সোমবার, এপ্রিল ১২, ২০২১
দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের সামরিক মহড়া
২৯আগস্ট,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দক্ষিণ চীন সাগরে বিতর্কিত জলসীমায় ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে যুক্তরাষ্ট্র ও চীন সম্পর্কের আরও অবনতি ঘটিয়েছে বেইজিং। যেসব প্রতিষ্ঠান চীনকে সামরিকায়নে অব্যাহত সহায়তা দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার মাঝেই এসব ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়। খবর ভয়েস অব আমেরিকার। একজন প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানান, পিপলস লিবারেশন আর্মি চীনের মূল ভূখণ্ড থেকে হাইনান দ্বীপ ও প্যারাসেল দ্বীপাঞ্চলের মধ্যবর্তি জলসীমায় মাঝারি পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রগুলি নিক্ষেপ করে। চীনের সামরিক বাহিনী সম্প্রতি এই জলসীমায় সামরিক মহড়া শুরু করেছে এবং এক তরফাভাবে অন্যান্য কয়েকটি দেশের দাবি করা বিশাল সামুদ্রিক জলসীমা বন্ধ করে দেয়। যদিও ভিয়েতনাম এই মহড়ার প্রতিবাদ জানিয়েছে।
পদত্যাগ করলেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে
২৮আগস্ট,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। আজ শুক্রবার তিনি নিজেই সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, শারীরিক অসুস্থতার কারণে দায়িত্ব থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি বেশ কয়েক বছর ধরে আলসারেটিভ কোলাইটিস, অন্ত্রের একটি প্রদাহজনক রোগে ভুগছেন। কিন্তু সম্প্রতি তার অবস্থা আরও খারাপ হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। ৬৫ বছর বয়সী শিনজো আবে জাপানের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘকালীন প্রধানমন্ত্রী। শুক্রবার টোকিওতে সংবাদ সম্মেলন করে শিনজো আবে বলেন, যদিও আমার দায়িত্বের মেয়াদ আরও এক বছর রয়ে গেছে। এবং আমার আরও অনেক চ্যালেঞ্জ মোকোবিলা করার কথা। কিন্ত আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার। এসময় তিনি জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেন দায়িত্ব পালেন অক্ষম হওয়ার কারণে। শুক্রবার জাপানের জাতীয় সংবাদ সংস্থা এনএইচকের বরাত দিয়ে বিবিসি ও সিএনএনের প্রতিবেদনেও এ তথ্য জানানো হয়েছে। জাপানের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরেই প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। মাঝে মধ্যে জ্বর আসছে ও শরীরও দুর্বল হয়ে পড়ছে। ফলে গত কয়েকদিনের মধ্যে দুইবার হাসপাতালেও যেতে হয়েছে তাকে। তখনই তার পদত্যাগের বিষয়ে গুঞ্জন তৈরি হয়। শুক্রবার সেই গুঞ্জন স্পষ্ট করে এনএইচকে জানায়, প্রধানমন্ত্রী আবের শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। যত দিন যাচ্ছে, ততই খারাপ হচ্ছে। ফলে দেশের নেতৃত্বে সমস্যা হচ্ছে বলে তিনি মনে করছেন। তাই দেশের উন্নয়নের স্বার্থে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
একরাতেই ৭৫ বৃদ্ধকে হত্যা করলো বোকো হারাম
২৭আগস্ট,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সশস্ত্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বোকো হারাম নাইজেরিয়ায় এক রাতেই ৭৫ জন প্রবীণকে গুলি করে হত্যা করেছে। এক অনুষ্ঠান চলাকালে বর্ণো রাজ্যের মাইদুগুরি এলাকার কমিউনিটিতে সন্ত্রাসীরা অতর্কিত হামলা চালায়। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে। বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দেশটির সরকার। সেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর ব্যাপক তৎপরতার পরও থামছে না সন্ত্রাসী কার্যক্রম। দিনে দিনে সেখানকার পরিস্থিতি আরও অবনতি হচ্ছে। হামলার বিষয়ে নাইজেরিয়ার সরকারের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কিছু জানায়নি। দেশটির সাধারণ মানুষ যখন প্রতিনিয়ত ক্ষুধা আর দারিদ্রতার সঙ্গে যুদ্ধ করছে, তখন নানা ধরনের সহিংসতার শিকার হচ্ছেন। গত এক দশকে দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বোকো হারামের হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যসহ ৫০ হাজার মানুষের মারা গেছেন। বাস্তুচ্যুত হয়েছেন ৩০ লাখেরও বেশি নাইজেরিয়ান। সূত্র : আনাদুলু এজেন্সি।
আরও ভয়ঙ্কর উত্তর কোরিয়া, স্যাটেলাইটে ধরা পড়ল রহস্যময় সাবমেরিন
২৬আগস্ট,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আন্তর্জাতিক মহলে উত্তেজনা বাড়িয়ে নিজেদের সামরিক শক্তিকে আরও ভয়ঙ্কর করে গড়ে তুলছে উত্তর কোরিয়া। দেশটির জাহাজ তৈরির একটি জায়গায় (শিপইয়ার্ড) রহস্যজনক সাবমেরিন দেখা গেছে স্যাটেলাইটে ধারণ করা ছবিতে। প্রসঙ্গত, ছবিটি এমন এক সময় প্রকাশ্যে এলো যখন উত্তর কোরিয়া সাবমেরিন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের পরিকল্পনার বিষয়টি জোরালো হচ্ছে। চলতি বছরের মে মাসে ফোর্বস ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে বলা হয়, সাবমেরিন তৈরি করছে উত্তর কোরিয়া। তারও আগে ২০১৯ সালের আগস্টে স্যাটেলাইটে ধারণ করা ছবিতে দেখা যায়, উত্তর কোরিয়া এমন এক ধরনের সাবমেরিন তৈরি করছে, যা থেকে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা যাবে। ২০১০ সালের মার্চে দক্ষিণ কোরিয়ার একটি যুদ্ধজাহাজ বিস্ফোরক টর্পেডো দিয়ে ধ্বংস করে দেয় উত্তর কোরিয়া। আর সেটি উত্তর কোরিয়ার এমএস-২৯ ইউনো ক্লাস মিডগেট সাবমেরিন থেকে নিক্ষেপ করা হয়েছিল বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা। নতুন সাবমেরিনটি ওই সাবমেরিনের পরের ভার্সন বলে ফোর্বস ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। সূত্র: নিউইয়র্ক পোস্ট
আনুষ্ঠানিক মনোনয়ন পেলেন ট্রাম্প
২৫আগস্ট,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আসছে ৩ নভেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত হচ্ছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এই নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির টিকিটে দ্বিতীয়বারের মতো দেশটির প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য লড়বেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সব কিছু আগে থেকেই ঠিক থাকলেও সোমবার দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেলেন ট্রাম্প। এদিন উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার চারলোত্তিতে অনুষ্ঠিত রিপাবলিক পার্টির সম্মেলনে ট্রাম্পের মনোনয়ন নিশ্চিত করা হয়। আসছে নির্বাচনের আগে বেশ চাপে আছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। চলমান করোনাভাইরাস মহামারি ভালোভাবে মোকাবিলা করতে না পারা, বর্ণবৈষম্য আন্দোলন সামাল দিতে ব্যর্থ হওয়া এবং অভিবাসন নীতির কারণে রিপাবলিকানদের অবস্থান অনেকটা নড়বড়ে হয়ে পড়েছে বিশ্লেষকদের ধারণা। তবে ট্রাম্প বললেন ভিন্ন কথা। প্রতিপক্ষ ডেমোক্র্যাটরা ক্ষমতায় আসার জন্য অসাধু উপায় অবলম্বন করতে পারে বলে তার দাবি। তারা নির্বাচনটা চুরি করে নিতে চাইছে। কারচুপি পূর্ণ নির্বাচন হলেই কেবল আমাদের কাছ থেকে এই নির্বাচন তাদের ছিনিয়ে নেওয়ার একমাত্র উপায় হতে পারে। কনভেনশনের প্রথম দিনটি অগ্নিপরীক্ষা ছিল ট্রাম্পের সামনে। যেখানে দেশের করোনা পরিস্থিতির সার্বিক ছবিটা তুলে ধরছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। করোনা মোকাবিলায় দেশ সঠিক পদক্ষেপ নিচ্ছে কি-না, তা বিশিষ্টদের সামনে তুলে ধরছিলেন। সেখানেই দ্বিতীয়বার প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ে দলের মনোনয়ন পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ১ হাজার ২৭৬ ভোট পেয়ে যান ট্রাম্প। সম্মেলনে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক থাকলেও অনেকে সেটা মানেননি। এমনকি সামাজিক দূরত্ব মানার কথা বলা হলেও ট্রাম্পকে সেটা মানতে দেখা যায়নি। যখন এক ঘণ্টার ম্যারাথন বক্তব্য দিচ্ছিলেন তখন অনেককে দেখা গেছে মঞ্চের সামনে ভিড় করে থাকতে।
কয়েক বছরের নিখুঁত পরিকল্পনায় মসজিদে হামলা চালায় ট্যারেন্ট
২৪আগস্ট,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরের দুটি মসজিদে নামাজ আদায়ের সময় গুলি করে কমপক্ষে ৫১ জন মুসল্লিকে হত্যাকারী শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসী ব্রেন্টন ট্যারেন্টের বিরুদ্ধে শাস্তি ঘোষণার শুনানি শুরু হয়েছে দেশটির আদালতে। ওই হামলা থেকে বেঁচে থাকা ব্যক্তি ও নিহতদের স্বজনদের উপস্থিতিতে এই শুনানি হচ্ছে। এ ঘটনায় অপরাধ স্বীকার করা ব্রেন্টন ট্যারেন্ট কয়েক বছরের নিখুঁত পরিকল্পনার পর তাণ্ডব চালায়। একসঙ্গে যত বেশি পারা যায়, তত মানুষকে খুন করার উদ্দেশ্য ছিল তার। ট্যারেন্টের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা শুরুর প্রথমদিন (সোমবার) এ কথা জানিয়েছেন একজন প্রসিকিউটর। গত বছরের ১৫ মার্চ শুক্রবার জুমার নামাজের সময় মসজিদে নামাজরত মুসল্লিদের ওপর বন্দুক হামলা চালায় খ্রিস্টান শ্বেতাঙ্গবাদী সন্ত্রাসী ট্যারেন্ট। নির্বিচারে গুলি চালিয়ে সে ৫১ জনকে হত্যা করে। পাশাপাশি আরও ৪০ জনকে হত্যাচেষ্টা এবং সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে। শুরুতে অভিযোগ অস্বীকার করলেও এক বছরের বেশি সময় পর সব অপরাধ স্বীকার করে ৩০ বছর বয়সী ট্যারেন্ট । আল-জাজিরা জানিয়েছে, কোনও ধরনের প্যারোলের শর্ত ছাড়া এই অস্ট্রেলিয়ান যুবকের আজীবন কারাবাসের সাজা হতে পারে। চলতি সপ্তাহের শেষ দিকে তার পরিণতি জানা যাবে। ট্যারেন্ট তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো স্বীকার করে চলতি বছরের মার্চে। ওই সময় থেকেই করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে লকডাউন ছিল নিউজিল্যান্ড। যার কারণে অল্পসংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে ক্রাইস্টচার্চের আদালতে তাকে হাজির করা হয়। হামলাকারী ট্যারেন্ট ও তার আইনজীবীরা ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে এ শুনানিতে অংশ নেয়। শুনানিতে বিচারক ক্যামেরন ম্যানডার জানান, ব্রেন্টন ট্যারেন্টের বিরুদ্ধে আনা প্রত্যেকটি অভিযোগে তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।
মার্কিন নির্বাচনের আগের দিন ধেয়ে আসছে গ্রহাণু: নাসা
২৩আগস্ট,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চলতি ২০২০ সাল যেন নানা বিপত্তির বছর। এ বছরের শুরুতেই পৃথিবীতে শক্তিশালী রূপ নিয়ে চীন থেকে সংক্রমণ ছড়াতে শুরু করে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। এই ভাইরাসের তাণ্ডবে ইতোমধ্যে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে আমেরিকাসহ গোটা বিশ্ব। মহামারী রূপ নেওয়া এই ভাইরাসকে কোনওভাবেই থামানো যাচ্ছে না। এই ভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্র আমেরিকা। সেখানে এখনও দুর্বার গতিতে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনা। এই পরিস্থিতির মধ্যেই আগামী ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। আর সেই নির্বাচনের আগের দিন পৃথিবীতে আরেক বিপদ। এদিন পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে একটি গ্রহাণু। আমেরিকার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা এই তথ্য দিয়েছে। সংস্থাটি জানিয়েছে, ধেয়ে আসা ওই গ্রহাণুর ব্যাস ০.০০২ কি.মি বা প্রায় ৬.৫ ফুট। তবে ধেয়ে আসা এই গ্রহাণু পৃথিবীতে গভীর কোনও প্রভাব ফেলবে না। সূত্র: সিএনএন
যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি প্রতিস্থাপন, পাল্টা পদক্ষেপ চীনের
২২আগস্ট,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রথমে শুল্ক-যুদ্ধ। তার পরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। এই দুই ধাক্কায় আমেরিকা ও চীনের সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছে। বিশেষ করে শিল্প ও বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে। ইতোমধ্যে টিকটক, উইচ্যাটের মতো মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। হুয়েই, জেডটিই-র মতো টেলিকম সংস্থার যন্ত্রাংশের ব্যবহারও বন্ধ করছে তারা। এ অবস্থায় আমেরিকার প্রযুক্তি সংস্থাগুলোর ব্যাপারেও পাল্টা পদক্ষেপ করতে চলেছে চীন। চীনের বিভিন্ন প্রদেশের প্রশাসন সূত্রের খবর, সরকারি তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবস্থার বহু যন্ত্রাংশই তারা নেয় মার্কিন সংস্থাগুলোর থেকে। এর মধ্যে রয়েছে ইনটেল, মাইক্রোসফট, ওরাকল, আইবিএম। দেশীয় সংস্থাগুলোর সাহায্যে সেই প্রযুক্তিই এবার প্রতিস্থাপন করতে চাইছে তারা। সূত্রের খবর, বেশ কয়েকটি প্রদেশের প্রশাসন এবং রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম সংস্থা চায়না টেলিকম ইতোমধ্যেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আমেরিকার সংস্থাগুলোর কাছ থেকে আর যন্ত্রাংশ বা প্রযুক্তি কেনা হবে না। বরাত দেওয়া হবে দেশীয় সংস্থাগুলোকে। সেদেশের শিল্পক্ষেত্রের বক্তব্য, প্রশাসন যদি দেশীয় সংস্থাগুলোকে বরাত দেয় তা হলে সংস্থাগুলোতে আরও বেশি বিনিয়োগও আসবে। যার ইতিবাচক প্রভাব পড়বে শেয়ারদামেও। অনেকেই বলছেন, শুধু যে আমেরিকাকে পাল্টা চাপে ফেলার জন্য চীন এ ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে, তা নয়। হুয়েই, জেডটিই-র মতো সংস্থাগুলো যাতে মার্কিন যন্ত্রাংশ ব্যবহার না করতে পারে, তার ব্যবস্থা করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। এখন যদি চীনা প্রশাসনকেও প্রযুক্তি সরবরাহের ব্যাপারে ইনটেল, মাইক্রোসফটের ওপরে তারা নিষেধাজ্ঞা চাপায়, তা হলে আরও চাপে পড়বে চীন। সে কারণে কৌশলগতভাবেই প্রযুক্তি প্রতিস্থাপনের এই সিদ্ধান্ত। তবে চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আমেরিকার সঙ্গে তাদের প্রথম পর্যায়ের বাণিজ্যচুক্তির অগ্রগতি খতিয়ে দেখার ব্যাপারে সহমত হয়েছে দুই পক্ষই। ফলে বিশ্ব অর্থনীতির মন্দার সময়ে সে দিকেই এখন তাকিয়ে সারা পৃথিবীর শিল্প ও বাণিজ্য মহল।
বোনকে রাষ্ট্রের আরও কিছু দায়িত্ব দিলেন কিম জং উন
২১আগস্ট,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ছোট বোন কিম ইয়ো জংয়কে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন। নিজের শাসনভার কিছুটা হালকা করতেই কিম জং উন এ উদ্যোগ নিয়েছেন। দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়েন্দা সংস্থা বলছে, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন নতুন করে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু দায়িত্ব তার ছোট বোন কিম ইয়ো জংয়ের হাতে ন্যস্ত করছেন। দেশটির রাজধানী সিউলে দেশের পার্লামেন্টে এক শুনানিতে গোয়েন্দা সংস্থার নতুন প্রধান বলেন, কিম ইয়ো জং উত্তর কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তাসহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব বুঝে নিলেন। তিনি বলেন, মিস কিম ইয়ো এখন দেশটির জাতীয় গোয়েন্দা বিভাগের দায়িত্ব ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ কোরিয়া সম্পর্কিত একজন নীতি নির্ধারক। এখন প্রকৃতপক্ষে উত্তর কোরিয়ার দ্বিতীয় ক্ষমতাধর ব্যক্তি তিনি। এছাড়াও বেশকিছু ক্ষমতা ঘনিষ্ঠ কিছু সহযোগীকেও বুঝিয়ে দিয়েছেন কিম জং উন। দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান বলেন, এখনও সামগ্রিক ক্ষমতার শীর্ষে রয়েছেন কিম। ওই সংস্থা ধারণা করছে, জাতীয় বিভিন্ন নীতির ব্যর্থতার দায় শুধু যেন কিম জং উনের ঘাড়ে না আসে, সেজন্যই হয়তো রাষ্ট্রের ক্ষমতা কিছুটা ভাগাভাগি করছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর