ফেরিডুবিতে শিশুসহ নিহত ২৯
অনলাইন ডেস্ক :ইন্দোনেশিয়ায় একটি ফেরি পানিতে ডুবে যাওয়ার ঘটনায় শিশুসহ ২৯ জন নিহত হয়েছেন। নিখোঁজ রয়েছেন ৪১ যাত্রী। গতকাল মঙ্গলবার এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা। কর্মকর্তারা আরও জানান, ফেরিটিতে ছিদ্র থাকার কারণেই ডুবে যাওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে। নিখোঁজদের উদ্ধারে চেষ্টা চলছে। ইন্দোনেশিয়ার পরিবহন সংস্থা জানিয়েছে, উপকূল থেকে ফেরিটি ৩শ মিটার পাড়ি দিয়েছিল।এখন পর্যন্ত ২৪টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ৭৪ জনকে। তবে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ৪১ জন। ফেরিটিতে মোট ১৩৯ জন যাত্রী এবং ৪৮টি যানবাহন ছিল বলে জানানো হয়। ইন্দোনেশিয়ায় নিরাপত্তা বিধি না মানায় ও অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাইয়ের কারণে প্রায়ই নৌকা ডুবে বহু মানুষের মৃত্যু হয়।
নাজিব রাজাকের জামিন
অনলাইন ডেস্ক :মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে বুধবার জামিন দেয়া হয়েছে। এদিকে তিনি তার বিরুদ্ধে আনা দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। খবর সিনহুয়ার। বিশ্বাস ভঙ্গের পাশাপাশি নাজিবের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে এসআরসি ইন্টারন্যাশনাল থেকে ১ কোটি ৫ লাখ ডলারের ঘুষ কেলেংকারির সঙ্কে জড়িত থাকার অভিযোগ দায়ের করা হয়। কারণ, এ অর্থ নাজিবের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে জমা করা হয়। তবে নাজিব তার বিরুদ্ধে আনা এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। বিচারক ২ লাখ ৪৭ হাজার ডলারের মুচলেকায় নাজিবের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন এবং তার পাসপোর্ট জমা দেয়ার নির্দেশ দেন। উল্লেখ্য, মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশন নাজিবকে তার বাসভবন থেকে গ্রেফতার করে। এদিকে নাজিবের মুখপাত্র মঙ্গলবার বলেছেন, সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ এবং চলমান অন্যান্য তদন্ত রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত।
নাজিব রাজাক গ্রেফতার
অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে গ্রেফতার করা হয়েছে। রাজধানী কুয়ালালামপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। নাজিবের আইনজীবী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। দেশটির সরকারি গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এমন খবর জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক বার্তা সংস্থা আল জাজিরা। মূলত অর্থ আত্মসাৎ এবং ওয়ানএমডিবি কেলেঙ্কারীতে যুক্ত থাকার অভিযোগেই তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানা গেছে। মালয়েশিয়ার ইনসাইট পোর্টাল জানিয়েছে, ৬৫ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদকে নিজের বাড়ি থেকে বেড়িয়ে একটি পুলিশের গাড়িতে করে যেতে দেখা গেছে। বুধবার তাকে আদালতে হাজির করে ওয়ানএমডিবি কেলেঙ্কারী ইস্যুতে জিজ্ঞাসাবদ করা হবে বলে চ্যানেল নিউজ এশিয়াকে জানিয়েছেন নাজিবের পারিবারিক আইনজীবী। এর আগে মঙ্গলবার রাজাকের সৎ ছেলে এবং হলিউডের প্রযোজক রিজা আজিজকে জিজ্ঞাসাবাদ করে মালয়েশিয়ার দুর্নীতিবিরোধী সংস্থা। প্রসঙ্গত, গত ৯ মে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে এই ওয়ানএমডিবি কেলেঙ্কারীর কারণেই ভরাডুবি হয় রাজাক নেতৃত্বাধীন জোটের। নাজিবের সময়ে বন্ধ হয়ে যাওয়া মামলাটি ফের সক্রিয় হয় নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পরে। মার্কিন তদন্তকারীরা জানান, ওয়ানএমডিবি ফান্ড থেকে অর্থ আত্মসাৎ করে নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রেড গ্রানাইট পিকচার্স ইনকর্পোরেশনের কাজে লাগিয়েছেন রিজা। উল্লেখ্য, এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ব্যানারেই নির্মিত হয়েছিল মার্টিন সোরেসে’র পরিচালনা করা বিখ্যাত সিনেমা ‘দ্য ওলফ অব ওয়াল স্ট্রিট’। ইস্যুটি ধামাচাপ দিতে ওয়ানএমডিবি কেলেঙ্কারী থেকে হাতানো অর্থের প্রাপ্ত লাভ থেকে মার্কিন সরকারকে ৬০ মিলিয়ন ডলার দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল রেড গ্রানাইট কর্তৃপক্ষ।
একজন তরুণকে মন্ত্রীসভায় ঠাঁই দিয়ে তাক লাগিয়ে দিল মালয়েশিয়ার মাহাথির সরকার
মন্ত্রীসভা গঠনে একেবারে তরুণ একজনকে মন্ত্রীসভায় ঠাঁই দিয়ে তাক লাগিয়ে দিল মালয়েশিয়ার মাহাথির মোহাম্মদ সরকার। মাত্র ২৫ বছর বয়সী সাইদ সাদিক আবদুল রহমানকে দেশটির যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী দেয়া হয়েছে। সোমবার মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন সাঈদ সাদিক। দেশের সর্বকনিষ্ঠ মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, তার মতো তরুণকে মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়ে সরকার এটাই প্রমাণ করল যে, তারা তরুণ নেতৃত্বকে স্বাগত জানিয়েছে। তিনি বলেন, সরকার বিশ্বাস করে যে, দেশের তরুণদের হাতে নিজেদের ভাগ্য এবং ভবিষ্যত নির্ধারিত হবে। এই নিয়োগের মাধ্যমে ভবিষ্যতে দেশের চালিকাশক্তিতে তরুণদের অংশগ্রহণ বাড়বে। ১৯৯২ সালের ডিসেম্বরে জন্মগ্রহণ করেন এ তরুণ রাজনীতিবিদ। দেশটির জুহর প্রদেশের পুলাই থেকে নির্বাচনে জিতে পার্লামেন্টে ঠাঁই করে নেন তিনি। এত অল্প বয়সে দায়িত্ব পাওয়ায় সাঈদ সাদিক প্রশংসার সাগরে ভাসছেন রীতিমত। তবে অনেকে সমালোচনা করেছেন, গুরুত্বপূর্ণ একটি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেয়ার মত তার যোগ্যতা হয়েছে কিনা। তবে সাঈদ জানান, যে দায়িত্ব তিনি পেয়েছেন তা যথাযতভাবে পালন করার চেষ্টা করে যাবেন। সবাই মিলে কাজ করলে সফলতা অর্জন সম্ভ্যব বলে তিনি বিশ্বাস করেন। সাঈদ রয়েল মিলিটারি কলেজে পড়াশোনা করলেও পরবর্তীতে মালয়েশিয়া আন্তর্জাতিক ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে সর্বোচ্চ ডিগ্রি নেন।
ট্রাম্পবিরোধী মিছিলে উত্তাল আমেরিকা
রাজধানী ওয়াশিংটনের তাপমাত্রা এখন ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কিন্তু গায়ে ছ্যাঁকা দেওয়া সেই গরম উপেক্ষা করেই পথে নেমেছিলেন হাজার হাজার মানুষ। মুখে স্লোগান,হে হে হো হো, ডোনাল্ড ট্রাম্প হ্যাজ় টু গো। ওয়াশিংটনই শুধু নয়। শিকাগো থেকে বস্টন, লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে নিউইয়র্ক একই ছবি দেখেছে ট্রাম্পের দেশ। ছোট-বড় সব শহরে প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। গরমে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালেও যেতে হয়েছে দুইজনকে। সাধারণ মানুষের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সেই তালিকায় ছিলেন তাবড় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, এমনকি সেলিব্রিটিরাও। মোদ্দা দাবিটা সকলেরই এক। মায়েদের থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়া শিশুদের অবিলম্বে তাদের পরিবারের কাছে ফেরত পাঠানো হোক। ট্রাম্প প্রশাসনের জিরো টলারেন্স নীতির অবসান হোক এখনই। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই এই নীতির দৌলতে খবরের শিরোনামে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাতীয় নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই সীমান্তে এমন কঠোর নীতি নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়ে রেখেছিলেন প্রেসিডেন্ট। কিন্তু তার নিজের দেশের মানুষই সেই নীতির বিরোধিতায় হাতে হাত মিলিয়েছেন। শুক্রবার রাজধানীতে হোয়াইট হাউস এবং পেনসিলভ্যানিয়া অ্যাভিনিউয়ে ট্রাম্প ইন্টারন্যাশনাল হোটেলের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভ দেখান কয়েক হাজার মার্কিন নাগরিক। সপ্তাহান্তের ছুটি কাটাতে প্রেসিডেন্ট নিউ জার্সি যান। গল্ফ খেলেন ন্যাশনাল গল্ফ ক্লাবে। কিছু বিক্ষোভকারী সেখানেও পিছু ধাওয়া করেছিলেন। কিন্তু চার মাইল দূরে তাদের আটকে দেওয়া হয়। ওয়াশিংটনের বিক্ষোভেই শামিল হয়েছিলেন গায়ক লিন-ম্যানুয়েল মিরান্ডা। প্রতিবাদ সভায় নিজের একটি জনপ্রিয় ছোটদের গান গেয়ে বললেন,আমরা এখানে জড়ো হয়েছি, কারণ অনেক মা-বাবাই এখন তাদের শিশুদের ঘুমপাড়ানি গান গেয়ে শোনাতে পারছেন না। লস অ্যাঞ্জেলেসের এক সভায় আবার সরাসরি প্রেসিডেন্টকে এক হাত নিয়েছেন ডেমোক্র্যাট নেত্রী ম্যাক্সিন ওয়াটার্স। তার বক্তব্য, ওদের এত সাহস হয় কী করে, মায়ের কোল থেকে শিশুদের ছিনিয়ে নেয়? প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, আপনি ভেবেছেন আপনি অনেক দূর যেতে পারেন, তাই এভাবে পরিবারগুলিকে ভেঙে ফেলছেন। প্রায় একই সুর শোনা গেছে বস্টনের সভা থেকেও। ডেমোক্র্যাট নেত্রী এলিজ়াবেথ ওয়ারেন সেখানে বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই অনৈতিক নীতি একটাই রাস্তার দিকে আমাদের সকলকে ঠেলে দিয়েছে। আমাদের নতুন করে আবার অভিবাসন নীতি তৈরি করতে হবে। অভিবাসন আর শুল্ক এনফোর্সমেন্ট দফতরকে (আইসিই) ভেঙেই হবে তার সূচনা। শুধু যে ডেমোক্র্যাটরাই ট্রাম্পের বিরোধিতায় নেমেছেন, এমনটা নয়। নর্থ ক্যারোলিনা থেকে ওয়াশিংটনে শুধু মিছিলে শামিল হতে এসেছিলেন দুই তরুণী। দুইজনেই রিপাবলিকান সমর্থক। তাদেরই একজন অ্যালিসন বললেন,একটি শিশুকে তার মায়ের থেকে বিচ্ছিন্ন করাটা হল সবচেয়ে অমানবিক কাজ। ক্যারি নামের অন্য তরুণীর কথায়,মেয়ের সঙ্গে শিশুদের এক ডিটেনশন সেন্টারের ভিডিও দেখছিলাম। দুইজনই কেঁদে ফেলি। শিকাগোয় এদিন ছিল ওয়াশিংটনের মতোই প্রবল গরম। সেখানকার প্রতিবাদ মিছিলে অসুস্থ হয়ে পড়েন অনেকে। তার মধ্যেই দমকল এসে রাস্তায় পানি ছিটিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করে। ছিল পানির পাউচ বিলির ব্যবস্থাও। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য এ সবের পেছনে ডেমোক্র্যাটদের ষড়যন্ত্রই দেখছেন। বিতর্কিত (আইসিই) উদ্দেশে টুইট করে তিনি বলেছেন, আইসিই-র কর্মীরা দেশ থেকে সব অপরাধীদের দূরে সরিয়ে রাখার কাজ দারুণ করছে। কট্টর ডেমোক্র্যাটরা তোমাদের সরিয়ে দিতে চায়। তবে ভয় নেই। সেটা কখনওই হবে না।
চীনের মধ্যাঞ্চলীয় প্রদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১৮
চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হুনান প্রদেশে শুক্রবার রাতের সড়ক দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এতে অপর ১৪ জন আহত হয়েছে। শনিবার দেশটির স্থানীয় কর্তৃপক্ষ একথা জানিয়েছে। খবর বার্তা সংস্থা সিনহুয়া’র। হুনান প্রদেশে শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৪১ মিনিটে এই দুর্ঘটনা ঘটে। একটি এক্সপ্রেসওয়েতে হুনান প্রদেশের একটি ট্রান্সপোর্ট কোম্পানির মালিকানাধীন একটি কোচের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। আহতদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এক্সপ্রেসওয়ের যানচলাচল পুনরায় স্বাভাবিক হয়েছে। এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার কারণ জানতে তদন্ত চলছে।-বাসস
ইউরোপীয় ইউনিয়ন নেতারা অভিবাসন ইস্যুতে সম্মত
দীর্ঘ ১০ ঘণ্টা আলোচনার পর ব্রাসেলসের সম্মেলনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা অভিবাসন ইস্যুতে সম্মত হয়েছেন। এ ইস্যুতে একটি চুক্তি করতে রাজি হলেন তারা। ইউরোপীয়ান কাউন্সিলের সভাপতি ডোনাল্ড টাস্ক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৮টি দেশের নেতারা অভিবাসনসহ অনেক ইস্যুতে সম্মত হয়েছেন। ইউরোপে অভিবাসী প্রবেশ নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। আর ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতে ফ্রি ট্রাভেল সুবিধা থাকায় অভিবাসীদের চাপও বাড়ছে। আগে অভিবাসন, বাণিজ্য ও নিরাপত্ত‍া ইস্যুতে কোনো চুক্তির বিষয়ে ইতালি প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়িয়েছিল। বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) থেকে দুইদিনের জন্য এ বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে জার্মানি অভিবাসন ইস্যুতে আলোচনার জন্য জোর দেয়। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল অভিবাসন ইস্যুকে ইউনিয়নের ‘তৈরি অথবা ভাঙ্গা’ হিসেবেও উল্লেখ করেন। তাছাড়াও ব্রাসেলসের এ সম্মেলনে নিরাপত্তা, ডোনাল্ড ট্রাম্পের শুল্ক আরোপ, ট্রান্স-আটলান্টিক বাণিজ্য, রাশিয়ার ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা, ২০২১ সাল থেকে ইউনিয়নের পরবর্তী বাজেট প্রভৃতি ইস্যু নিয়ে আলোচনা করবে দেশগুলো।
নতি স্বীকার করবে না ইরান মার্কিন চাপে: রুহানি
যুক্তরাষ্ট্রের কোনো ধরনের চাপে ইরান নতি স্বীকার করবে না বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। মঙ্গলবার তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নিষেধাজ্ঞার ফলে সৃষ্ট অর্থনৈতিক চাপ ইরানের সরকার ভালোভাইে শামাল দিতে পারবে। রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত টিভি চ্যানেলে দেয়া ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। খবরে বলা হয়, বিশ্ববাজারে ইরানের মুদ্রার দরে ব্যাপক পতনের পরেও নিজের অর্থনৈতিক পরিকল্পনার পক্ষে সাফাই গান রুহানি। তিনি সরকারের অর্থনৈতিক সাফল্যের কথা উল্লেখ করে বলেন, সাম্প্রতিক কয়েক মাসে সরকারের আয় কমে নি। আর রিয়ালের দরপতন বিদেশি সংবাদ মাধ্যমগুলোর অপপ্রচারের ফল। এতে ইরানের অর্থনীতির তেমন ক্ষতি হবে না বলে জানান তিনি। পাশাপাশি যে কোনো অবস্থায় ইরানের জনগণের মৌলিক সুবিধা প্রদানের ঘোষণা দেন। তার ভাষায়- ‘সবথেকে কঠিন পরিস্থিতিতেও ইরানের জনগণের মৌলিক সুবিধা প্রদান করা হবে। এটা আমার অঙ্গীকার।’ এর আগে বিশ্ববাজারে ইরানের মুদ্রার মূল্যে ব্যাপক পতন ঘটে। ফলে ইরানের ব্যবসায়ীদের আমদানি ব্যয় ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পায়। প্রতিবাদে সোমবার পার্লামেন্টের বাইরে বিক্ষোভ করে দেশটির হাজারো ব্যবসায়ী। তারা তেহরানের শিল্পাঞ্চল গ্র্যান্ড বাজারে সড়ক অবরোধ করে। এর পর থেকে সেখানে অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। সেখানকার টহল জোরদার করা হয়েছে। বার্তা সংস্থা ফার্স-এর খবরে বলা হয়েছে, তেহরানের বাণিজ্যিক অঞ্চল গ্র্যান্ড বাজারে ব্যবসায়ীরা দ্বিতীয় দিনের মতো সড়ক অবরোধ করেছে। তারা সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।
পশ্চিমবঙ্গে বজ্রপাতে মৃত ৫
ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় বাজ পড়ে অন্তত ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার এই ঘটনা ঘটে। খবর ইন্ডিয়া টুডে ও এই সময়’র। খবরে বলা হয়, সোমবার সকাল থেকেই বজ্রবিদ্যুত্‍-সহ ঝড়বৃষ্টি শুরু হয়।‌ এর মধ্যে ২ জন মারা গিয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনায়। একজনের বাড়ি বসিরহাট ২ ব্লকের রাজেন্দ্রপুরে। অন্য জনের বাড়ি বনগাঁর কেউতে পাড়ায়। পুরুলিয়ার বান্দোয়ানে মৃত্যু হয়েছে বছর সাতেকের এক বালকের। অন্য দুটি ব্রজাহতের ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী ও নামখানায়। বাসন্তীর চড়পাড়া গ্রামে এক মহিলা মারা গিয়েছেন। এদিকে, কোচবিহারের মেখলিগঞ্জে সকালে বৃষ্টির সময় নদীতে ডুবে বছর আঠারোর এক যুবক মারা গিয়েছেন। এদিন কলকাতায় বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৪৩ মিলিমিটার। দক্ষিণ ২৪ পরগনার ডায়মন্ড হারবারে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৪৩ মিলিমিটার, ক্যানিংয়ে ৩২ মিলিমিটার। পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়ায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ২৮ মিলিমিটার। মালদায় সেখানে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ অনেকটাই কম, ১৮ মিলিমিটার। ইন্ডিয়া টুডে ও এই সময়।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর