বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২০
সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালালো পাকিস্তান
০৭নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভূমি থেকে সাগরে নিক্ষেপযোগ্য একটি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে পাকিস্তান নৌবাহিনী। নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি এই ক্ষেপণাস্ত্র সম্পর্কে জানান, দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্রটি লক্ষ্যবস্তুতে নিখুঁতভাবে আঘাত হেনেছে। আরব সাগরে এ পরীক্ষা চালানো হয়। নির্মাণ থেকে পরীক্ষা পর্যন্ত সকল পর্যায় সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিজ্ঞানী ও প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পাকিস্তানের নৌবাহিনী প্রধান। তিনি আরও বলেন, তার বাহিনী শত্রুর যে কোনো তৎপরতা মোকাবেলার ক্ষমতা রাখে। অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি বলেন, নতুন ক্ষেপণাস্ত্রটির পাল্লা ৭০০ কিলোমিটার এবং সাগর শত্রুর জাহাজ ধ্বংসের লক্ষ্যেই এটি তৈরি করা হয়েছে। কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সঙ্গে ব্যাপক উত্তেজনার মধ্যেই পাকিস্তান এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালালো। যুদ্ধের আশঙ্কায় দু'টি দেশই বহু বছর ধরে এক ধরনের অস্ত্র প্রতিযোগিতা চালিয়ে আসছে।-somoynews.tv
বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ কমেছে: যুক্তরাষ্ট্র
০৩নভেম্বর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার গতি ও মাত্রা কমেছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। শুক্রবার কান্ট্রি রিপোর্টস অন টেরোজিম-২০১৮ শীর্ষক বৈশ্বিক বার্ষিক জঙ্গিবাদবিষয়ক মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ২০১৮ সালের জঙ্গিবাদ পরিস্থিতি সম্পর্কে পর্যবেক্ষণ তুলে ধরা হয়েছে। এতে বাংলাদেশ অংশে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালে বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার গতি ও মাত্রা ধারাবাহিকভাবে কমেছে। যদিও পৃথক ঘটনায় একজন সেক্যুলার লেখক খুন ও একজন বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক গুরুতর আহত হয়েছেন। বাংলাদেশের নিরাপত্তাবাহিনী সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান চালিয়ে হামলা পরিকল্পনা নস্যাৎ, সন্দেহভাজন জঙ্গি নেতাদের গ্রেপ্তার, অস্ত্র, গোলাবারুদ ও বিস্ফোরক দ্রব্য জব্দ করেছে। তবে জঙ্গিদের সফল বিচারের ক্ষেত্রে বিচারিক বাধা ও সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের সফলতাকে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ম্লান করেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। জঙ্গিবাদ এবং জঙ্গিদের ভূ-স্বর্গ হিসেবে বাংলাদেশকে ব্যবহার করতে না দিতে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সরকার জিরো টলারেন্স নীতি অব্যাহত রেখেছে বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। প্রায়ই জঙ্গি হামলার জন্য বাংলাদেশ সরকার স্থানীয় জঙ্গিগোষ্ঠীকে দায়ী করেছে। কিন্তু বাংলাদেশে ২০১৫ সাল থেকে প্রায় ৪০টি হামলার দায় স্বীকার করেছে ভারতীয় উপমহাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদা ইন ইন্ডিয়ান সাব কন্টিনেন্ট (একিউআইএস) ও আইএস। মার্কিন এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ থেকে অনুসারী দলে টানতে ও নিজেদের মতাদর্শ ছড়িয়ে দিতে জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমকে ব্যবহার করছে। আইএস এবং একিউআইএস তাদের বিভিন্ন ধরনের প্রকাশনা, ভিডিও ও ওয়েবসাইটে বাংলাদেশি জঙ্গিদের উপস্থাপন করেছে।
পাকিস্তানে চলন্ত ট্রেনে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, নিহত ৬৫
৩১অক্টোবর,বৃহষ্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তানে চলন্ত ট্রেনে গ্যাস সিলিন্ডারে বিস্ফোরণে নারী ও শিশুসহ অন্তত ৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার করাচি থেকে রাওয়ালপিন্ডিগামী তেজগাম ট্রেনটি লিয়াকতপুর শহরের কাছাকাছি আসলে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ। জিও টিভির খবরে বলা হয়েছে, একজন যাত্রীর বহন করা রান্নার জন্য ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ট্রেনে ইকোনমি ক্লাসের দুটি বগি এবং বিজনেস ক্লাসের একটি বগি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। সংবাদমাদ্যম ডন এর খবরে বলা হয়, দমকল ও উদ্ধারকর্মীদের দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে আহতদের উদ্ধার করে। এদিকে এ ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। পাকিস্তানের রেলওয়ে মন্ত্রী শেখ রাশিদ বলেছেন,দুটি রান্নার স্টোভও বিস্ফোরিত হয়েছে। সিলিন্ডার বিস্ফোরণের সময় ওইসব স্টোভে তেল দিয়ে রান্না চলছিল, যা আগুনকে আরও চড়িয়ে দেয়। ট্রেন থেকে লাফিয়ে পড়ে বেশিরভাগ মানুষের প্রাণহানি হয়েছে বলেও জানান তিনি। মন্ত্রী বলেন,ওই বগিগুলোতে তাবলিগ জামাত থেকে ফেরা যাত্রীরা ছিলেন। বগিগুলো ভয়ংকরভাবে পুড়ে গেছে এবং ট্রেন থেকে আলাদা হয়ে গেছে। দুই ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে বলেও যোগ করেন রেলওয়ে মন্ত্রী। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এ ঘটনার শোক প্রকাশ করে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।সেইসঙ্গে আহতদের সর্বোচ্চ চিকিৎসাসেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।
জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় দিল্লি ও কাশ্মীরে হাই অ্যালার্ট
৩০অক্টোবর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ সরকারিভাবে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হচ্ছে আগামীকাল থেকে। সেই পরিকল্পনা ভেস্তে দিতে হামলা চালাতে পারে জঙ্গিরা। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা এমন আশঙ্কা করে নির্দিষ্ট তথ্য দেয়ার পরেই রাজধানী দিল্লিতে হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। আগামী ৭২ ঘণ্টার জন্য চূড়ান্ত সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সব নিরাপত্তা সংস্থাকে চূড়ান্ত সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। বাড়ছে টহল ও নজরদারি। গত ৫ আগস্ট সংসদে পাস হয়েছিল জম্মু-কাশ্মীর বিভাজন বিল। ওই বিল অনুযায়ী জম্মু-কাশ্মীরকে ভেঙে জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখকে আলাদা আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার সিদ্ধান্ত হয়। সেই সিদ্ধান্ত কার্যকরি হচ্ছে বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর)। অর্থাৎ ওই দিন থেকে আত্মপ্রকাশ করবে এই দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। কিন্তু কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের কাছে খবর, সরকারি এই প্রক্রিয়া ভেস্তে দিতে ছক কষছে একাধিক জঙ্গি সংগঠন। বৃহস্পতিবার বড় ধরনের হামলা চালাতে পারে জঙ্গিরা। গোয়েন্দাদের কাছে ইনপুট এসেছে যে, জম্মু-কাশ্মীর ছাড়াও জঙ্গিদের হিট লিস্টে রয়েছে রাজধানী দিল্লি। সরকারি দপ্তর ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সোমবার দিল্লিতে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক হয়। তাতেও উঠে এসেছে এই হামলার প্রসঙ্গ। তারপর থেকেই রেলস্টেশন, বিমানবন্দর, বাসস্ট্যান্ড, বাজারের মতো যেখানে লোক সমাগম বেশি হয়, সেসব জায়গায় নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে। পুলিশ ও অন্যান্য নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা সংস্থা কড়া সতর্কতায় রয়েছে।
মোদি-কোহলিসহ হাইপ্রোফাইলদের হত্যার হুমকি
২৯অক্টোবর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আগামী ৩ নভেম্বর দিল্লির অরুন জেটলি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-২০ ম্যাচে অংশ নিতে যাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। তার আগে ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও গোটা দলের নিরাপত্তা বাড়াতে দিল্লি পুলিশ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।সম্প্রতি দেশটির জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ এর কাছে একটি উড়ো চিঠি এসে পৌঁছায়। যেখানে ভারতীয় ক্রিকেট দল বিশেষ করে বিরাটের ওপর হুমকি দেওয়া হয়েছে। এরপরই সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকেই দলের প্রতিটি খেলোয়ার, ম্যাচ ভেন্যুর নিরাপত্তা খতিয়ে দেখতে বলা হয়। দিল্লি পুলিশ সূত্রের খবর, ওই বেনামি চিঠিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বিজেপি সভাপতি তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বিজেপি সিনিয়র নেতা লালকৃষ্ণ আদভানি, দলের কার্যকরী সভাপতি জেপি নাড্ডা এবং আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতের নামও রয়েছে।এনআইএ এর কাছে ওই চিঠি আসার পরই তা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)-এর কাছে। চিঠিতে লেখা হয়েছে, কেরালার কোঝিকোড় ভিত্তিক অল ইন্ডিয়া লস্কর সংগঠনটি বিরাট কোহলি ও ভারতের শীর্ষস্থানীয় রাজনীতিকদের ওপর হামলার ছক কষছে।সূত্রের খবর হুমকি দিয়ে আসা চিঠিটি ভুয়াও হতে পারে যদিও দলের প্রতিটি খেলোয়াড় ও ম্যাচের ভেন্যুর নিরাপত্তা নিয়ে কোনও কমতি রাখতে চাইছে না নিরাপত্তা কর্মকর্তারা।ভারতের মাটিতে বাংলাদেশের সঙ্গে তিনটি টি-২০ ম্যাচের পর দুটি টেস্টও অনুষ্ঠিত হবে। যার একটি হবে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে।
ট্রাম্পের ইমপিচমেন্ট তদন্তের বিষয়ে বৃহস্পতিবার ভোটাভুটি
২৯অক্টোবর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইম্পিচমেন্ট করার জন্য তদন্ত শুরুর বিষয়ে আগামী বৃহস্পতিবার প্রতিনিধি পরিষদে ভোটাভুটি হবে। কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে বিরোধী ডেমোক্র্যাট দলের আধিপত্য রয়েছে। ইমপিচমেন্টের জন্য ডেমোক্র্যাট দল তদন্ত করতে চাইলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তার রিপাবলিকান দলের সহযোগীরা এ প্রচেষ্টাকে অবৈধ এবং বেআইনি বলে প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। এ কারণে ট্রাম্পের ব্যাপারে তদন্ত শুরু করা যায়নি। কিন্তু প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাটরা যদি ভোটের মাধ্যমে তদন্ত প্রক্রিয়া শুরুর বিষয়টি পাস করতে পারেন তাহলে ট্রাম্প এবং তার সহযোগীদের ওই দাবি প্রত্যাখ্যাত হবে এবং তদন্ত শুরু হবে। প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি চিঠিতে বলেছেন, চলতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবারে প্রতিনিধি পরিষদে ভোটাভুটি হবে এবং এর মাধ্যমে ঠিক করা হবে- কিভাবে ট্রাম্পের তদন্তের ব্যাপারে গণশুনানি হবে। তবে পেলোসি বলেছেন যে, ট্রাম্পকে আইনের সব ধরনের সুরক্ষা দেয়া হবে। ভোটাভুটির মাধ্যমে ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ তাদের হাতে আসা যাবতীয় তথ্য প্রমাণাদি প্রতিনিধি পরিষদের বিচার বিভাগ সংক্রান্ত কমিটির কাছে হস্তান্তর করবে। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি যাতে আবার নির্বাচিত হতে পারেন সেজন্য বিদেশি সাহায্য চেয়েছেন। এরই অংশ হিসেবে তিনি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমিরি জেলিনস্কির ওপর চাপ সৃষ্টি করেন যে, ডেমোক্র্যাট দলের সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন এবং তার ছেলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে তদন্ত করতে হবে। তা নাহলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তা দেয়া বন্ধ করে দেবেন।
ভয়াবহ দাবানলের কারণে ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা
২৮অক্টোবর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। রাজ্যটির গভর্নর গেভিন নিউসম এই জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। তীব্র বাতাসের কারণে আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ছে। ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। এতে ২০ লাখেরও বেশি মানুষের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। স্টেটটির ইতিহাসে একসঙ্গে এতো মানুষের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম বলে জানা যায়। অগ্নিকাণ্ডের আশঙ্কায় উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার ঘর ছাড়তে হয়েছে প্রায় ৯০ হাজার মানুষকে। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেটের এক কর্মকর্তা সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছেন, বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ৯ লাখ ৪০ হাজার বসতবাড়িসহ উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার ৩৬টি কাউন্টির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এদিকে নতুন করে যেন আগুন ছড়িয়ে পড়ে সেজন্য কাজ করে যাচ্ছে বিভিন্ন বিদ্যুৎ কোম্পানি। এছাড়া সান্তা রোজাসহ সোনোমা কাউন্টির বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজনকে সরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সোনোমা এলাকায় দাবানলে কমপক্ষে ৩০ হাজার একর জমি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
ট্রাম্পের নির্দেশে অভিযানে আইএস প্রধান বাগদাদি নিহত
২৭অক্টোবর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নেতা আবু বকর আল বাগদাদির গোপন আস্তানায় অভিযান চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আর এ অভিযানে বাগদাদি নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রায় এক সপ্তাহ আগে অভিযানটির অনুমতি দিয়েছিলেন বলে একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। মার্কিন এক শীর্ষ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় শনিবার সিরিয়ার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় এই অভিযান পরিচালিত হয়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় হোয়াইট হাউসকে জানিয়েছে, অভিযানে যে বাগদাদি নিহত হয়েছেন এ বিষয়ে তাদের প্রবল বিশ্বাস রয়েছে। কিন্তু ডিএনএ ও বায়োমেট্রিক পরীক্ষার করে আরও যাচাই করার পর বিষয়টি পুরোপুরি নিশ্চিত করা যাবে। এদিকে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের করা একটি টুইট বার্তাও সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে। ট্রাম্প তার টুইট বার্তায় বলেছেন,এইমাত্র বিশাল বড় কিছু একটা ঘটে গেছে। তিনি এ নিয়ে শিগগিরই ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আইএস নেতা বাগদাদির অবস্থান শনাক্তের কাজটি করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ। তারপর সেখানে অভিযান চালানো হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মার্কিন এক প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বাগদাদির গোপন আস্তানায় যখন মার্কিন বাহিনী অভিযান চালায় তখন তিনি তার শরীরের বিস্ফোরক ভর্তি বেল্ট পড়ে ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, সেটির বিস্ফোরণ ঘটানোর মাধ্যমে বাগদাদি আত্মহত্যা করেছেন। এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির স্থানীয় সময় রোববার সকাল ৯টায় গুরুত্বপূর্ণ এক ঘোষণা দেবেন বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্টের কার্যালয় হোয়াইট হাউসের সহকারী প্রেস সেক্রেটারি হোগান গিডলে। প্রশাসনিক এক কর্মকর্তা সিএনএনকে বলেছেন, ট্রাম্পের এ ঘোষণা হবে বৈদেশিক নীতি সম্পর্কিত। ইসলামিক স্টেটের নেতা আবু বকর আল বাগদাদি গত পাঁচ বছর ধরে আত্মগোপনে রয়েছেন। তিনি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটির এখন মূল নেতা। তবে এর আগেও একাধিকবা বাগদাদির নিহতের খবর ছড়ালেও তা ভুল প্রমাণিত হয়।
৪০ সেনা-পুলিশকে অপহরণ করেছে বিদ্রোহীরা, ফের উত্তপ্ত রাখাইন
২৭অক্টোবর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মিয়ানমারে একটি টহলরত নৌযানে হামলা চালিয়ে ৪০ পুলিশ ও সেনা সদস্যকে অপহরণ করেছে দেশটির জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির এক রিপোর্টে একথা বলা হয়েছে । নয়া দিগন্ত এ ঘটনায় মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের এই রাজ্যে নতুন করে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে সেখানে। জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা রাজ্যের অধিকতর স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে লড়াই করে আসছে।সেনাবাহিনী জানিয়েছে, অপহরণের ঘটনার পর সেনারা আরাকা আর্মির ঘাঁটি গুড়িয়ে দিতে অভিযান শুরু করেছ। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জ্য মিন তুন বলেন, শনিবার সকালের দিকে রাখাইনের রাজধানী সিত্তের উত্তরাঞ্চলে নৌযানে কর্তব্যরত পুলিশ ও সেনাসদস্যদের লক্ষ্য করে নদীর তীর থেকে গুলি ছোড়ে বিদ্রোহীরা। তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর ১০ জনের বেশি সদস্য, ৩০ জন পুলিশ ও কারা বিভাগের আরও দুই কর্মী ওই নৌযানে ছিলেন। পরে ৪০ জনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বিদ্রোহীরা। বিদ্রোহীদের অবস্থান শনাক্ত করতে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার থেকে অভিযান শুরু হয়েছে। নদীর তীরবর্তী এলাকার আশপাশে বিদ্রোহীদের বিশাল ঘাঁটি শনাক্ত করা হয়েছে। এর ফলে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে আরাকান আর্মি বিদ্রোহীদের দমন করতে হাজার হাজার সেনা সদস্যকে মোতায়েন করা হয়েছে। ফলে নতুন করে এক উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছে রাখাইনে। বার্তা সংস্থা এএফপির দেয়া এ খবর প্রকাশিত হয়েছে দ্য হিন্দু সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে। এতে বলা হয়েছে, রাখাইনে জাতিগত রাখাইন বিদ্রোহীরা রাখাইন বৌদ্ধদের জন্য অধিক স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে লড়াই করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার একটি ফেরিতে ঘেরাও করে তারা ওই পুলিশ ও সেনা সদস্যদের জিম্মি করেছে। এর ফলে মিয়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলীয় ওই রাজ্যে এক অশান্ত অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে হাজার হাজার সেনা দিয়ে ভরে ফেলা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর