ভারতে আতশবাজি কারখানায় বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৩
০৫সেপ্টেম্বর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতে আতশবাজি কারখানায় বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৩ জনে পৌঁছেছে। এর আগে ১৭ জনের নিহতের খবর নিশ্চিত করেছিল দেশটির গণমাধ্যম। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পাঞ্জাবের গুরুদাসপুরে আতশবাজি কারখানায় বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৩ জনে পৌঁছেছে। এছাড়া আহত হয়েছেন ২৭ জন। এর মধ্যে ৭ জনের অবস্থা গুরুতর। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ। তারা জানিয়েছে, এখনও বিস্ফোরণস্থলে আগুন নেভানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। কারখানাটিতে বারুদ ঠাসা থাকায় বিস্ফোরণের তীব্রতা ছিল অনেক বেশি। এ কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়েও পড়ে। ক্ষতিগ্রস্ত হয় ওই কারখানার আশপাশের বাড়িঘরও। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং জানান, ডিসট্রিক্ট কালেক্টরেট ও পুলিশের সিনিয়র সুপারিন্টেন্ড (এসএসপি) উদ্ধারকাজে তদারকি করছেন। বিস্ফোরণে একসঙ্গে এতজন নিহতের ঘটনায় দুঃখপ্রকাশও করেন মুখ্যমন্ত্রী। ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তেরও নির্দেশ দিয়েছেন। গুরদাসপুরের সাংসদ সানি দেওলও এই ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, গুরুদাসপুরের বাটালা অঞ্চলে বাজি কারখানায় প্রাণহানির ঘটনায় আমি ব্যথিত। স্থানীয় প্রশাসন ছাড়াও এনডিআরএফের একটি টিম যৌথভাবে সেখানে উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছে।
কাশ্মীর ইস্যুতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ফোন
০৪সেপ্টেম্বর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের ফোনালাপ করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাখদুম শাহ মেহমুদ কুরেশি। গতকাল মঙ্গলবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রচারিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিরোধপূর্ণ জম্মু ও কাশ্মীরের অবস্থান পরিবর্তন করে ভারত অবৈধভাবে এবং একতরফা যে পদক্ষেপ নিয়েছে, তা বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরেন কুরেশি। গত ৩০ দিন ধরে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে মানবাধিকার ও মানবিক পরিস্থিতির অবনতিসহ চরম খাদ্য এবং জীবন রক্ষাকারী ওষুধ সংকট, যোগাযোগ বিচ্ছিন্নতা ও পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণের কথা উল্লেখ করেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসময় জোর দিয়ে বলেন, অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মীরে ভারতের নেয়া পদক্ষেপ এই অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ফেলবে। এদিকে পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সংলাপ ও আলোচনার মধ্য দিয়ে বিরোধ নিরসনের গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছেন। উভয় দেশের মন্ত্রী যোগাযোগ রক্ষার বিষয়ে সম্মত হয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে ওই বিজ্ঞপ্তিতে।
মার্কিন স্যাটেলাইট চ্যানেলের লাইসেন্স স্থগিত করেছে ইরাক
০৩সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইরাকের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে কটাক্ষ করে প্রতিবেদন প্রচার করায় দেশটিতে আরবি ভাষায় প্রচারিত একটি মার্কিন টিভি চ্যানেলের লাইসেন্স তিন মাসের জন্য বাতিল করা হয়েছে। পার্সটুডের এক প্রতিবেদনে একথা জানানো হয়। ইরাকের মিডিয়া কমিশন গতকাল (সোমবার) আমেরিকা-ভিত্তিক আলহুরা টিভি চ্যানেলের বাগদাদ অফিস তিন মাসের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে। ওই কমিশন বলেছে, ইরাকের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো সম্পর্কে আলহুরায় প্রচারিত প্রতিবেদনে পেশাদারিত্ব, ভারসাম্য ও নির্ভরযোগ্য দলিলের অভাব রয়েছে। কমিশন আরও বলেছে, প্রতিবেদনটিতে অজ্ঞাত সূত্রকে ব্যবহার করে ইরাকি জনগণের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা হয়েছে। ইরাকের মিডিয়া কমিশন আরও বলেছে, আলহুরা যতক্ষণ পর্যন্ত তাদের অবস্থান পরিবর্তন না করবে এবং আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা না চাইবে ততক্ষণ পর্যন্ত চ্যানেলটির সম্প্রচার বন্ধ রাখার নির্দেশ বলবৎ থাকবে। এছাড়া যে অপরাধ তারা করেছে তার পুনরাবৃত্তি হলে এর পরবর্তী শাস্তি হবে আরও কঠিন। আলহুরা জানিয়েছে, তারা শিগগিরই ইরাক সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের ব্যাপারে তাদের প্রতিক্রিয়া জানাবে। সম্প্রতি আলহুরা টিভি এক প্রতিবেদনে ইরাকের সব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ঢালাওভাবে দুনীতির অভিযোগ উত্থাপন করে। এতে কোনও দলিল-প্রমাণ উপস্থাপন ছাড়াই ইরাকের ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ ও প্রতিষ্ঠানগুলোর ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ন করা হয়। ইরাকের পার্লামেন্ট স্পিকার মোহাম্মাদ আল-হালবুসি ওই প্রতিবেদনের নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, ইরাকের স্বাধীনতা, অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় ধর্মীয় নেতা ও প্রতিষ্ঠানগুলোর গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। ইরাকের অন্য অনেক রাজনৈতিক নেতা মার্কিন টিভি চ্যানেলের ওই প্রতিবেদনের নিন্দা জানিয়েছে।
নিজের মৃত্যুর জন্য ছুটি চেয়ে স্কুলছাত্রের আবেদন!
০২সেপ্টেম্বর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্কুল থেকে ছুটি নিতে শিশুরা নিত্য-নতুন কত বাহানাই না করে! পেটব্যথা, জ্বর, মাথাব্যথা, ডায়রিয়া থেকে শুরু করে আত্মীয়-স্বজনের মৃত্যুর অজুহাত অহরহই পাওয়া যায় দরখাস্তগুলোতে। তাই বলে, নিজের মৃত্যুর কারণে স্কুল থেকে ছুটি চাওয়াটা ব্যতিক্রমই বটে! সম্প্রতি এ অদ্ভুত কাণ্ড ঘটিয়েছে ভারতের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্র। রোববার (১ সেপ্টেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, গত মাসে কানপুর স্কুলের প্রিন্সিপালের কাছে আধাবেলা ছুটি চেয়ে আবেদন জানায় এক ছাত্র। ছুটির কারণ হিসেবে সে নিজের মৃত্যুর কথা উল্লেখ করেছিল। কিন্তু, তা খেয়াল করেননি প্রিন্সিপাল। দরখাস্ত না পড়েই ছুটি অনুমোদনে সই করে দেন তিনি। গত ২০ আগস্ট এ ঘটনা ঘটলেও তা দীর্ঘদিন চাপা ছিল। কিন্তু, কয়েকদিন আগে ওই ছাত্র তার বন্ধুদের এ ঘটনা জানালে ধীরে ধীরে তা ছড়িয়ে পড়ে সবখানে। এ বিষয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনো মন্তব্য না করলেও কয়েকজন শিক্ষক প্রিন্সিপালের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তারা জানান, দরখাস্ত না পড়েই সই করে দেওয়ার অভ্যাস আছে প্রিন্সিপালের। আর তারই সুযোগ নিয়েছে ওই ছাত্র।
বরিস জনসনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ব্রিটেনজুড়ে বিক্ষোভ
০১সেপ্টেম্বর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পার্লামেন্ট স্থগিত করার বরিস জনসনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ব্রিটেনজুড়ে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিক্ষোভে অংশ নিয়ে ম্যানচেস্টার, লিডস, ইয়র্ক ও বেলফাস্টের রাস্তা নেমে আসেন হাজার হাজার মানুষ। বিক্ষোভের কারণে সেন্ট্রাল লন্ডনে অনেক জায়গা স্থবির হয়ে যায়। এসময় বিক্ষোভকারী, বরিস জনসন, ধিক্কার জানাই। তবে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সমর্থনে মিছিল করে ওয়েস্টমিনিস্টারে জড়ো হয় ছোট একটি গ্রুপ। বরিস জনসন বুধবার পার্লামেন্ট স্থগিত করার ঘোষণা দেয়ার পর এমপি ও বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। যদি বরিস জনসন তার পরিকল্পনায় সফল হন, তাহলে ২৩ কর্মদিবস বন্ধ থাকবে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট। তবে ৩১ অক্টোবর ব্রেক্সিট ডেডলাইনের আগে বরিস জনসনের বিতর্কিত এই সিদ্ধান্তের কারণেই মূলত সমালোচকদের তোপের মুখে পড়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। এদিকে বরিস জনসনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এডিনবার্গ, বেলফাস্ট, ক্যামব্রিজ, এক্সটার, নটিংহ্যাম, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ও বার্মিংহ্যামসহ যুক্তরাজ্যের ৩০টি টাউন ও শহরে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। লন্ডনে হোয়াইটহল এবং ওয়েস্ট এন্ডে ট্র্যাফিক আটকে দেয় বিক্ষোভকারীরা। ট্রাফালগার স্কয়ারে অবস্থান কর্মসূচিও করেন বিক্ষোভকারীরা। পরে তারা কার গণতন্ত্র? আমাদের গণতন্ত্র চিৎকার করতে করতে বাকিংহ্যাম প্যালেস অভিমুখে যাত্রা করে। মেট্রোপলিটন পুলিশ জানিয়েছে, তারা তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। কিন্তু এর চেয়ে বেশি কিছু জানায়নি পুলিশ। তবে গ্রিন পার্টি জানিয়েছে, আটককৃতদের মধ্যে লন্ডন অ্যাসেম্বলির সদস্য ক্যারোলিন রাসেলও রয়েছেন। গ্রিন পার্টির কো-লিডার সিয়ান বেরি পরে এক টুইট বার্তায় বলেন, গণতন্ত্রের পক্ষে দাঁড়ানোয় তিনি ক্যারোলিনের জন্য গর্বিত। এদিকে লন্ডনে ডাউনিং স্ট্রিটের সামনে বিক্ষোভের অন্যতম আয়োজক লরা পার্কার বলেন, আমাদের গণতন্ত্রকে কুক্ষিগত করার সুযোগ একজন অনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীকে দেবো না। প্রধানমন্ত্রী আমাদের পদ্ধতিকে ধ্বংসের চেষ্টা করছেন। কিন্তু আমরা জানি আপনি (বরিস জনসন) কোথায় থাকেন।
আসামের নাগরিকদের তালিকা প্রকাশ, বাদ পড়েছে ১৯ লাখ
৩১আগস্ট,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আসামের নাগরিকদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আজ শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ১০টার কিছু পর এই তালিকা প্রকাশ করা হয়। এই ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনস বা এনআরসি তালিকায় তারাই স্থান পেয়েছে যারা আসামের নাগরিক হিসেবে প্রমাণ দেখাতে পেরেছে। চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়েছে ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন বাসিন্দা। এ সম্পর্কে আসামের রাজ্য সরকার জানিয়েছে, কারও নাম বাদ পড়লেই যে সে বিদেশি এমনটি নয়। এদিকে অঞ্চলটির পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ২ হাজার ৫০০টি সেন্টার খোলা হয়েছে। ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নাগরিকদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশকে কেন্দ্র করে অঞ্চলটির নিরাপত্তা জোরদার করেছে কর্তৃপক্ষ। কোথাও কোথাও জারি আছে ১৪৪ ধারা। মোতায়েন করা হয়েছে ১০ হাজারেরও বেশি আধা-সামরিক বাহিনী ও পুলিশ। এনআরসিতে যাদের নাম রয়েছে তারা প্রমাণ করতে পেরেছেন যে তারা ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চের আগে আসামে এসে হাজির হয়েছেন। নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য রাজ্যের সব অধিবাসীকে তাদের জমির দলিল, ভোটার আইডি এবং পাসপোর্টসহ নানা ধরনের প্রমাণপত্র দাখিল করতে হয়েছিল। যারা ১৯৭১ সালের পর জন্মগ্রহণ করেছেন তাদের প্রমাণ করতে হয়েছে যে তাদের বাবা-মা ওই তারিখের আগে থেকেই আসামের বাসিন্দা। আগের খসড়া তালিকা অনুযায়ী, রাজ্যের মোট তিন কোটি ২৯ লাখ বাসিন্দা তাদের নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে সমর্থ হন। কিন্তু ৪০ লাখ মানুষ এই তালিকা থেকে বাদ পড়েন।
আজ কাশ্মীর আওয়ার পালন করবে পাকিস্তান
৩০আগস্ট,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দেশবাসীকে কাশ্মীরের প্রতি সংহতি জানিয়ে ‘কাশ্মীর সলিডারিটি আওয়ার পালনের আহ্বান জানিয়েছেন। আজ শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সবাইকে রাস্তায় নেমে আসার মাধ্যমে এই সংহতি পালনের আহ্বান জানান তিনি। পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, কাশ্মীর সলিডারিটি আওয়ার পালনের মাধ্যমে পাকিস্তান বোঝাতে চায় তারা কাশ্মীরিদের সঙ্গে আছে। এছাড়া কাশ্মীরিদের মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টিও তারা মেনে নেয়নি। প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি-বেসরকারি অফিস, ব্যাংক, বাণিজ্য প্রতিষ্ঠান, আইনজীবী এবং সামরিক কর্তৃপক্ষ এই সলিডারিটি আওয়ারে অংশ নেবে। এ সময় রাস্তায় থাকা গাড়ি এবং সরকারি যন্ত্রপাতি সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে। সংহতি শুরুর সময় ঠিক ১২টায় দেশজুড়ে সাইরেন বাজবে এবং এরপরই শুরু হবে দেশটির জাতীয় সঙ্গীত। ওই সময়টায় ইমরান খান তার বাসভবনের বাইরে জড়ো হওয়া মানুষদের সঙ্গে যোগ দেবেন। এরপর সেখানে বক্তৃতা দেবেন তিনি। এ বিষয়ে ইমরান খান এক টুইট বার্তায় জানান, আমি চাই সব পাকিস্তানি কাশ্মীরিদের প্রতি সংহতি জানিয়ে দুপুর ১২টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত রাস্তায় থাকুক। আমরা ভারতকে একটি স্পষ্ট বার্তা দিতে চাই, আমরা কাশ্মীরিদের সঙ্গে আছি এবং তাদের (ভারতীয়দের) এই দমন-পীড়নের বিরুদ্ধে অবস্থান করছি। আরেকটি টুইটে তিনি বলেন, আমরা কাশ্মীরিদের দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, আমাদের জনগণ তাদের সঙ্গে আছে। এজন্য আমি সব পাকিস্তানিকে বলছি, আপনারা যে যেখানেই থাকুন না কেন আধা ঘণ্টার জন্য রাস্তায় নেমে আসুন।
দূষিত ওষুধ খেয়ে অতিরিক্ত চুল গজানো রোগে ভুগছে স্পেনের শিশুরা
২৯আগস্ট,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বড় ধরনের ভুলে তৈরি করা দূষিত ওষুধ খেয়ে ওয়্যারওলফ সিনড্রমে (শরীরে অতিরিক্ত চুল গজানো) ভুগছে স্পেনের শিশুরা। দেশটির অন্তত ১৭ শিশু এই সমস্যায় ভুগছে বলে বুধবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। দক্ষিণ আফ্রিকান সংবাদমাধ্যম সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে স্পেনের শিশুরা বিরল পরিস্থিতিতে রয়েছে যা হাইপারট্রাইকোসিস নামে পরিচিত। এটা হলো একেবারেই নিয়ন্ত্রণহীন চুল গজানোর একটি প্রক্রিয়া। চলতি বছরের জুনে ওই শিশুদের সারা শরীরে যখন চুল গজাতে শুরু করে তখনই তাদের বাবা-মায়েদের এই রোগ সম্পর্কে সতর্ক করে দেয়া হয়েছিল। মূলত গ্যাস্ট্রিক সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ওমিপ্রাজল ওষুধ খাওয়ার পর থেকেই তাদের শরীরে চুল গজাতে শুরু করে। অনুসন্ধানের পর জানা গেছে, আক্রান্তদের যেসব গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ খাওয়ানো হয়েছিল সেগুলোতে মিনোক্সিডিল নামের এক ধরনের উপাদান ছিল যা চুল পড়া রোধের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। এ সম্পর্কে স্পেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মারিয়া লুইসা সারসেদো বলেন, একটি ল্যাবরেটরিতে মিনোক্সিডিল ভর্তি কনটেইনারকে ভুল করে ওমিপ্রাজল হিসেবে চিহ্নিত করে রাখা হয়। এরপর ওমিপ্রাজল হিসেবেই বিভিন্ন ফার্মেসিতে তা সরবরাহ করা হয় যা খেয়ে সমস্যায় পড়েছে শিশুরা। তবে ল্যাবরেটরিটি কিভাবে এই ভুল করলো সে বিষয়ে পরিষ্কার কোনও ধারণা পাওয়া যায়নি। এরই মধ্যে ল্যাবরেটরিটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে দূষিত ওষুধটিও বাজার থেকে তুলে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দূষিত ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দেয়ার পর আক্রান্ত শিশুদের অবস্থা স্বাভাবিক হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে কিছু শিশুর অবস্থা আগের চেয়ে ভালো হয়েছে।
যুদ্ধবিমান থেকে আমাজনে পানি ঢালছে ব্রাজিল
২৬আগস্ট,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,,নিউজ একাত্তর ডট কম: আমাজনের আগুন নেভাতে ব্রাজিলের যুদ্ধবিমান থেকে আমাজন রাজ্য রন্ডোনিয়ায় পানি ফেলা শুরু হয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে বড় রেইনফরেস্টের আগুন নেভাতে বিশ্বজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠার পর ব্রাজিল সরকার এমন পদক্ষেপ নিলো। আমাজনের আগুন নেভাতে গতকাল রোববার সাতটি রাজ্যে সেনা অভিযান অনুমোদন করেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারো। প্রেসিডেন্ট অফিসের একজন মুখপাত্র বলেন, স্থানীয় সরকারগুলোর অনুরোধের প্রেক্ষিতে এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ব্রাজিলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শনিবার আগুন নেভানোর একটি ভিডিও পোস্ট করে। সেখানে দেখা যায়, আগুনের কারণে সৃষ্ট ধোঁয়া ভেদ করে হাজার হাজার লিটার পানি ফেলছে একটি সেনা বিমান। আমাজনের ইতিহাসের অন্যতম ভয়াবহতম এই অগ্নিকাণ্ডের পর জি-সেভেন সম্মেলনে ফ্রান্স গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করার পর ব্রাজিল এমন পদক্ষেপ নিলো। রোববার ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, আমাজনের আগুনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে ‘কারিগরি ও আর্থিক সহায়তা’ দেয়ার ব্যাপারে জি-সেভেন রাষ্ট্রগুলো একমত হয়েছে। ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইনপে জানিয়েছে, চলতি বছর দেশটিতে প্রায় ৮০ হাজার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ২০১৩ সালের পর এটাই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ আগুন লাগার ঘটনা। আগুন নেভাতে ব্রাজিলের সরকার কিছুই করছে না-বিশ্ব নেতৃত্বের এমন সমালোচনার মুখে শুক্রবারই বলসোনারো সেনাবাহিনী পাঠানোর ঘোষণা দেন। এমনকি এক টুইট বার্তায় বলসোনারো জানান, আগুন নেভাতে তিনি ইসরায়েলের সহায়তা নেবেন। ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে ফোনালাপের পর তিনি এ কথা জানান। এদিকে রন্ডোনিয়া ছাড়া অন্যান্য রাজ্যে কী ধরনের অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে সে ব্যাপারে সরকার কিছু জানায়নি। ব্রাজিলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শনিবার জানায়, দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় আমাজন অঞ্চলে প্রায় ৪৪ হাজার সেনা মোতায়েন রয়েছে। তবে ওই সেনাদের কোথায়-কী পরিমাণে মোতায়েন করা হবে এবং তারা কী ধরনের অভিযান চালাবে সে ব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর