কারো ওপর কোনোরকম বৈষম্য করা হবে না
অনলাইন ডেস্ক :নাগরিকপঞ্জি ইস্যুতে আসাম রাজ্যের কারো ওপর কোনোরকম বৈষম্য করা হবে না বলে আশ্বাস দিয়েছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। আজ শুক্রবার রাজ্যসভায় দাঁড়িয়ে এভাবেই আশ্বাস দিলেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেইসঙ্গে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, এই বিষয়টিকে নিয়ে কিছু মানুষ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। গুজবে যাতে কেউ কান না দেন এবং যাতে কেউ এই নাগরিকপঞ্জি নিয়ে অযথা আতঙ্কে না থাকেন সেই অনুরোধও করেন রাজনাথ। মূলত ভারতের আসাম রাজ্যের নাগরিকপঞ্জি ইস্যুতে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির কাছে থেকে ক্রমাগত চাপের ফলে পিছু হঠলো বিজেপি সরকার। নাগরিকপঞ্জি নিয়ে রাজ্যসভার রাজনাথ বলেন, ‘আমি আবারও বলছি, এই নাগরিকপঞ্জি একটা খসড়া মাত্র। প্রত্যেকেই তাদের বক্তব্য বলার সুযোগ পাবেন। স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এই নাগরিকপঞ্জি করা হচ্ছে। গোটা বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টের পর্যবেক্ষণে হচ্ছে। কোনো ভারতীয় নাগরিককে তাড়ানো হবে না। এদিন রাজনাথ এই নাগরিকপঞ্জি প্রসঙ্গে কংগ্রেসের কোর্টে বল ঠেলে দিয়ে বলেন, ১৯৮৫ সালে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর আমলে আসাম চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছিলো। আসামে ১৯৫১ সালে নাগরিকপঞ্জি হয়েছিলো। আসামে অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করতে ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চ পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলেন তৎকালীন রাজীব গান্ধী সরকার। এরপর আসাম সমঝোতা কার্যকর করতে ২০০৫ সালে নাগরিকপঞ্জি আপডেট করার সিদ্ধান্ত নেন তৎকালীন কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন মনমোহন সিং সরকার। তারপর ২০১৩ সালের ৬ ডিসেম্বর নাগরিকপঞ্জি আপডেট করার জন্য নোটিফিকেশন জারি করে কেন্দ্রীয় সরকার। গোটা প্রক্রিয়াটাই হচ্ছে স্বচ্ছভাবে। আসামে নাগরিকপঞ্জি থেকে ৪০ লাখ মানুষের নাম বাদ পড়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে ভারতের বিরোধী রাজনৈতিকদলগুলি সোচ্চার ভূমিকা নেয়। মমতা দাবি তুলেছিলেন, আসামের নাগরিকপঞ্জি তৈরির নামে কাউকে তাড়িয়ে দেওয়া যাবে না, আর কাউকেই অনুপ্রবেশকারী তকমা দেওয়া যাবে না। এদিন রাজনাথ স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন, কোনো পরিস্থিতিতেই কারো বিরুদ্ধে কড়া ব্যাবস্থা নেওয়া হবে না। তবে অযাচিত যে সব অভিযোগ উঠছে সেগুলো দুর্ভাগ্যজনক বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের রাজধানী রাঁচির একটি ভাড়া বাড়ি থেকে ৪ মরদেহ উদ্ধার
অনলাইন ডেস্ক: ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের রাজধানী রাঁচির একটি ভাড়া বাড়ি থেকে একই পরিবারের সাতজনের মরদেহ উদ্ধারের মাত্র তিনদিন পরেই এবার কেরালা রাজ্যে একই পরিবারের চারজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১ আগস্ট) রাজ্যটির ইডুকি জেলার একটি বাড়ি থেকে চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরিবারের কোনো সদস্যকে গত চারদিন যাবৎ না দেখতে পেয়ে প্রতিবেশী ও তাদের স্বজনেরা বাড়িটিতে যায়। তারা মেঝেতে রক্তের দাগ দেখে পুলিশে খবর দেয়। বাড়ির কর্তার নাম কৃশনান (৫২), তার স্ত্রী সুশীলা (৫০), মেয়ে আরশা (২১) ও ছেলে অর্জুন (১৯)। পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, কৃশনান রাবার চাষ করতেন। সেইসঙ্গে তিনি জাদুবিদ্যা অনুশীলনও করতেন। তাদের মৃত্যুর কারণ এখনও জানা যায়নি। পুলিশ জানিয়েছে, বাড়িটির পেছন দিকে মাটি খুঁড়ে তাদের একসঙ্গে চাপা দেওয়া হয়েছিল। বাড়িটি থেকে ছুরি ও হাতুড়ি পাওয়া গেছে। তাদের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পুলিশ ধারণা করছে, হাতুড়ি বা অন্য কিছু দিয়ে তাদের আঘাত করা হয়েছে। এখনও ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশ ধারণা করছে, তাদের ২৯ জুলাইয়ের পরে খুন করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তদন্ত শুরু হয়েছে। সবদিক বিবেচনা করা হচ্ছে। গত জুলাই মাসের প্রথমদিকে রাজধানী দিল্লির বুরারিতে একই পরিবারের ১১ সদস্য আত্মহত্যা করেন। এরপর হাজারিবাগে এক অবস্থাসম্পন্ন পরিবারের ছয়জনের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে।
আসামে মমতার বিরুদ্ধে বিজেপি কর্মীর মামলা
অনলাইন ডেস্ক: ভারতের আসামে নাগরিকদের চূড়ান্ত খসড়া তালিকা থেকে ৪০ লাখ মানুষ বাদ পড়ায় শুরু থেকেই সরব পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। এটি ভারতে গৃহযুদ্ধ উসকে দিতে পারে এবং এর ফল রক্তক্ষয়ী হতে পারে বলেও সতর্ক করে দিয়েছিলেন তিনি। এমন বক্তব্য দেয়ায় এবার তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। আসামে ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার (বিজেওয়াইএম) তিন কর্মী ওই মামলাটি করেছেন। তাদের অভিযোগ, মমতার এসব বক্তব্য আসামের সম্প্রদায়গুলোর মধ্যে ঘৃণা ও উত্তেজনা উসকে দিচ্ছে। ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চের আগে আসামে এসেছেন এটা প্রমাণ করতে না পারায় আসামে ভারতীয় নাগরিক তালিকা থেকে ৪০ লাখ মানুষকে বাদ দিয়ে সম্প্রতি চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়। ওই বিষয়ে নয়া দিল্লীতে এক বৈঠকে মমতা বলেছিলেন, ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এ তালিকা করা হয়েছে। আমরা এটা হতে দেব না। বিজেপি মানুষের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টির জন্য এটা করেছে। এই পরিস্থিতি কিছুতেই মেনে নেয়া যাবে না। এতে দেশে গৃহযুদ্ধ শুরু হবে, এর ফল হবে রক্ষক্ষয়ী। শীর্ষ নিউজ
ফিলিস্তিনি সেই বীরকন্যা তামিমি মুক্তি পেয়েছেন
অনলাইন ডেস্ক: ফিলিস্তিনি বীরকন্যা আহেদ তামিমি রোববার কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। অধিকৃত পশ্চিমতীরে দখলদার ইসরাইলি সেনাদের চড়থাপ্পড় ও লাথি দেয়ার অভিযোগে গত বছর তাকে আটক করা হয়েছিল। অধিকৃত পশ্চিমতীরে তার গ্রাম নাবি সালেহে নিজ পরিবারের সদস্যদের ওপর বিনাকারণে হামলার ঘটনায় ক্ষুব্ধ তামিমি দুই সেনাসদস্যের ওপর চড়াও হন। তিনি সেনাদের চড় ও লাথি দেন। এ ঘটনার ভিডিও অনলাইনে ভাইরাল হয়ে গেল তিনি প্রশংসা কুড়িয়েছেন। ইসরাইলের এক কারা মুখপাত্র বলেন, শ্যারন কারাগার থেকে তামিমি মুক্তি পেয়েছে। সে পশ্চিমতীরে তার গ্রামের পথে রয়েছে। গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর তাকে আটক করা হয়েছিল। এ ঘটনায় তামিমির মা নারিমান এবং তার চাচাতো বোন নাওরকেও আটক করা হয়। এর আগে আহেদের বাবা বাসেম আল তামিমি বলেন, তার মেয়ে ১৯ আগস্ট মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার মুক্তির দিন এগিয়ে আনা হয়েছে। বিশেষ মূল্যায়নে ইসরাইলি কারা কর্তৃপক্ষ কারও কারা মেয়াদ কমিয়ে আনতে পারেন। গত মার্চে দেশটির সামরিক আদালত তাকে আট মাসের সাজা দিয়েছেন। ফিলিস্তিনিরা জানিয়েছেন, সাড়ে ছয় হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি ইসরাইলের কারাগারে আটক রয়েছেন। যাদের মধ্যে সাড়ে তিনশর বেশি শিশু। বিচারের সময় কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে এ সাহসী কিশোরী বলেছিল, আমিই হানাদার সেনাদের চড়িয়েছি, লাথি দিয়েছি। তখন সে জানায়, অবৈধ দখলদারদের অধীনে কোনো ন্যায়বিচার হতে পারে না। এর পর ইসরাইলি আদালত আহেদকে ৮ মাসের কারাদণ্ড ও ১৪০০ ডলার জরিমানা করেছিল। ইসরাইলি আইনজীবী লাস্কি আইনি প্রক্রিয়াকে প্রহসন আখ্যা দিয়ে জানিয়েছিল, আহেদের মতো অন্য ফিলিস্তিনি তরুণদের প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ থেকে দূরে রাখতেই তাকে এমন শাস্তি দেয়া হয়েছে।
জোট সরকার গঠনের পথে ইমরান খান
অনলাইন ডেস্ক: পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয়েছে। নির্বাচনে ইমরানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) জয়ী হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির নির্বাচন কমিশন। তবে জয়ী হলেও ইমরানের দল প্রত্যাশিত আসন অর্জন করতে না পারায় তাদের জোট সরকার গঠন করতে হবে। ক্রিকেট ব্যক্তিত্ব থেকে রাজনীতিতে পা রাখা ইমরান প্রথমবারের মতো দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণ করবেন। নির্বাচন কমিশনের প্রকাশিত ফলাফল বলছে ইমরানের দল পিটিআই জাতীয় পরিষদে ১১৫টি আসনে জয়ী হয়েছে। তবে সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য জাতীয় পরিষদের ২৭২টি আসনের মধ্যে ১৩৭টি আসনে জয়ের প্রয়োজন ছিল। ইমরানের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের পিএমএল-এন পার্টি ৬২ আসনে জয়ী হয়েছে। এদিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলওয়াল ভুট্টোর কেন্দ্রীয় বামপন্থী দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ৪৩টি আসনে জয়ী হয়েছে। কিছু আসনের ভোটের ফলাফল এখনও ঘোষণা হয়নি। ভোটের ফল অনুযায়ী জাতীয় পরিষদ এবং পাঞ্জাবের প্রাদেশিক পরিষদে এগিয়ে আছে ইমরানের দল। শুক্রবার সকালে ২৫১টি আসনের ফল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এর পরে আরও কয়েকটি আসনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়। ইমরানের দলের সমর্থকরা এরই মধ্যে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যার দিকে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়েছেন সাবেক ক্রিকেট তারকা থেকে রাজনীতিক বনে যাওয়া দেশটির হবু প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বৃহস্পতিবার রাতে ‘প্রেসিডেন্ট স্টাইলে’ দেওয়া ভাষণে ইমরান খান নির্বাচন নিয়ে বিরোধী দলগুলোর করা অভিযোগের তদন্ত করার প্রস্তাব দেন। এছাড়াও তিনি ভারত এবং আফগানিস্তানের সাথে সম্পর্কন্নোয়নের প্রতিশ্রুতি দেন। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথেও পারস্পরিক স্বার্থে একত্রিত হওয়ার কথা বলেন। খেলার মাঠে যেমন চার-ছক্কা মেরে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে খ্যাতি অর্জন করেছেন তেমনই এবার রাজনীতির মাঠেও সবাইকে পেছনে ফেলে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হলেন এই সাবেক তারকা। নতুন পাকিস্তান গড়তে নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার পাশাপাশি পররাষ্ট্র নীতি, ব্যবসা-বাণিজ্য, বহির্বিশ্বের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কথা বলেছেন তিনি। চিরবৈরী প্রতিবেশি ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরির ইঙ্গিত দিয়ে ইমরান বলেছেন, ‘আমাদের সম্পর্কের সংকটগুলোর সমাধান করতে চাই। এক্ষেত্রে ভারত যদি এক ধাপ এগিয়ে আসে, তাহলে অামরা দুই ধাপ এগিয়ে যাব।’ অক্সফোর্ড থেকে পড়াশুনা করা ইমরান খানের ক্যারিয়ার জীবন বেশ সমৃদ্ধ। দুই দশকের বেশি সময় ক্রিকেট দুনিয়ায় সময় কাটিয়েছেন তিনি। তবে তার ব্যক্তি জীবন বিশেষ করে তার বিবাহিত জীবন নিয়ে বেশ জলঘোলা হয়েছে। তিনবার বিয়ে করেছেন এই সাবেক ক্রিকেটার। তবে একটি সংসারও টেকেনি। লন্ডনে প্লেবয় হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিলেন ইমরান। তবে তার দাবি একজন রক্ষণশীল পাকিস্তানি মুসলিম হিসেবে তিনি কখনও কোনো অন্যায় কাজ করেননি এমনকি তিনি কখনও অ্যালকোহলও পান করেননি। ১৯৯৫ সালে ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত জেমিমা গোল্ডস্মিথকে প্রথম বিয়ে করেছিলেন সাবেক এই ক্রিকেট তারকা। সে সময় ইমরানের বয়স ছিল ৪৩ এবং জেমিমার বয়স ছিল ২১ বছর। ২০০৪ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। ২০১৫ সালে দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ইমরান। সে সময় তিনি বিয়ে করেন টেলিভিশন উপস্থাপক রেহাম খানকে। ১০ মাসের মাথায় সেই সংসারও ভেঙে যায়। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বুশরা মানেকা নামে একজন আধ্যাত্মিক নেত্রীকে বিয়ে করেন ইমরান খান। দু’মাসের ব্যবধানে সেই সম্পর্কেও ইতি ঘটান তিনি। ভোটের আগে ইমরানের ব্যক্তি জীবন নিয়ে অনেক আলোচনা সমালোচনা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছিল এসব বিতর্ক হয়তো নির্বাচনেও প্রভাব ফেলবে। কিন্তু সাধারণ নির্বাচনে তার ব্যক্তি জীবনের সমালোচনা স্পর্শ করতে পারেনি। সব সমালোচনা পেছনে ফেলে নির্বাচনে জয়ের পথেই এগিয়ে গেলেন এই সাবেক ক্রিকেট তারকা। ওয়ান নিউজ বিডি
যুদ্ধে নিহত মার্কিন সেনাদের দেহাবশেষ দ. কোরিয়ায়
অনলাইন ডেস্ক :যুক্তরাষ্ট্র-কোরিয়া যুদ্ধে নিহত মার্কিন সেনাদের দেহাবশেষ নিয়ে কোরীয় যুদ্ধবিরতির ৬৫তম বার্ষিকীতে শুক্রবার (২৭ জুলাই) যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক কার্গো বিমান উত্তর কোরিয়া থেকে দক্ষিণ কোরিয়া পৌঁছেছে। দেহাবশেষ ফেরতের মাধ্যমে গত মাসে সিঙ্গাপুরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উনের বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে সম্পাদিত চুক্তির আংশিক বাস্তবায়িত হলো। উত্তর কোরিয়ার ওনসান বন্দর ত্যাগের পর যুক্তরাষ্ট্রের সি-১৭ কার্গো বিমান দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের ওসান বিমান ঘাঁটিতে পৌঁছেছে। কোরীয় উপদ্বীপের যুদ্ধে ৩৫ হাজারের বেশি মার্কিন সেনা নিহত হয়। এছাড়া নিখোঁজ হয় ৭ হাজার ৭০০ মার্কিন সৈন্য। তাদের মধ্যে ৫ হাজার ৩০০ সেনা উত্তর কোরিয়ায় নিখোঁজ হয়। হোয়াইট হাউস এক বিবৃতিতে জানায়, যুদ্ধ শেষে ঘরে ফিরেনি এমন ৫ হাজার ৩০০ সেনার দেহাবশেষ অনুসন্ধান করে উত্তর কোরিয়া থেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে এটি প্রথম পদক্ষেপ।
নির্বাচনে ফল চুরি করা হয়েছে
অনলাইন ডেস্ক :নির্বাচনে ফল চুরি করা হয়েছে। বিকৃত করা হয়েছে এবং এ ফল সন্দেহজনক। আদিয়ালা জেলে বন্দি পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএলএন) প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ এমনই মন্তব্য করেছেন। বুধবার পাকিস্তানে জাতীয় ও প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন হয়। এতে সরকার গঠন করার পথে সাবেক ক্রিকেটার ও পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) দলের চেয়ারম্যান ইমরান খান। সব দলকে ছাড়িয়ে তিনি এখন সরকার গঠনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কিন্তু ওই নির্বাচনের ফলকে চুরি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করলেন নওয়াজ শরীফ। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ডন। এতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার তার সঙ্গে সাক্ষাত করতে যান কয়েকজনন ব্যক্তি। এ সময় তিনি বলেছেন, বিকৃত ও সন্দেহজনক এই নির্বাচনী ফল দেশের রাজনীতির ওপর একটি খারাপ প্রভাব ফেলবে। তার সঙ্গে সাক্ষাত করতে গিয়েছিলেন পিএমএলএনের সভাপতি শাহবাজ শরীফ, খাইবার পখতুনখাওয়ার গভর্নর ইকবাল জাফর ঝাগরা, মরিয়ম নওয়াজের ছেলে জুনায়েদ সফদার, মেয়ে মাহনুর সফদার ও মেহরুন, মরিয়মের জামাতা রাহিল মুনির, কেন্দ্রীয় সাবেক মন্ত্রী মরিয়াম আওরঙ্গজেব, সিনেটর মুসাদিক মালিক ও পিএমএলএনের মিডিয়া সমন্বয়ক মুহাম্মদ মেহদি।
সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পথে
অনলাইন ডেস্ক :পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের সূত্র উদ্ধৃত করে ইংরেজি দৈনিক ডন জানাচ্ছে, মোট ২৭২টি আসনের মধ্যে ১১৯টি আসনের আংশিক ফলাফলে স্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে আছেন ইমরানের পিটিআই। এখন পর্যন্ত ৪৯% অর্থাৎ অর্ধেকেরও কম আসনের ফলাফলে ইমরান খানের দলের অগ্রযাত্রা দেখে পর্যবেক্ষকরা নিচ্ছেন তিনি পাকিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন। তবে নিরঙ্কুশ সংখ্যা গরিষ্ঠতা পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ১৩৭টি আসন পিটিআই প্রার্থীরা জিততে পারবে কিনা, তা নিয়ে এখনও প্রবল সন্দেহ রয়েছে। সন্দেহ সত্যি প্রমাণিত হলে, ইমরান খানকে কোয়ালিশন সরকার গড়তে সহযোগী খুঁজতে হবে। ইমরান খানের সমর্থকেরা ইতিমধ্যেই রাস্তায় নেমে উল্লাস করছেন। এখন পর্যন্ত ফলাফলে দেখা যাচ্ছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএলএন) পেয়েছে ৬৪ টি আসনে এগিয়ে, বিলওয়াল ভুট্টোর দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)’র এগিয়ে ৪৩টি আসনে। পাকিস্তানের ইতিহাসে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো বেসামরিক দলের মধ্যে গণতান্ত্রিক উপায়ে ক্ষমতা হস্তান্তর হতে যাচ্ছে। এর কারণে এবারের নির্বাচনকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে বিশ্ব গণমাধ্যম। এবার ১০ কোটি ৬০ লাখ নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে ৫০%-৫৫% শতাংশ ভোট পড়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। নতুন প্রধানমন্ত্রীর প্রধান চ্যালেঞ্জ নির্বাচনের আগে ইমরান কান বিবিসিকে বলেন, জিতলে তার নজরের কেন্দ্রে থাকবে পাকিস্তানের অর্থনীতি। পাকিস্তানের মুদ্রা রুপির মূল্যমান সম্প্রতি ২০ শতাংশ পড়ে গেছে। জিনিসপত্রের দাম ঊর্ধ্বমুখী এবং রপ্তানি আয়ের চেয়ে আমদানি ব্যয় বেড়েই চলেছে। চীন থেকে আসা সস্তা কাপড়চোপড় আসায় পাকিস্তানের বস্ত্র খাত সঙ্কটে পড়েছে। অর্থনীতিবিদরা সাবধান করছেন, ২০১৩ সালের পর পরিস্থিতি সামাল দিতে পাকিস্তানকে হয়তো আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের কাছে যেতে হবে। বিবিসির সেকেন্দার কেরমানি বলছেন, সরকারি ব্যয় সঙ্কোচন সহ কঠোর কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হবে পরবর্তী সরকারকে। নির্বাচনের স্বচ্ছতা প্রশ্নবিদ্ধ এদিকে, তার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলওয়াল ভুট্টো নির্বাচনে অব্যবস্থাপনা সেইসঙ্গে বড় ধরণের ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলেছেন।ভোটের ফলাফল খুব ধীরে ধীরে প্রকাশ করায় তারা এমন অভিযোগ তোলেন। নির্বাচনে ভোট গ্রহণ এবং ভোট গণনা নিয়ে শুরু থেকেই এমন নানা বিতর্ক দেখা দিয়েছে। নির্বাচনের আগে থেকেই নওয়াজ শরীফের পাকিস্তান মুসলিম লীগ নওয়াজ- পিএমএল-এন অভিযোগ করেছে যে পিটিআইকে বিজয়ী করতে আদালতের সহায়তা নিয়ে সেনাবাহিনী কয়েকটি স্থানে তাদের বিরুদ্ধে ধরপাকড় অভিযান চালিয়েছে। এদিকে স্বাধীন গণমাধ্যম বলছে, পিটিআই এর বাইরে অন্য দলগুলোকে দমন করার প্রচেষ্টাও চালিয়েছে সেনাবাহিনী। যদিও সেনারা এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে। অন্যদিকে মানবাধিকার কমিশনও নির্বাচনের বৈধতা ও স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিরা অভিযোগ করেছেন যে, ভোট গণনার সময় তাদের পোলিং এজেন্টদের ভোটকেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। এমনকি নির্বাচনী শৃঙ্খলা ভেঙ্গে ফলাফলের সার্টিফাইড কপি দিতেও অস্বীকৃতি জানিয়েছে বলে তারা অভিযোগ করে। বেশ কয়েকটি নির্বাচনী এলাকা বিশেষ করে পিএমএল-এন এর শক্তিশালী কেন্দ্র পাঞ্জাব প্রদেশে বেসরকারি ফলাফল ঘোষণায় অস্বাভাবিক বিলম্ব হওয়ায় ফলাফলের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিশ্লেষকরা। তবে নির্বাচন কর্মকর্তারা ভোট কারচুপির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে তাদের দেরি হচ্ছে। এছাড়া পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ইমরান খানকে জেতানোর চেষ্টা করছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, সেটাও অস্বীকার করেছে দলের নেতৃবৃন্দ। কে এই ইমরান খান? একসময়কার এই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা ১৯৯২ সালে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে দেশের জন্য বিশ্বকাপ জয় করেছিলেন। ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা করেছেন তিনি। প্লেবয় জীবনধারা এবং তিনটি বিবাহের কারণে গণমাধ্যমের মনোযোগ আকর্ষণ করেছিলেন তিনি। ১৯৯৬ সালে পাকিস্তানের তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) দলটি চালু করেন কিন্তু দীর্ঘদিন তিনি নেতা হিসেবে পেছনের সারিতে ছিলেন। পাকিস্তানের দুর্নীতি এবং বংশীয় রাজনীতির বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়েছেন তিনি। অভিযোগ উঠেছে যে তার দল সামরিক মধ্যস্থতার সুবিধা নিয়েছে। যদিও ইমরান খান এই অভিযোগ অস্বীকার করেন। নির্বাচন কেন্দ্রে হামলার পর ভোট পরিস্থিতি: পাকিস্তানের এই নির্বাচনকে ঘিরে অনেক রক্তপাত দেখতে হয়েছে দেশটির সাধারণ মানুষকে। এমনকি ভোটের দিনও একটি ভোটকেন্দ্রে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে বহু মানুষ হতাহত হন। তবে স্থানীয় সাংবাদিক মনির আহমেদ জানান, “হামলার পর পর জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল ঠিকই, তবে খানিকক্ষন পরেই ভোটাররা আবারও ভোট দিতে এসেছেন। সবাই ভেবেছিল ভোট দেয়া হয়তো বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তবে এমন কিছুই হয়নি। ভোটারদের মধ্যে এরপরও নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের ব্যাপারে বেশ উতসাহ উদ্দীপনা দেখা যায়।” কোন পথে হাঁটবে নওয়াজ শরীফের দল? প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল- পিএমএলএন সেইসঙ্গে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী ছোট দলগুলো ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলে ফলাফল প্রত্যাখ্যানের দিকে ঝুঁকছে। দলীয় নেতা এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের ভাই শাহবাজ শরীফ তার টুইট বার্তায় অভিযোগ করেন, ” যেভাবে জনগণের সিদ্ধান্তকে অসম্মানিত করা হয়েছে, তা মেনে নেয়া যায়না।” পানামা পেপারস কেলেঙ্কারির ঘটনায় দুর্নীতির অভিযোগে বর্তমানে জেল খাটছেন নওয়াজ শরীফ। পিটিআই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করতে না পারলে নওয়াজ শরীফ ও বিলওয়াল ভুট্টো জোট গঠন করতে পারে বলে ধারণা করছেন কেউ কেউ। এদিকে, ভোট গণনায় মতো যদি সরকার গঠনের ক্ষেত্রেও দেরী হয় তাহলে সেটি পাকিস্তানের জনগণের বড় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াবে। কেননা পাকিস্তানের রাজনৈতিক ইতিহাস সেইসঙ্গে অর্থনৈতিক সংকট নিয়ে তারা আগে থেকেই বেশ উদ্বিগ্ন। নারী ভোটারের উপস্থিতি: তবে এবারের নির্বাচনে নারী ভোটারের উপস্থিতি আগের চাইতে ভালো ছিল বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের ডেইলি নিউজ পত্রিকার সাংবাদিক মনির আহমেদ। গতবছর দেশটির নির্বাচন কমিশন নারী ও পুরুষ ভোটারের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে প্রতিটি এলাকায় অন্তত ১০ শতাংশ নারী ভোটারের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করেছিল। নির্বাচন কমিশনের এমন নিয়মের ব্যাপারে মনির আহমেদ বলেন, “আফগানিস্তানের সীমান্ত সংলগ্ন ভোটকেন্দ্রগুলোয় নারী ভোটারদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে এই নিয়ম বা নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এর কারণে বেলুচিস্তানে এবারের নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। এছাড়া পাকিস্তানের শহর কেন্দ্রীক যে ভোটকেন্দ্রগুলো রয়েছে যেমন, করাচি, লাহোর বা ইসলামাবাদ। সেখানে নারী ভোটারদের উপস্থিতি বরাবরই ভাল থাকে।” গতকাল ভোট গ্রহণের সময়সীমা একঘণ্টা বাড়াতে দলগুলো, নির্বাচনের কমিশনের কাছে অনুরোধ জানালেও কেন্দ্রগুলো নির্ধারিত সময়েই বন্ধ করে দেয়া হয়। তবে সেই এক ঘণ্টা বাড়ানো হলেও ফলাফলে কোন পরিবর্তন আসতো না বলে জানান মি. আহমেদ।