ফিলিপাইনে শক্তিশালী দুটি ভূমিকম্পে ৮ জনের মৃত্যু
২৭জুলাই২০১৯,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফিলিপাইনে শক্তিশালী দুটি ভূমিকম্পে অন্তত আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে আরও ৬০ জন। আজ শনিবার সকালে দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় একটি দ্বীপে ভূমিকম্প দুটি আঘাত হানে। প্রথম ভূমিকম্পটি যখন আঘাত হানে তখন বেশিরভাগ মানুষ ঘুমাচ্ছিল বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা। এতে করে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বার্তাসংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, স্থানীয় সময় ভোর ৪টা ১৬ মিনিটে দেশটির বৃহত্তম লুজন দ্বীপের উত্তরে বাতানেস প্রদেশের ইতবায়াত নামক শহরে প্রথম ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। শক্তিশালী এ ভূমিকম্পে প্রকম্পিত হয় গোটা শহর। রিখটার স্কেলে যার মাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৪। এর পর স্থানীয় সময় সকাল ৭টা ৩৭ মিনিটে ইতবায়াতে দ্বিতীয় ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। এর মাত্রা প্রাথমিকভাবে ৬ দশমিক ৪ মাত্রার বলা হলেও পরে তা কমিয়ে ৫ দশমিক ৯ বলে জানানো হয়। ভূমিকম্পে বাড়িঘর ভেঙ্গে যাওয়াসহ বিভিন্ন ভবন ভয়াবহভাবে প্রকম্পিত হয়। এতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে প্রত্যাশিত আফটার শক হলেও সুনামির শঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে ফিলিপাইন সরকারের ভূমিকম্পবিষয়ক দপ্তর।
চলে গেলেন তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট বেজি সাইদ এসেবসি
২৬জুলাই২০১৯,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট বেজি সাইদ এসেবসি মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৯২ বছর। তার কার্যালয় সূত্রে এ কথা জানা গেছে। তিনি উত্তর আফ্রিকার এই দেশের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম নেতা। অভিজ্ঞ এই রাজনীতিক ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের পর সবচেয়ে প্রবীণ রাষ্ট্রপ্রধান ছিলেন। দেশটির দীর্ঘদিনের শাসক জিন আল আবিদিন বেন আলী আরব বসন্তের আন্দোলনের সময় ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার তিন বছর পর ২০১৪ সালে বেজি সাইদ তিউনিসিয়ার দায়িত্ব নেন। জুনের শেষ দিকে মারাত্মক অসুস্থ অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার তাকে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে ফিরিয়ে আনা হয়েছিল।
ইউরোপজুড়ে তাপমাত্রা বৃদ্ধির রেকর্ড
২৫জুলাই২০১৯,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শীতল ইউরোপ উপমহাদেশ ক্রমাগত গরম হয়ে উঠছে। তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার অতীতের সব রেকর্ডকেই ছাড়িয়ে যাচ্ছে। প্যারিসসহ ফ্রান্সের বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি জার্মানি, বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস, লুক্সেমবার্গ ও সুইজারল্যান্ডের বিভিন্ন অংশে আজ বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে যেতে পারে। বেলজিয়াম ও জার্মানিতে তাপমাত্রা বৃদ্ধির পরিমাণ অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। অন্যদিকে, নেদারল্যান্ডসে ৭৫ বছরের মধ্যে এবারের তাপমাত্রা সর্বোচ্চ বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে এখানেই শেষ নয়, আরো তাপমাত্রা বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে। এদিকে, তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ায় বয়স্ক ও অসুস্থদের সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। কারণ, ইউরোপের শহরগুলোর বাসাবাড়ি, অফিস, স্কুল অথবা হাসপাতালগুলোতে এয়ারকন্ডিশন (এসি) তেমন একটা নেই। গরম থেকে বাঁচতে বুধবার ইউরোপের একটি কৃত্রিম ঝর্ণার পানিতে শিশুদের শরীর ভেজাতে দেখা যায়। গ্রীষ্মে ইউরোপের তেমন একটা বৃষ্টিপাত না হওয়ায় আবহাওয়া এমনিতেই রুক্ষ থাকে। ফলে গরম, বাতাস ও ঝড় থেকে সম্ভাব্য বজ্রপাতে অগ্নিকাণ্ডের বড় ধরনের ঝুঁকি তৈরি হয়েছে। এত গরমের কারণ কী? যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়াবিদ রিয়ান মাউয়ে বলেন, ইউরোপে দুই মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো রেকর্ড তাপমাত্রা বৃদ্ধির উপকরণগুলোর সঙ্গে উত্তর আফ্রিকা থেকে আসা গরম ও শুষ্ক বাতাসের উপকরণের মধ্যে মিল রয়েছে। উত্তর আফ্রিকা থেকে আসা এ বাতাসগুলো আটলান্টিক ও পূর্ব ইউরোপের মধ্যে ঠাণ্ডা ও ঝড়ো সিস্টেমের মধ্যে আটকে গেছে। এ গরম কখন শেষ হবে? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কয়েক দিনের মধ্যেই তাপমাত্রা হ্রাস পেতে শুরু করবে। সপ্তাহ শেষে সেটা ব্যাপকভাবে হ্রাস পেতে পারে।
পারস্য উপসাগরে মার্কিন জোটে সেনা পাঠাবে না জাপান
২৪জুলাই২০১৯,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: এশিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম মিত্র জাপান জানিয়েছে, তারা পারস্য উপসাগরীয় এলাকায় বাণিজ্যিক জাহাজের নিরাপত্তা দেয়ার নামে আমেরিকা যে সামরিক জোট গঠনের চেষ্টা করছে তাতে সেনা পাঠাবে না। জাপানের মন্ত্রী পরিষদের সচিব ইয়োশিহিদি সুগা মঙ্গলবার এ কথা বলেছেন। তিনি বলেন, দেশের বর্তমান অবস্থান নিয়ে আমাদের প্রতিরক্ষামন্ত্রী তাকেশি আয়া আগে যা বলেছেন তাতে কোনও পরিবর্তন আসেনি। জাপান সরকারের মুখপাত্র সুগা বলেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী আয়া আগে যা বলেছেন সেখানে কোনো পরিবর্তন ঘটেনি। এর আগে প্রতিরক্ষামন্ত্রী তাকেশি আয়া গত সপ্তাহে বলেছিলেন যে, মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটে সেনা পাঠানোর কোনও পরিকল্পনা নেই তার দেশের। মধ্যপ্রাচ্যে পারস্য উপসাগরের ওপর দিয়ে চলাচল করা বাণিজ্যিক জাহাজগুলোর নিরাপত্তা ও নজরদারি বাড়ানোর লক্ষ্যে প্রস্তাবিত সামরিক জোটের জন্য যুক্তরাষ্ট্র তার মিত্রদেশগুলোর সমর্থন আদায়ের চেষ্টা করছে বলে কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে। মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপেদষ্টা জন বোল্টনের চলমান টোকিও সফরের সময় মধ্যপ্রাচ্যে সেনা পাঠানোর বিষয়টি তার আলোচ্য সূচিতে গুরুত্ব পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সোমবার বোল্টন জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কানো, প্রতিরক্ষামন্ত্রী আয়া এবং দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা শোতারু ইয়াচির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এদিকে জাপানি সংসদের উচ্চকক্ষের নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের জোট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার পর এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন তিনি। সেখানে আবে বলেন, ইরানের সঙ্গে আমাদের দীর্ঘদিনের বন্ধুত্ব রয়েছে এবং দেশটির প্রেসিডেন্টসহ বহু নেতার সঙ্গে আমার বৈঠক হয়েছে। যেকোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে আমরা উত্তেজনা কমানোর জন্য সবরকমের চেষ্টা চালাব। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র নতুন জোট গঠন করে কী করতে চায় সে সম্পর্কে পরিপূর্ণ তথ্য নেয়া দরকার।
ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন
২৩জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরিস জনসন ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন। সাবেক ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন ও বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্টের মধ্যে অনুষ্ঠিত ভোটে বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। দুই নেতার মধ্য থেকে সোমবার (২২ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে ভোট দেন ব্রিটেনের ক্ষমতাসীন দল কনজারভেটিভ পার্টির ১ লাখ ৬০ হাজার নিবন্ধিত নেতা। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে কনজারভেটিভ পার্টির নেতাদের মধ্যে লন্ডনের সাবেক মেয়র বরিস জনসনের জনপ্রিয়তা বেশি বলে ব্রিটিশ গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। দেশটির সংবিধান অনুযায়ী ক্ষমতাসীন দলের নেতাই প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন। সেই নিয়ম অনুযায়ী বুধবার (২৪ জুলাই) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন বরিস জনসন। উল্লেখ্য, ব্রেক্সিট ইস্যুতে সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়ে চলতি বছরের মে মাসে পদত্যাগের ঘোষণা দেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। ৭ জুন যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন দলের নেতার পদ থেকে থেরেসার সরে দাড়ানোর পর নতুন নেতা নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করে রক্ষণশীল দল। গত ১৩ জুন থেকে শুরু চার দফার ভোটের প্রায় সবগুলোতেই এগিয়ে ছিলেন বরিস জনসন।
ফিলিস্তিনিদের ঘরবাড়ি ভেঙে দিচ্ছে ইসরায়েল
২৩জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জেরুজালেমে ফিলিস্তিনিদের বাড়িঘর ধ্বংস করে দিচ্ছে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষ। ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, ইসরায়েলের অপরাধযজ্ঞের বিষয়ে গোটা বিশ্ব নীরব রয়েছে। তাদের এই নিরবতা ইসরায়েলিদের অপরাধ করার ক্ষেত্রে আরও বেশি উৎসাহিত করেছে। অবিলম্বে ধ্বংসযজ্ঞ থামাতে ইসরায়েলের ওপর চাপ প্রয়োগের জন্য আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে স্বশাসন কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় সময় সোমবার ভোররাত ৪টার দিকে থেকে পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস বা পূর্ব জেরুজালেমের উপকণ্ঠে ফিলিস্তিনিদের বাড়িঘর ভেঙে ফেলতে শুরু করে ইসরায়েল। বাড়িঘরগুলো পূর্ব জেরুজালেমের শেষ প্রান্ত সুর বাহার এলাকায় অবস্থিত। সেখানকার বাসিন্দারা বলছেন, তারা ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়েই বাড়িঘর নির্মাণ করেছিলেন। কিন্তু ইসরায়েল পশ্চিম তীরের অবশিষ্ট ভূমিও দখলে নিতে বাড়িঘর ভেঙে দিচ্ছে। সুর বাহারের সীমানা ঘেঁষা গ্রাম ওয়াদি হুমুসে সোমবার ৭০০ ইসরায়েলি পুলিশ ও ২০০ সেনা বাড়িঘর ধ্বংসের অভিযানে অংশ নিয়েছে। দখলদাররা কয়েকটি স্ক্যাভেটর নিয়ে অভিযান শুরু করে এবং সেখানে অন্তত ১০টি বাড়ি ভেঙে ফেলা হয়েছে। যাদের ঘরবাড়ি ভাঙা হয়েছেন তাদের একজন হলেন ইসমাইল আবাদিয়েহ। আবাদিয়েহ সাংবাদিকদের বলেছেন, তিনি পরিবার নিয়ে পথে বসে গেছেন। ফাদি আল-ওয়াহাশ নামে অন্য একজন সদ্য তার বাড়ি নির্মাণ শুরু করছিলেন। তার মধ্যেই সেটি ভেঙে ফেলা হয়েছে। তিনি বলেন, ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতি নিয়েছিলাম। আমি ভেবেছিলাম, আমি ঠিকঠাক নিয়ম মেনেই বাড়ি নির্মাণ করছি। কিন্তু তারা আমার নির্মাণাধীন বাড়ি ভেঙে দিয়েছে।
ভারতের উত্তর প্রদেশে বজ্রাঘাতে নিহত ৩০
২২জুলাই২০১৯,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের উত্তর প্রদেশে বজ্রাঘাতে ৩০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। রোববার প্রদেশটির বিভিন্ন জেলায় বজ্রাঘাতে তারা নিহত হন বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার। সরকারের এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ৭ জন কানপুরের, ৪ জন ঝানসির, হামিরপুরের ৩ জন, ফতেহপুরের ২ জন, জালাউনের ১ জন এবং চিত্রাকোটের ১ জন। বাকিদের পরিচয় নিশ্চিত করা হয়নি। এ ঘটনায় উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ শোক প্রকাশ করেছেন। একইসঙ্গে নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ৪ লাখ রুপি করে দেয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি। এর আগে শুক্রবার বিহারে বজ্রপাতে ৮ শিশু নিহত হয়। এছাড়া আহত হয় আরও ১০ জন। স্থানীয় প্রশাসন জানায়, শুক্রবার দুপুরে ধনাপুর গ্রামের কয়েকজন শিশু স্থানীয় একটি মাঠে খেলছিল। সেসময় হঠাৎ করে ভারী বৃষ্টি শুরু হয়। মাথা বাঁচতে সবাই দৌড়ে গিয়ে আশ্রয় নেয় একটি গাছের নিচে। কিছুক্ষণ পর একটি বাজ পড়ে ওই গাছের ওপর। এতেই মৃত্যু হয় ৮ শিশুর। এছাড়া আহত হয় আরও ১০ জন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে কয়েক জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।
রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বিশ্ব বিবেককে এগিয়ে আসতে হবে
২১জুলাই২০১৯,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে নিজেদের পক্ষে যা সম্ভব তার সবকিছুই বাংলাদেশ করে যাচ্ছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেছেন, এ সংকট সমাধানে বিশ্ব বিবেককে এগিয়ে আসতে হবে। আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক পদক্ষেপের পাশাপাশি সংকট সমাধানে শিক্ষাবিদ, গবেষক ও বিশ্বের খ্যাতনামা উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ভূমিকা রাখতে হবে, যাতে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের টেকসই ও স্থায়ী প্রত্যাবাসন নিশ্চিত হয়, যোগ করেন তিনি। শুক্রবার হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের অ্যাশ সেন্টার ফর ডেমোক্রেটিক গভর্নেন্স অ্যান্ড ইনোভেশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল রোহিঙ্গা অ্যাওয়ারনেস কনফারেন্সে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। বোস্টনের অর্থনীতিবিদ ড. আন্দুল্লাহ শিবলি, ড. ডেভিড ড্যাপাইচ ও সমাজকর্মী নাসরিন শিবলি এ সেমিনারটির আয়োজন করেন। আলোচক হিসেবে ছিলেন জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনারের নিউইয়র্ক কার্যালয়ের পরিচালক নিনেথ কেলি এবং হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের ভিয়েতনাম ও মিয়ানমার কর্মসূচির সিনিয়র ইকোনমিস্ট ও প্রফেসর এমিরেটাস ড. ডেভিড ড্যাপাইচ। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক ছিলেন হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক এবং অ্যাশ সেন্টার ফর ডেমোক্রেটিক গভর্নন্সের পরিচালক এন্থনি সাইচ। পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার উদ্বোধনী ও মূল বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অদম্য অগ্রযাত্রার কথা তুলে ধরেন। এতে উঠে আসে জিডিপির উচ্চ প্রবৃদ্ধির হার, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি, আমদানি-রপ্তানি বৃদ্ধি ও ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ নানা উন্নয়ন সূচকের উদাহরণ। মন্ত্রী জিনি-কোইফিসিয়েন্টসহ অর্থনীতির বিভিন্ন সূচক, উপাত্ত ও সংজ্ঞায় বাংলাদেশের উন্নয়নকে বিশ্লেষণ করে দেখান, যা পার্শ্ববর্তী যেকোনো দেশের চেয়ে বেশি ও অগ্রমুখী। কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তার বিস্ময়কর সাফল্যের কথাও তুলে ধরেন মন্ত্রী। এমন সম্ভাবনাময় বাংলাদেশে রোহিঙ্গা ইস্যুটি কীভাবে অর্থনীতি, সমাজ ও পরিবেশের ওপর প্রভাব ফেলছে তা উল্লেখ করেন তিনি। ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে মানবিক আশ্রয় দেয়ার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদারতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্বের সবচেয়ে ভাগ্যবিড়ম্বিত ও অমানবিক সহিংসতার স্বীকার এ মানুষগুলোকে আশ্রয় না দিলে তাদের আর যাওয়ার কোনো জায়গা ছিল না। মন্ত্রী রোহিঙ্গা সংকটের ক্রম ইতিহাসসহ এ সংকট সমাধানে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের পাশাপাশি বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক নিয়ে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার শুরু থেকে এ পর্যন্ত বিস্তারিত তুলে ধরেন। তিনি বলেন, মিয়ানমার এ সংকট সমাধানে এগিয়ে আসেনি। কফি আনান কমিশনের সুপারিশ থেকে শুরু করে কোনো পদক্ষেপই তারা বাস্তবায়ন করেনি। রাখাইন রাজ্যে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়ার আস্থা ও নিরাপত্তা সৃষ্টিকারী কোনো অনুকূল পরিবেশই তারা সৃষ্টি করতে পারেনি। পরিবর্তে মিয়ানমার বিষয়টি নিয়ে ব্লেইম গেম খেলছে। সূত্র-ইউএনবি।
ইরানে তেল ট্যাংকার আটকে ব্রিটিশ মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক
২০জুলাই২০১৯,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক আইন লঙ্ঘন করার দায়ে ইরান হরমুজ প্রণালী থেকে একটি ব্রিটিশ তেল ট্যাংকার আটক করার পর শুক্রবার রাতে জরুরি বৈঠক করেছে ব্রিটিশ মন্ত্রিসভা। বৈঠক শেষে এক বিবৃতিতে বলা হয়, লন্ডন এ ব্যাপারে আরও বেশি তথ্য সংগ্রহ ও পুরো পরিস্থিতি মূল্যায়নের চেষ্টা করছে। খবর পার্সটুডের। তবে কোনও কোনও বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, ইরান ব্রিটিশ তেল ট্যাংকার ছেড়ে না দিলে তেহরানকে কঠোর পরিণতি ভোগ করতে হবে। একইসঙ্গে তিনি সামরিক পদক্ষেপ নেয়ার সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে বলেন, লন্ডন তেহরানের সঙ্গে কূটনৈতিক যোগাযোগের মাধ্যমে বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা করছে। ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি শুক্রবার রাতে এক বিবৃতিতে জানায়, আন্তর্জাতিক আইন অমান্য করায় হরমুজ প্রণালী থেকে ২৩ ক্রুসহ একটি ব্রিটিশ তেল ট্যাংকার আটক করা হয়েছে। আইআরজিসি জানিয়েছে, তেল ট্যাংকারটি তিনটি আইন লঙ্ঘন করেছে। এটি আন্তর্জাতিক পানিসীমা থেকে ইরানের পানিসীমায় ঢুকে পড়েছিল, নিজেকে শনাক্তকরণ যন্ত্রপাতি বন্ধ করে রেখেছিল এবং আইআরজিসির পক্ষ থেকে বারবার সতর্ক করা হলেও তাতে ভ্রুক্ষেপ করেনি। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, তেল ট্যাংকারটি আটক করে ইরানের উপকূলে নিয়ে আসা হয়েছে এবং আইনগত বিষয়গুলো খতিয়ে দেখার জন্য এটিকে হরমুজগান প্রদেশের বন্দর ও নৌচলাচল বিষয়ক সংস্থার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর