টরে মোতায়েন দুটি শিখ ব্যাটালিয়ন টহলে থাকা অবস্থায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সীমান্ত পোস্ট থেকে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। এক ভারতীয় সেনাকর্মকর্তা বলেছেন, গোলা হামলায় এক মেজর ও দুই সেনা নিহত হয়েছেন এবং আরো এক সেনা আহত হয়েছেন। আমাদের সেনারা যথোপযুক্ত জবাব দিয়েছেন। ভারতের দাবি, ৭৭৮ কিলোমিটার দীর্ঘ নিয়ন্ত্রণরেখায় চলতি বছরে ৭৮০ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান। এ ছাড়া জম্মু ও কাশ্মীরে ১৯৮ কিলোমিটার দীর্ঘ আন্তর্জাতিক সীমান্তে এ বছর ১২০ বারের বেশি সীমান্ত লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তানি বাহিনী। এই আন্তর্জাতিক সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করে থাকে। ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে যথাক্রমে ১৫৩, ১৫২ ও ২২৮ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে পাকিস্তান। গতমাসে হটলাইনে আলাপের সময় ভারতীয় সেনাবাহিনীর সামরিক অভিযানবিষয়ক মহাপরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল এ কে ভাট তার পাকিস্তানি প্রতিপক্ষ মেজর জেনারেল শামশাদ মির্জাকে বলেছিলেন, শান্তির পক্ষে কথা বলা পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সদর দপ্তর ও নিয়ন্ত্রণরেখায় মোতায়েন তাদের সেনাদের মধ্যে বাস্তব ক্ষেত্রে ফারাক দেখা যাচ্ছে। নিয়ন্ত্রণরেখায় পাকিস্তানি সেনারা বিনা উসকানিতে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করছে। জেনারেল ভাট আরো বলেছিলেন, ভারতীয় সেনাবাহিনী সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখলেও পাকিস্তানের পক্ষ থেকে যেকোনো ধরনের উসকানিমূলক আগ্রাসন চালানো হলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে ভারত। গত কয়েক মাস ধরে আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাসবাদ দমন ও সন্ত্রাসীদের অনুপ্রবেশ রুখতে এবং ভারতীয় সেনাদের টার্গেট না করতে পাকিস্তানকে হুঁশিয়ার করে ভারত বলে আসছে, যেকোনো ধরনের উসকানির সমোচিত জবাব দেওয়া হবে।
আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ক্ষেপনাস্ত্রের পরীক্ষা যাচ্ছে উত্তর কোরিয়া
আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে একের পর এক পারমাণবিক ক্ষেপনাস্ত্রের পরীক্ষা যাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। আর কিমকে থামাতেই এবার একজোট হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়া। এরই মধ্যে পিয়ংইয়ংয়ের অস্ত্রভাণ্ডার গুঁড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পনায় সামরিক মহড়ায় নেমেছে এই তিন দেশ।দক্ষিণ কোরিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে ৫দিন ধরে চলা এই মহড়ায় রয়েছে ৬টি এফ-২২ এবং ১৮টি এফ-৩৫ ফাইটার জেট, ২৫০টি এয়ারক্র্যাফ্ট এবং ১২,০০০ সেনা। যেখানে বিমান বাহিনীর শক্তি যাচাই করে নেওয়া হয়।প্রসঙ্গত, শক্তি প্রদর্শনের জন্য কিমের দেশের সবথেকে শক্তিশালী বোমারু বিমান বি-১বি'কে এক সামরিক মহড়ায় নামানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানা গেছে। আসন্ন পরিস্থিতির কথা ভেবেই যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য কয়েকটি দেশ তাই যৌথ সামরিক মহড়াকে প্রাধান্য দিচ্ছে।
চীন সীমান্তে 'আকাশ-৫৪০' মিসাইল স্কোয়াড্রন বসাচ্ছে ভারত
উত্তপ্ত হয়ে উঠছে ভারত-চীন সীমান্ত। আর তারই জের ধরে চীনের স্কোয়াড্রন ভাঙার জন্য ভারতের উত্তর-পূর্ব সীমান্ত থেকে আকাশ-৫৪০মিসাইল মোতায়েন করবে ভারত। গত কয়েকবছর আগে ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে আসে আকাশ-৫৪০ মতো মিসাইল। যা খবি দ্রুতই টার্গেটকে উড়িয়ে দিতে সক্ষম। এবার সেই মিসাইলই চীন সীমান্তে মোতায়েন করতে পারে ভারত। দেশটির সেনা সূত্রে এমনটাই জানা গেছে।জানা গেছে, আকাশ মিসাইল সিস্টেম প্রতিরক্ষা গবেষণা উন্নয়ন সংস্থা দ্বারা উন্নত এবং পিএসইউ ভারত ডাইনামিক্স দ্বারা নির্মিত হয়েছে। আকাশ-৫৪০ মিসাইল যেকোনো আবহাওয়ায় ২৫ কিমি সীমার মধ্যে একাধিক লক্ষ্যমাত্রা আনতে সক্ষম।অন্যদিকে, ভারত সীমান্তেও ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে চীন। ডোকালামসহ একাধিক বিষয়ে চীন সীমান্তে ক্রমশ বেড়েছে উত্তেজনা।
মার্কিন নিরাপত্তা উপদেষ্টাবলেছেন,উত্তর কোরিয়াকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করতে প্রস্তুত তার দেশ
মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এইচ আর ম্যাকমাস্টার বলেছেন, উত্তর কোরিয়াকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করতে প্রস্তুত তার দেশ। এজন্য প্রয়োজনে উত্তর কোরিয়াকে বাধ্য করা হবে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জাতীয় নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রকাশের একদিন পর বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাত্কারে ম্যাকমাস্টার এসব কথা বলেন। এদিকে ওয়ানাক্রাই সাইবার হামলার জন্য উত্তর কোরিয়াকে দায়ী করেছে যুক্তরাষ্ট্র। গত সপ্তাহে মাইক্রোসফট এবং গুগল উত্তর কোরিয়ার একটি সাইবার হামলাকে অকার্যকর করে দেয় বলে গতকাল মঙ্গলবার হোয়াইট হাউস জানিয়েছে। স্বাধীন ও মুক্ত সমাজের ক্ষতিসাধন করতে রাশিয়া নাশকতামূলক তৎপরতার একটি সূক্ষ্ম প্রচারণা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন জেনারেল এইচ আর ম্যাকমাস্টার। চীন ও রাশিয়াকে প্রতিদ্বন্দ্বী শক্তি বলে চিহ্নিত করে ট্রাম্পের নতুন জাতীয় নিরাপত্তা নীতি ঘোষণার পর ম্যাক মাস্টার এসব কথা বললেন। সোমবার ট্রাম্প তার নতুন জাতীয় নিরাপত্তা নীতি ঘোষণা করেন। অন্যদিকে ট্রাম্পের স্বরাষ্ট্র উপদেষ্টা থমাস বোসার্ট ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে জানিয়েছেন, গত মে মাসে ওয়ানাক্রাই সাইবার হামলার জন্য দায়ী উত্তর কোরিয়া। এর পক্ষে আমাদের কাছে তথ্য প্রমাণ আছে। চলতি বছরের মে মাসের এই হামলায় ১৫০টি দেশের ২ লাখ ৩০ হাজার কম্পিউটার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। স্বাস্থ্যব্যবস্থাও হুমকির মুখে পড়ে। বিবিসি ও রয়টার্স।
সাফোকে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানঘাঁটিতে গাড়িনিয়ে তল্লাশি চৌকিভেঙে অনুপ্রবেশের চেষ্টা
ইংল্যান্ডের সাফোক এলাকায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমানঘাঁটিতে গাড়ি নিয়ে তল্লাশি চৌকি ভেঙে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করার সময় এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় মার্কিন সেনা সদস্যরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। সোমবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।ওই ব্যক্তি সামান্য আহত হয়েছেন। তার শরীরের নানা জায়গায় কেটে-ছিঁড়ে গেছে। তাকে হেফাজতে নিয়েছে সাফোক পুলিশ।ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ বিমানঘাঁটি এলাকা ঘিরে ফেলে এবং সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। পুলিশ একে গুরুতর ঘটনা বলে মন্তব্য করেছে।তবে এর সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের সংশ্লিষ্টতা নেই বলে জানানো হয়েছে। টুইটারে এক বিবৃতিতে সাফোক পুলিশ জানিয়েছে, স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৪০ মিনিটের দিকে পুলিশ গোলোযোগের খবর পায়।সাফোকে আরএএফ মিডেনহল বিমানাঁটির সুরক্ষার দায়িত্বে রয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পুলিশ ও মার্কিন সশস্ত্র রক্ষী। এই ঘাঁটিতে তিন হাজার ২০০ সামরিক সদস্য রয়েছে। এদের মধ্যে ৪০০ থেকে ৫০০ ব্রিটিশ বেসামরিক কর্মীও রয়েছে
হিমাচল প্রদেশে প্রতি পাঁচ বছর অন্ত্মর সরকারের পরিবর্তন ঘটে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি
টানা ২২ বছর ক্ষমতায় থাকা সত্ত্বেও ষষ্ঠবারের মতো গুজরাট শাসনের অধিকার অর্জন করেছে বিজেপি। একই সঙ্গে তারা কংগ্রেসকে ক্ষমতাচু্যত করেছে উত্তর ভারতের পাহাড়ি রাজ্য হিমাচল প্রদেশে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাফল্যের পাগড়িতে এই দুই জয় নিঃসন্দেহে দুটি ঝলমলে পালক। সোমবার সকাল থেকে এই দুই রাজ্যের ফল গণনা শুরম্ন হয়। বেলা যত এগোয়, বিজেপির জয় ততই নিশ্চিত হয়ে যায়। গুজরাটে মোট ১৮২ আসনের মধ্যে বিজেপি ৯৯ আসন জিতেছে, কংগ্রেস পেয়েছে ৮০টি। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জিতেছেন তিন আসনে। হিমাচল প্রদেশে প্রতি পাঁচ বছর অন্ত্মর সরকারের পরিবর্তন ঘটে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। ৬৮ আসনবিশিষ্ট বিধানসভায় বিজেপি জিতেছে ৪২ আসনে, কংগ্রেস ২১টিতে। হিমাচল হারানোর ফলে দেশে কংগ্রেসশাসিত রাজ্যের সংখ্যা দাঁড়াল ৪-এ। কর্ণাটক, পাঞ্জাব, মেঘালয় ও মিজোরাম। পাঞ্জাব ছাড়া বাকি তিন রাজ্যে আগামী বছর ভোট। দেশকে কংগ্রেসমুক্ত করার যে ডাক নরেন্দ্র মোদি দিয়েছেন, তা ব্যর্থ করাই কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। হিমাচলে যে পালাবদল ঘটতে চলেছে, সে বিষয়ে কারও মনে বিশেষ সন্দেহ বা সংশয় ছিল না। কিন্তু আগ্রহ ছিল গুজরাট নিয়ে। আগ্রহের কারণ একাধিক। নরেন্দ্র মোদি গুজরাটের মানুষ। মুখ্যমন্ত্রিত্ব ছেড়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী হন ২০১৪ সালে। বিজেপি সভাপতি অমিত শাহও গুজরাটি। এই প্রথম গুজরাটে ভোট হচ্ছে যখন রাজ্য ও কেন্দ্র দুই জায়গাতেই বিজেপি ক্ষমতায়। কাজেই গুজরাটে জেতা-হারার সঙ্গে জড়িয়েছিল প্রধানমন্ত্রী ও দল সভাপতির সম্মান। একই রকম সম্মানের প্রশ্ন ছিল কংগ্রেসের কাছেও। ২২ বছর ওই রাজ্যে কংগ্রেস ক্ষমতার বাইরে। রাহুল তাই কোমর কষে নেমেছিলেন বিজেপিকে ক্ষমতাচু্যত করতে। গত চার মাস ধরে তিনি রাজ্য চষে বেড়িয়েছেন। ক্ষুব্ধ পাতিদার নেতা হার্দিক প্যাটেলের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। দলে নিয়েছেন অনগ্রসর নেতা অল্পেশ ঠাকোরকে। সমর্থন করেছেন দলিত নেতা জিঘ্নেশ মেওয়ানিকে। জাতপাতের এই সমীকরণ হাতিয়ার করে রাহুল চেয়েছিলেন বিজেপির কাছ থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে নিতে। কিন্তু লক্ষ্যের অনেক কাছে এগিয়েও শেষ পর্যন্ত্ম কংগ্রেসকে পিছিয়ে পড়তে হলো। বিজেপি গুজরাট দখলে রাখতে পারলেও এবারের ভোটে তাদের রমরমা ও জৌলুশ অনেকটাই ম্স্নান। অমিত শাহ কম করে ১৫০ আসন জেতার দাবি জানিয়েছিলেন। কিন্তু দেড় শ তো দূরের কথা, গতবারের জেতা আসনগুলোও তারা ধরে রাখতে পারেনি। ২০১২ সালে বিজেপি জিতেছিল ১১৫ আসন। তুলনায় গতবারের চেয়ে কংগ্রেস তাদের আসনসংখ্যা বাড়াতে পেরেছে। গতবার ছিল ৬১, এবার ৮০র মতো। প্রাপ্ত ভোটের হার বেড়েছে দুই দলেই। বিজেপি পেয়েছে ৪৯ শতাংশ ভোট, কংগ্রেস প্রায় ৪২ শতাংশ। কিন্তু কমে গেছে বিজেপির জয়ের মার্জিন। এসব বিবেচনা করলে দেখা যাচ্ছে, ক্ষমতা ধরে রাখলেও এই ভোট বিজেপি রাজ্য নেতৃত্বের কাছে অনেকগুলো প্রশ্ন রেখে দিচ্ছে। এবারের ভোট ছিল গুজরাটের গ্রাম বনাম শহরের লড়াই। সেদিক থেকে দেখলে গ্রামীণ গুজরাটে কংগ্রেস তাদের প্রাধান্য বিস্ত্মার করেছে। বিজেপি ভালো করেছে শহর ও আধা শহরে। গ্রামীণ পাতিদাররা কংগ্রেসকে যেমন ঢালাও ভোট দিয়েছে, শহুরে প্যাটেলরা তেমন ঝুলি ভরিয়েছে বিজেপির। বিজেপি লড়াইটা শুরম্ন করেছিল প্রগতি ও উন্নয়নকে হাতিয়ার করে। কিন্তু ভোট যত এগিয়েছে, বিজেপি ততই বড় করে তুলে ধরেছে হিন্দুত্বকে। প্রশ্ন করতে শুরম্ন করে রাহুলের মন্দির পরিক্রমাকে। ভোটের একেবারে শেষ পর্বে তারা সাম্প্রদায়িকতা ও পাকিস্ত্মানকে বড় করে তুলে ধরে। পাশাপাশি টেনে আনে গুজরাটি অস্মিতা বা জাত্যভিমানকে। গুজরাটের ফল কংগ্রেসের কাছে যথেষ্ট আশাব্যঞ্জক। কিন্তু রাহুলের কাছে আগামী দিনের লড়াই আরও কঠিন। আগামী বছরের গোড়ায় মেঘালয় ও মিজোরামে ভোট। এই দুই রাজ্য কংগ্রেসের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিতে নরেন্দ্র মোদি নতুন উদ্যমে নামছেন। বিজেপি নজর দিয়েছে কর্ণাটকেও। কংগ্রেসের হাত থেকে রাজ্যটি দখল করতে তারা মরিয়া। আগামী বছর কর্ণাটকের সঙ্গে মধ্য প্রদেশ ও রাজস্থানেও ভোট। এই দুই রাজ্যে বিজেপির প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসই। সারাদেশে কৃষক অসন্ত্মোষকে কংগ্রেস যেভাবে বড় করে তুলে ধরেছে, তাতে মধ্য প্রদেশ ও রাজস্থানে বিজেপি বিশেষ স্বস্ত্মিতে নেই। বিজেপি গুজরাট জিতেছে ঠিকই, কিন্তু এই জয় তাদের অবশ্যই আনন্দে উদ্বেলিত করবে না। রাজনৈতিক বিশেস্নষকরা এই ফলকে বিজেপির নৈতিক পরাজয়েরই শামিল বলে মনে করছেন।
গত শুক্রবার রাশিয়া জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের সাত সমর্থককে আটক করেছে রাশিয়া
আমেরিকার কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর সহায়তায় সেন্ট পিটার্সবার্গে এক সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা ভন্ডুল করে দিয়েছে রাশিয়া। গত শুক্রবার রাশিয়া জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের সাত সমর্থককে আটক করেছে। এরা শনিবার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে হামলার পরিকল্পনা করেছিল। তথ্য দিয়ে সহায়তা করায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এই দুই নেতার টেলিফোন আলাপেও ব্যাপারটি উঠে আসে। রাশিয়ার গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসির এক প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে। গত শুক্রবার রাশিয়ার এফএসবি নিরাপত্তা সার্ভিস এক বার্তায় বলেছে, তারা জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের সাত সমর্থককে আটক করেছে। আইএস সমর্থকদের কাছ থেকে বিস্ফোরক দ্রব্য, অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। ওই বার্তায় আরও বলা হয়েছে, আইএসের সাত সমর্থক শনিবার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে হামলার পরিকল্পনা করেছিল।