শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০২১
নিউইয়র্কে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ, আন্দোলনকারীদের ওপর গাড়ি হামলা
১২,ডিসেম্বর,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আমেরিকার নিউইয়র্কে বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনকারীদের ওপর গাড়ি নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ছয় বিক্ষোভকারী আহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় শুক্রবার বিকালে ম্যানহাটানে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে অন্তত অর্ধশত মানুষ অংশ নিয়েছিল। কয়েকজন আন্দোলনকারী একটি থেমে থাকা গাড়ির চারপাশে ভিড় করেছিল, তখনই হঠাৎ করে বিএমডব্লিউ সেডান গাড়ি নিয়ে তাদের ওপর তা তুলে দেয়। এ ঘটনায় নারী চালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তবে কারও অবস্থাই গুরুতর নয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।
মৃত্যুকূপে আমেরিকা, প্রাণহানি প্রায় ৩ লাখ
১১ডিসেম্বর,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রাণঘাতি করোনার তাণ্ডবে মৃত্যুকূপে দাঁড়িয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। প্রকোপ দেখা দেয়ার দশ মাস ১০ দিনের মাথায় দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৩ লাখ ছুঁল আজ। এদিনও প্রায় ৩ হাজার মার্কিনির মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন নতুন করে ২ লাখের বেশি। ফলে করোনা রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৬০ লাখ ছাড়িয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২ লাখ ১৭ হাজার ৭৭৯ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এতে করে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ১ কোটি ৬০ লাখ ৩৯ হাজার ৩৯৩ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ হারিয়েছেন ২ হাজার ৯৭৪ জন। এ নিয়ে প্রাণহানি বেড়ে ২ লাখ ৯৯ হাজার ৬৯২ জনে ঠেকেছে। অপরদিকে, সংক্রমণের তুলনায় কম হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩ হাজার ভুক্তভোগী। এতে করে সুস্থতার সংখ্যা ৯৩ লাখ ৩০ হাজার ৮৬৫ জনে পৌঁছেছে। চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি শিকাগোর এক বাসিন্দার মধ্যে প্রথম করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এরপর থেকে ক্রমান্বয়ে ভয়ানক হতে থাকে পরিস্থিতি। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের ধারণা ইতোমধ্যে তাদের দেশের অন্তত ২০ মিলিয়ন (দুই কোটি) মানুষ করোনার শিকার হয়েছেন। দ্য সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) বলছে, প্রকৃত তথ্য হলো, প্রকাশিত সংখ্যার অন্তত ১০ গুণ বেশি মানুষ করোনার ভয়াবহতার শিকার। এর মধ্যে সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হার দীর্ঘ হচ্ছে ক্যালিফোর্নিয়ায়। যেখানে সংক্রমিতের সংখ্যা ১৪ লাখ ৮৭ হাজার ছুঁতে চলেছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২০ হাজার ৬২৫ জনের। টেক্সাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লাখ ১০ হাজারের বেশি। যেখানে প্রাণহানি ঘটেছে ২৪ হাজার ৬৬ জনের। ফ্লোরিডায় করোনার শিকার ১০ লাখ ৯৫ হাজার মানুষ। ইতোমধ্যে সেখানে ১৯ হাজার ৫৯১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। ইলিনয়েসে এখন পর্যন্ত করোনার ভুক্তভোগী ৮ লাখ ২৩ হাজার। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ১৪ হাজার ৮৪৫ জন। প্রাণহানিতে শীর্ষ শহর নিউইয়র্কে আক্রান্ত ৭ লাখ ৮৩ হাজারের কাছাকাছি। এর মধ্যে না ফেরার দেশে ৩৫ হাজার ৩২৬ জন ভুক্তভোগী। জর্জিজায় করোনা রোগীর সংখ্যা ৫ লাখ ২৫ হাজার। এর মধ্যে প্রাণ ঝরেছে ৯ হাজার ৯৭৫ জনের। পেনসিলভেনিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ৬৩ হাজার অতিক্রম করেছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ১০৪ জন মানুষ। নিউ জার্সিতে করোনার শিকার ৩ লাখ ৯৭ হাজার মানুষ। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ১৭ হাজার ৭৪৬ জনের। এছাড়া উত্তর ক্যারোলিনা, টেনেসিস, উইসকনসিন, অ্যারিজোন, ওহিও, মিশিগানের মতো শহরগুলোতে আক্রান্তের সংখ্যা তিন লাখ ছাড়িয়েছে।
উচ্চতা বেড়েছে মাউন্ট এভারেস্টের
০৯ডিসেম্বর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ৮৬ সেন্টিমিটার উচ্চতা বেড়েছে মাউন্ট এভারেস্টের। মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) মাউন্ট এভারেস্টের নতুন উচ্চতার কথা যৌথভাবে ঘোষণা করলো নেপাল এবং চিন। এই দুই দেশের দাবি অনুযায়ী, মাউন্ট এভারেস্টের নতুন উচ্চতা হলো ৮,৮৪৮ মিটার ৮৬ সেন্টিমিটার। বিশ্বের উচ্চতম শৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্টের সঠিক উচ্চতা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই একটা মতভেদ তৈরি হয়েছিলো চিন এবং নেপালের মধ্যে। দুই দেশই নিজ নিজ ভাবে এভারেস্টের উচ্চতা পরিমাপ করে। ১৯৫৪ সালে সার্ভে অব ইন্ডিয়া যে পরিমাপ করেছিলো তাতে বলা হয়েছিলো বিশ্বের উচ্চতম শৃঙ্গের উচ্চতা ৮,৮৪৮ মিটার (২৯ হাজার ২৮ ফুট)। নেপাল সেই পরিমাপকেই মান্যতা দেয়। অন্যদিকে, ১৯৭৫ এবং ২০০৫ সালে এভারেস্টের উচ্চতা মাপে চিন। প্রথম বারে তাদের হিসেব অনুযায়ী এভারেস্টের উচ্চতা ছিলো ৮,৮৪৪ মিটার ১৩ সেন্টিমিটার। ২০০৫ সালে তারা দাবি করে এভারেস্টের উচ্চতা ৮,৮৪৪ মিটার ৪৩ সেন্টিমিটার। অর্থাৎ সার্ভে অব ইন্ডিয়ার পরিমাপের থেকে প্রায় ৪ মিটার মিটার কম। ২০১৫র ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর নেপাল সরকার ঘোষণা করে এভারেস্টের উচ্চতা বেড়েছে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, ২০১৫তে নেপালে ভূমিকম্পের ফলে হিমালয় পর্বতমালায় ব্যাপক পরিবর্তন আসে। যার জেরে উচ্চতারও পরিবর্তন হতে পারে এভারেস্টের। এমনটাও জানিয়েছিলেন তারা। ২০১৯তে নেপাল সফরে গিয়ে চিনা প্রেসিডেন্ট শি চিনফিং যৌথভাবে এভারেস্টের উচ্চতা মাপার বিষয়টি স্থির করে আসেন। এরপর দুই দেশ যৌথভাবে এভারেস্টের উচ্চতা মাপে। মঙ্গলবার এভারেস্টের নতুন উচ্চতা প্রকাশ করলো তারা। এ প্রসঙ্গে নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদীপ গায়ালি বলেন, একটা ঐতিহাসিক মুহূর্ত। মাউন্ট সাগরমাথা চোমোলুংমা (তিব্বতি ভাষায় মাউন্ট এভারেস্টের নাম)র নতুন উচ্চতা নির্ধারণ করলাম আমরা। এভারেস্টের উচ্চতা মাপার কাজ প্রথম শুরু হয় ১৮৪৯ সালে। সেই উচ্চতা মাপার পুরোধা ছিলেন বাঙালি গণিতজ্ঞ রাধানাথ সিকদার।
২৭ ডিসেম্বর মহামারি প্রস্তুতি দিবস পালন করবে জাতিসংঘ
০৮ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাসের মতো মহামারি প্রতিরোধে বিশ্বব্যাপী প্রস্তুতি ব্যবস্থা জোরদার করতে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ ২৭ ডিসেম্বরকে আন্তর্জাতিক মহামারি প্রস্তুতি দিবস ঘোষণা করেছে। সোমবার (৭ ডিসেম্বর) জাতিসংঘ এই ঘোষণা দিয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়। খবর বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সির। মহামারি প্রতিরোধে সতর্কতা, প্রস্তুতি এবং অংশীদারিত্বের গুরুত্ব তুলে ধরার লক্ষ্যকে সামনে রেখে দিবসটি পালন করা হবে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়। করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে বিশ্বের শতাধিক নেতা জাতিসংঘের ভার্চুয়াল বিশেষ অধিবেশনে অংশ নেয়ার পরে এই সিদ্ধান্তের খরব আসল। অধিবেশনে বিশ্বনেতারা করোনা ভ্যাকসিনের ন্যায়সঙ্গত বিতরণের গ্যারান্টি দেয়ার জন্য জাতিসংঘকে জরুরি ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছিলেন। ভিয়েতনামের জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত ডাং ডিন কুই বলেন, মহামারি হিসেবে করোনাভাইরাস প্রথম নয় আবার শেষও নয়। মহামারি আমাদের সার্বিক প্রস্তুতি বাড়ানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করেন তিনি। গত বছর ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম ভাইরাসটি ধরা পড়ার পর থেকে বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ১৫ লাখ ছাড়িয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের দেয়া তথ্য মতে, সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৬ কোটি ৭৩ লাখ ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৪ কোটি ৩০ লাখের বেশি মানুষ।
নিউইয়র্কের ঐতিহাসিক গির্জায় আগুন, আহত ৪
০৭ডিসেম্বর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের ম্যানহাটন এলাকার ইস্ট ভিলেজে অবস্থিত ঐতিহাসিক কলেজিয়েট গির্জায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে ওই গির্জাটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়াও এ ঘটনায় কমপক্ষে চারজন ব্যক্তি আহত হয়েছেন। খবর নিউইয়র্ক টাইমস। প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার ভোরে ওই গির্জায় আগুন লাগে। এতে চার জন আহত হন। গির্জার পাশের একটি পাঁচতলা খালি ভবন থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। পরে তা দ্রুত গির্জায় ছড়িয়ে পড়ে। পরে নিউইয়র্ক শহরের দমকল বিভাগের সহকারী প্রধান জন হজেন্স বলেন, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। উল্লেখ্য, ১৮৯২ সালে ওই গির্জাটি নির্মিত হয়। নিউইয়র্কের মেয়র বিল ডে ব্ল্যাসিও টুইটার পোস্টে বলেন, গির্জায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা হৃদয়বিদারক। তবে এ গির্জা পুনর্নির্মাণের জন্য যা কিছু সম্ভব আমরা তার সবই করব।
দূরের গ্রহাণু থেকে মাটি নিয়ে ফিরল জাপানি মহাকাশযান
০৬ডিসেম্বর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চাঁদ থেকে মাটি আনার ৫১ বছর পর প্রথমবার কোনো গ্রহাণু থেকে মাটি নিয়ে পৃথিবীতে ফিরল জাপান স্পেস এজেন্সির মহাকাশযান হায়াবুসা-২। শনিবার ভোররাতে ৩ কোটি কিলোমিটার দূরের কোনো গ্রহাণু (অ্যাস্টারয়েড) থেকে মাটি নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বুকে নামে মহাকাশযানটি। হায়াবুসা-২ টুইটারে তাদের এই সফলতার খবর জানিয়েছে। মিশন সম্পর্কে আরো তথ্য তারা জানাবে বলে সিএনএন জানিয়েছে। ২০১৪ সালের ৩ ডিসেম্বর যাত্রা শুরু করে হায়াবুসা-২। এটি ২০১৮ সালের জুনে মঙ্গল আর বৃহস্পতির মাঝখানে থাকা গ্রহাণুপুঞ্জের (অ্যাস্টারয়েড বেল্ট) সদস্য গ্রহাণু রিউগুতে পৌঁছায়। মহাকাশযানটি ২০১৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সেখান থেকে একটি নমুনা সংগ্রহ করে। এরপর কপার বুলেটের সাহায্যে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ৩৩ ফুট গর্ত তৈরি করে। সেই গর্ত থেকে ২০১৯ সালের ১১ জুলাই নমুনা সংগ্রহ করে হায়াবুসা-২। নমুনা সংগ্রহের পর ওই বছরের নভেম্বরে যাত্রা শুরু করে আজ সফলভাবে অবতরণ করে মহাকাশযানটি। অভিযানের গবেষক দল বলেন, এক গ্রাম নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এক গ্রাম শুনতে কম মনে হতে পারে। তবে আমাদের প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে এটুকুই যথেষ্ট। বিশ্বে প্রথম এই কৃতিত্বের জন্য জাপানকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে নাসা। হায়াবুসা-২ এর এই গ্রহাণু বিজয়কে নাসা বলেছে একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। গত ২০ অক্টোবর আরো একটি গ্রহাণু বেন্নু কে খুঁড়েও তার মাটি উপড়ে নিতে সফল হয়েছে নাসার পাঠানো মহাকাশযান ওসিরিস-রেক্স। যার পৃথিবীতে ফেরার কথা ২০২৩ সালের শেষ দিকে। নাসা জানায়, জাপানের হায়াবুসা-২ এবং নাসার ওসিরিস-রেক্স-এর কৃতিত্ব এটাই, কোনো দুর্ঘটনা ছাড়াই তারা নামতে পেরেছে গ্রহাণুতে। তার বুকে খননকাজও সারতে পেরেছে নিরাপদে। হায়াবুসা-২ এর নাম ইতিহাস হয়ে থাকবে। প্রথম এই জাপানি মহাকাশযানের দৌলতেই গ্রহাণুকে খুঁড়ে উপড়ে আনা মাটি পৃথিবীতে আনতে পারল গবেষণার জন্য। যা আগামী দিনে কোনো গ্রহাণুতে কী কী খনিজ পদার্থ রয়েছে, সেগুলো আমাদের জন্য কতটা জরুরি তা বুঝতে সাহায্য করবে।
চীনে কয়লা খনিতে গ্যাস লিক, ১৮ জনের মৃত্যু
০৫ডিসেম্বর,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনে একটি কয়লার খনিতে গ্যাস লিকের ঘটনায় ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের একটি কয়লা খনিতে কার্বন মনোঅক্সাইড গ্যাস লিকের ঘটনায় আরও পাঁচজন নিখোঁজ রয়েছে। চীনের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন সিসিটিভির এক খবরে জানানো হয়েছে যে, চোংকিং পৌরসভার দিয়াওসুইডং খনিতে দুর্ঘটনার পর একজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। এই ঘটনার তদন্ত চলছে। চীনে খনি দুর্ঘটনা খুবই সাধারণ ঘটনা। বিভিন্ন খনিতে নিরাপত্তা বিধিগুলো ঠিকমতো পালন করা হয় না। ফলে প্রায়ই দুর্ঘটনায় বহু শ্রমিকের মৃত্যু হচ্ছে। কর্তৃপক্ষের নজর এড়িয়ে বিভিন্ন স্থানে বেশ কিছু অবৈধ খনির কার্যক্রম চলছে। সিসিটিভির খবর অনুযায়ী, ভূগর্ভ থেকে বিভিন্ন উপাদান সংগ্রহ করতে মাটি খনন করছিলেন ওই খনির শ্রমিকরা। সে সময়ই সেখানে গ্যাস লিকের ঘটনা ঘটেছে। গত দু'মাস ধরে বন্ধ থাকার পর দিয়াওসুইডং খনিতে কাজ শুরু করেছিলেন স্থানীয় শ্রমিকরা। এর আগে গত সেপ্টেম্বরে আরও একটি খনিতে কাজের সময় অতিমাত্রায় কার্বন মনোঅক্সাইড উৎপন্ন হওয়ায় ১৬ শ্রমিকের মৃত্যু হয়। এছাড়া গত বছরের ডিসেম্বরে গুইঝো প্রদেশে একটি কয়লা খনিতে বিস্ফোরণের ঘটনায় কমপক্ষে ১৪ জনের মৃত্যু হয়।
টানা তিন দিন রেকর্ড মৃত্যু দেখল মার্কিনিরা
০৪ডিসেম্বর,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভ্যাকসিন আবিষ্কারের সুখবর মিললেও করোনা পরিস্থিতির আশার আলো নেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। টানা তিন দিন রেকর্ড মৃত্যুর ঘটনা ঘটল দেশটিতে। গত একদিনে প্রায় ৩০ হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে ট্রাম্পের দেশে। ভয়াবহ অবস্থা সংক্রমণেও। ফের রেকর্ড শনাক্তে করোনা রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৪৫ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। উন্নতি নেই সুস্থতার হারে। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২ লাখ ১৮ হাজার ৫৭৬ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এতে করে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ১ কোটি ৪৫ লাখ ৩৫ হাজার ১৯৬ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ হারিয়েছেন ২ হাজার ৯১৮ জন। এ নিয়ে প্রাণহানি বেড়ে ২ লাখ ৮২ হাজার ৮২৯ জনে ঠেকেছে। অপরদিকে, সংক্রমণের তুলনায় কম হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হয়েছেন ৯৮ হাজার ভুক্তভোগী প্রায়। এতে করে সুস্থতার সংখ্যা ৮৫ লাখ ৬১ হাজার ৪২৭ জনে পৌঁছেছে। চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি শিকাগোর এক বাসিন্দার মধ্যে প্রথম করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এরপর থেকে ক্রমান্বয়ে ভয়ানক হতে থাকে পরিস্থিতি। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের ধারণা ইতোমধ্যে তাদের দেশের অন্তত ২০ মিলিয়ন (দুই কোটি) মানুষ করোনার শিকার হয়েছেন। দ্য সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) বলছে, প্রকৃত তথ্য হলো, প্রকাশিত সংখ্যার অন্তত ১০ গুণ বেশি মানুষ করোনার ভয়াবহতার শিকার। এর মধ্যে সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হার দীর্ঘ হচ্ছে টেক্সাসে। এ শহরে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ১৭ হাজারের বেশি। যেখানে প্রাণহানি ঘটেছে ২২ হাজার ৭২৯ জনের। ক্যালিফোর্নিয়ায় সংক্রমিতের সংখ্যা ১২ লাখ ৯১ হাজারের বেশি। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৫৮৮ জনের। ফ্লোরিডায় করোনার শিকার ১০ লাখ ২৯ হাজারের বেশি মানুষ। ইতোমধ্যে সেখানে ১৮ হাজার ৮৭৪ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। ইলিনয়েসে এখন পর্যন্ত করোনার ভুক্তভোগী ৭ লাখ ৬০ হাজার প্রায়। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ১৩ হাজার ৬২৫ জন। প্রাণহানিতে শীর্ষ শহর নিউইয়র্কে আক্রান্ত ৭ লাখ ১৩ হাজারের বেশি। এর মধ্যে না ফেরার দেশে ৩৪ হাজার ৮২৯ জন ভুক্তভোগী। জর্জিজায় করোনা রোগীর সংখ্যা ৪ লাখ ৮৮ হাজার। এর মধ্যে প্রাণ ঝরেছে ৯ হাজার ৬৪৮ জনের। নিউ জার্সিতে করোনার শিকার ৩ লাখ ৬০ হাজার মানুষ। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ১৭ হাজার ৩৪৬ জনের। এছাড়া উত্তর ক্যারোলিনা, টেনেসিস, উইসকনসিন, অ্যারিজোন, ওহিও, পেনসিলভেনিয়া, মিশিগানের মতো শহরগুলোতে আক্রান্তের সংখ্যা তিন লাখ ছাড়িয়েছে।
এক সপ্তাহেই দ্বিতীয় ঘূর্ণিঝড়ের কবলে শ্রীলংকা ও ভারত
০৩ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শ্রীলংকা ও দক্ষিণ ভারত এক সপ্তাহের মাঝে দ্বিতীয় ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়েছে। বঙ্গোপসাগর থেকে তৈরি হওয়া এ ঘূর্ণিঝড়টির নাম বুরেভি। খবর এএফপি। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, বুধবার রাতে ১০০ কিলোমিটার (৬০ মাইল) বেগে শ্রীলংকায় আঘাত হানার পর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ভারতে প্রবেশ করবে। এ ঘূর্ণিঝড়ের কারণে তীব্র ঝড়সহ ২০ সেন্টিমিটার (৮ ইঞ্চি) বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে তিনদিনের জন্য শ্রীলংকার দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলের স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি জেলেদের সমুদ্রে যেতেও নিষেধ করা হয়েছে। এদিকে ভারতের ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স (এনডিআরএফ) মঙ্গলবার বলেছে, তারা তামিলনাড়ু ও কেরালায় ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় ২৪টি দল মাঠে নামিয়েছে। পাশাপাশি ভারতের আবহাওয়া বিভাগ দুটি রাজ্যের অনেকগুলো জায়গায় রেড অ্যালার্ট জারি করেছে এবং শুক্রবার পর্যন্ত অনেক জায়গাতে মাছ ধরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এক টুইটারে গতকাল এনডিআরএফের ডিরেক্টর জেনারেল বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের জন্য আমরা প্রস্তুত।